X
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

মুশতাকের মৃত্যুকে ঘিরে আন্দোলনে বাতাস দিচ্ছে জঙ্গিগোষ্ঠী: তথ্যমন্ত্রী

আপডেট : ০৩ মার্চ ২০২১, ১৯:১১

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, মুশতাক আহমেদের মৃত্যুকে ঘিরে আন্দোলন নিয়ে পেছন থেকে যারা বাতাস দিচ্ছে, আর ঘাপটি মেরে বসে আছে, তারা জঙ্গিগোষ্ঠী ও স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি।

বুধবার (৩ মার্চ) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত সদ্য প্রয়াত অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামানের স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বাংলাদেশে যে পক্ষগুলো আজকে এটা নিয়ে মাঠ গরম করার অপচেষ্টা করছে, তাদের পেছন থেকে যারা বাতাস দিচ্ছে, আর ঘাপটি মেরে বসে আছে, সেগুলো হচ্ছে জঙ্গিগোষ্ঠী, স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি। এই প্রেক্ষাপটে সাংস্কৃতিক কর্মীদের আরও ঐক্যবদ্ধ হওয়া প্রয়োজন। সারা দেশে সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড ছড়িয়ে দেওয়া প্রয়োজন। তাহলে আমাদের নতুন প্রজন্ম এই জঙ্গিগোষ্ঠীর হাত থেকে রক্ষা পাবে এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আমাদের দেশে নানাভাবে যে অপপ্রচার হয়, সেগুলো বন্ধ করা সহায়ক হবে।’

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মার্জিত হলেও তিনি মিথ্যা কথা বলেন মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‘আমি কাগজে দেখলাম, মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাহেব একটি কথা বলেছেন। তিনি বলেছেন, ‘৫০ বছরে আমরা শুধু দলাদলি করেছি, দেশ আগায়নি’। মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘আজকে দেশ তো অনেকদূর এগিয়ে গেছে। আপনি একজন শিক্ষিত মানুষ হয়ে এটা অনুধাবন করতে পারলেন না। আপনি ঢাকা কলেজে পড়াতেন। একজন শিক্ষিত মানুষ, একজন মার্জিত মানুষও বটে। যদিও বিএনপির পক্ষে কথা বলতে গিয়ে অহরহ মিথ্যা কথা বলেন। দেশ এগিয়ে গেলো, স্বল্পোন্নত থেকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হলো। জাতিসংঘ সেটি সার্টিফায়েড করেছে। এ তথ্যগুলো আপনার কাছে নাই, আমি অবাক হচ্ছি। আসলে বিষয়টা হচ্ছে তা নয়। বিএনপি যদি এই নেতিবাচক রাজনীতি আর দলাদলি না করতো, তাহলে বাংলাদেশ যে আজকে অনেকদূর এগিয়ে গেছে, তার চেয়েও অনেক বেশিদূর এগিয়ে যেতে পারতো।’’

মুশতাকের অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু নিয়ে একটি পক্ষ মিডিয়াকে সরগরম রাখছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘একটি অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যুকে নিয়ে প্রতিদিন প্রেসক্লাবের সামনে নানা ধরনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছে। ১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর কারাগারের অভ্যন্তরে চার জাতীয় নেতাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।  সেনাবাহিনীর বিপথগামী সদস্যরা সেখানে গিয়ে গুলি করে হত্যা করেছিল। তখন সেনাপ্রধান ছিলেন জিয়াউর রহমান। মোশতাকের নির্দেশে জিয়াউর রহমানের পৃষ্ঠপোষকতায় ৩ নভেম্বর ওই হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করা হয়েছিল। আজকে সেই কথা কেউ বলে না। ১৯৭৫ সালের পর কারাগারে অসংখ্য নেতাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছিল। যাদের প্রতিষ্ঠাতা সেই জিয়াউর রহমান, তারা এগুলো নিয়ে কথা বলে না। কারাগারের যেকোনও মৃত্যু অবশ্যই অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্ক্ষিত। মুশতাক আহমেদের মৃত্যুটাও অনভিপ্রেত এবং আমি ব্যথিত এবং এটি দিয়ে যেভাবে মাঠ গরম করা হচ্ছে, সেটি আরও অনভিপ্রেত।’

তদন্ত প্রতিবেদনের পরই সরকার ব্যবস্থা নেবে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘পানি ঘোলা করে লাভ হবে না। এ বিষয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তবে তার মৃত্যু স্বাভাবিক হয়েছে, নাকি কারা কর্তৃপক্ষের অবহেলা ছিল, নাকি অন্য কোনও কারণ ছিল—সেগুলো তদন্তে বেরিয়ে আসবে। তারপর সরকার ব্যবস্থা নেবে। একজনের মৃত্যুর কারণে ওই আইন বাতিল করতে হবে—এটা তো আইনের দোষ না। আইন সবার জন্য। ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্ট সকল মানুষের ডিজিটাল নিরাপত্তা দেওয়ার জন্য। অবশ্য এ আইনের যেন অপব্যবহার না হয়, সেজন্য আমরা সতর্ক আছি। অপব্যবহার কাম্য নয়, সরকার সে ব্যাপারে সতর্ক আছে। নানা আইনে নানাজন গ্রেফতার হয়, তারপর কারাগারে থাকে এবং অনেকের সেখানে মৃত্যু হয়। তাহলে এখন কি সেই আইনগুলো বাতিল করতে হবে?’

এটিএম শামসুজ্জামানকে স্মরণ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা কখনও ভাবিনি তিনি হঠাৎ করে আমাদের এভাবে ছেড়ে চলে যাবেন। কারণ, এর আগেও তিনি বহুবার অসুস্থ হয়েছেন এবং সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। কিন্তু হঠাৎ সকাল বেলা জানলাম, তিনি ইন্তেকাল করেছেন। এটি মাথায় বজ্রপাতের মতো লেগেছে। তার মৃত্যু আমাদের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের জন্য একটি অপূরণীয় ক্ষতি।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি রফিকুল আলম, সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।

 

/এসও/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শেখ হাসিনা কূটনীতির ক্ষেত্রে দেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শেখ হাসিনা কূটনীতির ক্ষেত্রে দেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাখাইনে অস্থিতিশীলতা দেশের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের বিষয়: পররাষ্ট্র সচিব

রাখাইনে অস্থিতিশীলতা দেশের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের বিষয়: পররাষ্ট্র সচিব

শিশু নির্যাতনের মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

শিশু নির্যাতনের মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

‘৩০ লাখ মামলার জট কমাতে তিনগুণ বিচারক দরকার’

‘৩০ লাখ মামলার জট কমাতে তিনগুণ বিচারক দরকার’

করোনা হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি উধাও!

করোনা হাসপাতালের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি উধাও!

৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রায় ৭১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

প্রায় ৭১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

প্রণোদনা প্যাকেজের একটা অংশ ‘অনুদান’ হিসেবে চান ব্যবসায়ীরা

প্রণোদনা প্যাকেজের একটা অংশ ‘অনুদান’ হিসেবে চান ব্যবসায়ীরা

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে বিশ্বব্যাংক

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে বিশ্বব্যাংক

ব্যবসায়ীদের সুযোগ-সুবিধা আরও বাড়ানো দরকার: অর্থমন্ত্রী

ব্যবসায়ীদের সুযোগ-সুবিধা আরও বাড়ানো দরকার: অর্থমন্ত্রী

আবারও দোকান খুলে দেওয়ার দাবি মালিক সমিতির 

আবারও দোকান খুলে দেওয়ার দাবি মালিক সমিতির 

করোনায় আক্রান্তরা দ্রুত মারা যাচ্ছেন: আইইডিসিআর

করোনায় আক্রান্তরা দ্রুত মারা যাচ্ছেন: আইইডিসিআর

সর্বশেষ

মামুনুলের বিরুদ্ধে অর্ধশত মামলা, সহসাই মিলছে না মুক্তি

মামুনুলের বিরুদ্ধে অর্ধশত মামলা, সহসাই মিলছে না মুক্তি

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাজতির মৃত্যু

করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাজতির মৃত্যু

লকডাউনে হয়রানি বন্ধে স্বাস্থ্য অধিদফতরের আইডি কার্ড

লকডাউনে হয়রানি বন্ধে স্বাস্থ্য অধিদফতরের আইডি কার্ড

শেখ হাসিনা কূটনীতির ক্ষেত্রে দেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শেখ হাসিনা কূটনীতির ক্ষেত্রে দেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

পচা চাল পালিশ!

পচা চাল পালিশ!

কেমন আছেন সেই মা

কেমন আছেন সেই মা

ঝড়ে উড়ে গেলো প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের ঘরের চালা!

ঝড়ে উড়ে গেলো প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহারের ঘরের চালা!

রাখাইনে অস্থিতিশীলতা দেশের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের বিষয়: পররাষ্ট্র সচিব

রাখাইনে অস্থিতিশীলতা দেশের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের বিষয়: পররাষ্ট্র সচিব

শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি সাকির

শ্রমিক নিহতের ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি সাকির

যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৩

যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে বন্দুকধারীর গুলিতে নিহত ৩

বুড়িমাড়ীতে জুয়েল হত্যা: আরও এক আসামি গ্রেফতার

বুড়িমাড়ীতে জুয়েল হত্যা: আরও এক আসামি গ্রেফতার

শিশু নির্যাতনের মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

শিশু নির্যাতনের মামলায় মাদ্রাসার অধ্যক্ষকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

শেখ হাসিনা কূটনীতির ক্ষেত্রে দেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শেখ হাসিনা কূটনীতির ক্ষেত্রে দেশকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে গেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রাখাইনে অস্থিতিশীলতা দেশের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের বিষয়: পররাষ্ট্র সচিব

রাখাইনে অস্থিতিশীলতা দেশের নিরাপত্তার জন্য উদ্বেগের বিষয়: পররাষ্ট্র সচিব

৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

৩৬ লাখ পরিবারকে আর্থিক সহায়তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী

প্রায় ৭১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

প্রায় ৭১ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে বিশ্বব্যাংক

করোনা মোকাবিলায় বাংলাদেশের পাশে বিশ্বব্যাংক

ব্যবসায়ীদের সুযোগ-সুবিধা আরও বাড়ানো দরকার: অর্থমন্ত্রী

ব্যবসায়ীদের সুযোগ-সুবিধা আরও বাড়ানো দরকার: অর্থমন্ত্রী

করোনায় আক্রান্তরা দ্রুত মারা যাচ্ছেন: আইইডিসিআর

করোনায় আক্রান্তরা দ্রুত মারা যাচ্ছেন: আইইডিসিআর

১ কোটি ২৫ লাখ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে: কাদের

১ কোটি ২৫ লাখ পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে: কাদের

২৪ ঘণ্টায় ১০২ মৃত্যুর রেকর্ড

২৪ ঘণ্টায় ১০২ মৃত্যুর রেকর্ড

অসহায় ও কর্মহীনদের পাশে দাঁড়ান: ওবায়দুল কাদের

অসহায় ও কর্মহীনদের পাশে দাঁড়ান: ওবায়দুল কাদের

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune