X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

সাড়ে ৪ হাজার কোটি টাকার আম বিক্রি নিয়ে শঙ্কা

আপডেট : ১৪ জুন ২০২১, ২৩:৩৬

রাজশাহীতে খুচরা বাজারে আমের কেজি ২০-২৫ টাকা। এসব আম পাইকারি বাজারে আরও কম দামে পাওয়া যায়। এরপরও ক্রেতা নেই। করোনা সংক্রমণের কারণে ক্রেতা কমে যাওয়ায় হঠাৎ কমে গেছে আমের দাম। এ অবস্থায় আম বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা পূরণে শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

সোমবার (১৪ জুন) উত্তরের দ্বিতীয় বৃহৎ আমের হাট বানেশ্বর, রাজশাহীর সাহেব বাজার, শালবাগান, রাজশাহী বাসস্ট্যান্ড আমের বাজার ঘুরে এসব তথ্য জানা গেছে।

জানা যায়, রাজশাহী অঞ্চলে এবার প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার আম বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা পূরণে আশাবাদী ছিল কৃষি বিভাগ। কিন্তু হঠাৎ লক্ষ্যমাত্রা পূরণে শঙ্কা প্রকাশ করেছে তারা। বাজারে উন্নত জাতের গোপালভোগ, খিরসাপাত ও ল্যাংড়া আম পাওয়া যাচ্ছে। তবে ক্রেতা সংকটে কমেছে দাম। কয়েক দিনের ব্যবধানে বানেশ্বর হাটে প্রতিমণে ২০০-৩০০ টাকা কমেছে আমের দাম। পাশাপাশি অন্যান্য বাজারেও কমেছে।

বিক্রেতাদের ভাষ্য, হাটে প্রচুর আম আমদানি হচ্ছে। সে তুলনায় ক্রেতা কম। তাই আম বিক্রি করতে হচ্ছে কম দামে। এতে চাষি ও বাগান কেনা ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন।

আম ব্যবসায়ী হাসান আলী বলেন, গত সপ্তাহে বানেশ্বর হাটে ল্যাংড়া আমের মণ বিক্রি হয়েছিল ১৩০০-১৫০০, খিরসাপাত ১৪০০-১৮০০ ও গোপালভোগ ১৯০০-২৩০০ টাকা। কিন্তু চলতি সপ্তাহে হাটে প্রচুর আম। ক্রেতা নেই। এ অবস্থায় আম সংরক্ষণের ব্যবস্থা থাকলে উপকৃত হতেন চাষি ও ব্যবসায়ীরা।

আম ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম বলেন, রবিবার (১৩ জুন) বানেশ্বর হাটে গোপালভোগ আম ছিল না। সোমবার (১৪ জুন) খুবই কম ছিল। তবে অন্যান্য জাতের আম আছে। ল্যাংড়া আমের মণ ১২০০-১৩০০ টাকা, খিরসাপাত ১৮০০-২০০০ টাকা, স্থানীয় গুটি আম ৭০০-১০০০ টাকা, লক্ষণভোগ ৬০০-৮০০ টাকা ও রানিপছন্দ ১১০০-১২০০ টাকা বিক্রি হয়েছে।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, রাজশাহীর বাজারগুলোতে এখন কয়েকটি জাতের আম বিক্রি হচ্ছে। কয়েকদিনের ব্যবধানে কেজিপ্রতি প্রায় ২০-২৫ টাকা কমেছে আমের দাম। সোমবার (১৪ জুন) সাহেব বাজারে কম দামে আম বিক্রি হয়েছে। এই বাজারে গোপালভোগের কেজি ৬৫-৭০, খিরসাপাত ৪৫-৫০, ল্যাংড়া ৩০-৩৫, স্থানীয় গুটি জাতের আম ১৫-২০, লক্ষণভোগ ২০-২৫ ও রানিপছন্দ ২৫-৩০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে।

