X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

শিক্ষার্থীদের ওপর ভ্যাট আরোপে সরকারের গণবিরোধী চরিত্র স্পষ্ট : গণসংহতি

আপডেট : ০৫ জুন ২০২১, ১৯:১০
video

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ১৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ শিক্ষার্থীদের প্রতি সরকারের গণবিরোধী চরিত্রকে আরও স্পষ্ট করেছে বলে অভিযোগ করেছে জোনায়েদ সাকি নেতৃত্বাধীন গণসংহতি আন্দোলন। দলটি জানিয়েছে, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর ১৫% ভ্যাট আরোপ করে শিক্ষার বাণিজ্যিকীকরণের ধারাবাহিকতাকেই অব্যাহত রাখা হয়েছে।


শনিবার (৫ জুন) রাজধানীর হাতিরপুলের কেন্দ্রীয় কার্যযালয়ে অনুষ্ঠিত বাজেটের আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে লিখিত বক্তব্যে এসব অবস্থান তুলে ধরে গণসংহতি। লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন দলের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল।

গণসংহতির বক্তব্যে বলা হয়েছে, করোনার কারণে শিক্ষা কার্যক্রম সামনে আর কতোটা বাধাগ্রস্ত হবে তা এখনই সুনির্দিষ্ট করে বলা যাচ্ছে না। কাজেই সরাসরি শ্রেণিকক্ষে ক্লাস নেয়া বা পরীক্ষা নেয়ার জন্য সামনের দিনেও ইন্টারনেটের ওপর নির্ভরশীলতা থাকবে। সেক্ষেত্রে শিক্ষার ডিজিটাল অবকাঠামো নির্মাণে যে ধরনের মনোযোগ দরকার তা বাজেটে দেখা যাচ্ছে না।

সংগঠনের অভিযোগ, সরকারের অষ্টম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায়ও শিক্ষার ডিজিটাল কার্যযক্রমের বিষয়টিকে উপেক্ষা করা হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে সংহতির প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি বলেন, বাজেট নিছক আয়-ব্যয়ের হিসাব নয়। সরকার বাজেটে কোথাও কম-বেশি বরাদ্দ বাড়িয়েছে কিম্বা কমিয়েছে। এই বরাদ্দ বাড়ানো কিম্বা কমানোর মধ্যে বাস্তবে কোনো পরিবর্তন ঘটে না।’

সাকি অভিযোগ করেন, স্বাস্থ্য খাতে এবারও থোক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর অর্থ হচ্ছে সরকারের কোনো সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নাই, স্বাস্থ্যখাতের কোন কোন বিষয়ে তারা অগ্রাধিকার দিবে। এই অগ্রাধিকার সুনির্দিষ্ট না থাকার ফলে ব্যয় কিভাবে হবে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা থাকে না। ফলে বিভিন্ন ক্রয় খাত থাকে, সেখানে বিভিন্ন লবিস্ট গ্রুপ প্রকল্প নিয়ে হাজির হয় এবং সেখানে দুর্নীতির নহর বয়ে যায়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনটির রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য তাসলিমা আখতার, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য মনির উদ্দীন পাপ্পু প্রমুখ।


এসটিএস/এমএস/

সম্পর্কিত

রাজনৈতিক কৌশল ও অবস্থানে পরিবর্তন আনছে গণসংহতি!

রাজনৈতিক কৌশল ও অবস্থানে পরিবর্তন আনছে গণসংহতি!

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অপসারণ দাবি করলেন জোনায়েদ সাকি

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অপসারণ দাবি করলেন জোনায়েদ সাকি

