X
বুধবার, ১২ মে ২০২১, ২৯ বৈশাখ ১৪২৮

সেকশনস

লিচু গাছে আম ধরার ঘটনাটি ‘ভুয়া’

আপডেট : ২২ এপ্রিল ২০২১, ১৭:২৩

ঠাকুরগাঁওয়ে লিচু গাছে অলৌকিকভাবে আম ধরা ও তা ছিঁড়ে ফেলা নিয়ে সৃষ্টি হয়েছে ধুম্রজাল। বিরল এ ঘটনা দেখতে দূরদূরান্ত থেকে মানুষ ছুটে আসছিলেন। এরই মাঝে হঠাৎ জানা গেল আমটি রাগের বশে ছিঁড়ে ফেলেছেন স্থানীয় এক সাবেক মেম্বার। আম ছিঁড়ে ফেলা নিয়েও নানাজনকে দায়ী করে লেখালেখি হয় বিভিন্ন মিডিয়ায়। এদিকে আম ছেঁড়ার একদিন পর বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) সেই আমের শুকিয়ে যাওয়া বোঁটা ও আঠাজাতীয় পদার্থের উপস্থিতিতে নতুন করে শুরু হয়েছে সমালোচনা।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ঠাকুরগাঁও কার্যালয়ের একজন কর্মকর্তা বলেছেন, ‘বিষয়টি ম্যানুপুলেট করা হয়েছে’। কেউ এটি আঠা জাতীয় কিছু দিয়ে লাগাতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

জানা গেছে, আমটি ছেঁড়ার পর তার বোঁটা শুকিয়ে গেছে, যা স্বাভাবিকভাবে আম ছিঁড়ে নেওয়ার পরে বোঁটার মতো নয়। সঙ্গে আঠাজাতীয় পদার্থের উপস্থিতিও রয়েছে। আমটি ছিঁড়ে ফেলার পরও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর ঠাকুরগাঁও কার্যালয় ওই ঘটনা পর্যবেক্ষণ করেছে।

ঠাকুরগাঁও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক আবু হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি ম্যানুপুলেট করা হয়েছে, সেটা এখন বোঝা যাচ্ছে। হয়তো এটি কেউ আঠা দিয়ে লাগিয়ে দিয়েছিল। অথবা অন্য কোনো কৌশলে এটি করা হয়েছে’।

তিনি বলেন, ‘লিচুর বোঁটাটি লম্বা হলেও আমেরটি স্বাভাবিকের তুলনায় খুব খাটো। এসব দেখে বিষয়টি খটকা লাগছে প্রথম থেকেই। ছিঁড়ে ফেলার কারণে এখন সেটা বোঝা যাচ্ছে। বোঁটা শুকিয়ে গেছে, যা স্বাভাবিক বোঁটার মতো নয়, বেশ কালচে’।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, প্রতিনিধিদল পাঠিয়ে বিষয়টি আমরাও পর্যবেক্ষণে রেখেছিলাম। এর মধ্যে ওপর মহলে যোগাযোগও করেছিলাম। দেখে মনে হয়েছে সত্যি লিচু গাছে আম ধরেছে। আমটি রাখতেও বলেছিলাম ওই পরিবারকে। কিন্তু সেটা ছিঁড়ে ফেলা হয়েছে। এ ঘটনা বেশি ছড়িয়ে পড়ছিল বলেই সেটি করা হয়েছে। তবে প্রকৃত ঘটনা জানার জন্য গবেষণার প্রয়োজন ছিল। কিন্তু আসল রহস্য আর জানা হলো না।

লিচু গাছে আম ধরার ঘটনার কোনো বিজ্ঞানসম্মত ব্যাখ্যা দিতে পারেননি উদ্যানতত্ত্ব বিশেষজ্ঞরা। ফলে এটিকে একটি অলৌকিক ঘটনা মেনে নিয়েছিল অনেকেই। বিষয়টি পর্যবেক্ষণের জন্য কয়েক দিন অপেক্ষার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। কারণ আমটি কোনো কৌশলে লাগানো হলে তা ঝরে পড়বে বা শুকিয়ে যাবে।

কৃষি কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, আমটি যদি বড় হতে থাকে, তখন সেটাকে অস্বাভাবিক ঘটনা হিসেবে নেওয়া হবে। তখন এটা নিয়ে গবেষণার সুযোগ থাকবে। তবে আমটি ছিঁড়ে ফেলার পর থেকেই স্থানীয়রা এটিকে সাজানো বলে অভিহিত করছেন। তবে যারা নিজের চোখে লিচুর গাছে আম ঝুলতে দেখেছেন তারা বিষয়টি অলৌকিক বলেই ধরে নিয়েছেন।

