X
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বঙ্গবন্ধুকে ছাত্রসমাজের অভিনন্দন

আপডেট : ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৮:০০

শান্তি পরিষদের জুলিও কুরি পদক লাভের জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপ্তাহব্যাপী নানা প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি অভিনন্দন জানাতে গণভবনে হাজির হন। ১৯৭২ সালের ২০ অক্টোবর প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা গণভবনে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে তাকে মাল্যভূষিত করে। প্রতিনিধিরা তাদের সমস্যা ও অভাব-অভিযোগ সম্মিলিত একটা স্মারকলিপিও বঙ্গবন্ধুকে দিয়ে আশু সমাধানের আবেদন জানান। এদিকে একই সময়ে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের একদল ছাত্র বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে দেখা করে তার জুলিও কুরি পদকপ্রাপ্তিতে তাকে অভিনন্দিত করে।
গণতন্ত্র সমাজতন্ত্র সমন্বয় সংবিধানের প্রধান বৈশিষ্ট্য
গণপরিষদের সংবিধান বিলের ওপর বক্তৃতাকালে যোগাযোগমন্ত্রী মনসুর আলী বলেন, এই সংবিধান গৃহীত হলে শুধু অভ্যন্তরীণ ক্ষেত্রে শান্তিশৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা হবে না, বিশ্বের দরবারে বাঙালি জাতিকে গৌরবের আসনে প্রতিষ্ঠিত করবে। তিনি বলেন, শাসনতন্ত্রের সবচেয়ে বড় বৈশিষ্ট্য হলো, গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্রকে পাশাপাশি রেখে গণতন্ত্রের বিধান শাসনতন্ত্র রাখা হয়েছে। একমাত্র বাংলাদেশেই গণতন্ত্র ও সমাজতন্ত্র পাশাপাশি অবস্থান এবং উভয়ের বিকাশ সম্ভব বলেও তিনি মন্তব্য করেন। অধিবেশনে সংবিধান বিলের ওপর দ্বিতীয় দিনে সাধারণ আলোচনায় যোগাযোগমন্ত্রী মনসুর আলীসহ আরও অনেকে বক্তৃতা করেন। অতঃপর অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করা হয়। এদিকে ২২ অক্টোবর আওয়ামী লীগের সংসদীয় দলের বৈঠক হওয়ার কথা আছে। সেখানে খসড়া সংবিধান বিলের সংশোধনী প্রস্তাবের বাছাই শেষে আলোচনা হওয়ার কথা।


ন্যায্যমূল্যের দোকান থেকে খোলা বাজারে
বহু ঢাকঢোল পিটিয়ে পহেলা অক্টোবর থেকে দেশের সর্বত্র ৪ হাজার ৭২০টি ন্যায্যমূল্যের দোকান চালু করা হলেও বেশিরভাগ দোকানে কোনও পণ্য না পাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তার মধ্যে কেবল ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের দোকানগুলোতে শিশুখাদ্য, শাড়ি, সিগারেট, কাপড়চোপড়, ধোয়ার সোডা পাওয়া গেলেও বাকি কোথাও ঠিকমতো পণ্য পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ ওঠে। অথচ শিশুখাদ্য বেবিলাক ও ডানো খোলাবাজারের দোকানে সাজানো আছে। এসব দোকানে কিছু দিন আগে পর্যন্ত এসব পণ্য পাওয়া যাচ্ছিল না। এখন যারা কম আয়ের মানুষ তারা ন্যায্যমূল্যের দোকান থেকে পণ্য নিয়ে খোলাবাজারে চড়া দামে বিক্রি করে দিচ্ছে বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়।
কার্ডের কারচুপি
বাংলাদেশ তথ্য বিভাগের কর্মচারী ১০ টাকা দিয়ে ক্রয় করেছেন একটি কার্ড। সেটি অবশ্য অন্যের নামে। তাতে  মালামাল পাবার ব্যাপারে তাদের তেমন অসুবিধা হচ্ছে না। এই কার্ডটি কমলাপুর ইউনিয়নের বলে জানা যায়। এইভাবে কার্ড টাকার বিনিময়ে বিক্রয় হয়ে থাকে বলে অভিযোগ আসে। ন্যায্যমূল্যের দোকান নিয়ে সরকারি ডামাডোলের নমুনা দেখে অনেকে মনে করেছিলেন, এবার উচ্চ দ্রব্যমূল্য বাজারে কিছুটা জীবন বাঁচানো যাবে, কিন্তু সকলে হতাশ হতে শুরু করেন।
সুষ্ঠু নীতির অভাবে ব্যাংক খাত
সরকার ব্যাংকগুলোকে জাতীয়করণ করেছে প্রায় সাত মাস আগে। ব্যাংকগুলোকে একত্রিত করে অগ্রণী ব্যাংক, সোনালী ব্যাংক, উত্তরা ব্যাংক, রূপালী ব্যাংক, পূবালী ব্যাংক ও জনতা ব্যাংকে রূপান্তরিত করা হয়। এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার পরপরই আরেকটি সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত ছিল। তখন পর্যন্ত জাতীয়করণকৃত ব্যাংকগুলোর জন্য একটা স্কেল নির্ধারণ না করায় বিভিন্ন ব্যাংকের অন্তর্ভুক্ত কর্মচারীদের বেতন বৈষম্যের অবসান ঘটানোর প্রয়োজন থাকলেও সেটা করা সম্ভব হয়নি। এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ না করার ফলে কর্মচারীদের মধ্যে পারস্পরিক ভুল বোঝাবুঝি ও দলাদলি সৃষ্টি হয়ে যায়। শুধুমাত্র সুস্পষ্ট কোনও সরকারি নির্দেশনামা না থাকার কারণে বিভিন্ন ব্যাংক আঞ্চলিকতার মর্মান্তিক শিকারে পরিণত হয়ে যাচ্ছিল বলেও অভিযোগ ওঠে।

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বিশ্বের বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি বঙ্গবন্ধু

বিশ্বের বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি বঙ্গবন্ধু

বেলগ্রেডে বঙ্গবন্ধুর ব্যস্ত দিন

বেলগ্রেডে বঙ্গবন্ধুর ব্যস্ত দিন

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৯:২৮

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাবেক একান্ত সচিব ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক মুখ্য সচিব  মুক্তিযোদ্ধা ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের  মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার (২৮ জুলাই) এক শোকবার্তায় শেখ হাসিনা  বলেন, ‘সাবেক সিএসপি সৈয়দ আব্দুস সামাদ রাঙ্গামাটির এডিসি থাকা অবস্থায় পাকিস্তানের পক্ষ ত্যাগ করে মুজিবনগর সরকারে যোগদান করেছিলেন।’

প্রধানমন্ত্রী আরও  উল্লেখ করেন, তিনি ছিলেন অত্যন্ত সৎ, দক্ষ, সাহসী এবং কর্তব্যপরায়ণ একজন সরকারি কর্মকর্তা।

প্রধানমন্ত্রী মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

উল্লেখ্য, ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদ বুধবার (২৮ জুলাই) বিকাল ৪টা ৫০ মিনিটে বারিধারায় নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

 

/পিএইচসি এপিএইচ/

সম্পর্কিত

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৯:২৬

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ২৩৭ জন। তাদের নিয়ে দেশে সরকারি হিসাবে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো। এর আগে গত ১৯ জুলাই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ায়। গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৩৭ জনকে নিয়ে দেশে মোট মারা গেলেন ২০ হাজার ১৬ জন।

আজ দেশে করোনায় নতুন রোগী শনাক্তের রেকর্ড হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ১৬ হাজার ২৩০ জন, যা দেশে করোনা মহামারিকালে দৈনিক শনাক্তে রেকর্ড। একদিনে এত রোগী এর আগে শনাক্ত হননি। গত ২৬ জুলাই একদিনে শনাক্ত হয়েছিলেন ১৫ হাজার ১৯২ জন, যা আজকের আগে ছিল সর্বোচ্চ শনাক্ত। আজকের শনাক্ত হওয়া ১৬ হাজার ২৩০ জনকে নিয়ে দেশে করোনা শনাক্ত ১২ লাখ ছাড়িয়ে গেলো। দেশে সরকারি হিসাবে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হলেন ১২ লাখ ১০ হাজার ৯৮২ জন। 

গত ১৮ জুলাই মোট রোগীর সংখ্যা ১১ লাখ ছাড়িয়ে যায়। সে হিসাবে সর্বশেষ গত ১০ দিনে এক লাখ রোগী শনাক্ত হলেন।

বুধবার (২৮ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের করোনা বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৫৬ হাজার ১৫৭ টি, আর নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৩ লাখ ৮৭৭টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৭৬ লাখ ১২ হাজার ৫৮৮টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ৫৫ লাখ ৯৭ হাজার ১৫৭টি এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা করা হয়েছে ২০ লাখ ১৫ হাজার ৪৩১টি।

গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ৩০ দশমিক ১২ শতাংশ, আর এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৫ দশমিক ৯১ শতাংশ। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৫ দশমিক ৫৪ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৬৫ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ২৩৭ জনের মধ্যে পুরুষ ১৪৯ জন, আর নারী ৮৮ জন। দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেলেন ১৩ হাজার ৬২৭ জন এবং নারী ছয় হাজার ৩৮৯ জন।

২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের বয়স ভিত্তিক বিশ্লেষণে ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে একজন, ৮১ থেকে ৯০ বছরের মধ্যে ১৫ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ৪৫ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৭৮ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৪৪ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ৩৪ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ১১ জন এবং ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে রয়েছেন ৯ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছে, তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের রয়েছেন ৭০ জন, চট্টগ্রাম বিভাগের ৬২ জন, রাজশাহী বিভাগের ২১ জন, খুলনা বিভাগের ৩৪ জন, বরিশাল বিভাগের ৯ জন, সিলেট বিভাগের ১৮ জন, রংপুর বিভাগে ১৬ জন এবং ময়মনসিংহ বিভাগে মারা গেছেন সাত জন।

২৪ ঘণ্টায় সরকারি হাসপাতালে মারা গেছেন ১৬৭ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৫৭ জন এবং বাড়িতে ১৩ জন।

 

 

/জেএ/আইএ/

সম্পর্কিত

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৩৪

শিগগিরই অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। বুধবার (২৮ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘দেশে প্রথম করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয় অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার মাধ্যমে। কিন্তু মাঝে টিকা সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় দ্বিতীয় ডোজের জন্য অনেকেই অপেক্ষায় রয়েছেন। আমরা ইতোমধ্যে জাপান সরকারের কাছ থেকে কিছু পরিমাণ টিকা পেয়েছি এবং খুব দ্রুত দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষমাণদের টিকা দেওয়া শুরু করবো।’

ডা. নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা আশাবাদী সরকারের বিভিন্ন বহুমুখী পদক্ষেপের কারণে আরও বেশি সংখ্যায় অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পেয়ে যাবো এবং অবশিষ্ট যারা আছেন তাদের প্রত্যেককেই সে টিকা দিতে সক্ষম হবো।’

দেশে গত ৭ ফেব্রুয়ারি করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। শুরুতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত ও ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটে তৈরি কোভিশিল্ড দিয়ে এ কর্মসূচি শুরু হলেও ভারত সরকারের নিষেধাজ্ঞায় পরে এই টিকার সংকট হয় দেশে।

সেই থেকে মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) পর্যন্ত এ টিকার প্রথম ডোজ নিয়ে দ্বিতীয় ডোজের অপেক্ষায় রয়েছেন সাড়ে ১৪ লাখ মানুষ। এখানে উল্লেখ্য, গত ২৪ জুলাই কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় জাপান সরকারের উপহার দেওয়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার তৈরি টিকা দেশে আসে।

বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত নাওকি ইতো এই টিকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের কাছে হস্তান্তর করেন। এ সময় জাপানের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘আগামী ১ মাসের মধ্যে আরও প্রায় ২৮ লাখ টিকা জাপান থেকে বাংলাদেশে আসবে।’

জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিৎসু মোতেগি ১৫টি দেশের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা কোভ্যাক্সের আওতায় দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। জাপানের উপহার পাবে এমন দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশের নাম। তালিকা অনুযায়ী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২৯ লাখ টিকা পাবে বাংলাদেশ। তারই প্রথম চালান দেশে আসে কয়েক দিন আগে।

দেশে ইতোমধ্যে সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার টিকাও রোল আউট হয়েছে জানিয়ে অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘এসব টিকা দিতে শুরু করেছি।’ সেই সঙ্গে যাদের সুযোগ রয়েছে তাদের অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘তারা যেন অন্যদের টিকা নিবন্ধন করতে সহযোগিতা করেন। তবে টিকাকেন্দ্রে যেতে হবে কেন্দ্র থেকে এসএমএস পাওয়ার পর।’ বিধিনিষেধের প্রতি অনুগত থাকা, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য দেশের সব নাগরিকের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

 

/জেএ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

টিকা নিয়েছেন বিদেশগামী ১০ হাজার শিক্ষার্থী

টিকা নিয়েছেন বিদেশগামী ১০ হাজার শিক্ষার্থী

একনেকে প্রধানমন্ত্রীর ৭ নির্দেশনা

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৭:৫১

সেতু ও কালভার্ট নির্মাণে নৌ-চলাচলের জন্য উপযোগী উচ্চতা ঠিক রাখাসহ অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠকে ৭টি অনুশাসন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (২৮ জুলাই) নতুন অর্থবছরের প্রথম এবং বর্তমান সরকারের চলতি মেয়াদের ৬১তম একনেক সভায় এ অনুশাসন দেন বলে বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের জানান। পরে নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলমও এসব অনুশাসনের ব্যাখ্যা দেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেকে প্রায় ২ হাজার ৫৭৫ কোটি ৪২ লাখ টাকা ব্যয় সংবলিত ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়। শেরেবাংলা নগরে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এই বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসনের কথা উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘দেশে নতুন যেসব সড়ক বা মহাসড়ক নির্মাণ করা হবে— সেখানে আন্ডারপাস, ওভারপাস, ইউলুপ ইত্যাদি বিষয়ে নজর রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।’ অনেক জায়গায় মানুষের চলাচল বাধাগ্রস্ত হচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এখন থেকে যত রাস্তাঘাট করা হবে এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। যাতে মানুষ ও যানবাহন চলাচলে কোনও বিঘ্ন না ঘটে। তিনি সড়ক বিভাগকে এই নির্দেশনা দিয়েছেন।’

অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশ চ্যান্সেরি ভবন নির্মাণ প্রকল্প পাস করার সময় প্রধানমন্ত্রী ভবন নির্মাণে ওই দেশের নিয়ম-কানুন অনুসরণ করতে বলেছেন।

করোনাকালে দেশে ফেরত আসা প্রবাসীদের কর্মসংস্থানে নেওয়া একটি প্রকল্প পাস হওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার উদ্ধৃতি দিয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘তারা (প্রবাসীরা) এতদিন আমাদের দিয়েছেন। এখন তাদের আমাদের দিতে হবে। তারা যাতে পুনরায় আমাদের সমাজে রিইন্টিগ্রেড হতে পারে। তারা যেন সম্মানজনক পেশায় যুক্ত হতে পারে, তার জন্য সহায়তা দিতে হবে।’

এ বিষয়ে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম  বলেন, ‘এ পর্যন্ত পাঁচ লাখ প্রবাসী দেশে ফিরে এসেছেন। এরমধ্যে প্রত্যাগত অভিবাসী কর্মীদের পুনঃএকত্রীকরণের লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিক খাতে কর্মসংস্থান সৃজনে সহায়ক প্রকল্পের মাধ্যমে দুই লাখ শ্রমিককে সহায়তা করা হবে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে প্রবাসী শ্রমিকদের ডাটাবেজ করা হবে।’

নারীদের কম্পিউটার প্রশিক্ষণের জন্য নেওয়া একটি প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী নারীদের জন্য এ ধরনের প্রশিক্ষণ ব্যাপকভাবে গ্রহণ করতে বলেছেন। তিনি এই বিষয়গুলো প্রকল্পের মধ্যে না এনে রাজস্ব বাজেটে অন্তর্ভুক্ত করতে বলেছেন।’

এ বিষয় প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নারীদের প্রশিক্ষণের বিষয়টি রাজস্ব বাজেটে যেতে পারে। এটাকে প্রকল্প আকারে আনার দরকার পড়ে না। নিয়মিত কার্যক্রমের মধ্যে নিয়ে আসা যায়।’

ব্রিজ নির্মাণে প্রধানমন্ত্রীর সতর্কতার কথা ‍উল্লেখ করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘এই বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী আগেও কয়েকবার বলেছেন। আজও বলেছেন যে ব্রিজ নির্মাণে উচ্চতা যেন ঠিক থাকে। জোয়ার-ভাটায় বাংলাদেশে পানি বাড়ে-কমে। এজন্য নৌ, সড়ক ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়কে সমন্বয় করে এসব ব্রিজ-কালভার্ট তৈরি করবেন। সেতুগুলোর উচ্চতা যেন যথাযথ হয়, সেটা দেখতে হবে।’

মুন্সীগঞ্জে পদ্মার ভাটিতে বাঁধ নির্মাণ বিষয়ে প্রকল্প পাসের সময় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ‘এখানে-সেখানে অনেক বালুমহাল গড়ে উঠেছে। এগুলো যথাযথ স্থানে স্থানান্তর করতে হবে। বালু ব্যবসা বন্ধের কথা বলছি না। কিন্তু যার যেখানে ইচ্ছা এটা করবে, এটা ঠিক নয়। এজন্য প্রধানমন্ত্রী নৌসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে ব্যবস্থা নিতে বলেছেন।’

