X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

কফির গৃহস্থালি ব্যবহার

আপডেট : ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১৩:০৩

এক কাপ গরম কফি যেমন দূর করতে পারে ক্লান্তি, তেমনি কফি আপনাকে নানাভাবে সাহায্য করতে পারে গৃহস্থালি কাজেও। ঘরোয়া সমস্যার সমাধানে ব্যবহার করা যায় কফির গুঁড়া এবং ব্যবহৃত কফি। জেনে নিন কীভাবে।

হাতের গন্ধ দূর করতে
রান্না করার পর অনেক সময় হাতে থেকে যায় গন্ধ, সাবানে যা দূর হয় না। সিঙ্কের পাশে রেখে দিন ব্যবহার করা কফির গুঁড়া। হাত ধোয়ার সময় স্ক্রাবের মতো সেটা ব্যবহার করুন। মাছ, পেঁয়াজ, রসুন, যেকোনও কি‌ছুর গন্ধ দূর হয়ে যাবে, পাশাপাশি হাত হবে নরম।

গাছের যত্নে
কফি তৈরি করার পর যে গুঁড়ো পড়ে থাকে, তা নাইট্রোজেনের মতো বেশ কিছু পুষ্টিকর উপাদানে সমৃদ্ধ। গোলাপ, ক্যামেলিয়া, পাতাবাহারের মতো অনেক গাছের সার হিসেবে এই ব্যবহৃত কফি খুবই উপকারী। কফি বানানোর পর টবের মাটির উপর ছড়িয়ে দিন কফি।

ফ্রিজের গন্ধ দূর করতে
নানারকম খাবার রাখার ফলে ফ্রিজে অনেক সময় দুর্গন্ধ হয়ে যায়। এই সমস্যার সমাধান করতে পারে কফি। একটি কৌটোর ভেতর খানিকটা কফির গুঁড়া রেখে ঢাকনায় কয়েকটি ছিদ্র করে ফ্রিজে রেখে দিন। কফি গন্ধ শুষে নেবে।


পিঁপড়া তাড়াতে
পিঁপড়ার উপদ্রব দূর করতে কফির গুঁড়া ছিটিয়ে দিন যেখানে পিঁপড়ার আনাগোনা বেশি সেখানে।


বাসন পরিষ্কার করতে
কফির গুঁড়া বাসন পরিষ্কার করতেও দারুণ কার্যকরী। বাসন ধোয়ার সময় সাবানের পরিবর্তে কিছুটা কফি মিশিয়ে দিন। তবে যেসব বাসনে স্ক্র্যাচ পড়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে তাতে এই পদ্ধতি ব্যবহার না করাই ভালো।


জুতার গন্ধ দূর করতে
কাপড়ে বা পুরনো মোজার ভেতর কফির গুঁড়া ভরে, মুখে বেঁধে জুতার ভেতর রেখে দিলে গন্ধ চলে যাবে। পুরনো আলমারি বা ট্রাঙ্কের গন্ধ দূর করতেও এই পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন।

/এনএ/

সম্পর্কিত

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

১ আগস্ট বন্ধু দিবস

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০৮:০০

বন্ধু দিবস তো এসেই গেলো। জাতিসংঘ ৩০ জুলাই আন্তর্জাতিক বন্ধু দিবস ঘোষণা করলেও বেশিরভাগ দেশেই আগস্টের প্রথম রবিবার এ দিবস পালন করা হয়। আমরাও এর ব্যতিক্রম নই। এদিকে করোনার কারণে বন্ধুর সঙ্গে সামনাসামনি দেখা নেই অনেকদিন। কিন্তু যুগ তো অনলাইনের। তাই কয়েক ক্লিকেই বন্ধুর দোরগোড়ায় পাঠিয়ে দিতে পারেন ভিন্ন এক উপহার।

 

