সেকশনস

শুরুর দিনগুলোতে কোন ইস্যুকে অগ্রাধিকার দেবেন প্রেসিডেন্ট বাইডেন?

আপডেট : ২০ জানুয়ারি ২০২১, ১৮:৪৭
image

৫০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতির মাঠে বিচরণ ডেমোক্র্যাট নেতা জো বাইডেনের। তবে বুধবার (২০ জানুয়ারি) রাজনৈতিক জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ও চ্যালেঞ্জিং দায়িত্বভার নিতে যাচ্ছেন তিনি। এদিন যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬ তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নেবেন বাইডেন। বিভক্ত জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করা, করোনা মহামারি মোকাবিলাসহ বেশ কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে তার সামনে। প্রেসিডেন্ট হিসেবে শুরুর দিকের সময়গুলোতে বাইডেন কোন কোন ইস্যুগুলোকে সবচেয়ে অগ্রাধিকার দিতে পারেন তা নিয়ে একটি বিশ্লেষণধর্মী প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি। প্রতিবেদনে আভাস দেওয়া হয়েছে, প্রথম ১০ দিনে বিভিন্ন নির্বাহী আদেশ দেবেন বাইডেন। নির্বাহী আদেশ কার্যকরের ক্ষেত্রে কংগ্রেসের অনুমোদন নিতে হয় না। সম্ভাব্য এসব আদেশের মধ্যে থাকবে- নিরাপত্তা ঝুঁকির বিবেচনায় মুসলিম দেশের ওপর ডোনাল্ড ট্রাম্প আরোপিত নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে আবারও ফিরে যাওয়া।  

নতুন প্রেসিডেন্ট যেসব ইস্যুকে প্রা্ধান্য দিতে পারেন-

করোনাভাইরাস মহামারি মোকাবিলা

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে চার লাখেরও বেশি মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। এ মহামারি মোকাবিলাকেই সর্বোচ্চ প্রাধান্য দেবে বাইডেনের নতুন প্রশাসন। এক্ষেত্রে দেশজুড়ে ফেডারেলেএলাকাগুলোতে প্রবেশ এবং এক অঙ্গরাজ্য থেকে আরেক অঙ্গরাজ্যে যাওয়ার ক্ষেত্রে মাস্ক পরিধান বাধ্যতামূলক করে আদেশ জারি করতে পারেন। তবে এতোদিন ধরে অঙ্গরাজ্যের গভর্নররা মাস্ক বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে আসছেন। হঠাৎ তারা সিদ্ধান্ত পাল্টাবেন কিনা তার কোনও নিশ্চয়তা নেই। আবার গোটা দেশে মাস্ক বাধ্যতামূলক করার এখতিয়ার প্রেসিডেন্টের নেই। অবশ্য, বাইডেন বলেছেন ব্যক্তিগতভাবে তিনি গভর্নরদেরকে এ ব্যাপারে বোঝানোর চেষ্টা করবেন। এছাড়া দায়িত্বগ্রহণের পর প্রথম ১০০ দিনে ১০০ মিলিয়ন মানুষকে ভ্যাকসিন প্রদানের লক্ষ্যমাত্রাও পূরণ করতে চান তিনি।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এর সঙ্গে আবারও যুক্ত হওয়া

ট্রাম্প প্রশাসন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সদস্যপদ থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে তা থেকে সরে আসার অঙ্গীকার করেছেন বাইডেন। চীনে কোভিড-১৯ এর অস্তিত্ব শনাক্তের পর কোভিড পরিস্থিতি মোকাবিলায় ডব্লিউএইচও’র অব্যবস্থাপনা ছিল দাবি করে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ট্রাম্প।

অর্থনৈতিক পদক্ষেপ

গত সপ্তাহে বাইডেন জানিয়েছেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে বিপর্যস্ত মার্কিন অর্থনীতিকে পুনরুজ্জীবিত করতে ১.৯ ট্রিলিয়ন ডলার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণার পরিকল্পনা আছে তার। তিনি বলেছেন, ‘নষ্ট করার মতো সময় নেই।’

