X
শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

কেঁচো সার উৎপাদনে স্বাবলম্বী তানিয়া

আপডেট : ০১ মে ২০২১, ২১:১৩

ফরিদপুরে ভার্মি কম্পোস্ট সার উৎপাদন করে স্বাবলম্বী হয়েছেন অনেকেই। ভার্মি কম্পোস্ট বা কেঁচো সার উৎপাদন করে অন্যদের মতো তানিয়া পারভীনও হয়েছেন স্বাবলম্বী। জৈব এই সার মাটিকে তাজা করে, নেই কোনো ক্ষতিকর দিক, দামেও সস্তা। তাই কৃষকেরও পছন্দ এই সার। ফলে দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে এই সারের চাহিদা।

ফরিদপুর পৌর এলাকার শোভাররামপুর মহল্লার বাসিন্দা তানিয়া পারভীন। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় ২০১৭ সালে তিনি ৩টি রিং স্লাব দিয়ে শুরু করেন এ সারের উৎপাদন। ধীরে ধীরে সার উৎপাদনের পরিধি বাড়িয়েছেন। এখন রিং স্লাবে সীমাবদ্ধ নেই তানিয়া। বাড়ির উঠোনে বিশাল টিনের সেড ও আরেক পাশে ছাপড়ার নিচে তৈরি করেছেন ২৪টি হাউজ বা চৌবাচ্চা। প্রতিটি হাউজ ৪ ফুট বাই ১০ ফুট আকারের।

প্রতিটি হাউজে ৪০ মণ গোবর, শাকসবজির উচ্ছিষ্টাংশ ও কলাগাছের টুকরো মিশ্রণ করে প্রতিটি হাউজে ১০ কেজি কেঁচো ছেড়ে দেয়া হয়। তারপর চটের বস্তা দিয়ে হাউজ ঢেকে রাখা হয়। এভাবে এক মাস ঢেকে রাখার পর তৈরি হয় ভার্মি কম্পোস্ট সার। প্রতি মাসে তানিয়ার ২৪টি হাউজ থেকে এক থেকে দেড় টন সার উৎপাদন হয়ে থাকে। প্রতি কেজি সার খুচরা ১৫ টাকা ও পাইকারি ১২টা করে বিক্রি করা হয়। এতে খরচ বাদে প্রতি মাসে আয় হয় ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা।

এদিকে তানিয়ার উৎপাদিত কেঁচো সার স্থানীয় কৃষকদের কাছে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। বিভিন্ন অঞ্চল থেকে চাষিরা এসে তানিয়া পারভীনের বাড়ি থেকে সার কিনে নিয়ে চাষাবাদ করছেন।

ভার্মি কম্পোস্ট সার ব্যবহারকারী চাষি জুয়েল মল্লিক বলেন, ভার্মি কম্পোস্ট সার জমির উর্বরতা বাড়ায়, ফলনও বেশি হয়। এছাড়া দামও কম। আর রাসায়নিক সারের দাম ও ক্ষতিকারক বেশি। এজন্য আমরা এখন জৈব সার ভার্মি কম্পোস্ট সার তানিয়া পারভীনের থেকে কিনে জমিতে ব্যবহার করছি। ফলে অল্প খরচে অধিক লাভবান হচ্ছি।

উদ্যোক্তা তানিয়া পারভীন বলেন, এই সার বিক্রি করে আমার প্রতি মাসে ২০ থেকে ২৫ হাজার টাকা আয় হচ্ছে। সারের চাহিদা থাকায় দিন দিন উৎপাদন বাড়িয়েছি। এখন এলাকার অনেকেই আমার কাছ থেকে সার উৎপাদনের কৌশল রপ্ত করছেন। তারাও আগামীতে ভার্মি কম্পোস্ট সারা উৎপাদন করবেন। তবে এজন্য সরকারি সহযোগিতা প্রয়োজন বলে তিনি দাবি করেন।

ফরিদপুর সদর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মো. আবুল বাসার মিয়া বলেন, কেঁচো দিয়ে সার উৎপাদনে কৃষকদের সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। জেলার প্রায় ৩শ’ কৃষক এই সার উৎপাদন করছেন। বর্তমানে রাসায়নিক সারের অতি ব্যবহারে জমির উর্বরতা শক্তি হ্রাস পাচ্ছে। পরিবেশবান্ধব এই সার মাটির স্বাস্থ্য রক্ষায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। পাশাপাশি রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমেছে। মাটির উর্বরতা শক্তি বৃদ্ধি পাচ্ছে।

