সেকশনস

‘জেলখাটা কয়েদি মেরে করেছে চাকরিচ্যুত, কেডিএস দিয়েছে ২৮ মিথ্যা মামলা’

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২১, ০৩:৫০
image

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত জেলখাটা কয়েদি মালিকপুত্রের সঙ্গে ‘অজ্ঞাত সিস্টেমে’ আয়োজন করা হয়েছিল বৈঠক। সে বৈঠকে যেতে বাধ্য করা হলে দণ্ডিত আসামি প্রথমে গায়ে হাত তোলেন এরপর তার নির্দেশে করা হয় চাকরিচ্যুত। এ অভিযোগ করেছেন কে ওয়াই স্টিল মিলসের সাবেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মো. মুনির হোসাইন খান। তার দাবি, এতেই শেষ নয়, ‘আক্রোশ’ না মেটায় চাকরিচ্যুত করার পর ৯ মাসে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা অভিযোগে ২৬টি ক্রিমিনাল ও দুটি সিভিল মামলা দায়ের করে হয়রানি ও নির্যাতন করা হচ্ছে। তাকে একবছর জেলেও থাকতে হয়েছে। 

কে ওয়াই স্টিল মিলসের মূল প্রতিষ্ঠান কেডিএস গ্রুপের দায়ের করা এসব মামলায় জামিন পাওয়ার পর মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এ অভিযোগ করেন। তার দাবি, কারাগারে থেকে ব্যবসা পরিচালনা করা প্রতিষ্ঠানটির মালিকের ছেলে ও কেডিএস গ্রুপের ডিএমডি ইয়াসিন রহমান টিটুর প্রতিহিংসার কারণে তিনি এই হয়রনির শিকার হচ্ছেন।

মো. মুনির হোসাইন খানের অভিযোগ, ২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল কোম্পানির ডিএমডি যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আসামি ইয়াছিন রহমান টিটু বিশেষ সভার নামে ডেকে নিয়ে মারধর করার পর নির্দেশ দিয়ে চাকরিচ্যুত করান তাকে। এরপর ২০১৯ সালের ২৫ নভেম্বর তার বিরুদ্ধে গাড়ি চুরির মামলা দায়ের করেন কে ওয়াই স্টিল মিলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপক শেখ মোহাম্মদ রাশেদ। মামলার এজাহারে বলা হয়, ‘২০১৯ সালের ২১ নভেম্বর অফিস ছুটির পর রাশেদ অফিসের গাড়িতে করে বাসায় ফেরার পথে অক্সিজেন মোড়ের দক্ষিণে হাটহাজারী মুরাদপুর সড়কের ওপরের ব্রিজের কাছে পৌঁছালে ড্রাইভারকে গাড়ি থামিয়ে ওষুধ কেনার জন্য পাঠান। ওষুধ এনে ড্রাইভার গাড়ি স্টার্ট দেওয়ার সময় মুনির হোসেন অপর তিনজনকে নিয়ে এসে তাদের পথ রোধ করে। একপর্যায়ে তাদের দুইজনকে মারধর করে টেনে-হিঁচড়ে গাড়ি থেকে নামিয়ে ফেলেন। এরপর মুনির হোসাইন গাড়িটি চালিয়ে নিয়ে যান।’

ওই মামলায় ২০২০ সালের ১৭ নভেম্বর আদালতে চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। চূড়ান্ত রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়, তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া যায়নি। যে কারণে মামলায় মুনির হোসাইন খানসহ আসামিদের মামলা থেকে অব্যাহতি দেওয়ার সুপারিশ করা হয়।

মুনির দাবি করেন, শুধু এই মামলা নয়, ২০১৯ সালের নভেম্বর থেকে তার বিরুদ্ধে ৯ মাসে ২৬টি ক্রিমিনাল মামলা ও দুটি সিভিল মামলা দায়ের করা হয়। হয়রানির উদ্দেশ্যে ওই  স্টিল মিলসের মূল প্রতিষ্ঠান কেডিএস গ্রুপ তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগে এসব মামলা দায়ের করেছে।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল কোম্পানির ডিএমডি ইয়াছিন রহমান টিটু কর্তৃক মারধরের শিকার হয়ে চাকরিচ্যুত হওয়ার পর আজ আমি তাদের রোষানলে। তাদের টাকার জোরের কাছে আজ আমি বিপন্ন। আমার পরিবার মহাসংকটে। আমার অশীতিপর পিতাকেও তারা মামলায় জড়িয়েছে। মামলায় জড়িয়েছে আমার ছোট ভাই এবং আমার স্ত্রীকেও। আজ আমার এবং আমার পরিবারের কষ্টের কথা জাতির বিবেকের কাছে জানাতে আমি এখানে হাজির হয়েছি।

