সেকশনস

প্রথম দিনই ট্রাম্পের মুসলিম নিষেধাজ্ঞা তুলে নিলেন বাইডেন

আপডেট : ২১ জানুয়ারি ২০২১, ১১:২৪

কথা রাখলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। নির্বাচনের আগেই প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ক্ষমতায় এলে প্রথম দিনই ট্রাম্পের জারি করা মুসলিম নিষেধাজ্ঞা তুলে নেবেন তিনি। সে অনুযায়ী, হোয়াইট হাউজে প্রথম কর্মদিবসেই সাত মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছেন বাইডেন। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

২০১৭ সালে প্রেসিডেন্টের দায়িত্ব গ্রহণের কিছু দিন পরই সাতটি মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন ট্রাম্প। পরে সেটি মুসলিম নিষেধাজ্ঞা হিসেবে পরিচিত হয়। তবে হোয়াইট হাউজে অভিষেকের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ট্রাম্পের মুসলিম নিষেধাজ্ঞা বাতিলের নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেন জো বাইডেন।

এদিন মোট ১৭টি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন তিনি। এর মধ্য দিয়ে বিদায়ী প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বেশ কিছু নীতি বিতর্কিত নীতি বদলে দিয়েছেন বাইডেন। ওভাল অফিসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, ‘সংকট মোকাবিলার ক্ষেত্রে অপচয় করার মতো কোনও সময় হাতে নেই। আমি আমেরিকার মানুষকে দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন শুরু করতে যাচ্ছি।’

জো বাইডেন যে ১৭টি নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন তার তিনটিই করোনাভাইরাস মোকাবিলার বিষয়ে। দুইটি মার্কিন অর্থনীতি নিয়ে। এর বাইরে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর মধ্যে আছে জলবায়ু পরিবর্তন ও অভিবাসন। ৩০ দিনের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রকে ফের প্যারিস জলবায়ু চুক্তিতে ফেরানোর নির্বাহী আদেশেও স্বাক্ষর করেছেন তিনি। আরেক আদেশে কর্মক্ষেত্রে লিঙ্গ বৈষম্য দূর করা তথা সমতা নিশ্চিত করার কথা বলা হয়েছে।

মেক্সিকো সীমান্তে দেয়াল নির্মাণে তহবিলের জন্য ন্যাশনাল ইমার্জেন্সি ডিক্লারেশন বাতিল করেছেন। অর্থাৎ, সীমান্তে দেয়াল নির্মাণের কাজ স্থগিত করা হয়েছে।

এর আগে হোয়াইট হাউজে দেওয়া অভিষেক ভাষণে পূর্বসূরী ডোনাল্ড ট্রাম্পের ‘মেইক আমেরিকা গ্রেট এগেইন’ কিংবা ‘আমেরিকা ফার্স্ট’ নীতির মর্মমূলে আঘাত হানেন বাইডেন। দরিদ্র শ্বেতাঙ্গ আমেরিকানদের ভোট জিততে বিভক্তির সূত্রে ট্রাম্প তাদের বিপরীতে শত্রু হিসেবে দাঁড় করিয়েছিলেন মুসলিম অভিবাসী আর মেক্সিকানদের। শ্বেতাঙ্গ আধিপত্যের সেই বিদ্বেষী রাজনীতিকে চ্যালেঞ্জ করে বাইডেন বলেছেন, আমেরিকার ইতিহাসে বারবার বিভক্তির বিপরীতে ঐক্য জিতেছে। আজ জানুয়ারির এই দিনে আমার সমস্ত আত্মাজুড়ে রয়েছে: আমেরিকাকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে, আমাদের জনগণের ঐক্য গড়তে হবে আর জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে।’ সূত্র: আল জাজিরা, সিএনএন।

/এমপি/

সম্পর্কিত

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

উইঘুর গণহত্যার অভিযোগ  অযৌক্তিক ও মিথ্যা: চীন

উইঘুর গণহত্যার অভিযোগ  অযৌক্তিক ও মিথ্যা: চীন

এবার জোরছে ছাপ, টিএমসি সাফ, তৃণমূলের খেল খতম: মোদি

এবার জোরছে ছাপ, টিএমসি সাফ, তৃণমূলের খেল খতম: মোদি

নিরাপত্তা হেফাজতে সু চি’র দলীয় কর্মীর মৃত্যু, নিপীড়নের অভিযোগ

নিরাপত্তা হেফাজতে সু চি’র দলীয় কর্মীর মৃত্যু, নিপীড়নের অভিযোগ

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ‘তহবিল সংগ্রহের চেষ্টায়’ মিয়ানমারের সামরিক সরকার

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ‘তহবিল সংগ্রহের চেষ্টায়’ মিয়ানমারের সামরিক সরকার

জুলাইয়ের আগে তিব্বতে উচ্চগতির বুলেট ট্রেন চালু করবে চীন

জুলাইয়ের আগে তিব্বতে উচ্চগতির বুলেট ট্রেন চালু করবে চীন

শ্যামাপ্রসাদ না থাকলে আমাদেরকে বাংলাদেশে থাকতে হতো: শুভেন্দু

শ্যামাপ্রসাদ না থাকলে আমাদেরকে বাংলাদেশে থাকতে হতো: শুভেন্দু

আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী

আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী

মিয়ানমারের সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি চীন

মিয়ানমারের সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি চীন

‘মিয়ানমারের  অনেক নাগরিক ভারতে আশ্রয় চাইছে’

‘মিয়ানমারের  অনেক নাগরিক ভারতে আশ্রয় চাইছে’

নতুন কৃষি আইন সংশোধনে প্রস্তুত আছে সরকার: ভারতের কৃষিমন্ত্রী

নতুন কৃষি আইন সংশোধনে প্রস্তুত আছে সরকার: ভারতের কৃষিমন্ত্রী

হংকং-এ স্থিতিশীলতার জন্য নির্বাচন ব্যবস্থায় সংস্কার জরুরি: চীন

হংকং-এ স্থিতিশীলতার জন্য নির্বাচন ব্যবস্থায় সংস্কার জরুরি: চীন

সর্বশেষ

স্বামী কাবিননামা না দেওয়ায় স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

স্বামী কাবিননামা না দেওয়ায় স্ত্রীর ‘আত্মহত্যা’

বর্ণিল আতশবাজিতে ‘দাবায় রাখতে না পারার’ উদযাপন

বর্ণিল আতশবাজিতে ‘দাবায় রাখতে না পারার’ উদযাপন

সংগীতশিল্পী জানে আলম স্মরণে দোয়া ও সভা

সংগীতশিল্পী জানে আলম স্মরণে দোয়া ও সভা

কার্টুনিস্ট কিশোরের প্রয়োজন দুটো অপারেশন

কার্টুনিস্ট কিশোরের প্রয়োজন দুটো অপারেশন

নারী দিবসের উদযাপন হোক নিজের মতো

নারী দিবসের উদযাপন হোক নিজের মতো

নারী-পুরুষ সমতা কত দূর?

আন্তর্জাতিক নারী দিবস আজনারী-পুরুষ সমতা কত দূর?

বঙ্গবন্ধু আমাদের মুক্তি ও স্বাধীনতার প্রতীক: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু আমাদের মুক্তি ও স্বাধীনতার প্রতীক: পর্যটন প্রতিমন্ত্রী

সুজনকে আইনি নোটিশ পাঠাইনি: রকিবুল

সুজনকে আইনি নোটিশ পাঠাইনি: রকিবুল

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

‘৭ মার্চের ভাষণে উজ্জীবিত হয়ে মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল’

‘৭ মার্চের ভাষণে উজ্জীবিত হয়ে মানুষ স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিল’

ব্যাংক খাতে ৯ বছরে অনিয়ম বেড়েছে ১৬ গুণের বেশি

ব্যাংক খাতে ৯ বছরে অনিয়ম বেড়েছে ১৬ গুণের বেশি

৭ মার্চের ভাষণ সারা বিশ্বে স্বাধীনতার প্রামাণ্য দলিল: তাপস

৭ মার্চের ভাষণ সারা বিশ্বে স্বাধীনতার প্রামাণ্য দলিল: তাপস

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

নারীর মৃত্যুতে অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি ব্যাচ বাতিল করলো অস্ট্রিয়া

উইঘুর গণহত্যার অভিযোগ  অযৌক্তিক ও মিথ্যা: চীন

উইঘুর গণহত্যার অভিযোগ  অযৌক্তিক ও মিথ্যা: চীন

এবার জোরছে ছাপ, টিএমসি সাফ, তৃণমূলের খেল খতম: মোদি

এবার জোরছে ছাপ, টিএমসি সাফ, তৃণমূলের খেল খতম: মোদি

নিরাপত্তা হেফাজতে সু চি’র দলীয় কর্মীর মৃত্যু, নিপীড়নের অভিযোগ

নিরাপত্তা হেফাজতে সু চি’র দলীয় কর্মীর মৃত্যু, নিপীড়নের অভিযোগ

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ‘তহবিল সংগ্রহের চেষ্টায়’ মিয়ানমারের সামরিক সরকার

রোহিঙ্গাদের ফেরাতে ‘তহবিল সংগ্রহের চেষ্টায়’ মিয়ানমারের সামরিক সরকার

জুলাইয়ের আগে তিব্বতে উচ্চগতির বুলেট ট্রেন চালু করবে চীন

জুলাইয়ের আগে তিব্বতে উচ্চগতির বুলেট ট্রেন চালু করবে চীন

শ্যামাপ্রসাদ না থাকলে আমাদেরকে বাংলাদেশে থাকতে হতো: শুভেন্দু

শ্যামাপ্রসাদ না থাকলে আমাদেরকে বাংলাদেশে থাকতে হতো: শুভেন্দু

আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী

আনুষ্ঠানিকভাবে বিজেপিতে যোগ দিলেন মিঠুন চক্রবর্তী

মিয়ানমারের সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি চীন

মিয়ানমারের সব পক্ষের সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি চীন

‘মিয়ানমারের  অনেক নাগরিক ভারতে আশ্রয় চাইছে’

‘মিয়ানমারের  অনেক নাগরিক ভারতে আশ্রয় চাইছে’


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.