 

/এনএইচ/

সম্পর্কিত

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বাজারটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বাজারটি

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩:০৫

দুই টেস্ট ও ১০টি ওয়ানডে ম্যাচসহ প্রিমিয়ার লীগের অসংখ্য খেলা গড়িয়েছে যে মাঠে সেটি এখন পড়ে আছে নিতান্ত অবহেলায়। অনেকটাই পরিত্যক্ত অবস্থায় গত ছয় বছর ধরে পানির নিচে তলিয়ে আছে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের মাঠ। জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের মালিকানাধীন আর্ন্তজাতিক মানের এ মাঠটির সংস্কারে কোনও উদ্যোগ নেই বলে অভিযোগ খেলোয়াড় ও সংগঠকদের। তাদের মতে অযত্ন-অবহেলার এক অনন্য নিদর্শন খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম। তবে কর্তৃপক্ষ বলছে দ্রুতই মাঠের সংস্কার করে খেলার উপযোগী করতে কাজ চলছে।  

সংশ্লিষ্টরা জানান, ২০০০ সালের ১০ সেপ্টেম্বর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়াম উদ্বোধন করেন। ২০০৬ সালে বাংলাদেশ বনাম অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট ম্যাচ দিয়ে আর্ন্তজাতিক ভেনু হিসেবে যাত্রা শুরু করে স্টেডিয়ামটি। দুই টেস্ট এবং ১০টি ওয়ানডেসহ প্রিমিয়ারলীগের অসংখ্য ম্যাচে রঙ ছড়িয়েছেন ক্রিকেটাররা। সর্বশেষ ২০১৫ সালে বাংলাদেশ ও ওয়েস্টইন্ডিজ টেস্ট ম্যাচের পর আর কোনও আর্ন্তজাতিক ম্যাচ মাঠটিতে গড়ায়নি। 

আউটার স্টেডিয়ামে জলাবদ্ধতা সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় আউটার স্টেডিয়াম থেকে শুরু করে মূল স্টেডিয়াম ভরা থৈ থৈ পানি আর কচুরিপানা। মাঠটি ডিএনডি প্রজেক্টের ভেতের থাকায় এবং ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড থেকে অনেক নিচু হওয়ায় সামান্য বৃষ্টিতেই তলিয়ে যায়। পাশের আউটার স্টেডিয়াম বর্তমানের হাটু পানির নিচে তলিয়ে আছে। কচুরিপানা আর কালো নোংরা পানিতে সৃষ্ট উৎকট দুর্গন্ধে টেকা দায়। আউটার স্টেডিয়ামের জলাবদ্ধতার আটকে থাকা পানি চুইয়ে মূল স্টেডিয়ামের ভেতের ঢুকে পড়ায় মাঠ পানির নিচে রয়েছে। এছাড়া দীর্ঘদিন ধরে পানির নিচে থাকায় এবং সংস্কার না হওয়ায় মাঠে জন্মেছে বড় বড় ঘাস। 

স্টেডিয়ামের দর্শক চেয়ারগুলো এখন বিবর্ণ ও নষ্ট হওয়ার পথে ২৫ হাজার দর্শকের ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন গ্যালারিতে বসার চেয়ার, ইলেকট্রনিক স্কোরবোর্ড, ভিআইপি গ্যালারি, সাংবাদিকদের বসার স্থান (প্রেস বক্স) ক্রিকেটারদের ড্রেসিং ও ওয়েটিংরুমসহ বাথরুম সবই এখন ব্যবহারের অনুপযোগী হওয়ার পথে। হঠাৎ করে মূল রাস্তা থেকে দেখলে আর্স্তজাতিক স্টেডিয়াম না ভেবে বড় ধরনের জলাশয় ভেবে বসতে পারেন যে কেউ। 

