X
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বাজেটে আরও সুবিধা চায় তৈরি পোশাক খাত

আপডেট : ০৫ জুন ২০২১, ১৯:২৬

করোনা পরিস্থিতিতে পোশাক খাতের ঘুরে দাঁড়াতে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতি-বিজিএমইএ’র বেশ কিছু প্রস্তাব ছিল যার প্রতিফলন ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে হয়নি। শনিবার (৫ জুন) বিজিএমইএ কার্যালয়ে বাজেট বিষয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন সংগঠনটির সভাপতি ফারুক হাসান।

এসময় নগদ সহায়তার ওপর আরোপিত ১০ শতাংশ কর প্রত্যাহারের অনুরোধটি পুনর্বিবেচনারও দাবি করেন তিনি। একই সঙ্গে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় অপ্রচলিত বাজারে রফতানি ধরে রাখতে প্রণোদনার হার ৪ শতাংশ থেকে বৃদ্ধি করে ৫ শতাংশ করার দাবি জানানো হয়।

শিল্পপ্রতিষ্ঠানের মূলধন যন্ত্রাংশের ওপর আরোপিত এক শতাংশের অতিরিক্ত সকল প্রকার শুল্ক-কর মওকুফের দাবি করেন বিজিএমইএ সভাপতি। তিনি বলেন, প্রস্তাবিত বাজেটে কর্পোরেট কর ২.৫ শতাংশ কমানো হয়েছে। আমদানি পর্যায়ে ভ্যাটের আগাম কর (এটি) চার শতাংশ থেকে কমিয়ে তিন শতাংশ করা হয়েছে। এ আগাম কর সম্পূর্ণ বিলুপ্ত করার দাবি করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে বিজিএমইএ'র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এসএম মান্নান কচি, ভাইস প্রেসিডেন্ট শহিদুল্লাহ আজিম, নাসির উদ্দিন, খন্দকার রফিকুল ইসলাম, রাকিবুল ইসলামসহ বোর্ডের পরিচালক ও কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

/জিএম/এমএস/

সম্পর্কিত

প্রণোদনার ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ চায় বিজিএমইএ

প্রণোদনার ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ চায় বিজিএমইএ

পোশাক রফতানি বাড়াতে দূতাবাসের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

পোশাক রফতানি বাড়াতে দূতাবাসের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

মার্কিন ক্রেতাদের কাছে পোশাকের ন্যায্যমূল্য চায় বিজিএমইএ

মার্কিন ক্রেতাদের কাছে পোশাকের ন্যায্যমূল্য চায় বিজিএমইএ

পোষাক শ্রমিকদের টিকাদানের তথ্য জানতে চায় বিজিএমইএ

পোষাক শ্রমিকদের টিকাদানের তথ্য জানতে চায় বিজিএমইএ

রেন্টাল-কুইক রেন্টাল

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৫২

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ জ্বালানি বিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী বলেছেন, ‘এখন আমাদের বিদ্যুতের চাহিদা কম। গরমের সময় সর্বোচ্চ চাহিদা কত তার ওপর নির্ভর করে ক্যাপাসিটি রাখতে হবে। সেই হিসেবে এখন আমাদের ২০ হাজার মেগাওয়াট ক্যাপাসিটি থাকা দরকার। জ্বালানির বিষয়টিও চিন্তায় রাখতে হবে। এ কারণেই রেন্টাল ও কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রকে আমরা নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটি হিসেবে রাখতে চাই।’

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ‘কুইক রেন্টাল: অতীত, বর্তমান ও ভবিষৎ’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে এসব কথা বলেন জ্বালানি উপদেষ্টা। বাংলাদেশ ইনডিপেন্ডেন্ট পাওয়ার প্রডিউসার অ্যাসোসিয়েশন (বিপপা)-এর সহযোগিতায় ফোরাম ফর এনার্জি রিপোর্টার্স অব বাংলাদেশ (এফইআরবি) আয়োজিত ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিপিডির গবেষক গোলাম মোয়াজ্জেম।

জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক ই ইলাহী চৌধুরী

উপদেষ্টা ড. তৌফিক চৌধুরী বলেন, ‘বড় বড় প্রকল্প হচ্ছে। স্পেশাল ইপিজেড হচ্ছে। বিদ্যুতের এখন যে চাহিদা, সেটার বেশিরভাগই বাসাবাড়ির। কিন্তু সামনে শিল্পের চাহিদা বাড়বে।’

পিডিবির সদস্য মাহবুবুর রহমান জানান, ‘এখন দেশে যে রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্র আছে তা থেকে ২৭৪ মেগাওয়াট এবং কুইক রেন্টাল থেকে ৩৯৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাচ্ছি। এই কেন্দ্রগুলো ২০২৪ সালে অবসরে যাওয়ার কথা। কিন্তু কোনও ক্যাপাসিটি-কস্ট ছাড়া যদি এগুলো রেখে দেওয়া যায় তা হলে সরকার লাভবান হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রেন্টালগুলো সব গ্যাসভিত্তিক। কুইক রেন্টালের কিছু গ্যাস, কিছু ফার্নেস অয়েল-চালিত। যেহেতু এখন জ্বালানি আমদানি করে বিদ্যুৎ উৎপাদন করতে হচ্ছে সেই হিসাবে এই বিদ্যুতের দাম কম পড়বে। জরুরি প্রয়োজনের সময় কেন্দ্রগুলো কাজে আসতে পারে।’

পাওয়ার সেলের মহাপরিচালক মোহাম্মদ হোসেন বলেন, ‘রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো আমাদের জিডিপিতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। জরুরি প্রয়োজনে ২০০৯ সালের পর থেকে এই কেন্দ্রগুলো অনিবার্য ছিল, এখন নেই। তবে ব্যবহার করলে লাভ হবে কিনা তা বিবেচনা করতে হবে। দামের কথা ভেবেও সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

সিপিডির গবেষক গোলাম মোয়াজ্জেম বলেন, ‘রেন্টাল ও কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের উদ্যোক্তারা ব্যবসা করেছেন। এখন তাদের রাখার কোনও যুক্তি নেই।’

কুইক রেন্টাল: অতীত, বর্তমান ও ভবিষৎ শীর্ষক ওয়েবিনারের বক্তারা

বিআইডিএস-এর সাবেক মহাপরিচালক মুস্তফা কামাল মুজেরী বলেন, ‘রেন্টাল ও কুইক রেন্টালে যে বিনিয়োগ হয়েছিল, তা এতদিনে উঠে এসেছে। ফলে যদি কোনও কেন্দ্রের অর্থনৈতিক উপযোগিতা থাকে তবে সেগুলোকে আইপিপি হিসেবে রেখে দিতে হবে।’

পিডিবির চেয়ারম্যান বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘এখন যে ২২ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুতের পরিকল্পনা করেছি, সেই তুলনায় ১৪ হাজার মেগাওয়াট কিন্তু বেশি নয়। প্রতি ৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের জন্য কমপক্ষে ১০০ মেগাওয়াট উৎপাদনের ক্ষমতা থাকতে হবে। সেই হিসাবে রিজার্ভ বিদ্যুৎ কম। নবায়নযোগ্য জ্বালানির মধ্যে সোলার পাওয়ারের কথা আসে সবার আগে। এর জন্য স্টোরেজ ক্যাপাসিটি থাকা দরকার। কিন্তু এর খরচ ডিজেলচালিত বিদ্যুতের চেয়ে বেশি। এটা নিয়েও ভাবতে হবে।’

এফইআরবির নির্বাহী পরিচালক শামীম জাহাঙ্গীরের সঞ্চালনায় ওয়েবিনারে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিপপার সভাপতি ইমরান করিম, সহ-সভাপতি নাভিদুল হক ও এফইআরবির চেয়ারম্যান অরুন কর্মকার প্রমুখ।