সংগ্রামই আবদুস সালামকে বাঁচিয়ে রাখবে: জোনায়েদ সাকি

সংগ্রামই আবদুস সালামকে বাঁচিয়ে রাখবে: জোনায়েদ সাকি

শেখ হাসিনা না জন্মালে ভোট ও ভাতের অধিকার পেতাম না: শেখ পরশ

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২১:২৬

যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জন্ম না নিলে আমরা আজ একটা মানচিত্র পেতাম না, পতাকা ও জাতীয় সংগীত পেতাম না; আর শেখ হাসিনা জন্ম না নিলে আমরা গণতন্ত্র পেতাম না, সামাজিক ন্যায়বিচার, অর্থনৈতিক মুক্তি, ভোট ও ভাতের অধিকার এবং একটা মর্যাদাশীল দেশ পেতাম না।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা'র ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে যুবলীগের উদ্যোগে মিরপুর বাংলা উচ্চ বিদ্যালয়ে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন শেখ ফজলে শামস পরশ। তিনি বলেন, শেখ হাসিনা দেশে ফিরে দলকে সুসংগঠিত করা, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করা এবং ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের বিচার করার সংগ্রামে নেমেছিলেন। তিনি বলেন, সকল দুঃখ-কষ্ট বুকে নিয়ে রাত-দিন সংগঠনের পেছনে সময় দিতেন। দলকে সুসংগঠিত করার জন্য তিনি সমগ্র দেশ সফর করে বেরিয়েছেন।

আওয়ামী লীগের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য এবং জাতির পিতার হত্যার বিচারের জন্য শেখ হাসিনাকে কঠোর পরিশ্রম আর সংগ্রাম করতে হয়েছে উল্লেখ করে যুবলীগ চেয়ারম্যান বলেন, পুড়ে পুড়ে খাঁটি হয়েছেন তিনি। তার জীবনের সংগ্রাম এবং স্বজন হারানোর অভিজ্ঞতা তাকে শুধু একজন ত্যাগী জননেত্রী হিসেবেই সৃষ্টি করেনি, বিশ্বের একজন অন্যতম সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবেও প্রতিষ্ঠিত করেছে।

বিএনপি-জামায়াতের উদ্দেশে তিনি বলেন, ২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে বিএনপি-জামায়াত দেশে কী করেছে? জঙ্গিবাদের উত্থান, বারবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন, কৃষকের ওপর অত্যাচার, সাংবাদিকদের ওপর অত্যাচার, সংখ্যালঘু সম্প্রাদায়ের ওপর অত্যাচার, রাজাকারের গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়ে শহীদের রক্তের সাথে বেঈমানি, মৌলবাদের উত্থান থেকে শুরু করে নৌকার ভোটারদের ওপর অত্যাচার-নির্যাতনের ইতিহাস কারও অজানা নয়।

জাতিসংঘে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের প্রসঙ্গে শেখ পরশ বলেন, প্রধানমন্ত্রী সাম্যের কথা, অর্থনৈতিক বৈষম্যের কথা এবং সামাজিক অবিচারের কথা। বৈশ্বিক অঙ্গীকারের উদাহরণস্বরূপ তিনি টিকার ন্যায্য হিসসা এবং ফিলিস্তিনের সাধারণ মানুষের বিরুদ্ধে অবিচারের কথা বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশ আজ দ্রুত বর্ধমান পাঁচটি অর্থনৈতিক দেশের মধ্যে একটি। বিশ্বনেতৃবৃন্দের প্রতি কয়েকটি প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে- টিকা বৈষম্য দূরীকরণ, সবার জন্য ন্যায়সংগত ও সাশ্রয়ী মূল্যে টিকা পাওয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করা, প্রবাসী ও অধিবাসীদের অধিকারের কথা, রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের জোরালো ভূমিকা এবং রোহিঙ্গাদের মর্যাদাপূর্ণ প্রত্যাবর্তন।

সভায় অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ১৬ আসনের সংসদ সদস্য মো. ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ, ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি জাকির হোসেন বাবুল, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাইনুদ্দিন রানা এবং ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এইচ এম রেজাউল করিম রেজা, আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. রফিকুল ইসলাম, মোয়াজ্জেম হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার মৃণাল কান্তি জোদ্দার, মো. আনোয়ার হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নাঈম, প্রচার সম্পাদক জয়দেব নন্দী, দপ্তর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদ প্রমুখ। 

/পিএইচসি/ইউএস/

সম্পর্কিত

লক্ষ্যমাত্রার আগেই আমরা উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবো: পাটমন্ত্রী

লক্ষ্যমাত্রার আগেই আমরা উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবো: পাটমন্ত্রী

দেশের অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব: ওবায়দুল কাদের

দেশের অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব: ওবায়দুল কাদের

‘খুনি নূরকে দেশে ফেরাতে কানাডায় প্রবাসী বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

‘খুনি নূরকে দেশে ফেরাতে কানাডায় প্রবাসী বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

লক্ষ্যমাত্রার আগেই আমরা উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবো: পাটমন্ত্রী

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:০০

লক্ষ্যমাত্রার আগেই বাংলাদেশ উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবে বলে মনে করেন বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী। তিনি বলেন, বিএনপির আমলে ব্যবসা করতে গিয়ে বিদুৎ পেতাম না। বিদুৎ ছাড়া শিল্পায়ন হয় না। শেখ হাসিনা সরকার এসে সেই বিদুতের সমস্যা সমাধান করছেন। এখন আর লোডশেডিং হয় না। 

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) জাতীয় জহুর হোসেন চৌধুরী হলে শহীদ ময়েজউদ্দিনের ৩৭তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ‘গণতন্ত্রে ধারাবাহিকতা ও উন্নত সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনে জনপ্রতিনিধি ও পেশাজীবীদের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা ও স্মরণ সভা তিনি এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, আমরা বিদ্যুতে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছি, শেখ হাসিনা সেটা করেছেন। এই বিদ্যুতের কারণে আজ চারদিকে উন্নয়ন আর উন্নয়ন। রাস্তাঘাটের উন্নয়ন করায় দেশে শিল্পায়ন হয়েছে। এই শিল্পায়নের কারণে দেশে অর্থায়ন হয়েছে। শেখ হাসিনা আমাদের মধ্যম আয়ের দেশে নিয়ে গেছেন। ইনশাল্লাহ, আমরা চাচ্ছি- তার (শেখ হাসিনা) জীবদ্দশায় এদেশকে যেন উন্নত রাষ্ট্রের দিকে নিয়ে যেতে পারি।

শহীদ মোহাম্মদ ময়েজউদ্দিনের স্মৃতিচারণ করে পাটমন্ত্রী বলেন, তিনি মাঠে থেকে সংগ্রাম করেছেন। মাঠে থেকে সংগ্রামের কারণেই তাকে হত্যা করা হয়েছিল। ওনার এই ত্যাগের কারণে তৎকালীন স্বৈরশাসকের ভিত নড়ে গিয়েছিল। ফলে সেদিন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসেছিল। তিনি বড় মাপের একজন নেতা হয়েও সবসময় মাঠে সংগ্রাম করে গেছেন।

আলোচনা ও স্মরণসভায় উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ ময়েজউদ্দিনের কন্যা, মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি। তিনি বলেন, শহীদ মোহাম্মদ ময়েজউদ্দিন শুধু রাজনীতিবিদই ছিলেন না, তিনি বিশ্বমানের সমাজসেবক ছিলেন। তার হাত ধরে এ দেশে রেড ক্রিসেন্ট এসেছে। পরিবার পরিকল্পনার মতো প্রকল্প তিনি যুদ্ধের পরপরই উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন। সে বিষয়ে তিনি বঙ্গবন্ধুকে পরামর্শ দিয়েছিলেন। এদেশে মাইক্রো ক্রেডিট-এর ধারণা তিনি করে গেছেন। তবে তা ড. ইউনুসের মতো না। তিনি বিনাসুদে মাইক্রো ক্রেডিট চালু করতে চেয়েছিলেন।

আওয়ামী লীগের এই সংসদ সদস্য আরও বলেন, শহীদ ময়েজউদ্দিন যখন কাজের জন্য প্রস্তুত হয়েছিলেন তখনই তাকে হত্যা করা হয়। হত্যাকারীদের ১৩ জনের ১২ জনই পরবর্তী সময়ে বিএনপির নেতা হয়েছিল। আল্লাহতায়ালা মহান ব্যক্তিদের অসম্পূর্ণ কাজগুলো তাদের রক্ত যাদের মাঝে বহমান তাদের দিয়ে আদায় করে নেন। তাই তো শেখ হাসিনা যেমন বঙ্গবন্ধুর অসম্পূর্ণ কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তেমনি আমিও আমার পিতার অসম্পূর্ণ কাজগুলো সম্পন্ন করার সুযোগ পেয়েছি।

