X
শনিবার, ২৪ জুলাই ২০২১, ৯ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

লোকসানের ভয়ে আমদানি কম, বাড়লো পেঁয়াজের দাম

আপডেট : ১৭ জুন ২০২১, ১৬:১২
image

লোকসানের আশঙ্কা থাকায় হিলি স্থলবন্দর দিয়ে গত কয়েকদিনে কমেছে পেঁয়াজ আমদানি। এতে করে কমতির দিকে থাকার পর ফের বাড়তে শুরু করেছে নিত্যপ্রয়োজনীয় এ পণ্যের দাম।

দুই দিনের ব্যবধানে এ বন্দরে কেজিতে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ৩ টাকা। দুই দিন আগেও ভারত থেকে আমদানি করা প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ছিলো ২৩ থেকে ২৫ টাকা। এখন তা বিক্রি হচ্ছে বেড়ে ২৬ টাকা থেকে ২৮ টাকায়।

হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ ব্যবসায়ী রবিউল ইসলাম ও ইসমাইল হোসেন বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, পেঁয়াজ আমদানিতে আইপি জটিলতা কেটে যাওয়ায় চলতি মাসের ৩ জুন থেকে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি শুরু হয়েছে। প্রথমদিকে আমদানি কিছুটা কম হলেও পরবর্তী সময়ে পেঁয়াজের আমদানি বাড়ায় দাম বেশকিছু দিন কমতির দিকেই ছিলো।

তারা বলেন, সম্প্রতি পেঁয়াজ আমদানি করে তা কম দামে বিক্রি করায় লোকসানে পড়তে হচ্ছে আমদানিকারকদের। যেখানে পেঁয়াজ আমদানিতে কেজি প্রতি খরচ পড়ছে ২৮ টাকার মতো, সেখানে বিক্রি করতে হচ্ছে ২৩ থেকে ২৫ টাকায়। ফলে আমদানিকারকরা আগের তুলনায় পেঁয়াজের লোডিং কমিয়ে দিয়েছেন। আগে দিনে ৩০-৩৫ ট্রাক করে পেঁয়াজ আমদানি হলেও বর্তমানে তা কমে ১৫-২০ ট্রাকে নেমে এসেছে। ফলে দেশের বাজারে চাহিদার তুলনায় পণ্যটির সরবরাহ কমায় দাম কিছুটা বাড়তির দিকে রয়েছে।

এছাড়া হঠাৎ দেশীয় পেঁয়াজের মোকামগুলোতে নিত্য এ পণ্যের দাম মণপ্রতি ১৫০ টাকা বেড়েছে। এতে দেশি পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ৪ টাকার মতো। যার প্রভাবে আমদানি করা পেঁয়াজের দামও বাড়ছে। তবে দাম খুব একটা বাড়বে না, ৩০ টাকার মধ্যেই থাকবে বলে জানিয়েছেন এ দুই ব্যবসায়ী।

/এফআর/

সম্পর্কিত

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

‘রোহিঙ্গা’ বলায় মাইক্রোচালককে পিটিয়ে হত্যা!

‘রোহিঙ্গা’ বলায় মাইক্রোচালককে পিটিয়ে হত্যা!

রংপুর বিভাগে করোনায় আরও ১৫ মৃত্যু

রংপুর বিভাগে করোনায় আরও ১৫ মৃত্যু

মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২৩:৫০

সিলেটের বিয়ানীবাজারের আলীনগর গ্রামে পূর্ব বিরোধের জেরে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। শনিবার (২৪ জুলাই) আলীনগর ও টিকরপাড়া গ্রামবাসীর মধ্যে ঘণ্টাব্যাপী চলা এ সংঘর্ষে পুলিশ সদস্যসহ কমপক্ষে অর্ধশত মানুষ আহত হয়েছেন। ভাঙচুর করা হয়েছে কয়েকটি দোকানে।

সংঘর্ষের সময় ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। এ সময় আশপাশের এলাকায় ভীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়। এটি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ পাঁচ রাউন্ড ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।

সংঘর্ষে পুলিশের চার সদস্যসহ উভয় পক্ষের অর্ধশত গ্রামবাসী আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে ২০/২৫ জনকে সিলেট এমএজি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ জানায়, তিন দিন আগে আলীনগর গ্রামের অটোরিকশাচালক নজর আলীর সঙ্গে টিকরপাড়া এলাকার যুবক সাদিকসহ কয়েকজন প্রথমে বাগবিতণ্ডায় জড়ান। এক পর্যায়ে যুবকরা অটোরিকশাচালককে মারধর করেন। বিষয়টি আলীনগরবাসী জানার পর গ্রামজুড়ে উত্তেজনা শুরু হয়। বৃহস্পতিবারের ঘটনার জের ধরে আজ দুপুরে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন দুই গ্রামের বাসিন্দারা। এ সময় দুই গ্রামের মসজিদের মাইকে ঘোষণা দেওয়া হলে শতশত মানুষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এ সময় সিলেট-বিয়ানীবাজার আঞ্চলিক মহাসড়ক দুই ঘণ্টা অবরোধ হয়ে পড়ে।

সিলেটের অতিরিক্ত পুলিশ (সার্কেল) জাকির হোসেন জানান, গ্রামবাসীর ছোঁড়া ঢিলে পুলিশের ৩/৪ জন সদস্য সামান্য আহত হয়েছেন। এ সময় পুলিশ পাঁচ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। যেকোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ ঘটনাস্থলে অবস্থান করছে।

উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব বলেন, তুচ্ছ বিষয় নিয়ে দুই গ্রামবাসী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পুলিশ কর্মকর্তা, স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতায় এবং উভয় পক্ষের মুরব্বিদের সঙ্গে আলোচনা করে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়েছে।

/এফআর/

সম্পর্কিত

নিখোঁজের দুই দিন পর পর্যটকের লাশ উদ্ধার

নিখোঁজের দুই দিন পর পর্যটকের লাশ উদ্ধার

ঈদের চতুর্থ দিনেও বসেছে পশুর হাট

ঈদের চতুর্থ দিনেও বসেছে পশুর হাট

মাছ ধরা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০

মাছ ধরা নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০

ভারত থেকে ট্রেনে এলো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২৩:২৭

করোনাভাইরাসের এ দুর্যোগকালে ভারত থেকে প্রথমবারের মতো ‘রেলওয়ে অক্সিজেন এক্সপ্রেসে’র মাধ্যমে ১০ কনটেইনারে ২০০ মেট্রিক টন তরল অক্সিজেন বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছে। এ অক্সিজেন বেনাপোল বন্দরে খালাস হবে না। বন্দরটিতে শুধুমাত্র কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে সরাসরি সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম পাড়ে যাবে এবং সেখানেই এই অক্সিজেন খালাস করা হবে।

শনিবার (২৪ জুলাই) রাত ১০টার দিকে অক্সিজেন বোঝাই ট্রেনটি পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে বেনাপোল স্থলবন্দরে প্রবেশ করেছে বলে জানিয়েছেন বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার শাহিদুজ্জামান। তিনি জানান, রাত ১১টার দিকে ট্রেনটি সিরাজগঞ্জের উদ্দেশে বেনাপোল ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে।

‘রেলওয়ে অক্সিজেন এক্সপ্রেস’র মাধ্যমে প্রথম অক্সিজেন আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানটি হলো লিন্ডে এক্সপোর্ট অ্যান্ড ইমপোর্ট বাংলাদেশ। এই অক্সিজেন ছাড়ের যাবতীয় কাজ করছে বেনাপোলের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট সারথি এন্টারপ্রাইজ।

লিন্ডে বাংলাদেশ এক্সপোর্ট অ্যান্ড ইমপোর্ট লিমিটেডের প্রতিনিধি জিল্লুর রহমান জানান, ভারতে অক্সিজেন সংকট থাকায় সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশে কিছুদিন রফতানি বন্ধ রাখে। এখন সেখানে চাহিদা কমে যাওয়ায় ভারত সরকার রফতানির অনুমতি দিয়েছে। এখন থেকে প্রায় প্রতিদিনই ভারত থেকে বাংলাদেশে অক্সিজেন আমদানি হচ্ছে। আজ থেকে নতুন করে ট্রেনের মাধ্যমে অক্সিজেন আমদানি শুরু হলো।

