X
সোমবার, ২১ জুন ২০২১, ৭ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

‘ভ্যানগার্ডরা’ কোথায়, প্রশ্ন মির্জা ফখরুলের

আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ১৮:২৪

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আগে ছাত্র এবং শ্রমিকরা যেকোনও আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতো। আমরা যেটাকে বলি ভ্যানগার্ড, এখন কোথায়?’

সোমবার (৭ জুন) জাতীয় প্রেস ক্লাবের তোফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪০তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব)-এর উদ্যোগে ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তম’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এখনও অনেকে মনে করেন আমানুল্লাহ আমান হুকুম দিলেই সবাই চলে আসবে। আসছে না, কেন আসবে? কারণ, যুগ সময় সব পরিবর্তন হয়ে গেছে। আগে ছাত্র এবং শ্রমিকরা যেকোনও আন্দোলনের অগ্রণী ভূমিকা পালন করতো। আমরা যেটাকে বলি ভ্যানগার্ড, এখন কোথায়? এখন অপেক্ষা করতে থাকে বিএনপি কবে মিটিং করবে। তাতে হবে না, বিএনপিকে মিটিং করতে বাধ্য করবে তারা। এটাই বরাবর হয়েছে। তরুণরা ভাষা আন্দোলনের সময় সবাইকে টেনে নিয়ে এসেছে। আজকেও ছাত্র ও শ্রমিকদের বড় ভূমিকা পালন করতে হবে। তাহলে আমরা সবাই যেটা চাচ্ছি যে গণআন্দোলনের মধ্য দিয়ে উত্থান হবে; তার মধ্য দিয়ে সরকার পরাজিত হবে। তাতে অবশ্যই হবে। তাদের তৈরি করতে হবে। কারা করবে? তরুণ প্রজন্মকেই করতে হবে। আমি, আমান, আমাদের অনেক বয়স হয়ে গেছে। তার মধ্যে যদি রাস্তায় এসে দাঁড়াই, যেদিন বিএনপি কর্মী রাজকে টেনে নিয়ে যাচ্ছিল সেদিন কয়জন এসে দাঁড়িয়েছিলেন রাস্তায়? এগুলো ফ্যাক্ট, গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। আমরা তো আশা করছি আমাদের শক্তি জাগাবে তরুণরা।’

তিনি আরও বলেন, এই সরকার জনগণের সরকার নয়। জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করে, বেইমানি করে জোর করে আজকে ক্ষমতা দখল করে আছে। পুলিশ, র‍্যাব, প্রশাসন, বিচার বিভাগ, এমনকি মিডিয়াকে নিয়ন্ত্রণ করে আমরা তাদের ক্ষমতায় যেতে দেখেছি। ৯০-এর পৃথিবী আর আজকের ২০২১-এ বহু পরিবর্তন হয়েছে। ভারতেই দেখুন, যেখানে আগে ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলা হতো এখন সেখানেই ধর্মান্ধতার খেলা চলছে। পশ্চিমা বিশ্বে এখনও ইউরোপ কিছুটা ঠিক আছে। আমেরিকায় কোনও রকমে আছে। ট্রাম্প যদি আবার নির্বাচিত হতো ওখানে গণতন্ত্রের যে কী দশা হতো এটা বলা মুশকিল। প্রবণতা হচ্ছে কর্তৃত্ববাদী সরকারের। গোটা পৃথিবীর প্রবণতা হচ্ছে কর্তৃত্ববাদী সরকারের মতো। প্রচুর গবেষণা হচ্ছে, বই লেখা হচ্ছে, গণতন্ত্রের মৃত্যু হচ্ছে কিনা তার ওপর।’

এ সময় তিনি বলেন, ‘অনেকেই বলেন ২০১৮ সালের নির্বাচনে গিয়েছিলাম, অনেকেই আমাদের বলে আমরা ভুল করেছিলাম। আমি এখনও মনে করি আমরা ভুল করিনি। কারণ, আমরা চেষ্টা করেছিলাম সমস্ত জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করে ওই নির্বাচনের মাধ্যমেই তাদের পরাজিত করতে। আমরা পারিনি। আজকে সেই জনগণকে ঐক্যবদ্ধ করে তীব্র আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। আমাদের আন্দোলন সংগ্রামের প্রাণশক্তি হচ্ছে আমাদের ম্যাডাম। খালেদা জিয়া হেমিলনের সেই বংশীবাদক, যার বাঁশি না বাজলে মানুষ বের হয়ে আসে না। এটাকে আমরা অস্বীকার করতে পারবো না। আজকে অত্যন্ত পরিকল্পনার সঙ্গে ম্যাডামকে আটকে রেখেছে। আমাদের তাকে মুক্ত করতে হবে।’

আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমানুল্লাহ আমান, ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব)-এর সভাপতি অধ্যাপক ডা হারুন আল রশিদ, ডা. মোহাম্মদ আব্দুস সালাম প্রমুখ।

 

/এসও/এনএইচ/এমওএফ/

সর্বশেষ

সংসারের টাকা বাঁচানোর পাঁচ টিপস

সংসারের টাকা বাঁচানোর পাঁচ টিপস

ইরান নিয়ে ইসরায়েলের হুঁশিয়ারি

ইরান নিয়ে ইসরায়েলের হুঁশিয়ারি

লন্ডনে গাড়ি দুর্ঘটনায় আমিরাতের অ্যাক্টিভিস্টের মৃত্যু

লন্ডনে গাড়ি দুর্ঘটনায় আমিরাতের অ্যাক্টিভিস্টের মৃত্যু

৫ লাখ ছাড়ালো ব্রাজিলে করোনায় মৃতের সংখ্যা

৫ লাখ ছাড়ালো ব্রাজিলে করোনায় মৃতের সংখ্যা

রোহিঙ্গা ইস্যুতে পশ্চিমা বিশ্বকে শক্ত বার্তা দিয়েছে বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে পশ্চিমা বিশ্বকে শক্ত বার্তা দিয়েছে বাংলাদেশ

জাতিসংঘে নিজের বিপক্ষেই ভোট দিয়েছে মিয়ানমার

জাতিসংঘে নিজের বিপক্ষেই ভোট দিয়েছে মিয়ানমার

যুক্তরাষ্ট্রে ঘূর্ণিঝড়ে গাড়ির সংঘর্ষ, শিশুসহ নিহত ১০

যুক্তরাষ্ট্রে ঘূর্ণিঝড়ে গাড়ির সংঘর্ষ, শিশুসহ নিহত ১০

ফেসবুকে দুই মন্ত্রীর 'দ্বন্দ্ব' বিষয়ক স্ট্যাটাস

ফেসবুকে দুই মন্ত্রীর 'দ্বন্দ্ব' বিষয়ক স্ট্যাটাস

সিডনিতে ‘ধূমকেতু’ ব্যান্ডের সফল কনসার্ট

সিডনিতে ‘ধূমকেতু’ ব্যান্ডের সফল কনসার্ট

মায়ের কপালে চুমু খেয়ে কলেজছাত্রের আত্মহত্যা

মায়ের কপালে চুমু খেয়ে কলেজছাত্রের আত্মহত্যা

ওয়েলসকে হারিয়ে ইতালি গ্রুপ সেরা

ওয়েলসকে হারিয়ে ইতালি গ্রুপ সেরা

কনওয়ের হাফসেঞ্চুরিতে শক্ত অবস্থানে কিউইরা

কনওয়ের হাফসেঞ্চুরিতে শক্ত অবস্থানে কিউইরা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পরিকল্পিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবি

পরিকল্পিতভাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার দাবি

‘মাদক নির্মূলে কয়েকশ’ বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হলেও কাজের কাজ হয়নি’

‘মাদক নির্মূলে কয়েকশ’ বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড হলেও কাজের কাজ হয়নি’

আগামী নির্বাচনের জন্য দলকে প্রস্তুত করতে হবে: ওবায়দুল কাদের

আগামী নির্বাচনের জন্য দলকে প্রস্তুত করতে হবে: ওবায়দুল কাদের

সিলেটের শফি চৌধুরীকে বহিষ্কার করেছে বিএনপি

সিলেটের শফি চৌধুরীকে বহিষ্কার করেছে বিএনপি

সম্পূর্ণ সুস্থ হননি খালেদা জিয়া, উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ

সম্পূর্ণ সুস্থ হননি খালেদা জিয়া, উন্নত চিকিৎসার পরামর্শ

ফিরোজায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া

ফিরোজায় ফিরেছেন খালেদা জিয়া

আপনারা বিএনপিতে লীন হয়ে যাবেন না: মির্জা ফখরুল

আপনারা বিএনপিতে লীন হয়ে যাবেন না: মির্জা ফখরুল

ধ্বংসের আগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: বাংলাদেশ ন্যাপ

ধ্বংসের আগেই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে: বাংলাদেশ ন্যাপ

‘সংসদে পরীমনি নিয়ে আলোচনা হয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে হয় না’

‘সংসদে পরীমনি নিয়ে আলোচনা হয়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান নিয়ে হয় না’

সন্ধ্যায় বাসায় ফিরছেন খালেদা জিয়া

সন্ধ্যায় বাসায় ফিরছেন খালেদা জিয়া

© 2021 Bangla Tribune