রাজশাহী নগরীর শালবাগান বাজারের মোশাররফ ফল ভাণ্ডারের মালিক ও বিক্রেতা মোশাররফ বলেন, বাগান থেকে বাজার দরের চেয়ে ৩০০-৪০০ টাকা কমে আমের মণ কিনি। বাজারে আনার খরচ, শ্রমিক খরচ, আমের সাইজ বাছাই ও বিভিন্ন খরচের কারণে বেশি দামে বিক্রি করতে হয়।

ক্রেতা কম থাকায় এবার আম বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা পূরণে শঙ্কা দেখা দিয়েছে

তিনি বলেন, খিরসাপাত ৩৫-৪৫, ল্যাংড়া ৩৫-৪০ ও রানিপছন্দ ২৫-৩০ কেজি দরে বিক্রি করছি। তবে লকডাউনে কৃষিপণ্য বিক্রি করার অনুমতি থাকলেও নগরীতে রিকশা, অটোরিকশাসহ যাতায়াত ব্যবস্থা বন্ধ থাকায় আমের ক্রেতা কমে গেছে।

গত সপ্তাহে সাহেব বাজারে গোপালভোগের মণ ২০০০-২২০০, খিরসাপাত ১৬০০-১৮০০, ল্যাংড়া ১৪০০-১৬০০, স্থানীয় গুটি জাতের আম ৮০০-১০০০, লক্ষণভোগ ৭০০-৮০০, রানিপছন্দ ৮০০-৯০০ টাকায় বিক্রি হয়েছিল।

এছাড়া অন্যান্য বাজার ঘুরে দেখা যায়, খিরসাপাত, রানিপছন্দ ও গোপালভোগ মানভেদে এক হাজার থেকে ১৬০০ টাকা মণ পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছে। খুচরা বাজারে ৩০-৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে। হিমসাগর ৬০ টাকা কেজি দরে খুচরা বিক্রি হচ্ছে। পাইকারি ৩০-৪০ টাকা কেজি বিক্রি হচ্ছে।

আম ব্যবসায়ী আব্দুর রহিম বলেন, উন্নত জাতের আম বলতে গোপালভোগ, খিরসাপাত ও ল্যাংড়া আছে। খেতেও ভালো, দামও বেশি। কেনাবেচার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, দূরের ব্যবসায়ী কম আসছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে অন্য জেলার কম ব্যবসায়ী আসছেন।

আম ব্যবসায়ী নুরুল ইসলাম বলেন, লকডাউনের কারণে বেশি রাত পর্যন্ত দোকান খোলা রাখতে পারছি না। ক্রেতাও কম। বেশি আম কিনলে নষ্ট হয়ে যায়। অনেকেই অনলাইনে আম কিনছেন। তাই আমের দোকানগুলোতে ক্রেতা কম।

আম ব্যবসায়ী রাজিবুল ইসলাম জানান, তিনি ঢাকা থেকে আম কিনতে এসেছেন। তার ঢাকায় আমের আড়ত রয়েছে। যদিও রাজশাহীতে তার ব্যবসায়িক প্রতিনিধি আছে। তিনি আম কিনে পাঠান। সপ্তাহে একবার আসেন তিনি। রাজিবুল বলেন, এবার আম বিক্রির অবস্থা ভালো না। এখন বেশিরভাগ মানুষ মোবাইল ফোন বা অনলাইনে অর্ডার করছেন। ফলে ব্যবসা কমেছে আমাদের।

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, প্রতি বছর কৃষক ও এলাকাভিত্তিক উৎপাদিত ৩০ শতাংশ আম নষ্ট হয়। সেই সঙ্গে সংরক্ষণের অভাবে প্রায় ১০ শতাংশ নষ্ট হয়ে গেলে দাঁড়ায় ৪০ শতাংশ। প্রতি বছর অবহেলাজনিত কারণে ৪০ শতাংশ আম নষ্ট হয়।

রাজশাহী অঞ্চলে এবার প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার আম বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে

রাজশাহী কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক কেজেএম আবদুল আউয়াল বলেন, পরীক্ষামূলক সংরক্ষণের জন্য রাজশাহী বিভাগের দুটি জেলায় কোল্ড স্টোরেজ করা হচ্ছে। যার একটি রাজশাহীর শিবপুরহাট ও অপরটি নাটোরের আহম্মদপুরে। সেখানে চার মেট্রিক টন করে আম সংরক্ষণ সম্ভব হবে। পরীক্ষার ফল সন্তোষজনক হলে সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।

রাজশাহীর আঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের তথ্যমতে, এবার প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার আম বিক্রির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। যেখানে উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে আট লাখ ৫২ হাজার ১০০ মেট্রিক টন। যা গত বছর ছিল সাত লাখ ৭৬ হাজার ২৮৬ মেট্রিক টন। আর অর্জিত বাজার মূল্যে ছিল প্রায় চার হাজার ২৬৬ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। গত বছর আমের গড় মূল্য ছিল ৫৫ টাকা কেজি।

রাজশাহী জেলায় গত বছর আমের আবাদ হয়েছিল ১৭ হাজার ৬৮৬ হেক্টর জমিতে। ঘূর্ণিঝড় আম্পানের কারণে আমের আবাদের ক্ষতি হয়েছিল। ক্ষতি বাদে অর্জিত হয়েছিল ১৫ হাজার ১২ হেক্টর জমি। যেখানে উৎপাদন হয়েছিল এক লাখ ৭৯ হাজার ৫৪১ মেট্রিক টন আম।

এবার রাজশাহীতে ১৭ হাজার ৯৪৩ হেক্টর জমিতে দুই লাখ ১৯ হাজার মেট্রিক টন আম উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। তবে লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে উৎপাদন বৃদ্ধির সম্ভাবনার কথাও বলছে কৃষি বিভাগ। গত বছর রাজশাহীর আমের গড় মূল্যে ছিল প্রতিকেজি ৬০ টাকা। যা অন্যান্য জেলার চেয়ে বেশি।

২০২০ সালে নওগাঁয় ক্ষতি বাদে ২৩ হাজার ৮২৫ হেক্টর জমিতে দুই লাখ ৮৫ হাজার ৯০০ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয়েছিল। সেখানে আমের গড় মূল্যে ছিল প্রতিকেজি ৫০ টাকা। নাটোরে ক্ষতি বাদে চার হাজার ৬৮৫ হেক্টর জমিতে উৎপাদন হয়েছিল ৬৪ হাজার ৯৭২ মেট্রিক টন। যেখানে আমের গড় মূল্য ছিল প্রতিকেজি ৪৫ টাকা।

২০২০ সালে চাঁপাইনবাবগঞ্জে ক্ষতি বাদে ৩২ হাজার ৭৬৪ হেক্টর জমিতে দুই লাখ ৪৫ হাজার ২৮৫ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয়েছিল। যেখানে আমের গড় মূল্যে ছিল প্রতিকেজি ৫৮ টাকা।

বর্তমানে রাজশাহী অঞ্চলের আম ব্যবসায়ীরা আম বেচাকেনায় ব্যস্ত সময় পার করছেন। জমে উঠেছে অনলাইন বাজার। কিন্তু দাম কমে যাওয়ায় হতাশা প্রকাশ করছেন ব্যবসায়ীরা।

কয়েক দিনের ব্যবধানে বানেশ্বর হাটে প্রতিমণে ২০০-৩০০ টাকা কমেছে আমের দাম

এবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় আমের ব্যবসায় নেমেছেন কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী। এসব উদ্যোক্তা ও খুচরা আম ব্যবসায়ীরা আশার কথা শোনাচ্ছেন।

জানা যায়, রাজশাহী, নওগাঁ, নাটোর ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম অনলাইনে বেচাকেনা হচ্ছে। তবে রাজশাহীর আম সবচেয়ে বেশি অনলাইনে বেচাকেনা হচ্ছে। রাজশাহীর ছোট বড় প্রায় সাড়ে ৫০০ ব্যবসায়ী সরাসরি ও অনলাইনেও ব্যবসা করছেন। অনলাইন ব্যবসায়ীরা কখনও সরাসরি আমবাগান আবার ছোট বড় মোকামগুলো থেকে পছন্দের আম কিনে সরবরাহ করছেন। অর্ডারের দু-তিনদিনের মধ্যেই ক্রেতার কাছে পৌঁছে দেন আম।

