X
মঙ্গলবার, ০৩ আগস্ট ২০২১, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ইথিওপিয়ায় সেনাবাহিনীর হাতে আটক বিবিসির সংবাদদাতা

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০২১, ০৯:১৭

ইথিওপিয়ার সংঘাতপূর্ণ টাইগ্রে অঞ্চল থেকে বিবিসির একজন সংবাদদাতাকে আটক করেছে দেশটির সেনাবাহিনী। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন যে, গিরমে গেব্রু এবং তার সঙ্গে আরও চারজনকে আঞ্চলিক রাজধানী মেকেলের একটি ক্যাফে থেকে আটক করা হয়েছে।

গিরমে গেব্রু বিবিসি টিগ্রিনিয়া বিভাগের জন্য কাজ করেন। জানা গেছে, তাকে মেকেলের একটি সেনা শিবিরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। কিন্তু কেন তাকে আটক করা হয়েছে সে বিষয়ে বিবিসি এখনও কিছু জানতে পারেনি। তবে ইথিওপিয়ার কর্তৃপক্ষের কাছে এ বিষয়ে নিজেদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যমটি।

গত কয়েকদিনে তামিরাত ইয়েমানি নামে একজন স্থানীয় সাংবাদিক এবং দুই অনুবাদক- আলুলা আকালু ও ফিৎসুম বারহানিকেও আটক করা হয়েছে। আলুলা আকালু ফিনান্সিয়াল টাইমস এবং ফিৎসুম বারহানি এএফপি-র জন্য কাজ করতেন।

২০২০ সালের নভেম্বর থেকে ইথিওপিয়ার সরকার টাইগ্রেতে বিদ্রোহী বাহিনীর সঙ্গে যুদ্ধ করছে। সেখানে সংঘাত শুরুর পর কয়েক মাস ধরে সংবাদমাধ্যমে এ বিষয়ে খবর প্রচারের ওপর নিষেধাজ্ঞা কার্যকরের পর সরকার মাত্র গত সপ্তাহে কিছু আন্তর্জাতিক সংবাদ প্রতিষ্ঠানকে খবর প্রচারের অনুমতি দিয়েছে।

এএফপি ও ফিনান্সিয়াল টাইমস এই দুইটি সংবাদমাধ্যমকে এই যুদ্ধের খবর প্রচারের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, গিরমে গেব্রুকে গ্রেফতারে অভিযান চালিয়েছে ঊর্দিধারী সেনারা। বিবিসি-র একজন মুখপাত্র বলেছেন, ‘ইথিওপিয়া কর্তৃপক্ষের কাছে আমাদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছি। আমরা তাদের কাছ থেকে জবাবের অপেক্ষায় রয়েছি।’

ইথিওপিয়া সরকার বিদ্রোহী গোষ্ঠী টাইগ্রে পিপলস লিবারেশন ফ্রন্টের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে তাদের বিজয় ঘোষণা করা সত্ত্বেও অঞ্চলটিতে লড়াই অব্যাহত রয়েছে। এই লড়াইয়ে শত শত মানুষের প্রাণহানি হয়েছে। গৃহহীন হয়েছে আরও হাজার হাজার মানুষ।

উভয় পক্ষই নৃশংসতা চালাচ্ছে। ফলে মানবিক সংকট তীব্র আকার নিচ্ছে। এসব খবর সংবাদমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত হওয়ায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় থেকে অঞ্চলটির ব্যাপারে উদ্বেগ বাড়ছে।

ইথিওপিয়ার ক্ষমতাসীন দলের একজন কর্মকর্তা সম্প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, যারা ‘আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে বিভ্রান্ত করছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

মাদাগাস্কারে সেনা কর্মকর্তা আটক, প্রেসিডেন্ট হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

মাদাগাস্কারে সেনা কর্মকর্তা আটক, প্রেসিডেন্ট হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