স্টেডিয়ামের মূল মাঠে যেন ঘাসের চাষ করা হয়েছে স্থানীয় ক্রিকেটার মোহাম্মদ আহমেদ হোসেন বলেন, নারায়ণগঞ্জ থেকে ফুটবল ও ক্রিকেটের অনেক খেলোয়াড় জাতীয় পর্যায়ে খেলে সুমান অর্জন করেছেন। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য নারায়ণগঞ্জে একটি আর্ন্তজাতিক মানের স্টেডিয়াম থাকার পরেও শুধু সংস্কারের অভাবে আমরা পিছিয়ে পড়ছি। এই স্টেডিয়ামের আর্ন্তজাতিক মানের খেলা অনুষ্ঠিত হলে, অনেকেই উৎসাহ পেতো। স্থানয়িভাবে আরও খেলোয়াড় তৈরি হতো। 

তিনি আক্ষেপ নিয়ে আরও বলেন, দীর্ঘ ছয় বছর ধরে মাঠটি পানির নিচে, আউটার স্টেডিয়াম পানির নিচে থাকায় আমরা খেলাধুলা এবং প্র্যাকটিস পর্যন্ত করতে পারছি না। কিন্তু সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যেন কোনও মাথাব্যথা নেই। 

মূল মাঠে পানি জমে থাকায় জন্মেছে বড় বড় ঘাস সাবেক ক্রিকেটার আল মামুন বলেন, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ শুধু নতুন স্টেডিয়াম বানানোর প্রকল্প নিয়ে ব্যস্ত। কিন্তু এই স্টেডিয়ামটি সংস্কার করলে যে টাকা খরচ হবে, নতুন একটি স্টেডিয়াম তৈরি করলে তার থেকে দশগুণ বেশি খরচ পড়বে। কিন্তু তারা নতুন স্টেডিয়াম বানাতেই বেশি আগ্রহী। যে কারণে গত ছয় বছর ধরে পানির নিচে থাকলেও নারায়ণগঞ্জের স্টেডিয়ামটির কোনও সংস্কার হচ্ছে না। 

স্থানীয় ক্রিকেটার নাহিয়ান বলেন, ফতুল্লা খান সাহেব ওসামান আলী স্টেডিয়ামের পূর্বপাশের আউটার স্টেডিয়ামে ২০১২, ১৩ ও ১৪ সালে একাধারে প্র্যাকটিস করেছি। সে সময় আমার মতো অসংখ্য ছেলে সেখানে প্র্যাকটিস করেছে। কিন্তু মাঠটি রাস্তা থেকে নিচু হওয়ায় এবং সামান্য বৃষ্টি হলে পানি জমে  জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। পানি নিষ্কাশনের কোনও ব্যবস্থা নেই। যে কারণে মাঠটি দীর্ঘদিন ধরেই পরিত্যক্ত অবস্থায় আছে। 

তিনি আরও বলেন, একটি মাঠের অভাবে আমাদের খেলাধুলা ও প্র্যাকটিস ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে, ঝরে পড়ছে উঠতি বয়সের খেলোয়াড়রা।


নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানভীর আহমেদ টিটু বলেন, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ চাইলে আগামী সাত দিনের মধ্যে খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের সংস্কার কাজ শুরু করে দিতে পারে। একজন খেলোয়াড় বা সংগঠক হিসেবে স্টেডিয়ামের দ্রুত সংস্কার শুরু করার দাবি জানাচ্ছি। 
তিনি আরও বলেন, এই মাঠে যদি একটি আর্ন্তজাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় তবে বাংলাদেশের সব মানুষ কিন্তু নিজের দেশে খেলা হচ্ছে বলেই খেলা দেখবে। এই জন্য বলছি এটি নারায়ণগঞ্জবাসীর নয়, দেশের সম্পদ।

তবে স্টেডিয়াম সংস্কারের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মোস্তাইন বিল্লাহ। তিনি বলেন, দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামটি ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে আছে। সেখানে জলাবদ্ধতার পানি আটকে থাকে। স্টেডিয়ামের প্রকৃত মালিক হচ্ছে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ। পরিষদ ক্রিকেট বোর্ডকে মাঠটি ব্যবহারের জন্য দিয়েছিল। স্টেডিয়ামের সংস্কারের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ যৌথভাবে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মাধ্যমে একটি কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। ইতোমধ্যে ফিজিবিলিটি স্টাডি হয়েছে। শুনেছি খুব দ্রুতই সংস্কার কাজ শুরু হবে। এটি ভেঙে নতুন করে উঁচু করে স্টেডিয়ামের আনুসাঙ্গিক কাজ করা হবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক এবং সিনিয়র মাঠ ব্যবস্থাপক সৈয়দ আব্দুল বাতেন বলেন,  জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ ও সিবিসি যৌথভাবে খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছে। এরই মধ্যে বুয়েট ড্রয়িং ডিজাইনের কাজ শেষ করেছে। এখন বিল অব কনট্রাক্টের কাজ চলছে। বুয়েটের সমীক্ষা শেষে আগামী ২০ বা ২৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে কত টাকা ব্যয় হবে সেই প্রস্তাবনা দেওয়া হবে। পরে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিয়ে সংস্কার কাজ শুরু করা হবে বলে জানান তিনি।