আলোচনা ও স্মরণসভায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়া ও সাংবাদিক ইকবাল সোবহান চৌধুরীসহ আরও অনেকে উপস্থিত ছিলেন ।

/জেডএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

শেখ হাসিনা না জন্মালে ভোট ও ভাতের অধিকার পেতাম না: শেখ পরশ

শেখ হাসিনা না জন্মালে ভোট ও ভাতের অধিকার পেতাম না: শেখ পরশ

দেশের অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব: ওবায়দুল কাদের

দেশের অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব: ওবায়দুল কাদের

‘খুনি নূরকে দেশে ফেরাতে কানাডায় প্রবাসী বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

‘খুনি নূরকে দেশে ফেরাতে কানাডায় প্রবাসী বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

নদী দখলকারীদের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:০৯

দেশের সব নদী, উপকূলীয় বেড়ি বাঁধ সুরক্ষার দাবিতে এবং দখলকারীদের বিরুদ্ধে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা এখন সময়ের দাবি বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন ও সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) বিকালে গণমাধ্যমে পাঠানো  বিজ্ঞপ্তিতে তারা এ আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, বিশ্ব নদী দিবস (২৬ সেপ্টেম্বর) উপলক্ষে আগামীকাল সোমবার দিবসটি উদযাপন করবে ওয়ার্কার্স পার্টি। ‘মানুষের জন্য নদী' এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দলটির নেতাকর্মীরা গতবছরের মতো এবারও ২৭ সেপ্টেম্বর ‘তিস্তা আন্দোলনের’ প্রতি সংহতি জানিয়ে নদী দিবসে দেশের প্রতিটি জেলা ও অঞ্চলের নদ-নদী দখল,  দূষণমুক্ত ও সুরক্ষার দাবিতে পার্টির উদ্যোগে নদী দিবসের কর্মসূচি পালন করবে।

বিবৃতিতে মেনন ও বাদশা বলেন, দেশের নদ-নদীকে সুরক্ষা করা না গেলে  জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে দেশের বিরাট অংশ পানির নিচে ঢুবে যাবে। জলবায়ু শরণার্থীতে পরিণত হবে কোটি মানুষ। সাগরের লবণাক্ত পানিতে তলিয়ে যাবে দক্ষিণাঞ্চলের ১৯টি উপকূলীয় জেলা।

 

/এসটিএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ন্ত্রণে আইন অপরিহার্য: ইনু

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ন্ত্রণে আইন অপরিহার্য: ইনু

‘উপজেলা প্রশ্নে হাইকোর্টের নির্দেশনা ঐতিহাসিক রায়’

‘উপজেলা প্রশ্নে হাইকোর্টের নির্দেশনা ঐতিহাসিক রায়’

দেশের অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব: ওবায়দুল কাদের

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৪০

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সহিংসতা আর জ্বালাও-পোড়াও করে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতি নষ্ট করতে চাইলে দাঁতভাঙা জবাব দেওয়া হবে।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে ‘মানবতার আলোকবর্তিকা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা’ শীর্ষক দলের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ উপ-কমিটির আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আজকে সিরিজ বৈঠক করছেন, সিরিজ বৈঠক তো নয়, ষড়যন্ত্র বৈঠক। আবারও জ্বালাও-পোড়াওয়ের ইচ্ছা আপনাদের আছে বোধহয়। সেই দুরভিসন্ধি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন।

তিনি বলেন, একটি কথা মনে রাখবেন, এবার যদি কোনও সহিংসতার আশ্রয় নেন, দেশে কোনও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেন; শেখ হাসিনার অর্জন, অনন্য সাফল্য নষ্ট করতে চান, তাহলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তার দাঁতভাঙা জবাব দিতে আমরা প্রস্তুত।