ইথিওপিয়ায় এক লাখ শিশুর মৃত্যুর আশঙ্কা

ইথিওপিয়ায় এক লাখ শিশুর মৃত্যুর আশঙ্কা

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

চূড়ান্ত হলো  বিল ও মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদ

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০৭:৪৫
image

বিশ্বের বৃহত্তম বেসরকারি দাতব্য ফাউন্ডেশনের দুই সহপ্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস ও মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ গেটসের বিচ্ছেদের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার আদালতের নথিতে এই বিচ্ছেদ চূড়ান্ত হওয়ার কথা জানা গেছে বলে খবর দিয়েছে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

২৭ বছরের বিবাহিত জীবনের অবসান ঘটাতে গত ৩ মে বিচ্ছেদের আবেদন জানান বিল গেটস ও মেলিন্ডা ফ্রেঞ্চ গেটস। তবে তারা এক সঙ্গে মানবহিতৈষী কাজ চালিয়ে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। ওই সময়ে এই যুগল জানান, বৈবাহিক সম্পদ বন্টন নিয়ে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছেন তারা।

সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলের কিং কাউন্টি সুপিরিয়র কোর্টের চূড়ান্ত বিচ্ছেদ আদেশেও ওই চুক্তির বিস্তারিত প্রকাশ করা হয়নি। আদালত বলেছে, এই যুগলকে অবশ্যই বিচ্ছেদ চুক্তির শর্ত মানতে হবে।

বিশ্বের জন স্বাস্থ্য খাতের সবচেয়ে প্রভাবশালী ও ক্ষমতাধর শক্তি হয়ে উঠেছে সিয়াটল ভিত্তিক বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন। গত দুই দশকে এই খাতে ফাউন্ডেশনটি পাঁচ হাজার কোটি ডলারেরও বেশি ব্যয় করেছে। দারিদ্র ও রোগ মোকাবিলায় বাণিজ্যিক এপ্রোচ নিয়ে এসেছে ফাউন্ডেশনটি।

ম্যালেরিয়া ও পোলিও নির্মূল, শিশু পুষ্টি এবং টিকাদান কর্মসূচির কারণে বিশ্বজুড়ে প্রশংসিত হয়েছে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন। গত বছর প্রতিষ্ঠানটি করোনা সহায়তা হিসেবে ১৭৫ কোটি ডলার দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের

তালেবানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের

যুক্তরাষ্ট্র ও দ. কোরিয়ার মহড়া, কিমের বোনের সতর্কবার্তা

যুক্তরাষ্ট্র ও দ. কোরিয়ার মহড়া, কিমের বোনের সতর্কবার্তা

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

যুক্তরাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতির আশঙ্কা ফাউচির

ইরানকেই দুষছে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র

ইরানকেই দুষছে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০৪:৩৩
image

নরেন্দ্র মোদির মন্ত্রিসভা থেকে পদ হারিয়ে রাজনীতি ও পার্লামেন্টের আসন ছাড়ার ঘোষণা দিয়ে তা থেকে সরে এসেছেন বাবুল সুপ্রিয়। পশ্চিমবঙ্গের এই এমপি জানিয়েছেন রাজনীতিতে সক্রিয় না থাকলেও সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করে যাবেন তিনি। আসানসোল আসন থেকে দুইবার এমপি নির্বাচিত হয়েছেন বলিউডের গায়ক থেকে রাজনীতিতে আসা বাবুল। সোমবার বিজেপি প্রধান জেপি নাড্ডার সঙ্গে বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত বদলের কথা জানিয়েছেন তিনি। সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

নরেন্দ্র মোদির মন্ত্রিসভায় রদবদলের পর পরিবেশ, বন এবং জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব হারান বিজেপির এমপি বাবুল সুপ্রিয়। গত শনিবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে এক আবেগঘন স্টাটাস দিয়ে রাজনীতি ও এমপি পদ ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন তিনি।

