সেকশনস

অবশেষে আমদানির চাল খালাস শুরু

আপডেট : ১২ জানুয়ারি ২০২১, ০০:২৪

 

শুল্কায়ন মূল্য ও আদেশ জটিলতা কাটিয়ে অবশেষে হিলি স্থলবন্দরে গত তিন দিন ধরে আটকে থাকা চালগুলো খালাস প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। কাস্টমসের গাফিলতির কারণে তিন দিন ধরে চাল খালাস করতে না পারায় আমদানিকারকরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন। আমদানিকৃত এসব চাল দেশের বাজারে প্রবেশ করলে চালের দাম কমে আসবে বলে জানিয়েছেন আমদানিকারকরা। 

শুল্কায়ন মূল্য ও আদেশ জটিলতা কেটে যাওয়ায় সোমবার রাত ৯টা থেকে বন্দরে আটকে থাকা আমদানি করা চালগুলো খালাস প্রক্রিয়া শুরু করেন আমদানিকারক মনোনীত সিআ্যন্ডএফ এজেন্টরা। 

সরকারি হিসাব অনুযায়ী, ২০২০ সালে উৎপাদিত হয়েছে দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ পরিমাণ ধান। অথচ এ বছরই চালের দাম বেড়েছে সবচেয়ে বেশি। কোভিড পরিস্থিতিতে সরকারি নজরদারির অভাব, দুষ্টচক্রের মজুতদারি, আড়তদার, চালকল মালিকদের সঙ্গে আঁতাত করে পাইকারদের ইচ্ছেমতো দাম বাড়ানোর কারসাজিতে ধুলায় লুটাতে বসেছে চাল উৎপাদনে সরকারের সব অর্জন। মোটা চালের দামও উঠেছে ৫৫ টাকা কেজিতে। ফলে বাধ্য হয়ে ভরা গোলা নিয়েও চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। দেশি কৃষকদের স্বার্থরক্ষায় দেড় বছর আগে চাল আমদানির শুল্ক হার বাড়ানো হলেও তা ৬২.৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১৫ শতাংশ করে চাল আমদানির নীতিগত সিদ্ধান্ত দেয় সরকার।

জানা গেছে, সরকারের এই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গত শনিবার দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে প্রথম চালান হিসেবে নওগাঁর জগদীশ চন্দ্র রায় নামে এক আমদানিকারক ৩টি ট্রাকে ১১২ টন চাল আমদানি করেন। রবিবার বন্দর দিয়ে জয়পুরহাটের পাঁচবিবির আরেকটি আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান হেনা এন্টারপ্রাইজ এনেছে ২০টি ট্রাকে ৮২৮ টন চাল। আর আজ সোমবার বন্দর দিয়ে বিকাল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত এসেছে এই দুই আমদানিকারকের ৮ ট্রাকে ৩২৯ টন চাল। তবে নতুন দুই জটিলতায় তিন দিনে বন্দরে আটকা পড়ে আমদানিকৃত ১ হাজার ২৬৯ টন চাল।

হিলি স্থলবন্দর সূত্রে জানা গেছে, সরকার আমদানি করা চালের শুল্ক কমিয়ে দিলেও সেই শুল্ক হার আপডেটের জন্য অপেক্ষা ছিল প্রথম দুই দিনে। কাস্টমস সার্ভারে সেটি আপডেট করা হলেও পরে দেখা দেয় নতুন দুই সংকট। এর একটি হচ্ছে সরকারি আদেশের কপিতে স্বাক্ষর নিয়ে জটিলতা। এছাড়াও চালের মূল্য বাড়িয়ে দেখানোর দাবি করেছে শুল্ক কর্মকর্তারা, যা মানতে রাজি নন আমদানিকারকরা। অবশ্য আমদানিকারকদের আবেদনে সরকারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে সহযোগিতা করা হলে রাত ৯টার পর থেকে সংকটের সমাধান হতে শুরু করে।

হিলি স্থলবন্দর আমদানি রফতানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, দেশে চালের বাজার স্থিতিশীল রাখতে সরকার বিদেশ থেকে চাল আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়। সে অনুযায়ী সরকারি শর্ত মেনে গত শনিবার থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে চাল আমদানি শুরু করেন আমদানিকারকরা। কিন্তু কাস্টমসের গাফিলতির কারণে গত তিনদিন ধরে আমদানিকৃত চাল খালাস নিতে পারিনি আমরা। সরকার চাল আমদানি থেকে শুরু করে বাজারে সরবরাহ করার সময় নির্ধারণ করে দিয়েছে। কিন্তু, চাল আমদানি করার পর তিন দিন যদি বন্দরেই আটকা থাকে তাহলে শর্ত কিভাবে পূরণ হবে? তবে সরকারের কাছে এ বিষয়ে অনুরোধ করায় আমদানিকৃত চাল দ্রুত ছাড় করার বিষয়ে কাস্টমসসহ সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এই তিনদিন যে চালগুলো বন্দরে আটকা পড়লো আমরা বের করতে পারলাম না, এতে করে আমদানিকারকদের আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। তবে আজ রাত ৯টার পর থেকে বন্দরে আটকে থাকা চাল খালাস শুরু হয়েছে। এসব চাল আগামী কাল থেকে দেশের বাজারে সরবরাহ শুরু হতে পারে। এতে চালের দাম কমে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি।   

হিলি স্থল শুল্ক স্টেশনের ডেপুটি কমিশনার সাইদুল আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, বন্দর দিয়ে গত তিন দিন ধরে আমদানিকৃত চালগুলো ছাড় করা যায়নি কিছু আইনি জটিলতা থাকার কারণে। ইতোমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে সমাধান করেছি। চালের শুল্কায়ন মূল্য নিয়ে কিছু সমস্যা ছিল সেটিও সমাধান হয়েছে। যেসব চাল বন্দরে আটকা রয়েছে সেগুলো দ্রুত খালাস করতে আমরা তৎপর রয়েছি, আজকের মধ্যেই চাল খালাস হয়ে যাবে। একইসাথে আগামীতে যে চাল আসবে সেগুলো নিয়ে আর কোনও সমস্যা হবে না। বন্দর দিয়ে এখন পর্যন্ত দুজন আমদানিকারক চাল আমদানি করেছেন। এর মধ্যে একজন আমদানিকারক ৪২৫ মার্কিন ডলার মূল্যে চাল আমদানি করেছেন সেই মূল্যেই সেটি শুল্কায়ন করে ছাড় দেওয়া হবে। অপর আমদানিকারক ৩৫৬ মার্কিন ডলার মূল্যে চাল আমদানি করেছেন সেটি ৩৭০ মার্কিন ডলার মূল্যে শুল্কায়ন করে ছাড় দেওয়া হবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট আমদানিকারকের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। উনি ওই মূল্যে চাল নিতে রাজি হয়েছেন। সেভাবেই চালগুলো শুল্কায়ন করে ছাড় করা হচ্ছে।

/টিএন/

সম্পর্কিত

রংপুর বিভাগে ৩ লাখ ছাড়িয়েছে টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা

রংপুর বিভাগে ৩ লাখ ছাড়িয়েছে টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ

মুকুলে ছেয়ে গেছে আম গাছ, মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত চারপাশ

মুকুলে ছেয়ে গেছে আম গাছ, মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত চারপাশ

দুই ঘণ্টার আগুনে পুড়লো ৩০ দোকান, ক্ষতি ৫ কোটি টাকার 

দুই ঘণ্টার আগুনে পুড়লো ৩০ দোকান, ক্ষতি ৫ কোটি টাকার 

ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই!

ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই!

ট্রাক্টরের চাপায় শিশু নিহত

ট্রাক্টরের চাপায় শিশু নিহত

পাম্প নষ্ট হয়ে হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে পানি সরবরাহ বন্ধ

পাম্প নষ্ট হয়ে হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে পানি সরবরাহ বন্ধ

প্রেমের ফাঁদে ফেলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

প্রেমের ফাঁদে ফেলে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেফতার ৪

সর্বশেষ

রোনালদোর মাইলফলকের ম্যাচে জয়ে ফিরলো জুভেন্টাস

রোনালদোর মাইলফলকের ম্যাচে জয়ে ফিরলো জুভেন্টাস

অ্যান্টিবডি টেস্ট কি আদৌ হবে?

অ্যান্টিবডি টেস্ট কি আদৌ হবে?

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

মুক্তিযোদ্ধার জমির মাটি কেটে নেওয়ার অভিযোগ জাপা নেতার বিরুদ্ধে 

মুক্তিযোদ্ধার জমির মাটি কেটে নেওয়ার অভিযোগ জাপা নেতার বিরুদ্ধে 

করোনায় মৃত মুসলিম ও খ্রিস্টানদের প্রত্যন্ত দ্বীপে সমাহিত করবে শ্রীলঙ্কা

করোনায় মৃত মুসলিম ও খ্রিস্টানদের প্রত্যন্ত দ্বীপে সমাহিত করবে শ্রীলঙ্কা

ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু

ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু

সাতছড়ি উদ্যানে ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে

সাতছড়ি উদ্যানে ৬ অভিযানে যা যা মিলেছে

ইথিওপিয়ায় সেনাবাহিনীর হাতে আটক বিবিসির সংবাদদাতা

ইথিওপিয়ায় সেনাবাহিনীর হাতে আটক বিবিসির সংবাদদাতা

ভোট বাড়ছে আওয়ামী লীগের

পৌর নির্বাচনের ফল বিশ্লেষণভোট বাড়ছে আওয়ামী লীগের

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১১ কোটি ৫২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১১ কোটি ৫২ লাখ ছাড়িয়েছে

সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সিএজি’র প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

সরকারি ব্যয়ে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে সিএজি’র প্রতি আহ্বান রাষ্ট্রপতির

‘বাংলাদেশের মাটিতে পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে’

‘বাংলাদেশের মাটিতে পাকিস্তানি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রংপুর বিভাগে ৩ লাখ ছাড়িয়েছে টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা

রংপুর বিভাগে ৩ লাখ ছাড়িয়েছে টিকা গ্রহণকারীর সংখ্যা

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত

ডাকাত সন্দেহে গণপিটুনিতে একজন নিহত

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ

মুকুলে ছেয়ে গেছে আম গাছ, মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত চারপাশ

মুকুলে ছেয়ে গেছে আম গাছ, মৌ মৌ গন্ধে মুখরিত চারপাশ

দুই ঘণ্টার আগুনে পুড়লো ৩০ দোকান, ক্ষতি ৫ কোটি টাকার 

দুই ঘণ্টার আগুনে পুড়লো ৩০ দোকান, ক্ষতি ৫ কোটি টাকার 

ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই!

ভিক্ষুকের টাকা ছিনতাই!

ট্রাক্টরের চাপায় শিশু নিহত

ট্রাক্টরের চাপায় শিশু নিহত

পাম্প নষ্ট হয়ে হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে পানি সরবরাহ বন্ধ

পাম্প নষ্ট হয়ে হাসপাতালের মহিলা ওয়ার্ডে পানি সরবরাহ বন্ধ


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.