সেকশনস

জঙ্গি সন্দেহে মিনহাজকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল এফবিআই

আপডেট : ২৭ জানুয়ারি ২০২১, ০০:৩১

জঙ্গি সন্দেহে প্রায় চার বছর আগেই যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (এফবিআই) জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হয়েছিলেন ঢাকায় গ্রেফতার হওয়া সিরিয়াফেরত জঙ্গি মিনহাজ হোসেন। এর পরপরই ২০১৭ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে ঢাকায় চলে আসেন মিনহাজ। ঢাকায় ফিরে আবারও আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগাযোগ শুরু করেন মিনহাজ। এক পর্যায়ে সিরিয়ায় নিষিদ্ধ ঘোষিত আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন হায়াত তাহরির আল শাম- এইচটিএসের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করে সিরিয়ায় যাওয়ার পরিকল্পনা করেন তিনি। গত বছরের সেপ্টেম্বরে তুরস্ক হয়ে সিরিয়ায় গিয়েছিলেন তিনি। হায়াত তাহরির আল শাম নিয়ন্ত্রিত এলাকায় ঢুকতে গিয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চেকপোস্টে ধরা পড়ার ভয়ে ডিসেম্বরে দেশে ফিরে আসেন তিনি। দেশে ফিরে নব্য জেএমবিকে সংগঠিত করার চেষ্টা করছিলেন তিনি। সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের উপ-কমিশনার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘মিনহাজকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সে কী উদ্দেশ্যে সিরিয়া গিয়েছিল এবং দেশে ফিরে নব্য জেএমবির কার কার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিল তা জানার চেষ্টা চলছে।’

গত শনিবার (২৩ জানুয়ারি) রাজধানীর দারুসসালাম এলাকার কোনাবাড়ী বাসস্ট্যান্ড থেকে মিনহাজকে গ্রেফতার করে ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিট-সিটিটিসি। সিরিয়া থেকে একজন জঙ্গি নেতা দেশে ঢুকেছে এমন তথ্যের ভিত্তিতেই গত ডিসেম্বর থেকেই গোয়েন্দা নজরদারি করে আসছিল জঙ্গি প্রতিরোধে গঠিত বিশেষায়িত এই ইউনিট।

সিটিটিসির কর্মকর্তারা জানান, মিনহাজ উচ্চশিক্ষিত। তিনি যুক্তরাজ্যের লন্ডন স্কুল অব ইকোনোমিকস থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন। এরপর তিনি যুক্তরাষ্ট্রের জর্জ ম্যাসন ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন। এরপর ব্রুনাইয়ের ইউনিভার্সিটি ব্রুনাই দারুসসালাম থেকে তিনি পিএইডি সম্পন্ন করেন। তার পড়াশোনার বিষয়বস্তু ছিল ইসলামিক শাসন ব্যবস্থা। তিনি ‘রিভাইভিং দ্য উম্মাহ’, ‘টুয়েন্টিফার্স্ট সেঞ্চুরি ইসলামিক স্টেট’ নামে দুটি বইসহ একাধিক বই লিখেছেন। মিনহাজের দুই ভাইয়ের একজন যুক্তরাজ্যে ও একজন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করেন।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা জানান, মিনহাজ যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করাকালে তার গতিবিধি ও লেখালেখি সন্দেহজনক ছিল। ইসলামিক জঙ্গি সন্দেহে এফবিআই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল। এরপর এফবিআইয়ের হাতে গ্রেফতার হওয়ার ভয়ে মা জরজিনা হকসহ ঢাকায় চলে আসেন। ঢাকায় ফিরে মিনহাজ বেসরকারি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যবস্থাপনা বিভাগের শিক্ষক হিসেবে চাকরি করেন। দেড় বছর আগে সেই চাকরি ছেড়ে দিয়ে আরও দুটি প্রতিষ্ঠানে খণ্ডকালীন চাকরি করেন। একইসঙ্গে ঢাকায় অবস্থান করেই তিনি আন্তর্জাতিক জঙ্গি গোষ্ঠীর সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করেন।

সিটিটিসি সূত্র জানায়, মিনহাজ এক পর্যায়ে সিরিয়ার হায়াত তাহরির আল শামের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করেন। ২০১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত এই জঙ্গি সংগঠনটি সিরিয়ার বাশার আল আসাদ সরকারকে উৎখাতের জন্য চোরাগোপ্তা হামলা করে আসছে। নিষিদ্ধ এই সংগঠনটি আল কায়েদার ভাবাদর্শ অনুসরণ করে বলেও মনে করা হয়। মিনহাজ এই সংগঠনের জন্য একটি কৌশলপত্র তৈরি করেছিলেন। উচ্চ-শিক্ষিত হওয়ায় মিনহাজ তাহরীর আল শামের পলিসি লেভেলে যোগ দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তাহরীর আল শামের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দেখা করতে ব্যর্থ হয়ে ঢাকায় ফিরে দেশেই কথিত খিলাফত প্রতিষ্ঠার চেষ্টা করছিলেন।

