সেকশনস

শিক্ষা অফিসারের ‘খামখেয়ালিতে’ বেতন বন্ধ শিক্ষকদের

আপডেট : ০৩ জানুয়ারি ২০২১, ২২:০৪

শেরপুরের ঝিনাইগাতি উপজেলার হাজি অছি আমরুন্নেছা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সব শিক্ষকের বেতন তিন মাস ধরে বন্ধ রেখেছেন জেলা শিক্ষা অফিসার। আগামী ১০ জানুয়ারির মধ্যে বেতন বিল জমা না হলে ডিসেম্বরের বেতনও বন্ধ থাকবে।  এই পরিস্থিতিতে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন শিক্ষকরা।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলসুম অভিযোগ করে বলেন, ‘গত সেপ্টেম্বর থেকে নভেম্বর পর্যন্ত সব শিক্ষকের বেতন বন্ধ রয়েছে। ডিসেম্বর মাসের বেতন ছাড় করেছে সরকার। সেই বেতনও বিলও স্বাক্ষর করছেন না জেলা শিক্ষা অফিসার। আগামী ১০ জানুয়ারির মধ্যে বেতন না ব্যাংকে জমা না হলে ডিসেম্বরের বেতন বন্ধ থাকবে। বেতন না পেয়ে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে শিক্ষকরা মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। ‘

কেন শিক্ষা অফিসার বেতন ছাড়ের ব্যবস্থা নেননি জানতে চাইলে প্রধান শিক্ষক উম্মে কুলসুম বলেন, ‘বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি না থাকার কারণে জেলা শিক্ষা অফিসার বেতন বিলে স্বাক্ষর করেন। দীর্ঘদিন থেকে শিক্ষকদের এভাবেই বেতন-ভাতা অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড বরখাস্ত সহকারী শিক্ষককে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পুনর্বহালের চিঠি দিলে জেলা শিক্ষা অফিসার সব শিক্ষকের বেতন বন্ধ করেছেন। যদিও শিক্ষা বোর্ডের ওই চিঠির কার্যকারিতার ওপর গত ১৩ ডিসেম্বর হাইকোর্ট স্থগিতাদেশ দিয়েছেন। তারপরও সব জেনে বুঝেও শিক্ষা অফিসার এই খামখেয়ালি করেছেন জেলা শিক্ষা অফিসার। বিষয়টি প্রধান শিক্ষক নিয়োগ সংক্রান্ত। অথচ সব শিক্ষকের বেতন বন্ধ করে জিম্মি করা হয়েছে।’

জানতে চাইলে শেরপুরের জেলা শিক্ষা অফিসার মো. মোকছেদুর রহমান বলেন, ‘শিক্ষা বোর্ড একজনকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পুনর্বহাল করেছিল। সে কারণে প্রধান শিক্ষক হিসেবে বেতন বিলে কার স্বাক্ষর নেবো সেই বিষয়ে আমি ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে আইনি মতামত চেয়েছি।’

সব শিক্ষকের বেতন কেনও বন্ধ হলো জানতে চাইলে মোকছেদুর রহমান বলেন, ‘তাদের কোনও অপরাধ নেই।  তারা যদি মনে করেন তাহলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে যাবেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার বেতন বিলে স্বাক্ষর দিতে করতে পারেন।’

ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের প্রধান শিক্ষক পদায়নের নির্দেশ থাকলেও বিদ্যালয়ে পদায়ন করা হয়নি, তাহলে আগের নিয়মে সব শিক্ষকের বেতন অব্যাহত রাখা হলো না কেনও তা জানতে চাইলে জেলা শিক্ষা অফিসার বলেন, ‘শিক্ষকরা তাহলে কেনও ওই শিক্ষকের (বরখাস্ত শিক্ষক) বেতন বিলে স্বাক্ষর করলেন তারা তার বেতন বিলে স্বাক্ষর না করলেই তো ওই শিক্ষক (জাহাঙ্গীর সেলিম) বিল সাবমিট করতে পারতেন না।’

পদায়ন না করা শিক্ষকের তৈরি বেতন বিলে গ্রহণ করে সব শিক্ষকের বেতন বন্ধ করা হলো কেনও জানতে চাইলে সে বিষয়ে সুনির্দিষ্ট জবাব দেননি জেলা শিক্ষা অফিসার। তবে এর আগে এই বিষয়ে বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছিলেন ‘স্থানীয়ভাবে তো অনেক কিছু ম্যানেজ করতে হয়।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২৭ জানুয়ারি থেকে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থাকার কারণে ২০১৪ সালের ৩ আগস্ট বিদ্যালয়টির সহকারী শিক্ষক জাহাঙ্গীর সেলিমকে সাময়িক বরখাস্ত করে ম্যানেজিং কমিটি। বরখাস্ত হওয়ার পর তিনি নিয়োগপত্র ও পত্রিকার বিজ্ঞপ্তি জালিয়াতি করে প্রধান শিক্ষক হিসেবে গোপনে এমপিও আবেদন করে এমপিওভুক্ত হন। জালিয়াতি ধরা পড়ার পর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর এমপিও বন্ধ করে এবং ফৌজদারি মামলার করার নির্দেশ দেয়। ম্যানেজিং কমিটি আদালতে মামলাও করে। এরপর চলতে থাকে মামলা পাল্টা মামলার ঘটনা।

