X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

স্কুলশিক্ষার্থীকে অপহরণ করে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ

আপডেট : ১৬ জুন ২০২১, ২০:২৫

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে এক স্কুলশিক্ষার্থীকে অপহরণ করে তিন দিন অজ্ঞাত স্থানে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে তিন জনের বিরুদ্ধে। বুধবার (১৬ জুন) দুপুরে তাকে অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। সোনারগাঁ থানার ওসি মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান জানান, এ ঘটনায় থানায় ওই শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ জানায়, গত ১৩ জুন সন্ধ্যায় অষ্টম শ্রেণির ওই শিক্ষার্থী স্থানীয় মুদি দোকানে সদাই কিনতে যায়। এ সময় পেঁচাইন গ্রামের আম্বর আলীর ছেলে রমজান আলীর নেতৃত্বে জাকারিয়া, রাউৎগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নানের ছেলে রায়হান ও আবু তালেবের ছেলে মেহেদী হাসান তাকে অপহরণ করে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। স্বজনরা বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজির পর তাকে না পেয়ে পরদিন সোমবার সকালে ওই শিক্ষার্থীর বাবা বাদী হয়ে সোনারগাঁ থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ ঘটনা তদন্ত করতে গিয়ে অপহরণকারীদের পরিবারকে শিক্ষার্থীকে ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে। এরপর বুধবার দুপুরে বাগবাড়িয়া কবরস্থান এলাকায় ওই শিক্ষার্থীকে অসুস্থ অবস্থায় ফেলে যায় অপহরণকারীরা।  তাকে উদ্ধার করে তালতলা ফাঁড়িতে খবর দিলে পুলিশ থানায় নিয়ে যায়।

অভিযোগ রয়েছে, অপহরণকারী মেহেদী হাসানের সহযোগিতায় তিন বন্ধু রমজান, রায়হান ও জাকারিয়া ওই ওই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ করে।

শিক্ষার্থীর বাবা অভিযোগ করে বলেন, ‘আমার মেয়েকে অপহরণ করে তিন দিন অজ্ঞাত স্থানে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করেছে। পরে অপহরণকারীরা আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে মেয়েকে রাস্তায় ফেলে যায়। তাদের শর্ত ছিল, মেয়েকে ফিরে পেতে হলে ওই সড়কে আমাদের কোনও লোক থাকতে পারবে না। তাদের কথামতো ওই স্থানে আমরা কেউ ছিলাম না। ফেলে যাওয়ার পর খবর দিলে আমরা বাগবাড়িয়া কবরস্থান এলাকা থেকে মেয়েকে নিয়ে আসি।’

সোনারগাঁ থানার ওসি জানান, ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ভিকটিমকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ডাক্তারের রিপোর্ট অনুযায়ী ধর্ষণের বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

 

/এমএএ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৮:১৯

গাজীপুরের টঙ্গীতে খাওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে নিজ ভাইয়ের বন্ধুদের বিরুদ্ধে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে (১৫) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় পুলিশ অভিযুক্ত তিন জনকে গ্রেফতার করেছে। রবিবার সকাল সাড়ে ৯টায় টঙ্গীর আউচপাড়া থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপির) টঙ্গী পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ আলম গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেফতারকৃতরা হলো– নরসিংদীর রায়পুর উপজেলার বাঁশগাড়ী গ্রামের হানিফ মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম ওরফে রফিক (১৯), চাঁদপুরের হাজিগঞ্জ উপজেলার বইসিক গ্রামের আবু বক্কর সিদ্দিকের ছেলে নাঈম শেখ (১৯) এবং শেরপুরের নকলা উপজেলার ধনাকুশা (নদীর পাড় টংগের বাসা) গ্রামের আব্দুল গনির ছেলে মনিরুল ইসলাম (১৮)। অভিযুক্তরা সবাই গাজীপুরের টঙ্গী পশ্চিম থানার কাঠালদিয়া কলাবাগান এলাকায় থাকে। 

