X
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেতিবাচক: বিশেষজ্ঞ

আপডেট : ১৬ মার্চ ২০২১, ১৯:৩৫
image

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা গ্রহণের পর হাতে গোনা কয়েকজন রোগীর শরীরে রক্ত জমাট বাঁধার অভিযোগ ওঠাকে কেন্দ্র করে টিকাদান স্থগিত ঘোষণাকারী দেশের সংখ্যা ক্রমাগত বাড়ছে। এ দেশগুলোর বেশিরভাগই ইউরোপীয়। তারা স্বীকার করেছে যে এ ভ্যাকসিনই যে সমস্যার কারণ তার কোনও প্রমাণ নেই। বিশেষজ্ঞদের একাংশ বলছেন, কেবল তত্ত্বগত উদ্বেগ থেকে এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া যথাযথ হয়নি। এই সিদ্ধান্তের কারণে ভালোর চেয়ে অনেক বেশি খারাপ হতে পারে।

টিকা গ্রহণকারীদের মধ্যে খুবই অল্প কিছু মানুষের রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার মতো কিছু সমস্যা দেখা গেলেও অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা স্থগিতকারী দেশের সংখ্যা বাড়ছে। মঙ্গলবার সবশেষ সুইডেন করোনাভাইরাসের টিকা কর্মসূচি স্থগিত করেছে। এর আগে জার্মানি, ইতালি, ফ্রান্স ও স্পেন, আয়ারল্যান্ড, ডেনমার্ক, নরওয়ে, বুলগেরিয়া ও আইসল্যান্ড আগেই ভ্যাকসিনটির প্রয়োগ স্থগিত করে। এদিকে কর্মসূচি শুরুর আগেই তা স্থগিত করেছে ডেমোক্র্যাটিক রিপাবলিক অব কঙ্গো ও ইন্দোনেশিয়া। থাইল্যান্ডেও টিকা কর্মসূচি স্থগিত ছিল, মঙ্গলবার তা আবার তা শুরু হয়েছে।

সোমবার (১৫ মার্চ) জার্মান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেন্স স্পাহন বলেন, ‌‘একেবারে পূর্বসতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে আজ এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’ কেবল জার্মানি নয়, টিকা স্থগিতকারী দেশগুলোর কেউই ভ্যাকসিনের সঙ্গে রক্ত জমাট বাঁধা কিংবা অন্য কোনও সমস্যার সম্পর্কের প্রমাণ দিতে পারেনি।  

ফিলাডেলফিয়ার শিশু হাসপাতালের ভ্যাকসিন বিশেষজ্ঞ পল অফিট ভয়েস অব আমেরিকাকে বলেন, তত্ত্বগত উদ্বেগ থেকে মহামারির মাঝখানে কার্যকর ভ্যাকসিন বন্ধ করে দেওয়াটা বাজে সিদ্ধান্ত। তিনি বলেন, ‘যে ভাইরাসের কারণে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষের মৃত্যু হচ্ছে, তা নিয়ে তত্ত্ব ফলানোর সুযোগ নেই।’ হুট করে ভ্যাকসিন স্থগিতের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করে তিনি বলেন, আদতে ভ্যাকসিন নেওয়ার ব্যাপারটা রক্ষণশীল কোনও পছন্দ না, এটা র‍্যাডিক্যাল পছন্দেরই প্রশ্ন।

বিশ্বে ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত ভ্যাকসিনগুলোর অন্যতম অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নেতৃত্বে কোভ্যাক্স জোট যেসব ভ্যাকসিন ব্যবহার করছে তার একাংশ অ্যাস্ট্রাজেনেকা সরবরাহ করছে। ভ্যাকসিন প্রাপ্তির ক্ষেত্রে উচ্চ ও নিম্ন আয়ের দেশের মধ্যে অসমতা দূর করাই এ জোটের লক্ষ্য। ৪০টিরও বেশি দেশ ভ্যাকসিনটির অনুমোদন দিয়েছে। স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা বলছেন, তাদের লক্ষ্য হলো, মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য ভ্যাকসিনের গুরুত্ব ও ঝুঁকির মধ্যে ভারসাম্য নিয়ে আসা। সামান্য হলেও এর বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে।

ডেনমার্কই প্রথম দেশ হিসেবে গত সপ্তাহে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন স্থগিত করেছে। অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন গ্রহণের পর রক্ত জমাট বেঁধে ৬০ বছরের এক নারীর মৃত্যুর অভিযোগ ওঠার পর এ সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার ড্যানিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, ভ্যাকসিন ও রক্ত জমাট বাঁধার মধ্যে কোনও সম্পর্ক আছে কিনা তা এখনই চূড়ান্তভাবে বলা যাচ্ছে না।

ড্যানিশ স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষের প্রধান সোরেন ব্রোস্টম বলেন, ‘ভ্যাকসিনটি যে নিরাপদ ও কার্যকর তার ভালো প্রমাণ রয়েছে। তবে সম্ভাব্য গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে আমরা এবং ড্যানিশ মেডিসিন্স এজেন্সি উভয়কেই প্রতিক্রিয়া জানাতে হয়েছে।’

ভ্যাকসিন নেওয়ার ১০ দিন পর রক্ত জমাট বেঁধে আরেক রোগীর মৃত্যুর পর ভ্যাকসিনটির একটি চালান স্থগিত করেছে অস্ট্রিয়া। আরও কয়েকটি দেশে এ ধরনের হাতে গোনা কিছু ঘটনা ঘটতে দেখা গেছে।

জার্মানি, ফ্রান্স ও ইতালিসহ কয়েকটি দেশ অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন স্থগিত করেছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নের ওষুধ নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ ইউরোপিয়ান মেডিসিন্স এজেন্সি (ইএমএ)-এর পর্যালোচনার অপেক্ষায় আছে তারা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথান সোমবার (১৫ মার্চ) সাংবাদিকদের বলেন, ভ্যাকসিন নেননি এমন মানুষদের তুলনায় ভ্যাকসিন গ্রহণকারী মানুষদের মধ্যে যে রক্ত জমাট বাঁধার ঘটনা বেশি ঘটছে এমনটা নয়। মানুষের শরীরে রক্ত জমাট বাঁধে এবং এ ধরনের ঘটনায় প্রতিদিনই মানুষ মারা যাচ্ছে। প্রশ্নটা হলো, ভ্যাকসিনের সঙ্গে আসলে এ ধরনের মৃত্যুর সংযোগ আছে কিনা তা দেখা।’

অ্যাস্ট্রাজেনেকার এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ইউরোপ ও ব্রিটেনে যে ১ কোটি ৭০ লাখ মানুষ টিকা নিয়েছেন, তাদের মধ্যে রক্ত জমাট বাঁধার হার কম।

লন্ডন স্কুল অব হাইজিন এন্ড ট্রপিক্যাল মেডিসিনের অধ্যাপক স্টিফেন ইভান্স বলেন, খোদ করোনাভাইরাসের কারণেই রক্ত জমাট বাঁধা কিংবা এ সংক্রান্ত জটিলতা হতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বামীনাথান বলেন, বিশ্বজুড়ে ২৬ লাখেরও বেশি মানুষ কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। এর মধ্যে যে ৩০ কোটি মানুষ অন্তত এক ডোজ ভ্যাকসিন নিয়েছেন, তাদের কেউ ভ্যাকসিন গ্রহণের কারণে মারা যাননি। তিনি বলেন, ‘যে রোগটির কারণে লাখ লাখ মানুষ মারা যাচ্ছে, যে ঝুঁকি তৈরি হয়েছে, তার বিপরীতে মানুষকে কতটা সুরক্ষা দেওয়া যাচ্ছে তার তুলনা করা।’

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ভ্যাকসিনটির পক্ষে সুপারিশ করে আসছে। ইএমএ-ও তাই করেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও ইএমএ মঙ্গলবার আলামতগুলো বিবেচনা করতে বৈঠক করবে এবং সিদ্ধান্ত নেবে যে তাদের সুপারিশগুলো পরিবর্তন করার প্রয়োজন আছে কিনা। অফিট মনে করেন, তারা যদি এটা পুনরায় নিশ্চিতও করে যে ভ্যাকসিন নিরাপদ, তারপরো এর মধ্যে যতখানি ক্ষতি হয়ে গেছে তা পূরণ করা কঠিন। ‌‘আপনারা লোকজনকে আতঙ্কিত করেছেন। তাদের ভীতি দূর করাটা কঠিন হবে। কোনো তথ্য জনগণের মাঝে ছড়িয়ে যাওয়ার পর তা প্রত্যাহার করে নেওয়া কঠিন।’ বলেন অফিট।

/এফইউ/বিএ/

সম্পর্কিত

সিনোফার্মের টিকা পাবেন যারা

সিনোফার্মের টিকা পাবেন যারা

যাদের প্রয়োজন সবাইকে ভ্যাকসিন দেওয়ার চেষ্টা করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

যাদের প্রয়োজন সবাইকে ভ্যাকসিন দেওয়ার চেষ্টা করছি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

পাঁচ লাখ ডোজ টিকা হস্তান্তর করলো চীন

পাঁচ লাখ ডোজ টিকা হস্তান্তর করলো চীন

পাঁচ লাখ ডোজ টিকা ঢাকায়

পাঁচ লাখ ডোজ টিকা ঢাকায়

অবশিষ্ট আছে পৌনে ৮ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন

অবশিষ্ট আছে পৌনে ৮ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন

অক্সফোর্ড টিকার এক ডোজে মৃত্যু ঝুঁকি কমে ৮০ শতাংশ

অক্সফোর্ড টিকার এক ডোজে মৃত্যু ঝুঁকি কমে ৮০ শতাংশ

ইতালিতে ভুল করে এক নারীকে ৬ ডোজ টিকা!

ইতালিতে ভুল করে এক নারীকে ৬ ডোজ টিকা!

চীনের কাছ থেকে পাঁচ কোটি টিকা কিনতে চায় সরকার

চীনের কাছ থেকে পাঁচ কোটি টিকা কিনতে চায় সরকার

টিকা আনতে চীন গেছে বিমান

টিকা আনতে চীন গেছে বিমান

যুক্তরাষ্ট্রে কিশোরদের জন্য ফাইজারের টিকা অনুমোদন

যুক্তরাষ্ট্রে কিশোরদের জন্য ফাইজারের টিকা অনুমোদন

ভ্যাকসিন ছাড়া সৌদি আরব গেলে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন

ভ্যাকসিন ছাড়া সৌদি আরব গেলে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন

অনুমোদন পেলে টিকা অনেক আগেই চলে আসতো: চীনের রাষ্ট্রদূত

অনুমোদন পেলে টিকা অনেক আগেই চলে আসতো: চীনের রাষ্ট্রদূত

সর্বশেষ

গাজায় সহিংসতার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানালেন রওশন এরশাদ

গাজায় সহিংসতার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানালেন রওশন এরশাদ

কাশিমপুর কারাগারে মামুনুল হকসহ ১৪ হেফাজত নেতা

কাশিমপুর কারাগারে মামুনুল হকসহ ১৪ হেফাজত নেতা

রিমান্ড শেষে কারাগারে জুনায়েদ আল হাবিব

রিমান্ড শেষে কারাগারে জুনায়েদ আল হাবিব

হেফাজত নেতা শাখাওয়াত হোসাইন রিমান্ড শেষে কারাগারে

হেফাজত নেতা শাখাওয়াত হোসাইন রিমান্ড শেষে কারাগারে

প্রায় শতভাগ কারখানায় বেতন-বোনাস পরিশোধ, দাবি বিজিএমই’র

প্রায় শতভাগ কারখানায় বেতন-বোনাস পরিশোধ, দাবি বিজিএমই’র

থেমে থাকা মাইক্রোবাসে অপর মাইক্রোবাসের ধাক্কা: র‌্যাব সদস্যসহ নিহত ২

থেমে থাকা মাইক্রোবাসে অপর মাইক্রোবাসের ধাক্কা: র‌্যাব সদস্যসহ নিহত ২

শ্রমিকদের ছুটি নিয়ে বিশৃঙ্খলা এড়িয়ে চলার অনুরোধ বিজিএমইএ’র  

শ্রমিকদের ছুটি নিয়ে বিশৃঙ্খলা এড়িয়ে চলার অনুরোধ বিজিএমইএ’র  

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৬ কোটি ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৬ কোটি ছাড়িয়েছে

বাবুল আক্তার ৫ দিনের রিমান্ডে

বাবুল আক্তার ৫ দিনের রিমান্ডে

চলে গেলেন ‘খেলা পাগল’ মনসুর আলী

চলে গেলেন ‘খেলা পাগল’ মনসুর আলী

সিনোফার্মের টিকা পাবেন যারা

সিনোফার্মের টিকা পাবেন যারা

জেলেদের জন্য ১৬ হাজার ৭২১ মেট্রিক টন ভিজিএফ বরাদ্দ

জেলেদের জন্য ১৬ হাজার ৭২১ মেট্রিক টন ভিজিএফ বরাদ্দ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

অক্সফোর্ড টিকার এক ডোজে মৃত্যু ঝুঁকি কমে ৮০ শতাংশ

অক্সফোর্ড টিকার এক ডোজে মৃত্যু ঝুঁকি কমে ৮০ শতাংশ

ইতালিতে ভুল করে এক নারীকে ৬ ডোজ টিকা!

ইতালিতে ভুল করে এক নারীকে ৬ ডোজ টিকা!

যুক্তরাষ্ট্রে কিশোরদের জন্য ফাইজারের টিকা অনুমোদন

যুক্তরাষ্ট্রে কিশোরদের জন্য ফাইজারের টিকা অনুমোদন

ভ্যাকসিন ছাড়া সৌদি আরব গেলে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন

ভ্যাকসিন ছাড়া সৌদি আরব গেলে নিজ খরচে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন

করোনা টিকার মেধাস্বত্ব তুলে নেওয়ার প্রস্তাবে পুতিনের সমর্থন

করোনা টিকার মেধাস্বত্ব তুলে নেওয়ার প্রস্তাবে পুতিনের সমর্থন

ভারতে সিঙ্গেল ডোজের স্পুটনিক টিকা উৎপাদন করতে চায় রাশিয়া

ভারতে সিঙ্গেল ডোজের স্পুটনিক টিকা উৎপাদন করতে চায় রাশিয়া

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেলো চীনা সিনোফার্মের ভ্যাকসিন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদন পেলো চীনা সিনোফার্মের ভ্যাকসিন

রাশিয়ান ভ্যাকসিন একে-৪৭ এর মতোই নির্ভরযোগ্য: পুতিন

রাশিয়ান ভ্যাকসিন একে-৪৭ এর মতোই নির্ভরযোগ্য: পুতিন

এবার এলো স্পুটনিকের সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিন

এবার এলো স্পুটনিকের সিঙ্গেল ডোজ ভ্যাকসিন

আফ্রিকা ও ব্রাজিলীয় ধরনের বিরুদ্ধে  মডার্না ভ্যাকসিনের সফলতা

আফ্রিকা ও ব্রাজিলীয় ধরনের বিরুদ্ধে মডার্না ভ্যাকসিনের সফলতা

© 2021 Bangla Tribune