X
বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

বগুড়ায় যুবদল নেতার নেতৃত্বেই সম্রাটকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

আপডেট : ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১৯:১৪






নিহত সুব্রত ওরফে সম্রাট ঘোষ বগুড়ায় সাবগ্রাম হাট কেন্দ্রীয় শ্রী শ্রী দুর্গা মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক অতুল চন্দ্র দাসের নেতৃত্বেই দুর্বৃত্তরা সুব্রত ওরফে সম্রাট ঘোষকে (২৭) কুপিয়ে হত্যা করেছে। প্রাথমিক তদন্তে অতুলের নাম আসার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির। তিনি জানান, এক বছর আগের বিরোধের জের ধরেই সম্রাটকে হত্যা করা হয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকাবাসী ও খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কয়েক বছর আগে সম্রাট ও অতুল একে অপরের বন্ধু ছিলেন। ২০১১ সাল পর্যন্ত সাবগ্রাম ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের রাজনীতি করতেন সম্রাট। অতুল সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক। এদের বিরুদ্ধে এলাকায় চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অভিযোগ আছে। সম্রাটের ভাই জুয়েল ওরফে হাড়ি জুয়েলও পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী।

এলাকায় আধিপত্য বিস্তারসহ নানা কারণে সম্রাট ও তার ভাই হাড়ি জুয়েলের সঙ্গে অতুলের বিরোধ সৃষ্টি হয়। কিছু দিন আগে অতুলের নেতৃত্বে সাবগ্রাম এলাকাবাসী সম্রাটের বিরুদ্ধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। অতুলের সঙ্গে বিরোধের কারণেই সম্রাট এলাকা ছেড়ে শহরে বসবাস করতেন। রবিবার (২৫ অক্টোবর) রাতে এলাকার মন্দিরে দুর্গা প্রতিমা দর্শন ও সাবগ্রাম মালিপাড়ায় বাবা-মার সঙ্গে দেখা করতে আসেন সম্রাট। রাত ১টার দিকে প্রতিমা দর্শন শেষে সম্রাট মোটরসাইকেলে বাড়ির দিকে ফিরছিলেন। এ সময় এক দল সন্ত্রাসী মন্দির চত্বরে তার পথরোধ ও হামলা করে। সঙ্গীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও মোটরসাইকেল থেকে নেমে সেখানকার একটি টিনশেড ঘরে আশ্রয় নেন সম্রাট। সন্ত্রাসীরা তাকে ঘর থেকে তাকে বের করে কোপাতে থাকে। মৃত্যু নিশ্চিত হবার পর তারা এলাকা ত্যাগ করে। এ সময় মন্দিরে আসা দর্শনার্থীরা ভয়ে ছোটাছুটি করতে থাকেন।








সদর থানার ওসি হুমায়ুন কবির জানান, এক বছর আগের বিরোধের জের ধরেই সদর উপজেলা যুবদলের আহ্বায়ক অতুল চন্দ্র দাসের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা সম্রাটকে কুপিয়ে সম্রাটকে হত্যা করেছে। এরপরও মামলা না হওয়া পর্যন্ত তারা এ ব্যাপারে মন্তব্য করবেন না। ঘটনাস্থলে নিহত সম্রাট ও তার লোকজনের দুটি মোটরসাইকেল পাওয়া গেছে।

ওসি আরও জানান, সম্রাটের বিরুদ্ধে সদর থানায় পরিবহন নেতা মনিরুজ্জামান মানিক হত্যা, অস্ত্র আইন ও ডাকাতির চারটি মামলা রয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় এ খবর পাঠানোর সময় মামলার প্রস্তুতি চলছিল। পুলিশ হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে। 

/আরআইজে/

সম্পর্কিত

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে ১৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে ১৮ মৃত্যু

বৈঠকে থাকা আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

বৈঠকে থাকা আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৬

কক্সবাজারের উখিয়া ও পার্শ্ববর্তী পার্বত্য উপজেলা নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার (২৮ জুলাই) উখিয়া ও ঘুমধুমের বিভিন্ন স্থানে তাদের মৃত্যু হয়।

উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গফুর উদ্দিন চৌধুরী বলেন, সকাল ১০টার দিকে আবদুর রহমান (৪৫) নামের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়। মঙ্গলবার ভারী বৃষ্টিতে পাহাড়ি ঢলে বন্যার সৃষ্টি হলে পালংখালী ইউনিয়নের চুয়াখোলা খাল পার হতে গিয়ে রহমান নিখোঁজ হন।

রাজাপালং ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হেলাল উদ্দিন বলেন, উখিয়ার মাছকারিয়া খাল থেকে আলী আকবর (৪০) নামের একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দুপুর ১২টার দিকে খালটিতে তার লাশ দেখতে পায় স্থানীয়রা। আলী আকবর উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ধইল্যাঘোনা এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে।

একই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী বলেন, উখিয়ায় বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হচ্ছে। সকালে উপজেলার দুছরী খাল সাঁতরে পার হওয়ার সময় মালিয়ারকুল এলাকার মো. রুবেল (২২) নিখোঁজ হয়। বিকাল সাড়ে ৩টার দিকে কোটবাজারের পাশে রুমখা কুলালপাড়া (কোয়ার পাড়া) এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

এদিকে, নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নেও পানিতে ডুবে দুই জনের মৃত্যু হয়েছে। বন্যার ঢলের সময় নদী পার হতে গিয়ে ঘুমধুম ইউনিয়নের শীলপাড়া গ্রামের সুবাস বড়ুয়ার ছেলে আশীষ বড়ুয়া (১৬) পানিতে ভেসে মারা যায়। অন্যদিকে পানি থেকে আবদুর রহিম (২৮) নামের এক রোহিঙ্গার লাশও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৬

কুড়িগ্রামের উলিপুরে ‘অপহরণের’ প্রায় সাড়ে নয় মাস পর অপহৃত এক স্কুলছাত্রীকে (১৫) উদ্ধার করেছে পুলিশ। নীলফামারী সদরের পোস্ট অফিস মোড় এলাকা থেকে ছাত্রীকে উদ্ধারের পাশাপাশি অভিযুক্ত যুবক রায়হান মিয়াকেও গ্রেফতার করা হয়।

বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে তাদের কুড়িগ্রামে নিয়ে আসা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উলিপুর থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক আব্দুল বাতেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

অপহৃত ছাত্রীর পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ১৬ অক্টোবর উপজেলার বজরা ইউনিয়নের কালপানি বজরা এলাকা থেকে ওই কিশোরীকে ‘অপহরণ’ করে নিয়ে যায় একই এলাকার এমদাদুল হকের ছেলে রায়হান মিয়া (৩২)। পরে কিশোরীর বাবা গত ১২ নভেম্বর উলিপুর থানায় মামলা করেন।

রায়হান পলাতক থাকলেও এ ঘটনায় রায়হানের বাবা এমদাদুল ও ভাই আকরাম হোসেনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠায় পুলিশ। আসামিরা জামিনে বেরিয়ে এলেও রায়হান ও কিশোরীকে উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছিল না। প্রায় সাড়ে নয় মাস পর প্রযুক্তির সহায়তায় রায়হানের মোবাইল নম্বর ট্র্যাকিং করে অবস্থান নিশ্চিত হয় পুলিশ। মঙ্গলবার নীলফামারীর পোস্ট অফিস মোড় এলাকা থেকে রায়হানকে গ্রেফতার ও কিশোরীকে উদ্ধার করতে সক্ষম হয় পুলিশ।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আব্দুল বাতেন বলেন, প্রযুক্তির সাহায্যে আমরা তাদের অবস্থান শনাক্ত করতে সক্ষম হই। নীলফামারী সদর থানা পুলিশের সহযোগিতায় রায়হানকে গ্রেফতার ও কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। বুধবার দুপুরে রায়হানকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। অসুস্থ থাকায় পুলিশ পাহারায় কিশোরীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

/এএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

রংপুর মেডিক্যালে অক্সিজেন কিনে বাঁচার চেষ্টা রোগীদের

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

রংপুরে একদিনে ১৬ মৃত্যু

রংপুরে একদিনে ১৬ মৃত্যু

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:০০

টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছেন। বুধবার (২৮ জুলাই) সকালে টাঙ্গাইল-জামালপুর সড়কের উপজেলার বানিয়াজান বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার বানিয়াজান ইউনিয়নের উত্তরপাড়া গ্রামের হেলাল উদ্দিন (৪৫) ও তার স্ত্রী সুন্দরী বেগম (৪০)। ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. চান মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, হেলাল উদ্দিন ও তার স্ত্রী মাছ ধরে বাড়িতে ফিরছিলেন। পরে সড়ক পার হওয়ার সময় জামালপুরগামী কোমল পানীয় ভর্তি একটি কাভার্ডভ্যান তাদের ধাক্কা দেয়। এতে দুইজন ঘটনাস্থলে মারা যান। এ সময় কাভার্ডভ্যানটিও নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সড়কেই উল্টে যায়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে।

ওসি মো. চান মিয়া বলেন, ঘটনার পরপরই গাড়ির চালক ও হেলপার পালিয়ে গেছে। গাড়িটি সড়ক থেকে সরিয়ে থানায় আনা হয়েছে। এ ঘটনায় কেউ এখনও থানায় অভিযোগ দেয়নি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

যমজ দুই ভাইয়ের সঙ্গে যমজ বোনের বিয়ে

যমজ দুই ভাইয়ের সঙ্গে যমজ বোনের বিয়ে

টিকার ২ ডোজ নেওয়া সিভিল সার্জন করোনায় আক্রান্ত

টিকার ২ ডোজ নেওয়া সিভিল সার্জন করোনায় আক্রান্ত

বন্ধুর বাড়ি বেড়াতে এসে দোকানিকে গলা কেটে হত্যা

বন্ধুর বাড়ি বেড়াতে এসে দোকানিকে গলা কেটে হত্যা

বরগুনায় টানা বর্ষণে ডুবে গেছে ফসল ও মাছের ঘের

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৭:৫৮

টানা বর্ষণে বরগুনার বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। এতে লোকালয়ের পাশাপাশি নিমজ্জিত হয়েছে আমনের বীজতলা। ডুবে গেছে অসংখ্য মাছের ঘের। এছাড়া নদীর তীরবর্তী এলাকার ঘরবাড়িতে পানি প্রবেশ করায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন বাসিন্দারা। 

গত ২৪ ঘণ্টায় বরগুনায় ২৪ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে আবহাওয়া অফিস। বঙ্গোসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপের প্রভাবে উপকূলীয় এলাকায় অতি বর্ষণ সৃষ্টি হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের পানি পরিমাপক মাহতাব হোসেন জানান, অতি বর্ষণে বরগুনার পায়রা, বিষখালী ও বলেশ্বর—এই তিনটি নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে তিন ফুট উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছে। 

এদিকে অতি বর্ষণের সঙ্গে ঝড়ো হাওয়ায় সৃষ্ট ঢেউয়ে জেলার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে উপকূলীয় নদী তীরবর্তী এলাকার লোকজন আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। বরগুনার ছয় উপজেলার মধ্যে আমতলী, তালতলী, পাথরঘাটা ও বরগুনার সদরের বিভিন্ন নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। 

ডুবে গেছে অসংখ্য মাছের ঘের

পাথরঘাটা উপজেলার ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন বিষখালী নদী তীরের বাসিন্দা আব্দুস সালাম বলেন, ‘দেওইর (বৃষ্টি) পানতে মোগো বাড়িঘর সব ডুইব্বা যাইতেছে। বাসার মইদ্দে পানি হানছে, এহন ঘরে বন্দি হইয়া পড়ছি মোরা।’ 

বরগুনার বাইনচটকি ফেরিঘাটের খেয়াচালক নাসির মিয়া বলেন, ‘বিষখালী নদীর এই এলাকায় জোয়ারের পানি অনেক বাইড়া গ্যাছে। ফেরির গ্যাংওয়েসহ সংযোগ সড়ক তলাইয়া গ্যাছে। মোরা খেওয়া চালাইন্না বন্দ রাকছি।’

তালতলী উপজেলার বগি এলাকার শাহীন বলেন, ‘পায়রা নদীতে বিশাল ঢেউ শুরু অইছে। জোয়ারের পানিও বাইড়া গ্যাছে। এই রহম যদি পানি বাড়তে থাহে, তয় মোগো এলাকার বেড়িবাঁধ ভাইঙ্গা ঘরবাড়ি তলাইতে বেশি সময় লাগবে না।’

এদিকে গত তিন দিনের টানা ভারী বর্ষণে ফসলের মাঠ প্লাবিত হয়েছে। নিমজ্জিত হয়েছে আমনের বীজতলা। এছাড়া আমনের চাষাবাদও বন্ধ রয়েছে। 

ঘরবাড়িতে পানি প্রবেশ করায় দুর্ভোগে পড়েছেন বাসিন্দারা

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের জেলা কার্যালয়ের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, এবার জেলায় এক লাখ ২২ হাজার ৯৯৪ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদের লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা হয়েছে। এসব জমিতে আমন আবাদের জন্য ১৫ হাজার ২৫০ হেক্টর জমিতে বীজতলা করা হয়। কিন্তু প্রবল বর্ষণের কারণে অধিকাংশ এলাকার বীজতলা এখন ডুবে আছে। এতে বীজতলার চারাগুলোতে পচন ধরার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এছাড়া আমনের আবাদের মৌসুমে জমির চাষাবাদও বন্ধ হয়েছে। 

পাথরঘাটার কালমেঘা ইউনিয়নের বাসিন্দা সেলিম মিয়া বলেন, ‘আবাদ করনের লইগ্যা মুই ২০ কাডি ধান বীজতলা বানাইতে খ্যাতে হালাইছিলাম। এহন দেওইর পানিতে সব বীজ পানির তলে। দেওই না কোমলে সব নষ্ট অইয়া যাইবে। হেলে (ফলে) মোগো এইফির (এবার) আর আমন ধান ঘরে ওডবে বইল্যা মনে অয় না।’

তালতলীর নিদ্রা এলাকার এলাকার কৃষক মিজানুর রহমান বলেন, ‘মনে করছিলাম দেওয়ই কোমবে, দিনদিন হ্যা বাড়তেই আছে। মোর জাগাজমির চাষাবাদ সব বন্দ। বীজ তুইল্লা খ্যাতে রুইতে পারমু কি-না কইতে পারি না।’

অধিকাংশ এলাকার বীজতলা ডুবে আছে

অতি বর্ষণে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন উপকূলীয় বরগুনা জেলার মাছ চাষিরা। বিশেষ করে নদী তীরবর্তী এলাকার ঘেরগুলোর অধিকাংশই বর্ষণের পানিতে ডুবে আছে। এসব ঘেরের মাছ জাল দিয়ে কোনোমতে আটকে রেখেছেন চাষিরা। তবে অনেকের মাছ লাফিয়ে বানের জলে ভেসে গেছে।

সদর উপজেলার বরগুনা সদর ইউনিয়নের মাছ চাষি সাকিব ফরাজি বলেন, ‘আমার ঘেরের অনেক মাছ বেরিয়ে গেছে। কোনোমতে জাল দিয়ে আটকে রাখার চেষ্টা করছি। বৃষ্টি না কমলে মাছ রক্ষা করার কোনও উপায় নেই।’

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী কায়সার আহমেদ বলেন, ‘আমাদের ২২টি পোল্ডারের ৮০০ কিলোমিটার বেড়িবাঁধের বেশকিছু এলাকায় ভাঙন কবলিত হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে আমরা সেসব এলাকার বাঁধ রক্ষায় ব্যবস্থা নিচ্ছি।’

জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘আমি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের এলাকার খোঁজ-খবর রাখার জন্য বলেছি। অতি বর্ষণের কারণে সৃষ্ট প্লাবনের শিকার বাসিন্দাদের সরকারের পক্ষ থেকে যথাসম্ভব আশ্রয় ও খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে।’

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, সড়কে চলছে নৌকা

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, সড়কে চলছে নৌকা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

করোনায় প্রাণ গেলো অন্তঃসত্ত্বা বিচারকের

শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির ওপর হাসপাতাল নির্মাণ না করার আহ্বান

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৮:৩০

মহান মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন ধ্বংস করে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সমাধির উপর এবং চট্টগ্রামের ‘ফুসফুস’খ্যাত সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে সরে আসার আহ্বান জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন রাজনীতিবিদ, পেশাজীবী মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযুদ্ধের সংগঠকদের ২১ সন্তান।

বুধবার এক যৌথ বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় দেশকে পরিচালিত করছেন। তার সুশাসনকে কলঙ্কিত করতে প্রশাসনে ঘাপটি মেরে থাকা কিছু আমলা রেলওয়ের সরকারি জায়গায় বেসরকারি হাসপাতাল নির্মাণের দুঃসাহস দেখিয়েছেন। চট্টগ্রামের বুদ্ধিজীবী ও সুশীল সমাজের কঠোর বিরোধিতার পরেও প্রকল্পটি বাতিলের কোনও ঘোষণা এখনও দেওয়া হয়নি।’

বিবৃতিতে তারা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ও প্রকৃতি ধ্বংস করে সিআরবি নয়; পাহাড়তলী, কুমিরা কিংবা অন্য যেকোনও জায়গায় হাসপাতাল নির্মাণের দাবি জানান।

মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা আরও জানান, তারা হাসপাতাল নির্মাণের বিরুদ্ধে নয়, জায়গার বিরুদ্ধে। বন্দরে হাসপাতাল নির্মাণের জায়গা পরিদর্শন করেছেন দেবী শেঠীর মতো খ্যাতিমান চিকিৎসক।  সেই জায়গাটিও হাসপাতাল নির্মাণের উপযুক্ত জায়গা।

বিবৃতিতে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা বলেন, ‘সিআরবিতে এক হাসপাতাল নির্মাণেই নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের শহীদ সমাধিস্থলসহ বহু স্মৃতিচিহ্ন। হাসপাতাল তৈরির জন্য যে ছয় একর জায়গা চিহ্নিত করা হয়েছে, সেখানে রয়েছে একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চাকসু) জিএস আবদুর রবের সমাধি, শহীদ শেখ নজির আহমদের সমাধিস্থল। হাসপাতাল হলে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ডবল এমএ মনোয়ার হোসেন, বিমল সিং, ফখরুল আলম, মো. সিরাজউদ্দিন, আলী নূর চৌধুরী, মহিউদ্দিন, নুরন্নবী চৌধুরী ও গঙ্গারামের স্মৃতিস্তম্ভও বিলীন হয়ে যাবে। শহীদ আবদুর রবের নামে থাকা রেলওয়ে কলোনিটিও ধ্বংস হয়ে যাবে। একই সঙ্গে হারিয়ে যাবে মহান মুক্তিযুদ্ধের সেক্টর কমান্ডার ক্যাপ্টেন রফিকের তৎকালীন কমান্ড অফিস কাঠের বাংলোটি। মুক্তিযুদ্ধের এ রকম অসংখ্য স্মৃতিবিজড়িত স্থান বাঁচাতে এখানে আমরা হাসপাতাল চাই না।’

বিবৃতিদাতা বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানরা হলেন– চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনিবাহী কমিটির সদস্য সাইফুদ্দিন খালেদ বাহার, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের নির্বাহী কমিটি সদস্য মাহবুব উর রহমান রুহেল, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ চট্টগ্রাম জেলার সহ-সভাপতি দীপংকর চৌধুরী কাজল, অবিনাশী ৭১-এর সেক্রেটারি পারভেজ মান্নান, স্লোগান সম্পাদক মোহাম্মদ জহির, দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমা হারুন লুবনা, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ফরিদ মাহমুদ, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও হাটহাজারি উপজেলা চেয়ারম্যান এস এম রাশেদুল আলম, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় প্রথম যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক শওকত বাঙালি, মহিলা শ্রমিক লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুবা আহসান চৌধুরী, জহুর আহমদ চৌধুরী ফাউন্ডেশনের পরিচালক শরফুদ্দীন চৌধুরী রাজু, রহমত উল্লাহ চৌধুরী ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি হাবিব উল্লাহ চৌধুরী ভাস্কর, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান চট্টগ্রাম উত্তর জেলা সেক্রেটারি এসএম ফরহাদ আলী, দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সেক্রেটারি আবু তৈয়ব সিদ্দিকী, আওয়ামী লীগ নেতা তাজিব সুলতান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মো. সরওয়ার আলম চৌধুরী মণি, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগরের আহ্বায়ক শাহেদ মুরাদ সাকু, সদস্য সচিব কাজী মুহাম্মদ রাজিশ ইমরান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ ওমর ফারুক রাসেল, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাংবাদিক আহমেদ কুতুব, চট্টগ্রাম ভেটেরেনারি বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার’স সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু মোহাম্মদ আরিফ প্রমুখ।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

ঢলের পানিতে মাছ ধরতে গিয়ে দুই ভাইসহ নিখোঁজ ৩

নমুনা দিতে এসে মৃত্যু

নমুনা দিতে এসে মৃত্যু

চট্টগ্রামে পৌঁছেছে আরও এক লাখ ৮৫ হাজার টিকা

চট্টগ্রামে পৌঁছেছে আরও এক লাখ ৮৫ হাজার টিকা

সর্বশেষ

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

শনাক্তের রেকর্ডের দিনে মৃত্যু ২০ হাজার ছাড়ালো

সাঈদ খোকনের ব্যাংক হিসাব তলব

সাঈদ খোকনের ব্যাংক হিসাব তলব

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের ১১ আগস্টের মধ্যে টিকা গ্রহণের নির্দেশ

আমি জ্যোতিষী নই: মমতা

আমি জ্যোতিষী নই: মমতা

সিরিজ জেতানোর ‘পুরস্কার’ পেলেন সৌম্য

সিরিজ জেতানোর ‘পুরস্কার’ পেলেন সৌম্য

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে অভিযান: ২৪ মামলায় ৩ লাখ ৩১ হাজার টাকা জরিমানা

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

উখিয়া-ঘুমধুমে বন্যার পানিতে ডুবে ৫ জনের মৃত্যু

কর্মহীনদের সহায়তায়  খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

কর্মহীনদের সহায়তায় খাদ্যসামগ্রী অঙ্কুর ফাউন্ডেশনের

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

মাদকের মামলায় ৪ নাইজেরিয়ান কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

দক্ষিণখানে ইয়াবাসহ গ্রেফতার নারী কারাগারে

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

‘অপহরণের’ ৯ মাস পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার, যুবক গ্রেফতার

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় সড়কে প্রাণ গেলো স্বামী-স্ত্রীর

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

জামায়াত-শিবিরের ২০ নেতাকর্মী গ্রেফতার

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

সিরাজগঞ্জে খালাস হচ্ছে আরও ২০০ টন তরল অক্সিজেন

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে ১৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে একদিনে ১৮ মৃত্যু

বৈঠকে থাকা আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

বৈঠকে থাকা আ.লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রেমিকাকে আইফোন কিনে দিতে বাবার সঙ্গে অপহরণ নাটক

প্রেমিকাকে আইফোন কিনে দিতে বাবার সঙ্গে অপহরণ নাটক

কামড়ে ক্রেতার কান ছিঁড়ে ফেললেন দোকানি

কামড়ে ক্রেতার কান ছিঁড়ে ফেললেন দোকানি

বন্যার পানিতে ডুবে এসএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু

বন্যার পানিতে ডুবে এসএসসি পরীক্ষার্থীর মৃত্যু

চাহিদার তুলনায় সেবা নেই রামেক হাসপাতালের সমাজসেবায়

চাহিদার তুলনায় সেবা নেই রামেক হাসপাতালের সমাজসেবায়

© 2021 Bangla Tribune