ভারত-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্সের পরিচালক মতিয়ার রহমান বলেন, ‘ভারতে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় অক্সিজেন সংকট তৈরি হয় এবং চাহিদা বেড়ে যায়। যে কারণে কিছুদিন অক্সিজেন রফতানি বন্ধ রাখা হয়। পরে দেশটিতে করোনা পরিস্থিতি কিছুটা উন্নতি হওয়ায় সরবরাহ প্রতিষ্ঠানটি আবারও বাংলাদেশে অক্সিজেন রফতানি শুরু করে। যা এতদিন স্থলপথে ট্রাকের মাধ্যমে আসছিল। বর্তমানে করোনা রোগীর জন্য অক্সিজেন অপরিহার্য হয়ে পড়েছে। সেজন্য স্থলপথে ট্রাক এবং রেলের মাধ্যমে আমদানি করে অক্সিজেনের মজুত বাড়ানো হচ্ছে।’

বেনাপোল চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা সাইফুর রহমান বলেন, ‘অক্সিজেনবাহী ট্রেনটি বেনাপোল বন্দরে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে দ্রুত কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করে খালাসের ব্যবস্থা করা হয়েছে। দেশে বর্তমানে অক্সিজেনের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। যেহেতু এই দ্রব্যটি জীবন সংকটাপন্ন রোগীর ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়ে থাকে। সেজন্য অক্সিজেনসহ জরুরি সামগ্রী আমদানিতে প্রয়োজনীয় আনুষ্ঠানিকতায় কাস্টমস সবসময় প্রস্তুত রয়েছে।’

বেনাপোল রেলওয়ের স্টেশন ম্যানেজার শাহিদুজ্জামান জানান, আগে স্থলপথে ট্রাকের মাধ্যমে তরল এই অক্সিজেন আমদানি হতো। আজ থেকে ট্রেনের মাধ্যমে অক্সিজেন আমদানি শুরু হলো। এতে সরকারের রাজস্ব আদায়ের ক্ষেত্রে আরও এক ধাপ এগিয়ে গেলো।

/এফআর/

সম্পর্কিত

পুকুর থেকে ক্যাডেট কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

পুকুর থেকে ক্যাডেট কলেজছাত্রের মরদেহ উদ্ধার

খুলনা বিভাগে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু

খুলনা বিভাগে আরও ৩৩ জনের মৃত্যু

করোনায় যশোরে আরও ৬ মৃত্যু

করোনায় যশোরে আরও ৬ মৃত্যু

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:০৩

পবিত্র ঈদুল আজহার ছুটির পর সরকার ঘোষিত ‘কঠোর’ লকডাউনে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের যাত্রাপুর হাটে পশুর হাট বসেছে।

শনিবার (২৪ জুলাই) কোনও রকম স্বাস্থ্যবিধির তোয়াক্কা না করে সাপ্তাহিক পশুর হাট বসানো হয়েছে। ব্রহ্মপুত্র-দুধকুমার নদের মোহনা অববাহিকায় বসা এই হাটে ক্রেতা-বিক্রেতা এমনকি ইজারাদারের প্রতিনিধিদেরও মাস্ক পরতে দেখা যায়নি। চরাঞ্চল থেকে আগত বিক্রেতারা লকডাউন পুনর্বহালের খবর ‘জানেন না’ দাবি করে হাটে উপস্থিত হলেও হাট কমিটি বলছে, হাটের কার্যক্রম বন্ধ রাখার ব্যাপারে প্রশাসন থেকে কোনও ‘নির্দেশনা পাননি’।

তবে উপজেলা প্রশাসন বলছে, ‘নির্দেশনা পাইনি’ বলে হাট কমিটির দায় এড়ানোর সুযোগ নেই। এটা দেশজুড়ে পূর্বঘোষিত নির্দেশনা।

শনিবার যাত্রাপুর হাটে দেখা যায়, জেলার গুরুত্বপূর্ণ এই হাটে ব্যাপক জনসমাগম ঘটেছে। হাটের মূল সড়কের দুই পাশে ভ্রাম্যমাণ পণ্য বিক্রেতাসহ স্থায়ী দোকানদাররাও ব্যবসায়িক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে মাস্ক পরিধান কিংবা সামাজিক দূরত্বসহ স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনও লেশ পাওয়া যায়নি। পশুর হাটেও একই চিত্র দেখা গেছে। 

স্বাস্থ্যবিধি বাস্তবায়নের দায়িত্ব যে ইজারাদার ও প্রতিনিধিদের; তারাই ছিলেন মাস্ক ছাড়া। যে দুই একজনের সঙ্গে মাস্ক ছিল, সেটাও মুখে নয়, থুতনিতে। মহামারি নিয়ে এমন উদাসীনতা কী ভয়াবহতা নিয়ে আসতে পারে সে ব্যাপারে হাট আয়োজকসহ ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই নির্ভার।

হাটে গরু বিক্রি করতে আসা রেজাউল করিম রুবেল বলেন, ‘সংসার চালাতে টাকার প্রয়োজন। তাই হাটে গরু বেচতে আসছি। লকডাউনেও তো চলতে হবে।’ 

মাস্ক পরেননি কেন এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘ভুলে ফেলে আসছি।’ এমন অজুহাত প্রায় সব বিক্রেতার। কেউ বলছেন, ‘গরম লাগে তাই খুলে রাখছি’ আবার কেউ বলেন, ‘এখানে কেউ মাস্ক পরে না, সবাই পরলে আমিও পরতাম।’

ক্রেতা-বিক্রেতার এমন অজুহাতের ব্যতিক্রম নন হাট ইজারাদারও। মাস্ক ছাড়াই হাটে উপস্থিত হাট ইজারাদারের প্রতিনিধি সানাউল বলেন, ‘মাস্ক আছে, অজু করার সময় খুলছি। আর পরার কথা মনে নেই।’ হাট অয়োজনে প্রশাসনের নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি পালনের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমাদের ইজাদারের অফিসে কথা বলুন।’

লকডাউনে হাট অয়োজনে প্রশাসন থেকে কোনও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে কি-না জানতে চাইলে যাত্রাপুর হাট কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘এমন কোনও নির্দেশনা পাইনি। চেয়ারম্যানও এ ব্যাপারে আমাকে কিছু জানাননি। কোনও বৈঠকও করেননি।’

হাটে স্বাস্থ্যবিধি লঙ্ঘনের বিষয়টি স্বীকার করে সাখাওয়াত হোসেন বলেন, ‘হাটে মানুষকে সামাল দেওয়া কষ্টের। আমরা আগামী হাটে মাইকিং করে স্বাস্থ্যবিধি পালনে উৎসাহিত করবো। তারা যেন তাড়াতাড়ি হাটে এসে তাড়াতাড়ি চলে যায়, নৌকা থেকে নেমেই যেন মাস্ক পরিধান করেন- এ ব্যাপারে প্রচারণা চালাবো।’

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নিলুফা ইয়াছমিন বলেন, ‘নির্দেশনা পাইনি এটা বলে হাট কমিটি দায় এড়াতে পারে না। পরবর্তী হাটে যাতে এমনটা না হয় সে ব্যাপারে আমরা ব্যবস্থা নেবো।’

/এএম/

সম্পর্কিত

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

কারখানা খোলা রাখায় এ-ওয়ান পলিমারকে জরিমানা

কারখানা খোলা রাখায় এ-ওয়ান পলিমারকে জরিমানা

ঈদের চতুর্থ দিনেও বসেছে পশুর হাট

ঈদের চতুর্থ দিনেও বসেছে পশুর হাট

‘রোহিঙ্গা’ বলায় মাইক্রোচালককে পিটিয়ে হত্যা!

‘রোহিঙ্গা’ বলায় মাইক্রোচালককে পিটিয়ে হত্যা!

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২২:০৪

করোনাভাইরাস রোধে দেশব্যাপী সরকার আরোপিত লকডাউন অমান্য করে গাজীপুরের কাশিমপুর থানার সারাবো এলাকায় একটি পোশাক কারখানা চালু রাখায় এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এছাড়া দোকান খোলা রাখায় কয়েকটি ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও মাস্কবিহীন ঘোরাফেরা করায় কয়েকজনকে অর্থদণ্ড এবং একটি বিয়ের আয়োজন ভণ্ডুল করে দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

গাজীপুর জেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান

শনিবার (২৪ জুলাই) ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে এ দণ্ড দেওয়া হয়। গাজীপুরের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উম্মে হাবিবা জানান, লকডাউন অমান্য করে জেলার কয়েকটি স্থানে কারখানা ও দোকানপাট খোলা রাখা হয়েছে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দুপুরে গাজীপুর মহানগরের কাশিমপুর থানার সারাবো এলাকার নরবান কমটেক্স লিমিটেড পোশাক কারখানায় অভিযান চালান ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাইরে তালা মেরে কারখানাটির ভেতরে ডায়িং সেকশনসহ কয়েকটি সেকশন চালু রেখে শ্রমিকদের দিয়ে কাজ করানো হচ্ছিল। মাস্ক না পরেই শ্রমিকরা কাজ করছিল। ফলে কারখানার মালিককে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড করা হয়েছে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত কারখানাটির উৎপাদন কার্যক্রম বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

ভণ্ডুল করে দেওয়া হয় বিয়ের আয়োজন

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক (ডিসি) এস এম তরিকুল ইসলাম জানান, আজ জেলার বিভিন্ন এলাকায় ১৮টি ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালিত হয়। মাস্কবিহীন ঘোরাঘুরি করায় এবং মন্ত্রিপরিষদের জারি করা পরিপত্র অনুসরণ না করায় কিছু দোকান ও হোটেলকে জরিমানা করা হয়। এসব ভ্রাম্যমাণ আদালত ৮৬ মামলায় দুই লাখ ৫৪ হাজার ৫০০ টাকা জরিমানা আদায় করেছেন। এছাড়াও সরকারি নির্দেশ অমান্য করে কালিয়াকৈরে একটি বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করায় তা ভণ্ডুল করা হয়।

এদিকে, জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে শ্রীপুরসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে মাস্ক বিতরণ করা হয়।

/এফআর/

সম্পর্কিত

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষিকার

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষিকার

জরিমানা ও ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ডে যা বললো প্রিমিয়ার সিমেন্ট

জরিমানা ও ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ডে যা বললো প্রিমিয়ার সিমেন্ট

প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ শিক্ষিকার

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২১, ২১:৪৬

শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে সহকারী শিক্ষিকাকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে। শুক্রবার (২৩ জুলাই) রাতে উপজেলার সখিপুর থানার চরসেনসাস ইউনিয়নের মাগন বেপারির কান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে সখিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আসাদুজ্জামান হাওলাদার বলেন, এ ঘটনায় শনিবার বিকালে সখিপুর থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী শিক্ষিকা। বিকালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। প্রধান শিক্ষককে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অভিযুক্ত আযহারুল ইসলাম ৪৪ নম্বর তারাবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তিনি উপজেলার সখিপুর থানার চরসেনসাস ইউনিয়নের মাগন বেপারির কান্দির আব্দুর রব বেপারির ছেলে।

ভুক্তভোগী ও পুলিশ জানায়, দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষিকার সঙ্গে প্রধান শিক্ষক আযহারুল ইসলামের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তাকে ধর্ষণ করে আসছিল। শুক্রবার আযহারুল ইসলামের স্ত্রী বাবার বাড়ি যান। এই সুযোগে শিক্ষিকাকে বিয়ের কথা বলে বাসায় ডেকে ধর্ষণ করে। স্থানীয়রা টের পেয়ে তাদের আটক করে। সকালে বিয়ে হওয়ার কথা বলে জোর করে বাড়ি থেকে শিক্ষিকাকে বের করে দেয় প্রধান শিক্ষক। 

