X
মঙ্গলবার, ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ঈদের ঘোরাঘুরিতে স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই (ফটো স্টোরি)

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২০, ২২:৩৫

প্রতিবছর ঈদ আসে আনন্দ নিয়ে, সেই আনন্দে মুখরিত হয়ে ওঠে বিনোদন কেন্দ্রগুলো। ঈদের ছুটিতে ফাঁকা শহরে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে থাকে উপচে পড়া ভিড়। কিন্তু এবার ঈদে সব অন্যরকম। করোনা নামক এক ভাইরাস পাল্টে দিয়েছে জীবনযাত্রা, মানুষকে করে রেখেছে প্রায় গৃহবন্দি। ঈদ সামনে রেখে সরকার কিছু বিধিনিষেধ শিথিল করলেও বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে এখনও ঝুলছে তালা। তারপরও দর্শনার্থীরা বিনোদনের খোঁজে বিভিন্ন উন্মুক্ত স্থানে জড়ো হচ্ছেন বন্ধু পরিবার-পরিজন নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। অনেকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঘুরে বেড়ালেও বেশিরভাগ দর্শনার্থী স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না। কেউ কেউ মুখে মাস্ক পরলেও অনেককেই মাস্ক হাতে নিয়ে ঘুরতে দেখা গেছে। এমনকি শিশুদের নিয়ে স্বাস্থ্য নিরাপত্তা সরঞ্জাম ছাড়াই ঘুরেছেন অনেকে। রবীন্দ্র সরোবর মাস্ক ছাড়াই বাইরে বের হতে দেখা গেছে অনেককেই হাতিরঝিলের চিত্র সামাজিক দূরত্বের বালাই ছিল না সুরক্ষা ছাড়াই দেখা যায় শিশুদের

/এনএস/

সম্পর্কিত

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’

ছবিতে নতুন বছরে তৃতীয় লিঙ্গের মাদ্রাসার সবক প্রদান অনুষ্ঠান

ছবিতে নতুন বছরে তৃতীয় লিঙ্গের মাদ্রাসার সবক প্রদান অনুষ্ঠান

পতাকা বিক্রিতে আয় নেই ইউসুফ মোল্লার (ফটোস্টোরি)

পতাকা বিক্রিতে আয় নেই ইউসুফ মোল্লার (ফটোস্টোরি)

ছবিতে করোনাকালের ‘কার্তিক ব্রত’

ছবিতে করোনাকালের ‘কার্তিক ব্রত’

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০২:০০

গাড়ির সামনের গ্লাসে লাগানো পুলিশের মনোগ্রামযুক্ত স্টিকার এবং পুলিশের গাড়ির মত সাইরেন। ঠিক পুলিশের গাড়ির সাজে একটি মাইক্রো বাস। আসলে সেটি পুলিশের না। মূলত ছিনতাই, অপহরণ ও মাদক পাচারের জন্য এই গাড়ি সাজানো হয়েছে। গাড়ির ভেতরে যারা তারাও আসল পুলিশ না।

এমনই একটি নকল পুলিশের গাড়ি ও দুজন ভুয়া পুলিশকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

গ্রেফতারকৃতরা হলো মুর্তুজা আল নাছির ওরফে মাহি ও মো. জামাল হোসেন ওরফে জসিম।

সোমবার (২ আগস্ট) রাতে গোয়েন্দা তেজগাঁও বিভাগের সংঘবদ্ধ অপরাধ, গাড়ি চুরি প্রতিরোধ ও উদ্ধার টিমের সহকারী পুলিশ কমিশনার হাসান মুহাম্মদ মুহতারিম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, রবিবার (১ আগস্ট) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মোহাম্মদপুরের নবীনগর হাউজিং এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ভুয়া পুলিশ মাহি ও জসিমকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, ডিবি পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখতে পায় গ্রেফতারকৃতরা পুলিশের স্টিকার যুক্ত মনোগ্রাম ও পুলিশের গাড়িতে ব্যবহৃত সাইরেনের ন্যায় হুবহু সাইরেন সংযুক্ত মাইক্রো বাসে অবস্থান করছে। এসময় তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের কাছ থেকে পুলিশের ন্যায় ব্যবহৃত একটি ওয়াকিটকি, একটি সিগন্যাল লাইট, একটি ভিআইপি লাইট ও পুলিশের মনোগ্রাম সম্বলিত স্টিকার উদ্ধার করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে তাদের ব্যবহৃত মাইক্রো বাসটি।