অনলাইনে আমের ব্যবসা করছেন রাজশাহী কলেজের শিক্ষার্থী সিজানুর রহমান সিজান। তিনি বলেন, অনলাইনে আমের ব্যবসা লাভজনক। আমার বাসা চাঁপাইনবাবগঞ্জে। কিন্তু আমি ঢাকায় থাকি। ঢাকা থেকেই অনলাইনে প্রচারণা চালিয়ে অর্ডার নিচ্ছি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ ও রাজশাহীতে থাকা বন্ধুরা কুরিয়ারযোগে আম পাঠিয়ে দেয়। গতবার ভালো লাভ হয়েছিল। এবারও বিক্রি ভালোই।

এদিকে নতুন করে আমের ব্যবসায় যুক্ত হয়েছেন নাইম ইসলাম। কিন্তু আমের দাম কমে যাওয়ায় তিনি হতাশ। পড়াশোনার পাশাপাশি কয়েকটি আমের বাগান কিনেছেন। আম সংগ্রহ করে রাজশাহীর স্থানীয় বাজারসহ উদ্যোক্তাদের কাছে বিক্রি করছেন তিনি।

নাইম হোসেন বলেন, করোনার কারণে বাইরের ব্যবসায়ীরা আম কিনছেন না। করোনার অজুহাতে দামও কম। সাড়ে তিন লাখ টাকার বাগান কিনেছি। কিন্তু আমের যে দাম, তাতে চালান উঠবে না। আমি বাগানে ২৫-৩০ টাকা কেজিতে আম বিক্রি করি। অথচ সে আম খুচরা বাজারে ঠিকই ৬০-৭০ টাকা বিক্রি হয়। আসলে ক্ষতি আমাদেরও।

রাজশাহীর বাজারগুলোতে এখন কয়েকটি জাতের আম বিক্রি হচ্ছে

রাজশাহী আম ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি হাজী মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, রাজশাহীতে এখন অনলাইনের মাধ্যমে আমের বেচাকেনা অন্যান্য সময়ের চেয়ে বেড়েছে। আগে যারা সরাসরি বিক্রি করতেন তারাও অনলাইনের দিকে ঝুঁকছেন। তবে আমের দাম কিছুটা কম।

রাজশাহী ফল গবেষণা কেন্দ্রের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ডা. অলিম উদ্দিন বলেন, রাজশাহীর আম সব সময় গুণগত ও মানে ভালো। ক্রেতাদের মুখেও রাজশাহীর আমের সুনাম আছে। এবার আমে পোকাসহ রোগবালাইয়ের তেমন আক্রমণ নেই। সার্বিক দিক বিবেচনায় আমের উৎপাদনও বেড়েছে। তবে দাম কিছুটা কম।

রাজশাহী আঞ্চলিক কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক সিরাজুল ইসলাম বলেন, এবার আমের উৎপাদন ভালো হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় গুণগত মানও ভালো। রাজশাহীর আম এখন দেশের সীমানা ছাড়িয়ে বিদেশেও রফতানি হচ্ছে। সেই সঙ্গে অনলাইনে কেনাবেচা বেড়েছে। কিন্তু দাম কম থাকায় লক্ষ্যমাত্রা পূরণ নিয়ে কিছুটা শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

রাজশাহী চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি মনিরুজ্জামান বলেন, করোনা ও লকডাউনের ফলে আম বিক্রিতে কিছুটা প্রভাব পড়ছে। রাজশাহী থেকে আম পাঠাতে না পারলে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। সে কথা মাথায় রেখে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ম্যাঙ্গো স্পেশাল ট্রেন চালু করেছেন।

/এএম/এমওএফ/

সম্পর্কিত

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:০৭

তিন দিনের টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে মোংলা শহর ও উপজেলার বিভিন্ন এলাকা। পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় হাঁটু ও কোমর পানি। বাড়িঘর তলিয়ে যাওয়ায় পানিবন্দি সাত হাজারের বেশি মানুষ। 