প্রধানমন্ত্রীর জাতিসংঘ সফরে কোনও অর্জন নেই বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আজকে অবাক লাগে। মির্জা ফখরুল বলেন, এই সফরে কোনও অর্জন নেই। ফখরুল সাহেব দুনিয়ার কোনও খবর রাখেন না। জাতিসংঘের অধিবেশনে প্রত্যেকটি ফোরামের বক্তব্য, মূল অধিবেশনে শেখ হাসিনার বক্তব্য সারা বিশ্বে প্রশংসিত হয়েছে। বাংলাদেশের সুনাম মর্যাদা শেখ হাসিনা নতুন মাত্রায় উন্নীত করেছেন।

তিনি বলেন, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে তিনি যে বক্তব্য দিয়েছেন, টিকা বৈষম্য নিয়ে কথা বলেছেন, সারা দুনিয়া আজকে মুগ্ধ। তিনি বলেছেন, সবার জন‌্য টিকায় সমান সুযোগ থাকতে হবে‑ এটা কি আপনি শোনেননি। নিউ ইয়র্ক টাইমস পত্রিকাটি পড়েননি। এই পত্রিকার মতো আন্তর্জাতিক খ‌্যাতিসম্পন্ন ও বহুল প্রচারিত পত্রিকাগুলোও এমন মন্তব‌্য করেছে।

মির্জা ফখরুলকে নিউ ইয়র্ক টাইমসের ওই মন্তব‌্য পড়ার পরামর্শ দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, নিউ ইয়র্ক টাইমস আমেরিকার প্রেসিডেন্টকে বলছে, দারিদ্র্যের ব‌্যাপারে কি করবেন, বাংলাদেশের দিকে তাকান। শেখ হাসিনার দিকে তাকান। দারিদ্র্য বিমোচন কীভাবে করতে হয় শেখ হাসিনা দেখিয়ে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন‌্যা সাহস করে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া নিয়ে কথা বলতে পেরেছেন। ফখরুল সাহেব বলেছেন, রোহিঙ্গা ইস‌্যু নিয়ে সরকার কিছু বলেনি। রোহিঙ্গা ইস‌্যু নিয়ে শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের নিজেদের সমস‌্যা-সংকট আছে। এর ভেতরেও এতদিন ধরে আমরা ১১ লাখ রোহিঙ্গা মিয়ানমারের নাগরিকদের আশ্রয়-খাবার দিচ্ছি। এই সমস‌্যা সমাধানে বিশ্বের বড় দেশগুলো আমাদের জন‌্য কিছুই করেনি। সাহস করে বঙ্গবন্ধুকন‌্যা এই সত‌্য উত্থাপন করেছেন।

জাতিসংঘের এ সফরে শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে আরও একধাপ উঁচুতে নিয়ে গেছেন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এবারের জাতিসংঘে ভূমিকা, তার সাহসিকতা, মানবিকতা, দূরদর্শিতার যে প্রশংসা পেয়েছে, সেই প্রশংসার ফলে বাংলাদেশের মর্যাদা বৃদ্ধি পেয়েছে। আর আপনারা সমালোচনা আর বিদ্বেষমূলক অপপ্রচার করে বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে আরও একধাপ নিচে নেমে গেছেন।

এ সময় শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসা করে তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুকন‌্যা জাতিকে ঐক‌্যবদ্ধ করে গণতন্ত্রকে শৃঙ্খলমুক্ত করতে আপসহীন নেতৃত্ব দিয়েছিলেন। তিনি এসেছিলেন বলেই মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করে, বঙ্গবন্ধু হত‌্যাকারীদের বিচার করে জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করেছেন। তিনি এসেছিলেন বলেই বাংলাদেশ আজ উন্নয়নশীল দেশ। যে আওয়ামী লীগকে বিএনপি নেত্রী বলেছিল ১০০ বছরেও ক্ষমতায় আসতে পারবে না, সেই আওয়ামী লীগ মোট ১৮ বছর টানা অতিক্রম করছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি সময়ের নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন।

সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেন, নিজের জীবনের মায়া ত‌্যাগ করে আলোকবর্তিকা হয়ে তিনি দেশকে পথ দেখাচ্ছেন।

দলটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়ন-অগ্রগতি বিএনপি সহ্য করতে পারে না। এ জন্য এত উন্নয়ন-অগ্রগতি প্রশ্নবিদ্ধ করতে তারা নানা ধরনের মিথ্যাচার করে, মিথ‌্যা তথ‌্য দিয়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করতে চেষ্টা করছে। এই চক্রান্তের বিরুদ্ধে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।

মতিয়া চৌধুরীর সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, ত্রাণ ও সমাজকল‌্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী।

/পিএইচসি/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

শেখ হাসিনা না জন্মালে ভোট ও ভাতের অধিকার পেতাম না: শেখ পরশ

শেখ হাসিনা না জন্মালে ভোট ও ভাতের অধিকার পেতাম না: শেখ পরশ

লক্ষ্যমাত্রার আগেই আমরা উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবো: পাটমন্ত্রী

লক্ষ্যমাত্রার আগেই আমরা উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হবো: পাটমন্ত্রী

‘খুনি নূরকে দেশে ফেরাতে কানাডায় প্রবাসী বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

‘খুনি নূরকে দেশে ফেরাতে কানাডায় প্রবাসী বাঙালিদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে’

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

সার্চ কমিটিও একটি আইনি প্রক্রিয়া, বলছে আওয়ামী লীগ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে পশ্চিমা বিশ্বের সুবিধাগুলো নিতে চায় সরকার: মির্জা ফখরুল

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২৭

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, রোহিঙ্গা ইস্যু জিইয়ে রেখে পশ্চিমা বিশ্বের আন্তর্জাতিক সুবিধাগুলো গ্রহণ করতে চায় সরকার।

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

কৃষক দলের নবগঠিত কমিটির সভাপতি হাসান জাফির তুহিন ও সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুলসহ নেতাকর্মীদের নিয়ে জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন বিএনপি মহাসচিব।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জাতিসংঘ সফর প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এখানে (প্রধানমন্ত্রীর নিউ ইর্য়ক সফরে) আমি কোনও আউটকাম পাইনি। এমনকি রোহিঙ্গাদের যে সমস্যা, সেই সমস্যারও তিনি (প্রধানমন্ত্রী) কোনও সমাধান নিয়ে আসতে পারেননি। আমরা যেটা মনে করি যে, রোহিঙ্গা ইস্যুকে এখনও পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী বলুন, এই সরকার বলুন, তারা কোনও ইতিবাচক ভূমিকা পালন করেনি। এখন পর্যন্ত শুধু রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে তারা দেশগুলো সফর করেনি, বিশেষ করে যারা স্টেকহোল্ডার আছে সেই দেশগুলো, যেমন- চীন ও ভারত, তাদের কাছে তারা (সরকার) এখনও পর্যন্ত যেতে পারেনি। এই সমস্যা সমাধানের কোনও পথ তারা বের করতে পারেনি।’

এ সময় খালেদা জিয়াকে নিয়ে সরকারপ্রধান শেখ হাসিনার বক্তব্যের নিন্দা জানান ফখরুল। তিনি বলেন, ‘তার (শেখ হাসিনা) সম্পর্কে যেসব বক্তব্য পত্র-পত্রিকায় উঠে এসেছে, তা খণ্ডন করার জন্য খালেদা জিয়া সম্পর্কে অনেক নেতিবাচক কথা উনি বলেছেন, যার আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি, প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

প্রধানমন্ত্রীর সফরে অর্জন প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘অর্জন তার একটাই—তা হলো আরও মিথ্যাচার কীভাবে করা যায়। আপনারা লক্ষ করে দেখবেন, তার গোটা বক্তৃতার মধ্যে দেশে যে গণতন্ত্র নেই, দেশে যে মানুষের অধিকার হরণ করা হয়েছে, দেশে যে নির্বাচন কমিশনকে সম্পূর্ণ ধ্বংস করে দেওয়া হয়েছে এবং একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র গঠনের জন্য যেসব উপাদান দরকার, তার প্রত্যেকটিকে ধ্বংস করে দিয়ে এখানে সব প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ করা হয়েছে, তা থেকে উত্তরণের কোনও কথা নেই। ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্র এখানে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।’