ওসি জানান, ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজেলার লেবুনিয়া গ্রামের এক ব্যক্তি বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরী মেয়েসহ পরিবার নিয়ে টঙ্গীর মধ্য আউচপাড়ার সফি উদ্দিন রোড সংলগ্ন মাহবুবের বাসার ভাড়া থাকেন। আসামিরা শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় ওই বাসার গেটে যায়। এ সময় কিশোরীকে তার ভাইয়ের বন্ধু রফিক টঙ্গী কলেজ গেটের একটি হোটেলে খাওয়ানোর কথা বলে একটি রিকশায় ওঠায়। পরে বড় দেওড়া এলাকার নান্দুর মণ্ডল রোডের জনৈক মোশারফের বাড়ির ভাড়াটিয়া কাউসারের বাসায় নিয়ে যায় তাকে। সেখানে রফিক ও তার দুই সহযোগী মনিরুল ও নাঈম কিশোরীর মুখ চেপে ধরে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। ধর্ষণের পর তারা একটি রিকশায় উঠিয়ে মেয়েটিকে বাসায় পাঠিয়ে দেয়। সে বাসায় এসে পরিবারের সদস্যদের কাছে ঘটনা জানালে তার বাবা বাদী হয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানায় ওই তিন জনকে অভিযুক্ত করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা (নং ২৪) দায়ের করেন। 

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৮:০০

ভারত থেকে আসা ২০০ মেট্রিক টন তরল মেডিক্যাল অক্সিজেন (এলএমও) সিরাজগঞ্জ বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছানোর পর থেকেই খালাসের কাজ চলছে। এরমধ্যে একটি ট্যাংকলরি ২০ টন তরল অক্সিজেন নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে।

রবিবার (২৫ জুলাই) বিকাল পৌনে ৪টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশন থেকে ট্যাংকলরিটি নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে অবস্থিত সেন্ট্রাল অক্সিজেন প্ল্যান্টের উদ্দেশে ছেড়ে যায়। বাকিগুলো পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন নিয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন লিন্ডের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও প্রশাসন বিভাগের ব্যবস্থাপক সুফিয়া আক্তার ওহাব। 

এর আগে ভারতের ঝাড়খণ্ড প্রদেশের জামশেদপুর টাটানগর থেকে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে আমদানি করা ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন শনিবার (২৪ জুলাই) রাত ১০টার দিকে বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। বেনাপোল বন্দরে আমদানি সংক্রান্ত আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে ১০টি কনটেইনারবাহী অক্সিজেন এক্সপ্রেস রওনা দেয়। আজ সকাল ৭টায় ঈশ্বরদী স্টেশন হয়ে বেলা পৌনে ১১টার দিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম রেলওয়ে স্টেশনে পৌঁছায়।

বাকিগুলো পর্যায়ক্রমে অক্সিজেন নিয়ে যাবে

এ সময় সিরাজগঞ্জের জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. রামপদ রায়, লিন্ডের সুফিয়া আক্তার ওহাব, গ্যাস বিভাগের বিক্রয় ও বিপণন শাখার মহাব্যবস্থাপক নুরুর রহমান, বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মোসাদ্দেক হোসেন, স্টেশন মাস্টার মো. ইসমাইল হোসেনসহ সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসন, রেলওয়ে ও রেলওয়ে পুলিশ, পুলিশ, স্বাস্থ্য বিভাগ ছাড়াও অন্যান্য বিভাগের কর্মকর্তা কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন। 

সুফিয়া আক্তার ওহাব বলেন, আমরা ভালোভাবে ২০০ টন অক্সিজেন নিয়ে এসে এই অবধি পৌঁছেছি। সিরাজগঞ্জ জেলা প্রশাসনসহ সবাই আন্তরিক সহযোগিতা করেছেন। এছাড়া লিন্ডে চেষ্টা করছে করোনাকালীন অক্সিজেনের যে চাহিদা বেড়েছে তার যতটুকু সম্ভব জোগান দিতে। 

নুরুর রহমান জানান, যেহেতু প্রতিটি ট্যাংকলরিতে ২০ টন করে মোট ২০০ টন তরল অক্সিজেন লোড হয়ে ঢাকায় যাবে, সেক্ষেত্রে অক্সিজেনবাহী প্রতিটি ট্যাংকলরি লোড হতে দুই ঘণ্টার মতো সময় লাগার কথা। তবে চাপ কম থাকায় প্রায় চার ঘণ্টার মতো সময় লাগছে। যেহেতু দুইটার বেশি একসঙ্গে লোড করা যাচ্ছে না, সেক্ষেত্রে সম্পূর্ণ অক্সিজেন আনলোড করতে পর্যায়ক্রমে পাঁচবারে অন্তত ২০ ঘণ্টা সময় লাগবে।

