X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

মুক্তিযোদ্ধাদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ০১ আগস্ট ২০২০, ১২:৪৭

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা (ছবি: ফোকাস বাংলা) অন্যান্য দিবসের মতো, শুভেচ্ছার নিদর্শন স্বরূপ প্রধানমন্ত্রী আজ শনিবার (১ আগস্ট) ঈদুল আজহার দিনে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের গজনভি রোডে অবস্থিত শহীদ ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা পুনর্বাসন কেন্দ্রে (মুক্তিযোদ্ধা টাওয়ার -১) অবস্থানরত যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের ফুল, ফল ও মিষ্টি উপহার পাঠান।

প্রধানমন্ত্রীর সহকারী ব্যক্তিগত সচিব-২ গাজী হাফিজুর রহমান লিকু, উপ প্রেস সচিব কে এম সাখাওয়াত মুন এবং সহকারী প্রেস সচিব এবিএম সারওয়ার-ই-আলম সরকার শনিবার সকালে তাদের হাতে এই উপহার সামগ্রী পৌঁছে দেন।

যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা এবং শহীদ পরিবারের সদস্যরা স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, ঈদ ও পহেলা বৈশাখের মতো প্রতিটি জাতীয় দিবস ও উৎসবে তাদের স্মরণ করায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্ট হত্যাযজ্ঞের শহীদদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং প্রধানমন্ত্রীর সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করেন। সূত্র: বাসস।

/এফএস/

সম্পর্কিত

বন্ধুদের স্মৃতিতে অমলিন শেখ কামাল

বন্ধুদের স্মৃতিতে অমলিন শেখ কামাল

মাহমুদুল্লাহদের রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন

মাহমুদুল্লাহদের রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

৩০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট কেনার সিদ্ধান্ত

৩০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট কেনার সিদ্ধান্ত

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৩৭

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, আদর্শ ও জনকল্যাণে অবদানই রাজনীতির মূলমন্ত্র হওয়া উচিত। দুষ্টদের লালন-পালন ও পৃষ্ঠপোষকতা দেওয়া রাজনীতি নয়। রাজনীতি হতে হবে পরিশীলিত, পরিমার্জিত। রাজনীতির প্রতিপক্ষকে কখনও শত্রু ভাবা ঠিক নয়। শত্রুকে নিধন করতে হবে, সশরীরে মেরে ফেলতে হবে, এটা রাজনীতি হতে পারে না। রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলা করতে হবে। রাজনীতির মৌলিক সত্তার জায়গায় দল-মত নির্বিশেষে আমাদের এক হতে হবে।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পিরোজপুর জেলা প্রশাসন আয়োজিত আলোচনা সভায় রাজধানীর বেইলি রোডের সরকারি বাসভবন থেকে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরও বলেন, একটি পরিশীলিত, পরিমার্জিত, রূচিবান ও সম্ভাবনাময় ব্যক্তিত্ব ছিলেন শেখ কামাল। যিনি এ দেশের ক্রীড়াঙ্গন, সাংস্কৃতিক অঙ্গন ও রাজনীতিতে অনন্য-সাধারণ অবদান রাখতে পারতেন। অথচ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট পরিবারের সদস্যদের সাথে তাকেও নিষ্ঠুরভাবে হত্যা করা হয়। তিনি ছিলেন বাংলাদেশে আধুনিক ক্রীড়ার জনক। অপরদিকে বাঙালি সংস্কৃতিকে পূর্ণতা দেওয়ার জন্য সংস্কৃতির বিভিন্ন ধারা তিনি লালন করতেন, চর্চা করতেন। অন্যদিকে রাজনীতি ছিল তার জন্মসূত্রে পাওয়া। রাজনীতিতে তিনি নিজের জায়গা দখলের জন্য কখনও ক্ষমতার অপব্যবহারের মানসিকতা দেখাননি। বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর শেখ কামাল সম্পর্কে বিরূপ কথা প্রচার করে বঙ্গবন্ধু পরিবারকে বিতর্কিত করার অপচেষ্টা করা হয়েছে। এটা ছিল জঘন্য মিথ্যাচার।

শ ম রেজাউল করিম আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছেন, নিজের যা কিছু সামর্থ্য, যা কিছু ভালো তা উৎসর্গ করে দিয়ে দেশের কল্যাণে ও মানুষের উন্নয়নে নিজেকে নিবেদন করার নাম রাজনীতি। বঙ্গবন্ধু জীবনে কখনোই অনৈতিক কর্মকাণ্ডে সম্পৃক্তদের, কালো টাকার মালিকদের রাজনীতিতে এনে পৃষ্ঠপোষকতা দেননি। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনা বলেন, নিজের বিত্ত-বৈভবের জন্য, প্রাচুর্যের জন্য রাজনীতি নয়। মানুষের পাশে দাঁড়ানো, তার দুঃখ-কষ্টের সাথী হওয়া, গোটা জাতির স্বপ্ন পূরণের মাধ্যমে দারিদ্র্য, অসহায়ত্ব ও বৈষম্য দূর করার নাম রাজনীতি।

