X
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

নিত্যপণ্যের দাম বাড়লেও সহনীয় পর্যায়ে আছে : বাণিজ্যমন্ত্রী

আপডেট : ১৫ জুন ২০২১, ২০:০৫

সম্প্রতি দাম বাড়লেও সরকারের পদক্ষেপে নিত্যপণ্যের দাম সহনীয় পর্যায়ে চলে এসেছে বলে দাবি করেছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তরে লক্ষ্মীপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ার হোসেন খানের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী এ দাবি করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।

মন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি হঠাৎ চাল, ভোজ্যতেল, চিনির দাম বৃদ্ধি পেয়েছিল। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সময়োপযোগী পদক্ষেপের ফলে এসব নিত্যপণ্যের দাম আগের মতো স্বাভাবিক সহনীয় পর্যায়ে চলে এসেছে।

ভোলা-৩ আসনের নুরুন্নবী চৌধুরীর প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, এই সরকার ক্ষমতায় আসার সময় (২০০৮-০৯ অর্থবছর) বাংলাদেশের রফতানি আয় ছিল ১৫ হাজার ৫৬৫ দশমিক ১৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বর্তমানে (২০১৯-২০) রফতানি আয়ের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৩৯ হাজার ৭৫৫ দশমিক ২৯ মিলিয়ন ডলার। এ সময়ে রফতানি আয় বেড়েছে ১৫৫ দশমিক ৪১ শতাংশ।

এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে বেশিরভাগ শিল্প খাতের মতোই তৈরি পোশাক খাতও চ্যালেঞ্জের মধ্যে পড়েছে। তবে সরকার এসব চ্যালেঞ্জ উত্তরণে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে।

সংসদে সরকারি দলের এম আবদুল লতিফের প্রশ্নের জবাবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান বলেন, মুজিববর্ষে (২০২০-২১ অর্থবছরে) ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পুনর্বাসনে ৬৬ হাজার ২৯১টি বাসগৃহ নির্মাণে এক হাজার ২৫৬ কোটি ৯০ লাখ ৮২ হাজার টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এই সংসদ সদস্যের অপর এক প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাংকের অনুদানে ইমার্জেন্সি মাল্টি সেক্টর রোহিঙ্গা ক্রাইসিস রেসপন্স প্রকল্পের প্রাক্কলিত ৫৯৯ কোটি ২০ লাখ টাকার মধ্যে ১১৭ কোটি ৩২ লাখ টাকা পাওয়া গেছে। মে ২০২১ পর্যন্ত এ খাতে ব্যয় হয়েছে ১০২ কোটি ২০ লাখ টাকা।

চট্টগ্রাম-৪ আসনের দিদারুল আলমের প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদ জানান, ১৯৯১ সাল থেকে বিদেশে নারীকর্মী পাঠানো শুরু হয়। ওই সময় থেকে এ পর্যন্ত (মে ২০২১) মোট নয় লাখ ৫৩ হাজার ২৩৯ জন নারীকর্মী বিদেশে গেছেন।

নোয়াখালী-২ আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য মোরশেদ আলমের প্রশ্নের জবাবে প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী জানান, বিগত ১০ (২০১১-২০) বছরে ৫৯ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪৩ জন কর্মী বিদেশে গেছেন। যার মধ্যে ২০১০ সালে সর্বোচ্চ ১০ লাখ ৮ হাজার ৫২৫ জনের কর্মসংস্থান হয়েছে। ২০২০ সালে সর্বনিম্ন ২ লাখ ১৭ হাজার ৬৬৯ জন কর্মী বিদেশে গেছেন।