বই ও ‍বুকমার্ক

গিফট হিসেবে বুকমার্কও এখন চলছে বেশ

বইয়ের চেয়ে ভালো উপহার আর হতেই পারে না। মহামারি ও লকডাউনের সময়টাতে তাই দ্বারস্থ হতে হবে অনলাইন বই বিক্রেতাদের কাছেই। রকমারি, বাংলাবাজার বুকস, অবসর, বুকওয়ার্ম বিডি, আনন্দ বুকস, বুক আউলস-সহ অনেক অনলাইন শপে বই তো অর্ডার করতে পারবেনই, সেই সঙ্গে রয়েছে র‌্যাপিং কাগজে মুড়ে দেওয়ার ব্যবস্থাও।

এ নিয়ে কথা হয় অনলাইন বুকশপ 'Book Owls'-এর সাথে। প্রতিষ্ঠানটি জানালো, তাদের উপহার মোড়ানোও হয় চমৎকারভাবে। প্রতিটি বইয়ের সঙ্গে থাকে একটি বুকমার্ক ও গিফট কার্ড। যেখানে লিখে দিতে পারেন মনের কথা।

 

পোস্টকার্ড, ফ্রেমড আর্ট, টাইপোগ্রাফি

টাইপোগ্রাফিও হতে পারে উপহার

কেমন হয়, যদি আপনার পছন্দের গানের লাইন বন্ধুর ঘরের দেয়ালে চমৎকার নকশায় চলে আসে? ‘বাংলায় লিখি’, ‘থ্রি সিক্সটি বিডি’, ‘দাঁড়কাক’সহ অনেক পেজেই এই সেবা পাবেন। 'বাংলায় লিখি' পেজের সত্ত্বাধিকারী নিশাত বিনতে মনসুরকে জানিয়ে দিলেই তিনি সুন্দর করে আপনার বার্তাটি ফুটিয়ে তুলবেন কার্ডে। সেটা বাঁধাই করে পাঠানোর ব্যবস্থাও আছে ঠিকানামতো।

সম্পূর্ণ নতুন ছবির জন্য চার্জ পড়ে এক হাজার থেকে দেড় হাজার টাকা। আবার চাইলে তার স্টকে থাকা ফ্রেমড আর্ট কিনতে পারেন ৩৮০ টাকার মধ্যেই। ফ্রেম ছাড়া দাম ১৫০ টাকা। নিশাতের জনপ্রিয় ভিন্টেজ পোস্টকার্ড সিরিজ 'জাদুর শহর ঢাকা'র মূল্য ১৮০ টাকা। বাংলায় লিখিকে পাওয়া যাবে ইনস্টাগ্রামে

 

সুগন্ধি মোমবাতি

অনলাইনে নিউটন'স আর্কাইভ, ইলনর বিডি, নাজেলড, ক্যান্ডেলকাপবিডি, ভিনসেন্ট'স স্পিয়ারসহ অনেক পেজ সুগন্ধি মোমবাতি বিক্রি করে। এগুলোর দাম সাইজ ও নির্ভর করে আপনি কেমন করে চান সেটার ওপর। দাম শুরু ৩৫০ টাকা থেকে। বড় আকারের মোমবাতির দাম পড়বে ১২০০ টাকা। ভিনসেন্ট'স স্পিয়ারে পাবেন ৩০ রকমের মোমবাতি। প্রতিটি মোমবাতিই বিভিন্ন সিনেমা, গান বা বইয়ের থিমে বানানো।

 

মাটি ও কাঠের গয়না

চমৎকার মাটির রিং

বন্ধুকে পাঠাতে পারেন মাটির কানের দুল, লকেট বা চাবির রিং। এর মধ্যে আবার থাকতে পারে বন্ধুর প্রিয় বই, কার্টুন বা চরিত্রের অবয়ব। অথবা বন্ধুর নিজের চেহারাটাই। ‘সুমাইতাস ডিপোজিটরি’, ‘ফামি ওয়াবিসাবি’, ‘উডেন ড্রিমস’ পেজগুলোত এমনই চমৎকার কিছু গয়না ও অনুষঙ্গ পাবেন। ফামি ওয়াবিসাবিতে একজনের পোর্ট্রেট দিয়ে চাবির রিং বানাতে খরচ হবে ২৮০ টাকা। দুজনের পোর্ট্রেট দিয়ে রিংয়ের দাম ৪০০ টাকা। নিজের ও নিজের পোষা প্রাণীর পোর্ট্রেট দিয়ে চাবির রিং ৩০০ টাকা।

