সেকশনস

ভারতে বিদ্যুতের দর বৃদ্ধির দায় নিতে নারাজ বাংলাদেশ

আপডেট : ২৪ জানুয়ারি ২০২১, ২২:২৯

রাজনৈতিক কারণে ভারতে বিদ্যুতের দাম বাড়লে তার দায় নেবে না বাংলাদেশ। আমদানির কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ আমদানির ক্ষেত্রে নতুন এই ধারা সংযোজন করতে চায় বিদ্যুৎ বিভাগ। তবে এ বিষয়ে ভারত সরকারের সম্মতি প্রয়োজন। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ইতোমধ্যে সেই দাবি উত্থাপন করা হয়েছে।

ঝাড়খণ্ডে নির্মাণাধীন ভারতীয় কোম্পানি আদানির কাছ থেকে এক হাজার ৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কিনছে বাংলাদেশ। এই বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণ শেষের পথে রয়েছে। আগামী বছর অর্থাৎ ২০২২ সালে এ বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসার কথা রয়েছে। ভারতীয় অংশের গ্রিডলাইন নির্মাণের কাজ প্রায় শেষের পথে রয়েছে। বিদ্যুৎকেন্দ্রটির সঙ্গে ক্রয় চুক্তিসহ অন্যান্য সকল প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শেষ করেছে পিডিবি। বাংলাদেশের বগুড়া দিয়ে এই বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে যোগ হবে। তবে এ জন্য কোনও ব্যাক টু ব্যাক সাব-স্টেশন নির্মাণের প্রয়োজন হবে না। বিদ্যুৎকেন্দ্রের পুরো বিদ্যুৎ বাংলাদেশে রফতানি করাতে এর সঞ্চালন লাইনটি বাংলাদেশের জন্য মানানসই করে নির্মাণ করা হয়েছে।

কিন্তু কোনও কারণে ভারতে রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে যদি বিদ্যুতের দামের হেরফের হয় তাহলে কী হবে? এই আলোচনা এতদিন না হলেও এখন বাংলাদেশ সেই আলোচনা করছে। বাংলাদেশ বলছে, এর দায় নেওয়া আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। অভ্যন্তরীণ কারণে দামের হেরফের হলে আমরা যে দামে বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি করেছি সেই দাম বহাল রাখতে হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসাইন বলেন, বিদ্যুৎকেন্দ্রটি কয়লাচালিত। এখন সারা বিশ্বে কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্রের বিষয়ে সরকারগুলো নানা কঠোরতা আরোপ করছে। দেখা গেলো আগামীতে কোনও একসময়ে ভারত সরকার কয়লাচালিত বিদ্যুৎকেন্দ্রের পরিবেশ দূষণের জন্য কর আরোপ করলো। আমরা বলছি এই করের দায় আমাদের পক্ষে নেওয়া সম্ভব নয়।

ভারতীয় বিদ্যুৎ সচিব সঞ্জীব নন্দন সাহাইয়ের নেতৃত্বে ভারতীয় প্রতিনিধি দল ঢাকায় জয়েন্ট স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে আসেন। গত ২৩ জানুয়ারি গভীর রাত পর্যন্ত ঢাকায় বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

বিদ্যুৎ বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, আমরা ভারতের রাজনৈতিক কারণে বিদ্যুতের দর বৃদ্ধির বিষয়ে দায় না নেওয়ার কথা জানিয়েছি। ভারতীয় প্রতিনিধি দল বলছে বিদ্যুতের ক্রয় চুক্তিতে বিষয়টি অন্তর্ভুক্ত থাকতে হবে। আমরা সেই অনুযায়ী পদক্ষেপ নিচ্ছি।

প্রসঙ্গত, ২০১৭ সালের শেষদিকে আদানির সঙ্গে বিদ্যুতের ক্রয় চুক্তি করে পিডিবি। তবে তখন নানামুখী সমালোচনার জন্য আদানি এবং পিডিবি এই বিষয়ে খুব সরব ছিল না।

সরকারের তরফ থেকে বলা হচ্ছে, দেশে উত্তরবঙ্গে এখনও বিদ্যুতের চরম সংকট রয়েছে। আদানির বিদ্যুৎ পাওয়া গেলে এই সংকট দূর করা সম্ভব। এজন্য পিজিসিবি সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দিয়ে সঞ্চালন প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। বগুড়া থেকে এই বিদ্যুৎ দিনাজপুর পর্যন্ত নিতেও আলাদা বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণ করা হচ্ছে।

এখন ভারত থেকে এক হাজার ১৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ আমদানি করা হয়, কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা এবং কুমিল্লা দিয়ে এই বিদ্যুৎ বাংলাদেশে আসে। আদানির বিদ্যুৎ যোগ হলে এক লাফে তা বেড়ে দাঁড়াবে ২ হাজার ৭৬০ মেগাওয়াটে।

/এসএনএস/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মুশতাকের মৃত্যুতে বিদেশিদের বক্তব্য শিষ্টাচার বহির্ভূত: তথ্যমন্ত্রী

মুশতাকের মৃত্যুতে বিদেশিদের বক্তব্য শিষ্টাচার বহির্ভূত: তথ্যমন্ত্রী

‘বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র নিয়ে প্রকাশিত সংবাদটি সঠিক নয়’

ইন্দো-প্যাসিফিক ইস্যু‘বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র নিয়ে প্রকাশিত সংবাদটি সঠিক নয়’

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৭ মার্চ পালনের নির্দেশ, পতাকা উত্তোলন বাধ্যতামূলক

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৭ মার্চ পালনের নির্দেশ, পতাকা উত্তোলন বাধ্যতামূলক

জরুরি ভিত্তিতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

জরুরি ভিত্তিতে প্রাথমিক শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে সরকার

বেসরকারি শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে সরকার

বেসরকারি শিক্ষকদের তথ্য চেয়েছে সরকার

২৬ মার্চ থেকে ঢাকা-জলপাইগুড়ি চলবে ট্রেন

২৬ মার্চ থেকে ঢাকা-জলপাইগুড়ি চলবে ট্রেন

সারাদেশে জাতীয় ভোটার দিবস পালিত

সারাদেশে জাতীয় ভোটার দিবস পালিত

সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের শঙ্কা

সেচ মৌসুমে লোডশেডিংয়ের শঙ্কা

সর্বশেষ

টেলিটকসহ ৪ অপারেটরই তরঙ্গ নিলামে অংশ নিচ্ছে

টেলিটকসহ ৪ অপারেটরই তরঙ্গ নিলামে অংশ নিচ্ছে

রাতটা কাটলো শুধু পুলিশ হেফাজতে

রাতটা কাটলো শুধু পুলিশ হেফাজতে

‘এক মাস আগে মাটি কাটছি, আইজও টেকা দেয় না পিআইসি’

‘এক মাস আগে মাটি কাটছি, আইজও টেকা দেয় না পিআইসি’

ধানমন্ডিতে শিক্ষার্থীর রহস্যজনক মৃত্যু: আসামিদের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১২ এপ্রিল

ধানমন্ডিতে শিক্ষার্থীর রহস্যজনক মৃত্যু: আসামিদের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১২ এপ্রিল

শাবির নতুন ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক জহীর উদ্দিন

শাবির নতুন ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক জহীর উদ্দিন

নিউজিল্যান্ডে নতুন বলেই আসল চ্যালেঞ্জ

নিউজিল্যান্ডে নতুন বলেই আসল চ্যালেঞ্জ

অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৩০ হাজার ‘বীর নিবাস’ হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী 

অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৩০ হাজার ‘বীর নিবাস’ হবে: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী 

জাবিতে তিন দফা দাবিতে ছাত্র ফ্রন্টের মানববন্ধন

জাবিতে তিন দফা দাবিতে ছাত্র ফ্রন্টের মানববন্ধন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

২০ বছরে ৩০ হাজার মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা

২০ বছরে ৩০ হাজার মেগাওয়াট সৌরবিদ্যুৎ উৎপাদনের পরিকল্পনা

সংকট সামলাতে এলএনজি সরবরাহ বাড়ছে

সংকট সামলাতে এলএনজি সরবরাহ বাড়ছে

রফতানি শিল্পে পুনঃঅর্থায়ন ঋণ দেবে ১৪ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান

রফতানি শিল্পে পুনঃঅর্থায়ন ঋণ দেবে ১৪ ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান

‘বছরে পাঁচ বিলিয়ন ডলারের বেশি চামড়া রফতানি সম্ভব’

‘বছরে পাঁচ বিলিয়ন ডলারের বেশি চামড়া রফতানি সম্ভব’


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.