মন্ত্রী জানান, করোনার মধ্যে বৈদেশিক শ্রমবাজার সম্পর্কে মিশনসমূহ থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে। সৌদি আরব, ইউএই, বাহারাইন, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুরসহ ২৫টি দেশে কর্মসংস্থানে দক্ষ কর্মী তৈরির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। নতুন করে পোল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, উজবেকিস্তানের শ্রমবাজারে লোক পাঠানো শুরু হয়েছে। কম্বোডিয়া, সেসেলম ও চীনেও কর্মীরা যাচ্ছেন। এছাড়াও সম্ভাবনাময় দেশসমূহের সঙ্গে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পরে বাংলাদেশের অন্যতম শ্রমবাজার মালয়েশিয়ায় কর্মী প্রেরণ করা হবে বলে আশা প্রকাশ করে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। গত ১৬ ও ১৭ ফেব্রুয়ারি ভার্চুয়াল প্লাটফর্মে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের সভা হয়েছে। বিদেশে গমনেচ্ছু শ্রমিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য উপজেলা পর্যায়ে আরও ৭১টি টিটিসি স্থাপনের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

/ইএইচএস/এমএস/এমওএফ/

সম্পর্কিত

মালয়েশিয়ার সঙ্গে এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ

মালয়েশিয়ার সঙ্গে এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:৩৭

কোভ্যাক্স সুবিধার আওতায় বাংলাদেশ অক্সফোর্ড ও অ্যাস্ট্রাজেনেকার উদ্ভাবিত করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকা কোভিশিল্ড দেওয়ার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোতিগি তোশিমিতসুর কাছে একটি চিঠিও পাঠিয়েছেন তিনি। শনিবার (২৪ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এর আগে আজ বিকালে ২ লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ টিকা নিয়ে ক্যাথে প্যাসিফিকের একটি ফ্লাইট হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছায়। বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত নাওকি ইতো এই টিকা পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনের কাছে হস্তান্তর করেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চিঠিতে মন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশ ও জাপানের সম্পর্ক আরো দৃঢ় করার জন্য দুদেশই কাজ করে যাচ্ছে। দুদেশের কমপ্রিহেনসিভ রিলেশনসকে উন্নততর স্ট্র্যাটেজিক স্তরে নেওয়ার জন্য কাজ চলছে।

চিঠিতে জাপানকে ‘প্রকৃত বন্ধু’ হিসেবে উল্লেখ করে আব্দুল মোমেন আশা করেন, কোভিড সহযোগিতা দুদেশের সম্পর্ককে আরো মজবুত ও গভীর করবে। তিনি টেকিওতে চলমান অলিম্পিক আসরের সর্বতো সাফল্য কামনাও করেন।

আরও পড়ুন:

দেশে পৌঁছালো জাপানের দেওয়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা 

/এসএসজেড/ইউএস/

সম্পর্কিত

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

অচলাবস্থা নিরসনে নতুন উদ্যোগ

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:০১

দেশে করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরুর পর এখন পর্যন্ত ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এক কোটি ১ লাখ ১৬ লাখ ৫১ হাজার ৭৬৮ ডোজ। এগুলো দেওয়া হয়েছে অক্সফোর্ডের অ্যাস্ট্রাজেনেকার ফর্মুলায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি কোভিশিল্ড, চীনের তৈরি সিনোফার্ম, ফাইজার এবং মডার্নার ভ্যাকসিন। শনিবার (২৪ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো টিকাদান বিষয়ক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এসব তথ্য জানা যায়। এদিন মোট টিকা দেওয়া হয়েছে ১ লাখ ৬১ হাজার ২৯ ডোজ।

এখন পর্যন্ত দেশে ১ কোটি ২ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন এসেছে। সেই অনুযায়ী এখন মাত্র কোভিশিল্ডের ৮১ হাজার ৮৮১ ডোজ ভ্যাকসিন অবশিষ্ট আছে। শনিবার কাউকেই কোভিশিল্ড দেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদফতর জানায়, এখন পর্যন্ত কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জন। আর দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪২ লাখ ৯৮ হাজার ৮৬ জন।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো তথ্য থেকে আরও জানা যায়, প্রথম ডোজ নেওয়া ৫৮ লাখ ২০ হাজার ৩৩ জনের মধ্যে সাড়ে ১৪ লাখের মতো মানুষের দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছ সংকট। এদের সবাইকেই অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকারই দ্বিতীয় ডোজ দিতে হবে। কেননা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এখনও দুই কোম্পানির দুই ডোজের টিকা গ্রহণের কোন সিদ্ধান্ত দেয়নি। তবে দেশে আজ আড়াই লাখ ডোজ অক্সফোর্ড অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা জাপান সরকার কোভ্যাক্সের মাধ্যমে পাঠিয়েছে।    

পাশাপাশি আজ ফাইজারের প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১৩ জনকে আর এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৫০ হাজার ২১৭ জনকে।

এছাড়া ১১ লাখ ৭৭ হাজার ১৭১ ডোজ সিনোফার্মের ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে এখন পর্যন্ত। এর মধ্যে প্রথম ডোজ দেওয়া হয়েছে ১১ লাখ ৭২ হাজার ৬২৪ জনকে আর দ্বিতীয় ডোজ দেওয়া হয়েছে ৪ হাজার ৫৪৭ জনকে।  

মডার্নার টিকা এখন পর্যন্ত দেওয়া হয়েছে ৩ লাখ ৬ হাজার ১২৩ ডোজ, আর আজকে দেওয়া হয়েছে ৩৬ হাজার ৫৮৬ ডোজ।

/এসও/এমআর/

সম্পর্কিত

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

‘২১ কোটি ভ্যাকসিনের ব্যবস্থা করা হয়েছে’

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

ঢাকায় পৌঁছেছে মডার্নার আরও ৩০ লাখ টিকা

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৪ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

রাতেই দেশে আসছে ২০০ টন অক্সিজেন

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:৩৬

কোভিড-১৯ এর চিকিৎসায় অত্যন্ত জরুরি ২০০ টন মেডিক্যাল অক্সিজেন আজ শনিবার (২৪ জুলাই) রাতেই দেশে প্রবেশ করছে। ভারত থেকে ১০টি কন্টেইনারে তরল অক্সিজেন নিয়ে একটি ট্রেনের আজ সকালে রওনা দিয়েছে বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. শরিফুল আলম।

শনিবার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তিনি বলেন, ভারতের ঝাড়খণ্ড প্রদেশের জামশেদপুর টাটানগর থেকে স্থানীয় সময় শনিবার সকাল ১০টায় ট্রেনটি বাংলাদেশের উদ্দেশে ছেড়ে এসেছে। আজ রাত ১০টার মধ্যে ট্রেনটি বেনাপোল স্টেশন হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে।

পরে আগামীকাল সকাল নাগাদ এটি বঙ্গবন্ধু রেলওয়ে সেতু পশ্চিম প্রান্তে পৌঁছানোর পরে এ অক্সিজেন খালাস করা হবে বলেও জানান শরিফুল আলম।

এর আগে ভারতীয় দূতাবাসের ফেসবুক পেজে এক পোস্টে বলা হয়, ‘কোভিড-১৯ মোকাবিলায় বাংলাদেশের প্রচেষ্টায় সহায়তা হিসেবে ভারত সরকারের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের প্রথম আন্তঃসীমান্ত অক্সিজেন এক্সপ্রেসের মাধ্যমে ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন ভারত থেকে আগামীকাল (২৫ জুলাই) বেনাপোল পৌঁছাবে।’

এর আগে ঈদের দিন বুধবার ভারত থেকে ১৮০ টন তরলীকৃত অক্সিজেন বেনাপোল বর্ডার দিয়ে বাংলাদেশে এসেছে। করোনা পরিস্থিতিতে একটি গ্রিন করিডোর ব্যবহার করা হয়েছে এই আমদানির জন্য। দুই স্থলবন্দরের কর্মকর্তাদের সহায়তায় ঈদের দিন এই অক্সিজেন বাংলাদেশে এসেছিল।

