সেকশনস

সাপ চাষে বিধিমালা আসছে, করা যাবে বাণিজ্যিক খামার

আপডেট : ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০৯:১৪

কিং কোবরা, রাসেল ভাইপার, বন্ডেড ক্যারেট, গোখরাসহ নানা ধরনের সাপের চাষ হচ্ছে বাংলাদেশে। অনেকেই নিজ উদ্যোগে সাপের চাষ শুরু করলেও সরকারিভাবে এখনও এর কোনও অনুমোদন দেওয়া হয়নি। তবে সাপের চাষ উদ্বুদ্ধ করতে বিধিমালা নিয়ে কাজ করছে বন অধিদফতর।

ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য সাপের বিষ মূল্যবান কাঁচামাল। তাই এটি রফতানি করে বৈদেশিক মুদ্রা আয় করা সম্ভব বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশে বিষধর সাপের দংশনের চিকিৎসার সুযোগ অনেক মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেই। সাপেকাটা রোগীর চিকিৎসায় যে অ্যান্টিভেনম ইনজেকশন লাগে, সেটা বানাতেও দরকার হয় সাপের বিষ। কিন্তু সাপ চাষ ও বিষ আহরণের আধুনিক ব্যবস্থা নেই দেশে।

রাজশাহী, ফরিদপুর ও বরিশালসহ বেশ কিছু জায়গায় অনেকেই নিজ উদ্যোগে সীমিত আকারে সাপ পালন করছেন। এমনই একজন বরিশালের সাপের খামারি আব্দুর রাজ্জাক। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ২০০০ সাল থেকে বড় ২৭টি ও ছোট ৩২০টি সাপ নিয়ে শুরু হয় তার খামার। বিশ বছর ধরে নিজ উদ্যোগে খামারটি চালিয়ে আসছেন। অনুমোদনের জন্য প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও বন বিভাগে আবেদন করেছেন। সাপের বিষ আহরণ করে বাংলাদেশের বিভিন্ন ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানিতে বিক্রির সুযোগ পেলে এ খামার লাভের মুখ দেখতো। তাই খামারের অনুমোদন ও বিষ সংগ্রহের জন্য সরকারের বিভিন্ন দফতরে ঘুরেছেন আবদুর রাজ্জাক। তবে কোনও আশার আলো দেখেননি এতদিন।

সাপ ও সাপের ব্যবস্থাপনা নিয়ে আরও গবেষণা করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণিবিদ্যা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এম নিয়ামুল নাসের। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, সাপের খামার কিংবা সাপ নিয়ে গবেষণার জন্য আলাদা ইনস্টিটিউট করার সময় হয়েছে। সাপের বিষ দিয়ে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ বানানো হচ্ছে। তার বিভাগের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের দুটি বিষাক্ত সাপের ওপর গবেষণা চালানো হয়েছে বলেও জানান অধ্যাপক নিয়ামুল নাসের।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের অসংক্রামক স্বাস্থ্যবিধি নিয়ন্ত্রণ বিভাগের আওতায় সাপ নিয়ে গবেষণা করছে টক্সিকোলজি সোসাইটি অব বাংলাদেশ। সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. আবদুল্লাহ আবু সাঈদ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমাদের উদ্দেশ্য সাপের বিষের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য নির্ধারণ করা। সাপের বিষ যদি পরিমিত মাত্রায় সংগ্রহ করা যায়, তবে শুধু ওই ভেনমগুলো থেকে অ্যান্টিভেনম তৈরির প্রক্রিয়ায় যেতে পারবো। এটা দীর্ঘ গবেষণার কাজ।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাসিউটিক্যালস অব কেমিস্ট্রি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডাক্তার শাহ আরমান বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমাদের দেশে সাপের বিষ থেকে অ্যান্টিভেনম তৈরি নিয়ে গবেষণার সংখ্যা কম। তবে, দেশের কোনও ওষুধ প্রতিষ্ঠানে সাপের বিষ ব্যবহার হচ্ছে না।’

‘সাপের খামার ব্যবস্থাপনা বিধিমালা’ নিয়ে কাজ করছে বন অধিদফতর। বন অধিদফতরের বন্যপ্রাণী ও প্রকৃতি সংরক্ষণ অঞ্চল বন সংরক্ষক মিহির কুমার দে বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, “সরকার সাপ চাষে উদ্বুদ্ধ করতে চায়। 'সাপের খামার ব্যবস্থাপনা বিধিমালা' যাচাই-বাছাইয়ের জন্য মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। সংশ্লিষ্টদের সারা দেশ থেকে নিয়ে আসতে হয়। করোনার কারণে কিছুটা সময় লাগছে। দ্রুত সবার মতামত নিয়ে মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ করা সম্ভব হবে। সরকারও চাচ্ছে বিধিমালা চূড়ান্ত হলে এর আওতায় বাণিজ্যিকভাবে সাপ চাষের দায়িত্ব খামারিদের দেওয়া যেতে পারে।”

জননিরাপত্তার হুমকি যেন না আসে, সে বিষয়টি মাথায় রেখেই বাণিজ্যিকভাবে সাপ চাষের বিধিমালা প্রণয়নের কথা জানিয়ে বিআইএসএসের পরিচালক (গবেষণা) ড. মাহফুজ কবির বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অর্থনৈতিক উন্নয়ন হতে পারে, এ বিষয়টি মাথায় রেখে এখনও বিধিমালা প্রণয়ন হয়নি। সেটি করা হলে ব্যাপক আকারে সাপের বিষ রফতানি করে অর্থনৈতিকভাবে লাভবান হওয়া যেত। সাপের বিষের রফতানিমূল্য অনেক।’

/এফএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

রাজধানীতে ডাকাতির নেপথ্যে জঙ্গি সম্পৃক্ততা পেয়েছে পুলিশ

রাজধানীতে ডাকাতির নেপথ্যে জঙ্গি সম্পৃক্ততা পেয়েছে পুলিশ

করোনার টিকা নিতে নারীর উপস্থিতি কম কেন?

