X
বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

কেন বারবার রক্তাক্ত বাঘাইছড়ি

আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৮:০৫

আয়তনে দেশের সবচেয়ে বড় উপজেলা বাঘাইছড়িতে বার বার ঘটছে রক্তাক্ত সংঘাত। দুই বছর আগে উপজেলা পরিষদের নির্বাচন শেষে ফেরার পথে ব্রাশফায়ারে নিহত হন আট নির্বাচনি কর্মকর্তা-কর্মচারী, আহত হন ১৭ জন। এরপরেও নানান সময়ে ঘটেছে সংঘাতের ঘটনা। বাঘাইছড়ি থানার সূত্রমতে, গত তিন বছরে এই উপজেলায় আঞ্চলিক দলের আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ২০ জন হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। তবে, বাঘাইছড়ির এমন পরিস্থিতির জন্য একে অপরকে দায়ী করছে পাহাড়ের আঞ্চলিক সংগঠনগুলো। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অস্ত্র চোরাচালান এবং যে কোনও অপরাধের পর সহজে সীমান্ত পাড়ি দিতে বাঘাইছড়ির নিয়ন্ত্রণ নিতে চায় সংগঠনগুলো।

সর্বশেেষে বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদের অফিস রুমে ঢুকে উপজেলার রূপকারী ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত ইউপি সদস্য সমর বিজয় চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (এমএনলারমা) রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। এ ঘটনায় জেএসএস সন্তুলারমার দলের ১০ সদস্যের নাম উল্লেখ করে মোট ১৮ জনকে আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেছেন রূপকারী ইউনিয়ন পরিষদের অপর ইউপি সদস্য বিনয় চাকমা।

বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন খান মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ওসি আরও জানান, নিহত সমর বিজয় চাকমার লাশ খাগড়াছড়ি হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

১৯৩১.২৮ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের বাঘাইছড়িতে পাহাড়ি আঞ্চলিক চার সংগঠনের শক্তিশালী অবস্থান রয়েছে। দলগুলো প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এই অঞ্চলটি ধরে রাখার প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। আর অঞ্চল নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য প্রাণ যাচ্ছে সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের। দলগুলোর অবৈধ অস্ত্রের কাছে জিম্মি এ এলাকার সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে প্রশাসনের লোকজনও।

কিন্তু বাঘাইছড়ির নিয়ন্ত্রণ রাখতে পাহাড়ি সংগঠনগুলো কেন এত মরিয়া, এমন অনুসন্ধানে জানা যায়, সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ার কারণে এই অঞ্চলটি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চালাচ্ছে সবকটি দল। সীমান্ত দিয়ে অস্ত্র চালান নিতে সুবিধা ও যে কোনও অপরাধের পর সীমান্ত পাড়ি দেওয়া সহজ হওয়ায় সংগঠনগুলো এ এলাকার নিয়ন্ত্রণ নিতে চায়। সর্বশেষ ইউপি মেম্বারকে সরকারি অফিসে ঢুকে গুলি করে হত্যা ঘটনায় এই বিষয়টি আবারও সামনে চলে আসে।

এ বিষয়ে রাঙামাটির প্রবীণ সংবাদকর্মী সুনীল কান্তি দে বলেন, আমরা প্রায়শই দেখি গোলাগুলি বা হত্যার ঘটনা দুর্গম পাহাড়ে তাদের নিজেদের মধ্যে হয়। তবে এবার উপজেলার ভেতরে ঢুকে একজন জনপ্রতিনিধিকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। বিষয়টি খুবই উদ্বেগের। স্বাধীন দেশে এভাবে দিনে দুপুরে একজন জনপ্রতিনিধিকে হত্যা করে নিরাপদে সরে যাওয়া চারটিখানি কথা না। এটি আমাদের নিরাপত্তার জন্য বড় ধরনের হুমকি।

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদ, রাঙামাটি জেলা শাখার সভাপতি সাব্বির আহমেদ বলেন, বাঘাইছড়ি সীমন্তবর্তী এলাকা হওয়ার কারণে সীমান্ত দিয়ে অস্ত্র চালান নিতে সুবিধা ও যে কোনও অপরাধের পর সীমান্ত পাড়ি দেওয়া সহজ হয়। তাই প্রতিটি সংগঠন এই অঞ্চলের নিয়ন্ত্রণে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। সরকার দ্রুত সময়ের মধ্যে সীমান্ত সড়ক তৈরির মাধ্যমে সীমান্ত দিয়ে দিয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম বন্ধ করতে না পারলে ভবিষ্যতে আরও খারাপ পরিস্থিতির জন্য তৈরি থাকতে হবে।

