X
বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৮ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বোকো হারাম নেতা মারা গেছেন: প্রতিদ্বন্দ্বী গ্রুপ

আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ২২:১২
image

নাইজেরিয়ার জঙ্গিগোষ্ঠী বোকো হারামের নেতা আবুবকর শিকাও আত্মহত্যা করেছেন বলে অডিও বার্তায় জানিয়েছে প্রতিদ্বন্দ্বী অপর একটি গোষ্ঠী। বার্তা সংস্থাগুলোর হাতে আসা অডিও রেকর্ডিংয়ে ইসলামিক স্টেট ওয়েস্ট আফ্রিকা প্রোভিন্স (আইএসডব্লিউএপি) জানিয়েছে, দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের পরে বিস্ফোরক দিয়ে নিজেকে উড়িয়ে দিয়েছেন শিকাও। তবে বোকো হারাম বা নাইজেরিয়ার সরকার কেউই এ খবর নিশ্চিত করেনি।

২০০৯ সালে পুলিশ হেফাজতে বোকো হারামের তৎকালীন নেতার মৃত্যুর পর গোষ্ঠীটির নতুন নেতৃত্ব নেন আবুবকর শিকাও। আন্ডারগ্রাউন্ড গ্রুপ থেকে তিনি বোকো হারামকে গড়ে তোলেন প্রাণঘাতী বিদ্রোহী গোষ্ঠী হিসেবে। দখলে নিয়ে নেন উত্তর-পূর্ব নাইজেরিয়ার বিস্তৃত এলাকা।

শিকাওর নেতৃত্বে বোকো হারাম বোমা হামলা, অপহরণ এবং কারাগারে হামলা চালিয়ে বন্দিদের মুক্ত করতে থাকে। ২০১৪ সাল থেকে গোষ্ঠীটি শহর এলাকায় হামলা চালানোর মাধ্যমে শরিয়াহ আইনের ভিত্তিতে একটি ইসলামিক স্টেট গঠনের প্রচেষ্টা শুরু করে। ৪০-এর কোঠায় থাকা শিকাওর ভিডিও বার্তাগুলো ওসামা বিন লাদেনের মতো বলে অনেকেই তুলনা করে থাকেন।

আবুবকর শিকাও বোকো হারামের নেতৃত্ব নেওয়ার পর থেকে ৩০ হাজার মানুষ নিহত এবং ২০ লাখের বেশি বাস্তুচ্যুত হয়েছে। ২০১৪ সালে বর্নিও রাজ্যের স্কুল থেকে শত শত মেয়ে শিক্ষার্থীকে অপহরণের পর গোষ্ঠীটি মনোযোগ আকর্ষণ করে। তার কিছু দিন পর যুক্তরাষ্ট্র শিকাওকে বিশ্বসন্ত্রাসী আখ্যা দেয় আর তার মাথার মূল্য ৭০ লাখ ডলার ঘোষণা করে। শিকাওর কর্মসূচি এত বেশি উগ্রবাদী ছিল যে তাকে ইসলামিক স্টেটও প্রত্যাখ্যান করে। বোকো হারাম ভেঙে ২০১৬ সালে গঠিত হয় ইসলামিক স্টেট ওয়েস্ট আফ্রিকা প্রোভিন্স (আইএসডব্লিউএপি)।

বার্তা সংস্থাগুলোর হাতে আসা অডিও বার্তাটি আইএসডব্লিউএপি নেতা আবু মুসার আল বার্নাওয়ির বলে ধারণা করা হচ্ছে। এতে বলা হয়েছে, শিকাও বিস্ফোরণ ঘটিয়ে নিজেকে হত্যা করেছেন। তিনি বলেন, আইএসডব্লিউএপি যোদ্ধারা এই যুদ্ধবাজকে খুঁজে বেড়াচ্ছিল আর তাকে আত্মসমর্পণের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিল।

গত মাসেও এক সংঘর্ষে আবুবকর শিকাওয়ের মৃত্যুর খবর চাউর হয়। ওই সময়ে নাইজেরিয়ার সেনাবাহিনী খবরটি খতিয়ে দেখার কথা জানায়। নতুন অডিও বার্তা ছড়িয়ে পড়ার পরও সেনা মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ ইয়েরিমার জানিয়েছেন, সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পাওয়ার আগ পর্যন্ত সরকার কোনও বিবৃতি দেবে না।

/জেজে/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মরক্কোর বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

মরক্কোর বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

চার সন্তান বিক্রির অভিযোগে নারী গ্রেফতার

চার সন্তান বিক্রির অভিযোগে নারী গ্রেফতার

সুদানে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাৎ

সুদানে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাৎ

‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরোর’ ২৫ বছরের কারাদণ্ড

‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরোর’ ২৫ বছরের কারাদণ্ড

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:২২

আফগানিস্তানে তালেবান নেতাদের মধ্যে বিরোধের খবর প্রকাশিত হচ্ছে। এর ফলে গত মাসে দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেওয়া গোষ্ঠীটির ঐক্য নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এই মাসের শুরুতে উপ-প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পাওয়া মোল্লা আবদুল গণি বারাদার জনসম্মুখ থেকে সরে গেলে এই সন্দেহ আরও বাড়ে। পরে তার হত্যার খবরও ছড়িয়ে পড়ে।

একটি রেকর্ডকৃত ভিডিও বার্তা দিয়ে বারাদার পুনরায় হাজির হন। লিখিত বক্তব্যের মতো তিনি বলেন, ভ্রমণের জন্য তিনি জনসম্মুখে ছিলেন না। তালেবানও দাবি করেছে, তাদের মধ্যে কোনও বিরোধ নেই।

মৃত্যু বা আহতের গুজব উড়িয়ে দিতে সোমবার জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বারাদারের বৈঠকের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। কূটনৈতিক ও রাজনৈতিক কয়েকটি সূত্র কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরাকে জানিয়েছে, তালেবান নেতাদের মধ্যে বিরোধের খবর সত্যি। তারা বলছেন, যদি এই মতানৈক্য বাড়ে তাহলে আফগান জনগণের দুর্ভোগ আরও বাড়তে পারে।

তালেবান নেতাদের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে সম্পর্ক থাকা এক রাজনৈতিক সূত্র জানায়, শীর্ষ নেতাদের বিরোধ তৃণমূল পর্যায়েও ছড়িয়ে পড়েছে। তালেবান যোদ্ধারা গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোতে সাবেক কর্মকর্তা ও তাদের পরিবারের সম্পত্তি দখল করছে।

তার কথায়, এখন তারা শুধু মানুষের গাড়ি ও বাড়ি দখল করছে।

সাবেক কর্মকর্তাদের কয়েকটি পরিবারও জানিয়েছে, তালেবান যোদ্ধারা তাদের বাড়ি, গাড়ি ও সম্পত্তি দখলের চেষ্টা করছে।

অথচ তালেবানের মুখপাত্র কাবুল দখলের দুই দিন পরে বলেছিলেন, তাদের যোদ্ধাদের কারও বাড়িতে প্রবেশ না করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

পরিস্থিতির সঙ্গে পরিচিত কয়েকটি সূত্র জানায়, সাবেক প্রেসিডেন্ট আশরাফ গণি যেমন পরিস্থিতির মুখে পড়েছিলেন তালেবান নেতারাও একই পরিস্থিতিতে রয়েছেন।

সূত্র জানায়, আগের সরকারের মতো তালেবানের বিরোধও ব্যক্তিগত পর্যায়ে। তবে আগের প্রশাসনে ব্যক্তিগত উচ্চাকাঙ্ক্ষা বা রাজনৈতিক বিরোধ ছিল। কিন্তু তালেবানের এই বিরোধ আরও বেশি মৌলিক।  

তালেবানে এখন গনিমতের মালের অপেক্ষায় থাকা যোদ্ধারা বনাম আফগান জনগণ ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ভয় দূর করতে আশ্বাস দিতে চাওয়া রাজনীতিকদের বিরোধ বলে জানিয়েছে সূত্র।

 

/এএ/

সম্পর্কিত

‘আমরা কি আফগানিস্তানে বাস করছি?’, পুলিশের সমালোচনায় ইসরায়েলি বিচারক

‘আমরা কি আফগানিস্তানে বাস করছি?’, পুলিশের সমালোচনায় ইসরায়েলি বিচারক

চীন, রাশিয়া ও পাকিস্তানের কূটনীতিকদের যা বললো তালেবান

চীন, রাশিয়া ও পাকিস্তানের কূটনীতিকদের যা বললো তালেবান

১২ তলা থেকে ঝাঁপ, তারপর...

