X
বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ২ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

মামুনুলের রিসোর্টকাণ্ড: নীরব থাকার সিদ্ধান্ত হেফাজত-খেলাফতের

আপডেট : ০৭ এপ্রিল ২০২১, ২১:১৬

নারী সঙ্গীসহ মাওলানা মামুনুল হকের রিসোর্টে অবরুদ্ধ হওয়া প্রসঙ্গে নতুন কোনও মন্তব্য না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন হেফাজতে ইসলাম ও খেলাফত মজলিসের সিনিয়র নেতারা। তারা মামুনুল ইস্যুকে চাপা দিয়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় হেফাজতে ইসলাম গত কয়েক দিনে মোদিবিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে যেসব কর্মী নিহত হয়েছে তাদের নাম-তালিকা সংগ্রহ করছে। তৈরির পর এই তালিকা জনসম্মুখে প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, মাওলানা মামুনুল হক হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব এবং ঢাকা মহানগর কমিটির মহাসচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় মহাসচিব হিসেবেও দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ইস্যুতে বিতর্কিত মন্তব্য করে আলোচনায় আসেন মামুনুল হক। এরপর থেকে হেফাজতে তার জনপ্রিয়তা বাড়ে। এ কারণে সংগঠন বাঁচাতে যেকোনও মূল্যে মামুনুলের পাশে থাকতে চান হেফাজত ও খেলাফত মজলিসের নেতাকর্মীরা।

হেফাজত ও মজলিসের কেন্দ্রীয় সংগঠক মাওলানা আতাউল্লাহ আমিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘হেফাজতে ইসলামের উচ্চ পর্যায় থেকে ইতোমধ্যে মামুনুল হক প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, তার বিবাহ অনৈতিক নয়। একইসঙ্গে খেলাফত মজলিসের নির্বাহী কমিটির মিটিংয়েও বলা হয়েছে, মামুনুল হকের বিবাহ সঠিক।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কাছে এখন এ বিষয়টি আর প্রাধান্য পাচ্ছে না। আমাদের সবকিছু এখন সম্প্রতি হেফাজতের কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করে যারা নিহত হয়েছেন, যারা আহত হয়েছেন, তাদের নিয়ে। ইসলামের জন্য যারা প্রাণ দিয়েছেন, অনেক সাধারণ মানুষও আছেন এই নিহতদের মধ্যে, তাদের কীভাবে আর্থিক সহযোগিতা করা যায়, কী সহযোগিতা করা যায়, এসব নিয়ে নেতারা চিন্তা-ভাবনা করছেন। খুব দ্রুত আমরা সহায়তায় নামবো।’

তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সূত্র বলছে, প্রকাশ্যে মামুনুল হকের বিরোধিতা কেউ না করলেও ভেতরে ভেতরে অনেকেই তার ওপর ক্ষুব্ধ ও বিরক্ত। আপাতত সংগঠনের ‘ভাবমূর্তি’ রক্ষা করার জন্য সবাই মামুনুল ইস্যুতে চুপ থাকলেও ভবিষ্যতে তাকে দলের গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হতে পারে।
হেফাজতে ইসলামের অনেক নেতা মনে করছেন, মামুনুল হকের জনপ্রিয়তা বেড়ে যাওয়ায় তিনি ধরাকে সরা জ্ঞান করে চলাফেরা করতেন। তা না হলে এরকম একটা সময়ে অবৈধ হোক আর বৈধ হোক, স্ত্রীকে নিয়ে রিসোর্টে সময় কাটাবার জন্য যেতে পারেন না।
মামুনুলকাণ্ডের পর হেফাজতের একাধিক নেতার ফাঁস হওয়া ফোনালাপেও মামুনুল হকের প্রতি ক্ষোভের কথা জানা গেছে। ওই অডিওতে মাওলানা ফজলুল করিম কাশেমী ও ফয়সাল আহমেদ নামে হেফাজতের দুই নেতা মামুনুল হকের কর্মকাণ্ডকে ভুল আখ্যায়িত করে যেকোনও মূল্যে তাদের অবস্থান শক্ত করে ধরে রাখার পরামর্শ করেন। নারী সঙ্গী নিয়ে রিসোর্টে যাওয়া মামুনুল হকের অদূরদর্শিতা আখ্যায়িত করে ওই নেতা মামুনুল হককে কিছু নসিহত করতে বলে আলোচনা করেন। মামুনুল হক ও ওই নারীকে বছিলার একটি ফ্ল্যাটে রাখা হয়েছে জানিয়ে তারা আগে হেফাজতের ‘মান’ বাঁচানোর সিদ্ধান্ত নেন। মামুনুল হকের কর্মকাণ্ডে দুই হেফাজত নেতা ক্ষোভও প্রকাশ করেন।
হেফাজতের অনেক নেতাকর্মী মনে করেন, মামুনুল হকের রিসোর্ট কেলেঙ্কারির কারণে সরকার একটি সুযোগ পেয়েছে। তা না হলে মোদিবিরোধী কর্মসূচির ঘটনায় যত মামলা হয়েছে তাতে হেফাজতের সিনিয়র কোনও নেতৃবৃন্দের নাম ছিল না। মামুনুল হকের ঘটনার পর মামলায় তাকেসহ সিনিয়র নেতাদের নামে মামলা করা হয়েছে।

এদিকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একাধিক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, হেফাজতের বিষয়ে তারা কৌশলী হয়ে সামনের দিকে আগাচ্ছেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এক কর্মকর্তা জানান, এরই ধারাবাহিকতায় বুধবার (৭ এপ্রিল) নেত্রকোনা থেকে  মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের যেসব হেফাজত নেতারা সহিংসতায় উসকানি দিয়েছেন তাদের ইতোমধ্যে চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের চলাফেরায় গোয়েন্দা নজরদারি করা হচ্ছে। যেকোনও সময়ে এদের আইনের আওতায় আনা হবে।
মঙ্গলবার (৬ এপ্রিল) সচিবালয়ে নিজ কার্যালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল সাংবাদিকদের বলেন, সম্পূর্ণ বিনা উসকানিতে হেফাজত বিভিন্ন স্থানে হামলা করেছে। ভূমি অফিস পুড়িয়েছে। সরকারি অনেক অফিস আদালত ভাংচুর-অগ্নিসংযোগ করেছে। এজন্য নাশকতাকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। ভবিষ্যতেও এসব বিষয়ে সরকার কঠোর অবস্থানে থাকবে বলে জানান তিনি।

/এমআর/এমওএফ/

সর্বশেষ

তিন দিনের রিমান্ডে ‘হাতকাটা’ বাহিনীর প্রধানসহ তিন সদস্য

তিন দিনের রিমান্ডে ‘হাতকাটা’ বাহিনীর প্রধানসহ তিন সদস্য

বাংলাদেশি ক্রিয়েটরদের তৈরি এআর ইফেক্ট নিয়ে এলো ফেসবুক

বাংলাদেশি ক্রিয়েটরদের তৈরি এআর ইফেক্ট নিয়ে এলো ফেসবুক

লকডাউন দেখতে ভিড়, সামাল দিতে প্রশাসনের নাভিশ্বাস

লকডাউন দেখতে ভিড়, সামাল দিতে প্রশাসনের নাভিশ্বাস

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যবসায়ীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যবসায়ীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

কুড়িয়ে পাওয়া ব্যাগভর্তি টাকা ফিরিয়ে দিলেন যুবলীগ নেতা

কুড়িয়ে পাওয়া ব্যাগভর্তি টাকা ফিরিয়ে দিলেন যুবলীগ নেতা

লাইফ সাপোর্টে কিংবদন্তি কবরী

লাইফ সাপোর্টে কিংবদন্তি কবরী

হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত আকরাম খান

হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত আকরাম খান

স্বর্ণালংকার ছিনিয়ে নেওয়ার পর নারীকে ধর্ষণচেষ্টা
নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জ ক্লাবের বিরুদ্ধে ভ্যাট ফাঁকির অভিযোগ

পুকুরে পাওয়া গেলো শুটারগান

পুকুরে পাওয়া গেলো শুটারগান

মিয়ানমারে মসজিদে ঢুকে সেনাদের গুলিবর্ষণ, নিহত ১

মিয়ানমারে মসজিদে ঢুকে সেনাদের গুলিবর্ষণ, নিহত ১

টিসিবির পচা পেঁয়াজ কিনতে বাধ্য করা হচ্ছে ক্রেতাদের!

টিসিবির পচা পেঁয়াজ কিনতে বাধ্য করা হচ্ছে ক্রেতাদের!

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

একবছরে পুলিশে আইজিপির যত উদ্যোগ

একবছরে পুলিশে আইজিপির যত উদ্যোগ

মামুনুলকে খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ

মামুনুলকে খুঁজে পাচ্ছে না পুলিশ

করোনা আক্রান্ত এমপি বাদশাকে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে ভর্তি

করোনা আক্রান্ত এমপি বাদশাকে বঙ্গবন্ধু মেডিক্যালে ভর্তি

মাদ্রাসা ও সেফহোমে ৩ মাসে ২১ শিশু নির্যাতনের শিকার

মাদ্রাসা ও সেফহোমে ৩ মাসে ২১ শিশু নির্যাতনের শিকার

৬৫ দিন সাগরে মাছ ধরা বন্ধ

৬৫ দিন সাগরে মাছ ধরা বন্ধ

শিশু ধর্ষণ-নির্যাতন বন্ধে কওমি মাদ্রাসা সরকারি নিয়ন্ত্রণে আনার দাবি

শিশু ধর্ষণ-নির্যাতন বন্ধে কওমি মাদ্রাসা সরকারি নিয়ন্ত্রণে আনার দাবি

এত মুভমেন্ট পাস কারা নিলো?

এত মুভমেন্ট পাস কারা নিলো?

‘জরুরি প্রয়োজন’ ওড়না ডেলিভারি, ডাক্তারকে খেজুর গিফট

‘জরুরি প্রয়োজন’ ওড়না ডেলিভারি, ডাক্তারকে খেজুর গিফট

যুবদলের সাবেক সভাপতি মজনু পাঁচ দিনের রিমান্ডে

যুবদলের সাবেক সভাপতি মজনু পাঁচ দিনের রিমান্ডে

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা রাজীসহ তিন জন ৫ দিনের রিমান্ডে

হেফাজতের কেন্দ্রীয় নেতা রাজীসহ তিন জন ৫ দিনের রিমান্ডে

Bangla Tribune is one of the most revered online newspapers in Bangladesh, due to its reputation of neutral coverage and incisive analysis.
© 2021 Bangla Tribune