বাঘাইছড়ির এই জায়গায় ২০১৯ সালে ১৮ মার্চ ব্রাশফায়ারে নির্বাচনি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের হত্যা করা হয় রাঙামাটি কলেজ সংসদের সাবেক জিএস জাহাঙ্গীর আলম মুন্না বলেন, আঞ্চলিক দলগুলো বিভিন্নভাগে ভাগ হয়ে সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। তবে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধারে সরকারের কোনও কার্যকরি পদক্ষেপ আমরা দেখতে পারছি না। কেন ও কারা এসব ঘটনা ঘটাচ্ছে এসব সবার জানা। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বারবার ঘটনাগুলো ঘটেই চলছে। এগুলো বন্ধ হবে কবে? পাহাড়ের মানুষ শান্তিতে বসবাস করতে চায়। ক্ষমতার দ্বন্দ্বের কারণে বাঘাইছড়িতে এমন ঘটনার বার বার ঘটছে।

রাঙামাটি বাঘাইছড়ির পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতি (জেএসএস) শখার সাংগঠনিক সম্পাদক ত্রিদীব চাকমা বলেন, আমরা চুক্তির পক্ষের মানুষ, আমরা চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য গণতান্ত্রিক লড়াই চালিয়ে যাচ্ছি। আর যারা এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, আমরা এর নিন্দা জানাই।

কেন বার বার বাঘাইছড়িতে এমন ঘটনা ঘটছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যারই অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী, তারা প্রায়ই এসব ঘটনা ঘটিয়ে চলছে। আমরা প্রায়ই তাদের মধ্যে কোন্দলের কথা শুনি, এর কারণেই এমনটি হতে পারে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস এমএন লারমা) প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সুধাকর ত্রিপুরা বলেন, উপজেলার মধ্যে নিরাপত্তার খুব কাছ থেকে এভাবে সন্ত্রাসীরা এসে একজন জনপ্রতিধিকে হত্যা করে নিরাপদে পালিয়ে গেল, আর প্রশাসন অসহায়ের মতো চেয়ে দেখলো। আমরা আমাদের কর্মী হারিয়েছি, কিন্তু একইসঙ্গে প্রশাসনের সুনামও ক্ষুণ্ন হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এটা কোনও বিছিন্ন ঘটনা না। এটা ধারাবাহিকভাবে হয়ে আসছে, আমরাও বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ করেছি। মূলত টার্গেট আমরাই, কারণ আমরা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে বিশ্বাসী না। আমরা একটি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় পার্বত্য চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। এ কারণে আমাদের প্রতিপক্ষ প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করছে।

রাঙামাটির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও প্রশাসন) ছুফি উল্লাহ বলেন, পার্বত্য এলাকায় আঞ্চলিক সংগঠনগুলো মধ্যে দীর্ঘদিন অবিশ্বাস ও ক্ষমতার দ্বন্দ্ব চলে আসছে। এ কারণে হত্যাকাণ্ড হচ্ছে। আরও কিছু থাকতে পারে। তবে অভ্যন্তরীণ অপরাধীদের গ্রেফতারে যৌথবাহিনীর অভিযান চলমান রয়েছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে আসামিদের আটক করা সম্ভব হবে বলে জানান তিনি।


আরও পড়ুন:
পাহাড়ের রাজনীতিতে উত্তাপ, দায় কার?
বেঁচে ফেরা এক শিক্ষকের মুখে বাঘাইছড়ি হত্যাকাণ্ডের বর্ণনা

/টিটি/

সম্পর্কিত

১৭ লাখ টন বোরো ধান-চাল কেনার সিদ্ধান্ত

১৭ লাখ টন বোরো ধান-চাল কেনার সিদ্ধান্ত

পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎকর্মী নিহত

পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎকর্মী নিহত

জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে বিশ্ব নেতাদের  ৪ পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকাতে বিশ্ব নেতাদের  ৪ পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

