X
শুক্রবার, ২৩ জুলাই ২০২১, ৮ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

রোহিঙ্গা পরিবারের জাতীয়তা সনদ তৈরি, ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ১৫ জুন ২০২১, ২২:৩৩

এক রোহিঙ্গা নারী ও তার মেয়েকে বাংলাদেশি জাতীয়তা সনদ পেতে সহযোগিতা করার অপরাধে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) চার কর্মচারীসহ ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। মঙ্গলবার (১৫ জুন) চট্টগ্রাম দুদক সমন্বিত কার্যালয়ে এ মামলা করা হয়। দুদক সমন্বিত কার্যালয় চট্টগ্রাম-২-এর উপসহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় আসামিদের বিরুদ্ধে দুদক আইনের ৫ (২) ধারায় অভিযোগ আনা হয়।

এ সম্পর্কে শরীফ উদ্দিন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘রোহিঙ্গা নারী লাকি, তার স্বামী ও দুই মেয়ের বাংলাদেশি জাতীয়তা সনদ প্রাপ্তির ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে অপর আসামিদের সম্পৃক্ততা পাওয়া যায়। তারা পরস্পর যোগসাজশে জালিয়াতির মাধ্যমে রোহিঙ্গা নাগরিকদের জাতীয়তা সনদ পেয়ে সহযোগিতা করেছেন। এই ঘটনায় আজ (মঙ্গলবার) তাদের বিরুদ্ধে দুদক সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২-এ মামলাটি দায়ের করা হয়।’

আসামিরা হলেন– নির্বাচন কমিশনের ডবলমুরিং থানা নির্বাচন অফিসের অফিস সহায়ক মো. জয়নাল আবেদীন (৩৪), চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসের এমএলএসএস মো. নুর আহম্মদ (৪২), হাটহাজারী উপজেলা নির্বাচন অফিসের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর (অস্থায়ী) মো. সাইফুদ্দিন চৌধুরী, কেরানিগঞ্জ থানা নির্বাচন অফিসের টেকনিক্যাল এক্সপার্ট (অস্থায়ী) সত্য সুন্দর দে, হাটহাজারী উপজেলার ৩নং মির্জাপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মো. নুরুল আবছার, একই ইউনিয়নের সাবেক জন্মসনদ প্রস্তুতকারী মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন, মির্জাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা মো. আব্দুস সালাম, মোহাম্মদ আজিজুর রহমান, রোহিঙ্গা নারী রমজান বিবি ওরফে লাকী ও তার স্বামী নজির আহমেদ।

মামলার এজাহারে বলা হয়, রোহিঙ্গা নারী রমজান বিবি জাল জালিয়াতির মাধ্যমে জাতীয়তা সনদ পাওয়ার পর পাঁচলাইশ পাসপোর্ট অফিসে পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন। তার জাতীয়তা সনদের আবেদন যাছাই-বাছাই করতে গিয়ে দেখা যায়, ওই নারী মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় থেকে জাতীয়তা সনদপত্র পেয়েছেন। ওই সনদপত্রে মির্জাপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামের সই রয়েছে। রমজান বিবির বড় মেয়ে জান্নাতুল ফেরদৌস জন্ম নিবন্ধন সনদ পেয়েছেন। তার সনদের ফরমে যাছাইকারী হিসেবে মির্জাপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. নুরুল ইসলাম, লিপিবদ্ধকারী হিসেবে মোহাম্মদ বেলাল উদ্দিন, অনুমোদকারী হিসেবে সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল আবসারের সই রয়েছে। এছাড়া জান্নাতুল ফেরদৌসকে ২০১৯ সালের ২৪ জুলাই জাতীয়তা সনদ দেওয়া হয়। ওই জন্ম নিবন্ধন ও জাতীয়তা সনদ ব্যবহার করেই তিনি পাসপোর্টের জন্য আবেদন করেন।