গ্রেফতারকৃতরা মূলত পুলিশ সেজে জনগণকে পথরোধ করে তাদের গাড়িতে উঠিয়ে নেয়। পরবর্তী সময়ে নির্জন স্থানে গিয়ে তাদের সর্বস্ব লুটে নিয়ে রাস্তায় ছেড়ে দেয়। 

তাদের বিরুদ্ধে মোহাম্মদপুর থানায় মামলায় করা হয়েছে বলে জানান গোয়েন্দা এই পুলিশ কর্মকর্তা।

 

/এআরআর/এনএইচ/

সম্পর্কিত

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

র‌্যাবের অভিযানে ৬৭ জনকে জরিমানা

র‌্যাবের অভিযানে ৬৭ জনকে জরিমানা

৩ দিনের রিমান্ডে মডেল পিয়াসা

৩ দিনের রিমান্ডে মডেল পিয়াসা

৩ দিনের রিমান্ডে মডেল মৌ

৩ দিনের রিমান্ডে মডেল মৌ

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২৩:৩২

মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌয়ের টার্গেট ছিল ধনাঢ্য ব্যক্তিরা। বিভিন্ন পার্টিতে গিয়ে পরিচয়ের সূত্র ধরে তাদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা তৈরি করতেন তারা। তারপর পার্টির নামে নিজ বাসায় ডেকে আনতো তারা। পার্টি শেষে অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি তুলে পরিবারের সদস্যদের কাছে বলে দেওয়ার নামে অর্থ আদায় করতো। মডেল পিয়াসার পুরো বাসায় গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা পেয়েছে গোয়েন্দারা। এসব সিসিটিভির ফুটেজ জব্দ করার প্রক্রিয়া চলছে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কর্মকর্তারা এসব তথ্য জানিয়েছেন।

রবিবার (১ আগস্ট) বারিধারা ও মোহাম্মদপুরের বাবর রোডের পৃথক দুটি বাসায় অভিযান চালিয়ে ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও মরিয়ম আক্তার মৌকে গ্রেফতার করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। তাদের বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মদ, দেড় হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট, সীসা খাওয়ার উপকরণ উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে পিয়াসার নামে গুলশান থানায় ও মৌয়ের নামে মোহাম্মদপুর থানায় পৃথক দুটি মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করা হয়। সোমাবার তাদের আদালতে সোপর্দ করে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ন কমিশনার হারুণ অর রশিদ বলেন, ‘এরা সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য। তাদের টার্গেট হলো কোটিপতি ব্যবসায়ী বা ব্যবসায়ীদের সন্তানেরা। বিভিন্ন ক্লাব বা বারে গিয়ে তাদের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলে ব্ল্যাকমেইল করতো তারা। একই সঙ্গে তারা বাসায় নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্যের আসর বসাতো। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে সহযোগীদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে।

গোয়েন্দা সূত্র জানায়, পিয়াসা বারিধারা ডিপ্লোমেটিক জোনের ৯ নম্বর সড়কের ৩ নম্বর বাসার যে ফ্ল্যাটে থাকেন, সেটির আয়তন চার হাজার বর্গফুট। এই ফ্ল্যাটের ভাড়া প্রায় আড়াই লাখ টাকা। তিনি আরএম গ্রুপে জনসংযোগ কর্মকর্তা হিসেবে নামকাওয়াস্তে একটি চাকরি করেন। ব্ল্যাকমেইলিং করে আয়কৃত অর্থ দিয়েই তিনি বিলাসবহুল জীবন-যাপন করতেন।

গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, গত শনিবার রাতেও পিয়াসা তার বাসায় মদ-ইয়াবা সেবনের একটি পার্টির আয়োজন করেছিলেন। ওই পার্টিতে দেশের নামকরা একটি গ্রুপ অব কোম্পানিজের মালিকের ছেলে উপস্থিত ছিল। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পিয়াসা জানিয়েছে, তার বাসাতে মাঝে-মধ্যেই এ ধরণের আয়োজন হতো। এসব পার্টিতে উচ্চবিত্ত ও ধণাঢ্য ব্যক্তিরা নিয়মিত অংশ নিতেন। তারাই তাকে নিয়মিত অর্থ দিয়ে বিলাসবহুল জীবন-যাপন করতে সহায়তা করতো।

গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, গ্রেফতারের পর পিয়াসা আরেকটি নামকরা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের রেফারেন্স দিয়ে বলেছিলেন, ‘.... ভাইয়া আমাকে যেকোনও মূল্যে ছাড়িয়ে নিবে।’ কিন্তু পিয়াসার জন্য কেউ তদবির করেনি জানিয়ে ওই কর্মকর্তা বলেন, তার মোবাইলে গুলশান-বনানী-বারিধারা এলাকার প্রায় সকল ধনাঢ্য ব্যক্তিদের মোবাইল নম্বর সেভ করা রয়েছে। তাদের সঙ্গে পিয়াসা নিয়মিত বিভিন্ন পাটিতে অংশ নিত বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০১৭ সালের মে মাসে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার সেলিমের ছেলে সাফাতের বিরুদ্ধে এক তরুণীকে ধর্ষণের ঘটনায় প্রথম আলোচনায় আসেন পিয়াসা। পিয়াসা সেসময় সাফাতের বিবাহিত স্ত্রী ছিলেন। দিলদার সেলিম সেসময় অভিযোগ করেছিলেন, তার পূত্রবধূ পিয়াসাই তার ছেলেকে ফাঁসিয়ে দিয়েছে। এরপর গত এপ্রিলে গুলশানের একটি বাসা থেকে মোসারাত জাহান মুনিয়া নামে এক কলেজছাত্রীর লাশ উদ্ধার হলে আবারও আলোচনায় আসেন পিয়াসা।

গোয়েন্দা পুলিশের একজন কর্মকর্তা জানান, পিয়াসার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের পটিয়ায়। তার বাবা মাহবুব আলম চট্টগ্রাম পোর্টে পরিদর্শক হিসেবে চাকরি করতেন। তার পরিবারের আর্থিক অবস্থা তেমন ভালো না। কিন্তু পিয়াসা ঢাকায় এসে মডেলিং করার নামে একটি সিন্ডিকেট গড়ে তোলেন, যাদের কাজই হলো কোটিপতি ব্যক্তিদের টার্গেট করে তাদের ব্ল্যাকমেইল করা। পিয়াসার সিন্ডিকেটে কয়েক ডজন নারী রয়েছে বলে জানান তিনি।

এদিকে মৌয়ের বাবর রোডের বাসায় অভিযানের সময় তিনি ভাসাবির জামানের স্ত্রী তানজি ষড়যন্ত্র করে তাকে ফাঁসিয়েছে বলে দাবি করেন। মৌয়ের ভাষ্য, তানজির সঙ্গে মোকাম্মেল নামে কোনও এক ব্যক্তির প্রেমের সম্পর্ক নিয়ে পিয়াসার সঙ্গে তার ঝামেলা হয়েছিল। সেই ঝামেলার বিষয় এবং তানজির প্রেমের বিষয়টি তিনি জানতেন। এজন্য তানজি তাকে বাসায় পুলিশ পাঠাবেন বলে হুমকিও দিয়েছিলেন।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ভাসাবির যে জামানের কথা মৌ বলেছিলেন, তিনি ভাসাবি ফ্যাশন হাউজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কামাল জামান মোল্লাহ। তিনি একজন গার্মেন্ট ব্যবসায়ী। মৌয়ের অভিযোগের বিষয়ে জানতে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও তার কোনও ভাষ্য পাওয়া যায়নি।

তবে সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, উচ্চবিত্ত ও কোটিপতি ব্যবসায়ীদের মধ্যে পার্টিতে যাতায়াত ও মেলামেশা নিয়ে একে অপরের সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হয়। সম্প্রতি এমন একটি ঘটনায় পিয়াসা ও মৌ ইন্ধন দিয়েছে বলেও অভিযোগ রয়েছে। পিয়াসা ও মৌ ব্যবসায়ীদের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি করেও নিজেরা আর্থ হাতিয়ে নিয়ে থাকে বলে জানান ওই কর্মকর্তা।

 

/এফএএন/

সম্পর্কিত

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

র‌্যাবের অভিযানে ৬৭ জনকে জরিমানা

র‌্যাবের অভিযানে ৬৭ জনকে জরিমানা

করের আওতার বাইরে ৮০ হাজার কোম্পানি: টিআইবি

করের আওতার বাইরে ৮০ হাজার কোম্পানি: টিআইবি

৩ দিনের রিমান্ডে মডেল পিয়াসা

৩ দিনের রিমান্ডে মডেল পিয়াসা

ভর্তির অপেক্ষায় থাকা সিরাজ ব্যাপারী ঢলে পড়লেন মেঝেতে

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২৩:০৬

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটের জরুরি বিভাগ। ভর্তির অপেক্ষায় বসে আছেন সারি সারি রোগী। এখানেই বসে অপেক্ষা করছিলেন করোনা উপসর্গ নিয়ে আসা সিরাজ ব্যাপারী (৬৫)। অপেক্ষা যেন শেষ হয় না। একসময় মেঝেতে ঢলে পড়েন তিনি।

