X
বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সঠিক দাম পাচ্ছেন না মৌসুমি ব্যবসায়ীরা, মূলধন হারানোর শঙ্কা

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২০, ১৭:৫৫

সংগ্রহ করা চামড়া আড়তে নিয়ে আসছেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা হিলিতে চামড়া নিয়ে বেকায়দায় পড়েছেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা। গত বছরের তুলনায় এবার আরও কয়েক গুণ কমে চামড়ার কেনাবেচা হচ্ছে। কাঙ্ক্ষিত দাম না পেয়ে লোকসান ও মূলধন হারানোর শঙ্কায় রয়েছেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়া দাম না পেয়ে হতাশ বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ। অপরদিকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে বকেয়া টাকা পাননি আড়তদাররা। এবারও ন্যায্যমূল্য পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন তারা।

শনিবার (আগস্ট ১) ঈদের দিন দুপুরের পর থেকেই হিলির চেকপোস্ট সড়কের চামড়াপট্টির দোকানগুলোতে চামড়া আসতে শুরু করে। মৌসুমি ব্যবসায়ীরা উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে চামড়া কিনে বিক্রির জন্য আনেন আড়তগুলোতে। একইভাবে বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসাগুলো তাদের সংগ্রহ করা চামড়া বিক্রির জন্য আড়তে নিয়ে আসেন।

হিলির সাতকুড়ি ও বোয়ালদাড় গ্রামের মৌসুমি চামড়া ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম ও সিদ্দিক হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, প্রতিবছরই কোরবানির ঈদকে ঘিরে বাড়তি কিছু লাভের আশায় বিভিন্ন স্থান থেকে চামড়া কিনি। এ বছরও আমরা চামড়া কিনেছি। আশা করেছিলাম গত কয়েকবছর ধরে চামড়ার দাম না পেলেও, এবার চামড়ার ভালো দাম পাবো ও লাভবান হবো। চামড়া কেনার আগে আড়তদারদের সঙ্গে কথা বলে একটি দামও নির্ধারণ করা হয়। তবে চামড়া কিনে বিক্রির জন্য আড়তে আনার পর সেই দামে আর মিলছে না।

আড়তে জমছে চামড়া ব্যাবসায়ী রবিউল বলেন, ‘আমরা যে দামে চামড়া কিনেছি সে দামেই বা কমে বিক্রি করতে হচ্ছে। যেখানে একটি গরুর চামড়া সাড়ে তিনশ’ টাকায় কিনে নিয়ে এসেছি, বিক্রির জন্য তার দাম বলছে আড়াইশ’ থেকে তিনশ’ টাকা। এছাড়া সারাদিন ঘুরে ছাগলের ১৯টি চামড়া কিনেছিলাম ১৫০ টাকা দিয়ে। সেগুলো বিক্রি করতে হলো ১০০ টাকায়। এতে করে সারাদিনের শ্রম বিফলে গেলো।’

বোয়ালদাড় মাদ্রাসার শিক্ষক মাওলানা মাসুদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বিভিন্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসায় মানুষের দান করা চামড়া বিক্রি করে মাদ্রাসার এতিম ছাত্রদের পড়ালেখা ও খাওয়ার খরচ চালানো হয়। গতবছরে চামড়ার যে দাম পেয়েছিলাম, এবার তার চেয়েও দাম কম। ভালো দাম না পেয়ে আমরা হতাশ হয়ে পড়েছি। এতে মাদ্রাসার ছাত্রদের পড়ালেখা ও খাওয়ার খরচ মেটাতে বিড়ম্বনায় পড়তে হবে।

হিলির চামড়াপট্টির ব্যবসায়ী আমজাদ হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, গত বছরের চামড়া বিক্রির আট লাখ টাকা বকেয়া রয়েছে, যা পাইনি। এর পরেও এবার ঈদে চামড়া কিনছি, কিন্তু আমরা চামড়ার ন্যায্যমূল্য পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় আছি।। সরকার চামড়ার দাম বেধে দিলেও ট্যানারি মালিকরা আমাদের থেকে সেই দামে চামড়া কিনছেন না। এতে করে লোকসান গুনতে হচ্ছে।

