X
বুধবার, ১৬ জুন ২০২১, ২ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

অপরিপক্ব ফলে সয়লাব বাজার

আপডেট : ১২ মে ২০২১, ১০:২৩

চলে যাচ্ছে বৈশাখ। সামনে মধুমাস জৈষ্ঠ্য। বৈশাখের শুরু থেকেই কুমিল্লার বাজারে আসতে শুরু করেছে মৌসুমি ফল। আম, জাম, লিচু, কাঁঠাল, (লাল ও সাদা) জামরুল, আতাফল ও তরমুজসহ বিভিন্ন জাতের ফল। মৌসুমি এসব ফল নিয়ে মানুষের মধ্যে বিষাক্ত রাসায়নিক ভীতি কাজ করছে। নির্দিষ্ট সময়ের আগে অর্থাৎ পরিপক্ব না হতেই বাজারে আসায় ক্রেতাদের মধ্যে এই ভীতি তৈরি হয়েছে।

বিশেষ করে বাজারের যেসব আম এসেছে তা এখনও খাওয়ার উপযোগী হয়নি। কুমিল্লার বাজারে আসতে শুরু করা সাতক্ষীরার আম হিমসাগর ও গোবিন্দভোগ রাসায়নিক পদার্থ কার্বাইড মিশিয়ে পাকানো হচ্ছে। আম পাকানোর এই রাসায়নিক পদার্থ মানুষের শরীরের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর বলে জানান, কুমিল্লা জেলার কৃষি কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান।

এই কর্মকর্তা বলেন, ‘বৈশাখ মাস শেষ হতে এখনও বাকি আছে। আসছে জৈষ্ঠ্য মাস। জৈষ্ঠ্য মাসের ৫ তারিখ পর্যন্ত শুধু দেশি আম ছাড়া কোনও আম খাওয়াই নিরাপদ না। বৈশাখ মাসের মাঝামাঝি সময়ে বাজারে আসতে শুরু করা সাতক্ষীরার আম হিমসাগর ও গোবিন্দভোগ; যা এখনও পাকেনি। আরও সপ্তাহ বা ১০ দিন পর এই আম বাজারে এলে তা  খাওয়ায় ঝুঁকি কমবে। এর আগ পর্যন্ত বাজারের রাসায়নিক পদার্থ কার্বাইড মেশানো আম খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ঝুঁকিপূর্ণ। শুধু দেশি গুটিআম খাওয়া যাবে।’

মিজানুর রহমান আরও জানান, ‘বাজারের অসৎ ব্যবসায়ীরা নির্দিষ্ট সময়ের আগে বাগানে গিয়ে অপরিপক্ব আম নিয়ে এসে রাসায়নিক পদার্থ কার্বাইড মিশিয়ে পাকায়। এরপর এই আম বাজারে চড়া দামে বিক্রি শুরু করে। এগুলো কেনা মানে টাকা দিয়ে বিষ কিনে খাওয়া।’

সোমবার কুমিল্লার কান্দিরপাড়, টমছম ব্রিজসহ ফল বাজারের দোকানে দেখা গেলো, সাতক্ষীরা ও মানিকগঞ্জ থেকে আসা দুই, তিন জাতের আম বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। আমের প্রতি ক্রেতাদেরও বেশ চাহিদা রয়েছে। দোকানে দোকানে সাজিয়ে রাখা আম দূর থেকে দেখলেই বোঝার বাকি থাকে না এসব আম অপরিপক্ব। রাসায়নিক পদার্থ মিশিয়ে পাকানোর পর এই আম বিক্রি করা হচ্ছে। বিক্রি করা এসব আমের মধ্যে সাতক্ষীরার হিমসাগর বিক্রি হচ্ছে ১৩০-১৫০ টাকা কেজিতে। গোবিন্দভোগ ১১০-১৩০ টাকা এবং মানিকগঞ্জের গুটি আম বিক্রি হচ্ছে ১০০ টাকা কেজি দরে।

কুমিল্লার একটি ফলের বাজার এছাড়াও নগরীর ফল দোকানগুলোতে মৌসুমী অন্যান্য ফলের মধ্যে আসতে শুরু করেছে আম, জাম, লিচু, কাঁঠাল, (লাল ও সাদা) জামরুল, আতাফল ও তরমুজ। কুমিল্লার ফল বাজারে লিচুর চাহিদা বেড়েছে। সুস্বাদু এই ফল কিনছেন ক্রেতারা। প্রতি একশ’ লিচু কুমিল্লার বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৩৫০ টাকা দরে। এছাড়া তরমুজ প্রতি পিস বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৫০০ টাকায়, আতাফল ২০০ টাকা কেজি দরে।