পিরোজপুরের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক চৌধুরী রওশন ইসলামের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত ছিলেন পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাঈদুর রহমান ও পিরোজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম এ হাকিম হাওলাদার। পিরোজপুর জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুলু, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক গোপাল বসু, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার গৌতম নারায়ণ চৌধুরীসহ পিরোজপুরের বিভিন্ন সরকারি দফতরের কর্মকর্তা এবং স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ করেন।

/জেইউ/এমএস/

সম্পর্কিত

শেখ হাসিনা বেঁচে থাকতে কেউ অনাহারে মারা যাবে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

শেখ হাসিনা বেঁচে থাকতে কেউ অনাহারে মারা যাবে না: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৫:৪৫

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগল বাংলাদেশে ২ কোটি ২৯ লাখ টাকা মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাট পরিশোধ করেছে।  গত মে ও জুন মাসের ভ্যাটের বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) রিটার্ন দিয়ে প্রতিষ্ঠানটি সরকারি কোষাগারে এ টাকা জমা করেছে।

ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেট সূত্রে জানা গেছে, গত মে মাসের ভ্যাট রিটার্নের বিপরীতে ৫৫ লাখ ৭৭ হাজার ৭০৪ টাকা ভ্যাট দিয়েছে গুগল। আর জুন মাসের রিটার্নের বিপরীতে দিয়েছে ১ কোটি ৭৩ লাখ ৭৬ হাজার ৮৩২ টাকা। সিঙ্গাপুরের সিটি ব্যাংক-এনএ এর শাখা থেকে ভ্যাটের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

গত ২৩ মে প্রথম অনাবাসী প্রতিষ্ঠান হিসেবে গুগল ভ্যাটের নিবন্ধন নেয়। কিন্তু প্রস্তুতির জন্য মে ও জুন মাসের রিটার্ন জমার জন্য সময় চেয়েছিল গুগল। ভ্যাট বিভাগ সেই আবেদনে সাড়া দেয়। এখন ওই দুই মাসের রিটার্ন জমা দিল গুগল।

ঢাকা দক্ষিণ ভ্যাট কমিশনারেটের কমিশনার এস এম হুমায়ন কবির বলেন, ‘গুগলের কাছ থেকে মে ও জুন মাসের ভ্যাট রিটার্ন এসেছে।

এর আগে গত মাসে প্রথমবারের মতো কোনও অনাবাসী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ফেসবুক ভ্যাট রিটার্ন দিয়ে ২ কোটি ৪৪ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়।

/জিএম/এমএস/

সম্পর্কিত

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

বিধিনিষেধ আরও ৫ দিন বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

বিধিনিষেধ আরও ৫ দিন বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৫:৫৯

বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠপুত্র, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ১০ টাকা মূল্যমানের স্মারক ডাকটিকিট, ১০ টাকার উদ্বোধনী খাম ও ৫ টাকা মূল্যের ডাটাকার্ড অবমুক্ত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এগুলো উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম।

এ সময় ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব মো. আফজাল হোসেন এবং ডাক অধিদফতরের মহাপরিচালক মো. সিরাজ উদ্দিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

/পিএইচসি/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

দেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

দেশে কেউ গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

হত্যার বিচার করেছি, ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা এখনও আবিষ্কার হয়নি: প্রধানমন্ত্রী

হত্যার বিচার করেছি, ষড়যন্ত্রের পেছনে কারা এখনও আবিষ্কার হয়নি: প্রধানমন্ত্রী

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৩৬

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমার আব্বা যেমন সারা জীবন এই দেশের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন, সন্তান হিসেবে আমরাও। একদিকে যেমন পিতৃস্নেহ বঞ্চিত হয়েছি, কিন্তু আমরা কখনও সেটাকে কষ্ট মনে করিনি। আমার মা সেটা করতে দেননি। 

তিনি বলেন, কোনও হা-হুতাশ বা অতিরিক্ত চাওয়া- সেগুলো আমাদের ছিল না। খুব সাধারণভাবে জীবনযাপন করা, একটা আদর্শ নিয়ে চলা, দেশ ও দেশের মানুষকে ভালোবাসা এবং মানুষের কল্যাণে কাজ করা- এটাই আমাদের শিক্ষা। সেই শিক্ষাই কামাল সব সময় অনুসরণ করেছে। 

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) ‘ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন এবং শেখ কামাল জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ পুরস্কার, ২০২১’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ৭৪ সালের ১৬ ডিসেম্বর একটা চক্রান্ত করে কামালকে গুলি করা হয়। তাকে হত্যারও চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু সে যখন বেঁচে যায়, তখন তার বিরুদ্ধে নানা ধরনের অপপ্রচার চালানো হয়। 

প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের শেখ কামাল অডিটোরিয়ামে যুক্ত হন তিনি। 

শেখ হাসিনা বলেন, অথচ শেখ কামাল রাষ্ট্রপতি বা প্রধানমন্ত্রীর ছেলে, জাতির পিতার ছেলে। অত্যন্ত সাদাসিধা জীবনযাপন করতো সে। কখনও বাবা প্রধানমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতি সে জন্য অর্থ-সম্পদের দিকে তার কোনও দৃষ্টি ছিল না। ব্যবসা-বাণিজ্যের দিকেও তার কোনও দৃষ্টি ছিল না। 

তিনি বলেন, দেশকে গড়ে তোলা, দেশের মানুষের পাশে থাকা বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা সাংস্কৃতিক অঙ্গন; এসব কিছুই ছিল শেখ কামালের কাছে সব থেকে বড়। সে একজন সংস্কৃতিমনা, আবার রাজনীতিবিদ। কখনও বিলাস-ব্যসন- এসব দিকে তার দৃষ্টি ছিল না। এটা আমার বাবা-মায়ের শিক্ষা ছিল। তাছাড়া একটা যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ, সেখানে তো বিলাসিতা করার সুযোগ নেই।  

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যে জাতির জন্য আমার বাবা এত ত্যাগ স্বীকার করলেন, বছরের পর বছর জেল খাটলেন; সেখানে এই দেশের কিছু সংখ্যক মানুষই ষড়যন্ত্র করে তাকে নির্মমভাবে হত্যা করলো। 

তিনি বলেন, নূর আর কামাল একসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন কর্নেল ওসমানীর এডিসি হিসেবে কাজ করেছে। যখন বাসা আক্রমণ করে, কামাল নিচের বারান্দায় চলে যায়। সে যখন দেখে নূর-হুদা একসঙ্গে ঢুকছে, তাদের তখন বলেছিল যে আপনারা এসে গেছেন? খুব ভালো হয়েছে। দেখেন বাসা কারা আক্রমণ করেছে। এই কথা শেষ করতে পারেনি, ওই নূরের হাতের অস্ত্রই গর্জে ওঠে। ওরা ওখানেই কামালকে নির্মমভাবে গুলি চালিয়ে হত্যা করে। 

শেখ হাসিনা বলেন, এত বড় বিশ্বাসঘাতকতা এই বাংলাদেশে ঘটে গেছে। ১৫ আগস্ট যদি আজকে বাঙালির জীবনে না ঘটতো তাহলে এই জাতি অনেক আগেই বিশ্বে একটা মর্যাদা নিয়ে চলতো। এই হত্যার পর বাংলাদেশকে ইসলামিক রিপাবলিক অফ বাংলাদেশ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিল। যদিও সেটা টিকেনি। কাজেই চক্রান্তটা কোথায়, কীভাবে ছিল সেটা নিশ্চয়ই দেশের মানুষ এত দিনে উপলব্ধি করতে পারেন। 

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি আর রেহানা দুজনে বিদেশে ছিলাম, তাই বেঁচে গেছি। কিন্তু হারিয়েছি আমাদের সবাইকে। তবু দেশের মানুষের জন্য যদি কিছু করে যেতে পারি সেটাই হবে সব থেকে বড় পাওয়া। 

 

/পিএইচসি/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

বিধিনিষেধ আরও ৫ দিন বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

বিধিনিষেধ আরও ৫ দিন বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

বিধিনিষেধ আরও ৫ দিন বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:৪২

করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে চলমান কঠোর বিধিনিষেধের মেয়াদ আগামী মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) মধ্যরাত ১২টা পর্যন্ত বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। 

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে এ প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। প্রজ্ঞাপনে দেশের অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া শিল্প, কলকারখানা বিধিনিষেধের আওতা-বহির্ভূত থাকবে।

এর আগে মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) করোনা পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে করণীয় নির্ধারণে সরকারের উচ্চপর্যায়ের নীতিনির্ধারকদের এক সভায় লকডাউন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সভায় সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

সচিবালয়ে সভা শেষে তিনি জানান, আগামী ১১ আগস্ট থেকে দোকানপাট ও অফিস-আদালত খুলে দেওয়া হবে, সীমিত পরিসরে চলবে গণপরিবহনও। তবে এর আগেই সব কর্মজীবী মানুষকে করোনার টিকা গ্রহণ করতে হবে।

টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা সম্পর্কে তিনি জানান, ৭ আগস্ট থেকে সারা দেশে ১৪ হাজার কেন্দ্রে টিকা দেওয়া হবে। ৭ থেকে ১০ আগস্ট, তিন দিনের মধ্যে ১ কোটি কর্মজীবী মানুষ টিকা পাবেন। কোনও শ্রমজীবী মানুষ টিকা গ্রহণ না করে কর্মস্থলে যেতে পারবেন না, দোকানদার দোকান খুলতে পারবেন না, চালক গাড়ি চালাতে পারবেন না। টিকা গ্রহণের ক্ষেত্রে পঞ্চাশোর্ধ্ব দোকানদার, গণপরিবহনের চালক, সহকারী ও সুপারভাইজাররা অগ্রাধিকার পাবেন বলেও জানান মন্ত্রী।

ভ্যাকসিন না নিয়ে কেউ আর কর্মস্থলে আসতে পারবে না উল্লেখ করে আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, এখন ওয়েবসাইটে ভ্যাকসিনের তথ্য আছে, কেউ মিথ্যা তথ্য দিতে পারবে না।

প্রসঙ্গত, গেলো বছর মার্চের ৮ তারিখ করোনার প্রথম সংক্রমণ দেশে ধরা পড়ে। দ্বিতীয় ধাক্কায় চলতি বছরের জুন মাসে অবস্থা আশঙ্কাজনক পর্যায়ে পৌঁছালে ১ জুলাই থেকে সারাদেশে কঠোর বিধিনিষেধ জারি করে সরকার। এ সময় গণপরিবহনের সঙ্গে বন্ধ রয়েছে সরকারি বেসরকারি অফিস এবং ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানও। ঈদুল আজহা উপলক্ষে আট দিনের জন্য বিধিনিষেধ শিথিল করে সরকার। পরে ২৩ জুলাই থেকে আবারও বিধিনিষেধ জারি হয়েছে, যা ৫ আগস্ট পর্যন্ত চলার কথা ছিল।

 

/এসআই/ইউআই/এনএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শত্রু ভাবা ঠিক নয়: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

শেখ কামালের জন্মবার্ষিকীতে স্মারক ডাকটিকিট উদ্বোধন

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

আব্বার মতো আমরাও ত্যাগ স্বীকার করেছি: প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষ

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

রাজউক ও অন্যান্য সংস্থাকে মশকনিধন অভিযানের নির্দেশ স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

বিশ্বের সবচেয়ে মোটা গাছ

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

টিকা ছাড়া শরীরে খালি সিরিঞ্জ পুশ, ২ নার্সকে প্রত্যাহার

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

বসুন্ধরা কিংস-মোহনবাগান লড়াই ২৪ আগস্ট

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে, জাতিসংঘকে সতর্ক করলেন রাষ্ট্রদূত

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

‘কিশোর গ্যাং’ কালচার বন্ধে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক চর্চায় যুক্ত করার উদ্যোগ

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ক্ষমতা নয় জাতি গঠনে নিবেদিত ছিলেন শেখ কামাল: মেয়র তাপস

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

ইরানে হামলা চালাতে প্রস্তুত ইসরায়েল: গান্তজ

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

রাজধানীতে প্রতারক চক্রের চার সদস্য গ্রেফতার

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

১০ সহকর্মীকে ছাঁটাই করায় বিক্ষোভ তাদের

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

লেবাননে বিমান হামলা শুরু করেছে ইসরায়েল

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

বগুড়ায় আরও ১১ মৃত্যু

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বন্ধুদের স্মৃতিতে অমলিন শেখ কামাল

বন্ধুদের স্মৃতিতে অমলিন শেখ কামাল

মাহমুদুল্লাহদের রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন

মাহমুদুল্লাহদের রাষ্ট্রপতির অভিনন্দন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

টানা দ্বিতীয় ম্যাচ জয়ে টাইগারদের প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

৩০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট কেনার সিদ্ধান্ত

৩০টি অক্সিজেন প্ল্যান্ট কেনার সিদ্ধান্ত

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

ঢাকার ‍তিন হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী ২১৪ জন

‘এম ভি ইকরামকে’ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে রূপান্তর করা হবে: আ ক ম মোজাম্মেল হক

‘এম ভি ইকরামকে’ মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে রূপান্তর করা হবে: আ ক ম মোজাম্মেল হক

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

ঢাকার সরকারি ৯ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

ডেঙ্গু পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক রূপ নিতে পারে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

ডেঙ্গু পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক রূপ নিতে পারে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

বঙ্গবন্ধুর আবারও উদ্বেগ

বঙ্গবন্ধুর আবারও উদ্বেগ

সিউলে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপরে দ্বিতীয় আলোকচিত্র প্রদর্শনী

সিউলে বঙ্গবন্ধুর জীবন ও কর্মের ওপরে দ্বিতীয় আলোকচিত্র প্রদর্শনী

© 2021 Bangla Tribune