ওই সময় ফেসবুক পোস্টে বাবুল লেখেন, ‘আমি যাচ্ছি... বিদায়...আপনি সামাজিক কাজ করতে চাইলে, রাজনীতিতে না থেকেও করতে পারবেন।’ কয়েকজন রাজনৈতিক বিরোধী বাবুলের এই ঘোষণার সমালোচনা করেন। যেমন তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ বাবুলের এই ঘোষণা ‘নাটক।’

দুই দিনের মাথায় নিজের অবস্থান বদলে ফেলেন বাবুল সুপ্রিয়। বিজেপি প্রধানের সঙ্গে বৈঠকের পর তিনি বলেন, ‘এমপি হিসেবে কাজ চালিয়ে যাবো কিন্তু রাজনীতি ছাড়ছি। সাংবিধানিক পদ ব্যবহার করা চালিয়ে যাবো। রাজনীতিতে সক্রিয় না থেকে আমি সাংবিধানিক দায়িত্ব পালন করবো।’ তিনি বলেন, ‘আমি কোনও রাজনৈতিক দলে যোগ দিচ্ছি না। বাংলো ছেড়ে দিচ্ছি আর কলকাতা কিংবা মুম্বাইয়ে চলে যাবো।’

ফেসবুক পোস্টে বাবুল সুপ্রিয় স্বীকার করেন গত মাসে মন্ত্রিসভায় রদবদলে অবস্থান হারানোর কারণেই রাজনীতি ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

এই বছরের বিধানসভা নির্বাচনে দক্ষিণ কলকাতার টালিগঞ্জ থেকে প্রার্থী হন বাবুল সুপ্রিয়। কিন্তু প্রায় ৫০ হাজার ভোটে হেরে যান তিনি।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

ভারতের কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে করার চিন্তা

ভারতের কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে করার চিন্তা

হোস্টেলে ভূত আতঙ্ক, বিক্ষোভ শিক্ষার্থীদের

হোস্টেলে ভূত আতঙ্ক, বিক্ষোভ শিক্ষার্থীদের

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ এ মাসেই!

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ এ মাসেই!

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০৩:০৩
image

ভারতের বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) ২৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ভুয়া ঘোষণা করেছে। একই সঙ্গে আরও দুইটি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিয়ম ভঙ্গের প্রমাণ পাওয়া গেছে। সোমবার ভারতের কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান পার্লামেন্টে এক লিখিত প্রশ্নের জবাবে এসব তথ্য জানান। সম্প্রচারমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান বলেন, ‘শিক্ষার্থী, অভিভাবক, সাধারণ মানুষ এবং ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট মিডিয়ার মাধ্যমে পাওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে ইউজিসি ২৪টি প্রতিষ্ঠানকে ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণা করেছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘পাশাপাশি ভারতীয় শিক্ষা পরিষদ, লখনৌ, উত্তর প্রদেশ এবং ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব প্লানিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (আইআইপিএম), কুতুব এনক্লেভ, দিল্লি নামের দুইটি প্রতিষ্ঠান ১৯৫৬ সালের ইউজিসি আইন লঙ্ঘন করে পরিচালিত হচ্ছে বলে জানা গেছে।’ এই দুইটি প্রতিষ্ঠানের অনিয়মের বিষয়টি আদালতের বিবেচনাধীন রয়েছে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী।

সবচেয়ে বেশি আটটি ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে উত্তর প্রদেশে। এগুলো হলো বারানসী সংস্কৃত বিশ্ববিদ্যালয়, বারানসী; মহিলা গ্রাম বিদ্যাপিঠ, এলাহাবাদ; গান্ধী হিন্দি বিদ্যাপিঠ, এলাহাবাদ; ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব ইলেক্ট্রো কমপ্লেক্স হোমিওপ্যাথি, কানপুর; নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বোশ ওপেন ইউনিভার্সিটি, আলিগড়; উত্তর প্রদেশ বিশ্ববিদ্যালয়, মথুরা; মহারানা প্রতাপ শিক্ষা নিকেতন বিশ্ববিদ্যালয়, প্রতাপগড় এবং ইন্দ্রপ্রষ্ঠা শিক্ষা পরিষদ, নয়ডা।

এছাড়া দিল্লিতে রয়েছে সাতটি ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয়। উড়িষ্যা এবং পশ্চিমবঙ্গের প্রতিটিতে দুইটি করে ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। কর্নাটক, কেরালা, মহারাষ্ট্র, পদুচেরিতেও একটি করে ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে।

ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান বলেন, ভুয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা নিয়ে হিন্দি ও ইংরেজি ভাষার জাতীয় পত্রিকায় প্রকাশ্য বিবৃতি দিয়েছে ইউজিসি। এছাড়া এসব প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট রাজ্য কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

ভারতের কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে করার চিন্তা

ভারতের কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে করার চিন্তা

হোস্টেলে ভূত আতঙ্ক, বিক্ষোভ শিক্ষার্থীদের

হোস্টেলে ভূত আতঙ্ক, বিক্ষোভ শিক্ষার্থীদের

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ এ মাসেই!

ভারতে করোনার তৃতীয় ঢেউ এ মাসেই!

পতনের মুখে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ প্রাদেশিক রাজধানী

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০২:২৩
image

আফগানিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি প্রাদেশিক রাজধানীর নিয়ন্ত্রণ নিতে মরিয়া হামলা চালাচ্ছে তালেবান। যুক্তরাষ্ট্র ও আফগান বাহিনীর বিমান হামলা সত্ত্বেও হেলমান্দ প্রদেশের রাজধানী লস্কর গাহের নিয়ন্ত্রণ নিতে রাজপথে তীব্র লড়াই চালাচ্ছে তালেবান যোদ্ধারা। টিভি স্টেশন দখলের কথা জানিয়েছে সশস্ত্র গোষ্ঠীটি। আশ্রয়ের খোঁজে গ্রামের দিকে ছুটছে হাজার হাজার বেসামরিক মানুষ। তালেবান যুদ্ধাপরাধ ঘটাতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, তালেবানদের কাছে আফগানিস্তানের প্রথম কোনও প্রাদেশিক রাজধানীর পতন ঘটতে যাচ্ছে।

আফগানিস্তানে ২০ বছরের সামরিক অভিযানের পর মার্কিন বাহিনী প্রত্যাহার করে নেওয়ার পর সম্প্রতি দেশটিতে দ্রুত তালেবানের উত্থান ঘটছে। সশস্ত্র গোষ্ঠীটির অগ্রযাত্রা ঠেকাতে যুদ্ধের মাঠে মোতায়েন করা হচ্ছে হাজার হাজার আফগান সেনা।

যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সামরিক অভিযানের কেন্দ্রে থেকেছে হেলমান্দ প্রদেশ। এটি তালেবানের দখলে গেলে তা হবে আফগান সরকারের জন্য বড় বিপর্যয়। লস্কর গাহের পতন ঘটলে ২০১৬ সালের পর এটি হবে তালেবানদের প্রথম কোনও প্রাদেশিক রাজধানী দখল। বর্তমানে তিনটি প্রাদেশিক রাজধানীর দখল নিতে লড়াই চালাচ্ছে তালেবান।

গত রবিবার বিমানবন্দরে হামলার পর আফগানিস্তানের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর কান্দাহারের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার চেষ্টায় রয়েছে তালেবান। কান্দাহার জয় করলেও তা হবে তালেবানের বড় বিজয়। এর মধ্য দিয়ে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলের বড় অংশের নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবে তারা। এছাড়া পশ্চিমাঞ্চলীয় হেরাত শহরের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে গত কয়েক দিন ধরেই তীব্র লড়াই চলছে। গত শুক্রবার সেখানে জাতিসংঘ কার্যালয় আক্রান্ত হওয়ার কিছু এলাকার নিয়ন্ত্রণ ফিরে পেয়েছে সরকারি বাহিনী।

তালেবানের অগ্রযাত্রা ঠেকাতে সরকারি বাহিনী সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। তালেবান অগ্রযাত্রার জন্য হঠাৎ করে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারকে দায়ী করেছেন আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। পার্লামেন্টে তিনি বলেন, ‘আমাদের বর্তমান পরিস্থিতির কারণ হলো এই সিদ্ধান্ত হঠাৎ করে নেওয়া হয়েছে।’ আফগান প্রেসিডেন্ট দাবি করেন তিনি ওয়াশিংটনকে সতর্ক করে বলেছিলেন যে, সেনা প্রত্যাহারের পরিণাম রয়েছে।

উল্লেখ্য, আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় সকল সেনা প্রত্যাহার করা হলেও দেশটির সরকারি বাহিনীর বিমান হামলায় সহায়তা দেওয়া চালিয়ে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র। সোমবার প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের তরফ থেকে বলা হয়েছে, সহিংসতা বৃদ্ধি পাওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

/জেজে/

সম্পর্কিত

আফগানিস্তান সীমান্তে যৌথ মহড়া রাশিয়া ও উজবেকিস্তানের

আফগানিস্তান সীমান্তে যৌথ মহড়া রাশিয়া ও উজবেকিস্তানের

ভারতের কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে করার চিন্তা

ভারতের কোভ্যাকসিনের ট্রায়াল বাংলাদেশে করার চিন্তা

সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আজারবাইজানের

সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আজারবাইজানের

দাবানলে পুড়ছে তুরস্কের অবকাশ কেন্দ্র, নিহত বেড়ে ৮

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০২১, ০১:২৪
image

তুরস্কের দক্ষিণাঞ্চলে জ্বলতে থাকা দাবানলে অন্তত আট জনের মৃত্যু হয়েছে। দেশটির উপকূলীয় এলাকার অবকাশ কেন্দ্রে আগুন ছড়িয়ে পড়ায় পর্যটকরা সেখান থেকে সরে যেতে বাধ্য হয়েছেন। সোমবার তুর্কি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ১৩০টিরও বেশি দাবানল জ্বলছে আর সেগুলো নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে দমকল কর্মীরা। এছাড়া গ্রিস, স্পেন ও ইতালিতেও দাবানল নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা চলছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

গত ছয় দিন ধরে তুরস্কে দাবানলে পুড়ছে বিস্তৃত এলাকার বনাঞ্চল। সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি দেশটির ভূমধ্যসাগর এবং আজিয়ান সাগরের উপকূল। এই এলাকা তুরস্কের অন্যতম বড় পর্যটন কেন্দ্র। সোমবার প্রকাশ হওয়া ভিডিওতে দেখা গেছে, উপকূলীয় অবকাশ কেন্দ্র থেকে পর্যটকদের নৌকায় করে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে। উদ্ধার অভিযানে সম্পৃক্ত রয়েছে তুরস্কের কোস্টগার্ড।

স্যাটেলাইট ছবিতে দেখা গেছে, তুরস্কের প্রায় এক লাখ হেক্টর বনভূমি আগুনে পুড়েছে। তুর্কি সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, সোমবার মারমারিস ও কোয়েসেগিস শহরে বিমান ও হেলিকপ্টার ব্যবহার করে আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ আবারও শুরু হয়েছে। মারমারিস শহরে আটকে পড়াদের উদ্ধারে উপকূলে রাখা হয়েছে জরুরি উদ্ধারকারী নৌকা।

রবিবার ইউরোপীয় ইউনিয়ন জানিয়েছে, তুরস্কের দাবানল নিয়ন্ত্রণে পানি ভর্তি বিমান পাঠানো হবে। ক্রোয়েশিয়া থেকে একটি আর স্পেন থেকে দুইটি বিমান পাঠানোয় ইউরোপীয় ইউনিয়নকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলু।