আবুল হাসেম নামে এক ক্রেতা জানান, বাজারে মৌসুমি ফল এলেই মানুষের মধ্যে ফরমালিনের আতঙ্ক ভর করে। অসাধু ও অসৎ ব্যবসায়ীরা ফলে ফরমালিন ও কেমিক্যাল মিশিয়ে অপরিপক্ব ফল পাকানোর পর বিক্রি করেন। যার কারণে ফরমালিন আতঙ্কে ফল কিনতে ভয় হয়।’

কুমিল্লা নগরীর ফল বিক্রিতা মো. বাবুল বলেন, ‘মৌসুমী ফল বাজারে এলে প্রথম দিকে দামটা একটু বেশি থাকে। তবে মানুষ বেশি দাম দিয়েই সেগুলো কেনে। এখন যে ফল বিক্রি করছি, সব আমে কেমিক্যাল মেশানো হয়। ক্রেতা ধরে রাখতে বাধ্য হয়ে এভাবে বিক্রি করতে হচ্ছে।’ 

কান্দিরপাড়ের আম বিক্রেতা মো. সম্রাট বলেন, ‘আমি কুমিল্লার নিমসার আড়ত থেকে আম সংগ্রহ করছি। অপরিপক্ব আমে আমরা কোনও কেমিক্যাল ব্যবহার করি না। পাকা আমই কিনে আনি আড়ত থেকে। ওইখানে কীভাবে আম পাকানো হয়, তা আড়ত ব্যবসায়ীরা বলতে পারবেন।’

সম্রাট আরও বলেন, ‘রবিবার সারাদিন সাতক্ষীরার হিমসাগর ও গোবিন্দভোগ আম ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করেছি। বাজারে এ সব আমের চাহিদা রয়েছে।’

কুমিল্লার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন জানান, মৌসুমি ফল বাজারে আসছে। অপরিপক্ব আম কেমিক্যাল মিশিয়ে পাকানোর প্রমাণ পাওয়ায় গত কিছুদিন আগে নিমসার বাজারে একটন আম নষ্ট করা হয়েছে। বাজারে যাতে অপরিপক্ব ফল বিক্রি করতে না পারে, এর জন্য ফল বাজারকে মনিটরিংয়ের আওতায় আনবো।’

/আইএ/

সম্পর্কিত

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন কোম্পানীগঞ্জের সমস্যার সমাধান অচিরেই হবে: কাদের মির্জা

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন কোম্পানীগঞ্জের সমস্যার সমাধান অচিরেই হবে: কাদের মির্জা

সিরিয়াফেরত জঙ্গি শাখাওয়াত ফের ৩ দিনের রিমান্ডে

সিরিয়াফেরত জঙ্গি শাখাওয়াত ফের ৩ দিনের রিমান্ডে

‘করোনাকালীন কাজের স্বীকৃতি, আইএলও’র নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট’

‘করোনাকালীন কাজের স্বীকৃতি, আইএলও’র নির্বাচনে সর্বোচ্চ ভোট’

রোহিঙ্গা পরিবারের জাতীয়তা সনদ তৈরি, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা পরিবারের জাতীয়তা সনদ তৈরি, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা ডাকাতের এনআইডি: সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা ডাকাতের এনআইডি: সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

বান্দরবানে কলেরা আক্রান্তদের চিকিৎসায় সেনাবাহিনী

বান্দরবানে কলেরা আক্রান্তদের চিকিৎসায় সেনাবাহিনী

শেখ হাসিনা গণমাধ্যমবান্ধব: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

শেখ হাসিনা গণমাধ্যমবান্ধব: প্রাণিসম্পদমন্ত্রী

খেলাপি ঋণ বেড়ে হয়েছে  ৯৫ হাজার ৮৫ কোটি টাকা

খেলাপি ঋণ বেড়ে হয়েছে ৯৫ হাজার ৮৫ কোটি টাকা

শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে কমিটি গঠন করলেন কাদের মির্জা

শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে কমিটি গঠন করলেন কাদের মির্জা

ভারতে কোভিডের আরও শক্তিশালী স্ট্রেইন

ভারতে কোভিডের আরও শক্তিশালী স্ট্রেইন

মাদকের মামলায় নাসিরসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১৮ আগস্ট

মাদকের মামলায় নাসিরসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ১৮ আগস্ট

১০১ উপজেলার প্রাথমিকে ঘাটতি বাজেট মঞ্জুর

১০১ উপজেলার প্রাথমিকে ঘাটতি বাজেট মঞ্জুর

সর্বশেষ

গাজায় আবারও ইসরায়েলি বিমান হামলা

গাজায় আবারও ইসরায়েলি বিমান হামলা

মিয়ানমারের কাছে সামরিক প্রযুক্তি বিক্রি করছে ভারত

মিয়ানমারের কাছে সামরিক প্রযুক্তি বিক্রি করছে ভারত

সংক্রমণ ঠেকাতে সীমান্ত পাহারায় ভুটানের রাজা

সংক্রমণ ঠেকাতে সীমান্ত পাহারায় ভুটানের রাজা

রোনালদোর এক কথায় কোকা-কোলার সর্বনাশ!

রোনালদোর এক কথায় কোকা-কোলার সর্বনাশ!

আরও ২৭০ কোটি ডলার দান করলেন ম্যাকেঞ্জি

আরও ২৭০ কোটি ডলার দান করলেন ম্যাকেঞ্জি

জার্মানির আত্মঘাতী গোলে ফ্রান্সের উৎসব

জার্মানির আত্মঘাতী গোলে ফ্রান্সের উৎসব

পাকিস্তানের পার্লামেন্টে আইনপ্রণেতাদের লঙ্কাকাণ্ড

পাকিস্তানের পার্লামেন্টে আইনপ্রণেতাদের লঙ্কাকাণ্ড

ওমানের কাছেও হারলো বাংলাদেশ

বিশ্বকাপ বাছাইওমানের কাছেও হারলো বাংলাদেশ

করোনায় রক্ত জমাটের কারণ জানালেন আইরিশ বিজ্ঞানীরা

করোনায় রক্ত জমাটের কারণ জানালেন আইরিশ বিজ্ঞানীরা

রোনালদোর রেকর্ডময় রাতে উজ্জ্বল পর্তুগাল

রোনালদোর রেকর্ডময় রাতে উজ্জ্বল পর্তুগাল

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ২

সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ২

আমি সব সময় প্রস্তুত: জেনেভায় পৌঁছে বাইডেন

আমি সব সময় প্রস্তুত: জেনেভায় পৌঁছে বাইডেন

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন কোম্পানীগঞ্জের সমস্যার সমাধান অচিরেই হবে: কাদের মির্জা

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন কোম্পানীগঞ্জের সমস্যার সমাধান অচিরেই হবে: কাদের মির্জা

সিরিয়াফেরত জঙ্গি শাখাওয়াত ফের ৩ দিনের রিমান্ডে

সিরিয়াফেরত জঙ্গি শাখাওয়াত ফের ৩ দিনের রিমান্ডে

রোহিঙ্গা পরিবারের জাতীয়তা সনদ তৈরি, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা পরিবারের জাতীয়তা সনদ তৈরি, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা ডাকাতের এনআইডি: সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা ডাকাতের এনআইডি: সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে কমিটি গঠন করলেন কাদের মির্জা

শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে কমিটি গঠন করলেন কাদের মির্জা

আড়াই মাস পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় থামলো ট্রেন

আড়াই মাস পর ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় থামলো ট্রেন

কাদের মির্জাকে গ্রেফতার-বহিষ্কার না করলে লাগাতার আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

কাদের মির্জাকে গ্রেফতার-বহিষ্কার না করলে লাগাতার আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

ব্যবসায়ীরা সৎ না হলে তাদের বিচার আল্লাহ করবে: খাদ্যমন্ত্রী

ব্যবসায়ীরা সৎ না হলে তাদের বিচার আল্লাহ করবে: খাদ্যমন্ত্রী

শখের বসে গরু পালন করে কোটিপতি শাহ নেওয়াজ 

শখের বসে গরু পালন করে কোটিপতি শাহ নেওয়াজ 

© 2021 Bangla Tribune