X
মঙ্গলবার, ১৫ জুন ২০২১, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

সেকশনস

স্ত্রীকে হত্যার দায়ে একজনের ফাঁসি কার্যকর

আপডেট : ১০ জুন ২০২১, ০৯:২৭

স্ত্রীকে হত্যার দায়ে আব্দুল হক নামে এক আসামির ফাঁসি কার্যকর হয়েছে দিনাজপুর জেলা কারাগারে। বৃহস্পতিবার (৯ জুন) দিবাগত রাত ১২টা ১ মিনিটে তার ফাঁসি কার্যকর হয়। দিনাজপুর জেল সুপার মোকাম্মেল হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, নিহতের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আব্দুল হক রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ভক্তিপুর চৌধুরীপাড়া এলাকার মৃত আছির উদ্দীনের ছেলে। ২০০২ সালের ২৮ আগস্ট থেকে তিনি কারাগারে বন্দি ছিলেন।

এর আগে বিকালে নিহতের পরিবারের ১৫ সদস্য তার সঙ্গে শেষ সাক্ষাৎ করেন এবং খাবার খাইয়ে ঘণ্টাখানেক অবস্থান করে চলে যান। পরে রাতে তার ফাঁসি কার্যকর হয়, এ সময় রংপুর ডিআইজি (প্রিজন) আলতাফ হোসেন, জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী, পুলিশ সুপার আনোয়ার হোসেন, দিনাজপুর সিভিল সার্জন ডা. আব্দুল কুদ্দুছ, চিকিৎসকসহ প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জেলা কারাগারের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে আব্দুল হক তার স্ত্রীকে হত্যা করেন। এই ঘটনায় পরের দিন ৯ ফেব্রুয়ারি তার শাশুড়ি বাদী হয়ে মিঠাপুকুর থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১১(ক) ধারায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পাঁচ বছর পরে ২০০৭ সালের ৩ মে রংপুর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ আদালত আব্দুল হককে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেন। পরে আব্দুল হকের পরিবার হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্টে আপিল করলেও সেখানে সাজা বহাল থাকে। সর্বশেষ আব্দুল হক রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণ ভিক্ষার আবেদন করেন। গত বছরের ১৮ মে মামলাটির যাবতীয় বিবেচনায় রাষ্ট্রপতি প্রাণভিক্ষার আবেদন নামঞ্জুর করলে ফাঁসি কার্যকরের উদ্যোগ নেয় কারা কর্তৃপক্ষ।

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত

গুলশানে ব্যবসায়ীর বহুতল ভবনের নিচে পড়েছিল স্ত্রীর রক্তাক্ত লাশ

গুলশানে ব্যবসায়ীর বহুতল ভবনের নিচে পড়েছিল স্ত্রীর রক্তাক্ত লাশ

কুড়িগ্রামে সংক্রমিত এলাকায় ‘রেসট্রিকটেড মোড’

কুড়িগ্রামে সংক্রমিত এলাকায় ‘রেসট্রিকটেড মোড’

রোহিঙ্গা তরুণীর পরিচয়পত্র তৈরি, সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা তরুণীর পরিচয়পত্র তৈরি, সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

নাসির ও অমির বিরুদ্ধে মাদক আইনেও মামলা হচ্ছে

নাসির ও অমির বিরুদ্ধে মাদক আইনেও মামলা হচ্ছে

করোনা সংক্রমণ বাড়ায় হিলিতে ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি

করোনা সংক্রমণ বাড়ায় হিলিতে ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি

অন্তরঙ্গ সম্পর্কের ভিডিও ধারণ করে নারীদের ফাঁদে ফেলতো আতিক

অন্তরঙ্গ সম্পর্কের ভিডিও ধারণ করে নারীদের ফাঁদে ফেলতো আতিক

যাত্রাবাড়ীতে চার মাছ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

যাত্রাবাড়ীতে চার মাছ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

৪৮ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের আপিল

৪৮ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের আপিল

অবিলম্বে আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের সন্ধান চায় অ্যামনেস্টি

অবিলম্বে আবু ত্ব-হা মুহাম্মদ আদনানের সন্ধান চায় অ্যামনেস্টি

সর্বশেষ

একসঙ্গে চার মেয়ে সন্তানের জন্ম

একসঙ্গে চার মেয়ে সন্তানের জন্ম

মাস্ক না পরায় ২০ ব্যক্তিকে জরিমানা

মাস্ক না পরায় ২০ ব্যক্তিকে জরিমানা

বিরোধ দূর করতে মাঠে আওয়ামী লীগ

বিরোধ দূর করতে মাঠে আওয়ামী লীগ

এসডিজি বাস্তবায়নে অগ্রগতির শীর্ষ তিনে বাংলাদেশ

এসডিজি বাস্তবায়নে অগ্রগতির শীর্ষ তিনে বাংলাদেশ

এরদোয়ান-বাইডেন রুদ্ধদ্বার বৈঠক

এরদোয়ান-বাইডেন রুদ্ধদ্বার বৈঠক

নেইমার ভালো থাকলে ভালো কিছু হয়: ব্রাজিল কোচ

নেইমার ভালো থাকলে ভালো কিছু হয়: ব্রাজিল কোচ

তিতাসের ৫ হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

তিতাসের ৫ হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন

গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন ইনিশিয়েটিভের সদস্য হলেন ডা. নিজাম

গ্লোবাল অ্যালায়েন্স ফর ভ্যাকসিন ইনিশিয়েটিভের সদস্য হলেন ডা. নিজাম

আর্জেন্টিনার ম্যাচ কখন, দেখবেন কোথায়

আর্জেন্টিনার ম্যাচ কখন, দেখবেন কোথায়

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত

আইসিসির মাসসেরা হওয়ার পর যা বললেন মুশফিক

আইসিসির মাসসেরা হওয়ার পর যা বললেন মুশফিক

বিমানবন্দর ও দূতাবাসের নিরাপত্তা নিয়ে বিদেশিদের উদ্বেগের জবাব দিলো তালেবান

বিমানবন্দর ও দূতাবাসের নিরাপত্তা নিয়ে বিদেশিদের উদ্বেগের জবাব দিলো তালেবান

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত

হাজী দানেশ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা স্থগিত

কুড়িগ্রামে সংক্রমিত এলাকায় ‘রেসট্রিকটেড মোড’

কুড়িগ্রামে সংক্রমিত এলাকায় ‘রেসট্রিকটেড মোড’

রোহিঙ্গা তরুণীর পরিচয়পত্র তৈরি, সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা তরুণীর পরিচয়পত্র তৈরি, সাবেক কাউন্সিলরসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা

করোনা সংক্রমণ বাড়ায় হিলিতে ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি

করোনা সংক্রমণ বাড়ায় হিলিতে ৭ দিনের কঠোর বিধিনিষেধ জারি

রেললাইনে বিকল ভারত থেকে আসা ট্রাক, যেভাবে রক্ষা পেলো ট্রেন

রেললাইনে বিকল ভারত থেকে আসা ট্রাক, যেভাবে রক্ষা পেলো ট্রেন

শেষ দিনেও ক্যাম্পাসে যাননি ভিসি কলিমউল্লাহ, শিক্ষার্থীদের মিষ্টি বিতরণ 

শেষ দিনেও ক্যাম্পাসে যাননি ভিসি কলিমউল্লাহ, শিক্ষার্থীদের মিষ্টি বিতরণ 

চিনিকলটির কাছে শ্রমিকদের বকেয়া ৫৫ কোটি টাকা

চিনিকলটির কাছে শ্রমিকদের বকেয়া ৫৫ কোটি টাকা

© 2021 Bangla Tribune