X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ভার্চুয়াল আদালতের মাধ্যমে আরও ১৫০১ হাজতির জামিন

আপডেট : ১৪ জুন ২০২১, ১১:৪০

করোনা সংক্রমণ রোধে চলমান লকডাউনে সারাদেশের অধস্তন আদালতে একদিনে ৩ হাজার ২৮০টি আবেদনের ভার্চুয়াল শুনানি ও নিষ্পত্তি করে এক হাজার ৫০১ জন আসামিকে জামিন দেওয়া হয়েছে। এর ফলে মোট ৪১ কার্যদিবসে এক লাখ ২৬ হাজার ৩৪৫টি মামলায় ভার্চুয়াল শুনানির মাধ্যমে ৬৪ হাজার ৫৭৬ জন হাজতি জামিনপ্রাপ্ত হয়ে কারামুক্ত হয়েছেন।

সোমবার (১৪ জুন) সুপ্রিম কোর্টের স্পেশাল অফিসার মুহাম্মদ সাইফুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

জানা গেছে, করোনা সংক্রমণ রোধকল্পে দ্বিতীয় দফায় সারাদেশে অধস্তন আদালত এবং ট্রাইব্যুনালে শারীরিক উপস্থিতি ব্যতিরেকে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে জামিন এবং অতি জরুরি ফৌজদারি দরখাস্তের ওপর শুনানি চলছে। গত ১৩ জুন সারাদেশের অধস্তন আদালত ও ট্রাইব্যুনালে ভার্চুয়াল শুনানিতে ৩ হাজার ২৮০টি জামিনের দরখাস্ত নিষ্পত্তি করা হয়েছে এবং এক হাজার ৫০১ জন আসামিকে জামিন দেওয়া হয়েছে।

সবমিলিয়ে ৪১ কার্যদিবসে এক লাখ ২৬ হাজার ৩৪৫টি মামলায় ভার্চুয়াল শুনানির মাধ্যমে মোট ৬৪ হাজার ৫৭৬ জন হাজতি কারামুক্ত হয়েছেন। জামিনপ্রাপ্তদের মধ্যে এক হাজার ৪৮ জন শিশুও রয়েছে।

এর আগে ভার্চুয়াল আদালত শুরু হওয়ার পর প্রথম দফায় ২০২০ সালের ১১ মে থেকে ৪ আগস্ট পর্যন্ত মোট ৫৮ কার্যদিবসে সারাদেশে অধস্তন আদালত এবং ট্রাইব্যুনালে ভার্চুয়াল শুনানিতে মোট একলাখ ৪৭ হাজার ৩৩৯টি ফৌজদারি মামলায় জামিনের দরখাস্ত নিষ্পত্তি হয় এবং ৭২ হাজার ২২৯ জন অভিযুক্ত ব্যক্তির (শিশুসহ) জামিন মঞ্জুর করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১১ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে। এরপর থেকেই ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে অধস্তন আদালতে জামিনের শুনানি হয়ে আসছে।

 

/বিআই/আইএ/

সম্পর্কিত

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২০:৩১

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেছেন, শিল্প মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্টদের পূর্বপ্রস্তুতি ও সার্বিক তত্ত্বাবধায়নের কারণে এবারের কোরবানির চামড়া নিয়ে কোনও ধরনের বিশৃঙ্খলা বা অব্যবস্থাপনা তৈরি হয়নি।

রবিবার (২৫ জুলাই) শিল্প মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন সংস্থাগুলোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে ঈদুল আজহার পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি  যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, শিল্পসচিব জাকিয়া সুলতানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার, অতিরক্ত সচিব  শিবনাথ রায়, শাহ ইমদাদুল হক, বিসিআইসির চেয়ারম্যান মোশতাক হাসান বক্তৃতা করেন। 

এ সময় শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘করোনা মহামারির মাঝেও শিল্প মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। শিল্প খাতের মঙ্গে সংশ্লিষ্ট সবাইকে স্বাস্থ্য সুরক্ষা ব্যবস্থা প্রতিপালন করে সুস্থ থাকতে হবে এবং সচেতন হতে হবে।’