/এসএস/ইউএস/

সম্পর্কিত

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

নমুনা পরীক্ষার সঙ্গে কমেছে শনাক্তও

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে

ভারত থেকে ২০০ টন অক্সিজেন আসছে

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৯ হাজার ছাড়ালো

‘পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা অস্বাভাবিক কিছু নয়’

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৯:৩০

‘পদ্মা সেতুর পিলারের সঙ্গে ফেরির ধাক্কা লাগার ঘটনা অস্বাভাবিক কিছু নয়। তবে এতে ফেরির আরও বড় ক্ষতি হতে পারতো। মানুষের প্রাণহানির সম্ভাবনাও ছিল। এ নিয়েই আমরা উদ্বিগ্ন। এতে পিলারের তেমন কোনও ক্ষতি হয়নি। যেটুকু হয়েছে তা কোনওভাবেই আশঙ্কাজনক নয়। এ ধরনের কয়েকগুণ শক্তিশালী ধাক্কা সামাল দেওয়ার সক্ষমতা প্রতিটি পিলারেরই রয়েছে। সেভাবেই তৈরি করা হয়েছে এ সেতুর প্রতিটি পিলার’—বাংলা ট্রিবিউনের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানান পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক (পিডি) প্রকৌশলী শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, এত বড় নদীতে পানির স্রোত খুব বেশি। তাই হয়তো নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেরিটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগেছে। এতে ফেরিটির আরও বড় ক্ষতি হতে পারতো। ফেরিটি ডুবেও যেতে পারতো। এতে বহু মানুষের প্রাণহানিও ঘটতে পারতো। সম্পদের ক্ষতি হতে পারতো। এ বিষয়টি নিয়েই আমরা বেশি উদ্বিগ্ন ছিলাম। কারণ যে ধাক্কা লেগেছে, তা সহ্য করার কয়েকগুণ ক্ষমতা সেতুর প্রতিটি পিলারের রয়েছে। তবে ফেরিসহ নৌযানগুলোকে আরও সাবধানতা অবলম্বন করে সেতু এলাকা অতিক্রম করার অনুরোধ থাকবে চালকদের প্রতি।

আরও পড়ুন:
পদ্মা সেতুর পিলারে বার বার ফেরির ধাক্কা কেন?

পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা, থানায় জিডি

এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে মন্ত্রণালয়ের একটি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে গঠিত টিম। পরিদর্শন শেষে ঢাকায় ফিরে নৌ সচিব বাংলা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। সাধারণ চোখে বড় কোনও ক্ষতি নজরে পড়েনি। সেতু কর্তৃপক্ষও এমন কোনও অভিযোগ করেনি। ফেরির ধাক্কায় সেতুর ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে সেতু কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আমাদের কোনও আলাপ বা কথাবার্তা হয়নি।

তিনি জানিয়েছেন, ফেরির ধাক্কায় পিলারের ক্ষতি কতোটুকু গভীর তা সেতু কর্তৃপক্ষই বলতে পারবে। পরিদর্শনে গিয়ে আমরা যে বিষয়টি দেখেছি, সেটি হলো ফেরির সঙ্গে পিলারের ধাক্কা লাগার ঘটনাটিতে চালকের খামখেয়ালিপনা কতটুকু? প্রাথমিকভাবে তাতে আমাদের মনে হয়েছে—নিয়ন্ত্রণ হারিয়েই আসলে ফেরিটি পিলারের সঙ্গে ধাক্কা লেগেছে। এটি অনিচ্ছাকৃত। আমরা চালকদেরকে আরও সতর্ক হয়ে ফেরি চালানোর পরামর্শ দিয়েছি। যদিও সংশ্লিষ্ট চালককে সাময়িক বরখাস্ত করেছে বিআইডব্লিউটিএ। 