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:১৩

যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কের একটি বহুতল ভবন থেকে আত্মহত্যা করতে লাফ দিলে আরেকজনের ওপর পড়েন ওই ব্যক্তি। এতে দুজনই মারা গেছেন। একে 'নির্মম' ঘটনা অ্যাখ্যা দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

পুলিশ জানায়, সোমবার আত্মহত্যা করতে নিউ ইয়র্কের একটি ১২ তলা ভবন ওঠেন ২৫ বছরের ওই যুবক। একপর্যায়ে লাফ দিলে নিচে থাকা ৬১ বছর বয়সী বৃদ্ধার ওপর পড়লে দুজনই ঘটনাস্থলে নিহত হন।

‘এটি একটি করুণ ঘটনা। এ বিষয়ে আমরা তদন্ত শুরু করেছি’। বিবৃতিতে এমনটাই জানায় পুলিশ।

গত এপ্রিলেও যুক্তরাষ্ট্রের সান ডিয়াগোতে এক ব্যক্তি ভবন থেকে ঝাঁপ দিলে নারীর ওপর পড়লে দুজনের মৃত্যু হয়।   

/এলকে/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

বাইডেন-ম্যাক্রোঁ ‘বন্ধুত্বপূর্ণ’ ফোনালাপ, যুক্তরাষ্ট্রে ফিরছেন ফরাসি দূত

শর্ত সাপেক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে বুস্টার ডোজ অনুমোদন

শর্ত সাপেক্ষে যুক্তরাষ্ট্রে বুস্টার ডোজ অনুমোদন

উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

উন্নয়নশীল দেশগুলোকে আরও ৫০ কোটি ডোজ টিকা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

এক আলিঙ্গনের জন্য ৫৮ বছর অপেক্ষা

এক আলিঙ্গনের জন্য ৫৮ বছর অপেক্ষা

জার্মানির নির্বাচন: চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হওয়ার দৌড়ে এগিয়ে কারা

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ২০:২৯

জার্মানির দরজায় কড়া নাড়ছে জাতীয় নির্বাচন। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর পার্লামেন্ট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোটারদের মন গলাতে শেষ সময়ের প্রচারণায় ব্যস্ত চ্যান্সেলর পদপ্রার্থীরা। আর এই নির্বাচনের মধ্য দিয়েই শেষ হতে চলছে দীর্ঘ ১৬ বছর জার্মানির নেতৃত্বে থাকা চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের শাসন।

দীর্ঘ পথ চলায় ম্যার্কেল নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্যন্য উচ্চতায়। বিশেষ করে নারীর ক্ষমতায়ন, ব্রেক্সিট সংকট, বৈশ্বিক রাজনৈতিক সমস্যা নিরসন এবং শরণার্থীদের পাশে দাঁড়ানোসহ জার্মানিকে ইউরোপের শক্ত অবস্থানে নিয়ে যাওয়ায় তার ভূমিকা অনস্বীকার্য। এখন দেখার বিষয় চ্যান্সেলের পদে ম্যার্কেলের বিদায়ে তার শূন্যতা কতটুকু পূরণ করতে পারবেন নতুনরা।

২০০৫ সাল থেকে জার্মানির সর্বোচ্চ পদে থেকে যেভাবে দেশ পরিচালনা করেছেন ঠিক সেভাবেই ইউরোপের যেকোনও বিপদে তাকেই পাশে পেয়েছেন বিশ্ব নেতারা। কিন্তু জার্মানির আসন্ন পার্লামেন্টে নির্বাচনে এবার ৬৭ বছর বয়সী ম্যার্কেল আর প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন না। অনেক আগেই চিন্তাটা করে রেখেছিলেন এবার অবসরে যাওয়ার। 

ম্যার্কেল প্রার্থী না হওয়ার কারণে এবারে ইউরোপের মনোযোগ আকর্ষণ করছে জার্মানির নির্বাচন। গবেষক পেপিজন বার্গেসনের মতে, আঙ্গেলা ম্যার্কেল অংশ না নেওয়ায় ২০১৩ এবং ২০১৭ সালের চেয়ে এবারের নির্বাচন পরবর্তী জার্মানির রাজনীতি ও নীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আসার সম্ভাবনা রয়েছে। বিশেষ করে ম্যার্কেলের উত্তরসূরি কে হতে চলছেন তা ভোটের কিছুদিন পরই স্পষ্ট হয়ে যাবে। কারণ ফলাফল পেতে সপ্তাহখানেকও লেগে যেতে পারে। যিনি পরবর্তী চ্যান্সেলর হচ্ছেন তাকে দেশে এবং বিদেশের বহুমুখী চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হতে হবে।

জার্মানির এবারের নির্বাচনে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী দল হলো, ক্ষমতাসীন ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ) ও সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি (এসপিডি)। বিগত আট বছর এই দুই দল জোটবদ্ধভাবে সরকার পরিচালনা করলেও এখন তারা পরস্পরের প্রতিদ্বন্দ্বী। এই দলগুলোর বাইরে জোট সহযোগী দল হিসেবে শক্ত অবস্থানে রয়েছে পরিবেশবাদী গ্রিন পার্টি।

ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হলেন ক্ষমতাসীন ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়ন (সিডিইউ)-এর নেতৃত্বে থাকা ৬০ বছর বয়সী আরমিন লাশেট। তিনি দীর্ঘদিন ধরেই রাজনীতিতে। সবচেয়ে বড় বিষয় আসন্ন নির্বাচনে চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী ল্যাশেট-এর প্রতি পূর্ণ সমর্থনের কথা জানিয়েছেন চ্যান্সেলর ম্যার্কেল। নির্বাচনে বিজয়ী হতে তাকে ইতোমধ্যে নানাভাবে পরামর্শও দিয়ে আসছেন তিনি।

কিন্তু তার প্রতিপক্ষরাও বেশ ভালো অবস্থানেই আছেন। লাশেটের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী হলেন এসপিডির ওলাফ শলৎস, যিনি সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে নির্বাচনী প্রচারণা বেশ ঘটা করেই করেছেন। নিজেকে এগিয়েই রেখেছেন তিনি। 

পরিবেশবাদী গ্রিন পার্টির নেতৃত্বে রয়েছেন আনালেনা বেরবক। ওলাফ শলৎস আভাস দিয়েছেন, আগামী দিনে বিজয়ী হলে তার দল গ্রিন পার্টির সঙ্গে জোট সরকার গঠন করবে।
বিভিন্ন জরিপে এসেছে, সোশ্যাল ডেমোক্র্যাটিক পার্টি ২৬ শতাংশ, ক্রিশ্চিয়ান ডেমোক্র্যাটিক ইউনিয়ন ২২, পরিবেশবাদী গ্রিন পার্টি ১৮ শতাংশ ভোট পাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। 

এবারের বড় দলগুলোর প্রধান ইস্যুই হচ্ছে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা করা। ক্ষমতায় এলে কোন দল কীভাবে তা বাস্তবায়ন করবে সেটিই এখন তুলে ধরা হচ্ছে। কারণ গত জুলাইয়ে জার্মানিতে ভয়াবহ বন্যায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। প্রাণহানি ঘটে অনেকের। ফলে গ্রিন পার্টি তাদের নির্বাচনি প্রচারণায় ২০৩০ সাল নাগদ গ্রিস হাউস গ্যাস নিঃসরণ ৭০ শতাংশ কমিয়ে আনার আহ্বান জানিয়েছে। অন্যান্য দলগুলো জলবায়ু ইস্যুকেই সামনে রেখে জার্মানির অর্থনীতিকে আরও শক্তিশালী করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে।

আগামী ২৬ সেপ্টেম্বরের মোট ৭০৯টি আসনের মধ্য ২৯৯টি আসনে সরাসরি নির্বাচন হবে। অন্য আসনগুলো দলগুলোর প্রাপ্ত ভোটের অনুপাত অনুযায়ী মীমাংসিত হবে। ১৬ রাজ্যে ৬ কোটি ৪০ লাখ ভোটার দুটি করে ভোট দেবেন। একটি ভোট সরাসরি প্রার্থী নির্বাচনের, অপরটি পছন্দের দলকে।

/এলকে/

সম্পর্কিত

‘তালেবান শো’ কোনও কাজে আসবে না: জার্মানি

‘তালেবান শো’ কোনও কাজে আসবে না: জার্মানি

'সতর্ক বার্তা', পারমাণবিক সাবমেরিন ইস্যুতে ফ্রান্সের পাশে জার্মানি

'সতর্ক বার্তা', পারমাণবিক সাবমেরিন ইস্যুতে ফ্রান্সের পাশে জার্মানি

মারা গেছেন চীনে সদ্য নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত

মারা গেছেন চীনে সদ্য নিযুক্ত জার্মান রাষ্ট্রদূত

জার্মানির ‘স্বীকৃতি’ ও ‘আর্থিক সহযোগিতা’ চায় তালেবান

জার্মানির ‘স্বীকৃতি’ ও ‘আর্থিক সহযোগিতা’ চায় তালেবান

মরক্কোর বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৫১

মরক্কোর সব ধরনের বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে আলজেরিয়া। পশ্চিম সাহারা নিয়ে দুই প্রতিবেশী দেশের চলমান বিরোধে এটি সর্বশেষ ঘটনা। আলজেরিয়ার প্রেসিডেন্ট কার্যালয়ের বরাতে এখবর জানিয়েছে কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা।

খবরে বলা হয়েছে, বুধবার আলজেরীয় প্রেসিডেন্ট আবদেলমাজিদ তেব্বৌনের সভাপতিত্বে উচ্চ নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকের পর এই ঘোষণা দেওয়া হয়।

এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এই নিষেধাজ্ঞা অবিলম্বে কার্যকর মরক্কোর সামরিক ও বেসামরিক বিমানের জন্য।

মরক্কোর শত্রুতাপূর্ণ আচরণ ও উসকানিমূলক কর্মকাণ্ডের ফলে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এই বিষয়ে মরক্কোর কোনও প্রতিক্রিয়া জানা যায়নি। তবে রয়্যাল এয়ার মারোক-এর একটি সূত্র জানায়, এই নিষেধাজ্ঞঅর ফলে মরক্কোর তুরস্ক, তিউনিসিয়া ও মিসরের সঙ্গে সপ্তাহে ১৫টি ফ্লাইট প্রভাবিত হবে। এতে খুব সমস্যায় পড়বে না মরক্কো। এসব ফ্লাইটকে সহজেই ভূমধ্যসাগর দিয়ে গন্তব্যে পাঠানো যাবে।

/এএ/

সম্পর্কিত

চার সন্তান বিক্রির অভিযোগে নারী গ্রেফতার

চার সন্তান বিক্রির অভিযোগে নারী গ্রেফতার

সুদানে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাৎ

সুদানে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাৎ

‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরোর’ ২৫ বছরের কারাদণ্ড

‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরোর’ ২৫ বছরের কারাদণ্ড

সন্ত্রাসবাদে অভিযুক্ত হলেন ‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরো’

সন্ত্রাসবাদে অভিযুক্ত হলেন ‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরো’

‘আমরা কি আফগানিস্তানে বাস করছি?’, পুলিশের সমালোচনায় ইসরায়েলি বিচারক

আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৭:৫৪

ইসরায়েলের এক বিচারক প্রমাণ গোপন ও গ্রেফতারের সময় টেজার গান ব্যবহার করায় পুলিশ বাহিনীর সমালোচনা করেছেন। বুধবার একটি মামলার শুনানিতে বিচারক নাচুম স্টার্নলিখট পুলিশের প্রতিনিধির কাছে প্রশ্ন তুলেন, পুলিশ কর্মকর্তারা যদি প্রমান গোপন করে, তাহলে অপরাধীরা কী বলবে? আপনারা দেশকে লজ্জা দিচ্ছেন। আমরা কি আফগানিস্তানে আছি নাকি একটি গণতন্ত্রে বাস করছি?

চিকিৎসার প্রেসক্রিপশন থাকার পরও অবৈধ গাজা রাখার অভিযোগে আটক এক ব্যক্তির রিমান্ড শুনানি চলাকালে বিচারক ইসরায়েলি পুলিশের এই সমালোচনা করেন। শুনানিতে উঠে আসে, সন্দেহভাজনকে গ্রেফতারের সময় টেজার গান ব্যবহারের কথা ঘটনার প্রতিবেদনে উল্লেখ করেনি পুলিশ। গ্রেফতারের সময় উপস্থিত থাকা এক কর্মকর্তাই শুধু এটি ব্যবহারের কথা উল্লেখ করেছেন।

শুনানি শেষে বিচারক সন্দেহভাজনকে ছেড়ে দেওয়ার আদেশ দেন এবং মামলাটি আইন মন্ত্রণালয়ে তদন্তের জন্য পাঠিয়েছেন।

পুলিশের প্রতিনিধি বিচারকের সমালোচনার প্রতিবাদ করেন। তিনি জানিয়েছেন, বিচারকের সমালোচনার ঘটনায় তিনি একটি অভিযোগ দায়ের করবেন।

/এএ/

সম্পর্কিত

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

চীন, রাশিয়া ও পাকিস্তানের কূটনীতিকদের যা বললো তালেবান

চীন, রাশিয়া ও পাকিস্তানের কূটনীতিকদের যা বললো তালেবান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মরক্কোর বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

মরক্কোর বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

চার সন্তান বিক্রির অভিযোগে নারী গ্রেফতার

চার সন্তান বিক্রির অভিযোগে নারী গ্রেফতার

সুদানে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাৎ

সুদানে অভ্যুত্থান প্রচেষ্টা নস্যাৎ

‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরোর’ ২৫ বছরের কারাদণ্ড

‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরোর’ ২৫ বছরের কারাদণ্ড

সন্ত্রাসবাদে অভিযুক্ত হলেন ‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরো’

সন্ত্রাসবাদে অভিযুক্ত হলেন ‘হোটেল রুয়ান্ডা হিরো’

গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন জোহানেসবার্গের নতুন মেয়র

গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারালেন জোহানেসবার্গের নতুন মেয়র

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা, বড় সাফল্য বলছে ফ্রান্স

গ্রেটার সাহারায় আইএস প্রধানকে হত্যা করেছে ফ্রান্স

জেনারেল সিসির আমন্ত্রণে মিসরে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী

জেনারেল সিসির আমন্ত্রণে মিসরে ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রী

গিনিতে অভ্যুত্থান চেষ্টা: সেনাবাহিনীর ক্ষমতা দখলের দাবি

গিনিতে ক্ষমতা দখলের দাবি সেনাদের

গিনির রাজধানীতে প্রচণ্ড গোলাগুলি

গিনির রাজধানীতে প্রচণ্ড গোলাগুলি

সর্বশেষ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে পাশে থাকবে জার্মানি: এলজিআরডিমন্ত্রী

রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনে পাশে থাকবে জার্মানি: এলজিআরডিমন্ত্রী

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

গাজীপুর মেয়রের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ, অগ্নিসংযোগ

জয়ের ৭৩, আকবরের ৫১ 

জয়ের ৭৩, আকবরের ৫১ 

নেদারল্যান্ডস ভ্রমণের শর্ত শিথিল

নেদারল্যান্ডস ভ্রমণের শর্ত শিথিল

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

গনিমতের মাল নিয়েও তালেবানে বিরোধ

© 2021 Bangla Tribune