বাংলাদেশ পরমাণু কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউটের উদ্যানতত্ত্ব বিভাগের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. মো. রফিকুল ইসলাম জানান, এক গাছে অন্য ফল শুধু গ্রাফটিংয়ের মাধ্যমে সম্ভব। তবে লিচু ও আমের ক্ষেত্রে এটা করা যাবে না। লিচু ও আমের টিস্যু সিস্টেম এক নয়।

তিনি আরও জানান, লিচুর সঙ্গে আমগাছের ডাল জোড়া লেগেছে এমন উদাহরণ নেই। লিচু ও আম এক পরিবারের উদ্ভিদ নয়। ক্রোমোজোম সংখ্যা যদি এক হয়, তবে অনেক সময় ঘটতে পারে। সেটাও নয়। উদ্ভিদতত্ত্বে এর কোনো ব্যাখ্যা নেই।

ঠাকুরগাঁও কৃষি গবেষণা ইন্সটিটিউটের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. খুরশিদুজ্জামান বলেন, আমি বিষয়টির ছবি ও ভিডিও নিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়েছি। বিষয়টি নিয়ে তাদের সিদ্ধান্ত এখনো আসেনি। তবে এটা অসম্ভব বলেই তাদের ধারণা।

লিচু গাছটির মালিক আবদুর রহমান জানান, কোনো পদ্ধতি নয়, স্বাভাবিকভাবেই সেখানে আম ধরেছে। গত শনিবার সকালে তার নাতি হৃদয় ইসলাম তাকে জানায়, লিচু গাছে একটা আম ধরেছে। তিনি গিয়ে সরেজমিনে তা প্রত্যক্ষ করেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে বহু মানুষ এটি দেখতে ভিড় করেন। এরপর লিচু গাছে আমের ছবি গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। গত মঙ্গলবার এলাকার সাবেক মেম্বার সিকিম লিচু গাছ থেকে আমটি ছিঁড়ে ফেলেছেন বলে অভিযোগ করেন গাছের মালিক আবদুর রহমান।

তবে অভিযুক্ত সাবেক ইউপি সদস্য সিকিম বলেন, এলাকায় একটি লিচু গাছে আম ধরেছে। সেটি দেখার জন্য সারাদিন অনেক দূর থেকে মানুষ আসছে। গাড়ি নিয়েও লোকজন দলে দলে ভিড় করছে। এতে গতকাল আমার ভাতিজা মোটরবাইক দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে। তাই রাগের মাথায় আমটি ছিঁড়ে ফেলেছি। পরে বুঝতে পেরেছি, আমটি ছেঁড়া ঠিক হয়নি।

 

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

হিলি বন্দরে ছুটি প্রত্যাহার, চলছে আমদানি-রফতানি

হিলি বন্দরে ছুটি প্রত্যাহার, চলছে আমদানি-রফতানি

টিকার দ্বিতীয় ডোজের অনিশ্চয়তায় নীলফামারীর ৩৪ হাজার ৭৬৪ মানুষ

টিকার দ্বিতীয় ডোজের অনিশ্চয়তায় নীলফামারীর ৩৪ হাজার ৭৬৪ মানুষ

ত্রিপল ঢাকা ট্রাকে মানুষ আসছে রংপুর অঞ্চলে

ত্রিপল ঢাকা ট্রাকে মানুষ আসছে রংপুর অঞ্চলে

ঝড়ো হাওয়ায় উড়ে গেলো উপহারের ঘরের টিন, ভেঙে পড়লো পিলার!

ঝড়ো হাওয়ায় উড়ে গেলো উপহারের ঘরের টিন, ভেঙে পড়লো পিলার!

রেলপথে ভারত থেকে আসলো দেড়হাজার টন পেঁয়াজ

রেলপথে ভারত থেকে আসলো দেড়হাজার টন পেঁয়াজ

ঝড়-শিলায় ধান ও সবজির ব্যাপক ক্ষতি

ঝড়-শিলায় ধান ও সবজির ব্যাপক ক্ষতি

বাজারে রসালো ফল লিচু

বাজারে রসালো ফল লিচু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

প্রেমিকার বাড়ির পাশে বিয়ের কার্ড বিতরণ করতে এসে শ্রীঘরে

প্রেমিকার বাড়ির পাশে বিয়ের কার্ড বিতরণ করতে এসে শ্রীঘরে

উপাচার্যের ডাকা সিন্ডিকেট সভা বন্ধে শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়উপাচার্যের ডাকা সিন্ডিকেট সভা বন্ধে শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