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দুপুর পর্যন্ত বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে। পানি নিষ্কাশনের ড্রেন ও খাল ডুবে থাকায় পানি নামার ব্যবস্থা নেই। প্রায় ৩-৪ ফুট পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে ঘরবাড়ি। খাটের ওপরে পানি উঠে যাওয়ায় পৌরসভার পশু হাসপাতাল রোডের কয়েকশ মানুষ সরকারি বঙ্গবন্ধু মহিলা কলেজে আশ্রয় নিয়েছে। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জলাবদ্ধতার সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে পশু হাসপাতাল রোড ও কামারডাঙ্গা এলাকায়। এসব এলাকার ঘরবাড়ি ডুবে গেছে।

পাশাপাশি পৌরসভার ৩, ৪, ৭ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা পানিবন্দি হয়ে দুর্ভোগে আছেন বলে জানিয়েছেন পৌরসভার মেয়র শেখ আব্দুর রহমান।

এদিকে বুধবার বিকাল থেকে বৃহস্পতিবার বিকাল পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। বড় বড় গাছ উপড়ে পড়ে বিদ্যুতের খুঁটি ভেঙে গেছে।

স্থানীয়রা বলছেন, এত পরিমাণ বৃষ্টি এর আগে হয়নি। এবার খাটের ওপর পানি উঠেছে। ঘরবাড়ি, রাস্তাঘাট পানির নিচে। অনেকেই আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন।

পৌর মেয়র শেখ আব্দুর রহমান বলেন, পুরো পৌরসভা পানির নিচে। স্মরণকালের বৃষ্টিতে ভয়াবহ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। দুর্গতের খাদ্য সহায়তা দেওয়া হবে। দ্রুত পানি সরানোর কাজ চলছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) কমলেশ মজুমদার বলেন, বৃষ্টিতে উপজেলা তলিয়ে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে সাত হাজার মানুষ। ভেসে গেছে এক হাজার ঘেরের চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ। যারা বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে উঠেছেন তাদের খাদ্য সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। তবে পানিবন্দি লোকজন ও তলিয়ে যাওয়া ঘেরের সংখ্যা আরও বাড়বে।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

খুলনার চার হাসপাতালে একদিনে ১৬ মৃত্যু

খুলনার চার হাসপাতালে একদিনে ১৬ মৃত্যু

বাগেরহাটে পানিবন্দি হাজারো পরিবার, টর্নেডোতে বিধ্বস্ত বাড়িঘর

বাগেরহাটে পানিবন্দি হাজারো পরিবার, টর্নেডোতে বিধ্বস্ত বাড়িঘর

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩:৫৩

গাজীপুরের কালীগঞ্জে পুলিশের ধাওয়া খেয়ে শীতলক্ষ্যা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজের দুই দিন পর রাব্বি হাসানের (১৯) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভোর সোয়া ৪টায় পাশের রূপগঞ্জ উপজেলার কলিঙ্গা এলাকার শীতলক্ষ্যা নদী থেকে তার লাশ উদ্ধার হরা হয়। কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

নিহত রাব্বি হাসান উপজেলার তুমলিয়া ইউনিয়নের টিওরি গ্রামের খোকন মিয়ার ছেলে। তিনি স্থানীয় প্রাণ আরএফএল কারখানায় শ্রমিকের কাজ করতেন।

নিখোঁজের ফুফাতো বোন ফারহানা মিলির অভিযোগ, মঙ্গলবার (২৭ জুলাই) রাতে বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে ট্রলারে বসে রাব্বিসহ তার কয়েকজন বন্ধু আড্ডা দিচ্ছিলো। এসময় কালীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহীদুল ইসলামসহ পুলিশের একটি দল তাদের ধাওয়া করে। পুলিশের ধাওয়ায় তারা ছুটোছুটি করে পালিয়ে যায়। তবে রাব্বি পানিতে লাফিয়ে পড়ে। এসময় পুলিশের সঙ্গে থাকা সোর্স ইকবাল হোসেন নদীতে নেমে রাব্বি হাসানকে পানিতে চুবাতে থাকে। পরে ওই সোর্স পানি থেকে উঠে আসলেও রাব্বির খোঁজ মেলেনি।

