X
বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ৯ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

কুবিতে বিচারহীনতার সংস্কৃতি, সালিশ-মীমাংসায় সন্তুষ্ট প্রশাসন

আপডেট : ০৫ মার্চ ২০২১, ১৭:৫৯

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে মারামারি কিংবা শৃঙ্খলাবিরোধী কাজের ঘটনা ঘটলেও অধিকাংশ ঘটনারই প্রশাসনিকভাবে আনুষ্ঠানিক কোনও বিচার হয় না। অভিযোগ না আসার দোহাই দিয়ে গত দুই বছরে সংগঠিত শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে প্রশাসনিক কোনও পদক্ষেপ লক্ষ করা যায়নি। এমনকি এসব বিষয়ের সালিশ-মীমাংসার ভার ক্ষমতাসীন ছাত্র  সংগঠনের নেতাদের হাতে তুলে দিয়েই সন্তুষ্ট থাকছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বলছে, সংঘর্ষ-মারামারির ঘটনায় তারা বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই লিখিত অভিযোগ পান না। যার ফলে নিতে পারেন না প্রশাসনিক ব্যবস্থা। কিন্তু ঘটনাগুলোর আপোষ-মীমাংসার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ে কোনও ছাত্র সংসদ না থাকলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ‘ছাত্র প্রতিনিধি’র নাম দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে এসব ঘটনার আপোষ-মীমাংসার ভার তুলে দেওয়া হচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠনের হাতে। আর নেতারাও এসব বিচার করছেন নিজেদের ইচ্ছেমতো। বিচারের নামে মারধরের অভিযোগও আছে তাদের বিরুদ্ধে।

গত পহেলা মার্চ রাতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবির চৌধুরীর বাসভবনের সামনের রাস্তায় সংঘর্ষে জড়ায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষ। এতে আহত হন ২ জন। বন্ধ ক্যাম্পাসে এমন সংঘর্ষে জড়ানোর ঘটনাতেও নির্বিকার কুবি প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন এই ঘটনাতেও মীমাংসার ভার ছেড়েছেন ‘ছাত্র প্রতিনিধিদের’ হাতে। তিনি এই ঘটনায় গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমরা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রক্টরিয়াল বডি যাদের সাথে ঝামেলা হয়েছে এবং ছাত্র প্রতিনিধিদের নিয়ে কাল বসে মীমাংসার চেষ্টা করবো।’

তবে এই ঘটনার মীমাংসা বা বিচারে ছিল না প্রক্টরিয়াল বডি। ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনার মীমাংসাও ‘ছাত্র প্রতিনিধি’র নামে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের হাতে ছেড়ে দেওয়া হয়। এদিকে মীমাংসার নামে এ ঘটনার অভিযুক্তকে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কর্তৃক মারধর করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বিচারের নামে মারধরের অভিযোগ অস্বীকার করে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইলিয়াস হোসেন সবুজ বলেন, ‘মারধর করা হবে কেন? ছাত্রলীগের সাংগঠনিক দিক থেকে নিজেদের মাঝে কেউ বিবাদে জড়ালে আমরা বিধি-নিষেধ দেই কিংবা মুচলেকা নেই। মারধর করবো কেন!’

এই ঘটনার সাংগঠনিকভাবে তদন্ত না করে সালিশে বসার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এই ঘটনায় সবকিছু স্পষ্ট, প্রমাণিত। এছাড়া, যে ভিকটিম সে ক্ষমা করে দিয়েছে এবং আমরা সাংগঠনিক দিক থেকে সতর্ক করে দিয়েছি এবং মুচলেকা নিয়েছি। আর ভিক্টিম ক্ষমা করে দিলে তো আর কিছু করার থাকে না।’

বিগত কয়েক বছরের বিশ্ববিদ্যালয়ে শাখা ছাত্রলীগের নিজেদের মধ্যে বেশ কিছু মারামারি ও সাধারণ শিক্ষার্থী বা ভিন্নমতের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের ওপর ক্যাম্পাসে হামলার ঘটনা বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, অধিকাংশ ঘটনারই কোনও বিচার হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষদের ভেতর শিক্ষার্থী যুগলকে অপ্রীতিকর অবস্থায় দেখার অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের মারধরের ঘটনারও কোনও সুরাহা হয়নি। বিচার হয়নি সাংবাদিককে গুলি করে হত্যার হুমকি দেওয়ার ঘটনাতেও। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের বক্তব্য ছিলো, ‘আমরা কোনও অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷’

প্রশাসনিক বিচার না হলেও ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের নেতৃবৃন্দ ঠিকই সালিশে বসেছেন এসব ঘটনা নিয়ে। অভিযোগ আছে, কোনও ভুক্তভোগী হামলার শিকার হলে ছাত্র সংগঠনের ভয়েই তারা প্রশাসনের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ দেন না। তাদের চাপেই তারা মীমাংসার পথ বেছে নেন।

তবে এভাবে ছাত্রলীগের নিজেদের মধ্যে বিবাদ কিংবা ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী কর্তৃক সাধারণ শিক্ষার্থীর ওপর হামলার সালিশ-মীমাংসার ভার ছাত্রলীগ নিতে পারে কিনা জানতে চাইলে শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘নিজেদের কর্মীদের ভেতর ভুল বোঝাবুঝি হলে তা নিয়ে আমরা বসতেই পারি। আর যে ভিক্টিম সে তো প্রশাসনের কাছে যায়নি। আমাদের কাছে যদি কেউ আসে তাহলে আমরা তো ছাত্র প্রতিনিধি হিসেবে দায় এড়াতে পারি না। চেষ্টা করি সমাধানের।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলাবিরোধী বিভিন্ন কাজে প্রশাসনিক ব্যবস্থা কেন নেওয়া হয় না এ প্রসঙ্গে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন বলেন, 'আমরা কার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো? যে মারধরের শিকার হলো, সে যদি এসে বলে আমি তো অভিযোগ দেইনি, আমাদের বন্ধুদের মধ্যে হয়েছে, তখন আমার উত্তর কী হবে?'