/এসএনএস/এফএ/

সম্পর্কিত

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা

সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১০

চামড়া ব্যবসায়ীদের ব্যাংক ঋণ পরিশোধে আবারও বিশেষ ছাড় দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই বিশেষ সুবিধার আওতায় ঋণ পরিশোধের আবেদনের সময় আগামী ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। এর আগে আবেদনের সময় ছিল ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। তার আগে সময়সীমা ছিল ৩০ জুন পর্যন্ত।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এ সংক্রান্ত একটি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনাটি সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

বিশেষ সুবিধার আওতায় চমড়া ব্যবসায়ীরা অন্য খেলাপিদের মতো মাত্র ২ শতাংশ টাকা জমা দিয়ে (ডাউন পেমেন্ট) ১০ বছরের জন্য তাদের ঋণ পুনর্গঠন, পুনঃতফসিল বা এক্সিট সুবিধা পাবেন।  এ সুবিধা নিতে আগ্রহী চামড়া উদ্যোক্তাদের আগামী ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যে আবেদন করতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়,  কোভিড-১৯ এর বিরূপ প্রভাব বিদ্যমান থাকায় এবং  ঈদুল আজহা উৎসবে কোরবানির পশুর কাঁচা চামড়া সংগ্রহ ও সংরক্ষণ কার্যক্রমের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে উল্লিখিত এক্সিট অথবা পুনর্গঠন/পুনঃতফসিল সুবিধা দেওয়া হয়েছে। এই সুবিধা গ্রহণে ইচ্ছুক গ্রাহক কর্তৃক ডাউন পেমেন্টের অর্থ নগদে জমাদান সাপেক্ষে আবেদন দাখিলের সময়সীমা আগামী ডিসেম্বর ৩০ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে।

সাভারের চামড়া শিল্পনগরীতে স্থানান্তরিত চামড়া শিল্প প্রতিষ্ঠানের ব্যাংক ঋণ পরিশোধে বিশেষ সুবিধার আওতায় এ সময় বাড়ানো হয়েছে।

 

/জিএম/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা

সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা

ব্যাংক খাতের নেতৃত্ব দিচ্ছে এজেন্ট ব্যাংকিং

ব্যাংক খাতের নেতৃত্ব দিচ্ছে এজেন্ট ব্যাংকিং

আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়নে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৩৪

ব্যাংকগুলো থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডিপোজিট ইন্সুরেন্স বিভাগকে অবগত না করার কারণে আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়ন কার্যক্রমে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংকের জারি করা এক সার্কুলারে এ তথ্য তুলে ধরা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশে কার্যরত সব তফসিলি ব্যাংককে তাদের আমানত বিমা প্রিমিয়াম নির্ধারণী সংক্রান্ত প্রয়োজনীয় তথ্যাবলি ষান্মাষিক ভিত্তিতে নির্ধারিত ছকে ডিপোজিট ইন্সুরেন্স বিভাগে দাখিলের নির্দেশনা রয়েছে। তবে সম্প্রতি পরিলক্ষিত হচ্ছে, ষান্মাষিক ভিত্তিতে বিবরণী দাখিল করলেও বাংলাদেশ ব্যাংকের বিভিন্ন বিভাগ হতে প্রদত্ত গুরুত্বপূর্ণ অনুমোদন বা নির্দেশনার মাধ্যমে ব্যাংকগুলোর রেগুলেটরি বিধিবিধান পরিপালনে পরিবর্তন এমনকি ব্যাংকিংয়ের মৌলিক পরিবর্তন ঘটলেও তা যথাসময়ে অত্রবিভাগকে অবগত না করার কারণে আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়ন কার্যক্রমে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও বলছে, ব্যাংকসমূহের যেকোনও ধরনের মৌলিক পরিবর্তন (সাময়িক/স্থায়ী) যা আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়নের ক্ষেত্রে প্রভাব রাখতে পারে, তা যথাসময়ে অত্রবিভাগকে অবহিত করার পরামর্শ দেওয়া হলো।

 

/জিএম/আইএ/

সম্পর্কিত

ব্যাংক খাতের নেতৃত্ব দিচ্ছে এজেন্ট ব্যাংকিং

ব্যাংক খাতের নেতৃত্ব দিচ্ছে এজেন্ট ব্যাংকিং

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

ব্যাংকগুলোকে জাল নোট শনাক্তকারী যন্ত্র ব্যবহারের নির্দেশ

অর্থনৈতিক ভারসাম্য রক্ষায় সঞ্চয়পত্রের মুনাফায় হাত 

অর্থনৈতিক ভারসাম্য রক্ষায় সঞ্চয়পত্রের মুনাফায় হাত 

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

রফতানি সহায়তায় অডিট ফার্ম নিয়োগে নতুন নির্দেশনা বাংলাদেশ ব্যাংকের

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:১৫

ই-কমার্স খাতের ওপরে আস্থা ধরে রাখতে পৃথক আইন প্রণয়ন ও এর জন্য পৃথক কর্তৃপক্ষ গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ই-কমার্স খাতের ওপর সাধারণ মানুষের আস্থা অর্জনের জন্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ‘ডিজিটাল ই-কমার্স অ্যাক্ট’ নামে একটি স্বতন্ত্র আইন প্রণয়ন করে পৃথক কর্তৃপক্ষ গঠনে ২২ সেপ্টেম্বর বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের এক সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) এই কমিটি গঠন করেছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ডিজিটাল কমার্স নিয়ন্ত্রণ করার লক্ষ্যে একটি যুগোপযোগী আইন ও শক্তিশালী কর্তৃপক্ষ গঠনের  লক্ষ্যে ১৬ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে সরকার। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (আমদানি ও অভ্যন্তরীণ বাণিজ্য) এএইচএম সফিকুজ্জামানকে  কমিটির অহ্বায়ক এবং উপসচিব (কেন্দ্রীয় ডিজিটাল কমার্স সেল) মুহাম্মদ সাঈদ আলীকে সদস্য সচিব করা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হচ্ছেন— তথ্য ও প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিনিধি, আইন মন্ত্রণালয়ের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের প্রতিনিধি, ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিনিধি, বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিনিধি, জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতরের প্রতিনিধি, বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনের প্রতিনিধি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন করে শিক্ষক, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের ডব্লিউটিও সেলের প্রতিনিধি, এফবিসিসিআইয়ের প্রতিনিধি, এটুআই এর প্রতিনিধি, ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের সভাপতি বা সাধারণ সম্পদক, বেসিস এর সভাপতি এবং সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার তানজিবুল আলম। 

কমিটিকে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে ডিজিটাল কমার্স খাতে উদ্ভূত সমস্যা সমাধানে করণীয় বিষয়ে সুপারিশ প্রণয়ন করতে বলা হয়েছে। এছাড়া আগামী দুই মাসের মধ্যে ডিজিটাল কমার্স পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ করার উপযোগী একটি আইনের খসড়া প্রণয়ন করতে বলা হয়।  একইসঙ্গে আগামী দুই মাসের মধ্যে ডিজিটাল কমার্স কর্তৃপক্ষের কাঠানো এবং কার্যপ্রণালী তৈরি করতে বলা হয়েছে।

সোমবার বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের উপসচিব (কেন্দ্রীয় ডিজিটাল কমার্স সেল) মুহাম্মদ সাঈদ আলীর সই করা অফিস আদেশ জারি করে এ কমিটি গঠন করা হয়।

 

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা

সঞ্চয়পত্র বিক্রি করে ব্যাংক পাবে ৫ পয়সা

টাকার ওপর লেখা ও স্ট্যাপলিং করা নিষেধ

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৯

নতুন ও পুনঃপ্রচলনযোগ্য ব্যাংক নোটের ওপর যে কোনও ধরণের লেখা, সিল মারা এবং নোটের প্যাকেটে স্ট্যাপলিং পরিহার করার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করেছে।

এতে বলা হয়েছে, প্রতিটি প্যাকেটে নোটের সংখ্যা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে প্যাকেট ব্র্যান্ডিং করার পর সংশ্লিষ্ট ব্যাংক শাখার নাম, সিল, নোট গণনাকারীর স্বাক্ষর ও তারিখ সম্বলিত লেবেল/ফ্ল্যাইলিফ লাগানোর বিধান থাকলেও লক্ষ্য করা যাচ্ছে, উক্ত নির্দেশনা লঙ্ঘন করে সরাসরি টাকার ওপর সংখ্যা ও তারিখ লেখা, শাখার সিল, স্বাক্ষর ও অনুস্বাক্ষর প্রদান, স্ট্যাপলিং ইত্যাদি করা হচ্ছে। এর ফলে, নোটগুলো অপেক্ষাকৃত কম সময়ে অপ্রচলনযোগ্য হওয়ার পাশাপাশি গ্রাহকরাও ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। সর্বোপরি রাষ্ট্রীয় অর্থেরও অপচয় হচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, নোটের ওপর লেখা, সিল মারা এবং নোটের প্যাকেটে স্ট্যাপলিং করা বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্লিন নোট পলিসি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে অন্যতম অন্তরায়, যা মোটেই কাঙ্ক্ষিত নয়।

বাংলাদেশ ব্যাংক বলছে, গণনাকালে নোটের ওপর লেখা, স্বাক্ষর, সিল প্রদান এবং নোটের প্যাকেটে স্ট্যাপলিং (১০০০ টাকা মূল্যমান নোট ব্যতীত) হতে বিরত থাকা এবং প্যাকেটে নোটের সংখ্যা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে প্যাকেট ব্যান্ডিং করার পর সংশ্লিষ্ট ব্যাংক শাখার নাম, সিল, নোট গণনাকারীর স্বাক্ষর ও তারিখ সম্বলিত লেবেল/ফ্ল্যাইলিফ লাগানোর বিষয়টি কঠোরভাবে পরিপালন নিশ্চিত করা এবং বাংলাদেশ ব্যাংকে কারেন্সি নোট/ব্যাংক নোট জমা দেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাংকের সব বিধি-বিধান ও নির্দেশনা যথাযথভাবে অনুসরণের জন্য আপনাদের পুনরায় নির্দেশনা দেওয়া গেল। ব্যাংক কোম্পানি আইন-১৯৯১ (২০১৮ পর্যন্ত সংশোধিত) এর ৪৫ ধারায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে এই নির্দেশনা জারি করা হলো।

 

/জিএম/এমআর/

সম্পর্কিত

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

চামড়া ব্যবসায়ীদের ঋণ পরিশোধের সময় বাড়লো

আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়নে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে

আমানত বিমা প্রিমিয়াম হিসাবায়নে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

ই-কমার্স আইন প্রণয়ন ও কর্তৃপক্ষ গঠনে ১৬ সদস্যের কমিটি

সম্পর্কিত

প্রণোদনার ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ চায় বিজিএমইএ

প্রণোদনার ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ চায় বিজিএমইএ

পোশাক রফতানি বাড়াতে দূতাবাসের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

পোশাক রফতানি বাড়াতে দূতাবাসের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