অপর এক প্রশ্নের জবাবে সচিব জানিয়েছেন, সেতু এলাকা অতিক্রমকালে অন্যান্য নৌযান চালকদের পিলারের কাছাকাছি নির্দিষ্ট সীমানা ছেড়ে জাহাজ, ফেরি বা নৌযান চালাতে হবে কিনা তা সেতু কর্তৃপক্ষ নির্দিষ্ট করবে। যদি করে তাহলে নৌ-যানের চালকরা তা অবশ্যই মানবেন। চালকদেরকে আরও সতর্কতার সঙ্গে ফেরি চালানোর প্রশিক্ষণ দেওয়ারও প্রয়োজন রয়েছে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ্য, শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বাংলাবাজার ঘাট থেকে ২৯টি যানবাহন নিয়ে শিমুলিয়া ঘাটে আসার পথে বিআইডব্লিউটিএ’র রো রো ফেরি শাহ জালাল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে আঘাত করে। এর মাত্র তিন দিন আগেও গত মঙ্গলবার রো রো ফেরি শাহ মখদুমও পদ্মা সেতুর ১৬ নম্বর পিলারে ধাক্কা দেয়।

শুক্রবার পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারে  ফেরি ‘শাহজালাল’র ধাক্কার ঘটনায় মাদারীপুরের শিবচর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাত ১০টার দিকে জিডিটি করেন পদ্মা সেতু প্রকল্পের নির্বাহী প্রকৌশলী দেওয়ান মোহম্মদ আব্দুল কাদের।

জিডিতে বলা হয়েছে, ফেরি শাহজালাল’র ধাক্কায় পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের পাইল ক্যাপের ওপরের ভাগ ও সাইড ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এর আগেও একাধিকবার বিআইডব্লিউটিসির ফেরি পদ্মা সেতুর পিলারে আঘাত হেনেছে। বিআইডব্লিউটিসিকে মৌখিক ও লিখিতভাবে সাবধানতার সঙ্গে ফেরি চালানোর অনুরোধ করেছিল সেতু কর্তৃপক্ষ।  ফেরিটির ফিটনেস ও চালকের যোগ্যতা বা দক্ষতা ছিল কিনা, তা তদন্ত করে দেখার অনুরোধ করা হয়।

পদ্মা সেতুর ১৭ নম্বর পিলারের সঙ্গে শুক্রবার রো রো ফেরি শাহ্ জালালের ধাক্কার ঘটনায় নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। শনিবার সকাল ১০টায় রো রো ফেরি শাহ্ পরানে চড়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী।

এ সময় বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক ও বিআইডব্লিউটিসির পরিচালক শাহীনুর রহমান ভূঁইয়া, বিআইডব্লিউটিসির এজিএম আহমেদ আলী, এজিএম রুবেলুজ্জামান ও পদ্মা সেতু বিভাগের সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

পদ্মা সেতুর পিলারে ফেরির ধাক্কা লাগার ঘটনা ‘অসতর্কতা’ বলেই মনে করে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি)। সংস্থাটি বলছে, পদ্মা নদীতে তীব্র স্রোতের টানে অনেক সময় ফেরি নিয়ন্ত্রণে রাখা অসম্ভব হয়ে পড়ে। এছাড়া এই রুটে অনেক পুরনো ফেরি চলছে যেগুলোর অনেক যন্ত্রাংশই বিভিন্ন সময় বিকল হয়ে পড়ে। এতে ফেরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়।

এদিকে, পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা দেওয়ার ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করেছে বিআইডব্লিউটিসি। তদন্ত কমিটির সদস্য বিআইডব্লিউটিসির এজিএম (মেরিন) আহম্মেদ আলী জানান, অসতর্কতা ও স্রোতের কারণে ফেরি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গিয়ে পদ্মা সেতুর পিলারে ধাক্কা দিতে পারে। তবে অধিকতর তদন্ত করলে বিস্তারিত জানা যাবে।

এ বিষয়ে পদ্মা সেতুর নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প ব্যবস্থাপক দেওয়ান মো. আব্দুল কাদের বলেন, ফেরির ধাক্কায় পিলারের কোনও ক্ষতি হয়নি।

/এমআর/

বাংলাদেশের চামড়াজাত ও সিরামিক পণ্যে আগ্রহ দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীদের

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ১৮:৪১

বাংলাদেশের চামড়াজাত পণ্য এবং সিরামিক পণ্য আমদানি করতে আগ্রহী দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ীরা। এছাড়া খাদ্য সামগ্রীর বিষয়ে আগ্রহ রয়েছে ব্যবসায়ীদের।

দক্ষিণ কোরিয়ার রাজধানী সিউলে আয়োজিত ইমপোর্ট গুড ফেয়ারে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ। সেখানে তৈরি পোশাক, পাট ও চামড়াজাত পণ্য, সিরামিক পণ্য, হস্তশিল্প যেমন‑ পিতলের পণ্য, ঐতিহ্যবাহী পুতুল ইত্যাদি প্রদর্শন করা হয়।

বাংলাদেশ দূতাবাস থেকে শনিবার (২৪ জুলাই) পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দক্ষিণ কোরিয়ার ব্যবসায়ী, উদ্যোক্তা ও সম্ভাবনাময় আমদানিকারকরা বাংলাদেশের চামড়াজাত পণ্য এবং সিরামিক পণ্য সম্পর্কে গভীর আগ্রহ দেখান। এছাড়া, অর্গানিক খাদ্য সামগ্রী, যেমন- মিশ্রিত বাদাম, মধু, মরিঙ্গা চা ও ঘি দর্শনার্থীদের আকর্ষণ করে।

মেলার উদ্বোধনের পরে রাষ্ট্রদূত আবিদা ইসলাম কোরিয়ান ইমপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান, দক্ষিণ কোরিয়ার বাণিজ্য, শিল্প ও জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক এবং অন্যান্য রাষ্ট্রদূতগণকে বাংলাদেশের স্টল পরিদর্শনের জন্য আমন্ত্রণ জানান এবং তাদেরকে বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী হস্তশিল্প পণ্য উপহার প্রদান করেন।

এ রকম মেলায় অংশগ্রহণ দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখছে বলে মনে করে দূতাবাস।

/এসএসজেড/এমএস/

সর্বশেষ

তিন মাসে ২ বার করোনা আক্রান্ত, হতাশায় দম্পতির আত্মহত্যা

তিন মাসে ২ বার করোনা আক্রান্ত, হতাশায় দম্পতির আত্মহত্যা

ভারত থেকে ট্রেনে এলো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন

ভারত থেকে ট্রেনে এলো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন

মহারাষ্ট্রে টানা ভারী বৃষ্টিতে বন্যা-ভূমিধস, জীবিতদের খোঁজে অভিযান

মহারাষ্ট্রে টানা ভারী বৃষ্টিতে বন্যা-ভূমিধস, জীবিতদের খোঁজে অভিযান

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

ঢাকায় এলো উপহারের ২৫০টি ভেন্টিলেটর

ঢাকায় এলো উপহারের ২৫০টি ভেন্টিলেটর

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষিকার

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষিকার

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামে সোনালী ব্যাংকে হিসাব খোলার নির্দেশ

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের নামে সোনালী ব্যাংকে হিসাব খোলার নির্দেশ

মুখ চেনা হলেই খুলে বসেন ‘রাজনীতির দোকান’

‘লীগ’ যুক্ত সংগঠন আছে তিন শতাধিকমুখ চেনা হলেই খুলে বসেন ‘রাজনীতির দোকান’

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মালয়েশিয়ার সঙ্গে এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ

মালয়েশিয়ার সঙ্গে এফটিএ করতে আগ্রহী বাংলাদেশ

© 2021 Bangla Tribune