X
বৃহস্পতিবার, ০৬ মে ২০২১, ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডাদেশের বিরুদ্ধে কায়সারের রিভিউ আবেদন

আপডেট : ২৯ অক্টোবর ২০২০, ২১:৩০

সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের পর আপিল বিভাগের দেওয়া মৃত্যুদণ্ডাদেশের রায় রিভিউ (পুনর্বিবেচনা) চেয়ে আবেদন জানিয়েছেন জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতা ও সাবেক কৃষি প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার।

বৃহস্পতিবার (২৯ অক্টোবর) আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় কায়সারের পক্ষে রিভিউ আবেদনটি করা হয় বলে জানান ব্যারিস্টার তানভীর আহমেদ আল আমীন।

তানভীর আহমেদ আল আমীন বলেন, ‘রিভিউ আবেদনে মোট ১৮টি গ্রাউন্ডে কায়সারের মৃত্যুদণ্ডের সাজা থেকে খালাস চাওয়া হয়েছে।’

এর আগে গত ২২ অক্টোবর সৈয়দ কায়সারের মৃত্যুদণ্ডাদেশ কার্যকর করতে পরোয়ানা জারি করে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গত ১৪ জানুয়ারি জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতা ও সাবেক কৃষি প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারকে ট্রাইব্যুনালের দেওয়া মৃত্যুদণ্ডের সাজা বহাল রেখে রায় ঘোষণা করেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এ রায় দেন। সেদিন

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে উপস্থিত ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। অন্যদিকে আসামিরপক্ষে উপস্থিত ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন।

প্রসঙ্গত, জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতা সাবেক কৃষি প্রতিমন্ত্রী সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সার খালাস চেয়ে ট্রাইব্যুনালের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন। আপিলে ট্রাইব্যুনালের রায় বাতিলের পাশাপাশি তাকে বেকসুর খালাস দেয়ার আবেদন জানানো হয়।

২০১৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর তৎকালীন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসানের নেতৃত্বাধীন আদালত কায়সারকে মৃত্যুদণ্ড ঘোষণা করে রায় দেন।

গণহত্যার একটি, হত্যা, নির্যাতন, অগ্নিসংযোগ ও লুণ্ঠনের ১৩টি ও ধর্ষণের দুটিসহ মোট ১৬টি অভিযোগ তার বিরুদ্ধে আনা হয়। এর মধ্যে  ট্রাইব্যুনালের রায়ে ১৪টি অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। এর মধ্যে ৩, ৫, ৬, ৮, ১০, ১২ ও ১৬ নম্বর অভিযোগে তাকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়।

এছাড়া ১, ৯, ১৩ ও ১৪ নম্বর অভিযোগে আমৃত্যু কারাদণ্ড ও ২ নম্বর অভিযোগে ১০ বছর, ৭ নম্বরে সাত বছর ও ১১ নম্বরে পাঁচ বছর কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ৪ ও ১৫ নম্বর অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় এ অভিযোগগুলোতে কোনও সাজা দেওয়া হয়নি তাকে।

পরে ২০১৫ সালের ১৯ জানিুয়ারি সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় তিনি খালাস চেয়ে আপিল করেন। আপিলে খালাসের আরজিতে ৫৬টি যুক্তি তুলে ধরা হয় এবং ৫০ পৃষ্ঠার মূল আপিলের সঙ্গে প্রয়োজনীয় নথি সংযুক্ত করা হয়।

 

/বিআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সকাল থেকে শহরের ভেতরে গণপরিবহন চলবে

সকাল থেকে শহরের ভেতরে গণপরিবহন চলবে

প্রধানমন্ত্রী মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন: আইনমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন: আইনমন্ত্রী

দেশে বেড়েছে মোবাইল সংযোগ ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারী

দেশে বেড়েছে মোবাইল সংযোগ ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারী

অডিও ফাঁসকারীদের আইনের আওতায় আনতে আইনি নোটিশ

অডিও ফাঁসকারীদের আইনের আওতায় আনতে আইনি নোটিশ

রেলপথে ভারত থেকে আসছে ৫০ হাজার টন চাল

রেলপথে ভারত থেকে আসছে ৫০ হাজার টন চাল

জাম্বিয়ায় সামরিক কূটনীতি নিয়ে বক্তব্য রাখলেন জেনারেল আজিজ

জাম্বিয়ায় সামরিক কূটনীতি নিয়ে বক্তব্য রাখলেন জেনারেল আজিজ

বেদের ছদ্মবেশে ইয়াবার কারবার

বেদের ছদ্মবেশে ইয়াবার কারবার

সাংবাদিক নির্যাতনকারী ফৌজদারি মামলার আসামি ফের স্বপদে বহাল!