‘এ অবস্থা থেকে কীভাবে তিনি দ্রুত সত্যিকার অর্থে একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে পরিণত করবেন এবং নির্বাচনি ব্যবস্থাকে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় পরিণত করবেন, জনগণের এখন যে দুর্ভোগ, অসহায় অবস্থা কীভাবে দূর করবেন, সেই সম্পর্কে তিনি কোনও কিছু উল্লেখ করেননি’- যোগ করেন ফখরুল।

প্রসঙ্গত, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত  শুক্রবার (২৪ সেপ্টেম্বর) তিনি অধিবেশনে ভাষণ দেন। গত ২১ সেপ্টেম্বর থেকে এই অধিবেশন শুরু হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘তারা সত্যিকার অর্থেই পদত্যাগ করে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচনকালীন সরকারের অধীনে, একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায়,  নির্বাচনের ব্যবস্থা করবেন! যাতে সত্যিকারভাবে জনগণের পার্লামেন্ট ও জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা হতে পারে।’

এ সময়ে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, প্রচার সম্পাদক শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, সহ-প্রচার সম্পাদক আসাদুল করীম শাহিন, কৃষক দলের নতুন কমিটির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, সহ-সভাপতি গৌতম চক্রবর্তী, যুগ্ম সম্পাদক টিএস আইয়ুব, মোশাররফ হোসেন ও দফতর সম্পাদক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ সেপ্টেম্বর কৃষক দলের ৭ সদস্যের আংশিক কমিটি অনুমোদন দেয় বিএনপি। ২২ বছর পর গত ১২ মার্চ চতুর্থ জাতীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলেও দীর্ঘ পাঁচ মাস পর এই আংশিক কমিটি পায় কৃষক দল।

সর্বশেষ ১৯৯৮ সালে গঠিত কমিটির সভাপতি ছিলেন মাহবুব আলম তারা এবং সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান দুদু।

/এসটিএস/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

২১-২৩ সেপ্টেম্বর বিএনপির মতবিনিময়

২১-২৩ সেপ্টেম্বর বিএনপির মতবিনিময়

বিএনপির মনোবল ভাঙতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সরকার: মির্জা ফখরুল

বিএনপির মনোবল ভাঙতে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে সরকার: মির্জা ফখরুল

‘সাইফুর রহমানের হাতেই সামষ্টিক অর্থনীতির সফল বাস্তবায়ন হয়েছে’

‘সাইফুর রহমানের হাতেই সামষ্টিক অর্থনীতির সফল বাস্তবায়ন হয়েছে’

আ.লীগের অবদান পাকিস্তানের কাছে আত্মসমর্পণ করা: মির্জা ফখরুল

আ.লীগের অবদান পাকিস্তানের কাছে আত্মসমর্পণ করা: মির্জা ফখরুল

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

রাজনৈতিক কৌশল ও অবস্থানে পরিবর্তন আনছে গণসংহতি!

অক্টোবরে সম্মেলনরাজনৈতিক কৌশল ও অবস্থানে পরিবর্তন আনছে গণসংহতি!

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অপসারণ দাবি করলেন জোনায়েদ সাকি

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অপসারণ দাবি করলেন জোনায়েদ সাকি

সংগ্রামই আবদুস সালামকে বাঁচিয়ে রাখবে: জোনায়েদ সাকি

সংগ্রামই আবদুস সালামকে বাঁচিয়ে রাখবে: জোনায়েদ সাকি

সর্বশেষ

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা হবে দেড় ঘণ্টা

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা হবে দেড় ঘণ্টা

কাবুলে বন্ধ হচ্ছে নারীদের ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

কাবুলে বন্ধ হচ্ছে নারীদের ড্রাইভিং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

যশোর রোডে সুবাতাসের পদযাত্রা শুরু

যশোর রোডে সুবাতাসের পদযাত্রা শুরু

অনিবন্ধিত ঋণ বিতরণকারী সংস্থা বন্ধে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

অনিবন্ধিত ঋণ বিতরণকারী সংস্থা বন্ধে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের নির্দেশ

পর্যটন কর্মীদের শ্রম অধিকার আদায়ে সাত দফা দাবি

পর্যটন কর্মীদের শ্রম অধিকার আদায়ে সাত দফা দাবি

© 2021 Bangla Tribune