চামড়া সংগ্রহ ও সংরক্ষণে ব্যস্ত মৌসুমি ব্যবসায়ীরা তিনি আরও বলেন, সরকার গরুর চামড়া ২৮ থেকে ৩৫ টাকা রেট দিলেও মহাজনদের কাছে বেচতে গেলে ১৫ থেকে ১৮ টাকা ফুট হিসেবে দাম দিচ্ছেন। এছাড়া যে চামড়া ২০ ফুট হবে, সেই চামড়া ১৫ ফুট হিসেবে দাম দিচ্ছে তারা। গরুর চামড়া পৌনে তিনশ’ থেকে সাড়ে তিনশ’ আর ছাগল ও খাসির চামড়ার দাম ১০টাকা ফুট হিসেবে কেনা হচ্ছে।

তিনি জানান, গরুর চামড়া তিনশ’ থেকে সাড়ে তিনশ’ টাকায় কিনলেও এর সঙ্গে দুইশ’ টাকার খরচ যোগ হয়। এতে পাঁচশ’ থেকে সাড়ে পাঁচশ’ টাকা খরচ আসে। তবে বিক্রি করতে হচ্ছে সাড়ে তিনশ’ থেকে চারশ’ টাকায়। সরকার যদি চামড়ার ওপর সুনজর দিতো, তাহলে চামড়ার বাজার ভালো হতো। সরকার যে কাঁচা চামড়া রফতানির উদ্যোগ নিয়েছিলো, তার সঠিক বাস্তবায়ন হলে ব্যবসায়ীরা লোকসানের হাত থেকে বেঁচে যেতো বলে মন্তব্য করেন তিনি।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

প্রেমিকের বাড়িতে ৪ দিন যাবৎ অনশনে প্রেমিকা, প্রেমিক পলাতক

প্রেমিকের বাড়িতে ৪ দিন যাবৎ অনশনে প্রেমিকা, প্রেমিক পলাতক

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

বীরগঞ্জে করোনায় চিকিৎসকের মৃত্যু 

বীরগঞ্জে করোনায় চিকিৎসকের মৃত্যু 

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:১৮

গাজীপুরের টঙ্গীর দরাইল এলাকার এস অ্যান্ড পি বাংলা লিমিটেড নামক পোশাক কারখানায় নামাজ আদায় ও পাঞ্জাবি-টুপি পরিধান থেকে বিরত থাকার নোটিশ দেওয়ায় ‘বিক্ষোভ’ করেছেন শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সকালে কাজ বন্ধ রেখে বিক্ষোভ করেন তারা।

গাজীপুর শিল্প পুলিশের জ্যৈষ্ঠ সহকারী পুলিশ সুপার এস আলম জানান, গত ৩ আগস্ট কর্তৃপক্ষ কারখানার অভ্যন্তরে নামাজ আদায় ও টুপি-পাঞ্জাবি পরিধান থেকে বিরত থাকার জন্য নোটিশ জারি করে। এতে শ্রমিকরা ক্ষিপ্ত হয়ে বৃহস্পতিবার সকালে ওই আদেশ প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেন। ওই দাবির প্রেক্ষিতে কর্তৃপক্ষ সেটা প্রত্যাহার করে আরেকটি নোটিশ জারি করে। নতুন নোটিশ জারির পর শ্রমিকরা কাজে যোগ দেন।

গত ৩ আগস্ট কর্তৃপক্ষের জারি করা নোটিশে উল্লেখ করা হয়, কারখানার অভ্যন্তরে নামাজ পরা যাবে না এবং পাঞ্জাবি ও টুপি পরা যাবে না। এই আদেশ মেনে কারখানা অভ্যন্তরে কাজ করার বিশেষভাবে নির্দেশ দেওয়া হলো।

শ্রমিকদের দাবির মুখে আগের নোটিশটি প্রত্যাহার করে নতুন নোটিশ জারি করে কর্তৃপক্ষ। এতে উল্লেখ করে, কারখানা অভ্যন্তরে নামাজ আদায় এবং পাঞ্জাবি ও টুপি পরা থেকে বিরত থাকার বিষয়ে যে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, তা অনিচ্ছাকৃত ভুল সিদ্ধান্ত ছিল। এর জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করছি। কারখানায় পূর্বের ন্যায় ধর্মীয় বিধিবিধান পালন করা যাবে। কারখানার পাঁচতলায় অজু ও নামাজের জন্য স্থান রয়েছে।

এস অ্যান্ড পি বাংলা লিমিটেডের মহাব্যবস্থাপক মাহবুব আলম দাবি করেন, ‘কারখানায় কোনও বিক্ষোভ হয়নি। দ্বিতীয় নোটিশে বিষয়টি প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে বিষয়টি জানতে বৃহস্পতিবার গণমাধ্যম ও পুলিশ সদস্যরা এসেছিলেন। শান্তিপূর্ণ সমাধান হয়েছে। কারখানার মোট সাড়ে ৬০০ শ্রমিক পুরোদমে উৎপাদনে নিয়োজিত রয়েছেন।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৬:০৬

খুলনায় আগামী ৭ আগস্ট সর্বনিম্ন ২৫ বছর বয়সীদের করোনার টিকা দেওয়া হবে। এদিন স্পট রেজিস্ট্রেশন করে টিকা নেওয়া যাবে। খুলনা মহানগর ও জেলায় টিকা প্রদানে ৩০৭টি বুথ প্রস্তুত করা হয়েছে। এসব বুথে একদিনে ৬১ হাজার ৪০০ জনকে টিকা দেওয়া হবে।

খুলনার সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ জানান, আগের ঘোষণায় ৭ আগস্ট থেকে ১৮ বছর পর্যন্ত গণটিকা প্রদানের কথা বলা হয়েছিল। কিন্তু সেটা একটু পরিবর্তন করা হয়েছে। নতুন সিদ্ধান্তে ৭ আগস্ট ২৫ বছর বা তার বেশি বয়সীদের টিকা দেওয়া হবে। যদি কারও রেজিস্ট্রেশন করা থাকে তাহলে ভালো, আর না থাকলে স্পটে রেজিস্ট্রেশন করে টিকা নেওয়ার সুযোগ থাকবে।

ইতোমধ্যে খুলনা সিটি করপোরেশনের (কেসিসি) ৩১টি ওয়ার্ডে ৯৩টি বুথ ও জেলার ৬৮টি ইউনিয়ন পরিষদমে ২০৪টি বুথ প্রস্তুত করা হয়েছে। টিকা প্রদানের কর্মীদেরও প্রশিক্ষণ সম্পন্ন হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত টিকা প্রদান করা হবে। টিকাদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নে বয়োজ্যেষ্ঠ, প্রতিবন্ধী  ও নারীদের প্রাধান্য দেওয়া হবে। 

কেসিসির স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে ২৮ হাজার ৩৯ ডোজ মডার্না এবং পাঁচ হাজার ৪৭৮ ডোজ সিনোফার্মার টিকা মজুত রয়েছে। ২৫ বছরের ঊর্ধ্বে যে কোনও নারী-পুরুষ জাতীয় পরিচয়পত্র আনলেই রেজিস্ট্রেশন করে টিকা নিতে পারবেন।

খুলনা সিভিল সার্জনের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, কোভিশিল্ডের প্রথম ডোজ নিয়েছেন এক লাখ ৭৫ হাজার ৯৫৭ জন। এর মধ্যে পুরুষ এক লাখ চার হাজার ১৩৬ ও নারী ৭১ হাজার ৮২১ জন। ওই টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন এক লাখ ২৮ হাজার ২৫ জন। কোভিশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন ৭৮ হাজার ৩০১ পুরুষ ও ৪৯ হাজার ৭২৪ জন নারী। প্রায় ৪৮ হাজার মানুষ কোভিশিল্ডের দ্বিতীয় ডোজ পাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন। 

খুলনায় সিনোফার্মের টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছেন ৫৬ হাজার ৩০৮ জন। তিন হাজার ৫০৪ জন দ্বিতীয় ডোজ পেয়েছেন। খুলনা সিটি করপোরেশন এলাকায় মডার্নার টিকার প্রথম ডোজ পেয়েছেন ৪৫ হাজার ৫৭৯ জন।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ২১ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ২১ মৃত্যু

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানজট

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৪:৫৪

কুমিল্লার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের দাউদকান্দির গাজীপুর এলাকায় চেকপোস্ট বসিয়ে পরিবহন তল্লাশি করেছে র‌্যাব। এতে গাজীপুর থেকে দাউদকান্দির আমিরাবাদ পর্যন্ত অন্তত ১০ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে যানবাহনের দীর্ঘ জট সৃষ্টি হয়। এই যানজটে আটকে প্রচণ্ড গরমে দুর্ভোগে পড়েছেন চালক ও ঢাকাগামী যাত্রীরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মাদক পাচারকারীরা বিপুল পরিমাণ মাদক নিয়ে ঢাকায় নিয়ে যাচ্ছেন, এমন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-৩ এর সদস্যরা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কুমিল্লার দাউদকান্দির গাজীপুর এলাকায় চেকপোস্ট বসায়। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) সকাল সাড়ে ৬টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত টানা দেড় ঘণ্টা যানবাহন তল্লাশি চালায় তারা।

ঢাকাগামী কাভার্ডভ্যানচালক ফাহিম মিয়া বলেন, ‘শহীদনগর এসে হঠাৎ যানজটে আটকে গেলাম। একে তো প্রচণ্ড গরম, এর মধ্যে দেড় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে আটকে আছি।’

কক্সবাজার থেকে ঢাকাগামী বিশেষ বাসের যাত্রী মাজেদুল আলম জানান, টিকা নিতে ঢাকায় যাচ্ছেন তিনি। কিন্তু এই যানজটে আটকে পড়ায় সময়মতো টিকাকেন্দ্রে পৌঁছাতে পারবেন কি-না, সেটি নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন।

দাউদকান্দি হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহুরুল হক জানান, র‌্যাব-৩ এর সদস্যরা একটি গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চেকপোস্ট বসিয়ে পরিবহনে তল্লাশি চালায়। এ কারণে কঠোর বিধিনিষেধের মধ্যেই হঠাৎ কিছু সময়ের জন্য মহাসড়কের ঢাকার পথে পরিবহনের জটের সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু বর্তমানে মহাসড়ক একেবারে স্বাভাবিক রয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রাম নগরীর চেয়ে উপজেলাগুলোতে বেশি মৃত্যু

চট্টগ্রাম নগরীর চেয়ে উপজেলাগুলোতে বেশি মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু, হাসপাতালে ২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু, হাসপাতালে ২

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

লক্ষ্মীপুরে আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

লক্ষ্মীপুরে আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

সিঙ্গারের গোডাউনের আগুন নিয়ন্ত্রণে, পুড়ে ছাই টিভি-ফ্রিজ

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৪:০৪

সাভারে সিঙ্গার ইলেকট্রনিকসের গোডাউনে আগুন লাগার চার ঘণ্টা পর তা নিয়ন্ত্রণে এসেছে। বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে ফায়ার সার্ভিসের ১১ ইউনিটের প্রচেষ্টায় এ আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রাজফুলবাড়িয়া এলাকার ওই গোডাউনে আগুনের সূত্রপাত হয়।

আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে গোডাউনে থাকা টিভি, এসি, ফ্রিজসহ সিঙ্গারের বহু ইলেকট্রনিকস সামগ্রী।

ফায়ার সার্ভিস জানায়, লকডাউনের কারণে ঈদের পর থেকেই কারখানাটি বন্ধ ছিল। আজ সকালে হঠাৎ কারখানার ভেতর থেকে ধোঁয়া বের হতে দেখে স্থানীয়রা। মুহূর্তের মধ্যেই আগুনের লেলিহান শিখা দাউ দাউ করে জ্বলে উঠে পুরো কারখানায় ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে প্রথমে সাভার ফায়ার সার্ভিসের চারটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার কাজ শুরু করে। তবে তীব্রতা বেশি হওয়ায় তাদের সঙ্গে আশুলিয়া, জিইপিজেড ও মিরপুর সদর স্টেশনসহ মোট ১১টি ইউনিট এ আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করে।

তবে আগুন নিয়ন্ত্রণে এলেও গোডাউনটির ভেতর থেকে এখনও ধোঁয়া বের হতে দেখা গেছে। গোডাউনটির চারপাশের দেয়াল ভেঙে ভেতরে পানি দিচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

এদিকে অগ্নিকাণ্ডের পরপরই ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। মহাসড়কের বিপরীত পাশ থেকে পানি সংগ্রহ করার কারণেই মূলত সড়কটি বন্ধ করে সাভার থানা পুলিশ।

ফায়ার সার্ভিস সদরদফতরের উপপরিচালক মানিকউজ্জামান বলেন, আগুনের তীব্রতা বেশি হওয়ার কারণে নিয়ন্ত্রণে আনতে বিলম্ব হয়েছে। এখন পুরো নিয়ন্ত্রণে আগুন। তবে অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতি সম্পর্কে তিনি নিশ্চিত করে কিছু জানাতে পারেননি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

সাভারে সিঙ্গারের গোডাউনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৭ ইউনিট

সাভারে সিঙ্গারের গোডাউনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৭ ইউনিট

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

বিদায়ের মুহূর্তে সহকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত পুলিশ সদস্য