এছাড়া ‘ছাত্র প্রতিনিধি'র হাতে মীমাংসার ভার ছেড়ে দেওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, 'ছাত্রদের মধ্যে তৈরি সমস্যার সমাধান যদি ছাত্ররা করে, তাহলে আমাদের সেখানে ইন্টারফেয়ার করা কি উচিত? কার হাতে ছেড়ে দিচ্ছি সেটা বিষয় না, বিচার পেলো কি না সেটাই বিষয়।'

এই ছাত্র প্রতিনিধি কারা তাদের নাম কী জানতে চাইলে তিনি বলেন, 'ছাত্রদের বিভিন্ন দাবি নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে যারা সমন্বয় করে তারা ছাত্র প্রতিনিধি।'

বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিযোগের অভাবে বিচারহীনতার সংস্কৃতি ও শৃঙ্খলাবিরোধী কর্মকাণ্ড নিয়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এমরান কবীর চৌধুরী বলেন, 'প্রশাসন কিছু করতে চাইলে প্রশাসনের কাছে অভিযোগ আসতে হবে তো। প্রত্যেকটা সরকারি জিনিস একটা নিয়মশৃঙ্খলার মধ্য দিয়ে হয়। অভিযোগ আসলে তার ভিত্তিতে ঠিক করা হবে কোন পর্যায়ে কমিটি গঠন করা হবে, কোন ধরনের শাস্তি দেওয়া হবে। স্বাক্ষী-প্রমাণ দিয়ে বিচার করতে হয়। নয়তো কোর্টে গিয়ে উল্টো হয়ে যায়। আমাদের এমন কিছু খারাপ অভিজ্ঞতা আছে। তাই আমাদের কোনও কিছু করতে হলে আমাদের কাছে অভিযোগ আসতে হবে।’

/এনএ/

সর্বশেষ

আজ টিকায় কারও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি

আজ টিকায় কারও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়নি

দুই টন গাঁজাসহ প্রায় ৫ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য উদ্ধার

কুমিল্লায় ৩ মাস ২১ দিনের অভিযানদুই টন গাঁজাসহ প্রায় ৫ কোটি টাকার মাদকদ্রব্য উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব: হেফাজতের আরও ৮ কর্মী-সমর্থক গ্রেফতার

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব: হেফাজতের আরও ৮ কর্মী-সমর্থক গ্রেফতার

হেফাজত নেতা মাওলানা জুবায়ের ১০ দিনের রিমান্ডে

হেফাজত নেতা মাওলানা জুবায়ের ১০ দিনের রিমান্ডে

সাবধান, লিংকে ক্লিক করলেই ফোন হ্যাকারের দখলে!

সাবধান, লিংকে ক্লিক করলেই ফোন হ্যাকারের দখলে!

তৃতীয় দিনেও ব্যাট করার পরিকল্পনা বাংলাদেশের

তৃতীয় দিনেও ব্যাট করার পরিকল্পনা বাংলাদেশের

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণের অভিযোগে মামলা

স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণের অভিযোগে মামলা

২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ অর্ধেক কমানোর ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

২০৩০ সালের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ অর্ধেক কমানোর ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

টঙ্গীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫

টঙ্গীতে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫

ঢামেকে করোনা রোগীর চাপ কমেছে, তবে খালি নেই আইসিইউ

ঢামেকে করোনা রোগীর চাপ কমেছে, তবে খালি নেই আইসিইউ

১৭ লাখ টন বোরো ধান-চাল কেনার সিদ্ধান্ত

১৭ লাখ টন বোরো ধান-চাল কেনার সিদ্ধান্ত

ফের রিমান্ডে রফিকুল ইসলাম মাদানী

ফের রিমান্ডে রফিকুল ইসলাম মাদানী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

জাবিতে রসায়ন বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

জাবিতে রসায়ন বিষয়ক আন্তর্জাতিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

জেইউমুনা’র কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন

জেইউমুনা’র কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন

ডিআইইউতে ভার্চুয়াল নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

ডিআইইউতে ভার্চুয়াল নবীনবরণ অনুষ্ঠিত

আলোর মুখ দেখছে না কুবির শিক্ষার্থী কল্যাণ ফান্ড

আলোর মুখ দেখছে না কুবির শিক্ষার্থী কল্যাণ ফান্ড

ইউল্যাবে প্রত্নতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের সেমিনার অনুষ্ঠিত

ইউল্যাবে প্রত্নতত্ত্ব গবেষণা কেন্দ্রের সেমিনার অনুষ্ঠিত

হাজী দানেশ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রযুক্তিভিত্তিক বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

হাজী দানেশ প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রযুক্তিভিত্তিক বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

বাকৃবিতে গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের নতুন কমিটি প্রত্যাখ্যান

বাকৃবিতে গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের নতুন কমিটি প্রত্যাখ্যান

ইউজিসির অভিন্ন নীতিমালা প্রত্যাখ্যান কুবি শিক্ষক সমিতির

ইউজিসির অভিন্ন নীতিমালা প্রত্যাখ্যান কুবি শিক্ষক সমিতির

চিকিৎসায় সহযোগিতার আহ্বান শাবির সাবেক শিক্ষার্থী সুব্রতর

চিকিৎসায় সহযোগিতার আহ্বান শাবির সাবেক শিক্ষার্থী সুব্রতর

দশম বর্ষে পা রাখলো থিয়েটার কুবি

দশম বর্ষে পা রাখলো থিয়েটার কুবি

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune