X
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

জাকাত চায় গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

আপডেট : ২১ এপ্রিল ২০২১, ১৯:৪৩

দরিদ্র জনগোষ্ঠীকে স্বল্পমূল্যে চিকিৎসা সেবা দিতে জাকাতের অর্থ চেয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। জাকাতের এই অর্থ দেশের বৃহত্তম ‘গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার’-এ দরিদ্র রোগীদের চিকিৎসায় ব্যয় করা হবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির মিডিয়া বিভাগ।

বুধবার (২১ এপ্রিল) গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রেস উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টু স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিকল কিডনি রোগের রোগীদের বেঁচে থাকার একমাত্র চিকিৎসা হলো ডায়ালাইসিস। কিডনি রোগের চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। রোগীদের ডায়ালাইসিসের খরচ ছাড়াও অন্যান্য চিকিৎসা খরচ, ওষুধ, যাতায়াত, বিশেষ খাবার ইত্যাদির খরচ বহন করতে হয়। রোগীর আর্থিক অবস্থা যেমনই হোক না কেন, এসব রোগী চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে ধীরে ধীরে দরিদ্র থেকে দরিদ্রতর হতে থাকে। একপর্যায়ে অনেকে অর্থের অভাবে ডায়ালাইসিস বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়।

এতে আরও বলা হয়, গত ১৪ এপ্রিল থেকে ডায়ালাইসিসের দর কমানোর পরও বিকল কিডনি রোগের রোগীরা টাকার অভাবে নিয়মিত ডায়ালাইসিস করাতে পারছেন না। গণস্বাস্থ্য ডায়ালাইসিস সেন্টার সমাজের অবস্থাসম্পন্ন ব্যক্তিদের সহায়তায় প্রতিদিন গড়ে ৩০০ জন বিকল কিডনি রোগীর নামমাত্র মূল্যে গুণগত মানের সেবা নিশ্চিত করতে চেষ্টা করে যাচ্ছে। এমতাবস্থায় আপনাদের সাহায্য প্রয়োজন, যারা সামর্থ্যবান, দেশ-বিদেশে বসবাস করেন, তারা দান করুন, জাকাত দিন।

জাকাত পাঠানোর ঠিকানা:
ব্যাংক হিসাব নাম্বার: Gonoshasthaya Dialysis
Center, A/C No : 017-1101-000001058, Swift ID : UCBLBDDHEPR, Routing
Number: 245261338, United Commercial Bank, Elephant Road Branch,
Dhaka-1207.

/এসটিএস/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মহামারিকালে ৩৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য দিয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

মহামারিকালে ৩৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য দিয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

নকল কসমেটিক-ভেজাল খাদ্য উৎপাদন: ১৫ লাখ টাকা জরিমানা  

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:০৫

রাজধানীর চকবাজার ও কামরাঙ্গীরচর এলাকায় নকল প্রসাধনী সামগ্রী ও অস্বাস্থ্যকর খাবার উৎপাদন, মজুত ও বিক্রির অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ সময় কয়েকটি প্রতিষ্ঠানকে ১৫ লাখেরও বেশি টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে র‍্যাব-১০ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) এনায়েত কবির সোয়েব এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি  বলেন, শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত চলা ওই অভিযানে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাজহারুল ইসলাম।

তিনি জানান, র‌্যাব-১০ ও বিএসটিআইয়ের প্রতিনিধি দলের সহযোগিতায় এ অভিযানে আকিব অ্যান্ড ব্রাদার্সকে ৬ লাখ টাকা, হাজী আব্দুল মজিদ স্টোরকে ৫ লাখ টাকা, অপর্না ট্রেডিং এজেন্সিকে ৩ লাখ টাকা, পারভেজ ফুড প্রোডাক্টকে ২৫ হাজার টাকা, হিমেল ফুড প্রোডাক্টকে ২০ হাজার ও তালহা ফুড প্রোডাক্টকে ১ লাখ টাকা করে সর্বমোট ১৫ লাখ ৪৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। 

এসময় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে ২ লাখ টাকার ভেজাল প্রসাধনী সামগ্রী জব্দ করা হয়।

বেশ কিছুদিন যাবৎ এই অসাধু ব্যবসায়ীরা নকল প্রসাধনী ও অস্বাস্থ্যকর খাবার উৎপাদন মজুত ও বিক্রি করে আসছিল বলে জানান এনায়েত কবির সোয়েব।

/এআরআর/ইউএস/

সম্পর্কিত

মুনিয়া হত্যা: হাইকোর্টে এক আসামির আগাম জামিন

মুনিয়া হত্যা: হাইকোর্টে এক আসামির আগাম জামিন

ফিরোজ রশীদের দুর্নীতি মামলায় হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত

ফিরোজ রশীদের দুর্নীতি মামলায় হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত

পেস্ট সোনাসহ বিমানবন্দরে দুবাই ফেরত যাত্রী আটক

পেস্ট সোনাসহ বিমানবন্দরে দুবাই ফেরত যাত্রী আটক

ইভানার পরিবারকে ডেকে মামলা নিলো পুলিশ

ইভানার পরিবারকে ডেকে মামলা নিলো পুলিশ

মেইল ট্রেনের নিরাপত্তায় পুলিশই থাকে না

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৫২

আন্তনগর ট্রেনের নিরাপত্তায় দুজন থেকে তিন জন কনস্টেবল দেওয়া হলেও মেইল এক্সপ্রেস কমিউটারে কোনও পুলিশ সদস্যই দিতে পারে না বাংলাদেশ রেলওয়ে পুলিশ। কারণ, ফোর্সের স্বল্পতা। ময়মনসিংহগামী মেইল এক্সপ্রেসে ডাকাতি ও যাত্রী খুন হওয়ার পর ট্রেনের নিরাপত্তার বিষয়ে প্রশ্ন উঠেছে। একটি ট্রেনে সর্বোচ্চ ২১/২২টি বগি থাকে, এত বড় ট্রেনে দুই বা তিন জন কনস্টেবল দিয়ে নিরাপত্তা নিশ্চিত হয় কিনা—সে প্রশ্নও উঠেছে। যাত্রীবাহী ট্রেনের নিরাপত্তা আরও জোরদারের দাবি করেছেন যাত্রীরা।

অপরদিকে ট্রেনের ছাদে মহামারির মধ্যে যাত্রী বোঝাই করে নেওয়ার দায় এড়িয়ে বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার বলেছেন, ‘আমাদের সঙ্গে আলোচনা হলেও ট্রেনের নিরাপত্তা রেলওয়ে পুলিশ তাদের মতো করে করেন।’

গত বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) বিকালে ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন থেকে ছেড়ে আসা দেওয়ানগঞ্জগামী ৫১নং কমিউটার ট্রেনটি গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশন ছেড়ে এলে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের সদস্যরা ছাদের ভ্রমণরত যাত্রীদের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় জামালপুর পৌর শহরের বাগেরহাট বটতলা এলাকার সাগর (২৫) ও দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সানন্দবাড়ী মিতালী বাজার এলাকার রুবেল (২৫) নিহত হন।

ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানায় মামলা হয়েছে এ ঘটনায়। এখন পর্যন্ত সন্দেহভাজন একজনকে আটক করা হয়েছে।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ময়মনসিংহ রেলওয়ে থানার এস আই মো. আকবর হোসেন জানান, শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে মামলাটি করেন নিহত মো. সাগরের মা হনুফা বেগম। মামলায় অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে।

ট্রেনে ডাকাতির ঘটনা ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে রেলওয়ে পুলিশ। ট্রেনটিতে ছাদে ঝুঁকি নিয়ে যাত্রীরা গন্তব্যে যাচ্ছিল। করোনা মহামারিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ট্রেনে ওঠার কথা থাকলেও যাত্রী, রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ কেউ তা মানেনি। এতেই ডাকাতির ঘটনা ঘটছে বলে মনে করছে রেলওয়ে পুলিশ ও বাংলাদেশ রেলওয়ে। কেউ ছাদে না উঠলে এমন ঘটনা ঘটতো না বলেই তারা মনে করছেন।

ট্রেনের প্রয়োজন অনুযায়ী নিরাপত্তা দেওয়া হয় উল্লেখ করে বাংলাদেশ রেলওয়ে পুলিশের ঢাকার পুলিশ সুপার (এসপি) সাইফুল্লাহ আল মামুন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমরা আন্তনগর ট্রেনে পুলিশ দিয়ে থাকি। এসব ট্রেনে অস্ত্রসহ দুই থেকে তিন জন কনস্টেবল দিতে পারি। কখনও কখনও এএসআই বা এসআইরাও থাকেন। তবে কমিউটারে বা মেইলে ফোর্স দিতে পারি না। কারণ, আমাদের ফোর্সের সংখ্যা কম। আমার জোনে ৯০ জোড়া (আসা-যাওয়া ১৮০) আন্তনগর ট্রেন চলে। তাদের দুই জন, তিন জনের বেশি ফোর্স দেওয়া যায় না। যারা একবার ট্রেনে ডিউটিতে ওঠেন, তারা গন্তব্যে যাবার পর আবার ওই ট্রেনেই নিরাপত্তা দিতে দিতে ফিরেন। তাদের পরের দিন ছুটি দিতে হয়। তা না হলে তাদের শরীর ঠিক থাকবে না। আমরা এভাবেই প্রয়োজন ও জনবল অনুযায়ী ট্রেনে পুলিশ সদস্য দিয়ে থাকি।’

তিনি বলেন, ‘নিরাপত্তার বিষয়টি আমরা গোয়েন্দা তথ্য ও প্রয়োজন অনুসারে করে থাকি। যখন কোনও তথ্য থাকে তখন সেসব ট্রেনে নিরাপত্তা বৃদ্ধি করা হয়। রাত-দিন সমান এই নিরাপত্তা থাকে।’

ময়মনসিংহগামী যে ট্রেনটিতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে তাতে তারা ফোর্স দিতে পারেননি বলেও জানান তিনি। যাত্রীদের ছাদে উঠে না যাওয়ার অনুরোধও করেন তিনি।

রেললাইন ছাড়াও রেলস্টেশন ও রেলওয়ের ভেতরের অপরাধ দমনও এই বাহিনীর দায়িত্বে। রেললাইনের নির্দিষ্ট এলাকার বাইরে তাদের কোনও কাজ নেই। তবে নির্দিষ্ট ওই এলাকার মধ্যেই অনেক ঘটনাই ঘটে। এসব দেখতে হয় রেলওয়ে পুলিশকে। প্রায় প্রতিদিনই দেশের কোনও না কোনও এলাকায় ট্রেনে কাটা পড়ে মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। ঘটছে ট্রেন দুর্ঘটনাও। এসব কিছুই দেখভাল করতে হয় রেল পুলিশকে। এছাড়াও রেলওয়ে পুলিশ ট্রেনের নিরাপত্তার পাশাপাশি মামলার তদন্ত, আদালতে সাক্ষ্য দেওয়া, মাদক উদ্ধারের অভিযান, প্রশাসনিক কাজ, স্টেশনের নিরাপত্তাসহ আরও কিছু কাজ করে। এসবের মধ্যেই যাত্রীবাহী ও মালবাহী ট্রেনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হয়। সর্বোচ্চ কর্মকর্তাসহ প্রায় আড়াই হাজারের জনবল নিয়ে রেলওয়ে পুলিশের অধীনে ৩৪৭টি যাত্রীবাহী ট্রেন পরিচালিত হয়। এরমধ্যে আন্তনগর ১০৪টি; মেইল, এক্সপ্রেস ও ডেমু ১২০টি এবং লোকাল ১৩৫টি ট্রেনের নিরাপত্তা কার্যক্রম পরিচালনা করে।

রেলওয়ে পুলিশের চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. হাসান চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘আমি নিরাপত্তার স্বার্থে ট্রেনে দেওয়া ফোর্সের কথা বলবো না, তবে আন্তনগর ট্রেনে আমরা নিয়মিত ফোর্স দিয়ে থাকি। মানুষকে সচেতন করতে কার্যক্রমও পরিচালনা করে থাকি।’

ময়মনসিংহের ঘটনায় প্রত্যক্ষদর্শী যাত্রীরা অভিযোগ করেছেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকা থেকে জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জগামী কমিউটার ট্রেনটি ময়মনসিংহ অতিক্রম করার পর ডাকাত দল লুটপাট শুরু করে। তারা কেউ ভেতরে প্রবেশ করেনি। ট্রেনের শব্দের কারণে ভেতরের কেউ শব্দও পায়নি। ডাকাতরা খুন ও লুট করে নির্বিঘ্নে পালিয়েছে।

যাত্রীরা ট্রেনটির ছাদে না উঠলে ময়মনসিংহগামী মেইল ট্রেনে যে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে তা এড়ানো যেতো বলে মনে করছেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্রনাথ মজুমদার। তিনি বলেন, ‘আমাদের সঙ্গে আলোচনা হলেও ট্রেনের নিরাপত্তা রেলওয়ে পুলিশ তাদের মতো করে করেন। নিরাপত্তার দায়িত্ব তাদের। আমরা যাত্রীদের ছাদে উঠতে নিষেধ করি, তারপরও তারা ছাদে উঠে ভ্রমণ করেন। যাত্রীদেরও আরও সচেতন হতে হবে।’

