X
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ২ কার্তিক ১৪২৮

সেকশনস

বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকের আগে নমনীয় এরদোয়ান

আপডেট : ১৪ জুন ২০২১, ২১:০০

ট্রাম্পের চলে যাওয়া এবং তুরস্কের অর্থনীতি সংকটে থাকা দেশটির দৃঢ় প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান এখন চেষ্টা করছেন পশ্চিমা নেতাদের বৈরী করার বদলে শান্ত করতে। প্রশ্ন হচ্ছে তিনি কতদূর আগাতে পারবেন?

গত চার বছর ধরে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোয়ান দেশে বিরোধীদের কঠোর হাতে দমন করেছেন এবং রাশিয়ার সঙ্গে সুসম্পর্ক গড়ে তুলেছেন। মিত্র সরকারগুলোর সঙ্গে একের পর এক চুক্তি করেছেন এবং আঞ্চলিকভাবে যেখানে উপযুক্ত মনে করেছেন সেখানেই সেনা পাঠিয়েছেন। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ট্রাম্প প্রশাসন চোখ বন্ধ করে রেখেছিল।

কিন্তু এরদোয়ান যখন সোমবার ব্রাসেলসে ন্যাটোর গুরুত্বপূর্ণ সম্মেলনে হাজির হচ্ছেন, তিনি মুখোমুখি হতে যাচ্ছেন নিশ্চিতভাবেই আরও সন্দিহান বাইডেন প্রশাসনের। এরদোয়ানের জন্য পরিস্থিতি খুব সরল হয়। করোনাভাইরাস মহামারি ও তার সরকারের অর্থনৈতিক পরিচালনায় অব্যবস্থাপনার কারণে দেশটি মুদ্রাস্ফীতি, বেকারত্ব ও বিপজ্জনক মাত্রায় দুর্বল লিরার কারণে ঋণ সংকটে পড়ার আশঙ্কায় রয়েছে।

তাই নিজের অবস্থান কিছুটা বদলে নিয়েছেন এরদোয়ান। পশ্চিমাদের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় বিনিয়োগ পাওয়ার প্রত্যাশায় ইতোমধ্যে বিভিন্ন ইস্যুতে সুর নরম করেছেন। পশ্চিমা নেতাদের পুনরায় আশ্বস্ত করতে তিনি পূর্ব ভূমধ্যসাগরে গ্যাসের অনুসন্ধান বন্ধ করেছেন। গ্যাস অনুসন্ধানের উদ্যোগটি ন্যাটো মিত্রদের ক্ষুব্ধ করেছিল। মস্কোর বিরূপভাজন হতে শুরু করেছেন ইউক্রেনকে সমর্থন ও পোল্যান্ডের কাছে তুর্কি নির্মিত ড্রোন বিক্রি করে।

এরপরও এরদোয়ানের হাতে কয়েকটি তুরুপের তাস রয়েছে। ন্যাটোতে তুরস্কের অবস্থানের কারণে লাখো শরণার্থীর আশ্রয় ও আফগানিস্তানে সামরিক অবস্থানের কারণে পশ্চিমাদের সঙ্গে দরকষাকষিতে দেশটিকে বিশেষ সুবিধায় রেখেছে।

তবে এরদোয়ান কর্তৃত্ববাদের ঝোঁক, পুতিনের সঙ্গে সম্পর্ক গভীর করা এবং রুশ এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনা থেকে বিরত থাকবেন না। বাইডেনের লক্ষ্য মিত্রদের গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করার সঙ্গে সাংঘর্ষিক হলেও এই অবস্থান থেকে সরবেন না তিনি।

ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইসিস গ্রুপের তুরস্ক প্রকল্পের পরিচালক নিগার গকসেল বলেন, এরদোয়ানকে বাঁকা করার চেষ্টার সময় তুরস্ককে না হারানোর কোনও উপায় নেই। এরদোয়ান এগিয়ে যাওয়ার একটি উপায় খুঁজছেন, যখন তারা নিশ্চিত করতে চাইছে তিনি যেনও রাজনৈতিক সাফল্য না পান।