দেবীগঞ্জে বজ্রাঘাতে দুই জনের মৃত্যু

দেবীগঞ্জে বজ্রাঘাতে দুই জনের মৃত্যু

ঈদকে সামনে রেখে নাশকতার পরিকল্পনা ছিল জঙ্গি আবু বকরের

ঈদকে সামনে রেখে নাশকতার পরিকল্পনা ছিল জঙ্গি আবু বকরের

সর্বশেষ

‘প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগ সারা বিশ্বে প্রশংসিত’

‘প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগ সারা বিশ্বে প্রশংসিত’

লকডাউনের মধ্যেই ঢাকায় ১৮ খুন ও ৩৭ ধর্ষণ

লকডাউনের মধ্যেই ঢাকায় ১৮ খুন ও ৩৭ ধর্ষণ

স্কুল শিক্ষক এখন কচু বিক্রেতা!

স্কুল শিক্ষক এখন কচু বিক্রেতা!

স্বীকারোক্তিতে কাদের নাম বলেছেন হেফাজত নেতা কাসেমী?

স্বীকারোক্তিতে কাদের নাম বলেছেন হেফাজত নেতা কাসেমী?

বার্সেলোনা কোচের চাকরি নিয়ে টানাটানি!

বার্সেলোনা কোচের চাকরি নিয়ে টানাটানি!

যথেচ্ছভাবে পুকুর ভরাট বন্ধে মানববন্ধন

যথেচ্ছভাবে পুকুর ভরাট বন্ধে মানববন্ধন

করোনা থেকে বাঁচতে যেখানে পালাচ্ছেন ভারতীয় ধনীরা

করোনা থেকে বাঁচতে যেখানে পালাচ্ছেন ভারতীয় ধনীরা

সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনা, দুই জঙ্গি ফের রিমান্ডে

সংসদ ভবনে হামলার পরিকল্পনা, দুই জঙ্গি ফের রিমান্ডে

টিকা তৈরির কারখানা চেয়ে মোদিকে ফের চিঠি মমতার

টিকা তৈরির কারখানা চেয়ে মোদিকে ফের চিঠি মমতার

ওভেন রফতানিতে চরম সংকট

ওভেন রফতানিতে চরম সংকট

ন্যানসি-কন্যা রোদেলার অভিষেক (ভিডিও)

ন্যানসি-কন্যা রোদেলার অভিষেক (ভিডিও)

শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ব্যস্ত নগরবাসী  

শেষ মুহূর্তের কেনাকাটায় ব্যস্ত নগরবাসী  

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হিলি বন্দরে ছুটি প্রত্যাহার, চলছে আমদানি-রফতানি

হিলি বন্দরে ছুটি প্রত্যাহার, চলছে আমদানি-রফতানি

টিকার দ্বিতীয় ডোজের অনিশ্চয়তায় নীলফামারীর ৩৪ হাজার ৭৬৪ মানুষ

টিকার দ্বিতীয় ডোজের অনিশ্চয়তায় নীলফামারীর ৩৪ হাজার ৭৬৪ মানুষ

ত্রিপল ঢাকা ট্রাকে মানুষ আসছে রংপুর অঞ্চলে

ত্রিপল ঢাকা ট্রাকে মানুষ আসছে রংপুর অঞ্চলে

ঝড়ো হাওয়ায় উড়ে গেলো উপহারের ঘরের টিন, ভেঙে পড়লো পিলার!

ঝড়ো হাওয়ায় উড়ে গেলো উপহারের ঘরের টিন, ভেঙে পড়লো পিলার!

রেলপথে ভারত থেকে আসলো দেড়হাজার টন পেঁয়াজ

রেলপথে ভারত থেকে আসলো দেড়হাজার টন পেঁয়াজ

ঝড়-শিলায় ধান ও সবজির ব্যাপক ক্ষতি

ঝড়-শিলায় ধান ও সবজির ব্যাপক ক্ষতি

বাজারে রসালো ফল লিচু

বাজারে রসালো ফল লিচু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু

প্রেমিকার বাড়ির পাশে বিয়ের কার্ড বিতরণ করতে এসে শ্রীঘরে

প্রেমিকার বাড়ির পাশে বিয়ের কার্ড বিতরণ করতে এসে শ্রীঘরে

উপাচার্যের ডাকা সিন্ডিকেট সভা বন্ধে শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়উপাচার্যের ডাকা সিন্ডিকেট সভা বন্ধে শিক্ষামন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

© 2021 Bangla Tribune