রাজিব দেবনাথ বলেন, স্টেশনের সামনের দিকে জায়গা কম থাকায় আমরা একসঙ্গে দুইটার বেশি ট্যাংকলরিতে লোড করতে পারছি না। তাই ১০টি ট্যাংকলরিতে লোড করতে অনেক সময় লাগবে। যদি অক্সিজেনবাহী ট্রেনের বাল্ব বক্স (অক্সিজেন আনলোড মেশিন) স্টেশনের সামনে না হয়ে উল্টো দিকে থাকতো, তাহলে একসঙ্গে সবগুলোই লোড করা সম্ভব হতো। 

সিরাজগঞ্জের সিভিল সার্জন রামপদ রায় বলেন, এটা আমাদের করোনাকালীন চিকিৎসা সেবায় অক্সিজেনের যে সংকট তা অনেকাংশেই লাঘব করবে। এবার আসা শুরু হলো, এখন পর্যায়ক্রমে ভারত থেকে অক্সিজেন আসতেই থাকবে। এছাড়া এখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার পরে সারাদেশের চাহিদা অনুযায়ী স্বাস্থ্য বিভাগ বণ্টন করবে বলেও জানান এই কর্মকর্তা। 

জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ বলেন, করোনার এই ক্রান্তিলগ্নে ২০০ টন অক্সিজেন দেশে আসাটা আমাদের অনেক বড় অর্জন। যেহেতু এবারই ট্রেনযোগে এনে সিরাজগঞ্জে প্রথম ভারত থেকে আসা অক্সিজেন খালাস হলো, তাই এখান থেকে আবার লোড ট্যাংকারে করে ঢাকায় যাবে। পরবর্তীতে আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে দেখবো এটা সরাসরি ঢাকায় নেওয়া যায় কিনা। তাহলে আরও সময় বাঁচবে।

/এসএইচ/এমওএফ/

সম্পর্কিত

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:৪৪

ভোলায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে তাড়াহুড়া করে ফেরিতে উঠতে গিয়ে নৌ পুলিশ ও কোস্টগার্ড সদস্যদের ধাওয়ায় তিন যাত্রী নদীতে পড়ে যান। পরে তারা সাঁতরে পাড়ে উঠতে সক্ষম হন। রবিবার (২৫ জুলাই) সকালে ইলিশা ঘাটের কলমীলতা ফেরিতে ওঠার সময় এ ঘটনা ঘটে। ফেরিটি ভোলার ইলিশা থেকে লক্ষ্মীপুরের মজুচৌধুরী হাট ঘাট রুটে চলাচল করে। সেখান থেকে যাত্রীরা ঢাকা, কুমিল্লা, নোয়াখালী চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায় যাতায়াত করেন।

নদীতে পড়ে যাওয়া তিন যাত্রীদের একজন রুবেল হোসেনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তিনি একটি প্রাইভেট কোম্পানিতে চাকরি করেন। দুই দিনের ছুটি নিয়ে বাড়িতে এসেছিলেন। রবিবারের মধ্যে ঢাকায় পৌঁছাতে না পারলে তার চাকরিটা থাকবে না। জরুরি ভিত্তিতে ঢাকা যাওয়ার জন্য রওনা দিয়েছিলেন। কোস্টগার্ডের ধাওয়া ও যাত্রীদের চাপে তিনি নদীতে পড়ে যান। এতে তার প্রয়োজনীয় সব কাগজপত্র ভিজে গেছে।

ভোলা জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আবু আবদুল্লাহ খান বলেন, ‘লকডাউনের মধ্যে ইলিশা ফেরিঘাটে সকাল থেকেই যাত্রীদের চাপ ছিল। তাদের বুঝিয়ে বাড়ি ফেরানোর চেষ্টা করছি। ঘাটে ফেরি আসার এক পর্যায়ে যাত্রীরা আমাদের বাধা অতিক্রম করে ফেরিতে উঠতে যান। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের গতিরোধ করলে যাত্রীদের চাপে ঘাটের গ্যাংওয়ে থেকে তিন জন নদীতে পড়ে যান। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় তাদের উদ্ধার করা হয়।’

ভোলার জেলা প্রশাসক মো. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেন, ‘ভোলার ফেরি ও লঞ্চঘাটে আমাদের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে একটি টিম, র‌্যাব, কোস্টগার্ড, নৌ পুলিশ ও জেলা পুলিশ সদস্যরা অবস্থান করছেন। বিদেশগামী যাত্রী ও জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ফেরিতে উঠতে দেওয়া হচ্ছে না। পাশাপাশি বিআইডব্লিউটিএ’র দায়িত্বরত কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে বলা হয়েছে। তারাও যাত্রী পারাপারে কঠোর অবস্থানে আছেন।’

ইলিশা নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শাহ জালাল বলেন, ‘কঠোর লকডাউনের তৃতীয় দিনে আজ রবিবার ভোলা-লক্ষ্মীপুর রুটের ইলিশা ফেরিঘাটে ঢাকা, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলাগামী যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় ছিল। ইলিশা ফেরিঘাটে আসা যাত্রীদের আমরা বুঝিয়ে বাড়ি ফেরত পাঠানোর জন্য চেষ্টা করছি। কিন্তু অনেক যাত্রী আমাদের বাধা উপেক্ষা করে ফেরিতে ওঠার চেষ্টা করছেন।’

 

/এমএএ/

সম্পর্কিত

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

পাথর শ্রমিকদের জালে ২৮ কেজির বাঘাইড়

পাথর শ্রমিকদের জালে ২৮ কেজির বাঘাইড়

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

বিয়ের আসর থেকে বরের পলায়ন, কনের মায়ের জরিমানা

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:২৮

বরিশালের আগৈলঝাড়ার বাগধা ইউনিয়নের খাজুরিয়া গ্রামে বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় কনের মাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত দেখে বিয়ের আসর থেকে পালিয়ে যান বর, মেয়ের বাবা ও বরযাত্রী। 

করোনা সংক্রমণরোধে সরকারঘোষিত কঠোর লকডাউনে বিধিনিষেধ অমান্য করে রবিবার (২৫ জুলাই) দুপুরে বাল্যবিয়ের আয়োজন করায় এ জরিমানা করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীর (১৪) সঙ্গে কোটালীপাড়া উপজেলার কালারবাড়ি গ্রামের কবির খানের ছেলে জাহিদুল ইসলামের (২৫) বিয়ের আয়োজন চলছিল। ইউএনও হাজির হতেই সব পণ্ড হয়ে যায়।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল হাশেম বলেন, দুপুরে বরযাত্রীরা কনের বাড়িতে যান। খবর পেয়ে কনের বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় বর, মেয়ের বাবা এবং বরযাত্রীরা দৌড়ে পালান। পরে সরকারি বিধিনিষেধ অমান্য করে বাল্যবিয়ের আয়োজন করার অপরাধে মেয়ের মাকে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। একই সঙ্গে প্রাপ্তবয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত মেয়েকে বিয়ে দেবে না মর্মে মুচলেকা দেন কনের মা।

/এএম/

সম্পর্কিত

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে একদিনে ১৫ মৃত্যু

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

লকডাউনের দ্বিতীয় দিনে ময়মনসিংহে ৪৩৫টি মামলা

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ১৭:১৯

চট্টগ্রামে করোনায় বয়স্কদের মৃত্যুর হার বাড়ছে। মৃতদের অধিকাংশের বয়স ৬০ বছরের বেশি। এই পর্যন্ত চট্টগ্রামে গড়ে ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে থাকা ৫৫ দশমিক ২৫ শতাংশ করোনা রোগী মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন সেখ ফজলে রাব্বি।

এদিকে চট্টগ্রামে বয়স্করা বেশি মারা গেলেও করোনায় সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হচ্ছে যুবকরা। ২১ থেকে ৪০ বছর বয়সীরাই বেশি আক্রান্ত হয়েছেন। মোট আক্রান্তের ৪৩ দশমিক ৩৭ শতাংশ এই বয়সী।

সেখ ফজলে রাব্বি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্তদের মধ্যে যুবকদের আক্রান্তের হার বেশি। মোট আক্রান্তের ২৩ দশমিক ১৪ শতাংশের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছর। এর পরই রয়েছে ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীরা। মোট আক্রান্তের ২০ দশমিক ২৩ শতাংশ এই বয়সী। অন্যদিকে মৃতদের মধ্যে ৬১ বছর থেকে তার বেশি যাদের বয়স, তারা সবচেয়ে বেশি মারা গেছেন। মোট মৃতদের ৫৫ দশমিক ২৫ শতাংশ ৬০ বছরের বেশি বয়সী।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রামে আক্রান্তদের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বসয়ী রয়েছেন দুই হাজার ৫৩ জন, যা মোট আক্রান্তের দুই দশমিক ৭২ শতাংশ। ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী পাঁচ হাজার ৭৭৫ জন, যা মোট আক্রান্তের সাত দশমিক ৬৬ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের সংখ্যা ১৫ হাজার ২৫০ জন, যা মোট আক্রান্তের ২০ দশমিক ২৩ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী ১৭ হাজার ৪৪৬ জন, যা মোট আক্রান্তের ২৩ দশমিক ১৪ শতাংশ। ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী ১৩ হাজার ২৩১ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৭ দশমিক ৫৫ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী ১১ হাজার ১৭৩ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৪ দশমিক ৮২ শতাংশ। ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে আক্রান্ত ১০ হাজার ৪৩৫ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৩ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

এদিকে মৃতদের মধ্যে শূন্য থেকে ১০ বছর বয়সী চার জন, যা মোট আক্রান্তের দশমিক ৪৫ শতাংশ। ১১ থেকে ২০ বছর বয়সী নয় জন, যা মোট আক্রান্তের এক দশমিক ০২ শতাংশ। ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সী ১৭ জন, যা মোট আক্রান্তের এক দশমিক ৮০ শতাংশ। ৩১ থেকে ৪০ বছর বয়সী ৪২ জন, যা মোট আক্রান্তের চার দশমিক ৭৪ শতাংশ। ৪১ থেকে ৫০ বছর বয়সী ১১৬ জন, যা মোট আক্রান্তের ১৩ দশমিক ১০ শতাংশ। ৫১ থেকে ৬০ বছর বয়সী ২০৮ জন, যা মোট আক্রান্তের ২৩ দশমিক ৭৯ শতাংশ। ৬১ বছরের ঊর্ধ্বে মারা গেছেন ৪৮৯ জন, যা মোট আক্রান্তের ৫৫ দশমিক ২৫ শতাংশ।

/এসএইচ/

সম্পর্কিত

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

লকডাউনেও নৌ পথে ডিজে পার্টি

সর্বশেষ

প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে নির্মিত শহীদ মিনারের তালিকা চেয়েছে সরকার

প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে নির্মিত শহীদ মিনারের তালিকা চেয়েছে সরকার

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

‘অপ্রতিরোধ্য হামলা’ চালানোর সক্ষমতা রয়েছে রাশিয়ার: পুতিন

‘অপ্রতিরোধ্য হামলা’ চালানোর সক্ষমতা রয়েছে রাশিয়ার: পুতিন

বোলারদের উদারতায় ফুলে-ফেঁপে উঠলো জিম্বাবুয়ের স্কোরবোর্ড

বোলারদের উদারতায় ফুলে-ফেঁপে উঠলো জিম্বাবুয়ের স্কোরবোর্ড

ফের চার বিভাগে দৈনিক শনাক্ত হাজারের বেশি

করোনাভাইরাসফের চার বিভাগে দৈনিক শনাক্ত হাজারের বেশি

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

গৃহকর্মীর ছদ্মবেশে স্বর্ণালংকারসহ টাকা চুরি, গ্রেফতার নুপুর রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

পল্লবীতে কুপিয়ে হত্যা: আসামি বাবু রিমান্ডে

ন্যাপের ৬৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

ন্যাপের ৬৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

আশ্রম সেবা কার্যক্রমের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত

আশ্রম সেবা কার্যক্রমের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠিত

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

ঢাকার পথে ভারত থেকে আসা অক্সিজেন

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ধাওয়ায় ৩ যাত্রী ফেরি থেকে নদীতে

স্টিক দিয়ে মাথায় মেরে বসলেন আর্জেন্টিনার এক খেলোয়াড়!

অলিম্পিক হকিস্টিক দিয়ে মাথায় মেরে বসলেন আর্জেন্টিনার এক খেলোয়াড়!

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেফতার ২

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককেই বিয়ে করলেন সহকারী শিক্ষিকা

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককেই বিয়ে করলেন সহকারী শিক্ষিকা

শ্রীপুরে আগুনে পুড়লো ৩৬ বসতঘর

শ্রীপুরে আগুনে পুড়লো ৩৬ বসতঘর

ছাড়পত্র ছাড়াই আবাসিক এলাকায় চলছে চুন কারখানা

ছাড়পত্র ছাড়াই আবাসিক এলাকায় চলছে চুন কারখানা

© 2021 Bangla Tribune