ওয়াশিংটন ইনস্টিটিউট ফর নিয়ার ইস্ট পলিসি’র তুরস্ক গবেষণা কর্মসূচির পরিচালক সোনার কাগাপ্তে বলেন, বাইডেন জানেন তাকে হয়তো তুরস্ক ও গণতন্ত্রের মধ্যে একটিকে বেছে নিতে হবে। সূত্র: নিউ ইয়র্ক টাইমস

/এএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

তাইওয়ান প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যুদ্ধজাহাজ

তাইওয়ান প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যুদ্ধজাহাজ

শ্রমিকদের এমন ক্ষোভ কয়েক দশক দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র

শ্রমিকদের এমন ক্ষোভ কয়েক দশক দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র

প্রথমবারের মতো আর্থশট পুরস্কার ঘোষণা

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:৪৬

প্রথমবারের মতো ঘোষণা করা আর্থশট পুরস্কার প্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন কোরাল উৎপাদক দুই বন্ধু এবং দেশ কোস্টারিকা। পৃথিবী রক্ষার চেষ্টাকারীদের জন্য বার্ষিক এই পুরস্কার প্রবর্তন করেছেন যুক্তরাজ্যের ডিউক অব কেমব্রিজ প্রিন্স উইলিয়াম। রবিবার রাতে লন্ডনে পাঁচ বিজয়ীর নাম ঘোষণা করা হয়। প্রত্যেক বিজয়ী দশ লাখ পাউন্ড পুরস্কার পাবেন। বাংলাদেশি মুদ্রায় এর পরিমাণ ১১ কোটি ৭৬ লাখ টাকারও বেশি।

রবিবার আলেক্সান্দ্রা প্রাসাদে পুরস্কার ঘোষণার অনুষ্ঠানে প্রিন্স উইলিয়াম ছাড়াও যোগ দেন এমা ওয়াটসন, ডেম এমা থম্পসন এবং ডেভিড ওয়েলোয়োর মতো তারকারা। অনুষ্ঠানে যোগ দিতে কেউ লন্ডনে বিমানে পৌঁছাননি। মঞ্চ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়নি কোনও প্লাস্টিক। অতিথিদের পোশাক নির্বাচনে পরিবেশকে বিবেচনায় নেওয়ার অনুরোধ করা হয়।

আর্থশট পুরস্কারের অনুপ্রেরণা ১৯৬০’র দশকে আমেরিকার ‘মুনশট’ আকাঙ্ক্ষা। ওই সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি এক দশকের মধ্যে চাঁদে একজন মানুষ পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দেন।

আর পরবর্তী এক দশক ধরে দেওয়া হবে আর্থশট পুরস্কার। পরিবেশগত সমস্যা সমাধানের চেষ্টায় নিয়োজিত পাঁচটি প্রকল্পকে প্রতিবছর এই পুরস্কার দেওয়া হবে। প্রতিটি প্রজেক্টই দশ লাখ পাউন্ড পুরস্কার পাবেন।

প্রথমবার পুরস্কার দেওয়া হয়েছে পাঁচটি ভিন্ন ক্যাটাগরিতে। ১৫টি প্রজেক্টের একটি শর্টলিস্ট থেকে পুরস্কারপ্রাপ্তদের নির্বাচন করেন বিচারকেরা। বিচারকদের মধ্যে ছিলেন উপস্থাপক স্যার ডেভিড অ্যাটেনবোরো, অভিনেত্রী কেট ব্লানচেট এবং গায়ক সারিকা।