ঘটনার সময় রাব্বির সঙ্গে টিওরি এলাকার জিহাদ (১৮), তায়েব (২০), রিয়াদ রনি (১৮), রাফিসহ (১৮) কমপক্ষে ১৫ জন ছিলেন বলে জানান স্থানীয়রা।

টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের লিডার আব্দুল জলিল জানান, কালীগঞ্জ উপজেলার বঙ্গবন্ধু বাজার এলাকায় যুবক রাব্বি হাসান (২১) নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ হয়। খবর পেয়ে টঙ্গী ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের ছয় সদস্য বুধবার (২৮ জুলাই) বেলা পৌণে ১২ টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত পাঁচ ঘন্টা খোঁজ করে ওই দিনের জন্য উদ্ধার কাজ সমাপ্ত করেন।

কালীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহীদুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ধাওয়া করার বিষয়টি এড়িয়ে যান। তবে অভিযানে রাব্বিকে চুবানোর ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশের সোর্স ইকবাল সঙ্গে ছিল বলে জানান তিনি।  

কালীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম মিজানুল হক বলেন, পুলিশ ওই সময় ওই এলাকায় মাদকের অভিযানে গিয়েছিল। এসময় কিশোরেরা অভিযানস্থলের নিকটবর্তী স্থানে মারামারি করছিল। পুলিশ ঘটনাস্থলের দিকে এগিয়ে গেলে ওই যুবকেরা পালিয়ে যায়। তখন কেউ পানিতে লাফিয়ে পড়া বা নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি আমাদের জানায়নি। বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে প্রায় এক কিলোমিটার দূরে রূপগঞ্জ উপজেলার কলিঙ্গা এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে লাশ ভেসে উঠলে স্থানীয়রা পুলিশে খবর দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রাব্বির মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

নারী শ্রমিককে ধর্ষণ, বিচার চাইতে গিয়ে মা লাঞ্ছিত

নারী শ্রমিককে ধর্ষণ, বিচার চাইতে গিয়ে মা লাঞ্ছিত

‘৩ ডোজ টিকা নেওয়া’ সেই সৌদি প্রবাসী কোথায়?

‘৩ ডোজ টিকা নেওয়া’ সেই সৌদি প্রবাসী কোথায়?

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৩:৩৫

কুষ্টিয়ায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে ৯ জন এবং অপর দুই জন উপসর্গ নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। 

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকালে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আব্দুল মোমেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
 
এদিকে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ৫২২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ১৪৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

ডা. আব্দুল মোমেন বলেন, করোনা ডেডিকেটেড কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ২০১ জন চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে ১৫১ জন করোনা আক্রান্ত এবং ৫০ জনের করোনার উপসর্গ রয়েছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:০৪

পটুয়াখালীতে মো. রাকিবুল (২২) নামের এক ছাত্রলীগ নেতাকে কুপিয়ে ডান হাতের কবজি কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ও তার ভাই রায়হান এ ঘটনায় জড়িত বলে অভিযোগ করেছেন হামলার শিকার রাকিবুল। তিনিও একই ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন। বর্তমানে শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তার চিকিৎসা চলছে। 

বুধবার (২৮ জুলাই) রাতে কলাপাড়া উপজেলার তেগাছিয়া বাজার সংলগ্ন ব্রিজের ঢালে এ ঘটনা ঘটে। 

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রাকিবুল বলেন, আমি রাতে তেগাছিয়া বাজার থেকে মোটরসাইকেলযোগে বাড়ি ফিরছিলাম। এসময় ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় পৌঁছালে এলোপাড়াড়ি কুপিয়ে ডান হাতের কবজি কেটে ফেলে ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ও তার ভাই রায়হানসহ বেশ কয়েকজন সন্ত্রাসী। এছাড়া তারা আমার বাম হাত এবং মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে জখম করে। পরে চিৎকার দিলে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে আমাকে উদ্ধার করে কলাপাড়া হাসপাতালে নিয়ে আসে।