তিনি আরও বলেন, ‘২০১৯ সালের ২৫ নভেম্বর প্রথমে চট্টগ্রামের বায়েজিদ থানায় একটি গাড়ি চুরির মামলা করা হয়। মামলায় যে সময়টার কথা উল্লেখ করা হয়েছে, সেসময় আমি ঢাকায় আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে ছিলাম। ওই সময়ের সিসিটিভি ফুটেজ স্কুল থেকে সংগ্রহ করে আদালতে জমা দেওয়া হয়। তবুও এই মামলায় আমাকে গ্রেফতার করে তিন বার রিমান্ডে নেয় পুলিশ। এরপর একে একে আরও ২৬টি মামলা করা হয়। একটি মামলা থেকে জামিন নেওয়ার আগে আরেকটি মামলা হয়। ২০১৯ সালের নভেম্বর থেকে আমার বিরুদ্ধে নজিরবিহীনভাবে ৯ মাসে ২৬টি ক্রিমিনাল ও দুইটি সিভিল মিথ্যা মামলা তারা দায়ের করেছে। এই সব মামলায় আমি এক বছর জেলে ছিলাম। আমাকে ও আমার পরিবারকে হয়রানি করার জন্য একের পর এক মামলা দায়েরের অপচেষ্টায় তারা এখনও লিপ্ত রয়েছে। গাড়ি চুরির মামলা ছাড়া বাকি সব মামলায় প্রায় একই রকমের অভিযোগ। শুধু তাই নয়, আইনের অপব্যবহার করে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে আমার বিরুদ্ধে একেক সময় একেক ধরনের কুৎসা রটানো হচ্ছে। দেওয়া হচ্ছে বিভ্রান্তিমূলক ও মানহানিকর বক্তব্য। এমতাবস্থায় মহামান্য আদালত থেকে জামিন নিয়ে এসে আপনাদের সামনে প্রকৃত ঘটনা তুলে ধরার জন্যই আজ এই সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত হয়েছি।’

মুনির দাবি করেন, ‘বিভিন্ন মামলায় প্রতারণা ও অর্থ আত্মসাৎ করার কথা বলা হয়েছে। এই ঘটনায় ইতোমধ্যে বাংলাদেশের আমেরিকান দূতাবাস তাদের উদ্বেগের কথা জানিয়ে চিঠি দিয়েছে। মামলায় আমার বিরুদ্ধে ফ্যাক্টরির জন্য কাঁচামাল আমদানির সময় রফতানিকারক থেকে কমিশন নেওয়ার অভিযোগ আনা হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আমাকে ওইসব কোম্পানির এজেন্ট হিসেবে দেখিয়ে একটি কাল্পনিক চুক্তিও তারা আদালতে উপস্থাপন করছে। কিন্তু আপনারা খোঁজ নিলেই জানতে পারবেন আমি ওইসব কোম্পানির কোনও এজেন্ট নই। তারা যে চুক্তিপত্র দেখাচ্ছে তা ভুয়া।’

এসময় মুনির হোসাইন খান আরও অভিযোগ করেন, যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের আসামি হয়েও কারাগার থেকে ব্যবসা পরিচালনা করছেন কে ওয়াই স্টিল মিলসের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর (ডিএমডি) ইয়াসিন রহমান টিটু। কারাগারের আসামি হয়েও অদৃশ্য ক্ষমতার জোরে  প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তাদের তার মুখোমুখিও হতে হয়। আসামি হয়েও তার গায়ে হাত তুলেছেন টিটু।

এ সম্পর্কে মুনির হোসাইন খান বলেন, ‘২০১৮ সালের ১১ এপ্রিল একটি গাড়িতে করে আমাদের নিয়ে যাওয়া হয়। একটি ব্যবসায়িক সভায় আমরা ১১ জন কর্মকর্তা অংশ নিয়েছিলাম। তাদের অনেকেই এখনও কোম্পানিতে কর্মরত। তবে আমার সঙ্গে এমন ঘটনার পরে হয়তো তারা আর মুখ খুলবেন না। সেখানে ডিএমডি সাহেব (ইয়াসিন রহমান টিটু) কিছু অন্যায় ব্যবহার করেছেন, খারাপ ব্যবহার করেছেন। আমার জানা নেই এমন সভা আইনসম্মত কিনা; তবে আমরা সভায় ছিলাম। যেটা হয়েছে সেটা আপনাদের বললাম, আইনি না বে-আইনি সেটা কর্তৃপক্ষ বুঝবেন। আমাদের যেতে বলেছেন, আমরা গিয়েছি। এই ঘটনার পরে তিনি নিজেই আমাকে চাকরি থেকে বের করে দিয়েছেন, আমিও চাকরি করার জন্য প্রস্তুত ছিলাম না।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯৯ সালে চট্টগ্রামের দেওয়ানহাট এলাকায় একটি চাইনিজ রেস্টুরেন্টের সামনে খুন হন ভারতের পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তা টিএ খানের ছেলে জিবরান তায়েবি। সে সময় এ ঘটনায় মামলা করেন তার স্ত্রী তিতলী নন্দিনী। ওই মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত হয়ে পরে ২০১১ সালের ১০ অক্টোবর থেকে কারাগারে রয়েছেন কেডিএস গ্রুপের মালিকের ছেলে ও প্রতিষ্ঠানটির ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর (ডিএমডি) ইয়াসিন রহমান টিটু।

মুনির হোসাইন খানের অভিযোগের বিষয়ে জানতে কে ওয়াই স্টিল মিলস লিমিটেডের সিইও জাবির হোসাইনের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি।

আগের সংবাদ:

সাবেক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ৬শ’কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ কেডিএস গ্রুপের

/টিএন/

সম্পর্কিত

লালদিয়ার চরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান

লালদিয়ার চরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান

ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় একঘরে, পুকুরের পানি ছাড়া সব ছোঁয়া মানা!

ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় একঘরে, পুকুরের পানি ছাড়া সব ছোঁয়া মানা!

মাদকের টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে!

মাদকের টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে!

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় নিহত ৮

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় নিহত ৮

মিনিবাসের ধাক্কায় স্কুলছাত্রী নিহত

মিনিবাসের ধাক্কায় স্কুলছাত্রী নিহত

চট্টগ্রামে তিন খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র: রাষ্ট্রদূত

চট্টগ্রামে তিন খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র: রাষ্ট্রদূত

চট্টগ্রামের তিন পৌরসভায় আ.লীগের প্রার্থীরা জয়ী

চট্টগ্রামের তিন পৌরসভায় আ.লীগের প্রার্থীরা জয়ী

সর্বশেষ

সালমাদের অন্তর্বর্তী কোচ শাহনেওয়াজ

সালমাদের অন্তর্বর্তী কোচ শাহনেওয়াজ

করোনার টিকা নিলেন মোদি

করোনার টিকা নিলেন মোদি

লবঙ্গ চায়ের গুণ

লবঙ্গ চায়ের গুণ

ছাড়পত্র পেল প্রশংসিত ‘চন্দ্রাবতী কথা’

ছাড়পত্র পেল প্রশংসিত ‘চন্দ্রাবতী কথা’

ইরানের সিদ্ধান্তে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

ইরানের সিদ্ধান্তে হতাশ যুক্তরাষ্ট্র

লালদিয়ার চরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান

লালদিয়ার চরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান

কেরানীগঞ্জ থেকে আনসার ইসলামের এক জঙ্গি গ্রেফতার

কেরানীগঞ্জ থেকে আনসার ইসলামের এক জঙ্গি গ্রেফতার

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান ইরানের

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আলোচনার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান ইরানের

জয়ে ফিরেছে লিভারপুল

জয়ে ফিরেছে লিভারপুল

মাদক মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন ইরফান সেলিম

মাদক মামলা থেকে অব্যাহতি পেলেন ইরফান সেলিম

জিয়ার খেতাব বাতিল প্রক্রিয়া: আরও সময় নেবে সরকার

জিয়ার খেতাব বাতিল প্রক্রিয়া: আরও সময় নেবে সরকার

ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় একঘরে, পুকুরের পানি ছাড়া সব ছোঁয়া মানা!

ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় একঘরে, পুকুরের পানি ছাড়া সব ছোঁয়া মানা!

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

লালদিয়ার চরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান

লালদিয়ার চরে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের উচ্ছেদ অভিযান

ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় একঘরে, পুকুরের পানি ছাড়া সব ছোঁয়া মানা!

ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় একঘরে, পুকুরের পানি ছাড়া সব ছোঁয়া মানা!

মাদকের টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে!

মাদকের টাকা না পেয়ে মাকে হত্যা করলো মেয়ে!

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় নিহত ৮

সড়ক দুর্ঘটনায় ৭ জেলায় নিহত ৮

মিনিবাসের ধাক্কায় স্কুলছাত্রী নিহত

মিনিবাসের ধাক্কায় স্কুলছাত্রী নিহত

চট্টগ্রামে তিন খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র: রাষ্ট্রদূত

চট্টগ্রামে তিন খাতে বিনিয়োগে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র: রাষ্ট্রদূত


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.