/জেজে/

সম্পর্কিত

যুক্তরাজ্য ও ইরানের পাল্টাপাল্টি কূটনীতিক তলব

যুক্তরাজ্য ও ইরানের পাল্টাপাল্টি কূটনীতিক তলব

সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আজারবাইজানের

সেনাবাহিনীকে প্রস্তুত থাকার নির্দেশ আজারবাইজানের

বিক্ষোভে উত্তাল জার্মানি, আটক অর্ধসহস্রাধিক

বিক্ষোভে উত্তাল জার্মানি, আটক অর্ধসহস্রাধিক

ইরানকেই দুষছে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র

ইরানকেই দুষছে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র

সর্বশেষ

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

ভালো মানের উপহারের ঘরে খুশি মুক্তাগাছার সুবিধাভোগীরা

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ১০ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

চট্টগ্রামে করোনায় আরও ১০ মৃত্যু, বেড়েছে শনাক্ত

৫০ বছরেও ভাগ্য বদলায়নি বীর মুক্তিযোদ্ধার

৫০ বছরেও ভাগ্য বদলায়নি বীর মুক্তিযোদ্ধার

কথা রাখেননি গার্মেন্টস মালিকরা

কথা রাখেননি গার্মেন্টস মালিকরা

শেষদিনে অফিসারের গাড়িতে বাড়ি ফিরলেন কনস্টেবল ফারুক

শেষদিনে অফিসারের গাড়িতে বাড়ি ফিরলেন কনস্টেবল ফারুক

কক্সবাজারে এক বছরে ১৬টি বাচ্চা দিলো বন্য হাতি

কক্সবাজারে এক বছরে ১৬টি বাচ্চা দিলো বন্য হাতি

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

কমনওয়েলথ সম্মেলনের প্রথম ভাষণে যা বলেছিলেন বঙ্গবন্ধু

চূড়ান্ত হলো  বিল ও মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদ

চূড়ান্ত হলো  বিল ও মেলিন্ডা গেটসের বিচ্ছেদ

শিশুর মুখের স্বাস্থ্যে বুকের দুধ

মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহশিশুর মুখের স্বাস্থ্যে বুকের দুধ

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

রাজনীতি ছাড়লেও এমপি পদ রাখবেন ভারতের সাবেক মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

ভারতে ভুয়া ঘোষিত ২৪ বিশ্ববিদ্যালয়

পতনের মুখে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ প্রাদেশিক রাজধানী

পতনের মুখে আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ প্রাদেশিক রাজধানী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মাদাগাস্কারে সেনা কর্মকর্তা আটক, প্রেসিডেন্ট হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

মাদাগাস্কারে সেনা কর্মকর্তা আটক, প্রেসিডেন্ট হত্যার ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

তিউনিসিয়ায় অস্থিরতার জন্য আমিরাতকে দুষলেন এন্নাহদা প্রধান

ইথিওপিয়ায় এক লাখ শিশুর মৃত্যুর আশঙ্কা

ইথিওপিয়ায় এক লাখ শিশুর মৃত্যুর আশঙ্কা

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

লিবীয় উপকূলে নৌকাডুবিতে ৫৭ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

তিউনিসিয়ার প্রধানমন্ত্রীকে বরখাস্ত করলেন প্রেসিডেন্ট

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

ঈদের নামাজ চলাকালীন মালির প্রেসিডেন্টকে হত্যা চেষ্টা

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করলো নাইজেরীয় দস্যুরা

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাট, ২৫ হাজার সেনা মোতায়েন করছে সরকার

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাট, ২৫ হাজার সেনা মোতায়েন করছে সরকার

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাটে অংশ নিচ্ছে পুলিশ সদস্যরাও

দক্ষিণ আফ্রিকায় লুটপাটে অংশ নিচ্ছে পুলিশ সদস্যরাও

© 2021 Bangla Tribune