 

কাস্টমাইজড গান

এ এক ব্যতিক্রমী উপহার বটে। এ হলো এমন এক উপহার যা আর কারও কাছেই থাকবে না। বন্ধুকে নিয়ে একটা গান বানিয়ে চমকে দিলে কেমন হয়? এই ভাবনা থেকেই তৈরি হয়েছে আহমেদ রিফাত কবিরের 'সেরেনেড ইয়োর বিলাভেড'। তিনি একটি নির্দিষ্ট মূল্যের বিনিময়ে আপনার প্রিয় মানুষটাকে নিয়ে একটা গান বানিয়ে দেবেন। সেই গানের লাইনগুলোর প্রথম অক্ষর মেলালে দেখা যাবে প্রিয় মানুষটার নাম বের হয়ে আসবে।  

 

থিমড জার্নাল

থিমেটিক জার্নাল

ধরুন বন্ধুর প্রিয় ফুটবল দল আর্জেন্টিনা বা ব্রাজিল। এখন বন্ধুকে আর্জেন্টিনা কিংবা ব্রাজিলের ফ্লেভার আছে এমন কিছু একটা দিতে চান। এক্ষেত্রে উপহার দিতে পারেন থিমড জার্নাল। ‘আর্ট উইথ ক্রাফটি মাইশা’, ‘ক্রিয়েটিভ লী’-সহ নানান পেইজে এমন ভিন্নধর্মী জার্নাল পাবেন। 'ক্রিয়েটিভ লী' পেইজের শৈলী ইসলাম জানালেন, তিনি গ্রাহকদের আবেগ-অনুভূতিই জার্নালের মলাট ও পাতায় ফুটিয়ে তোলেন। এ ছাড়াও সেখানে পাবেন হ্যান্ডমেইড ডিজাইনার খাম, কার্ড, পোস্টকার্ড ইত্যাদি।

/এফএ/

সম্পর্কিত

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৬:২২

কোনও গুরুত্বপূর্ণ কাজে ব্যস্ত থাকার সময় অনেক অভিভাবকই চটজলদি শিশুর হাতে ধরিয়ে দেন স্মার্টফোন। এভাবেই শিশুরা আসক্ত হয়ে পড়ে ঝলমলে পর্দার প্রতি। কিন্তু চাইলে মোবাইল ফোন ছাড়াও ব্যস্ত রাখা যায় শিশুকে।

 

বাইরে যাওয়া

যতটা সম্ভব খোলামেলা ও নিরিবিলি পরিবেশ পেলে শিশুকে নিয়ে একটু বাইরে বের হতেই পারেন। আপাতত যেতে পারেন ছাদে। সেখানে সাইকেল চালানো, বাগান করা, খড়ি দিয়ে ছবি আঁকা, ছবি তোলা এমন অনেক কাজেই তাকে ব্যস্ত থাকতে দিন।

 

ঘরের কাজ

বয়স অনুযায়ী শিশুদের কিছু ঘরের কাজ ভাগ করে দিন। বয়স খুব কম হলে তাকে ছোট ছোট কাজগুলো করতে বলুন। যারা একটু বড় হয়েছে তাদের মাঝারি মাপের কাজগুলো দিন। যেমন বিছানা গোছানো, খাওয়া শেষে নিজের প্লেট ধোয়া ইত্যাদি। এতে শিশু শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকবে। ডিজিটাল জগতে বুঁদ হয়েও থাকবে না।

 

ক্রাফটিং

পেইন্টিং, কাগজ কেটে বোর্ডে লাগানো, ছবি কোলাজ করা, নিজের বেডরুমের দেয়ালে কাগজ দিয়ে নকশা করা, গলার মালা, কানের দুল থেকে শুরু করে নিজের মতো করে খেলনা বানানো এসব কাজে শিশুদের উৎসাহিত করুন। তখন তারা আপনাকে ব্যস্ত দেখলে আর মোবাইলের জন্য বায়না ধরবে না। নিজে থেকেই এটা ওটা নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়বে। সেই সঙ্গে বাড়বে সৃজনীশক্তিও। এক্ষেত্রে নানা জিনিসপত্র দিয়ে একটি ক্রাফটিং বাকশো বানিয়ে দিন শিশুকে।