কলাপাড়া হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসকরা জানান, রাত ১০টার দিকে হাতের কবজি কেটে ফেলা একজনকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। তার শরীরের একাধিক জায়গায় ধারালো অস্ত্রের আঘাত দেখা গেছে। হাসপাতাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

এ বিষয় অভিযুক্ত ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুলের মোবাইলফোনে একাধিকবার কল দিয়েও কথা বলা সম্ভব হয়নি। 

কলাপাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আসিক তালুকদার বলেন, এক বছর আগে মিঠাগঞ্জ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুলের সঙ্গে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. রাকিবুলের সংঘর্ষ ও মারামারি হয়। এর জের ধরেই গত রাতে রাকিবুলকে কুপিয়ে আহত করা হয় বলে জেনেছি। এ ঘটনায় উভয়পক্ষেরই লোকজন আহত হয়েছেন। 

কলাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

টানা বৃষ্টিতে ভেঙে পড়েছে বিদ্যুতের খুঁটি-গাছ

টানা বৃষ্টিতে ভেঙে পড়েছে বিদ্যুতের খুঁটি-গাছ

ভোলায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৭৫ শতাংশ

ভোলায় গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ৭৫ শতাংশ

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১২:৪১

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডেডিকেটেড করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় ১৬ জন মারা গেছেন। এরমধ্যে তিন জন করোনা পজিটিভ ও বাকি ১৩ জন উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। 

করোনায় মারা যাওয়াদের মধ্যে ময়মনসিংহ-নেত্রকোনা ও শেরপুরের একজন করে রোগী আছেন।  এছাড়া করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ময়মনসিংহের আট জন, শেরপুর ও টাঙ্গাইলের দুই জন করে ও নেত্রকোনার একজন রোগী। 

১৬ জন মারা যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ফোকাল পারসন ডা. মহিউদ্দিন খান মুন। তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৮৩ জন রোগী ভর্তি হয়েছেন। বর্তমানে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ৪৫০ জন এবং আইসিইউতে ২২ জন রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। এছাড়া ৭৩ জন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। 

এদিকে জেলার সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ৬৬০টি নমুনা পরীক্ষায় ৪৫৮ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। বর্তমানে করোনা শনাক্ত ব্যক্তির সংখ্যা হচ্ছে ১৪ হাজার ৮৫জন। এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১০ হাজার ৭০৫ জন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

সর্বশেষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

গায়েহলুদের মঞ্চে ঘুমোচ্ছেন প্রসূন, আটকে আছে বিয়ে!

গায়েহলুদের মঞ্চে ঘুমোচ্ছেন প্রসূন, আটকে আছে বিয়ে!

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

ফেসবুকে একইনামে অর্ধশতাধিক পেজ, ‘কুটুমবাড়ি’র সুনাম ক্ষুণ্ণের অভিযোগ

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

পর পর দুই মাস বাড়লো এলপিজি-অটোগ্যাসের দাম

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

লকডাউনে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখবেন কী করে?

সব পণ্যে ফেস আইডি আনতে পারে অ্যাপল

সব পণ্যে ফেস আইডি আনতে পারে অ্যাপল

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

বন্ধু দিবসে যথাশিল্পে ফ্রি ডেলিভারি

২৮ পদে চাকরি দিচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতর

২৮ পদে চাকরি দিচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতর

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

সাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ, ভারী বৃষ্টিতে ভূমিধসের শঙ্কা

সাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ, ভারী বৃষ্টিতে ভূমিধসের শঙ্কা

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

অনলাইনে ভ্যাট দিতে চায় ফেসবুক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

পুলিশের ধাওয়ায় শীতলক্ষ্যায় ঝাঁপ দেওয়া তরুণের লাশ উদ্ধার 

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

কুমিল্লায় কাভার্ডভ্যান উল্টে দুই শ্রমিকসহ নিহত ৩ 

কুমিল্লায় কাভার্ডভ্যান উল্টে দুই শ্রমিকসহ নিহত ৩ 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

ছেলের জন্য আইসিইউ বেড ছেড়ে মারা গেলেন মা

ছেলের জন্য আইসিইউ বেড ছেড়ে মারা গেলেন মা

© 2021 Bangla Tribune