X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সৌদি পৌঁছানোর পর প্রবাসীদের যত বিপদ

আপডেট : ২৯ মে ২০২১, ১৮:৫৭

সৌদি আরবের নতুন নিয়ম অনুযায়ী সেখানে পৌঁছেই সাতদিন হোটেলে বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হচ্ছে কর্মীদের। পৌঁছানোর পর দুদফায় করোনা পরীক্ষাও করাতে হবে। দুইবার নেগেটিভ এলে সপ্তম দিনে হোটেল ছাড়া যাবে। কিন্তু কোয়ারেন্টিনে শেষ হওয়ার পর দেখা দিয়েছে নতুন বিপদ। কোনও কোনও হোটেল সাতদিন পার হলেও করোনা পরীক্ষা করাচ্ছে না। আবার কোথাও নমুনা নিলেও রিপোর্ট ছাড়াই বের করে দিচ্ছে কর্মীদের। ফলে দ্বিতীয় দফার টেস্ট রিপোর্ট পাওয়া নিয়ে বিপদে আছেন প্রবাসী কর্মীরা। রিপোর্ট ছাড়া হোটেল থেকে বের হলে সৌদি সরকারের জরিমানা বা শাস্তির আতঙ্কে রয়েছেন তারা।

গত ১০ মে সৌদি আরবের জেনারেল অথরিটি অব সিভিল এভিয়েশন বিভিন্ন এয়ারলাইন্সকে জানিয়ে দেয়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে নতুন বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। যারা ভ্যাকসিন নেননি, তারা সৌদি আরবে প্রবেশ করলে সাতদিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। ২০ মে থেকে কার্যকর হওয়া এই নিয়ম অনুযায়ী হোটলের খরচ বহন করতে হবে যাত্রীকেই। হোটেলে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে গুনতে হবে কমপক্ষে ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকা।

সৌদি আরবের জেনারেল অথরিটি অব সিভিল এভিয়েশন আরও জানিয়েছে, প্রথমবার করোনা পরীক্ষা করতে হবে পৌঁছানোর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে। ৬ষ্ঠ দিনে করাতে হবে দ্বিতীয় টেস্ট।

জানা গেছে, সৌদি এয়ারলাইন্স জেদ্দার জন্য নূন্যতম ৫৫ হাজার এবং রিয়াদের জন্য নূন্যতম ৬৫ হাজার টাকা খরচ হিসেবে নিচ্ছে। সাতদিন হোটেলের থাকার পাশাপাশি এয়ারপোর্ট থেকে হোটেলে যাওয়ার গাড়ি, খাবার, করোনা পরীক্ষার খরচ সেখানে অন্তর্ভুক্ত।

প্রবাসী কর্মীদের অভিযোগ, হোটেলের মান অনুযায়ী খাবার ও সেবা দেওয়া হচ্ছে না বাংলাদেশি কর্মীদের। সিঙ্গেল রুম বুক করলেও হোটলে গিয়ে রুম শেয়ার করতে হচ্ছে অন্যদের সঙ্গে। আবার দ্বিতীয় দফায় করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়া নিয়েও বিপদে আছেন তারা। এসব সমস্যা সমাধানে দূতাবাসের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন প্রবাসীরা।

করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট ছাড়া হোটেল ছাড়া নিয়ে আতঙ্কে আছেন প্রবাসী কর্মীরা। কারণ সম্প্রতি সৌদি আরবের পাবলিক প্রসিকিউশন নতুন করে নিয়ম করেছে, কেউ যদি করোনাভাইরাস ছড়ায় তাকে ৫ বছরের জেল এবং সর্বোচ্চ ৫ লাখ সৌদি রিয়াল জরিমানা করা হবে। যদি ওই ব্যক্তি প্রবাসী হয়, তবে তাকে শাস্তির পর সৌদি আরব থেকে বিতাড়িত করা হবে এবং তিনি আর কোনও দিন দেশটিতে যেতে পারবেন না।

সৌদি প্রবাসী রমিজ মোহাম্মদ কাজ করেন দাম্মামে। ২৩ মে জেদ্দায় পৌঁছান। নিয়ম অনুযায়ী প্রথম অবতরণের স্থান হিসেবে তিনি কোয়ারেন্টিনে আছেন জেদ্দা পার্ক হোটেলে। সেখানে সাতদিন কোয়ারেন্টিন শেষে যাবেন দাম্মামে।

শুক্রবার রমিজ মোহাম্মদ বলেন, এই হোটেলে মিসরীয় নাগরিকরাও আছেন। কিন্তু তাদের খাবারের মান ও আমাদের মানে অনেক তফাৎ। সবাই সমান টাকা দিচ্ছি। তারপরও বৈষম্য। এই হোটেলে আমাদের প্রতি রুমে দুজন করে দিয়েছে। আজ রাতে (শুক্রবার) আমার কোয়ারেন্টিন শেষ হবে। কিন্তু এখনও আমার করোনা পরীক্ষা হয়নি। কে কোয়ারেন্টিনের ছাড়পত্র দেবে, কিছুই বুঝতে পারছি না।

একই পরিস্থিতিতে পড়েছেন হাবিব মজুমদার। তিরি বলেন, ‘যে হোটেলে উঠেছি তার খাবার খাওয়ার মতো নয়। আমার অ্যাপে কোয়ারেন্টিনের সময় আরও ১১ ঘণ্টা দেখাচ্ছে। অথচ হোটেলের লোকজন বলছে, আমি এখন যেতে পারবো। হোটেল প্যাকেজের মধেই ছিল ট্রান্সপোর্ট, খাবার ও দুইবার করোনা টেস্ট। এর জন্য খরচ হয়েছে ৬৫,৬০০ টাকা। অথচ করোনা টেস্টের জন্য নমুনা নিয়ে কোনও রিপোর্ট ছাড়াই বের করে দিচ্ছে হোটেল থেকে। আবার আমার কোম্পানি বলে দিয়েছে, করোনার রিপোর্ট ছাড়া তারা আমাকে গ্রহণ করবে না।’

আরও পড়ুন:

তথ্য না পেয়ে বিভ্রান্তিতে সৌদিগামী প্রবাসী কর্মীরা

সৌদি আরব ফিরতে প্রবাসী কর্মীদের বাড়তি খরচের বোঝা

/এফএ/

সম্পর্কিত

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

বিদেশে পড়তে যাওয়া সব শিক্ষার্থী টিকা পাবেন

বিদেশে পড়তে যাওয়া সব শিক্ষার্থী টিকা পাবেন

বিদেশে সামান্য ভুল নষ্ট করে রোজগার ও অবস্থান

বিদেশে সামান্য ভুল নষ্ট করে রোজগার ও অবস্থান

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:১০

সম্প্রতি সাতক্ষীরায় বনবিড়ালকে নির্মমভাবে পিটিয়ে হত্যার একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অভিযুক্ত সাইফুল ইসলাম নামের সেই ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার (৩০ জুলাই) তাকে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থেকে তাকে আটক করা হয়।

পুলিশ সদর দফতরের মি‌ডিয়া অ্যান্ড পাব‌লিক রি‌লেশন্স উইং‌ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, সাতক্ষীরার এক সচেতন নাগরিক অভিযোগ করেন, সাইফুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি দীর্ঘদিন ধরে বন্যপ্রাণি হত্যা করে আসছেন। এ বিষয়ে এলাকার মানুষজন তাকে বিভিন্ন সময় নিষেধও করেছে। কিন্তু তিনি কারও কথাই শোনেন না। সর্বশেষ গত ২৬ জুলাই একটি বনবিড়ালকে পিটিয়ে হত্যা করেন। যার ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। অভিযুক্ত মো. সাইফুল ইসলাম সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ থানার মথুরেশপুর ইউনিয়নের নিত্যানন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা।

অভিযোগ পেয়ে মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স উইং সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থানার ওসি মো. গোলাম মোস্তফাকে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশনা প্রদান করে। বার্তা পেয়ে ওসি কালীগঞ্জ তার একটি টিমকে নিয়োজিত করেন।

পুলিশ জানায়, তৎপরতা বুঝতে পেরে ওই ব্যক্তি আত্মগোপনে চলে গিয়েছিলেন। কয়েকদিন বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে অবশেষে তাকে আটক করে সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ থানা পুলিশ। তার বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।
 

/জেইউ/ইউএস/

সম্পর্কিত

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:২৫

রাশিয়া সফর শেষে শুক্রবার (৩০ জুলাই) দেশে ফিরেছেন নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম শাহীন ইকবাল। গত ২৩ জুলাই রাশিয়ার নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল নিকলাই আনাতোলেভিচ ইয়েভমেনভের আমন্ত্রণে তিনি রাশিয়া সফরে যান।

আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, রাশিয়া সফরকালে নৌবাহিনী প্রধান অ্যাডমিরাল এম শাহীন ইকবাল গত ২৫ জুলাই দেশটির নৌবাহিনীর ৩২৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান (325th Russian Naval Anniversary) ও ৫ম নেভাল প্যারেড (5th Naval Parade)-এ অংশগ্রহণ করেন। এ সময় নৌবাহিনী প্রধান উক্ত অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশ থেকে আগত নৌবাহিনী প্রধান ও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। পরে তিনি রাশিয়ার নৌ-সদর পরিদর্শনসহ দেশটির নৌবাহিনী প্রধান (Commander-in-Chief) অ্যাডমিরাল নিকলাই আনাতোলেভিচ ইয়েভমেনভের (Admiral Nikolai Anatolyevich Yevmenov) সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

সাক্ষাৎকালে দুই দেশের নৌপ্রধান পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধিসহ বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে আলোচনা করেন। এ সময় দুই দেশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া নৌবাহিনী প্রধান দেশটির নৌ-জাদুঘর ও ঐতিহাসিক স্থাপনাসমূহ পরিদর্শন করেন।

রাশিয়ায় রাষ্ট্রীয় সফর শেষে নৌবাহিনী প্রধান শুক্রবার (৩০ জুলাই) দেশে ফিরে এলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সহকারী নৌবাহিনী প্রধান (অপারেশন্স) এবং ঢাকার নৌ-প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ আনুষ্ঠানিকভাবে তাকে স্বাগত জানান।

 

/জেইউ/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠালে হজ-ওমরাহ ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না

সৌদি আরব থেকে ফেরত পাঠালে হজ-ওমরাহ ছাড়া প্রবেশ করা যাবে না

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

অধস্তন আদালতের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কালো ব্যাজ পরিধানের নির্দেশ

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

সুন্দরবন যেমন আছে তেমনই থাকতে দিন: সুলতানা কামাল

মাদক ভয়ংকর-৫

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:০০

মাদকাসক্তের সংখ্যা ও বাজার বিবেচনায় দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশ অন্যতম। প্রতিনিয়ত ধরা পড়ছে কারবারিরা। তবু থেমে নেই নতুন মাদকের আমদানি। এ নিয়ে ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ থাকলো পঞ্চম ও শেষ পর্ব।

মাদক কেনাবেচার বড় বাজার এখন অনলাইন। বাংলাদেশেও দেদার চলছে এ পদ্ধতি। সম্প্রতি এমনই প্রমাণ পেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

বাংলাদেশে ৬০ হাজার কোটি টাকার মাদক বাজার রয়েছে বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের। যে কারণে আন্তর্জাতিক চক্রের নজর এখানে থাকবে এটাই স্বাভাবিক। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরাও জানিয়েছেন, ‘তারা এ ব্যাপারে যথেষ্ট তৎপর।’

বিটকয়েনে অর্থপাচার
গত ৬ জুলাই রাতে রাজধানীর হাতিরঝিলে অভিযান চালিয়ে ‘ম্যাজিক মাশরুম’ ও বিদেশি মদসহ দুই যুবককে আটক করে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ম্যাজিক মাশরুমের পাঁচটি বার উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতার হওয়া নাগিব হাসান অর্নব (২৫) থাকতো কানাডায়। সে এই মাদক বাংলাদেশে নিয়ে আসে। ‘চকোলেট কেক’ হিসেবে কুরিয়ারের মাধ্যমে অনলাইনে অর্ডার নিয়ে এ মাদক বাংলাদেশে আনে সে। মাদকের টাকা পরিশোধ করতো দেশে অবৈধ ভার্চুয়াল মুদ্রা বিটকয়েনে।

র‌্যাবের মুখপাত্র খন্দকার আল মঈন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীরা এখন বেশ চালাক। তাদের লেনদেনগুলো ধরার সুযোগ কম। নতুন যেসব মাদক পাওয়া গেছে সেগুলো আনা হতো বিদেশ থেকে। বিট কয়েন, পেপালসহ অনলাইন নানা পেমেন্ট গেটওয়ের মাধ্যমে চলতো লেনদেন।’

মাদকের বাজার ৬০ হাজার কোটি টাকা
বাংলাদেশে মাদকের বাজার কত তার সুনির্দিষ্ট হিসাব নেই। তবে মাদকসেবী ও মাদক উদ্ধারের পরিসংখ্যান দিয়ে তা অনুমান করা যায়। দেশের ৭৬ লাখ মাদকসেবী গড়ে দিনে ৩৫০-৪০০ টাকার মাদক সেবন করে। এ ছাড়াও বছরজুড়ে উদ্ধারকৃত মোট মাদকের ৯ গুণ বাজারে আছে বলে বিবেচনা করা হয়।

গবেষক ও বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এমদাদুল হক বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মাদক যা ধরা পড়ে বাজারে তার ৯ গুণ বেশি আছে বলে ধরা হয়। এটাই আন্তর্জাতিক প্যারামিটার।’

এ ছাড়াও পাইকারি ও খুচরা বাজারে ৫-৬ ধাপে মাদক বিক্রি হওয়ার পর সেবীদের হাতে পৌঁছায়। এসব কিছু মাথায় রেখে হিসাব করে বেসরকারি বিভিন্ন সংগঠন দাবি করে বাংলাদেশের মাদকের বাজার প্রায় ৬০ হাজার কোটি টাকার।

২০২০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি এক অনুষ্ঠানে তৎকালীন র‌্যাবের মহাপরিচালক এবং বর্তমানে পুলিশ মহাপরিদর্শক বেনজীর আহমেদ বলেছিলেন, ‘দেশে ৮০ লাখ মাদকসেবী রয়েছে। তারা প্রতিদিন প্রায় ২৫০ কোটি টাকা মাদকের পেছনে খরচ করে।’

মানস-এর প্রতিষ্ঠাতা অধ্যাপক ডা. অরুপ রতন চৌধুরী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘৬০ হাজার কোটি টাকার মধ্যে ৫০ হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয় মাদক কেনাবেচায়। বাকি ১০ হাজার কোটি টাকা চিকিৎসা, পুর্নবাসন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর খরচ, সচেতনতামূলক কার্যক্রম এসবের ব্যয়।’

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর বার্ষিক যে রিপোর্ট প্রকাশ করে তাতে দেখা গেছে, ২০২০ সালে অধিদফতর, পুলিশ, র‍্যাব, বিজিবি ও কোস্টগার্ড সারা দেশে অভিযান চালিয়ে ৩ কোটি ৮৩ লাখ ৮৩ হাজার ৩১৭টি ইয়াবা বড়ি, ১৩ লাখ ৩৭ হাজার ১৭৭ বোতল ফেনসিডিল, ৫০ হাজার ৭৮ কেজি গাঁজা, প্রায় ৭২ কেজি আফিম এবং প্রায় ৪ কেজি কোকেন উদ্ধার করে।

ওই বছর এসব ঘটনায় ৮৫ হাজার ৭১৮টি মামলায় ১ লাখ ১৩ হাজার ৫৪৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

/এফএ/
টাইমলাইন: ভয়ংকর মাদক
৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়
২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:০০
২৮ জুলাই ২০২১, ১৩:০০
২৬ জুলাই ২০২১, ১৬:০৯

সম্পর্কিত

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

সাপ্তাহিক ছুটির দিনে ঢিলেঢালা চেকপোস্ট

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫:২০

ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে মিথ্যাচার, অপপ্রচার ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা ও ব্যক্তিবর্গের সম্মানহানি করার অপচেষ্টার অভিযোগে হেলেনা জাহাঙ্গীরকে রাজধানীর গুলশান থেকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দিবাগত রাতে তাকে গুলশানের বাসা থেকে আটক করা হয়। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, ‘ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ সংস্থা এবং ব্যক্তিদের সম্মানহানি করার অপচেষ্টা চালিয়েছেন হেলেনা জাহাঙ্গীর। গ্রেফতারের সময় তার বাসা থেকে মাদক, ওয়াকিটকি, হরিণের চামড়া উদ্ধার করা হয়।’

এ ব্যাপারে বিকাল ৪টায় সংবাদ সম্মেলনে বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হবে বলেও জানান খন্দকার আল মঈন।

আরও পড়ুন...

হেলেনা জাহাঙ্গীরের আইপি টিভির কার্যালয়ে র‌্যাবের অভিযান

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

/আরটি/আইএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রতি শনিবার সকাল ১০টায় ১০ মিনিট সময় চাই: আতিকুল ইসলাম

প্রকাশিত সংবাদের একাংশের প্রতিবাদ

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪:২৫

গত ২৮ জুলাই ২০২১ বাংলা ট্রিবিউনে প্রকাশিত 'সুপারিশ বন্ধ না হলে আ.লীগে বিতর্কিতদের সংখ্যা বাড়বেই' শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের একটি অংশের প্রতিবাদ জানিয়েছেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোহাম্মদ জোবায়ের। জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্যাডে ওই প্রতিবাদ পাঠান তিনি।

