X
সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ৯ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

সিনেমা হল বাঁচাতে নতুন তহবিল

আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২৩:২২

চলচ্চিত্রের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে সিনেমা হলগুলোর জন্য এক হাজার কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই তহবিল থেকে সিনেমা হল সংস্কার, আধুনিকায়ন ও নতুন হল নির্মাণে পাঁচ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ নেওয়া যাবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি)  পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন সংক্রান্ত একটি প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এই তহবিল থেকে ঋণ নিতে চাইলে হল মালিকদের ৫ শতাংশের বেশি সুদ গুনতে হবে না। শুধু তাই নয়, টানা একবছর পর্যন্ত ঋণের টাকা শোধ করতে হবে না।

রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয় শহরের জন্য এই ঋণের সুদহার ৫ শতাংশ ও এর বাইরের এলাকার জন্য সাড়ে ৪ শতাংশ। আর এই ঋণ শোধ করা যাবে আট বছর পর্যন্ত। প্রথম বছরে ঋণ পরিশোধে ছাড় মিলবে (গ্রেস পিরিয়ড)।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এই তহবিল থেকে ঋণ পেতে আগ্রহী ব্যাংকগুলোকে আবেদনের আহ্বান জানানো হয়েছে। সরকারের উচ্চপর্যায়ের নির্দেশে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই তহবিল গঠন করেছে। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে দেড় শতাংশ হারে তহবিল হতে পুনঃঅর্থায়ন সুবিধা নিতে পারবে ব্যাংকগুলো।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, বাংলাদেশের আবহমান সংস্কৃতি, স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে চলচ্চিত্রের অবদান অপরিসীম। আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, শিল্পী ও কলাকুশলীদের দক্ষতা বৃদ্ধির মাধ্যমে চলচ্চিত্র শিল্পে নবজাগরণ সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১২ সালের ৩ এপ্রিল চলচ্চিত্রকে শিল্প হিসেবে ঘোষণা করেন। সুস্থ জাতি গঠনে নির্মল বিনোদনের ভূমিকা অনস্বীকার্য।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়, বিনোদন জগতের সর্ববৃহৎ মাধ্যম চলচ্চিত্র এবং সিনেমা হলকে কেন্দ্র করেই মূল চলচ্চিত্র শিল্প বিকশিত হয়। নব্বইয়ের দশকে এ দেশে প্রায় ১ হাজার ৪০০টি সিনেমা হল ছিল। কিন্তু নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে এ সংখ্যা ক্রমান্বয়ে হ্রাস পাচ্ছে। দেশের সিনেমাপ্রেমী দর্শকদের সুস্থ ধারার বিনোদন উপহার দেওয়ার লক্ষ্যে বিদ্যমান প্রেক্ষাগৃহগুলো সংস্কার এবং আধুনিক মানের নতুন সিনেমা হল নির্মাণ করা প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে সিনেমা হল মালিকদের স্বল্প সুদে দীর্ঘমেয়াদি ঋণ প্রদান করা হলে  হল মালিকরা নতুন নতুন সিনেমা হল নির্মাণের পাশাপাশি বিদ্যমান প্রেক্ষাগৃহগুলো সংস্কার ও আধুনিক যন্ত্রপাতি সংযোজন করতে সক্ষম হবেন। সার্বিক বিবেচনায়, সিনেমা হল মালিকদের ঋণ বিতরণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক এক হাজার কোটি টাকার পুনঃঅর্থায়ন তহবিল গঠন করেছে।

প্রজ্ঞাপনে আর উল্লেখ করা হয়, সিনেমা হল সংস্কার, আধুনিকায়ন ও মেশিনারি, যন্ত্রাংশ, প্রযুক্তি ক্রয় এবং নতুন সিনেমা হল নির্মাণের উদ্দেশ্যে এই তহবিল থেকে ঋণ মিলবে। বিভিন্ন শপিং কমপ্লেক্সে, বিদ্যমান সিনেমা হলসহ নতুনভাবে নির্মিত সিনেমা হলগুলোও এই তহবিলের আওতায় ঋণ সুবিধা পাবে।

তবে চলতি মূলধন বাবদ কোনও ঋণ দেওয়া হবে না। এ ছাড়া এ তহবিলের আওতায় গৃহীত ঋণ দিয়ে কোনোভাবেই অন্য কোনও ঋণের দায় শোধ করা যাবে না। বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব তহবিল থেকে এই পুনঃঅর্থায়নের অর্থ দেওয়া হবে। প্রথম ধাপে বিতরণ করা ৫০০ কোটি টাকা ঋণের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত হওয়ার পর দ্বিতীয় ধাপে ৫০০ কোটি টাকা বিতরণযোগ্য হবে।

/জিএম/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৯:১৭

সাত দিনব্যাপী ‘বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট ২০২১’ শুরু হচ্ছে কাল মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর), চলবে ১ নভেম্বর পর্যন্ত। গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি এই সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও ডিসিসিআই যৌথভাবে এই সম্মেলনের আয়োজন করেছে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠেয় এই সম্মেলনে ৩৮টি দেশের ৫৫২টি প্রতিষ্ঠান অংশ নেবে। এর মধ্যে দেশীয় প্রতিষ্ঠান ২৮১টি এবং বিদেশি প্রতিষ্ঠান ২৭১টি। এতে ৪৫০টি বিটুবি (বিজনেস টু বিজনেস) বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

এবারের বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিটে অবকাঠামো, আইটি, চামড়াজাত পণ্য, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং, ফার্মাসিউটিক্যালস, অ্যাগ্রো অ্যান্ড ফুড প্রসেসিং, প্লাস্টিক পণ্য, এফএমসিজি (ফার্স্ট মুভিং কনজিউমার গুডস) এবং জুট ও টেক্সটাইল পণ্য প্রদর্শিত হবে।

 

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

গ্যাসের দাম বাড়ানোর চিন্তা চলছে

গ্যাসের দাম বাড়ানোর চিন্তা চলছে

সাড়ে ৬ মাসে সর্বোচ্চ দরপতন পুঁজিবাজারে

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৬:৩৯

সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবারও (২৫ অক্টোবর) দেশের পুঁজিবাজারে বড় দরপতন হয়েছে। এদিন ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ডিএসইতে সূচক কমেছে ১২০ পয়েন্ট। চট্টগ্রাম এক্সচেঞ্জে (সিএসই) কমেছে ৪২৬ পয়েন্ট। যা গত ৬ মাস ২১ দিনের মধ্যে উভয় পুঁজিবাজারে  সূচকের সর্বোচ্চ পতন। এদিন দরপতনের প্রতিবাদে দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলে মানববন্ধন করেছেন বিনিয়োগকারীরা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে এ মানববন্ধন করেন তারা।  এদিন ব্যাংক, বিমা এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানসহ সব খাতের শেয়ারের দাম কমেছে।

দাম আরও কমবে এমন আতঙ্ক বিরাজ করছে পুঁজিবাজারে। বিনিয়োগকারীরা বলেছেন, সোমবার দিনের লেনদেনের শুরুতে প্রথমে বড় প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীরা শেয়ার বিক্রি করেন। এরপর তাদের দেখা-দেখি সাধারণ বিনিয়োগকারীরা আতঙ্কিত হয়ে শেয়ার বিক্রি করেন।

তথ্য বলছে, সোমবার দিনভর অস্থিরতার মধ্যদিয়ে লেনদেন হয়েছে। এদিন সূচক পতনের মধ্যদিয়ে লেনদেনের শুরু হয়, যা অব্যাহত ছিল দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিট পর্যন্ত। এ সময় আগের দিনের চেয়ে সূচক কমেছে ১৬৩ পয়েন্ট। তবে পরের ২ ঘণ্টা লেনদেন হয়েছে সূচক ওঠানামার মধ্যদিয়ে। দিন শেষে ডিএসইর প্রধান সূচক কমেছে ১২০ পয়েন্ট, যা চলতি বছরের ৪ এপ্রিলের পর সর্বোচ্চ সূচক পতন। ওই দিন ডিএসইর প্রধান সূচক কমেছিল ১৮১ দশমিক ৪৪ পয়েন্ট।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৭৬টি প্রতিষ্ঠানের ৩১ কোটি ৬৩ লাখ ৬০ হাজার ৭১২টি শেয়ার হাতবদল হয়েছে। লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৩০৭টির শেয়ারের দাম কমেছে, বেড়েছে ৪৭টির। আর অপরিবর্তিত ছিল ২২টির।

অধিকাংশ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমায় ডিএসইর প্রধান সূচকের পাশাপাশি অন্য সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২২ দশমিক ১৮ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৪৬৫ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৫৩ পয়েন্ট কমে দুই হাজার ৬৪৪ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৪৭০ কোটি ৪৩ লাখ ১৯ হাজার টাকার শেয়ার। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৪৭১ কোটি ৪ লাখ ৬২ হাজার টাকার শেয়ার। অর্থাৎ আগের দিনের চেয়ে লেনদেন কিছুটা কমেছে।

অপর পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ৪২৬ পয়েন্ট কমে ২০ হাজার ১৪৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। সিএসইতে লেনদেন হওয়া ২৯৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৪১টির শেয়ারের দাম বেড়েছে, কমেছে ২৪৪টির, আর অপরিবর্তিত রয়েছে ৯টির শেয়ারের দাম। এ বাজারে লেনদেন হয়েছে ৬০ কোটি ৬০ লাখ ২৭ হাজার ৫২৪ টাকার শেয়ার। এর আগের দিন লেনদনে হয়েছিল ৪৯ কোটি ৯৮ লাখ ৮১ হাজার ৭৭১ টাকার শেয়ার।

 

/জিএম/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বিক্রির চাপে বড় দরপতন  

শেয়ার বাজার নিয়ে আশা, নীতিমালা লঙ্ঘনের দায়ে ব্যাংক নিয়ে হতাশা

শেয়ার বাজার নিয়ে আশা, নীতিমালা লঙ্ঘনের দায়ে ব্যাংক নিয়ে হতাশা

শেয়ার বাজারে সুদিন ফিরেছে

শেয়ার বাজারে সুদিন ফিরেছে

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১৬:০৩

গত সপ্তাহের দরপতন, আর চলতি সপ্তাহের শুরুর দিন রবিবারের পর সোমবারও (২৫ অক্টোবর) দেশের পুঁজিবাজারে বড় দরপতনের প্রতিবাদে দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলে মানববন্ধন করেছেন বিনিয়োগকারীরা। মতিঝিলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় দ্রুত দরপতন থেকে পুঁজিবাজারকে উত্থানে ফেরানোর দাবি জানান তারা।

একইসঙ্গে গত ১০ অক্টোবর থেকে চলা এ দরপতনের পেছনে দায়ী ব্যক্তিদের চিহ্নিত করতে তদন্ত কমিটি গঠন এবং জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার  দাবি জানান বিনিয়োগকারীরা।

প্রসঙ্গত, দুই বছর আগে এভাবেই রাস্তায় নামতেন বিনিয়োগকারীরা।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) শেয়ার বাজার সূচকের পতনের মাধ্যমে শুরু হয়। মাত্র সোয়া এক ঘণ্টার মাথায় ডিএসই’র প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১০০ পয়েন্ট কমে যায়। সূচকের এ ধারা অব্যাহত ছিল দুপুর ১২টা ৩৬ মিনিট পর্যন্ত। তাতে লেনদেনের আড়াই ঘণ্টায় ডিএসই’র প্রধান সূচক কমে যায় ১৬৪ পয়েন্ট। এরপরই এ দরপতনের প্রতিবাদে মতিঝিলে বিক্ষোভে নামেন বিনিয়োগকারীরা।

তবে দুপুর ১টার পর থেকে বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের মার্কেট সাপোর্টের ফলে সূচক বাড়তে শুরু করে। তাতে দুপুর ২টা পর্যন্ত  দেখা গেছে, ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ৫০টির, কমেছে ৩১১টির, আর ১৫টির দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

 

/জিএম/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

সাড়ে ৬ মাসে সর্বোচ্চ দরপতন পুঁজিবাজারে

সাড়ে ৬ মাসে সর্বোচ্চ দরপতন পুঁজিবাজারে

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

নির্মাণে নতুন দিন আনছে কংক্রিট ব্লক

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯:০০

ক্রমবর্ধমান আবাসন চাহিদার কারণে দেশের আবাসন শিল্প একটি বড় শিল্পে পরিণত হয়েছে। অর্থনৈতিক উন্নয়নের ৮ শতাংশ জিডিপি আসে এ শিল্প থেকে। দিনে দিনে দেশীয় নির্মাণসামগ্রীর ওপরও নির্ভরশীলতা বাড়ছে। আর সেই তালিকায় নতুন সংযোজন কংক্রিট ব্লক। মাটি পোড়ানো লাল ইটের পরিবর্তে নির্মাণকাজে এখন দেদার ব্যবহার হচ্ছে এটি।

তবে নতুন কিছু সাধারণত সহজে গ্রহণ করতে চান না অনেকে। এ শিল্পের ক্ষেত্রেও সেটা ঘটেছে। অবশ্য পরিবেশবিদদের মতে, সনাতন লাল ইট পরিবেশের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ। এমনকি পরিবেশ বাঁচাতে ২০২৫ সাল থেকে সনাতন লাল ইটের ব্যবহার সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনা আছে সরকারের।

দেশের স্বল্প সংখ্যক প্রতিষ্ঠান এখন কংক্রিট ব্লক তৈরি করছে। এটি তৈরি হয় স্বয়ংক্রিয় মেশিনে। ব্লক তৈরিতে ব্যবহার হয় সিমেন্ট, কুচিপাথর, সিলেটের বালু, সাধারণ বালু ও স্টোন ডাস্ট।

কংক্রিট ব্লক ব্যবহারের সুফল অনেক। সবচেয়ে বড় দিক হচ্ছে সনাতন লাল ইটের চেয়ে এর নির্মাণ খরচ তুলনামূলক কম। কংক্রিট ব্লকের দেয়ালের গাঁথুনিতে সিমেন্ট-বালু কম লাগে। এ ছাড়া এটি ব্যবহারে ভবনের ওজন কম হয়। ভবন নির্মাণের সময়ও কম লাগে।

কংক্রিটের হওয়ায় এটি মজবুত হয় এবং নির্মাণের স্থায়ীত্ব বাড়ে। সনাতন লাল ইটের মতো এতে নোনা ধরে কম। শব্দদূষণ ও তাপ পরিবহনের পরিমাণ তুলনামূলকভাবে ৪০ শতাংশ কম থাকে এতে।

এর আরেকটি ভালো দিক হলো কংক্রিট ব্লক দিয়ে তৈরি হলে ঘরের ইন্টেরিয়র ডিজাইনেও অনেক সুবিধা পাওয়া যায়। যেমন ব্লকের তৈরি দেওয়ালে শুধু রং দিয়েই ফিনিশিং দেওয়া যায়। এতে খরচও কমে। বাইরের প্রাচীরে ব্লক গাঁথুনির মাধ্যমে বৈচিত্র্যও আনা যায়।

বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস

কংক্রিট ব্লক তৈরিতে দেশের কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস অন্যতম। স্বনামধন্য আবাসন প্রতিষ্ঠান বিল্ডিং টেকনোলজি অ্যান্ড আইডিয়াস লিমিটেড (বিটিআই)-এর একটি অঙ্গ প্রতিষ্ঠান বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস। ঢাকার অদূরে ধামরাইতে এর কারখানা।

আধুনিক স্বয়ংক্রিয় মেশিনে প্রতিদিন ২৫ হাজার ব্লক তৈরি হচ্ছে ওই কারখানায়। বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস প্রথমে বিটিআই-এর বিভিন্ন নিজস্ব নির্মাণের জন্য শুরু হলেও পরে বাণিজ্যিকভাবেও বিক্রি শুরু করেছে।

এই প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ধরনের ও আকারের ব্লক তৈরি করছে। প্রতিষ্ঠানের পণ্য তালিকায় ব্লকের পাশাপাশি আছে আগের ইটের সাইজের কংক্রিট ব্রিক। এমনও ব্লক আছে যা ৪-৫টি লাল ইটের সমান। অর্ধেক সাইজের সলিড ও ‘হলো’ ব্লকও আছে। তাই কেটে নেওয়ার ঝামেলা থাকে না এতে।

বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস শুধু ব্লকই প্রস্তুত করছে না। এখানে তৈরি হচ্ছে পেভমেন্ট টাইলস ও ইউনিপেভারও।

প্রায় চার দশক ধরে সুনামের সঙ্গে বিটিআই ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। সেই সুনাম ধরে রেখেছে বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস। বিটিআই-এর ভবন নির্মাণেও ব্যবহার হচ্ছে বিটিআই বিল্ডিং প্রডাক্টস-এর ব্লক।

 

 

/এফএ/

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৮:০৭

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান বলেছেন, রফতানি বহুমুখীকরণে ভবিষ্যতে ব্লু ইকোনমি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এরইমধ্যে বহুমুখীকরণ শুরু হয়ে গেছে। কারণ মোটর পার্টস, আইটি, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং ও ফার্মাসিউটিক্যাল খাত বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রফতানি করেছে। আগামী দুই থেকে চার বছরের মধ্যে এ খাতগুলো আরও সমৃদ্ধ হবে।

রবিবার (২৪ অ‌ক্টোবর) ব্লু ইকোনমি নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। যৌথভাবে সভার আয়োজন করে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ।

সালমান এফ রহমান বলেন, ‘ব্লু ইকোনমি নিয়ে আমাদের দেশে কাজ করার অনেক সুযোগ রয়েছে। কিন্তু কোন মন্ত্রণালয়ের কোন অধিদফতর কাজ করবে, তা নিয়ে পরিষ্কার কোনও ধারণা নেই।’ কী ধরনের নীতি সহায়তা দরকার সে প্রস্তাবনা দিলে, আমরা এটা নিয়ে কাজ করবো বলে জানান তিনি।

তি‌নি বলেন, ‘বর্তমানে বাংলাদেশের সমুদ্রসীমা ৬৬৪ কিলোমিটার। কিন্তু এর মধ্যে সর্বোচ্চ ৬০ কিলোমিটার কাজে লাগাতে পারছি আমরা। আমরা যদি যৌথভাবে বা জয়েন্ট ভেঞ্চারের মাধ্যমে বাকি সমুদ্র কাজে লাগাতে পারি, তাহলে অর্থনীতি আরও সমৃদ্ধ হবে।’

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘বাংলাদেশ সামুদ্রিক সম্পদের বিশাল অঞ্চল লাভ করেছে। আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে ২০১২ সালে মিয়ানমারের সঙ্গে এবং ২০১৪ সালে ভারতের সঙ্গে সমুদ্রসীমা বিরোধ নিষ্পত্তি হওয়ায় মোট ১ লাখ ১৮ হাজার ৮১৩ বর্গ কিলোমিটারের বেশি সমুদ্র এলাকা এখন বাংলাদেশের। এর সঙ্গে রয়েছে ২০০ নটিক্যাল মাইল একচ্ছত্র অর্থনৈতিক অঞ্চল ও চট্টগ্রাম উপকূল থেকে ৩৫৪ নটিক্যাল মাইল পর্যন্ত মহীসোপানের তলদেশের সব ধরনের প্রাণিজ-অপ্রাণিজ সম্পদের ওপর সার্বভৌম অধিকার।’

তিনি বলেন, ‘দুই বছরের ব্যবধানে আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের এ রায় দুটিকে প্রত্যেকেই বাংলাদেশের সমুদ্র বিজয় বলে অভিহিত করেছেন। এই সামুদ্রিক এলাকা প্রাকৃতিক গ্যাস এবং জীববৈচিত্র্যে সমৃদ্ধ। এই সম্পদের টেকসই ব্যবস্থাপনাতে এখন আমাদের কাজ করতে হবে।’

অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রিয়ার অ্যাডমিরাল (অব.) খোরশেদ আলম। তিনি বলেন, ‘দেশের সমুদ্র পথে জাহাজের মাধ্যমে আমদানি-রফতানিতে ৯ হাজার বিলিয়ন ডলার ব্যয় হয়। জাহাজের মাধ্যমে পণ্য আমদানি-রফতানির মধ্যে মাত্র ১০ শতাংশ হচ্ছে নিজস্ব পরিবহনে। সমুদ্র পথে ৫০ শতাংশ পণ্য নিজস্ব জাহাজের মাধ্যমে আমদানি-রফতানি করতে পারলে সাড়ে ৪ হাজার বিলিয়ন ডলার সঞ্চয় হবে। বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের পর বিশ্বব্যাপী কন্টেইনার সংকটে পড়েছে। জাহাজের পাশাপাশি সুযোগ এসেছে কন্টেইনার উৎপাদনের। এসব সুযোগ এখনই কাজে লাগাতে পারলে দেশের অর্থনীতি আরও শক্তিশালী হবে।’