 

নতুন কিছু লেখা ও পড়া

পাঠ্যবই নয়, সিলেবাসের বাইরের কোনও বই থেকেই পড়তে দিন। পাশাপাশি তাদের এটা ওটা নিয়ে লিখতে বলুন। হতে পারে সেটা একটা চিঠি কিংবা প্রিয় খেলনাগুলো সম্পর্কে তার ভাবনা। এতে শিশুর বিনোদন জগতে যোগ হবে নতুন মাত্রা। সেইসঙ্গে বাড়বে লেখালেখির দক্ষতাও।

 

ধাঁধা

যেকারও জন্যই ধাঁধা একটি মজার খেলা। বাগ, ফ্লাশলাইট, ডুডল  কোয়েস্ট, ফায়ারফ্লাইসের মতো বোর্ডগেমগুলো খেলা যায় তাদের সঙ্গে। একাধিক শিশু থাকলে তাদের বলুন, একজন আরেকজনকে প্রশ্ন করে বোকা বানাতে পারে কিনা।

 

ছবির অ্যালবাম

এখন ছবি বলতে সবাই ডিজিটাল ছবিই বোঝে। তবে কিছু বিশেষ মুহূর্তের ছবি প্রিন্ট করে শিশুকেই বলুন, সে যেন তার নিজের মতো করে অ্যালবাম সাজায়। নিশ্চিত থাকুন, মোবাইলে বসে ইউটিউব দেখা বা গেইমস খেলার চেয়ে এ কাজেই সে বেশি আনন্দ পাবে।

/এফএ/

সম্পর্কিত

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩:৪৩

আজকাল শহুরে জীবনে ফিট থাকাটা কষ্টের বৈকি। বিশেষ করে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা বিশাল এক ঝক্কির কাজ। তারওপর এখন ঘরের বাইরে হাঁটতে যাওয়াও বারণ। শুয়ে-বসে কাটালে ওজন তো বাড়বেই। তো এখন কী করা যায়?

অনেকেই মনে করেন ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে পছন্দের খাবারগুলোকে দূরে রাখতে হবে। এটা ঠিক নয়। ওজন বেড়ে যাওয়ার কারণ সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকলে সেটা নিয়ন্ত্রণ করাও সম্ভব।

 

কী কী কারণে ওজন বাড়ে?

সঠিক সময়ে না খেলে: লকডাউনে ঘরে থেকেই সব কাজ করতে হয় বলে রুটিনে পরিবর্তন আসবেই। এতে ঠিক সময়ে খাওয়া হয় না অনেকের। বিশেষ করে সব বেলার খাবার খাওয়া হয় দেরিতে। এতে শরীর তার গ্রহণ করা ক্যালরি খরচের সুযোগ কম পায়। তখনই বাড়ে ওজন।

 

সারভিং সাইজ তথা পরিমাণ ঠিক না থাকা: প্রত্যেকের শরীরের গঠন অনুযায়ী নির্দিষ্ট পরিমাণ ক্যালরি গ্রহণ করতে হয়। স্বাভাবিকভাবেই চাহিদার চেয়ে অতিরিক্ত ক্যালরি গ্রহণ করা মানেই শরীর সেটা জমিয়ে রাখবে ও ওজন বাড়াবে।

 

অস্বাস্থ্যকর খাবার: লকডাউনে অলস সময় কাটালে একটু পর পর এটা ওটা খেতে মন চাইতে পারে। এক্ষেত্রে মাথায় আসে মুখরোচক সব ফাস্টফুডের কথা। আর এসব জাংক ফুড যেমন স্বাস্থ্যকর নয়, তেমনি ক্যালরিও থাকে বেশি বেশি। এগুলো ওজন দ্রুত বাড়ায়।

 

শারীরিক পরিশ্রম না করা: লকডাউনের আগে জিমে যাওয়া হতো, কিংবা কাজ শেষে পার্কে জগিং করতেন। এখন সেটা সম্ভব হচ্ছে না বলে ফিজিকাল অ্যাকটিভিটিও হচ্ছে না বেশিরভাগ মানুষের। অনেকে অফিসও করছেন বাসায়। এতে ঘরের ভেতরও টুকটাক হাঁটাহাঁটি হচ্ছে না। এর ফলে ওজন তো বাড়বেই, ঝুঁকিতে পড়বে আপনার হৃৎপিণ্ডের স্বাস্থ্যও।

 

সমাধান

পরিমিত শর্করা: শর্করা খেতেই হবে। তবে অতিমাত্রায় নয়। আবার ওজন কমাতে গিয়ে শর্করা একেবারে বন্ধ করলেও শরীর ভেঙে পড়বে। এক্ষেত্রে বেছে নিতে হবে জটিল শর্করা। জটিল শর্করার মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন পূর্ণশস্য সম্বলিত খাদ্য যেমন লাল বা বাদামী চালের ভাত, গমের রুটি বা লাল আটার রুটি, লাল চিড়া, বাদাম, বীজ জাতীয় খাবার ইত্যাদি।

 

স্বাস্থ্যকর প্রোটিন: ফার্স্ট ক্লাস প্রোটিন হিসেবে অবশ্যই প্রাণিজ প্রোটিন রাখতে হবে খাদ্য তালিকায়। যেমন ডিম, মাছ, মুরগি, লো ফ্যাট মিল্ক। গরুর মাংসের ক্ষেত্রে চর্বিহীন মাংস নিতে হবে। কারণ ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে লিন মিট। এ ছাড়া উদ্ভিজ্জ উৎস যেমন বিভিন্ন ডাল, ছোলা, মটরশুঁটি এসবের পাশাপাশি নিয়মিত বীজ জাতীয় খাবার গ্রহণের অভ্যাস করুন-যেমন কুমড়ার বীজ, সূর্যমুখীর বীজ, তিল, চিয়া সিড ইত্যাদি। এসবও প্রোটিনের ভালো উৎস।

 

পর্যাপ্ত পানি: বেশি পানি পান করলে শরীরের শ্বসন প্রক্রিয়া ঠিক থাকে ও এর গতি বাড়ে। আর উচ্চ মেটাবলিক রেট সম্পন্ন একজন মানুষের ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে সহজে।

 

মৌসুমি ফল ও শাকসবজি: ওজন নিয়ন্ত্রণের জন্য একজন ব্যক্তির কম ক্যালরি সমৃদ্ধ পুষ্টিকর খাবার গ্রহণ করা প্রয়োজন। এক্ষেত্রে শাকসবজি ও ফল বেশ সহায়ক। বিভিন্ন ধরনের সবুজ শাক এবং রঙিন সবজি ফাইবার সমৃদ্ধ ও একইসঙ্গে অল্প ক্যালরিযুক্ত। ওজন কমাতে সহায়ক সবুজ শাকসবজির মাঝে অন্যতম হচ্ছে ব্রকোলি, ফুলকপি, বিভিন্ন  শাক, টমেটো, বাঁধাকপি, লেটুস ও শসা। আবার লাউ, পটল, ঝিঙা, কাঁচা পেঁপেও ওজন কমায়। ফলের মধ্যে উপকারী হচ্ছে সাইট্রাসজাতীয় ফল- কমলা, মালটা, আনারস, জাম্বুরা, আমড়া ইত্যাদি।

 

ব্যায়াম: শুধু খাবারে দিয়ে কাজ হবে না। শারীরিকভাবে সক্রিয় থাকতেই হবে। লকডাউনে জিমে যাবার সুযোগ না পেলে ঘরেই চেষ্টা করবেন। সকালে ২০ মিনিট ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ করুন। প্রতিদিন ৩০ মিনিট হাঁটুন। এ ছাড়া রাতের খাবার শেষে ২০ মিনিট ঘরেই হাঁটুন। অর্থাৎ সবমিলিয়ে প্রতিদিন ৪০-৫০ মিনিট অ্যাকটিভ থাকুন।

/এফএ/

সম্পর্কিত

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩:৩৭

আগস্টের প্রথম রবিবার বন্ধু দিবস। আর এ উপলক্ষে রবিবার (১ আগস্ট) যাবতীয় অনলাইন অর্ডারে ফ্রি ডেলিভারি দিচ্ছে যথাশিল্প। তাই বন্ধু দিবসে বাড়তি খরচ ছাড়াই বন্ধুকে পাঠাতে পারেন যথাশিল্পের টিশার্ট, নোটবুক অথবা শাড়ি। আছে নানান ডিজাইনের নকশি নোটবুক ও গামছা শাড়িও।

গ্রামবাংলার দৃশ্য ও ঐতিহ্যবাহী নকশা মাথায় রেখেই তৈরি হয় যথাশিল্পের পণ্য। পাওয়া যাবে বিভিন্ন সাইজেও।

পরিস্থিতি সাপেক্ষে যখাশিল্পের পণ্য সরাসরি কেনা যাবে আদাবরে অবস্থিত যথাশিল্প সেন্টারে (বাসা ৭১৬, সড়ক ১০, বাইতুল আমান হাউজিং সোসাইটি)। তবে ওয়েবসাইটফেসবুক পেইজে অর্ডার করা যাবে সবসময়ই।

/এফএ/

সম্পর্কিত

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

আপডেট : ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩:৩২

আবহাওয়া যেমনই হোক, প্রাকৃতিক উপকরণে তৈরি স্বাস্থ্যকর এক গ্লাস শরবত আপনাকে এনে দিতে পারে এক রাজ্যের প্রশান্তি। এ জন্য ঝটপট টুকে নিতে পারেন পাঁচটি মন জুড়ানো শরবতের রেসিপি

 

তেঁতুলের শরবত

যা যা লাগবে: তেঁতুল, চিনি, ধনিয়া পাতা কুচি, শুকনা মরিচের গুঁড়া, বিট লবণ, কাঁচামরিচ কুচি, ও পানি (ঠান্ডা বা স্বাভাবিক)

 

যেভাবে বানাবেন

  • প্রথমে বিচি আলাদা করে তেঁতুলটা একটি পাত্রে সামান্য পানিতে গুলে নিন।
  • গোলানো তেঁতুলে পরিমাণমতো ঠান্ডা পানি মেশান।
  • পরিমাণমতো চিনি, টেলে নেওয়া শুকনো মরিচের গুঁড়া, কাঁচামরিচ কুচি ও ধনিয়া পাতা দিন। স্বাদমতো বিট লবণ দিন।
  • ভালো করে মিশিয়ে ১০ মিনিট রাখুন। এবার মিশ্রণটি অন্য একটি বাটিতে ছেঁকে নিন। হয়ে গেলো টক-ঝাল তেঁতুলের শরবত। পরিবেশন করতে পারেন বরফকুচি দিয়ে।

 

দুধের শরবত

যা যা লাগবে: আগেই দুধ এক লিটার জ্বাল দিয়ে ঠান্ডা করে নিন। এরপর লাগবে আধা কাপ চিনি, ১৫-২০টি কাজু বাদাম বাটা, ১৫টি পেস্তা বাদাম বাটা, ১৫টি কাঠবাদাম বাটা, এক চিমটি জাফরান (দুই টেবিলচামচ গোলাপ জলে ভিজিয়ে রাখা) ও পরিমাণমতো বরফ (২ কাপ)। পরিবেশনের জন্য সামান্য পেস্তা কুচি।  

 

যেভাবে বানাবেন : ঠান্ডা দুধের সঙ্গে চিনি, বরফ, বাদাম বাটা ও জাফরান মিশিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। পরিবেশনের আগে পেস্তা বাদাম কুচি ছড়িয়ে দিন।

 

লেবু-পুদিনা শরবত

লেবু পুদিনা শরবত রেসিপি

যা যা লাগবে: মাঝারি আকারের দুটি লেবু, এক মুঠো পুদিনাপাতা, বড় এক কাপ পানি, বরফ কুচি পরিমাণমতো ও স্বাদমতো চিনি।

 

যেভাবে বানাবেন

  • প্রথমে লেবুর খোসা ফেলে টুকরো করে নিন।
  • পুদিনাপাতা কুচি করে কাটুন।
  • ব্লেন্ডারে লেবু, পুদিনা, চিনি ও পানি দিয়ে ব্লেন্ড করুন।
  • ছেঁকে নিয়ে গ্লাসে ঢেলে তাতে বরফকুচি দিন।

 

ডায়েট শসা শরবত

যা যা লাগবে : ২টি মাঝারি শসা। ২৫০ এমএল পানি, পরিমাণমতো চিনি, আদা এক টেবিলচামচ, একটি লেবু।

 

যেভাবে বানাবেন

  • শসা ধুয়ে কেটে নিন।
  • লেবুও খোসা ফেলে কাটুন।
  • ব্লেন্ডারে শসা, লেবু, আদা ও চিনি দিয়ে ব্লেন্ড করুন।
  • ছেঁকে ফ্রিজের নরমালে রেখে দিন।
  • পরে বরফ কুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।
  •  

আদা-লেবুর শরবত

যা যা লাগবে: লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, আদার রস ১ চা চামচ, পানি ১ গ্লাস, চিনি ২ টেবিল চামচ।

 

যেভাবে বানাবেন : সব উপকরণ একসঙ্গে মেশালেই শরবত হবে।

/এফএ/

সম্পর্কিত

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

সর্বশেষ

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা

সৈয়দ আশরাফের ম্যুরাল ভাঙচুরের ঘটনায় মামলা

করোনার প্রতি লাশে ৩০০ টাকা করে নিয়েছেন হাসপাতাল কর্মকর্তা! 

ময়মনসিংহ মেডিক্যালকরোনার প্রতি লাশে ৩০০ টাকা করে নিয়েছেন হাসপাতাল কর্মকর্তা! 

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

টানা বৃষ্টিতে সাতক্ষীরায় ব্যাপক ক্ষতি, বাঁধ ভাঙার শঙ্কা

টানা বৃষ্টিতে সাতক্ষীরায় ব্যাপক ক্ষতি, বাঁধ ভাঙার শঙ্কা

দেশে পৌঁছেছে সিনোফার্মের ৩০ লাখ ডোজ টিকা

দেশে পৌঁছেছে সিনোফার্মের ৩০ লাখ ডোজ টিকা

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

সিলেট-৩ আসনের উপনির্বাচন ৪ সেপ্টেম্বর

লকডাউনে বন্ধ মার্কেট ও দোকানে চলছে ‘বিকল্প’ লেনদেন

লকডাউনে বন্ধ মার্কেট ও দোকানে চলছে ‘বিকল্প’ লেনদেন

গৃহবধূর সঙ্গে পুলিশ সদস্যের অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ, বাড়ি ঘেরাও 

গৃহবধূর সঙ্গে পুলিশ সদস্যের অনৈতিক সম্পর্কের অভিযোগ, বাড়ি ঘেরাও 

গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় প্রাণ গেল দুই বন্ধুর

গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় প্রাণ গেল দুই বন্ধুর

সাঁতারে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম সোনা

টোকিও অলিম্পিকসাঁতারে বিশ্ব রেকর্ড গড়ে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম সোনা

ইয়াবাসহ গ্রেফতার পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

ইয়াবাসহ গ্রেফতার পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

১ আগস্ট বন্ধু দিবসবন্ধুর জন্য ভিন্ন কিছু

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

মোবাইল থেকে শিশুকে দূরে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

রেসিপি : প্রশান্তির পাঁচ শরবত

চুলের জন্য অ্যাপেল সিডার ভিনেগার

চুলের জন্য অ্যাপেল সিডার ভিনেগার

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

ভুঁড়ি কত প্রকার, কোনটা কীভাবে কমাবেন?

দুধ যেন উপচে না পড়ে

দুধ যেন উপচে না পড়ে

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

ত্বকের যত্নে হলুদ কেন জরুরি?

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

রেসিপি : মিষ্টি আলুর ক্ষীর

© 2021 Bangla Tribune