মার্কিন ক্রেতাদের কাছে পোশাকের ন্যায্যমূল্য চায় বিজিএমইএ

মার্কিন ক্রেতাদের কাছে পোশাকের ন্যায্যমূল্য চায় বিজিএমইএ

পোষাক শ্রমিকদের টিকাদানের তথ্য জানতে চায় বিজিএমইএ

পোষাক শ্রমিকদের টিকাদানের তথ্য জানতে চায় বিজিএমইএ

কমেছে বাজেট, গুরুত্ব গবেষণায়

কমেছে বাজেট, গুরুত্ব গবেষণায়

ডিসেম্বর পর্যন্ত খেলাপি না করতে গভর্নরকে বিজিএমইএ’র অনুরোধ

ডিসেম্বর পর্যন্ত খেলাপি না করতে গভর্নরকে বিজিএমইএ’র অনুরোধ

ফরাসি চলচ্চিত্রের সংলাপে বিজিএমইএ’র আপত্তি, নেটফ্লিক্সকে চিঠি

ফরাসি চলচ্চিত্রের সংলাপে বিজিএমইএ’র আপত্তি, নেটফ্লিক্সকে চিঠি

কাঁচামাল দ্রুত পেতে ভারতীয় হাইকমিশনারকে চিঠি দিলো বিজিএমইএ

কাঁচামাল দ্রুত পেতে ভারতীয় হাইকমিশনারকে চিঠি দিলো বিজিএমইএ

সর্বশেষ

কলকাতার একাদশে সাকিবের ফেরা আরও কঠিন হয়ে উঠলো

কলকাতার একাদশে সাকিবের ফেরা আরও কঠিন হয়ে উঠলো

সাজিদুরের খবরে মেয়ে ও নাতনির মৃত্যু

সাজিদুরের খবরে মেয়ে ও নাতনির মৃত্যু

আফগানিস্তানে মার্কিন নিপীড়ন তদন্ত করবে না আইসিসি

আফগানিস্তানে মার্কিন নিপীড়ন তদন্ত করবে না আইসিসি

বদলে যাচ্ছে মোংলা বন্দর, গতি ফিরছে বাণিজ্যে

বদলে যাচ্ছে মোংলা বন্দর, গতি ফিরছে বাণিজ্যে

তথ্য অধিকার আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করার দাবি

তথ্য অধিকার আইনের প্রয়োগ নিশ্চিত করার দাবি

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে পথশিশুদের নিয়ে কেক কাটলেন পুনাক সভানেত্রী

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে পথশিশুদের নিয়ে কেক কাটলেন পুনাক সভানেত্রী

বিএনপি জোট ছেড়ে দেবে খেলাফত মজলিস?

বিএনপি জোট ছেড়ে দেবে খেলাফত মজলিস?

ডিএসসিসি এলাকায় দেওয়া হলো ২৮,৭০২ ডোজ টিকা

ডিএসসিসি এলাকায় দেওয়া হলো ২৮,৭০২ ডোজ টিকা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

প্রণোদনার ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ চায় বিজিএমইএ

প্রণোদনার ঋণ ৩৬ কিস্তিতে পরিশোধের সুযোগ চায় বিজিএমইএ

পোশাক রফতানি বাড়াতে দূতাবাসের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

পোশাক রফতানি বাড়াতে দূতাবাসের সহযোগিতা চায় বিজিএমইএ

মার্কিন ক্রেতাদের কাছে পোশাকের ন্যায্যমূল্য চায় বিজিএমইএ

মার্কিন ক্রেতাদের কাছে পোশাকের ন্যায্যমূল্য চায় বিজিএমইএ

পোষাক শ্রমিকদের টিকাদানের তথ্য জানতে চায় বিজিএমইএ

পোষাক শ্রমিকদের টিকাদানের তথ্য জানতে চায় বিজিএমইএ

ডিসেম্বর পর্যন্ত খেলাপি না করতে গভর্নরকে বিজিএমইএ’র অনুরোধ

ডিসেম্বর পর্যন্ত খেলাপি না করতে গভর্নরকে বিজিএমইএ’র অনুরোধ

© 2021 Bangla Tribune