বিজয়ী যারা

প্রটেক্ট অ্যান্ড রিস্টোর ন্যাচার বিভাগে বিজয়ী হয়েছে রিপাবলিক অব কোস্টারিক। দেশটির বেশিরভাগ বনভূমি এক সময়ে ধ্বংস হয়ে যায়। তবে সম্প্রতি দেশটিতে গাছের সংখ্যা দ্বিগুণ বেড়েছে। আর অন্যদের জন্য তাদের অনুকরণীয় মডেল বিবেচনা করা হয়। প্রাকৃতিক বাস্তুতন্ত্র ফেরাতে স্থানীয় বাসিন্দাদের মূল্য পরিশোধের মাধ্যমে কোস্টারিকায় রেইনফরেস্ট বেড়েছে। আর এই প্রকল্পই পেয়েছে আর্থশট পুরস্কার।

ক্লিন আওয়ার এয়ার বিভাগে পুরস্কার পেয়েছে ভারতের তাকাচার। বহনযোগ্য এই মেশিনটি কৃষি বর্জ্যকে সারে পরিণত করতে পারে। তাহলে কৃষকদের আর ক্ষেত পুড়িয়ে বাতাস দূষণ করতে হয় না।

রিভাইব আওয়ার ওসানস বিভাগে পুরস্কার পেয়েছে বাহমাসের দুই বন্ধুর পরিচালিত কোরাল উৎপাদনের একটি প্রজেক্ট। বিশ্বের মৃতপ্রায় কোরাল রিফ পুনরুদ্ধারে এই প্রজেক্টটির নকশা করা হয়েছে। বিশেষ ট্যাংক ব্যবহার করে তারা এমন এক পদ্ধতি তৈরি করেছেন যাতে প্রাকৃতিক পরিবেশের চেয়ে কোরাল ৫০ গুণ দ্রুত বাড়ে।

বর্জ্যমুক্ত পৃথিবী গড়ি বিভাগে আর্থশট পুরস্কার জিতেছে ইতালির মিলান শহরের খাদ্য বর্জ্য ব্যবস্থাপনা। অব্যবহৃত খাবার সংগ্রহ এবং সেগুলো যাদের প্রয়োজন তাদের সরবরাহের ব্যবস্থা করায় এই পুরস্কার পেয়েছে তারা। এই উদ্যোগে নাটকীয়ভাবে বর্জ্য কমে গেছে আর একই সঙ্গে ক্ষুধা নিরসনও সম্ভব হচ্ছে।

ফিক্স আওয়ার ক্লাইমেট বিভাগে আর্থশট পুরস্কার জিতেছে এইএম ইলেক্ট্রোলাইসার। নবায়নযোগ্য জ্বালানি ব্যবহার করে পানির অক্সিজেন ও হাইড্রোজেন ভেঙে হাইড্রোজেন উৎপাদনের চতুর নকশা এইএম ইলেক্ট্রোলাইসার। হাইড্রোজেন একটি পরিবেশ সম্মত গ্যাস। তবে এটি সাধারণত জীবাশ্ম জ্বালানি পুড়িয়ে তৈরি করা হয়।

/জেজে/

সম্পর্কিত

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

ব্রিটিশ এমপি হত্যা: অভিযুক্ত ব্যক্তি সন্ত্রাসবাদ আইনে কারাগারে

ব্রিটিশ এমপি হত্যা: অভিযুক্ত ব্যক্তি সন্ত্রাসবাদ আইনে কারাগারে

এম‌পি খুনে সন্দেহে জ‌ঙ্গিবাদ, মুসলিম কমিউনিটিতে উদ্বেগ

এম‌পি খুনে সন্দেহে জ‌ঙ্গিবাদ, মুসলিম কমিউনিটিতে উদ্বেগ

ব্রিটিশ এমপি হত্যাকাণ্ড ‘সন্ত্রাসী ঘটনা’ : পুলিশ

ব্রিটিশ এমপি হত্যাকাণ্ড ‘সন্ত্রাসী ঘটনা’ : পুলিশ

ফরাসি রাষ্ট্রদূতকে বেলারুশ ত্যাগের নির্দেশ

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:১৮

ফ্রান্সের রাষ্ট্রদূতকে বেলারুশ ত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রবিবার ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি মিনস্কের ফরাসি দূতবাস সূত্রের বরাতে জানিয়েছে রাষ্ট্রদূত ইতোমধ্যে বেলারুশ ছেড়েছেন।

তবে ফরাসি রাষ্ট্রদূত নিকোলাস ডি বুইলানে ডি লাকোস্তেকে কেন বহিষ্কার করা হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। বেলারুশের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, মিনস্ক ইতোমধ্যে প্যারিস থেকে রাষ্ট্রদূত ইগর ফেসেঙ্কোকে ডেকে পাঠিয়েছে।

মিনস্কের ফরাসি দূতাবাসের ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, গত বুধবার রাষ্ট্রদূত ডি লাকোস্তে সম্প্রতি নিষিদ্ধ হওয়া একটি বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধিদের স্বাগত জানান। এদের মধ্যে ‘সত্য বলে দাও’ নামের ওই সংস্থাটির সহ প্রতিষ্ঠাতাও ছিলেন। তিনি গত বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রার্থী ছিলেন।

রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারের বিষয়ে বেলারুশ এবং ফ্রান্সের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কিংবা ফরাসি দূতাবাস কোনও মন্তব্য করেনি।

গত বছরের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগ ওঠার পর ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলোর সঙ্গে বেলারুশের সম্পর্ক নাজুক হয়ে পড়ে। ওই নির্বাচনে সহজ জয় পান প্রেসিডেন্ট আলেক্সান্ডার লুকাশেঙ্কো।

/জেজে/

সম্পর্কিত

রাশিয়ায় টানা চতুর্থ দিনের মতো রেকর্ড করোনা সংক্রমণ

রাশিয়ায় টানা চতুর্থ দিনের মতো রেকর্ড করোনা সংক্রমণ

রাশিয়ায় ভেজাল মদ পানে ১৮ জনের মৃত্যু

রাশিয়ায় ভেজাল মদ পানে ১৮ জনের মৃত্যু

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

‘দায়িত্ব নেওয়ায়’ ম্যার্কেলের প্রশংসা করলেন এরদোয়ান

‘দায়িত্ব নেওয়ায়’ ম্যার্কেলের প্রশংসা করলেন এরদোয়ান

আমেরিকান মিশনারি অপহরণে হাইতির গ্যাং জড়িত: কর্মকর্তা

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৪৮

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, হাইতির রাজধানী পোর্ট-আ-প্রিন্সের বাইরে থেকে উত্তর আমেরিকার অন্তত ১৭ মিশনারিকে অপহরণের ঘটনায় দেশটির একটি কুখ্যাত গ্যাং জড়িত।

গত শনিবার অপহৃত হওয়ার সময় পাঁচ পুরুষ, সাত নারী এবং পাঁচ শিশুর দলটি একটি এতিমখানা পরিদর্শণ শেষে ফিরে আসছিলো। কর্মকর্তারা দাবি করেছেন, তাদের অপহরণ করেছে ৪০০ মায়োজো নামের একটি গ্যাং। গত এপ্রিলে এক ক্যাথোলিক যাজককে অপহরণেও অভিযুক্ত এই গ্যাংটি।

বিশ্বে অপহরণের হার সবচেয়ে বেশি হাইতিতে। এই বছর বিশেষ রকমের খারাপ। স্থানীয় একটি নাগরিক গ্রুপের হিসেব অনুযায়ী এই বছরের প্রথম তিন মাসেই ছয়শ’র বেশি অপহরণের ঘটনা নথিভুক্ত হয়েছে। যা গত বছরের একই সময়ের চেয়ে ২৩১টি বেশি।

গত জুলাইতে হাইতির প্রেসিডেন্ট জোভেনেল মোইসি খুন হন। এরপর দেশের নিয়ন্ত্রণ নিতে প্রতিদ্বন্দ্বি গ্রুপগুলোর মধ্যে সংঘাত বেড়েছে। বেড়েছে অপরাধের পরিমাণও। অপহরণের হাত থেকে স্থানীয় ও বিদেশি কেউই বাদ পড়ছে না। এসব অপহরণের বড় অংশই করছে ৪০০ মায়োজো গ্যাং।

হাইতির পুলিশ ইন্সপেক্টর ফ্রান্টজ চ্যাম্পেজ বলেন, ধারণা করা হচ্ছে গত শনিবার ১৬ মার্কিন ও এক কানাডীয়কে অপহরণের সঙ্গেও গ্যাংটি জড়িত। ফরাসি বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, বেশ কয়েক জন স্থানীয়কেও অপহরণ করা হয়েছে।

ক্রয়েক্স-ডেস-বুকেটস শহর থেকে বের হওয়ার কিছুক্ষণ পরই উত্তর আমেরিকান মিশনারিদের গ্রুপটিকে তুলে নেওয়া হয়। ওই এলাকাটি নিয়ন্ত্রণ করে ৪০০ মায়োজো গ্যাং।

গ্যাংটি সাধারণত চাঁদার দাবি করে থাকে। এপ্রিলে ক্যাথোলিক যাজককে নিরাপদে ফিরিয়ে দেওয়ার বিনিময়ে তারা দশ লাখ ডলার দাবি করে। তবে মিশনারিদের জন্য কোনও চাঁদা চাওয়া হয়েছে কিনা তা স্পষ্ট নয়।

/জেজে/

সম্পর্কিত

কঙ্গোতে নতুন করে ইবোলা শনাক্ত

কঙ্গোতে নতুন করে ইবোলা শনাক্ত

আফ্রিকার শিশুদের দেওয়া হবে ম্যালেরিয়ার টিকা

আফ্রিকার শিশুদের দেওয়া হবে ম্যালেরিয়ার টিকা

ফ্রান্সের সামরিক বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

ফ্রান্সের সামরিক বিমানের জন্য আকাশসীমা বন্ধ করলো আলজেরিয়া

পার্লামেন্টে আত্মহত্যা করলেন সাবেক ডেপুটি স্পিকার

পার্লামেন্টে আত্মহত্যা করলেন সাবেক ডেপুটি স্পিকার

প্রাণঘাতী বন্যায় ভারতে বহু মানুষ নিখোঁজ

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৪৫

ভারি বৃষ্টিপাত থেকে সৃষ্ট বন্যায় ভারতের দক্ষিণাঞ্চলে অন্তত ২০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তীব্র বন্যায় বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে বিভিন্ন শহর ও গ্রাম। কেরালা রাজ্যের কোত্তিয়াম জেলায় স্রোতে ভেসে গেছে বহু বাড়ি, আটকে পড়েছে মানুষ।

ওই এলাকার একটি ভিডিও ফুটেজে দেখা গেছে বাসের মধ্যে পানি ঢুকে পড়ার পর যাত্রীদের উদ্ধার করা হচ্ছে। কেরালায় কয়েক দিনের ভারি বৃষ্টিপাতে ভূমি ধস দেখা দিয়েছে। উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিয়েছে দেশটির সেনাবাহিনী।

রবিবার কর্মকর্তারা জানান, ভূমি ধসে আটকে পড়াদের উদ্ধারে এবং প্রয়োজনীয় ত্রাণ বিতরণে হেলিকপ্টার ব্যবহার করা হচ্ছে। ভয়াবহ এক ঘটনায় কোত্তিয়ামের একটি বাড়ি স্রোতে ভেসে গেলে ৭৫ বছরের দাদি এবং তিন শিশুসহ এক পরিবারের ছয় সদস্যের মৃত্যু হয়েছে।

এছাড়া ইদুক্তি জেলায় ভূমি ধসের ধ্বংসাবশেষের নিচ থেকে তিন শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া সেখানে নিখোঁজ পাঁচ জনের সন্ধানে এখনও তল্লাশি চলছে।