অনুষ্ঠানে শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, ‘কোরবানির চামড়া কীভাবে সংরক্ষণ ও স্থানান্তর করতে হবে, এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়  যথাসময়ে সিদ্ধান্ত ও যথাযথ কার্যক্রমের  গ্রহণের কারণে এ বছর চামড়া নিয়ে আমরা কোনও অভিযোগ পাইনি। ব্যবসায়ীরা চামড়ার সঠিক দাম পেয়েছেন।’

সভাপতির বক্তব্যে শিল্প সচিব বলেন, ‘শিল্প মন্ত্রণালয়, বিসিক এবং মাঠ পর্যায়ায়ের প্রশাসনের সহায়তায় এবং কর্মকর্তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিক সহযোগিতায় এবারের কোরবানির পশুর চামড়া সংরক্ষণ প্রক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পূর্ণ হয়েছে।’

 

/এসআই/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২০:৪১

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, এডিসসহ অন্যান্য মশার প্রাদুর্ভাব ও ডেঙ্গু রোগ নিয়ন্ত্রণে যে এলাকায়, অর্থাৎ যে বাসাবাড়িতে রোগী পাওয়া যাবে, হাসপাতাল থেকে সেই ব্যক্তির নাম-ঠিকানা নিয়ে তার বাসাসহ ওই অঞ্চল চিহ্নিত করে বিশেষ চিরুনি অভিযান চালানো হবে।

ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় সরকার বিভাগের উদ্যোগে গঠিত ‘ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণ সমন্বয় সেল’-এ এবং দুই সিটি করপোরেশনে তথ্য পাঠানোর জন্য স্বাস্থ্য অধিদফতরের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নির্দেশ প্রদান করেন মন্ত্রী।

রবিবার (২৫ জুলাই) মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এডিস মশার প্রাদুর্ভাব ও ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় করণীয় ঠিক করতে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং সংশ্লিষ্টদের নিয়ে এক জরুরি সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘নিয়মিত মশক নিধন অভিযানের পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি যে হাসপাতালেই ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হবে তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম, ঠিকানা ও মোবাইল নম্বর আমাদের সেলে এবং সিটি করপোরেশনে পাঠালে ওই ব্যক্তির বাসাবাড়ি চিহ্নিত করে পুরো এলাকায় বিশেষ মশা নিধন কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।’

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অভিযান চালানোর সময় সিটি করপোরেশনের লোকজনকে বাসাবাড়িতে ঢুকতে দেওয়া হয় না বলে অভিযোগ আসে। অনেক সময় আক্রান্ত রোগীর আসল ঠিকানা না দিয়ে ভুল তথ্য দেওয়া হয়। এটি একজন সচেতন নাগরিকের কাজ হতে পারে না। কোথায় এডিস মশার লার্ভা আছে, তা জানালে আমরা সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবো।’ মানুষের অংশগ্রহণ ছাড়া মশা নিধন সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন মো. তাজুল ইসলাম।

মন্ত্রী বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে যেসব অঞ্চলকে এডিস মশার হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে, অর্থাৎ যে অঞ্চল থেকে বেশি রোগী হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছে, সেসব এলাকায় সোমবার (২৬ জুলাই) থেকে চিরুনি অভিযান চালানো হবে।’

তাজুল ইসলাম বলেন, ‘ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট বোর্ড, রেলওয়ে, সিভিল এভিয়েশন এবং গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়সহ অন্যান্য সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান স্ব-স্ব উদ্যোগে এডিস মশা নিধনে কার্যক্রম পরিচালনা করবে এবং প্রয়োজনে সিটি করপোরেশনের সহযোগিতা নেবেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘ব্যক্তি হোক বা সরকারি-বেসরকারি যে প্রতিষ্ঠানই হোক—নির্মাণাধীন, পরিত্যক্ত বা যেকোনও ভবনে পানি জমিয়ে রেখে ডেঙ্গু প্রজননে ভূমিকা রাখলে, তাকে শাস্তি বা জরিমানা করে জনসম্মুখে আনতে হবে। বাসাবাড়ি, শিল্প কল-কারখানা নির্মাণ করার অধিকার সবার আছে। কিন্তু জনগণের জান-মাল ক্ষতিগ্রস্ত করার কোনও অধিকার কারোরই নেই।’

সভায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ এবং স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

 

 

/এসএস/এপিএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

চারদিন পর মৃত্যু ২০০ পার, ফের শনাক্ত ১১ হাজারের বেশি

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২০:০৯

করোনায় আক্রান্ত হয়ে দৈনিক মৃত্যু আবারও ২০০ ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। আর গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের সংখ্যাও ১১ হাজার ছাড়িয়েছে চারদিন পর। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ২৯১ জন।

এর আগে গত ২০ জুলাই ১১ হাজার ৫৭৯ জন শনাক্তের তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। ওই সময়ই ঈদের ছুটি শুরু হয়। ঢাকা ছেড়ে মানুষ গ্রামমুখী হয়। ফলে যেমন করোনার নমুনা সংগ্রহ কমতে থাকে তেমনি কমে যায়, নমুনা পরীক্ষার সংখ্যাও। আর নমুনা পরীক্ষা কমার সঙ্গে সঙ্গে কমে যায় শনাক্ত রোগীর সংখ্যা।

২১ জুলাই অধিদফতর জানায়, আগের ২৪ ঘণ্টায় ২৪ হাজার ৯৭৯টি নমুনা পরীক্ষা করে শনাক্ত হয়েছেন সাত হাজার ৬১৪ জন। ২২ জুলাই ১১ হাজার ৪৮৬টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্ত হয় তিন হাজার ৬৯৭ জন। ২৩ জুলাই ২০ হাজার ৪৯৩টি নমুনা পরীক্ষায় শনাক্তের সংখ্যা ছিল ছয় হাজার ৩৬৪ জন। গতকাল ২৪ জুলাই ২০ হাজার ৮২৭ নমুনা পরীক্ষায় ছয় হাজার ৭৮০ জন শনাক্তের তথ্য জানায় অধিদফতর। আর আজ রবিবার (২৫ জুলাই) জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে ৩৭ হাজার ৯৭২টি আর পরীক্ষা হয়েছে ৩৭ হাজার ৬৮৭টি। এতে  শনাক্ত হয়েছেন ১১ হাজার ২৯১ জন।

অপরদিকে, গত ২০ জুলাইতে ২০০ মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছিল অধিদফতর।  ঈদের দিন ১৭৩ জনের মৃত্যুর খবর দেওয়া হয়। ২২ জুলাই ১৮৭ জন, ২৩ জুলাই ১৬৬ জন, ২৪ জুলাই ১৯৫ জন করোনায় মারা গেছে বলে জানায় স্বাস্থ্য অধিদফতর। রবিবার সে সংখ্যায় ২০০ পার হয়। গত ২৪ ঘণ্টায় ২২৮ জনের মৃত্যুর কথা জানিয়েছে অধিদফতর।

/জেএ/এমআর/

সম্পর্কিত

চিকিৎসকসহ ৮৮৯০ স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

চিকিৎসকসহ ৮৮৯০ স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

ঢাকায় আরও ১০২ ডেঙ্গু রোগী

ঢাকায় আরও ১০২ ডেঙ্গু রোগী

৫ দিনে করোনায় ১ হাজার মানুষের মৃত্যু

৫ দিনে করোনায় ১ হাজার মানুষের মৃত্যু

ঢাকায় একদিনে ১০৪ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

ঢাকায় একদিনে ১০৪ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ১ আগস্ট থেকে ড্রপডাউন ব্যানার টানানোর নির্দেশ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২০:০০

জাতীয় শোক দিবসে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৫ আগস্টে শহীদদের প্রতি সম্মান জানাতে দেশের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোর দৃশ্যমান স্থানে ১ আগস্ট থেকে ড্রপডাউন ব্যানার তৈরি করে তা টানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  mujib100.gov.bd  ওয়েবসাইটে দেওয়া ড্রপডাউন ব্যানারের নমুনার আলোকে এটি প্রস্তুত করতে হবে।

সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, স্থানীয় সরকার, শিক্ষা ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে ড্রপডাউন ব্যানার টানানোর সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী রবিবার (২৫ জুলাই) এই নির্দেশনা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির গত ১৮ জুলাইয়ের সিদ্ধান্তের আলোকে সরকার এই ব্যবস্থা নিয়েছে।

জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির নির্দেশনায় জানানো হয়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের উদ্দেশে সরকারি অন্যান্য কর্মসূচি প্রতিপালনের পাশাপাশি ১ আগস্ট থেকে সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত, স্থানীয় সরকার, শিক্ষা ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের ভবনে ড্রপডাউন ব্যানার (ভবনের উপর থেকে নিচে) লাগানোর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

ড্রপডাউন ব্যানের ক্ষেত্রে যা করতে হবে

ড্রপডাউন ব্যানারটি ভবনের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ ম্যাপ অনুযায়ী ভবনের সামনে দৃশ্যমানভাবে লাগাতে হবে। Mujib100.gov.bd-ওয়েবসাইটে দেওয়া ড্রপডাউন ব্যানারের নমুনার আলোকে এটি প্রস্তুত করতে হবে।

ব্যানারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি থাকবে। স্থান সংকুলান সাপেক্ষে ১৫ আগস্টের সকল শহীদদের ছবি ব্যবহার করা যাবে। ব্যানারে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং ১৫ আগস্টের শহীদদের ছবি ছাড়া অন্য কোনও ছবি ব্যবহার করা যাবে না।

ড্রপডাউন ব্যানারে ওপরের বামপাশে স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীর লোগো, মাঝখানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের লোগো (প্রযোজ্য ক্ষেত্রে) এবং ডান পাশে মুজিববর্ষের লোগো ব্যবহার করা যাবে। তবে ব্যানারের নিচে প্রতিষ্ঠানের নাম লোগোসহ (যদি থাকে) ব্যবহার করা যেতে পারে।

ব্যানারে স্থান সংকুলান সাপেক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কোনও ভাষণের উদ্ধৃতি/দিবসের সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ কোনও উদ্ধৃতি বা কবিতার পঙক্তি ব্যবহার করা যেতে পারে।

 

/এসএমএ/এমআর/

সম্পর্কিত

কারিগরিতে পদোন্নতি

কারিগরিতে পদোন্নতি

প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে নির্মিত শহীদ মিনারের তালিকা চেয়েছে সরকার

প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে নির্মিত শহীদ মিনারের তালিকা চেয়েছে সরকার

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা টিকা পাবেন কবে?

কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা টিকা পাবেন কবে?

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামে সোনালী ব্যাংকে হিসাব খোলার নির্দেশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামে সোনালী ব্যাংকে হিসাব খোলার নির্দেশ

স্ত্রী-মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যা: বাবার বিরুদ্ধে আরেক মেয়ের জবানবন্দি

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৯:২০

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরের বাড়িতে স্ত্রী ও মেয়েকে শ্বাসরোধে হত্যার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় বাবা মোহন্দ্র চন্দ্র দাসের বিরুদ্ধে আদালতে সাক্ষী হিসেবে জবানবন্দি দিয়েছে তার বড় মেয়ে ঝুমা রাণী দাস।

রবিবার (২৫ জুলাই) ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শাহিনুর রহমানের আদালত তার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। আদালতের সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন (জিআর) শাখা এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কামরাঙ্গীরচর থানার এসআই জহিরুল ইসলাম ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ঝুমা রাণীকে আদালতে হাজির করে সাক্ষী হিসেবে তার জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য আবেদন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে  আদালত ঝুমার জবানবন্দি গ্রহণ করেন। মামলার একমাত্র আসামি তার বাবা মোহন্দ্র চন্দ্র দাস অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে আদালতকে অবহিত করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার গভীর রাতে কামরাঙ্গীরচরের নয়াগাঁও এলাকার একটি বাসায় ঘুমের মধ্যে স্ত্রী ফুলবাসী ও তার মেয়ে সুমী রানী দাসের মুখে কীটনাশক ঢেলে শ্বাসরোধে হত্যা করেন মোহন্দ্র চন্দ্র দাস। ঘটনার সময় ফুলবাসীর আরেক মেয়ে ঝুমা রানী দাস (১৪) ঘুমাচ্ছিল।  হঠাৎ ঘুম ভেঙে যাওয়ার পর সে দেখতে পায়, তার বাবা  সুমীর মুখে পলিথিন চেপে ধরে হত্যা করার চেষ্টা করছেন। পরে শনিবার সকালে ওই বাসা থেকে ফুলবাসী ও তার মেয়ে সুমীর লাশ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় শনিবার গভীর রাতে মামলা দায়ের করেন ফুলবাসী রানী দাসের বোন বিশাখাবাসী রানী দাস।

 

/এমএইচজে/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

ডেঙ্গুবিরোধী অভিযানে দেড় লাখ টাকা জরিমানা

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

সর্বশেষ

বিয়ের ৬ দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির সামনে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ

বিয়ের ৬ দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির সামনে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ

নিশো-মেহজাবীনের ‘ঘটনা সত্য’ প্রত্যাহার, ক্ষমা প্রার্থনা

নিশো-মেহজাবীনের ‘ঘটনা সত্য’ প্রত্যাহার, ক্ষমা প্রার্থনা

উগ্রবাদী বইসহ জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

উগ্রবাদী বইসহ জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে তিন বাহিনী প্রধানের সাক্ষাৎ

রাষ্ট্রপতির সঙ্গে তিন বাহিনী প্রধানের সাক্ষাৎ

বিমান হামলায় ২৬২ তালেবান যোদ্ধাকে হত্যার দাবি আফগানিস্তানের

বিমান হামলায় ২৬২ তালেবান যোদ্ধাকে হত্যার দাবি আফগানিস্তানের

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

চামড়া নিয়ে এবার কোনও অভিযোগ পাইনি: শিল্পমন্ত্রী

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

যেখানে ডেঙ্গু রোগী সেখানেই বিশেষ অভিযান: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

‘চাঁদপুরে রিকশাও চলবে না, প্রয়োজনে কারাগারে’

‘চাঁদপুরে রিকশাও চলবে না, প্রয়োজনে কারাগারে’

‘সংক্রমণ না কমিয়ে হাসপাতালের শয্যা বাড়িয়ে লাভ হবে না’ 

‘সংক্রমণ না কমিয়ে হাসপাতালের শয্যা বাড়িয়ে লাভ হবে না’ 

স্বস্তির জয়ে সিরিজ বাংলাদেশের

স্বস্তির জয়ে সিরিজ বাংলাদেশের

চারদিন পর মৃত্যু ২০০ পার, ফের শনাক্ত ১১ হাজারের বেশি

চারদিন পর মৃত্যু ২০০ পার, ফের শনাক্ত ১১ হাজারের বেশি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

দেশে নতুন মাদকের বাজার সৃষ্টির চেষ্টা চলছেই

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

কিশোরীকে পতিতালয়ে বিক্রির হুমকি, আটক ১

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

লকডাউনে অধস্তন আদালতের বিচার চলবে যেভাবে

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে হাইকোর্টের বিচার

লকডাউনে সীমিত পরিসরে চলবে হাইকোর্টের বিচার

দারুসসালামে ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার দুই বোন কারাগারে

দারুসসালামে ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার দুই বোন কারাগারে

জয়পুরহাট থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মিতু-রিতুর ঢাকা যাত্রা

জয়পুরহাট থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মিতু-রিতুর ঢাকা যাত্রা

মগবাজার বিস্ফোরণ তিতাসের লিকেজ থেকেই: পুলিশ

মগবাজার বিস্ফোরণ তিতাসের লিকেজ থেকেই: পুলিশ

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কাভার্ডভ্যান ছিনতাই, আটক ১

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কাভার্ডভ্যান ছিনতাই, আটক ১

‘নেইমারকে ব্যঙ্গ করতে’ কুকুর নির্যাতন, ৪ কিশোর আটক

‘নেইমারকে ব্যঙ্গ করতে’ কুকুর নির্যাতন, ৪ কিশোর আটক

© 2021 Bangla Tribune