ভুক্তভোগী শিক্ষিকা বলেন, ‘প্রধান শিক্ষক বিয়ের কথা বলে দীর্ঘদিন ধর্ষণ করে আসছিল। শুক্রবার বিয়ের কথা বলে আবার ধর্ষণ করে। পরে জোর করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেয়।’

এ বিষয়ে জানতে প্রধান শিক্ষক আযহারুল ইসলামের বাড়িতে গেলে সাংবাদিক দেখে পালিয়ে যায়। তার ব্যবহৃত মোবাইল নম্বর বন্ধ করেছে।

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. আবুল কালাম আজাদ বলেন, এ ঘটনায় তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ দেওয়া হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

জরিমানা ও ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ডে যা বললো প্রিমিয়ার সিমেন্ট

জরিমানা ও ব্যবস্থাপকের কারাদণ্ডে যা বললো প্রিমিয়ার সিমেন্ট

পদ্মা সেতু এড়িয়ে ফেরি চলার কোনও সুযোগ নেই

পদ্মা সেতু এড়িয়ে ফেরি চলার কোনও সুযোগ নেই

কারখানা খোলা রাখায় এ-ওয়ান পলিমারকে জরিমানা

কারখানা খোলা রাখায় এ-ওয়ান পলিমারকে জরিমানা

সর্বশেষ

মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

মাইকে ঘোষণা দিয়ে দুই ২ গ্রামবাসীর সংঘর্ষ

অনলাইনে ভিসা সেবা দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ

অনলাইনে ভিসা সেবা দিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগ

করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসিউতে জাতীয় দলের শুটার

করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসিউতে জাতীয় দলের শুটার

তিন মাসে ২ বার করোনা আক্রান্ত, হতাশায় দম্পতির আত্মহত্যা

তিন মাসে ২ বার করোনা আক্রান্ত, হতাশায় দম্পতির আত্মহত্যা

ভারত থেকে ট্রেনে এলো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন

ভারত থেকে ট্রেনে এলো ২০০ মেট্রিক টন অক্সিজেন

মহারাষ্ট্রে টানা ভারী বৃষ্টিতে বন্যা-ভূমিধস, জীবিতদের খোঁজে অভিযান

মহারাষ্ট্রে টানা ভারী বৃষ্টিতে বন্যা-ভূমিধস, জীবিতদের খোঁজে অভিযান

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন সংস্থার বিরুদ্ধে চীনের পাল্টা নিষেধাজ্ঞা

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

টিকার জন্য জাপানকে ধন্যবাদ জানালেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

এক কোটি ১৬ লাখ টিকা দেওয়া শেষ

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

পোশাক কারখানার বাইরে তালা ভেতরে চালু

ঢাকায় এলো উপহারের ২৫০টি ভেন্টিলেটর

ঢাকায় এলো উপহারের ২৫০টি ভেন্টিলেটর

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

লকডাউনেও জমজমাট পশুর হাট

‘রোহিঙ্গা’ বলায় মাইক্রোচালককে পিটিয়ে হত্যা!

‘রোহিঙ্গা’ বলায় মাইক্রোচালককে পিটিয়ে হত্যা!

রংপুর বিভাগে করোনায় আরও ১৫ মৃত্যু

রংপুর বিভাগে করোনায় আরও ১৫ মৃত্যু

জরিমানা পরিশোধ না করে পুলিশ পরিদর্শককে পেটানোর অভিযোগ

জরিমানা পরিশোধ না করে পুলিশ পরিদর্শককে পেটানোর অভিযোগ

হাসপাতালে ২৭ ঘণ্টা চিকিৎসা না পেয়ে সাংবাদিকের মায়ের মৃত্যু

হাসপাতালে ২৭ ঘণ্টা চিকিৎসা না পেয়ে সাংবাদিকের মায়ের মৃত্যু

লকডাউনে বগুড়া থেকে হিলিতে চকলেট কিনতে যাওয়ায় জরিমানা

লকডাউনে বগুড়া থেকে হিলিতে চকলেট কিনতে যাওয়ায় জরিমানা

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

মদপানে ২ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ৫

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

লকডাউন অমান্য করায় ব্যবসায়ীর ৭ দিনের জেল

© 2021 Bangla Tribune