করোনার টিকা নিতে নারীর উপস্থিতি কম কেন?

‘করোনার ১০ মাসে তথ্যপ্রযুক্তিতে ১০ বছর এগিয়েছি’

‘করোনার ১০ মাসে তথ্যপ্রযুক্তিতে ১০ বছর এগিয়েছি’

ভিওআইপি প্রোভাইডারদের শুধু নামটাই টিকে আছে

ভিওআইপি প্রোভাইডারদের শুধু নামটাই টিকে আছে

করোনার প্রভাবে পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 

করোনার প্রভাবে পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 

মন্ত্রী পদমর্যাদা কবে পাবেন দুই মেয়র?

মন্ত্রী পদমর্যাদা কবে পাবেন দুই মেয়র?

বিটকয়েনের মাধ্যমে পাচার হচ্ছে কোটি কোটি টাকা

বিটকয়েনের মাধ্যমে পাচার হচ্ছে কোটি কোটি টাকা

হাইকোর্টের রায়ের পর যে অপেক্ষা

পিলখানা হত্যাকাণ্ডহাইকোর্টের রায়ের পর যে অপেক্ষা

পিলখানা ট্র্যাজেডি: ১২ বছরেও শেষ হয়নি বিস্ফোরক আইনের মামলা

পিলখানা ট্র্যাজেডি: ১২ বছরেও শেষ হয়নি বিস্ফোরক আইনের মামলা

তারল্যে ভাসছে ব্যাংক, তবু ঋণ শোধের চাপে ব্যবসা খাত

তারল্যে ভাসছে ব্যাংক, তবু ঋণ শোধের চাপে ব্যবসা খাত

পাহাড়ে মূর্তিমান আতঙ্ক ছিল জকির

পাহাড়ে মূর্তিমান আতঙ্ক ছিল জকির

পুলিশে বাড়ছে ইউনিট, বাড়বে সেবা

পুলিশে বাড়ছে ইউনিট, বাড়বে সেবা

সর্বশেষ

যুক্তরাষ্ট্রে জনসনের এক ডোজের ভ্যাকসিন অনুমোদন

যুক্তরাষ্ট্রে জনসনের এক ডোজের ভ্যাকসিন অনুমোদন

ঘাটতি নেই, তবু চালের দাম বাড়ছেই

ঘাটতি নেই, তবু চালের দাম বাড়ছেই

যোগ্যতানুসারে হিজড়াদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে

যোগ্যতানুসারে হিজড়াদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

পঞ্চম ধাপে পৌর নির্বাচন শুরু

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

দুষ্কৃতিকারীদের দিন ঘনিয়ে এসেছে

কালীগঞ্জ পৌরসভায় নির্বিঘ্নে ভোট দেওয়ার পরিবেশ চান প্রার্থীরা

কালীগঞ্জ পৌরসভায় নির্বিঘ্নে ভোট দেওয়ার পরিবেশ চান প্রার্থীরা

বন্যপ্রাণীর বিলুপ্তি ও অবৈধ বাণিজ্য ঠেকাতে গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বশীলতা জরুরি

বন্যপ্রাণীর বিলুপ্তি ও অবৈধ বাণিজ্য ঠেকাতে গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বশীলতা জরুরি

মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে মসজিদের সম্পত্তি দখলচেষ্টার অভিযোগ

মেয়র আইভীর বিরুদ্ধে মসজিদের সম্পত্তি দখলচেষ্টার অভিযোগ

পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

পানিতে ডুবে স্কুলছাত্রের মৃত্যু

কুষ্টিয়া ও পটুয়াখালীতে দুই গৃহবধূর লাশ

কুষ্টিয়া ও পটুয়াখালীতে দুই গৃহবধূর লাশ

মাদক বিক্রিতে বাধা, বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

মাদক বিক্রিতে বাধা, বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

ট্রলি ও ভটভটির ধাক্কায় তিন জেলায় নিহত ৩

ট্রলি ও ভটভটির ধাক্কায় তিন জেলায় নিহত ৩

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ভিওআইপি প্রোভাইডারদের শুধু নামটাই টিকে আছে

ভিওআইপি প্রোভাইডারদের শুধু নামটাই টিকে আছে

করোনার প্রভাবে পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 

করোনার প্রভাবে পুরোপুরি সারে না ক্ষতিগ্রস্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ 

পুলিশে বাড়ছে ইউনিট, বাড়বে সেবা

পুলিশে বাড়ছে ইউনিট, বাড়বে সেবা

মশা বেড়েছে চার গুণ!

মশা বেড়েছে চার গুণ!

উন্নীত হচ্ছে সরকারি কর্মচারীদের গ্রেড ও বেতন স্কেল

উন্নীত হচ্ছে সরকারি কর্মচারীদের গ্রেড ও বেতন স্কেল

মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা আর কবে হবে?

মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত তালিকা আর কবে হবে?

রাজবন্দিদের প্রথম একুশ

রাজবন্দিদের প্রথম একুশ

বাংলা ছাড়া ফাইল দেখবেন না বঙ্গবন্ধু

সর্বস্তরে বাংলার ব্যবহারে কমিটিবাংলা ছাড়া ফাইল দেখবেন না বঙ্গবন্ধু

একুশ এলো যেভাবে

একুশ এলো যেভাবে

৯৮টি স্বয়ংক্রিয় ট্রাফিক সিগন্যাল বিকল, দায় কার?

৯৮টি স্বয়ংক্রিয় ট্রাফিক সিগন্যাল বিকল, দায় কার?


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.