বিডার নির্বাহী চেয়ারম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘আমরা সবসময় বেসরকারি খাতের সঙ্গে আছি এবং এর সহযোগিতায় ভবিষ্যতেও কাজ করবো।’ ব্লু ইকোনমিকে সামনে এগিয়ে নিতে বিডাকে সহযোগীর ভূমিকায় পাওয়া যাবে বলে আশ্বস্ত করেন সিরাজুল ইসলাম।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) গবেষণা পরিচালক ড. খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, ‘সমুদ্র খাতে অনেক সেক্টর রয়েছে, তবে আমাদের এখই মেরিটাইম শিপিংসহ বেশকিছু বিষয় নিয়ে কাজ করতে হবে। আমাদের বন্দর আছে, বলা হচ্ছে এর মাধ্যমে খরচ বেঁচে যাচ্ছে। তবে বাস্তবতা দেখতে হবে তা কতটুকু। আমার দেশের শিল্পের অধিকাংশ টাকাই চলে যাচ্ছে সড়ক দিয়ে পণ্য আনা-নেওয়াতে। কারখানা থেকে পণ্য বন্দর পর্যন্ত নিতে একটা বড় খরচ হচ্ছে সেটা কেউ দেখে না, সেটাও হিসাবের মধ্যে আনতে হবে। জাহাজ শিল্পের সুযোগ কাজে লাগাতে হবে, আধুনিক মাছ ধরার ট্রলার হলে গভীর সমুদ্রের বড় মাছগুলো পাওয়া যাবে। সেখানেও রফতানি আয়ের বড় সম্ভাবনা রয়েছে।’

/জিএম/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

গ্যাসের দাম বাড়ানোর চিন্তা চলছে

গ্যাসের দাম বাড়ানোর চিন্তা চলছে

আয়কর আইন হবে বাংলায়: এনবিআর

আয়কর আইন হবে বাংলায়: এনবিআর

সম্পর্কিত

আইনজীবী পেলো সৌদি আরবে সাজাপ্রাপ্ত বাশার, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল 

আইনজীবী পেলো সৌদি আরবে সাজাপ্রাপ্ত বাশার, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল 

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আরও ১৯০

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আরও ১৯০

প্যারিস, হেগে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ

প্যারিস, হেগে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদ

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ ২৮ অক্টোবর

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে গণটিকার দ্বিতীয় ডোজ ২৮ অক্টোবর

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ

বিদ্যুৎ সম্পর্কিত সব মামলা দ্রুত নিষ্পত্তির সুপারিশ

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

‘বঙ্গমাতা’র নামে সিলেট মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নামকরণের প্রস্তাব অনুমোদন

বোরো সংগ্রহে অনিয়মকারী চালকল মালিকের লাইসেন্স বাতিল

বোরো সংগ্রহে অনিয়মকারী চালকল মালিকের লাইসেন্স বাতিল

সর্বশেষ

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

রিমান্ড শেষে আরজে নীরব কারাগারে 

আইনজীবী পেলো সৌদি আরবে সাজাপ্রাপ্ত বাশার, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল 

আইনজীবী পেলো সৌদি আরবে সাজাপ্রাপ্ত বাশার, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল 

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

খালেদার দুই মামলায় অভিযোগ গঠন শুনানি পেছালো

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নিয়ে রোমাঞ্চিত পর্তুগিজ কোচ

বাংলাদেশ দলের দায়িত্ব নিয়ে রোমাঞ্চিত পর্তুগিজ কোচ

‘জনপ্রতিনিধিদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া উচিত’

‘জনপ্রতিনিধিদের সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা নেওয়া উচিত’

নারী পুরুষ মৃত্যুর হার সমান

নারী পুরুষ মৃত্যুর হার সমান

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আরও ১৯০

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আরও ১৯০

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

সাত দিনব্যাপী ‘ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ শুরু হচ্ছে কাল

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

আবারও রাস্তায় বিনিয়োগকারীরা

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

ব্যবসা বহুমুখীকরণে ভূমিকা রাখবে ব্লু ইকোনমি: সালমান এফ রহমান

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

খোলা বাজারে ডলারের মূল্য ৯০ টাকা ছাড়ালো

গ্যাসের দাম বাড়ানোর চিন্তা চলছে

গ্যাসের দাম বাড়ানোর চিন্তা চলছে

© 2021 Bangla Tribune