বাইডেনের ট্রানজিশন টিম জানিয়েছে, নতুন প্রেসিডেন্ট শিগগিরই কেবিনেট এজেন্সিগুলোকে নির্দেশ দেবেন তারা যেন শ্রমিক পরিবারগুলোকে আর্থিক ভাতা দিতে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেয়। এছাড়া উচ্ছেদ অভিযানের স্থগিতাদেশের মেয়াদ ও বন্ধককৃত বাড়ির নিলামের সময়সীমা বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে বাইডেনের। করোনা মহামারির শুরুর দিকে এ স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়েছিল। ফেডারেল শিক্ষার্থীদের ঋণ পরিশোধে স্থগিতাদেশেরও মেয়াদ বাড়াবেন নতুন প্রেসিডেন্ট।

পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন

দায়িত্বগ্রহণের পর শুরুর দিকের সময়গুলোতেই যুক্তরাষ্ট্রকে আবারও প্যারিস জলবায়ু চুক্তির সঙ্গে যুক্ত করবেন বাইডেন। শুধু তাই নয়, জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে আরও উচ্চ মানের পদক্ষেপ নেবেন তিনি। প্রথম ১০০ দিনের মধ্যে জলবায়ু সংক্রান্ত একটি আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনের পরিকল্পনাও রয়েছে তার। বাইডেন বলেছেন, ২০৫০ সাল নাগাদ কার্বন নিঃসরণের হার শূন্যতে নামিয়ে আনতে এ বছর আইন কার্যকরের জন্য কংগ্রেসের সঙ্গে কাজ করতে চান তিনি।

অভিবাসন নীতি

২০১৭ সালের জানুয়ারিতে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্বগ্রহণের সাত দিনের মাথায় ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রাথমিকভাবে সাতটি মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছিল। তবে আদালতে কয়েকটি চ্যালেঞ্জের পর তালিকায় কিছুটা পরিবর্তন আসে। বর্তমানে ইরান, লিবিয়া, সোমালিয়া, সিরিয়া, ইয়েমেন, ভেনেজুয়েলা ও উত্তর কোরিয়ার নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

ট্রাম্প আরোপিত এ ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারকে অগ্রাধিকার দেবেন বাইডেন।

অভিবাসীদের জন্য আরও বড় একটি প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন এ ডেমোক্র্যাট নেতা। বলেছেন, ১ কোটি ১০ লাখ অনথিভুক্ত অভিবাসীকে নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য কংগ্রেসে বিল পাঠাবেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের কাজ বন্ধ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন বাইডেন। সীমান্তে দেয়াল নির্মাণকে অর্থের অপচয় হিসেবে দেখছে তার প্রচারণা শিবির। তার চেয়ে সীমান্তে নতুন নতুন স্ক্রিনিং ব্যবস্থা চালু করার জন্য কেন্দ্রীয় তহবিল বরাদ্ধ দেওয়ার প্রতিই আগ্রহ তাদের।

/এফইউ/

সম্পর্কিত

স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

সামরিক আদেশ মানতে নারাজ মিয়ানমারের ৩ পুলিশ সদস্য, ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা

সামরিক আদেশ মানতে নারাজ মিয়ানমারের ৩ পুলিশ সদস্য, ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা

তাজমহলে বোমাতঙ্ক

তাজমহলে বোমাতঙ্ক

ভারতে জোরালো হচ্ছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের দাবি

ধর্ষণ প্রশ্নে বিতর্কিত মন্তব্যভারতে জোরালো হচ্ছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের দাবি