 

/টিটি/ 

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:২১

দিনাজপুরের সদর ও বিরলে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের অভিযানে জঙ্গি সন্দেহে প্রায় ৪৫ জনকে আটক করা হয়েছে। কয়েকটি মসজিদে অভিযান চালানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দিনাজপুর সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুজন সরকার। তবে নির্দিষ্ট কত জনকে আটক করা হয়েছে তা তিনি নিশ্চিত করতে পারেননি।

কথা হলে তিনি জানান, ঢাকা থেকে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা কয়েকটি মসজিদে অভিযান চালিয়েছেন। তারা আমাদের সহযোগিতা চেয়েছিল, এই হিসেবে তাদের সহায়তার জন্য দিনাজপুর থেকে পুলিশ সদস্যদের দেওয়া হয়েছিল।

সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত (১৭ সেপ্টেম্বর) ১২টার দিকে ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট দিনাজপুর সদর উপজেলার মহারাজা মোড়ের পূর্ব দিকে বাইতুল ফালাহ জামে মসজিদে অভিযান চালায়। এ সময় সেখান থেকে ১২ জনকে আটক করা হয়। একইসময়ে বিরল উপজেলার বিরল বাজার জামে মসজিদে অভিযান চালিয়ে ১৭ জনকে আটক করে ইউনিটের সদস্যরা। এছাড়া উপজেলা আরও দুটি মসজিদ থেকে প্রায় ১৫ জনকে আটক করা হয়। 

দুটি উপজেলার অভিযানেই স্থানীয় পুলিশ সদস্যরা সহযোগিতা করেন। 

পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, তাবলিগ জামায়াতের একটি দল দিনাজপুর সদর ও বিরল উপজেলায় বিভক্ত হয়ে নাশকতার পরিকল্পনা করছে, এমন তথ্যের ভিত্তিতে রাতে দিনাজপুরে আসে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের সদস্যরা। পরে তারা স্থানীয় পুলিশের সহযোগিতা নিয়ে যৌথভাবে অভিযান পরিচালনা করে।

বাইতুল ফালাহ জামে মসজিদের খাদেম আব্দুর রাজ্জাক বলেন, বৃহস্পতিবার ২২ জন মানুষ ঢাকা থেকে আসেন। তাদের মধ্যে ১২ জন এখানে অবস্থান করে বাকিরা অন্য মসজিদে থাকার কথা বলে চলে যান। রাতে এশার নামাজের পরে আমরা বাসায় চলে গেলে তারা এই মসজিদেই অবস্থান করছিল। পরে রাতে শুনতে পারি তাদেরকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪৩

রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে একদিনে আরও পাঁচ জন মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৮টার মধ্যে তারা মারা যান। এ নিয়ে চলতি সেপ্টেম্বরের ১৭ দিনে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১০৮ জনের মৃত্যু হলো। 

এর মধ্যে করোনায় ৩৬ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ৬০ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় সাত জনের মৃত্যু হয়।

এর আগে গত আগস্ট মাসে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৩৭৪ জন। এর মধ্যে করোনায় ১৫৪ জন, করোনা সংক্রমণের উপসর্গ নিয়ে ১৮৬ জন এবং করোনা নেগেটিভ সত্ত্বেও অন্যান্য শারীরিক জটিলতায় ৩৪ জনের মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এসব তথ্য নিশ্চিত করেন। 

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে দুই জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। এছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে রাজশাহীর তিন জন, নওগাঁ ও নাটোরের একজন করে রোগী মারা গেছেন।

হাসপাতালের পরিচালক আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ইউনিটে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ১৪ জন। এ নিয়ে ২৪০ বেডের বিপরীতে মোট ভর্তি রোগী আছেন ১১৩ জন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৩৯

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার ভাসানচর রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে পালানোর সময় স্থানীয় এলাকাবাসীর হাতে ১৮ জন রোহিঙ্গা আটক হয়েছেন। আটকদের মধ্যে ১০ জন শিশু ও ৮ জন প্রাপ্তবয়স্ক সদস্য রয়েছেন। তবে তাৎক্ষণিক পুলিশ তাদের নাম ও পরিচয় জানাতে পারেনি।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে (১৭ সেপ্টেম্বর) উপজেলার চেয়ারম্যানঘাট এলাকা থেকে তাদের আটক করে স্থানীয়রা। পরে রাত আড়াইটার দিকে তাদের পুলিশে সোপর্দ করা হয়।  

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ শহীদুল ইসলামের পাঠানো বার্তায় জানানো হয়, ভাসানচর আশ্রয়ণ কেন্দ্র থেকে নৌকাযোগে পালানোর সময় চেয়ারম্যানঘাট এলাকায় স্থানীয় এলাকাবাসী ১৮ রোহিঙ্গাকে আটক করে। আটক রোহিঙ্গাদের চেয়ারম্যানঘাট পুলিশ ক্যাম্পে এনে রাখা হয়েছে। তিনি আরও জানান, আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

মৃত্যু কমছে না ময়মনসিংহ মেডিক্যালে

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৪২

দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা শূন্যতে নেমে এলেও ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তা কমছে না। হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ছয় জন মারা গেছেন। এরমধ্যে করোনায় একজন ও উপসর্গ নিয়ে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনায় মারা যাওয়া ব্যক্তি ময়মনসিংহ জেলার বাসিন্দা। আর করোনা উপসর্গ নিয়ে নেত্রকোনার দুই জন এবং ময়মনসিংহ-গাজীপুর ও টাঙ্গাইলের একজন করে রোগীর মৃত্যু হয়। 

হাসপাতালের করোনা ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন শুক্রবার (১৭ সেপ্টেম্বর) সকালে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

তিনি আরও জানান, নতুন করে ১০ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৯২ জন এবং আইসিইউতে ৮ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। এছাড়া ২৮ জন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। 

এদিকে জেলা সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় ৩২৩টি নমুনা পরীক্ষায় ২৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার শতকরা ৭.১২ শতাংশ। জেলায় করোনা শনাক্ত ব্যক্তির সংখ্যা ২১ হাজার ৬৯৮ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২০ হাজার ৩১২ জন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

দিনাজপুরে মসজিদ থেকে জঙ্গি সন্দেহে আটক ৪৫

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে ১৭ দিনে ১০৮ মৃত্যু

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

১৮ রোহিঙ্গাকে পুলিশে দিলো স্থানীয়রা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বাজারটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বাজারটি

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

শিক্ষার্থীদের টিকার বিষয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন নির্দেশনা

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

জাতীয় উদ্যানে তরুণীর হাতের রগ কাটা লাশ

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

সুদিনের মৌমাছিদের কমিটিতে স্থান নেই: কৃষিমন্ত্রী

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

গাজীপুরে একদিনে ৩ জনের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

মেয়রের বাড়ির দেয়ালসহ ৪০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

শাপলা বেচে জীবন চলে ৩০০ পরিবারের

শাপলা বেচে জীবন চলে ৩০০ পরিবারের

শতবর্ষী গাছ কাটার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

শতবর্ষী গাছ কাটার ঘটনায় তদন্ত কমিটি

ধর্ষণের পর পুলিশ সদস্যের স্ত্রীকে হত্যা করে তারা

ধর্ষণের পর পুলিশ সদস্যের স্ত্রীকে হত্যা করে তারা

সর্বশেষ

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ছয় বছর ধরে পানিবন্দি ফতুল্লার ওসমান আলী স্টেডিয়াম 

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

ইভ্যালি বিক্রির পরিকল্পনা ছিল রাসেলের

টিভিতে আজ

টিভিতে আজ

জেনে-শুনেই নেতিবাচক স্ট্র্যাটেজি নিয়েছিলেন ইভ্যালির রাসেল

জেনে-শুনেই নেতিবাচক স্ট্র্যাটেজি নিয়েছিলেন ইভ্যালির রাসেল

ময়মনসিংহ থেকে ‘আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের দুই সদস্য’ গ্রেফতার

ময়মনসিংহ থেকে ‘আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের দুই সদস্য’ গ্রেফতার

© 2021 Bangla Tribune