 

/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জীবন

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জীবন

রাখাইনে রেডক্রসকে আরও বেশি কাজ করার পরামর্শ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

রাখাইনে রেডক্রসকে আরও বেশি কাজ করার পরামর্শ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ঢাকার তিন নদীতে প্রাণ ফেরানো সম্ভব

ঢাকার তিন নদীতে প্রাণ ফেরানো সম্ভব

ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ঠ জীবন

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৪৪

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’ ভারতের উপকূলের দিকে সরে গেলেও এর প্রভাবে বাংলাদেশের আকাশে জ্বলীয়বাষ্পের উপস্থিতি রয়েছে। এর সঙ্গে সূর্য সোজাসুজি, অর্থাৎ খাড়াভাবে কিরণ ছড়ানোয় বেড়েছে এই গরম। সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ভোরে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’ ভারতের উপকূলে আঘাত হানতে পারে। এ কারণে চলমান ভ্যাপসা গরম আরও দুই থেকে তিন দিন থাকার সম্ভাবনা প্রকাশ করেছে আবহাওয়া অধিদফতর।

এদিকে গত সপ্তাহ থেকে বৃষ্টি কমে গিয়েছিল। গতকাল শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর)  সাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাবে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বৃষ্টি হওয়ায় কিছুটা স্বস্তি এলেও রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে তীব্র তাপ অনুভূত হচ্ছে। দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়ছে এর তীব্রতা।

আবহাওয়াবিদ আব্দুল মান্নান জানান, ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের উপকূলের দিকে যাচ্ছে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের আকাশে জ্বলীয়বাষ্পের সৃষ্টি হয়েছে। এর সঙ্গে সূর্য খাড়াভাবে কিরণ ছড়ানোয় গরম বেশি অনুভূত হচ্ছে। আগামী দুই থেকে তিন দিন এই আবহাওয়া বিরাজ করতে পারে বলে তিনি জানান।

আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়, ঝড়ের প্রভাবে খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, ঢাকা ও রাজশাহী বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেটের কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী বৃষ্টি হতে পারে। 

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ময়মনসিংহে ৩৬ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া বিভাগীয় শহরগুলোর মধ্যে ঢাকার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস, চট্টগ্রামে ৩৩ দশমিক ৫,  সিলেটে ৩৫ দশমিক ৭, রংপুরে ৩৫ দশমিক ৮, রাজশাহীতে ৩৬, খুলনায় ৩৩ দশমিক ২ এবং বরিশালে ৩৩ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। যা গত সপ্তাহের তুলনায় দুই থেকে তিন ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি।

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’ পশ্চিম ও উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থান করছে।

ঘূর্ণিঝড়ের কেন্দ্রস্থলের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ৬২ কিলোমিটার,  যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গভীর নিম্নচাপের কেন্দ্রের কাছে সাগর খুবই উত্তাল।

এজন্য চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরগুলোকে ২ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। একইসঙ্গে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।পাশাপাশি গভীর সাগরে বিচরণ করতে নিষেধ করা হয়েছে।

/এসএনএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

মেইল ট্রেনের নিরাপত্তায় পুলিশই থাকে না

মেইল ট্রেনের নিরাপত্তায় পুলিশই থাকে না

রাখাইনে রেডক্রসকে আরও বেশি কাজ করার পরামর্শ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

রাখাইনে রেডক্রসকে আরও বেশি কাজ করার পরামর্শ পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ঘূর্ণিঝড় 'গুলাব' ভারতের দিকে যাচ্ছে, গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৮ কিলোমিটার

ঘূর্ণিঝড় 'গুলাব' ভারতের দিকে যাচ্ছে, গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৮ কিলোমিটার

রাজধানীতে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৫২ জন গ্রেফতার

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৪:৩৭

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে ৫২ জনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

শনিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকাল ছয়টা থেকে রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ছয়টা পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

ডিএমপি’র জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে ৪,৪২৫ পিস ইয়াবা, ৫৬৩ গ্রাম হেরোইন, ২ কেজি ৩০০ গ্রাম গাঁজা ও ৬০ ক্যান বিয়ার জব্দ করা হয়।

গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে ৩৯টি মামলা হয়েছে।

/এআরআর/এমএস/

সম্পর্কিত

মাদকবিরোধী রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৯ জন

মাদকবিরোধী রাজধানীতে গ্রেফতার ৫৯ জন

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

রাজধানীতে মাদক ব্যবসায়ী সাড়ে ৩ হাজার 

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

মাদকবিরোধী অভিযানে রাজধানীতে গ্রেফতার ৫২

স্ত্রীর রেকিতে অফিসে চুরি করতেন স্বামী

স্ত্রীর রেকিতে অফিসে চুরি করতেন স্বামী

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আবারও দেশে গণটিকা কর্মসূচি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৫:৪৭

আগামী মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিনে দেশে আবারও গণটিকাদান কর্মসূচি চলবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, ‘২৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন। তার জন্মদিনেই এই টিকাদান কর্মসূচি শুরু হবে। আপাতত একদিনের জন্য এই ক্যাম্পেইন চলবে।’

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে টিকাদান কর্মসূচি নিয়ে সরকারের পরিকল্পনার বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

এর আগে গত ৭ আগস্ট থেকে প্রথম ধাপে গণটিকা দেওয়ার ঘোষণা দেয় সরকার। সেসময় পাঁচ দিনের জন্য চলে এ কার্যক্রম। তবে টিকার সংকটের কারণে সেই কার্যক্রম আর চালু রাখতে পারেনি সরকার। সেসময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, প্রত্যাশিত টিকা পেলে গণটিকা কর্মসূচি নিয়ে ভাবা হবে।

আজ ব্রিফিংয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, ২৮ তারিখ সকাল থেকে গণটিকাদান কর্মসূচি চলবে। এবারে গণটিকাদান কর্মসূচির ওইদিন ৮০ লাখ ডোজ টিকা দেওয়ার টার্গেট ধরা হয়েছে। এই টার্গেট পূর্ণ না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে। প্রয়োজনে একাধিক শিফটে টিকা দেওয়া হবে।

এর পাশাপাশি নিয়মিত চলমান কর্মসূচিও চলবে বলে জানান জাহিদ মালেক। তিনি বলেন, বর্তমানে নিয়মিত কর্মসূচিতেও প্রতিদিন ছয় লাখ ডোজ ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে।

এবারের টিকাদান কর্মসূচিকে ‘গ্রাম-গঞ্জ’ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, সেখানে দরিদ্র জনগোষ্ঠী রয়েছেন, যাদের মধ্যে অনেকে বয়স্ক রয়েছেন, হার্ড টু রিচ এলাকায়- যারা সবসময় টিকাদান কেন্দ্রে আসতেও পারেন না, তাদের জন্য এবারের টিকাদান কর্মসূচিতে অগ্রাধিকার থাকবে।

/জেএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

৪ কোটি টিকা দেওয়া শেষ 

৪ কোটি টিকা দেওয়া শেষ 

আবারও বরিশালসহ ৩ বিভাগে করোনায় মৃত্যুহীন দিন

আবারও বরিশালসহ ৩ বিভাগে করোনায় মৃত্যুহীন দিন

একদিনে ২২১ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

একদিনে ২২১ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মহামারিকালে ৩৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য দিয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

মহামারিকালে ৩৩ হাজার পরিবারকে খাদ্য দিয়েছে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

বাড়ি বাড়ি গিয়ে করোনার চিকিৎসা দেবে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

সর্বশেষ

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

ইভ্যালির প্রতারণা বোঝাই যায়নি: বাণিজ্যমন্ত্রী

পদ্মায় কম থাকলেও বাজার ভরে গেছে ‘পদ্মার ইলিশে’

পদ্মায় কম থাকলেও বাজার ভরে গেছে ‘পদ্মার ইলিশে’

এবার মিউজিক অ্যাওয়ার্ড চালু করছে আরটিভি

এবার মিউজিক অ্যাওয়ার্ড চালু করছে আরটিভি

বিদেশে অপ্রচারকারীর দাঁতভাঙা জবাব দিতে হবে: শিক্ষা উপমন্ত্রী

বিদেশে অপ্রচারকারীর দাঁতভাঙা জবাব দিতে হবে: শিক্ষা উপমন্ত্রী

এবারের গণটিকা কর্মসূচিতে প্রাধান্য পাচ্ছেন যারা

এবারের গণটিকা কর্মসূচিতে প্রাধান্য পাচ্ছেন যারা

© 2021 Bangla Tribune