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

খুলনায় একদিনে আরও ৩৪ জনের মৃত্যু

আপডেট : ০৫ আগস্ট ২০২১, ১৩:২৮

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও ৩৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ৮১৭ জন।

বৃহস্পতিবার (৫ আগস্ট) খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দফতর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় কুষ্টিয়ায় ৯, যশোরে ছয়, খুলনা ও মেহেরপুরে চারজন করে; মাগুরা ও ঝিনাইদহে তিনজন করে; বাগেরহাট ও নড়াইলে দুইজন করে এবং চুয়াডাঙ্গায় একজন মারা গেছেন।

এ পর্যন্ত বিভাগের ১০ জেলায় মোট শনাক্ত হয়েছেন ৯৭ হাজার ৬৯৩ জন। ভাইরাসটিতে দুই হাজার ৫৫৪ জন মারা গেছেন। সুস্থ হয়েছেন ৭৫ হাজার ৩২০ জন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

চট্টগ্রাম নগরীর চেয়ে উপজেলাগুলোতে বেশি মৃত্যু

চট্টগ্রাম নগরীর চেয়ে উপজেলাগুলোতে বেশি মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু, হাসপাতালে ২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিমরুলের কামড়ে শিশুর মৃত্যু, হাসপাতালে ২

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

করোনাভাইরাস: যশোরে ৭ নারীর মৃত্যু

সর্বশেষ

বুস্টার ডোজ নিয়ে ডব্লিউএইচও’র আহ্বান উপেক্ষা ফ্রান্স ও জার্মানির

বুস্টার ডোজ নিয়ে ডব্লিউএইচও’র আহ্বান উপেক্ষা ফ্রান্স ও জার্মানির

রেসিপি : আলুর পাকোড়া

রেসিপি : আলুর পাকোড়া

সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে হবে: মেয়র আতিক

সামাজিক আন্দোলনের মাধ্যমে ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে হবে: মেয়র আতিক

কোনও অত্যাচারের পরিণতি ভালো হয় না: নওশাবা

কোনও অত্যাচারের পরিণতি ভালো হয় না: নওশাবা

বিসিবি অ্যাওয়ার্ড নাইট চালু প্রসঙ্গে যা বললেন পাপন

বিসিবি অ্যাওয়ার্ড নাইট চালু প্রসঙ্গে যা বললেন পাপন

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

কারখানায় নামাজ আদায় ও টুপি পরতে মানা, শ্রমিকদের ‘বিক্ষোভ’

বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত ল্যাব স্থাপন করা হবে: ইউজিসি

বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত ল্যাব স্থাপন করা হবে: ইউজিসি

শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট

শুক্রবার থেকে শুরু হচ্ছে অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট

শেখ কামালের জন্মদিনে বিসিবিতে মিলাদ ও দোয়া

শেখ কামালের জন্মদিনে বিসিবিতে মিলাদ ও দোয়া

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

খুলনায় প্রস্তুত ৩০৭ বুথ, টিকা পাবে ৬১৪০০ জন

ভয়ংকর এলএসডি-আইস: যা ঘটেনি সেটাই দেখেন আসক্তরা

ভয়ংকর এলএসডি-আইস: যা ঘটেনি সেটাই দেখেন আসক্তরা

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

সোয়া দুই কোটি টাকা ভ্যাট দিলো গুগল

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

রাঙামাটিতে পর্যটন শিল্পে চার মাসে ক্ষতি ২২ কোটি টাকা

প্রেমিকের বাড়িতে ৪ দিন যাবৎ অনশনে প্রেমিকা, প্রেমিক পলাতক

প্রেমিকের বাড়িতে ৪ দিন যাবৎ অনশনে প্রেমিকা, প্রেমিক পলাতক

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

রূপগঞ্জে লেদার কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

বীরগঞ্জে করোনায় চিকিৎসকের মৃত্যু 

বীরগঞ্জে করোনায় চিকিৎসকের মৃত্যু 

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ২২ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে আরও ২২ মৃত্যু

খুলে দেওয়া হচ্ছে লেবুখালী ঝুলন্ত সেতু

খুলে দেওয়া হচ্ছে লেবুখালী ঝুলন্ত সেতু

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

রামেক হাসপাতালে ২৪ ঘণ্টায় ১৯ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৭ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে একদিনে আরও ১৭ মৃত্যু

মাদ্রাসায় রাতের খাবারের পর ছাত্রের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১৭

মাদ্রাসায় রাতের খাবারের পর ছাত্রের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ১৭

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

© 2021 Bangla Tribune