সিটিটিসির একজন কর্মকর্তা জানান, মিনহাজের বাবার নাম ইকবাল হোসেন। মায়ের নাম জরজিনা হক। ঢাকার শান্তিনগরে তাদের বাসা। মিনহাজের মা জরজিনা হক বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি-ডব্লিউএফপিতে চাকরি করতেন। মায়ের চাকরিসূত্রেই কিশোর বয়সেই মিনহাজ পাকিস্তানে চলে যান। মিনহাজের মা তার বাবাকে ছেড়ে এক ডাচ নাগরিককে বিয়ে করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে চলে যান।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে ওই কর্মকর্তা আরও জানান, ইসলামের নানা বিষয়ে মিনহাজের অনেক পড়াশোনা রয়েছে। তিনি নিজেকে ইসলামিক স্কলার হিসেবেও মনে করেন। তবে মিনহাজের পরিবারের সদস্যরা সবাই আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত এবং আধুনিক পরিবার। এমনকি মায়ের সঙ্গে মিনহাজ নিজেও একসময় গিটার বাজাতেন। এরকম একটি আধুনিক পরিবারে বড় হয়েও মিনহাজ কিভাবে জঙ্গিবাদে সম্পৃক্ত হলো সে বিষয়টিও তারা জানার চেষ্টা করছেন।

 

/এমআর/

সম্পর্কিত

বিমানের বহরে যুক্ত হলো ‘শ্বেতবলাকা’

বিমানের বহরে যুক্ত হলো ‘শ্বেতবলাকা’

বেড়েই চলেছে চালের দাম

বেড়েই চলেছে চালের দাম

ভিন্ন আঙ্গিকে নারী দিবস উদযাপন করলো ‘টিম গ্রুপ’

ভিন্ন আঙ্গিকে নারী দিবস উদযাপন করলো ‘টিম গ্রুপ’

সবুজ পাতার ফাঁকে ‘কৃষকের হাসি’

সবুজ পাতার ফাঁকে ‘কৃষকের হাসি’

দেড় মাস পর শেয়ার বাজারে স্বস্তি

দেড় মাস পর শেয়ার বাজারে স্বস্তি

কর্মক্ষেত্রে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে মানববন্ধন

কর্মক্ষেত্রে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে মানববন্ধন

নতুন শনাক্ত বাড়ছেই

নতুন শনাক্ত বাড়ছেই

দেশ কোনও ভাষণে স্বাধীন হয়নি, হয়েছে যুদ্ধে: গয়েশ্বর

দেশ কোনও ভাষণে স্বাধীন হয়নি, হয়েছে যুদ্ধে: গয়েশ্বর

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

ভাইয়ের কুড়ালের আঘাতে মৃত্যু

ভাইয়ের কুড়ালের আঘাতে মৃত্যু

সর্বশেষ

‘প্রিয়’ নম্বরে বিকাশের সেন্ড মানি ফ্রি

‘প্রিয়’ নম্বরে বিকাশের সেন্ড মানি ফ্রি

ঝিনাইদহে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা

ঝিনাইদহে শিক্ষক-শিক্ষার্থী-শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে সম্মাননা

তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় বুড়োরা বাদ!

তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় বুড়োরা বাদ!

বিমানের বহরে যুক্ত হলো ‘শ্বেতবলাকা’

বিমানের বহরে যুক্ত হলো ‘শ্বেতবলাকা’

পান্তের সেঞ্চুরিতে উদ্ধার ভারত    

পান্তের সেঞ্চুরিতে উদ্ধার ভারত   

নাগরপুরে পুকুর থেকে দিনমজুরের লাশ উদ্ধার

নাগরপুরে পুকুর থেকে দিনমজুরের লাশ উদ্ধার

আগুনে পুড়ে মরলো চার গরু

আগুনে পুড়ে মরলো চার গরু

আদমদীঘিতে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু

আদমদীঘিতে ট্রেনে কাটা পড়ে নারীর মৃত্যু

সুশান্ত মৃত্যু রহস্য: চার্জশিটে রিয়াসহ ৩৩ জনের নাম

সুশান্ত মৃত্যু রহস্য: চার্জশিটে রিয়াসহ ৩৩ জনের নাম

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে কেন এতোটা গুরুত্ব পাচ্ছে মতুয়ারা?

পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে কেন এতোটা গুরুত্ব পাচ্ছে মতুয়ারা?

ক্যাম্পে মিললো রোহিঙ্গা শিশুর লাশ

ক্যাম্পে মিললো রোহিঙ্গা শিশুর লাশ

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী রুটে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী রুটে মালবাহী ট্রেন লাইনচ্যুত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বিমানের বহরে যুক্ত হলো ‘শ্বেতবলাকা’

বিমানের বহরে যুক্ত হলো ‘শ্বেতবলাকা’

ভিন্ন আঙ্গিকে নারী দিবস উদযাপন করলো ‘টিম গ্রুপ’

ভিন্ন আঙ্গিকে নারী দিবস উদযাপন করলো ‘টিম গ্রুপ’

কর্মক্ষেত্রে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে মানববন্ধন

কর্মক্ষেত্রে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে মানববন্ধন

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

মোটরসাইকেলে জেলার গণ্ডি পেরোতে পারবে না পুলিশ

সাংবাদিকের বেশ ধরে হুজিবি'র সাংগঠনিক কাজ করতেন তিনি

সাংবাদিকের বেশ ধরে হুজিবি'র সাংগঠনিক কাজ করতেন তিনি

অর্থপাচার থামছে না, কঠোর আইন চায় তদন্ত সংস্থাগুলো

অর্থপাচার থামছে না, কঠোর আইন চায় তদন্ত সংস্থাগুলো

দেশের পথে মেট্রোরেলের প্রথম ট্রেন

দেশের পথে মেট্রোরেলের প্রথম ট্রেন

দুই দেশের সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করবে ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র: জয়শঙ্কর

দুই দেশের সংস্কৃতির বিকাশে কাজ করবে ভারতীয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র: জয়শঙ্কর


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.