কোল্লামসহ অন্য উপকূলীয় শহরের বেশ কিছু সড়ক ভেসে যাওয়ায় এবং গাছ উপড়ে পড়ায় আটকে পড়াদের উদ্ধারে ব্যবহার করা হচ্ছে মাছ ধরা নৌকা। এছাড়া বহু মানুষ নিখোঁজ থাকার কথা জানা যাচ্ছে। আশঙ্কা করা হচ্ছে মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে।

মাটি, পাথর এবং পড়ে যাওয়া গাছ সরিয়ে বেঁচে থাকাদের সন্ধানে উদ্ধার তৎপরতায় যোগ দিয়েছে স্থানীয় বাসিন্দারা। রাজ্যের বিভিন্ন স্থানে খোলা হয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র।

কেরালায় ভারি বৃষ্টিপাতে বন্যা, ভূমি ধস অস্বাভাবিক কিছু নয়। এক সময় রাজ্যটিতে বন্যার প্রাকৃতিক রক্ষাকবচের কাজ করেছে জলাভূমি ও লেক। তবে নগরায়নের কারণে এসব রক্ষাকবচ হারিয়ে যাওয়ায় দুর্যোগ বেড়েছে।

২০১৮ সালে ভয়াবহ বন্যায় কেরালায় প্রায় চারশ’ মানুষের মৃত্যু হয়। এছাড়া বাস্তুচ্যুত হয়ে পড়ে দশ লাখের বেশি মানুষ। ওই বন্যাকে শতাব্দির ভয়াবহ বন্যা বলে মনে করা হয়।

/জেজে/

সম্পর্কিত

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

ভারতের প্রথম অ্যালকোহল জাদুঘরের যাত্রা শুরু

কাশ্মিরে বন্দুকযুদ্ধে পাকিস্তানি কমান্ডোদের হাত দেখছে ভারত: এনডিটিভি

কাশ্মিরে বন্দুকযুদ্ধে পাকিস্তানি কমান্ডোদের হাত দেখছে ভারত: এনডিটিভি

ভারতের কাছে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চাইলো শ্রীলঙ্কা

ভারতের কাছে ৫০ কোটি ডলার ঋণ চাইলো শ্রীলঙ্কা

অতিবৃষ্টি ও বন্যায় বিপর্যস্ত কেরালা, নিহত ১৮

অতিবৃষ্টি ও বন্যায় বিপর্যস্ত কেরালা, নিহত ১৮

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০২:৪৯

পাঁচ রাত সেবা নেওয়ার পর ক্যালিফোর্নিয়ার একটি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন। তিনি মূত্রণালীর সংক্রমণের চিকিৎসা নিয়েছেন। এই সংক্রমণ পচন পর্যন্ত পৌঁছায়।

সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রার্থী এবং তার স্ত্রী হিলারি ক্লিন্টনকে সঙ্গে নিয়ে হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে আসেন ৭৫ বছর বয়সী বিল ক্লিন্টন। অপেক্ষারত সংবাদকর্মীদের উদ্দেশে হাত নাড়েন তিনি।

চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠতে বিল ক্লিন্টন তার নিউ ইয়র্কের বাড়িতে ফিরবেন।

ক্লিন্টনকে চিকিৎসা দেওয়া ডাক্তারদের তদারকিতে ছিলেন ডা আলপেস আমিন। এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, ‘তার জ্বর এবং রক্তের শ্বেত কণিকা স্বাভাবিক হয়েছে আর তিনি নিউ ইয়র্কে ফিরে অ্যান্টিবায়োটিক কোর্স সম্পন্ন করবেন।’

যুক্তরাষ্ট্রের ৪২তম প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন ১৯৯৩ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন। হাসপাতাল থেকে বের হওয়ার সময় অপেক্ষারত মেডিক্যাল কর্মীদের সঙ্গে হাত মেলান।

মার্কিন সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা গেছে,  নিজের ফাউন্ডেশনের এক বেসরকারি আয়োজনে যোগ দিতে ক্যালিফোর্নিয়ায় যান বিল ক্লিন্টন। গত মঙ্গলবার ক্লান্তি অনুভব করেন তিনি। হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার আগে বেশ কয়েকটি টেস্ট করা হয় তার।

শুক্রবার রাতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন জানান তিনি বিল ক্লিন্টনের সঙ্গে কথা বলেছেন। সাংবাদিকদের তিনি বলেন, তার অবস্থা মারাত্মক নয়।

বিল ক্লিন্টনের স্বাস্থ্য জটিলতা এবারই প্রথম নয়। ২০০৪ সালে ৫৮ বছর বয়সে তার বাইপাস অপারেশন হয়। দশ বছর পর তার দ্বিতীয় অপারেশন হয়। দ্বিতীয় অপারেশনের পর চর্বিযুক্ত খাবার পছন্দ করা ক্লিন্টন ভেজান হয়ে যান।

/জেজে/

সম্পর্কিত

তাইওয়ান প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যুদ্ধজাহাজ

তাইওয়ান প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যুদ্ধজাহাজ

শ্রমিকদের এমন ক্ষোভ কয়েক দশক দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র

শ্রমিকদের এমন ক্ষোভ কয়েক দশক দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র

চীনা হুমকি, দ্রুত মার্কিন এফ-১৬ যুদ্ধবিমান চায় তাইওয়ান

চীনা হুমকি, দ্রুত মার্কিন এফ-১৬ যুদ্ধবিমান চায় তাইওয়ান

মার্কিন ধর্ম প্রচারকসহ পরিবারের ১৭ জন অপহৃত

মার্কিন ধর্ম প্রচারকসহ পরিবারের ১৭ জন অপহৃত

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

হাসপাতাল ছাড়লেন বিল ক্লিন্টন

তাইওয়ান প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যুদ্ধজাহাজ

তাইওয়ান প্রণালীতে যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডার যুদ্ধজাহাজ

শ্রমিকদের এমন ক্ষোভ কয়েক দশক দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র

শ্রমিকদের এমন ক্ষোভ কয়েক দশক দেখেনি যুক্তরাষ্ট্র

চীনা হুমকি, দ্রুত মার্কিন এফ-১৬ যুদ্ধবিমান চায় তাইওয়ান

চীনা হুমকি, দ্রুত মার্কিন এফ-১৬ যুদ্ধবিমান চায় তাইওয়ান

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

‘তুরস্কের কাছ থেকে ড্রোন কিনতে আগ্রহী যুক্তরাজ্য’

মার্কিন ধর্ম প্রচারকসহ পরিবারের ১৭ জন অপহৃত

মার্কিন ধর্ম প্রচারকসহ পরিবারের ১৭ জন অপহৃত

‘দায়িত্ব নেওয়ায়’ ম্যার্কেলের প্রশংসা করলেন এরদোয়ান

‘দায়িত্ব নেওয়ায়’ ম্যার্কেলের প্রশংসা করলেন এরদোয়ান

বিশ্বে টিকা সংকট, অথচ যুক্তরাষ্ট্র নষ্ট হলো দেড় কোটি ডোজ

বিশ্বে টিকা সংকট, অথচ যুক্তরাষ্ট্র নষ্ট হলো দেড় কোটি ডোজ

সর্বশেষ

হত্যা মামলায় যুবলীগ নেতা ফোয়াদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি 

হত্যা মামলায় যুবলীগ নেতা ফোয়াদের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি 

পাবজি খেলা নিয়ে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত কিশোর সংশোধনাগারে

পাবজি খেলা নিয়ে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত কিশোর সংশোধনাগারে

দক্ষিণ কোরিয়া গেলেন সেনাপ্রধান

দক্ষিণ কোরিয়া গেলেন সেনাপ্রধান

সম্পাদকের অনুসারীদের হাতে চবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি লাঞ্ছিত

সম্পাদকের অনুসারীদের হাতে চবি ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি লাঞ্ছিত

রাসেলকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি, জেলখানা ওর আব্বার বাড়ি

রাসেলকে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি, জেলখানা ওর আব্বার বাড়ি

© 2021 Bangla Tribune