রোগীর মেয়ে রোকেয়া বেগম বলেন, চাঁদপুর জেলার ফরিদগঞ্জ ফনি শেখ গ্রামের বাসিন্দা তার বাবা সিরাজ ব্যাপারী সাপ্তাহখানেক ধরে অসুস্থ। স্থানীয় চিকিৎসক দেখিয়ে বাসায় রেখে চিকিৎসা করাচ্ছিলেন। অবস্থার অবনতি হলে নিয়ে যান সদর হাসপাতালে। এরপর শুরু হয় তার শ্বাসকষ্ট। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে সেখান থেকে চিকিৎসকরা ঢামেক হাসপাতালে পাঠিয়ে দিয়েছেন। এখানে এসে জানতে পারেন সিট ফাঁকা নেই। অপেক্ষা করতে থাকেন। এখানে আসা অন্য রোগীর স্বজনদের এদিক ওদিক ছুটাছুটির সময়ে একসময় দেখেন তার বাবা মেঝেতে পড়ে গেছেন। পরে আশপাশের লোকজনের সহযোগিতায় সেখান থেকে তাকে উঠিয়ে দ্রুত জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। সেখানে কর্মরত ওয়ার্ড বয়রা পরীক্ষা করেন অক্সিজেন লেভেল ৮০।  দ্রুত তাকে অক্সিজেন লাগানো হয়। কর্তৃপক্ষ জানায়, আরও অপেক্ষা করতে হবে। একটি সিট ফাঁকা হলেই তাকে ভর্তি দেওয়া হবে।

দীর্ঘ সময় অ্যাম্বুলেন্সে অপেক্ষার পর ভর্তির সুযোগ মিলছে

সিরাজ ব্যাপারী সেখানে পৌঁছানোর আগে থেকেই আরেক রোগী দীর্ঘ সময় অ্যাম্বুলেন্সে অপেক্ষায় ছিলেন। ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার চান মিয়া'র স্ত্রী রোগী আছিয়া খাতুন (৬৫)। রোগীর জামাতা তারা মিয়া বলেন, তাদের রোগী ২/৩ দিন যাবত সেখানে সদর হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তার অবস্থার অবনতি হলে ডাক্তাররা রেফার্ড করে দিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ঢাকায় পৌঁছেছেন বটে কিন্তু  ভর্তির জন্য শুরু হয় অপেক্ষার পালা। কখন একটি সিট খালি হবে।

একই সময়ে দেখা গেছে এক শারীরিক প্রতিবন্ধী রোগীকে নিয়ে যাচ্ছেন তার স্বজনরা। রোগীটির নাম আরিফা (২০)। তাদের বাড়ি গাজীপুর বোর্ড বাজার এলাকায়। রোগীটির বড় ভাই সাজ্জাদ বলেন, আরিফার শ্বাসকষ্ট। সকাল থেকে বিভিন্ন হাসপাতালে ঘুরছেন। প্রথমে তাকে নিয়ে যান বাংলাদেশ মেডিক্যাল, সেখান থেকে ক্রিসেন্ট হাসপাতাল, সেখান থেকে ঢামেকে। কোথাও একটি সিট মেলেনি। অবশেষে তারা রওনা হন সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

করোনা ইউনিটের জরুরি বিভাগে ভর্তির রেজিস্ট্রার সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকাল থেকে ৩০ জন রোগী ভর্তি করা হয়েছে। হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত উপপরিচালক আশরাফুল আলম বলেন, আমরা অনেক দিন ধরেই সিটের অতিরিক্ত  রোগী ভর্তি নিচ্ছি। যে পরিমাণ রোগীর চাপ বাড়ছে। সামনে কী করবো বলতে পারছি না।

চার হাসপাতাল ঘুরেও মেলেনি একটি সিট

হঠাৎ করে এতো রোগী বাড়ার কারণ কী এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, প্রথমত সচেতনতার অভাব। তেমন কেউ স্বাস্থ্য বিধি মানছে না। তাই রোগীর সংখ্যা বেড়ে যাচ্ছে। এখন সকলেরই সচেতন হতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেই রোগীর চাপ কমে আসবে বলে মনে করেন তিনি।

আশরাফুল আলম বলেন, রোগীর সঙ্গে আসা স্বজনরাও স্বাস্থ্যবিধি মানেন না।  এতে করে ওই স্বজনদেরও সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে যায়। তাই সকলকে সচেতন হতে হবে।

/ইউআই/এমআর/

সম্পর্কিত

ডা. জাহাঙ্গীর অপচিকিৎসা করছেন: এফডিএসআর

ডা. জাহাঙ্গীর অপচিকিৎসা করছেন: এফডিএসআর

চার হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী, ৭ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

চার হাসপাতালে অতিরিক্ত রোগী, ৭ হাসপাতালে আইসিইউ ফাঁকা নেই

টিকা নেওয়া ৯৮ শতাংশ মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি: বিএসএমএমইউ

টিকা নেওয়া ৯৮ শতাংশ মানুষের শরীরে অ্যান্টিবডি: বিএসএমএমইউ

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পঞ্চম শ্রেণি পাস

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২২:৫৬

তথ্য গোপন করে স্নাতক পাস দেখিয়ে মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার রুশদী উচ্চ বিদ্যালয়ের অ্যাডহক কমিটির সভাপতি করা হয়েছে পঞ্চম শ্রেণি পাস এক ব্যক্তিকে।  এই ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ করেছে ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের জারি করা পত্রে জানানো হয়, বিদ্যালয়টির ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী বিষয়টি নিয়ে শিক্ষা বোর্ডে অভিযোগ করেছেন গত ২৮ জুলাই।  শিক্ষা বোর্ড ওইদিনই প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কারণ দর্শাতে পত্র জারি করে।  

সোমবার (২ আগস্ট) ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের জারি করা ওই পত্রটি ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

অফিস আদেশে জানানো হয়,মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার রুশদী উচ্চ বিদ্যালয়ের অ্যাডহক কমিটির সভাপতি মনোনয়ন এবং অনুমোদনের জন্য আওলাদ হোসেনকে স্নাতক পাস দেখিয়ে তার নাম তালিকার ১ নম্বরে দেওয়া হয়। প্রকৃতপক্ষে ওই ব্যক্তি পঞ্চম শ্রেণি পাস এবং একাধিক মামলার আসামি। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী বোর্ডকে বিষয়টি অবহিত করেছেন।

অফিস আদেশে আরও জানানো হয়, সভাপতি মনোনয়নের জন্য দাখিল করা তালিকায় মিথ্যা শিক্ষাগত যোগ্যতা এবং মামলার তথ্য গোপন করে তার বিরুদ্ধে কোনও মামলা মোকদ্দমা নেই মর্মে অঙ্গীকারনামা দেওয়া হয়েছে।

জাল-জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে বোর্ডে আবেদন করায় প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না হবে না, তা পত্র জারির সাত দিনের মধ্যে জানাতে নির্দেশ দেয় ঢাকা শিক্ষা বোর্ড।

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

পিটিআই সুপারিনটেনডেন্টের চলতি দায়িত্ব পেলেন ৮ জন

পিটিআই সুপারিনটেনডেন্টের চলতি দায়িত্ব পেলেন ৮ জন

মাদ্রাসা শিক্ষকদের জুলাই মাসের বেতন ছাড়

মাদ্রাসা শিক্ষকদের জুলাই মাসের বেতন ছাড়

শোক দিবস পালনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বরাদ্দ ১৩ কোটি টাকা

শোক দিবস পালনে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বরাদ্দ ১৩ কোটি টাকা

সেনা টহল পরিদর্শন ৫৫ পদাতিকের জিওসির

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ২০:৫৯

ঝিনাইদহ জেলার পায়রা চত্বরে ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সেনাসদস্যদের টহল কার্যক্রম পরিদর্শন করেছেন যশোর এরিয়া কমান্ডার ও জেনারেল অফিসার কমান্ডিং (জিওসি) মেজর জেনারেল  নূরুল আনোয়ার। একইসঙ্গে তিনি মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গেও মত বিনিময় করেন।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, সোমবার (২ আগস্ট) ৫৫ পদাতিক ডিভিশন ও যশোর এরিয়া কমান্ডার মেজর জেনারেল মো. নূরুল আনোয়ার তার ডিভিশনের সেনা সদস্যদের টহল কার্যক্রম পরিদর্শন করেন। এ সময় তিনি টহল কার্যক্রমে নিয়োজিত সেনাসদস্যদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন এবং করোনাকালীন লকডাউন বাস্তবায়নে সম্মুখসারির সদস্যদের আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ রোধে অসামরিক প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে সহায়তার উদ্দেশে গত ১ জুলাই থেকে দেশব্যাপী সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়। তারই অংশ হিসেবে ৫৫ পদাতিক ডিভিশনের সেনাসদস্যগণ ঝিনাইদহ জেলায় নিয়মিত টহল পরিচালনা করছেন। টহল পরিচালনার পাশাপাশি সেনাবাহিনী করোনা মহামারির কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দুঃস্থ পরিবারদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করছে। বিভিন্ন এলাকায় অস্থায়ী মেডিকেল ক্যাম্প স্থাপনের মাধ্যমে চিকিৎসা প্রদান করছে।

পরিদর্শনের সময় আরও উপস্থিত ছিলেন ৮৮ পদাতিক ব্রিগেডের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ মনোয়ার হোসেন খান, ২ ই বেঙ্গলের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. মোর্শেদুল হাসান, ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক মো. মুজিবুর রহমান, পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলামসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বর্তন কর্মকর্তারা।

 

/জেইউ/এমআর/

সম্পর্কিত

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

মডেলের বাড়িতে গোপন সিসিটিভি ক্যামেরা!

ভর্তির অপেক্ষায় থাকা সিরাজ ব্যাপারী ঢলে পড়লেন মেঝেতে

ভর্তির অপেক্ষায় থাকা সিরাজ ব্যাপারী ঢলে পড়লেন মেঝেতে

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পঞ্চম শ্রেণি পাস

ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি পঞ্চম শ্রেণি পাস

সর্বশেষ

কথা রাখেননি গার্মেন্টস মালিকরা

কথা রাখেননি গার্মেন্টস মালিকরা

শেষদিনে অফিসারের গাড়িতে বাড়ি ফিরলেন কনস্টেবল ফারুক

শেষদিনে অফিসারের গাড়িতে বাড়ি ফিরলেন কনস্টেবল ফারুক

কক্সবাজারে এক বছরে ১৬টি বাচ্চা দিলো বন্য হাতি

কক্সবাজারে এক বছরে ১৬টি বাচ্চা দিলো বন্য হাতি

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

চূড়ান্ত হলো  বিল ও মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদ

চূড়ান্ত হলো  বিল ও মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদ

শিশুর মুখের স্বাস্থ্যে বুকের দুধ

মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহশিশুর মুখের স্বাস্থ্যে বুকের দুধ

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

পতনের মুখে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ প্রাদেশিক রাজধানী

পতনের মুখে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ প্রাদেশিক রাজধানী

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

নকল পুলিশের গাড়িতে আসল পুলিশের হানা 

প্রবাসী কর্মীদের জন্য ঢাকায় ‘সাময়িক আবাসন’ করবে সরকার 

প্রবাসী কর্মীদের জন্য ঢাকায় ‘সাময়িক আবাসন’ করবে সরকার 

দাবানলে পুড়ছে তুরস্কের অবকাশ কেন্দ্র, নিহত বেড়ে ৮

দাবানলে পুড়ছে তুরস্কের অবকাশ কেন্দ্র, নিহত বেড়ে ৮

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’

ফটোফিচার‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’

ছবিতে নতুন বছরে তৃতীয় লিঙ্গের মাদ্রাসার সবক প্রদান অনুষ্ঠান

ছবিতে নতুন বছরে তৃতীয় লিঙ্গের মাদ্রাসার সবক প্রদান অনুষ্ঠান

পতাকা বিক্রিতে আয় নেই ইউসুফ মোল্লার (ফটোস্টোরি)

পতাকা বিক্রিতে আয় নেই ইউসুফ মোল্লার (ফটোস্টোরি)

ছবিতে করোনাকালের ‘কার্তিক ব্রত’

ছবিতে করোনাকালের ‘কার্তিক ব্রত’

তাহাদের মাদ্রাসা (ফটোস্টোরি)

তাহাদের মাদ্রাসা (ফটোস্টোরি)

বন্ধুর পাশে একদল মানুষ (ফটোস্টোরি)

বন্ধুর পাশে একদল মানুষ (ফটোস্টোরি)

দেয়ালচিত্রে পথকুকুর নিধনের প্রতিবাদ

দেয়ালচিত্রে পথকুকুর নিধনের প্রতিবাদ

© 2021 Bangla Tribune