X
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ৯ আষাঢ় ১৪২৮

সেকশনস

ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব ৭৭ শতাংশ কমাবে যে মশা

আপডেট : ১০ জুন ২০২১, ২১:০৫

ডেঙ্গু দমনে সহজ একটি কৌশল ব্যবহার করে দুর্দান্ত সাফল্য পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। তারা জানিয়েছেন, পরীক্ষায় দেখা গেছে এই কৌশল ব্যবহার করে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব ৭৭ শতাংশ কমিয়ে আনা সম্ভব। এর জন্য তারা ‘অলৌকিক’ ব্যাকটেরিয়ায় আক্রান্ত কিছু মশা ব্যবহার করেছিলেন, যা ডেঙ্গু জ্বরের জীবাণুবাহী মশার ক্ষমতাকে হ্রাস করে। ডেঙ্গু ভাইরাসকে সমূলে বিনাশ করার লক্ষ্যে ইন্দোনেশিয়ার ইয়োগাকার্টা শহরে এই পরীক্ষা চালিয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

ওয়ার্ল্ড মসকুইটো প্রোগ্রাম টিমের তরফে বলা হয়েছে, এর মাধ্যমে বিশ্বজুড়ে ছেয়ে গেছে এমনও কোনও ভাইরাসের বিনাশ সম্ভব হতে পারে। ৫০ বছর আগে খুব কম মানুষই ডেঙ্গু সম্পর্কে জানতেন। কিন্তু ধীরে ধীরে এর প্রাদুর্ভাব বেড়েছে। ১৯৭০ সালে মাত্র ৯টি দেশ মারাত্মক ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের সম্মুখীন হয়েছিল, কিন্তু এখন বছরে ৪০০ মিলিয়ন সংক্রমণ রয়েছে। ডেঙ্গুকে ‘ব্রেক-বোন ফিভার’ও বলা হয়ে থাকে। কারণ, এই ভাইরাসে সংক্রমিত ব্যক্তিরা পেশী ও হাড়ে তীব্র ব্যথা অনুভব করেন।

ইন্দোনেশিয়ার এই ট্রায়ালে ওলবাচিয়া ব্যাকটেরিয়ায় সংক্রমিত মশা ব্যবহার করা হয়েছিল। গবেষক ডা. কেটি অ্যান্ডার্স এই মশাগুলোকে ‘প্রাকৃতিকভাবে অলৌকিক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন। ওলবাচিয়া মশার ক্ষতি করে না, তবে এটি মানব শরীরের সেই অংশে ছড়িয়ে পড়ে, যেখানে ডেঙ্গু ভাইরাসের প্রবেশ লক্ষ করা যায়। ব্যাকটেরিয়াগুলো সংস্থানের জন্য প্রতিযোগিতা শুরু করে এবং ডেঙ্গু ভাইরাসের জন্য প্রতিবন্ধকতা তৈরি করে। ফলে ওই ব্যক্তির আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা তুলনামূলক কমে যায়।

ট্রায়ালটিতে ওলবাচিয়ায় আক্রান্ত পাঁচ মিলিয়ন মশার ডিম ব্যবহৃত হয়। প্রতি দুই সপ্তাহে শহরে বালতির পানিতে ওই ডিম দেওয়া হতো। এই পদ্ধতিতে সংক্রমিত মশার জনসংখ্যা বৃদ্ধির প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন হতে সময় লাগে মোট ৯ মাস। ইয়োগাকার্টা শহরকে মোট ২৪টি অঞ্চলে বিভক্ত করা হয়েছে। সংক্রমিত মশার অর্ধেক এই অঞ্চলগুলোতে ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

নিউ ইংল্যান্ড জার্নাল অব মেডিসিনে প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, মশাগুলোকে ছেড়ে দেওয়ার পর ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা ৭৭ শতাংশ কমেছে। ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসার প্রয়োজন, এমন রোগীর সংখ্যা কমেছে ৮৬ শতাংশ। এই কৌশলটি এতটাই সফল হয়েছে যে পুরো শহরে এই মশাগুলো ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। ডেঙ্গু নির্মূলের লক্ষ্যে সংলগ্ন এলাকাগুলোতেও একই প্রকল্প নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। সূত্র: নিউজ ১৮।

/এমপি/এমওএফ/

সম্পর্কিত

তালেবানের ক্রমবর্ধমান প্রভাব নিয়ে সতর্কতা জাতিসংঘ দূতের

তালেবানের ক্রমবর্ধমান প্রভাব নিয়ে সতর্কতা জাতিসংঘ দূতের

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

রাজতন্ত্র অবমাননায় অভিযুক্ত কম্বোডিয়ার ৩ অ্যাক্টিভিস্ট

রাজতন্ত্র অবমাননায় অভিযুক্ত কম্বোডিয়ার ৩ অ্যাক্টিভিস্ট

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর সঙ্গে জান্তাবিরোধীদের সংঘর্ষ, নিহত ৪

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর সঙ্গে জান্তাবিরোধীদের সংঘর্ষ, নিহত ৪

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

আফগানিস্তান থেকে সামরিক উপস্থিতি প্রত্যাহার নিয়ে যা বললো পেন্টাগন

আফগানিস্তান থেকে সামরিক উপস্থিতি প্রত্যাহার নিয়ে যা বললো পেন্টাগন

টিকা না নিলে জেলে পাঠানোর হুমকি

টিকা না নিলে জেলে পাঠানোর হুমকি

৮৩ বছরের বৃদ্ধা যখন ফিটনেস আইকন

৮৩ বছরের বৃদ্ধা যখন ফিটনেস আইকন

আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে: হামিদ কারজাই

আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে: হামিদ কারজাই

৮০০ কেজি গোবর চুরি, তদন্তে পুলিশ

৮০০ কেজি গোবর চুরি, তদন্তে পুলিশ

মস্কোয় মিয়ানমারের জান্তাপ্রধান

মস্কোয় মিয়ানমারের জান্তাপ্রধান

সর্বশেষ

এনআইডি সেবা চেয়ার-টেবিল নয় যে উঠিয়ে নিয়ে গেলাম: সিইসি

এনআইডি সেবা চেয়ার-টেবিল নয় যে উঠিয়ে নিয়ে গেলাম: সিইসি

অমিকে আরও দুই মামলায় গ্রেফতারের আবেদন মঞ্জুর

অমিকে আরও দুই মামলায় গ্রেফতারের আবেদন মঞ্জুর

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

এই দেশে সন্ত্রাসীদের কোনও স্থান নেই: নওফেল

সমালোচক হয়েও বোর্ডের দায়িত্বে ড্যারেন স্যামি!

সমালোচক হয়েও বোর্ডের দায়িত্বে ড্যারেন স্যামি!

মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৯ জুন

মিজান ও বাছিরের বিরুদ্ধে সাক্ষ্যগ্রহণ আগামী ২৯ জুন

ভ্যাকসিন কিনতে ৯৪ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

ভ্যাকসিন কিনতে ৯৪ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি

সৃজিতের ছবিতে তাপসী পান্নু

সৃজিতের ছবিতে তাপসী পান্নু

হিলিতে ফের বাড়লো পেঁয়াজের দাম

হিলিতে ফের বাড়লো পেঁয়াজের দাম

কিশোরের পিতৃপরিচয় নিশ্চিত করলো পুলিশ

কিশোরের পিতৃপরিচয় নিশ্চিত করলো পুলিশ

ফেঁসে যাচ্ছেন পরীমণি?

ফেঁসে যাচ্ছেন পরীমণি?

শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে গেলো সাকিবের মোহামেডান

শিরোপা লড়াই থেকে ছিটকে গেলো সাকিবের মোহামেডান

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

যশোরে আরও ৮ মৃত্যু, বেড়েছে লকডাউনের মেয়াদ

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

তালেবানের ক্রমবর্ধমান প্রভাব নিয়ে সতর্কতা জাতিসংঘ দূতের

তালেবানের ক্রমবর্ধমান প্রভাব নিয়ে সতর্কতা জাতিসংঘ দূতের

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

ইরানের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্টকে নিয়ে যা বললো সৌদি আরব

রাজতন্ত্র অবমাননায় অভিযুক্ত কম্বোডিয়ার ৩ অ্যাক্টিভিস্ট

রাজতন্ত্র অবমাননায় অভিযুক্ত কম্বোডিয়ার ৩ অ্যাক্টিভিস্ট

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর সঙ্গে জান্তাবিরোধীদের সংঘর্ষ, নিহত ৪

মিয়ানমারে সেনাবাহিনীর সঙ্গে জান্তাবিরোধীদের সংঘর্ষ, নিহত ৪

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

চার বছর পর কাতারে সৌদি রাষ্ট্রদূত

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

রায়িসির কারণে ভেস্তে যেতে পারে ইরানের পরমাণু আলোচনা?

আফগানিস্তান থেকে সামরিক উপস্থিতি প্রত্যাহার নিয়ে যা বললো পেন্টাগন

আফগানিস্তান থেকে সামরিক উপস্থিতি প্রত্যাহার নিয়ে যা বললো পেন্টাগন

টিকা না নিলে জেলে পাঠানোর হুমকি

টিকা না নিলে জেলে পাঠানোর হুমকি

৮৩ বছরের বৃদ্ধা যখন ফিটনেস আইকন

৮৩ বছরের বৃদ্ধা যখন ফিটনেস আইকন

আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে: হামিদ কারজাই

আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে: হামিদ কারজাই

© 2021 Bangla Tribune