সংবাদে লোহাগাড়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির সুপারিশে নেতা হয়েছেন – প্রকাশিত এ বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে জোবায়ের বলেন, লোহাগাড়া উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবিরের বিষয়ে নেতিবাচক তথ্য দেওয়া হয়েছে। প্রতিবাদলিপিতে তিনি বলেন, আমি সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব পালন করছি গত চার বছর। এই সময়ে হুমায়ুন কবিরকে সংগঠনের একনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে দেখেছি। সে দীর্ঘদিন ধরে দলের জেলা ও কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে আসছে। আমাদের একজন সক্রিয় কর্মী হওয়ার কারণে বিএনপি-জামাত কর্তৃক হয়রানির শিকার হয়েছেন তিনি। তাই বর্ণিত পুরো বিষয়টি উদ্দেশ্য প্রণোদিত এবং আমার ও আমাদের প্রাণের সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার জন্য সৃজন করা হয়েছে বলে আমি মনে করি। আমি সাতকানিয়া পৌরসভার দুই বারের নির্বাচিত মেয়র। এই সংবাদের কোনও ভিত্তি নাই। আমরা এই সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানাই।

/পিএইচসি/এমএস/

সম্পর্কিত

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

সর্বশেষ

ট্রেনে তৃতীয় ধাপে ২০০ মে. টন অক্সিজেন দেশে পৌঁছেছে

ট্রেনে তৃতীয় ধাপে ২০০ মে. টন অক্সিজেন দেশে পৌঁছেছে

পেটের চর্বি কমাতে যা খাবেন

পেটের চর্বি কমাতে যা খাবেন

বন্ধু দিবসে নকশীকাঁথার নতুন গান

বন্ধু দিবসে নকশীকাঁথার নতুন গান

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

বনবিড়াল পিটিয়ে হত্যাকারী সেই ব্যক্তি আটক

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

রাশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরলেন নৌবাহিনী প্রধান

ডোবায় মিললো শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ 

ডোবায় মিললো শিশুর হাত-পা বাঁধা লাশ 

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

‘লকডাউন কনটিনিউ’র সুপারিশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের

কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

মাদক ভয়ংকর-৫কারবারিরা লেনদেন করছে ভার্চুয়াল মুদ্রায়

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

একাধিক মামলা হচ্ছে হেলেনা জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে

ভারতের আরও দুই ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত

ভারতের আরও দুই ক্রিকেটার করোনায় আক্রান্ত

করোনা মোকাবিলায় লকডাউন কোনও সমাধান নয়: জিএম কাদের

করোনা মোকাবিলায় লকডাউন কোনও সমাধান নয়: জিএম কাদের

বাগেরহাটে পানিবন্দি অর্ধ লক্ষাধিক পরিবার

বাগেরহাটে পানিবন্দি অর্ধ লক্ষাধিক পরিবার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

‘মানবপাচার মামলার প্রসিকিউশনে ত্রুটিগুলোর দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে’

বিদেশে পড়তে যাওয়া সব শিক্ষার্থী টিকা পাবেন

বিদেশে পড়তে যাওয়া সব শিক্ষার্থী টিকা পাবেন

বিদেশে সামান্য ভুল নষ্ট করে রোজগার ও অবস্থান

বিদেশে সামান্য ভুল নষ্ট করে রোজগার ও অবস্থান

ইতালি প্রবাসীদের মিলনমেলা

ইতালি প্রবাসীদের মিলনমেলা

জাপানের কানসাইয়ে আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

জাপানের কানসাইয়ে আ.লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

হংকংয়ে বাংলাদেশ চেম্বারের নতুন কমিটি

হংকংয়ে বাংলাদেশ চেম্বারের নতুন কমিটি

মানবপাচার ও জোরপূর্বক শ্রম বন্ধে কঠোর অবস্থানে মালয়েশিয়া

মানবপাচার ও জোরপূর্বক শ্রম বন্ধে কঠোর অবস্থানে মালয়েশিয়া

সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন ১১ নারী গৃহকর্মী

সৌদি থেকে দেশে ফিরলেন ১১ নারী গৃহকর্মী

টিকা নিয়ে সংশয় না রাখার আহ্বান স্বাস্থ্য অধিদফতরের

টিকা নিয়ে সংশয় না রাখার আহ্বান স্বাস্থ্য অধিদফতরের

© 2021 Bangla Tribune