বিসিক খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী প্রকল্প পাসের সময় প্রধানমন্ত্রী ওই শিল্পনগরীকে অন্যান্য খাদ্যদ্রব্যের পাশাপাশি দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্য তৈরির ইউনিট রাখার নির্দেশনা নিয়েছেন বলে মন্ত্রী জানান।

একনেকে পাস হলো যেসব প্রকল্প

১. ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম জাতীয় মহাসড়কে ৩টি আন্ডারপাস এবং পদুয়ার বাজার ইন্টারসেকশনে ইউলুপ নির্মাণ প্রকল্পটি চলতি বছরের জুলাই থেকে জুন ২০২৪ সালে বাস্তবায়ন করবে সড়ক ও জনপথ অধিদফতর (সওজ)। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৫৬৮ কোটি ৯৩ লাখ টাকা।

২. জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততা উন্নীতকরণের (ময়মনসিংহ জোন) প্রথম সংশোধিত প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ১১১ কোটি ৫৮ লাখ টাকা।

৩. পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ‘অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরায় বাংলাদেশ চ্যান্সেরি ভবন নির্মাণ’ প্রকল্প অনুমোদন পেয়েছে একনেকে। ১৪৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ হাইকমিশন, ক্যানবেরা।

৪. বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের ‘ইনস্টিটিউট অব টিস্যু ব্যাংকিং অ্যান্ড বায়োমেটেরিয়াল রিসার্চ-এর সেবা ও গবেষণা সুবিধাদির আধুনিকায়ন ও সম্প্রসারণ’ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ১৭৩ কোটি ৮০ লাখ টাকার এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন।

৫. মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের ‘জেলাভিত্তিক মহিলা কম্পিউটার প্রশিক্ষণ (৬৪ জেলা)’ তৃতীয় সংশোধিত প্রকল্প অনুমোদন হয়েছে। ১১৮ কোটি ৭৯ লাখ টাকায় জুন ২০২৩ সালে এটি বাস্তবায়ন করবে জাতীয় মহিলা সংস্থা।

৬. স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে পূর্ণাঙ্গ শিশু কার্ডিওলজি ও শিশু কার্ডিয়াক সার্জারি ইউনিট স্থাপন’ প্রকল্পটি অনুমোদন পেয়েছে। ৭২ কোটি টাকায় প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়।

৭. স্থানীয় সরকার বিভাগের ‘দেশের দক্ষিণাঞ্চলে আয়রন ব্রিজ পুনর্নির্মাণ/পুনর্বাসন’ প্রকল্পটি প্রথম সংশোধন হয়েছে একনেকে। দুই হাজার ৩৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতর (এলজিইডি)।

৮. পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের ‘পদ্মা বহুমুখী সেতুর ভাটিতে মুন্সীগঞ্জ জেলার লৌহজং ও টংগিবাড়ী উপজেলাধীন বিভিন্ন স্থানে পদ্মা নদীর বাম তীর সংরক্ষণ’ প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ৪৪৬ কোটি টাকার প্রকল্পটি বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (বাপাউবো) বাস্তবায়ন করবে।

৯. প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ‘প্রত্যাগত অভিবাসী কর্মীদের পুনঃএকত্রীকরণের লক্ষ্যে অনানুষ্ঠানিক খাতে কর্মসংস্থান সৃজনে সহায়ক’ প্রকল্পটি অনুমোদন পেয়েছে। ৪২৭ কোটি ৩০ লাখ টাকার প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড।

১০. শিল্প মন্ত্রণালয়ের ‘বিসিক খাদ্য প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্পনগরী, ঠাকুরগাঁও’ প্রকল্পটি একনেকের অনুমোদন পেয়েছে। ৯৮ কোটি ৬১ লাখ টাকায় এটি বাস্তবায়ন করবে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)।

 

/ইএইচএস/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

একনেকে আড়াই হাজার কোটি টাকার ১০ প্রকল্প অনুমোদন

একনেকে আড়াই হাজার কোটি টাকার ১০ প্রকল্প অনুমোদন

করোনায় নারী মৃত্যু বেড়েছে: স্বাস্থ্য অধিদফতর

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৫:৪১

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ও সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে নারী মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। বুধবার (২৮ জুলাই) কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতর আয়োজিত ভার্চুয়াল স্বাস্থ্য বুলেটিনে অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘এটি আমাদের নজরে আছে এবং সংশ্লিষ্টরা কাজ করছেন। তথ্য-উপাত্তগুলো এক জায়গায় হওয়ার পরে আমরা নিশ্চিত তথ্য দিতে পারবো।’

বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ঢাকায় সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এরপর চট্টগ্রাম বিভাগে, তারপর খুলনায়। সবচেয়ে কম সংখ্যক রোগী মারা গেছেন সিলেট বিভাগে। জেলার তথ্যে ঢাকা জেলায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক রোগী শনাক্ত হয়েছেন, চার লাখ ১৯ হাজার ১২৮ জন। এরপরই বন্দর নগরী চট্টগ্রামের অবস্থান। সেখানে ৭৪ হাজার ১৯৩ জন রোগী এবং সবচেয়ে কম রোগী ১৮ হাজার ৮৩৮ জন শনাক্ত হয়েছে রাজশাহী জেলায়।’

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) করোনায় একদিনে মৃত্যু হয় ২৫৮ জনের, যা বাংলাদেশে মহাকারিকালে রেকর্ড। ২৫৮ জনের মধ্যে পুরুষ ১৩৮ জন এবং নারী ছিলেন ১২০ জন। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা যাওয়া ১৯ হাজার ৭৭৯ জনের মধ্যে পুরুষ ১৩ হাজার ৪৭৮ জন এবং নারী ছয় হাজার ৩০১ জন।

 

/জেএ/আইএ/

সম্পর্কিত

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

শিগগিরই অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ: স্বাস্থ্য অধিদফতর

সর্বশেষ

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

ড. সৈয়দ আব্দুস সামাদের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক

অডিশন দিয়েও বলিউডে আসেননি ক্রেইগ, কারণ?

অডিশন দিয়েও বলিউডে আসেননি ক্রেইগ, কারণ?

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

স্পেনের সঙ্গে ড্র করেও আর্জেন্টিনার বিদায়

অলিম্পিক ফুটবলস্পেনের সঙ্গে ড্র করেও আর্জেন্টিনার বিদায়

কমিউনিটি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত

কমিউনিটি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

লক্ষ্মীপুরে এর আগে একদিনে এত মানুষ আক্রান্ত হয়নি

ঢাকায় গ্রেফতার বেড়েছে

ঢাকায় গ্রেফতার বেড়েছে

শ্রীপুরে এক সপ্তাহে ৪ হত্যাকাণ্ড: স্থানীয়দের মাঝে উদ্বেগ

শ্রীপুরে এক সপ্তাহে ৪ হত্যাকাণ্ড: স্থানীয়দের মাঝে উদ্বেগ

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

পুঁজিবাজার বন্ধ থাকবে ১ ও ৪ আগস্ট

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

সাঈদ খোকনের ব্যাংক হিসাব তলব

সাঈদ খোকনের ব্যাংক হিসাব তলব

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বিশ্বের বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি বঙ্গবন্ধু

বিশ্বের বৃহৎ শক্তিবর্গের প্রতি বঙ্গবন্ধু

বেলগ্রেডে বঙ্গবন্ধুর ব্যস্ত দিন

বেলগ্রেডে বঙ্গবন্ধুর ব্যস্ত দিন

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

বঙ্গবন্ধুর ১৮ দিনের বিদেশ সফর ২৬ জুলাই

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

তিন ইস্যুতে ভারত-পাকিস্তান বৈঠক শুরু ২৪ জুলাই

বঙ্গবন্ধুর আসন্ন বেলগ্রেড সফর তাৎপর্যপূর্ণ

বঙ্গবন্ধুর আসন্ন বেলগ্রেড সফর তাৎপর্যপূর্ণ

বাংলাদেশ মুক্তিকামী জনতার পাশে থাকবে: বঙ্গবন্ধু

বাংলাদেশ মুক্তিকামী জনতার পাশে থাকবে: বঙ্গবন্ধু

বকেয়া বিল আদায় ও ভুয়া কার্ড উদ্ধারে অভিযান

বকেয়া বিল আদায় ও ভুয়া কার্ড উদ্ধারে অভিযান

বঙ্গবন্ধু বিদেশ যাচ্ছেন শান্তি অভিযানে

বঙ্গবন্ধু বিদেশ যাচ্ছেন শান্তি অভিযানে

ফারাক্কা বাঁধ চালু হবে না

ফারাক্কা বাঁধ চালু হবে না

© 2021 Bangla Tribune