ভারতে রাজনৈতিক স্বাধীনতা সীমিত হয়েছে: প্রতিবেদন

ভারতে রাজনৈতিক স্বাধীনতা সীমিত হয়েছে: প্রতিবেদন

আস্থা ভোটের মুখোমুখি হচ্ছেন ইমরান খান

আস্থা ভোটের মুখোমুখি হচ্ছেন ইমরান খান

হাজার হাজার ডোজ নকল করোনা ভ্যাকসিন আটক

হাজার হাজার ডোজ নকল করোনা ভ্যাকসিন আটক

হামলার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট অধিবেশন বাতিল

হামলার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট অধিবেশন বাতিল

ইসরায়েলি যুদ্ধাপরাধের আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু

ইসরায়েলি যুদ্ধাপরাধের আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু

মে মাসের মধ্যে সবার জন্য পর্যাপ্ত টিকা পাবে যুক্তরাষ্ট্র: বাইডেন

মে মাসের মধ্যে সবার জন্য পর্যাপ্ত টিকা পাবে যুক্তরাষ্ট্র: বাইডেন

সর্বশেষ

স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

শিক্ষামন্ত্রীকে দুষলেন দুর্নীতিতে অভিযুক্ত ভিসি কলিম উল্লাহ

শিক্ষামন্ত্রীকে দুষলেন দুর্নীতিতে অভিযুক্ত ভিসি কলিম উল্লাহ

শ্রীপুরে মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ

শ্রীপুরে মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতনের অভিযোগ

সামরিক আদেশ মানতে নারাজ মিয়ানমারের ৩ পুলিশ সদস্য, ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা

সামরিক আদেশ মানতে নারাজ মিয়ানমারের ৩ পুলিশ সদস্য, ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা

তাজমহলে বোমাতঙ্ক

তাজমহলে বোমাতঙ্ক

মা হচ্ছেন শ্রেয়া

মা হচ্ছেন শ্রেয়া

ভয়ঙ্কর মাদক ‌‘আইস’র সবচেয়ে বড় চালান জব্দ

ভয়ঙ্কর মাদক ‌‘আইস’র সবচেয়ে বড় চালান জব্দ

‘বাবলের’ মধ্যেই সাতজনের করোনা, পিএসএল স্থগিত

‘বাবলের’ মধ্যেই সাতজনের করোনা, পিএসএল স্থগিত

ভারতে জোরালো হচ্ছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের দাবি

ধর্ষণ প্রশ্নে বিতর্কিত মন্তব্যভারতে জোরালো হচ্ছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের দাবি

বিবাহ ও বিচ্ছেদ ডিজিটালাইজেশনের নির্দেশনা চেয়ে রিট

বিবাহ ও বিচ্ছেদ ডিজিটালাইজেশনের নির্দেশনা চেয়ে রিট

হঠাৎ বেড়েছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা, শিশুই বেশি

হঠাৎ বেড়েছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা, শিশুই বেশি

বাংলাদেশের সাহিত্য : স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর | শেষ পর্ব

বাংলাদেশের সাহিত্য : স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছর | শেষ পর্ব

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

স্ত্রী স্বামীর সম্পত্তি নয়: ভারতের সুপ্রিম কোর্ট

সামরিক আদেশ মানতে নারাজ মিয়ানমারের ৩ পুলিশ সদস্য, ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা

সামরিক আদেশ মানতে নারাজ মিয়ানমারের ৩ পুলিশ সদস্য, ভারতে আশ্রয় প্রার্থনা

তাজমহলে বোমাতঙ্ক

তাজমহলে বোমাতঙ্ক

ভারতে জোরালো হচ্ছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের দাবি

ধর্ষণ প্রশ্নে বিতর্কিত মন্তব্যভারতে জোরালো হচ্ছে প্রধান বিচারপতির পদত্যাগের দাবি

ভারতে রাজনৈতিক স্বাধীনতা সীমিত হয়েছে: প্রতিবেদন

ভারতে রাজনৈতিক স্বাধীনতা সীমিত হয়েছে: প্রতিবেদন

আস্থা ভোটের মুখোমুখি হচ্ছেন ইমরান খান

আস্থা ভোটের মুখোমুখি হচ্ছেন ইমরান খান

হাজার হাজার ডোজ নকল করোনা ভ্যাকসিন আটক

হাজার হাজার ডোজ নকল করোনা ভ্যাকসিন আটক

হামলার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট অধিবেশন বাতিল

হামলার আশঙ্কায় যুক্তরাষ্ট্রের পার্লামেন্ট অধিবেশন বাতিল

ইসরায়েলি যুদ্ধাপরাধের আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু

ইসরায়েলি যুদ্ধাপরাধের আনুষ্ঠানিক তদন্ত শুরু


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.