সাংবাদিক নির্যাতনকারী ফৌজদারি মামলার আসামি ফের স্বপদে বহাল!

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

এফবিসিসিআই’র সভাপতি হচ্ছেন জসিম, পরিচালকরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

এফবিসিসিআই’র সভাপতি হচ্ছেন জসিম, পরিচালকরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

গণমাধ্যমের জন্য ‘নৈতিক নীতিমালা’ প্রণয়ন চেয়ে আইনি নোটিশ

গণমাধ্যমের জন্য ‘নৈতিক নীতিমালা’ প্রণয়ন চেয়ে আইনি নোটিশ

সর্বশেষ

বাংলাদেশ থেকে কৃষি শ্রমিক নিতে চায় গ্রিস

বাংলাদেশ থেকে কৃষি শ্রমিক নিতে চায় গ্রিস

রিয়াল মাদ্রিদকে বিদায় করে ফাইনালে চেলসি

রিয়াল মাদ্রিদকে বিদায় করে ফাইনালে চেলসি

যে চরিত্র বদলে যায়, সেটাই চাই: কঙ্কনা সেন

যে চরিত্র বদলে যায়, সেটাই চাই: কঙ্কনা সেন

ছেলেদের জন্য বিশ্বরঙের ঈদ আয়োজন

ছেলেদের জন্য বিশ্বরঙের ঈদ আয়োজন

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন নিয়ে যা বললেন বাংলাদেশের রাজনীতিকরা

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচন নিয়ে যা বললেন বাংলাদেশের রাজনীতিকরা

নাতনির সামনে চাকায় পিষ্ট দাদি

নাতনির সামনে চাকায় পিষ্ট দাদি

শহর ভীষণ অকৃতজ্ঞ

শহর ভীষণ অকৃতজ্ঞ

লাল কার্ডের ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধাকে হারালো শেখ জামাল

লাল কার্ডের ম্যাচে মুক্তিযোদ্ধাকে হারালো শেখ জামাল

সকাল থেকে শহরের ভেতরে গণপরিবহন চলবে

সকাল থেকে শহরের ভেতরে গণপরিবহন চলবে

খালেদা জিয়ার আবেদন ইতিবাচকভাবে দেখছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

খালেদা জিয়ার আবেদন ইতিবাচকভাবে দেখছি: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পণ্য চালান দ্রুত খালাসে বন্দর কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

পণ্য চালান দ্রুত খালাসে বন্দর কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

প্রাইম ব্যাংকে যোগ দিয়েছেন জিয়াউর রহমান

প্রাইম ব্যাংকে যোগ দিয়েছেন জিয়াউর রহমান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সকাল থেকে শহরের ভেতরে গণপরিবহন চলবে

সকাল থেকে শহরের ভেতরে গণপরিবহন চলবে

অডিও ফাঁসকারীদের আইনের আওতায় আনতে আইনি নোটিশ

অডিও ফাঁসকারীদের আইনের আওতায় আনতে আইনি নোটিশ

রেলপথে ভারত থেকে আসছে ৫০ হাজার টন চাল

রেলপথে ভারত থেকে আসছে ৫০ হাজার টন চাল

জাম্বিয়ায় সামরিক কূটনীতি নিয়ে বক্তব্য রাখলেন জেনারেল আজিজ

জাম্বিয়ায় সামরিক কূটনীতি নিয়ে বক্তব্য রাখলেন জেনারেল আজিজ

বেদের ছদ্মবেশে ইয়াবার কারবার

বেদের ছদ্মবেশে ইয়াবার কারবার

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের গাছ কাটার প্রতিবাদে মানববন্ধন

গণমাধ্যমের জন্য ‘নৈতিক নীতিমালা’ প্রণয়ন চেয়ে আইনি নোটিশ

গণমাধ্যমের জন্য ‘নৈতিক নীতিমালা’ প্রণয়ন চেয়ে আইনি নোটিশ

সরকারি খরচে হজে পাঠানোর নামে প্রতারণা, গ্রেফতার ১

সরকারি খরচে হজে পাঠানোর নামে প্রতারণা, গ্রেফতার ১

মুনিয়ার মৃত্যু: নিরপেক্ষ তদন্ত চায় মহিলা আইনজীবী সমিতি

মুনিয়ার মৃত্যু: নিরপেক্ষ তদন্ত চায় মহিলা আইনজীবী সমিতি

© 2021 Bangla Tribune