X
শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১, ১১ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

'আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যার রায় দ্রুত কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে'

আপডেট : ০৭ মে ২০২১, ২৩:০৩

করোনা মহামারির কারণে আদালতের কার্যক্রম বন্ধ থাকায় আওয়ামী লীগ নেতা ও সাবেক সংসদ সদস্য আহসান উল্লাহ মাস্টারের হত্যা মামলার রায় কার্যকরে বিলম্ব হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, আদালতের কার্যক্রম পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হলে আহসান উল্লাহ মাস্টারের হত্যার রায় দ্রুত কার্যকরের উদ্যোগ নেওয়া হবে। খবর বাসসের।

শুক্রবার (৭ মে) শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের ১৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার এমপি স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত এক ভার্চুয়াল স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

সংগঠনের সভাপতি ও ঢাকা আইনজীবী সমিতির নবনির্বাচিত সভাপতি অ্যাডভোকেট আবদুল বাতেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমানের পরিচালনায় সভায় মহিলা ও শিশু বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ এমপি বিশেষ অতিথি হিসেবে অংশ নেন।

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী বলেন, যারা আহসান উল্লাহ মাস্টারকে হত্যা করেছে তাদের বিচারের রায় এখনও কার্যকর হয়নি। অবিলম্বে যাতে রায় কার্যকর হয় তার ব্যবস্থা করতে হবে।

এদিকে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে তার প্রতিষ্ঠিত হয়েদ্রাবাদ জনকল্যাণ সমিতি ও আহসান উল্লাহ মাস্টার স্মৃতি পরিষদ বাদ আসর মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করে। এছাড়া বাদ জুমা মসজিদে মসজিদে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।

এদিকে দিনের শুরুতে শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের সন্তান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল পিতার কবরে ফুলেল শ্রদ্ধা জানান এবং কবর জিয়ারত করেন। পরে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আকম মোজাম্মেল হক, সংসদ সদস্য মেহের আফরোজ, গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান ও গাজীপুর সিটি মেয়র জাহাঙ্গীর আলম আহসান উল্লাহ মাস্টারের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

স্মরণ সভায় মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের জীবন ও কর্মের স্মৃতিচারণ করে বলেন, তিনি টঙ্গী আসন থেকে ১৯৯৬ ও ২০০১ সালে দু'বার সংসদ সদস্য, ১৯৯০ সালে গাজীপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এবং ১৯৮৩ ও ১৯৮৭ সালে দু-দফা পুবাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছিলেন। তিনি ছিলেন আওয়ামী লীগের জাতীয় কমিটির সদস্য। তিনি জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ছিলেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ – (বিলস)-এর চেয়ারম্যান। তিনি শিক্ষক সমিতিসহ বিভিন্ন সমাজসেবামূলক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সঙ্গেও জড়িত ছিলেন।

১৯৯২ সালে উপজেলা পরিষদ বিলোপের পর চেয়ারম্যান সমিতির আহবায়ক হিসেবে উপজেলা পরিষদের পক্ষে মামলা করেন ও দেশব্যাপী আন্দোলন গড়ে তোলেন। এক পর্যায়ে তিনি গ্রেফতার হন ও কারা ভোগ করেন। মন্ত্রি তার বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় সবাইকে বিশেষ দোয়া করার জন্য অনুরোধ জানান।

/টিটি/

সম্পর্কিত

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকা: মোটরসাইকেলে ১০০০, কারে ৫০০ টাকা

মানিকগঞ্জ থেকে ঢাকা: মোটরসাইকেলে ১০০০, কারে ৫০০ টাকা

মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

মাওলানা ভাসানী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বিরুদ্ধে স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০৮ জনের

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০৮ জনের

এইচএসসির ফরম পূরণ ২৯ জুন থেকে শুরু

এইচএসসির ফরম পূরণ ২৯ জুন থেকে শুরু

বাক-বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে বাড়িতে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ১

বাক-বুদ্ধি প্রতিবন্ধীকে বাড়িতে ডেকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ১

স্থিতিশীল বঙ্গোপসাগর-ভারত মহাসাগর দেখতে চায় বাংলাদেশ

স্থিতিশীল বঙ্গোপসাগর-ভারত মহাসাগর দেখতে চায় বাংলাদেশ

গোষ্ঠীতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী দেশ পরিচালনা করছে: আমীর খসরু

গোষ্ঠীতান্ত্রিক শাসকগোষ্ঠী দেশ পরিচালনা করছে: আমীর খসরু

ভূমধ্যসাগরে ভাসমান অবস্থায় ইউরোপগামী ২৬৪ বাংলাদেশি উদ্ধার

ভূমধ্যসাগরে ভাসমান অবস্থায় ইউরোপগামী ২৬৪ বাংলাদেশি উদ্ধার

২০০ বছরের পুরনো হাটে ক্রেতা নেই

২০০ বছরের পুরনো হাটে ক্রেতা নেই

সর্বশেষ

কবরস্থানে সাইনবোর্ড লাগানো নিয়ে সংঘর্ষ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩

কবরস্থানে সাইনবোর্ড লাগানো নিয়ে সংঘর্ষ, অস্ত্রসহ গ্রেফতার ৩

মুম্বাইয়ে ২ হাজার, কলকাতায় ৫০০ জনের শরীরে করোনার ভুয়া টিকা

মুম্বাইয়ে ২ হাজার, কলকাতায় ৫০০ জনের শরীরে করোনার ভুয়া টিকা

মাঠের সমালোচনা করে শাস্তি পেলেন ব্রাজিল কোচ  

মাঠের সমালোচনা করে শাস্তি পেলেন ব্রাজিল কোচ  

‘গ্রিন ফাঙ্গাস’ করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ: বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা

‘গ্রিন ফাঙ্গাস’ করোনা রোগীদের মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায় তিন গুণ: বিশেষজ্ঞদের সতর্কতা

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

করোনার প্রভাব পড়েনি অর্থনীতির যে খাতে

পল্লবীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে লিফট মিস্ত্রীর মৃত্যু

পল্লবীতে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে লিফট মিস্ত্রীর মৃত্যু

পুলিশের সহায়তায় এসএসসি পরীক্ষার্থী’র ফরম ফিলাপ

পুলিশের সহায়তায় এসএসসি পরীক্ষার্থী’র ফরম ফিলাপ

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

তিব্বতে প্রথম বুলেট ট্রেন চালু করলো চীন

তিব্বতে প্রথম বুলেট ট্রেন চালু করলো চীন

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

২০ কোটি টাকার জাল স্ট্যাম্পসহ গ্রেফতার ৪ জন রিমান্ডে

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নকেই পাচ্ছে না উইম্বলডন

ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নকেই পাচ্ছে না উইম্বলডন

‌‘মা-বাবা বৃদ্ধাশ্রমে, রাস্তায় আপনার লাশ, এমন উন্নয়ন চাই না’

‌‘মা-বাবা বৃদ্ধাশ্রমে, রাস্তায় আপনার লাশ, এমন উন্নয়ন চাই না’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

টানা ৪ দিন ধরে খুলনা বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেশি

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০৮ জনের

২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ১০৮ জনের

স্থিতিশীল বঙ্গোপসাগর-ভারত মহাসাগর দেখতে চায় বাংলাদেশ

স্থিতিশীল বঙ্গোপসাগর-ভারত মহাসাগর দেখতে চায় বাংলাদেশ

অর্থনৈতিক পরিবর্তনের ‘গিয়ার’ হলো বাজেট: পরিকল্পনামন্ত্রী

অর্থনৈতিক পরিবর্তনের ‘গিয়ার’ হলো বাজেট: পরিকল্পনামন্ত্রী

করোনা নিয়ন্ত্রণে গোঁজামিল

করোনা নিয়ন্ত্রণে গোঁজামিল

ঢাকায় চার দিনেই ১০৭ শতাংশ বেড়েছে করোনা শনাক্ত 

ঢাকায় চার দিনেই ১০৭ শতাংশ বেড়েছে করোনা শনাক্ত 

বেসরকারি পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমোদন দিচ্ছে সরকার

বেসরকারি পর্যায়ে অ্যান্টিজেন পরীক্ষার অনুমোদন দিচ্ছে সরকার

চূড়ান্ত তালিকায় যুক্ত হলো আরও ২৯৭৩ বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম

চূড়ান্ত তালিকায় যুক্ত হলো আরও ২৯৭৩ বীর মুক্তিযোদ্ধার নাম

কোভিশিল্ডের টিকা এক কোটি ১ লাখ ডোজ শেষ

কোভিশিল্ডের টিকা এক কোটি ১ লাখ ডোজ শেষ

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ নতুন সেনাপ্রধানের

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ নতুন সেনাপ্রধানের

© 2021 Bangla Tribune