সেকশনস

৫৪ দম্পতির সংসার বাঁচালেন বিচারক

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৯:৫২

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন মামলায় স্বামীকে কারাগারে না পাঠিয়ে পৃথক ৫৪টি মামলা আপস নিষ্পত্তি করে দিয়েছেন আদালত। তবে ১১টি মামলায় স্বামীদের বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করেছেন। সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ৬৫টি পৃথক মামলার একসঙ্গে দেওয়া রায়ে সুনামগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. জাকির হোসেন এই আদেশ দেন। আদেশ ঘোষণার পর আপসে নিষ্পত্তি করা দম্পতিদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন, সুনামগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট নান্টু রায়।

আদালত সূত্রে জানা যায়, যৌতুকসহ নানা কারণে নির্যাতনের শিকার হয়ে সুনামগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলার ৬৫ নারী সংসার থেকে বিতাড়িত হয়ে তাদের স্বামীর বিরুদ্ধে পৃথকভাবে আদালতে মামলা করেছিলেন। দীর্ঘদিন এসব মামলার বিচারকাজ চলছিল। নির্যাতনের শিকার হয়ে নারীরা তাদের ছোট ছোট শিশুদের নিয়ে অর্ধাহারে-অনাহারে অন্যত্র আশ্রয় নিয়ে অনিশ্চিত এক জীবন যুদ্ধ চালিয়ে যাচ্ছিলেন।

বিচারক উভয়ের পক্ষের বক্তব্য শুনে ৫৪টি দম্পতিকে পারিবারিক পুনর্মিলনের ব্যবস্থা করে দেন। কিন্তু ১১টি পরিবারকে একত্রিত করতে সক্ষম না হওয়ায় এবং নির্যাতিত স্ত্রী ও তাদের সাক্ষীরা স্বামীর বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেওয়ায় এবং স্বামীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় ১১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

আসামিপক্ষের আইনজীবী ওবায়দুর চৌধুরী বলেন, আদালতের রায়ে অনেক পরিবার সংসার জীবন ফিরে পেয়েছেন। অনেক বছর ধরে মামলা পরিচালনা করে পরিবার গুলো নিঃস্ব হওয়ার পথ থেকে আদালত তাদের রক্ষা করেছেন।

জেলা সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট আইনুল ইসলাম বাবলু, আদালতের রায়ে ৫৪জন দম্পতি নতুন জীবন ফিরে পেয়েছেন। পরিবারগুলো ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে। এভাবে বিচারকার্য পরিচালিত হলে মামলা জট কমবে। সন্তানরা পিতামাতার স্নেহে পরিবারে বেড়ে উঠবে।

/এমআর/

সম্পর্কিত

১৫ মার্চের মধ্যে আমদানির সব চাল আনুন

১৫ মার্চের মধ্যে আমদানির সব চাল আনুন

‘চুরির খবর জানি বলে সরকার আমাদের ভয় পায়’

‘চুরির খবর জানি বলে সরকার আমাদের ভয় পায়’

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে ঢাবিতে বিক্ষোভ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে ঢাবিতে বিক্ষোভ

জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার মূল্যবোধকে নির্বাসনে পাঠিয়েছিলেন: ওবায়দুল কাদের

জিয়াউর রহমান স্বাধীনতার মূল্যবোধকে নির্বাসনে পাঠিয়েছিলেন: ওবায়দুল কাদের

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে বেইলি ব্রিজ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে বেইলি ব্রিজ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

বিবাহ ও তালাক নিবন্ধন ডিজিটালকরণের দাবিতে মানববন্ধন

বিবাহ ও তালাক নিবন্ধন ডিজিটালকরণের দাবিতে মানববন্ধন

ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি বাতেন, সম্পাদক হযরত আলী

ঢাকা আইনজীবী সমিতির সভাপতি বাতেন, সম্পাদক হযরত আলী

বিসিএস পরীক্ষার জন্য ঢাকা যাচ্ছিলেন তারা

বিসিএস পরীক্ষার জন্য ঢাকা যাচ্ছিলেন তারা

ভাষার মাসে পূর্বাচলে শহীদ মিনার নির্মাণ করলো কেএসআরএম

ভাষার মাসে পূর্বাচলে শহীদ মিনার নির্মাণ করলো কেএসআরএম

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

সর্বশেষ

দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানি: রাবি শিক্ষককে ছয় বছর অব্যাহতির সুপারিশ

দুই ছাত্রীকে যৌন হয়রানি: রাবি শিক্ষককে ছয় বছর অব্যাহতির সুপারিশ

ড. কামাল হোসেনকে বাদ দিয়ে গণফোরাম একাংশের নির্বাহী কমিটি

ড. কামাল হোসেনকে বাদ দিয়ে গণফোরাম একাংশের নির্বাহী কমিটি

‘১৬ কোটি ক্ষুধার্ত, দুর্ভিক্ষের মুখে ৫০ লাখ ইয়েমেনি’

‘১৬ কোটি ক্ষুধার্ত, দুর্ভিক্ষের মুখে ৫০ লাখ ইয়েমেনি’

ত্রিশালে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে হত্যা

ত্রিশালে পূর্ব শত্রুতার জেরে যুবককে হত্যা

‘কোন চ্যানেল কী বললো সেটা শুনে চলা আমার রাজনীতি নয়’

‘কোন চ্যানেল কী বললো সেটা শুনে চলা আমার রাজনীতি নয়’

সৎ নির্ভীক সাংবাদিকতা দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনে: খাদ্যমন্ত্রী

সৎ নির্ভীক সাংবাদিকতা দেশের জন্য মঙ্গল বয়ে আনে: খাদ্যমন্ত্রী

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যুর প্রতিবাদে প্রতীকী খাটিয়া মিছিল

কারাগারে লেখক মুশতাকের মৃত্যুর প্রতিবাদে প্রতীকী খাটিয়া মিছিল

যমুনা সেতুর বিকল্প হবে আরিচা-কাজিরহাট ফেরি রুট: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

যমুনা সেতুর বিকল্প হবে আরিচা-কাজিরহাট ফেরি রুট: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগের মামলায় ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিলের দাবিতে আন্দোলনপুলিশের ওপর হামলার অভিযোগের মামলায় ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ

রাজধানীতে শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু, যৌনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন

রাজধানীতে শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু, যৌনাঙ্গে আঘাতের চিহ্ন

জিনজিয়াং-এর পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধানের উদ্বেগ

জিনজিয়াং-এর পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধানের উদ্বেগ

অবশ্যই টিকা নেবো: প্রধানমন্ত্রী

অবশ্যই টিকা নেবো: প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি

লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্ত কমিটি

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে বেইলি ব্রিজ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজারে বেইলি ব্রিজ ভেঙে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন

বিসিএস পরীক্ষার জন্য ঢাকা যাচ্ছিলেন তারা

বিসিএস পরীক্ষার জন্য ঢাকা যাচ্ছিলেন তারা

ভাষার মাসে পূর্বাচলে শহীদ মিনার নির্মাণ করলো কেএসআরএম

ভাষার মাসে পূর্বাচলে শহীদ মিনার নির্মাণ করলো কেএসআরএম

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

সুনামগঞ্জের ঘুংঘিয়ারগাঁওয়ে ১৪৪ ধারা

সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮

সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮

‘লন্ডন এক্সপ্রেসের’ কারণেই এতগুলো প্রাণহানি!

‘লন্ডন এক্সপ্রেসের’ কারণেই এতগুলো প্রাণহানি!

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ৭ জন নিহত

ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে ৭ জন নিহত


[email protected]
© 2021 Bangla Tribune
Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.