রোহিঙ্গা নারী রমজান বিবি ওরফে লাকীর নিবন্ধন ফরম-২ পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এর প্রথম পৃষ্ঠা ২০১৯ সালের ১৪ মার্চ ০৩৫১-০০০০ আইডির ল্যাপটপ থেকে হাটহাজারী উপজেলা নির্বাচন অফিসের সার্ভার থেকে ডুপ্লিকেট করে আপলোড করা হয়েছে। ডাটা আপলোড করেন ডাটা এন্ট্রি অপারেটর সাইফুদ্দিন। জয়নাল আবেদিন নিজ বাসায় বসে ডাটা ক্রিয়েট করেন। একই অবৈধ পন্থা অবলম্বন করে রমজান বিবির স্বামী নজির আহমেদ বাংলাদেশি পাসপোর্ট তৈরি করে ইতোমধ্যে সৌদি আরবে চলে গেছেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

ভারতের পর্যাপ্ত টিকা থাকার পর বাংলাদেশকে দেওয়া হবে: ভারতীয় হাই কমিশনার

ভারতের পর্যাপ্ত টিকা থাকার পর বাংলাদেশকে দেওয়া হবে: ভারতীয় হাই কমিশনার

ঈদের পর বিধিনিষেধের প্রথমদিনে ফাঁকা মহাসড়ক 

ঈদের পর বিধিনিষেধের প্রথমদিনে ফাঁকা মহাসড়ক 

খুঁটি থেকে ছুটে যাওয়া তারে জড়িয়ে নিহত ২ 

খুঁটি থেকে ছুটে যাওয়া তারে জড়িয়ে নিহত ২ 

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ২০:৩১

গাজীপুরের টঙ্গীতে চাকরির প্রলোভনে এক তরুণীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় ওই তরুণী শুক্রবার (২৩ জুলাই) দুপুরে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি মামলা করেছেন।

এর আগে, বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে টঙ্গীর ভরান এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাবেদ মাসুদ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মামলার অভিযুক্ত আসামিরা হলো- টঙ্গীর ভরান এলাকার জয় (২৫), সৈকত (২৬) এবং তাদের এক সহযোগী।

মামলার এজাহারের বরাত দিয়ে ওসি জাবেদ মাসুদ জানান, বৃহস্পতিবার রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্টুরেন্টে ভুক্তভোগীর সঙ্গে অভিযুক্তদের পরিচয় হয়। পরিচয়ের সূত্র ধরে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ওই তরুণীকে টঙ্গীতে আসতে বলে অভিযুক্তরা। রাত সাড়ে ১২টায় টঙ্গীর ভরান এলাকায় গেলে স্থানীয় সাদিয়া ফার্নিচারের গোডাউনের পেছনে নিয়ে তরুণীকে জোরপূর্বক সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে।

তিনি আরও জানান, সকালে অভিযুক্তরা ভুক্তভোগীকে ফেলে রেখে চলে যায়। ভুক্তভোগীর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে আজ দুপুরে মামলা নেওয়া হয়েছে। তাকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৯:৫৫

ঈদের পরদিন বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) বিয়ে করেছেন মো. রাসেল ও সোনিয়া আক্তার। কিন্তু করোনা রোধে শুক্রবার (২৩ জুলাই) থেকে সরকার আরোপিত কঠোর লকডাউন শুরু হওয়ায় বিয়ের রাতে কর্মস্থলে ফিরতে নববধূকে নিয়ে লঞ্চের ডেকে বসেই ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন বরিশালের উজিরপুর উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের বাসিন্দা রাসেল। এতে করে বর-কনের সাজে তাদের বিয়ের রাত কেটেছে লঞ্চের ডেকে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার রাতেই পারাবত-১০ লঞ্চের চতুর্থতলায় লঞ্চ মাস্টারের সামনের খোলা জায়গায় চাদর বিছিয়ে সেখানেই সারারাত কাটিয়ে দেন এ নবদম্পতি। রোজার ঈদের সময় রাসেল ও সোনিয়ার দেখাদেখি শেষে বিয়ের পাকা কথা হয়। বিয়ের তারিখ নির্ধারণ করা হয় ঈদুল আজহার পরদিন। সিদ্ধান্ত ছিল, করোনার কারণে হাতেগোনা কয়েকজনের উপস্থিতিতে বিয়ে হবে। আর লকডাউনের কারণে আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে নবদম্পতি চলে যাবে ঢাকায়।

ঢাকার একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করা রাসেল বলেন, ‘বসের সাফ কথা, কর্মস্থলে উপস্থিত থাকতে হবে। এ কারণে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে কোনোভাবে খাবার খেয়ে ঢাকায় যেতে বরিশাল নৌবন্দরে চলে আসি। কারণ মারাত্মক ভিড় হবে তাই আগেভাগেই আন্দাজ করেছি। বিকেলের মধ্যে বরিশাল নৌবন্দরে পৌঁছে পারাবত-১০ লঞ্চে উঠি। এর পূর্বে ঘাটে থাকা প্রতিটি লঞ্চে কেবিনের খোঁজ নিয়েছি। এমনকি স্টাফ কেবিনও খুঁজেছি। কিন্তু কোনও কিছুই ছিল না। ডেক থেকে শুরু করে ছাদেও যাত্রী ছিল। কোনোভাবে জায়গা ব্যবস্থা করতে না পেরে পারাবত লঞ্চের সারেংয়ের সামনে চাদর বিছিয়ে জায়গা করে নেই।’

রাসেল বলেন, ‘স্ত্রী বিয়ের কাপড়ে থাকায় বেশিরভাগ যাত্রীর দৃষ্টি ছিল আমাদের দিকে। বিয়ে করেই লঞ্চে ওঠার বিষয়টি সবাই বুঝতে পারে। এ নিয়ে একাধিক প্রশ্নের সম্মুখীনও হতে হয়েছে আমাকে। অনেকে আবার আস্তে আস্তে বলছিল, লকডাউনের মধ্যে বিয়ে। বিষয়গুলোর আমার কানে এলেও চুপচাপ থাকি।’

শুক্রবার ভোরবেলা সদরঘাট পৌঁছান তারা। হাসি দিয়ে সুমন বললেন, ‘বিয়ের রাতের ভিন্ন এক অভিজ্ঞতা হলো আমাদের দুইজনের।’

পারাবত-১০ লঞ্চের সুপারভাইজার মোখলেচুর রহমান বলেন, ‘আমারও তাদের কেবিন দেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু এত যাত্রীর চাপ, এর মধ্যে কোনোভাবেই কেবিনের ব্যবস্থা করা যায়নি।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

যমজ সন্তান জন্মের এক সপ্তাহ পর করোনা আক্রান্ত মায়ের মৃত্যু

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:৪৬

যমজ সন্তান জন্মের এক সপ্তাহ পর মারা গেছেন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) বাংলা বিভাগের মাস্টার্স প্রথম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী শারমিন সুলতানা শাম্মি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ড. এম আব্দুল আলীম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শারমিন সুলতানার বাড়ি পাবনা পৌর শহরের কলাবাগান মহল্লায়। তিনি করোনা পজিটিভ ছিলেন। এক সপ্তাহ আগে যমজ সন্তানের মা হন। গত ১৩ জুলাই সকালে আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় করোনার উপসর্গ নিয়ে পাবনা সদর হাসপাতালে ভর্তির জন্য যান। শারীরিক অবস্থা অনেক খারাপ হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে ঢাকায় রেফার্ড করেন। রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি হাসপাতালে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) খুঁজে না পেয়ে রাজারবাগের একটি বেসরকারি হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়।

পরে স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞরা ১৫ জুলাই তার ডেলিভারি করানোর সিদ্ধান্ত নিলে শাম্মি যমজ কন্যা সন্তান জন্ম দেন। জন্মের পর থেকে বাচ্চা দুইটিকে এনআইসিইউতে রাখা হয়। এরপর শাম্মির শারীরিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয় এবং শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকালে তার মৃত্যু হয়।

শারমিনের মৃত্যুতে পাবিপ্রবির শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে গভীর শোকের ছায়া নেমে এসেছে। তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে শোকবার্তা জানিয়েছেন পাবিপ্রবি শিক্ষক ড. এম আব্দুল আলীম, ড. আওয়াল কবির জয়, কামাল হোসেন প্রমুখ।

/এফআর/

সম্পর্কিত

খুলনা বিভাগে আরও ৩০ জনের মৃত্যু

খুলনা বিভাগে আরও ৩০ জনের মৃত্যু

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

দাম নেই, বগুড়ায় চামড়া গেছে ভাগাড়ে

যশোর জেনারেল হাসপাতালে ৬ মৃত্যু

যশোর জেনারেল হাসপাতালে ৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ২২ জনের মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ২২ জনের মৃত্যু 

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৮:০২

করোনাভাইরাস রোধে দেশব্যাপী আরোপিত লকডাউন অমান্য করায় নীলফামারীর সৈয়দপুরে ২১ মামলায় পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়া একজনকে সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডও দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

লকডাউন বাস্তবায়নে শুক্রবার (২৩ জুলাই) সকাল থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে দণ্ডাদেশ ও জরিমানা আদায় করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) রমিজ আলম।

তিনি জানান, শাটার অর্ধেক তুলে শহরের শহীদ ডা. শামসুল হক রোডের নাজ সু স্টোরের মালিক সানোয়ার হোসেন (৪২) ব্যবসা করায় তাকে সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। এছাড়া অযথা ঘোরাঘুরি ও মাস্ক না পরার দায়ে ২০ পথচারীকে ২১ মামলায় পাঁচ হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

অভিযানকালে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী, পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তা, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

/এফআর/

সম্পর্কিত

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

‘মানবিক’ কারণে ফেরিতে পার হচ্ছে মানুষ-হালকা যানবাহন

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

শিমুলিয়া ঘাটে বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে চলছে পারাপার

ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে চলছে হালকা যানবাহন

আপডেট : ২৩ জুলাই ২০২১, ১৭:৫৪

গাজীপুরে ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক প্রায় ফাঁকা। বিভিন্ন স্টপেজে ব্যাটারি ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা চলাচল করছে। কোথাও কোথাও পিকআপ ভ্যানে যাত্রী বহন ও পণ্যবাহী কাভার্ডভ্যান, ট্রাক, পিকআপ চলছে। তবে নানা অজুহাতে ঘর থেকে বের হচ্ছে সাধারণ মানুষ। 

এদিকে কাঁচা বাজারগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। যারা ঘর থেকে বের হচ্ছেন তাদের অনেকের মুখে মাস্ক রয়েছে। আবার অনেকের মুখে মাস্ক থাকলেও থুতনির নিচে মাস্ক রেখে চলাচল করছেন। শুক্রবার (২৩ জুলাই) লকডাউনের প্রথম দিনে সড়ক-মহাসড়কে এমন চিত্র দেখা গেছে।  

টাঙ্গাইল, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ থেকে অটোরিকশায় ভেঙে ভেঙে গাজীপুর অতিক্রম করে ঢাকার উদ্দেশ্যে আসছেন যাত্রীরা। সড়ক-মহাসড়কের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে ইউনিফর্ম ও সাদা পোশাকে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের দায়িত্ব পালন করতে দেখা গেছে।

গাজীপুর সদর উপজেলার শিরিরচালা এলাকায় ভবন নির্মাণের কাজ করেন রুবেল ও শামীম। তাদের বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার ধর্মপাশা উপজেলার লেঙ্গুদাসপাড়া গ্রামে। তারা জানান, শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে বাড়ি থেকে বের হয়েছেন। বেলা সাড়ে ১২টায় গাজীপুর সদর উপজেলার শিরিরচালা পৌঁছান। অটোরিকশা, ভ্যান, সিএনজি পরিবর্তন করে দুই জনে দুই হাজার টাকার বেশি ভাড়ায় এ পর্যন্ত পৌঁছেছেন। ভবন নির্মাণের চুক্তিবদ্ধ কাজ থাকায় জীবিকার তাগিদে তাদেরকে বাড়ি থেকে বের হতে হয়েছে।

ফাহিমা বেগম ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার মল্লিকবাড়ী থেকে বৃহস্পতিবার শ্রীপুর উপজেলার জৈনাবাজার এলাকায় ভাইয়ের বাসায় বেড়াতে এসেছিলেন। মানুষের মুখে শুনেছেন, আগামী রবিবার থেকে লকডাউন। তাই শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে গাজীপুর চৌরাস্তা বোনের বাড়িতে বেড়ানোর উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে ১০ কিলোমিটার পথ অটো ও সিএনজি দিয়ে অতিক্রম করেন। মাওনা চৌরাস্তা এসে জানতে পারেন, আজ থেকেই লকডাউন।

শ্রীপুরের মাওনা চৌরাস্তায় অটোচালক জাহিদুল ইসলাম জানান, ঘরে খাবার নেই। ঈদের আগেও লকডাউন ছিল। তখন গাড়ি নিয়ে বের হননি। ঈদের পরেও কঠোর লকডাউন দিয়েছে সরকার। ঘরের বাইরে বের হওয়ার নিষেধ থাকলেও পেটের দায়ে বের হতে হয়েছে। আজকেই সড়কে থাকবে। এতে যা আয় হয় তা দিয়ে কয়েক দিন পরিবার নিয়ে কোনোমতে চলবেন।

জয়দেবপুর চৌরাস্তায় ব্যাগ, স্ত্রী ও দুই সন্তানকে নিয়ে গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছিলেনন ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার ধারা বাজার এলাকার জৈনুদ্দিন শেখ। চাকরি করেন ঢাকার একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে। তিনি বলেন, আগামীকাল অফিস খোলা থাকার কথা রয়েছে। লকডাউন থাকায় ভোরে বাড়ি থেকে রওনা করে তিন গুণ ভাড়া দিয়ে এ পর্যন্ত এসেছি। এখন ঢাকা যাওয়ার জন্য হাতে সে পরিমাণ টাকাও নেই, সড়কে গাড়িও পাচ্ছি না। যেসব বাহন ঢাকা যেতে চাচ্ছে, তারা তিন-চার গুণ ভাড়া চাচ্ছে।    

 

সকালে সরেজমিন দেখা যায়, ঢাকা-ময়মনসিংহ ও ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে মোতায়েন রয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। কিছু বাস হাইওয়েতে চলাচল করতে দেখা গেছে, তবে সেগুলো দূরপাল্লার। তারা যাত্রী নামিয়ে খালি গাড়ি নিয়ে গন্তব্যে ফিরে যাচ্ছে। 

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার আব্দুল্লাহ আল মামুন জানান, সরকারি বিধিনিষেধ কার্যকর করতে সকল বিভাগের আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী মাঠে রয়েছে। নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম বলেন, লকডাউন কার্যকর করতে জেলাজুড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ১০টির বেশি টিম কাজ করছে।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

সম্পর্কিত

দারুসসালামে ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার দুই বোন কারাগারে

দারুসসালামে ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার দুই বোন কারাগারে

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

ভারতের পর্যাপ্ত টিকা থাকার পর বাংলাদেশকে দেওয়া হবে: ভারতীয় হাই কমিশনার

ভারতের পর্যাপ্ত টিকা থাকার পর বাংলাদেশকে দেওয়া হবে: ভারতীয় হাই কমিশনার

ঈদের পর বিধিনিষেধের প্রথমদিনে ফাঁকা মহাসড়ক 

ঈদের পর বিধিনিষেধের প্রথমদিনে ফাঁকা মহাসড়ক 

খুঁটি থেকে ছুটে যাওয়া তারে জড়িয়ে নিহত ২ 

খুঁটি থেকে ছুটে যাওয়া তারে জড়িয়ে নিহত ২ 

মেঘনার ভাঙনে হারিয়ে যাচ্ছে কমলনগর-রামগতির জনপদ

মেঘনার ভাঙনে হারিয়ে যাচ্ছে কমলনগর-রামগতির জনপদ

বাসের ধাক্কায় জিপ খাদে পড়ে নিহত ২

বাসের ধাক্কায় জিপ খাদে পড়ে নিহত ২

লকডাউন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি

লকডাউন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি

জয়পুরহাট থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মিতু-রিতুর ঢাকা যাত্রা

জয়পুরহাট থেকে ফেনসিডিল নিয়ে মিতু-রিতুর ঢাকা যাত্রা

চাঁদপুর লঞ্চঘাটে ঢাকাগামী যাত্রীদের স্রোত

চাঁদপুর লঞ্চঘাটে ঢাকাগামী যাত্রীদের স্রোত

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

মগবাজার বিস্ফোরণ তিতাসের লিকেজ থেকেই: পুলিশ

মগবাজার বিস্ফোরণ তিতাসের লিকেজ থেকেই: পুলিশ

সর্বশেষ

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

ক্লাউড উইন্ডোজ আনলো মাইক্রোসফট

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

চাকরির প্রলোভনে টঙ্গীতে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

বাংলাদেশকে হারিয়ে সমতায় ফিরলো জিম্বাবুয়ে

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

একদিনে ঢাকায় ফিরলো ৮ লাখ সিম কার্ড

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীকে আম পাঠালেন শেখ হাসিনা

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বেতন ৩০ হাজার, ব্যাংকে লেনদেন শত কোটি টাকা!

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

বিয়ের রাত কাটলো লঞ্চের ডেকে

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

কোলের সন্তানকে বাঁচিয়ে চলে গেলেন মা

শেয়ারবাজারে নতুন আশার সঞ্চার

শেয়ারবাজারে নতুন আশার সঞ্চার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

জাপান থেকে অ্যাস্ট্রাজেনেকার আড়াই লাখ টিকা আসছে শনিবার

বিপদে পড়ে গেছে বাংলাদেশ

বিপদে পড়ে গেছে বাংলাদেশ

কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন ঢাকায় গ্রেফতার চারশতাধিক

কঠোর লকডাউনের প্রথম দিন ঢাকায় গ্রেফতার চারশতাধিক

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

খাগড়াছড়িতে বিচারক আক্রান্ত, প্রাণ গেছে আইনজীবীর

ভারতের পর্যাপ্ত টিকা থাকার পর বাংলাদেশকে দেওয়া হবে: ভারতীয় হাই কমিশনার

ভারতের পর্যাপ্ত টিকা থাকার পর বাংলাদেশকে দেওয়া হবে: ভারতীয় হাই কমিশনার

ঈদের পর বিধিনিষেধের প্রথমদিনে ফাঁকা মহাসড়ক 

ঈদের পর বিধিনিষেধের প্রথমদিনে ফাঁকা মহাসড়ক 

খুঁটি থেকে ছুটে যাওয়া তারে জড়িয়ে নিহত ২ 

খুঁটি থেকে ছুটে যাওয়া তারে জড়িয়ে নিহত ২ 

মেঘনার ভাঙনে হারিয়ে যাচ্ছে কমলনগর-রামগতির জনপদ

মেঘনার ভাঙনে হারিয়ে যাচ্ছে কমলনগর-রামগতির জনপদ

বাসের ধাক্কায় জিপ খাদে পড়ে নিহত ২

বাসের ধাক্কায় জিপ খাদে পড়ে নিহত ২

লকডাউন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি

লকডাউন অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি

চাঁদপুর লঞ্চঘাটে ঢাকাগামী যাত্রীদের স্রোত

চাঁদপুর লঞ্চঘাটে ঢাকাগামী যাত্রীদের স্রোত

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

ঈদে মামার বাড়ি বেড়াতে গিয়ে ভাই-বোনের মৃত্যু

মাংস নিয়ে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া, ৩ সন্তানসহ মায়ের বিষপান

মাংস নিয়ে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া, ৩ সন্তানসহ মায়ের বিষপান

© 2021 Bangla Tribune