এসব ঘটনার মধ্যেই বরখাস্ত ও জালিয়াতির আশ্রয় নেওয়া শিক্ষক ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ডের কাছে প্রধান শিক্ষক হিসেবে বিদ্যালয়ে পুনর্বহালের আবেদন জানান।  জাল কাগজপত্রের বিপরীতে ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড ২০১৯ সালের ১ জানুয়ারি জাহাঙ্গীর সেলিমকে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পুনর্বহালের নির্দেশ দেয়।  কাগজপত্র জালিয়াতির প্রমাণের পর ২০১৯ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি পুনর্বহালের চিঠি স্থগিত করে শিক্ষা বোর্ড। এরপর আবার মামলা সংক্রান্ত মিথ্যা তথ্য জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে পুনর্বহালের আবেদন করেন সেলিম জাহাঙ্গীর। ওই আবেদনের প্রেক্ষিতে ময়মনসিংহ শিক্ষা বোর্ড ২০১৯ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর প্রধান শিক্ষক হিসেবে পুনর্বহালের স্থগিতের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে চিঠি জারি করে। 

এই চিঠির বিপরীতে বিদ্যালয়ে যোগদান করতে না পারলেও জাহাঙ্গীর সেলিম একটি বেতন বিল তৈরি করে শিক্ষকদের স্বাক্ষর নিয়ে তা জমা দেন জেলা শিক্ষা অফিসারের কাছে।  ওই বেতন বিল গ্রহণ করলেও বিদ্যমান প্রধান শিক্ষকের তৈরি বেতন বিল জমা নেননি জেলা শিক্ষা অফিসার।

 

/এমআর/

সম্পর্কিত

দেশ কোনও ভাষণে স্বাধীন হয়নি, হয়েছে যুদ্ধে: গয়েশ্বর

দেশ কোনও ভাষণে স্বাধীন হয়নি, হয়েছে যুদ্ধে: গয়েশ্বর

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

অর্থপাচার থামছে না, কঠোর আইন চায় তদন্ত সংস্থাগুলো

অর্থপাচার থামছে না, কঠোর আইন চায় তদন্ত সংস্থাগুলো

৫ মার্চ ১৯৭১: এগিয়ে চলেছে মার্চ রক্তপাত ধরে

৫ মার্চ ১৯৭১: এগিয়ে চলেছে মার্চ রক্তপাত ধরে

ওটিটি প্ল্যাটফর্ম ও ইমো-ভাইবার-মেসেঞ্জার থেকে রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা

বিটিআরসির কমিটি গঠনওটিটি প্ল্যাটফর্ম ও ইমো-ভাইবার-মেসেঞ্জার থেকে রাজস্ব আদায়ের পরিকল্পনা

ভ্যাকসিন নেওয়ার হার কমেছে

ভ্যাকসিন নেওয়ার হার কমেছে

নিউজিল্যান্ডে ভূমিকম্প, নিরাপদে আছেন তামিম-মুশফিকরা

নিউজিল্যান্ডে ভূমিকম্প, নিরাপদে আছেন তামিম-মুশফিকরা

দেশের পথে মেট্রোরেলের প্রথম ট্রেন

দেশের পথে মেট্রোরেলের প্রথম ট্রেন

কানেকটিভিটিতে লাভ দেখছে বাংলাদেশ

কানেকটিভিটিতে লাভ দেখছে বাংলাদেশ

দুই দেশের সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করবে ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র: জয়শঙ্কর

দুই দেশের সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করবে ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র: জয়শঙ্কর

সর্বশেষ

ইউটিউব থেকে বাদ পড়লো মিয়ানমারের ৫ টিভি চ্যানেল

ইউটিউব থেকে বাদ পড়লো মিয়ানমারের ৫ টিভি চ্যানেল

কোহলির ‘শূন্য’ রেকর্ড

কোহলির ‘শূন্য’ রেকর্ড

দেশ কোনও ভাষণে স্বাধীন হয়নি, হয়েছে যুদ্ধে: গয়েশ্বর

দেশ কোনও ভাষণে স্বাধীন হয়নি, হয়েছে যুদ্ধে: গয়েশ্বর

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

ক্ষেতে পানি দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু

ক্ষেতে পানি দিতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে যুবকের মৃত্যু

ভাইয়ের কুড়ালের আঘাতে মৃত্যু

ভাইয়ের কুড়ালের আঘাতে মৃত্যু

করোনা মহামারির মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে জন্মহার কমেছে

করোনা মহামারির মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে জন্মহার কমেছে

আইনমন্ত্রীর সামনেই দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১০

আইনমন্ত্রীর সামনেই দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ১০

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি: কাদের

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র করছে বিএনপি: কাদের

ডিজনির ‘ড্রাগন’ এলো ঢাকায়

ডিজনির ‘ড্রাগন’ এলো ঢাকায়

শামীম রেজার ‘পাথরচিত্রে নদীকথা’

শামীম রেজার ‘পাথরচিত্রে নদীকথা’

দেশ আজ দুই ভাগে বিভক্ত: সিপিবি

দেশ আজ দুই ভাগে বিভক্ত: সিপিবি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

অর্থপাচার থামছে না, কঠোর আইন চায় তদন্ত সংস্থাগুলো

অর্থপাচার থামছে না, কঠোর আইন চায় তদন্ত সংস্থাগুলো

দেশের পথে মেট্রোরেলের প্রথম ট্রেন

দেশের পথে মেট্রোরেলের প্রথম ট্রেন

দুই দেশের সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করবে ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র: জয়শঙ্কর

দুই দেশের সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করবে ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র: জয়শঙ্কর

প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির তথ্য ‘নগদ’ পোর্টালে এন্ট্রির নির্দেশ

প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির তথ্য ‘নগদ’ পোর্টালে এন্ট্রির নির্দেশ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিলোপের দাবিতে ৬৬ লেখকের বিবৃতি

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বিলোপের দাবিতে ৬৬ লেখকের বিবৃতি


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.