কক্সবাজারে ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মামলা

কক্সবাজারে ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মামলা

ত্রাসের রাজত্বের অবসান ঘটাতে হবে: মির্জা ফখরুল

ত্রাসের রাজত্বের অবসান ঘটাতে হবে: মির্জা ফখরুল

‘আপন কেউ আক্রান্ত হলে দূরে থাকা যায় না’

‘আপন কেউ আক্রান্ত হলে দূরে থাকা যায় না’

লকডাউন তুলে নিলে জেলে চলে যাবো: বাবুনগরী

লকডাউন তুলে নিলে জেলে চলে যাবো: বাবুনগরী

হেফাজতের আরেক নেতা গ্রেফতার

হেফাজতের আরেক নেতা গ্রেফতার

মির্জা আব্বাসের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে বিএনপি

মির্জা আব্বাসের কাছে ব্যাখ্যা চেয়েছে বিএনপি

যেভাবে আইডি কার্ড পাবেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা

যেভাবে আইডি কার্ড পাবেন প্রাথমিকের শিক্ষকরা

হাওরে ধান কাটা শ্রমিকের কোনও সংকট নেই: কৃষিমন্ত্রী

হাওরে ধান কাটা শ্রমিকের কোনও সংকট নেই: কৃষিমন্ত্রী

লালবাগে কাপড়ের দোকান খোলা রাখায় জরিমানা

লালবাগে কাপড়ের দোকান খোলা রাখায় জরিমানা

সর্বশেষ

সাবধান, লিংকে ক্লিক করলেই ফোন হ্যাকারের দখলে!

সাবধান, লিংকে ক্লিক করলেই ফোন হ্যাকারের দখলে!

তৃতীয় দিনেও ব্যাট করার পরিকল্পনা বাংলাদেশের

তৃতীয় দিনেও ব্যাট করার পরিকল্পনা বাংলাদেশের

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণের অভিযোগে মামলা

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণের অভিযোগে মামলা

২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ অর্ধেক কমানোর ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ অর্ধেক কমানোর ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

টঙ্গীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫

টঙ্গীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫

ঢামেকে করোনা রোগীর চাপ কমেছে, তবে খালি নেই আইসিইউ

ঢামেকে করোনা রোগীর চাপ কমেছে, তবে খালি নেই আইসিইউ

১৭ লাখ টন বোরো ধান-চাল কেনার সিদ্ধান্ত

১৭ লাখ টন বোরো ধান-চাল কেনার সিদ্ধান্ত

ফের রিমান্ডে রফিকুল ইসলাম মাদানী

ফের রিমান্ডে রফিকুল ইসলাম মাদানী

আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

আরও ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

আরও ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক

সালথায় তাণ্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ৫ দিনের রিমান্ডে

সালথায় তাণ্ডব: সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ৫ দিনের রিমান্ডে

পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎকর্মী নিহত

পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎকর্মী নিহত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎকর্মী নিহত

পিকআপের ধাক্কায় পল্লী বিদ্যুৎকর্মী নিহত

কক্সবাজারে ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মামলা

কক্সবাজারে ভিপি নুরের বিরুদ্ধে মামলা

লকডাউন তুলে নিলে জেলে চলে যাবো: বাবুনগরী

লকডাউন তুলে নিলে জেলে চলে যাবো: বাবুনগরী

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সাংবাদিক আবু তৈয়বের জামিন নামঞ্জুর

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় সাংবাদিক আবু তৈয়বের জামিন নামঞ্জুর

‘ভ্যাকসিনের জন্য বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে ভাটা পড়বে না’

‘ভ্যাকসিনের জন্য বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কে ভাটা পড়বে না’

স্ত্রী-মেয়েদের সামনে স্কুলশিক্ষককে লাঞ্ছিতের অভিযোগ

স্ত্রী-মেয়েদের সামনে স্কুলশিক্ষককে লাঞ্ছিতের অভিযোগ

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, স্বামী গ্রেফতার

যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, স্বামী গ্রেফতার

সঙ্গীর মৃত্যুতে আত্মহত্যা করেছিল স্ত্রী তিমি!

সঙ্গীর মৃত্যুতে আত্মহত্যা করেছিল স্ত্রী তিমি!

খালেদা জিয়ার সঙ্গে বাবুুনগরীর কখনও সাক্ষাৎ হয়নি: হেফাজত

খালেদা জিয়ার সঙ্গে বাবুুনগরীর কখনও সাক্ষাৎ হয়নি: হেফাজত

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune