X
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

এবারও দুশ্চিন্তায় তরমুজ চাষিরা

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২১, ১১:১৯

যেমন আশা করেছিলেন, তেমন ফলনেই পেয়েছেন বরগুনার তরমুজ চাষিরা। বিক্রির জন্য এরইমধ্যে ক্ষেত থেকে তরমুজ তুলছেন তারা। কিন্তু পাইকার ও ক্রেতার দেখা নেই। বিক্রির ভরা মৌসুমে করোনা মহামারির প্রকোপে ও সরকারের দেওয়া লকডাউনে বাজারের এ অবস্থা। স্থানীয় কিছু পাইকার তরমুজ কিনলেও পরিবহন সংকট রয়েছে চরমে। আর এতেই বিপাকে পড়েছেন তরমুজ চাষিরা। যারা ঋণ নিয়ে তরমুজের আবাদ করেছেন তাদের অবস্থা আরও করুন। তরমুজ চাষিরা দাবি করেছেন, সরকারের সরাসরি পৃষ্ঠপোষকতায় তরমুজ বিক্রির উদ্যোগ নেওয়া হলে বেঁচে যান তারা। দুশ্চিন্তায় তরমুজ চাষিরা

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর বরগুনা কার্যালয়ের তথ্য মতে, চলতি মৌসুমে বরগুনা জেলায় চার হাজার ৪৩ হেক্টর জমিতে তরমুজের আবাদ হয়েছে। এর মধ্যে গেন্ডারী, টকটেন, ড্রাগন, কালো জাম্বু জাগুয়ার, ওয়ার্ল্ড কুইনসহ বেশ কয়েকটি উন্নত জাতের তরমুজ চাষ হয়েছে। এবারও সবচেয়ে বেশি তরমুজ চাষ হয়েছে বরগুনা সদর উপজেলার এম বালিয়াতলী ইউনিয়নে। ওই এলাকার দুহাজার ২০ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষ হয়েছে। এরপর আমতলী উপজেলার চাওড়া ও হলদিয়া এই দুই ইউনিয়নে মোট এক হাজার ৯৯০ হেক্টর জমিতে তরমুজ চাষ হয়েছে।

কৃষকরা জানান, গত বছরের লোকসান কাটাতে এ বছর বরগুনায় তরমুজের আবাদ বেশি হয়েছে। গত বছরের তুলনায় এ বছর প্রায় এক হাজার হেক্টর বেশি জমিতে তরমুজের চাষ করেছেন কৃষকরা। ফলন ভালো হওয়ায় এ বছর তরমুজ চাষিরা লাভের আশা করছিলেন। কিন্তু লকডাউনে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে ক্রেতা না আশায় বিক্রি নিয়ে শঙ্কায় ভুগছেন তারা। 

জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তার কার্যালয়ের তথ্য মতে, রাজধানীসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতে বরগুনার তরমুজ বিক্রি হয়ে থাকে। এছাড়াও এ অঞ্চলের তরমুজ গাজীপুর, বগুড়া, কুমিল্লা, গাইবান্ধা টাঙ্গাইলেও বিক্রি হয়। কিন্তু এ বছরও ঠিক বিক্রির সময়ে করোনার কারণে ওইসব এলাকা থেকে পাইকার আসছেন না। ফলে তরমুজ বিক্রি নিয়ে বিপাকে পড়েছেন কৃষক। পচনশীল এই কৃষিপণ্য যথাসময়ে বিক্রি না করতে পারলে নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কৃষকদের আতঙ্কিত, এবারও ক্রেতার  লোকসান গুনতে হবে তাদের। আশানুরূপ ফলন পেয়ে খুশি হয়েছিলেন বরগুনার তরমুজ চাষিরা

বরগুনা সদর উপেজলার এম বালিয়াতলী ইউনিয়নের কয়েকজন তরমুজ চাষি জানান, রবি মৌসুমে তারা স্থানীয় আরতদার, বেসরকারি উন্নয়ন সংগঠন ও ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে তরমুজ চাষ করে থাকেন। ওই ইউনিয়নের চালিতাতলী এলাকার তরমুজ চাষি মোজাম্মেল হোসেন বলেন, ‘স্থানীয়দের কাছ থেকে ঋণ নিয়ে দেড় একর জমিতে তরমুজের আবাদ করেছি। ফলনও আশানুরূপ হয়েছে। কিন্তু পাইকার আসছে না। যে কারণে তরমুজ বিক্রি করতে পারছি না। স্থানীয় বাজারে কিছু তরমুজ বিক্রি করেছি। এ অবস্থা চলতে থাকলে অধিকাংশ তরমুজ নষ্ট হয়ে যাবে। আমাদের লাভ তো দূরে থাক, লোকসান গুনতে ভিটেমাটি বিক্রির উপক্রম হবে।’

লতাকাটা এলাকার মন্টু মিয়া বলেন, ‘গতবছরও একই সময়ে করোনার প্রকোপে পাইকার আসেনি। ক্ষেতেই নষ্ট হয়েছে বেশিরভাগ তরমুজ। এ বছরও একই অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে। সরকারের কাছে আমাদের দাবি, সরকার আমাদের তরমুজ বিক্রির ব্যবস্থা করুক। নয়তো আমরা বড় লোকসানের মুখে পড়বো।’ 

আমতলী উপজেলার আঠারোগাছিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম সোনাখালী গ্রামের তরমুজ চাষি আলমগীর আকন, কামাল হাওলাদার, শহীদুল গাজী, মাহবুব মাতুব্বর, লিমন গাজী ও মাহাতুল মল্লিকসহ বেশ কয়েকজন তরমুজ চাষি  বলেন, এ বছর আশা করেছিলাম ভালো দামে তরমুজ বিক্রি করবো। কিন্তু লকডাউনে গাড়ি আসে না। ইতোমধ্যেই তরমুজ নষ্ট হওয়া শুরু হয়েছে। তরমুজ বিক্রিতে আমরা সরকারের কাছে সহযোগিতা কামনা করি।

একই উপজেলার কুকুয়া ইউনিয়নের চুনাখালী গ্রামের ওহাব মৃধা, বাহাউদ্দিন হাওলাদার ও রাজ্জাক মৃধা বলেন, গত বছর লকডাউনের কারণে পাইকার এসেও পরিবহন সংকটের কারণে তরমুজ কিনতে পারেনি। তাই কম দামে বিক্রি করতে হয়েছে। এ বছরও লকডাউন থাকলে তরমুজ নিয়ে বিপাকে পড়তে হবে। তরমুজ ক্ষেত

আমতলীর স্থানীয় পাইকার সোহেল রানা বলেন, ‘বরগুনার উৎপাদিত তরমুজের দুই তৃতীয়াংশ দেশের বিভিন্ন স্থানের পাইকারদের কাছে বিক্রি করা হয়। লকডাউন শুরু হওয়ায় দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা পাইকাররা এ বছর তরমুজ ক্রয়ে অনিহা দেখাচ্ছেন। ফলে তরমুজ বিক্রি নিয়ে একপ্রকার শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় সরকারি উদ্যোগ নেওয়া জরুরি।’

জেলা কৃষি বিপণন কর্মকর্তার কার্যালয়ের বাজার অনুসন্ধানকারী টি এম মাহবুবুল হাসানের যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘তরমুজ বিক্রির বিষয়টি নিয়ে আমরা ইতোমধ্যেই জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে বৈঠক করেছি। তরমুজ চাষি ও স্থানীয় পাইকার আড়ৎদারা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে আমরা তাদের তরমুজ পরিবহনের ব্যপারে সহায়তা দেবো। তরমুজ পরিবহনের ক্ষেত্রে কোনও প্রকার বাধার সৃষ্টি যাতে না হয় সে ব্যাপারে আমরা কৃষি বিভাগ থেকে জেলা প্রশাসন ও পুলিশ সুপারের মাধ্যমে বিশেষ ছাড় দেওয়ার ব্যবস্থা করতে প্রস্তত।’

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক (ডিডি) কৃষিবিদ আবদুল ওয়াদুদ বলেন, ‘কৃষি বিভাগের সহায়তায় এ বছর বরগুনায় তরমুজের বাম্পার ফলন হয়েছে। কৃষক যাতে বিক্রি নিয়ে কোনও বিপাকে না পড়ে আমরা তাদের সে ব্যাপারে যথা সম্ভব সব সহায়তা দিতে প্রস্তত।’

 

/এফএস/

সম্পর্কিত

ভারত থেকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়লো, সঙ্গে আরও কড়াকড়ি

ভারত থেকে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়লো, সঙ্গে আরও কড়াকড়ি

'কেউ কথা রাখেনি'

'কেউ কথা রাখেনি'

বিদেশে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে হানিফের শঙ্কা

বিদেশে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে হানিফের শঙ্কা

আরও দুই জনের শরীরে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

আরও দুই জনের শরীরে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

২৪ ঘণ্টায় ৪৫ মৃত্যু

২৪ ঘণ্টায় ৪৫ মৃত্যু

ফেরার যুদ্ধে উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি (ফটো স্টোরি)

ফেরার যুদ্ধে উপেক্ষিত স্বাস্থ্যবিধি (ফটো স্টোরি)

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে বাংলাদেশে

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে বাংলাদেশে

করোনা ঠেকাতে গোমূত্র পানের পদ্ধতি শেখালেন বিজেপি বিধায়ক

করোনা ঠেকাতে গোমূত্র পানের পদ্ধতি শেখালেন বিজেপি বিধায়ক

পাটুরিয়ায় পারের অপেক্ষা

পাটুরিয়ায় পারের অপেক্ষা

কোভিড শনাক্ত করবে মৌমাছি!

কোভিড শনাক্ত করবে মৌমাছি!

ভারতে করোনায় মৃত্যুর নতুন রেকর্ড

ভারতে করোনায় মৃত্যুর নতুন রেকর্ড

ভারতে চিকিৎসা পাচ্ছে না মানুষ, গোশালায় যাচ্ছে অক্সিমিটার-থার্মাল স্ক্যানার

ভারতে চিকিৎসা পাচ্ছে না মানুষ, গোশালায় যাচ্ছে অক্সিমিটার-থার্মাল স্ক্যানার

সর্বশেষ

ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তা চায় দেশি এয়ারলাইন্স, আশ্বাস প্রতিমন্ত্রীর

ঘুরে দাঁড়াতে সহায়তা চায় দেশি এয়ারলাইন্স, আশ্বাস প্রতিমন্ত্রীর

‘মানবিক কারণে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের চাকরি দিয়েছি’

রাবির সদ্য বিদায়ী উপাচার্যের দাবি‘মানবিক কারণে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের চাকরি দিয়েছি’

বিশ্বায়ন প্রসঙ্গে অর্থনীতি সমিতির ওয়েবিনার

বিশ্বায়ন প্রসঙ্গে অর্থনীতি সমিতির ওয়েবিনার

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর আরেকটি ঘাঁটি দখল করলো কারেন বিদ্রোহীরা

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর আরেকটি ঘাঁটি দখল করলো কারেন বিদ্রোহীরা

একচেটিয়া বাজার ভাঙতে পেরেছে ‘নগদ’: বিটিআরসি চেয়ারম্যান

একচেটিয়া বাজার ভাঙতে পেরেছে ‘নগদ’: বিটিআরসি চেয়ারম্যান

ঈদযাত্রা রোধে দুই ফেরিঘাটে বিজিবি’র পাহারা

ঈদযাত্রা রোধে দুই ফেরিঘাটে বিজিবি’র পাহারা

‘গ্যাস ঘাটতি মেটাতে পার্বত্য চট্টগ্রামে অনুসন্ধান শুরু করতে হবে’

‘গ্যাস ঘাটতি মেটাতে পার্বত্য চট্টগ্রামে অনুসন্ধান শুরু করতে হবে’

ভারত থেকে ফিরলেন আড়াই হাজার বাংলাদেশি, পজিটিভ ১৪ জন

ভারত থেকে ফিরলেন আড়াই হাজার বাংলাদেশি, পজিটিভ ১৪ জন

বিদ্যুৎ বিতরণে শিল্প মালিকদের আস্থায় আনার নির্দেশ

বিদ্যুৎ বিতরণে শিল্প মালিকদের আস্থায় আনার নির্দেশ

অবৈধভাবে যাত্রী পারাপার করায় পদ্মায় ৬ ট্রলার জব্দ

অবৈধভাবে যাত্রী পারাপার করায় পদ্মায় ৬ ট্রলার জব্দ

ট্রাকের তেলের ট্যাংকিতে মিললো ১০ হাজার ইয়াবা

ট্রাকের তেলের ট্যাংকিতে মিললো ১০ হাজার ইয়াবা

পিএসজিকেই ভালোবাসলেন নেইমার

পিএসজিকেই ভালোবাসলেন নেইমার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বিদেশে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে হানিফের শঙ্কা

বিদেশে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে হানিফের শঙ্কা

আরও দুই জনের শরীরে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

আরও দুই জনের শরীরে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

পাটুরিয়ায় পারের অপেক্ষা

পাটুরিয়ায় পারের অপেক্ষা

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

খাকদোনের দূষণে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে স্থানীয়রা

দুর্বৃত্তের দেওয়া আগুনে পুড়লো ২০ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান

দুর্বৃত্তের দেওয়া আগুনে পুড়লো ২০ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান

ভ্যাকসিন পেতে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ভ্যাকসিন পেতে রাশিয়া ও চীনের সঙ্গে চুক্তি হচ্ছে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

কার্যালয়ের সামনেই প্রকৌশলীকে মারলো ঠিকাদার!

কার্যালয়ের সামনেই প্রকৌশলীকে মারলো ঠিকাদার!

পায়রা বন্দরে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০০ পরিবার পেলো পাকা বাড়ি

পায়রা বন্দরে ক্ষতিগ্রস্ত ৫০০ পরিবার পেলো পাকা বাড়ি

© 2021 Bangla Tribune