X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ইটের কবরে দাফন

আপডেট : ১৮ জুন ২০২১, ০৯:২২

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সৃষ্ট জলোচ্ছ্বাসে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে আশাশুনির প্রতাপনগরের মানুষ। অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে সেখানে এখন মারা যাওয়ার পর কবর দেওয়ার মাটি পর্যন্ত মিলছে না, সবই পানির নিচে। এ অবস্থায় বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) ছয় ঘণ্টার ব্যবধানে প্রতাপনগরের দু’জনের মৃত্যু হয়। এই দু’জনের মধ্যে একজনকে বিকল্প উপায়ে দাফন করা হয়েছে।

প্রতাপনগরের বাসিন্দা মাসুম বিল্লাহ বলেন, প্রতাপনগর ইউনিয়নের শহিদুল ইসলাম গাজীর ছেলে মাহমুদুল হাসান (৩৪) বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে পাঁচটায় তার কর্মস্থল কলারোয়ার বাসায় মৃত্যুবরণ করেন। পরে তার মরদেহ আনা হয় প্রতাপনগরে। কিন্তু প্রতাপনগরসহ আশপাশের এলাকা পানির নিচে ডুবে আছে।

 তিনি আরও জানান, বাদ আছর জানাজার পর বিকল্পভাবে পারিবারিক কবরস্থানে কবর না খুঁড়েই দাফন করা হয় তাকে। জোয়ারের পানি কমে গেলে ইট বিছিয়ে তার উপরে পলিথিন দিয়ে থরে থরে ইটের দেয়াল করে তাকে সমাহিত করা হয়।

মাহমুদুল কলারোয়ায় বেসরকারি ওষুধ কোম্পানি একমির (এগ্রোভেট) বিক্রয় কর্মকর্তা হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এদিকে প্রতাপনগর গ্রামের ডা. আক্তার হোসেনের বাবা আরশাদ আলী সানা (৭৮) বৃহস্পতিবার বার্ধক্যজনিত কারণে নিজ বাসভবনে মারা যান। শুক্রবার (১৮ জুন) জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে বিকল্প উপায়ে তাকেও দাফনের কথা রয়েছে।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:৫৮

সংযুক্ত আরব আমিরাত থেকে আসা মোংলা বন্দরে অবস্থানরত একটি জাহাজের আট বিদেশি নাবিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তাদেরকে বুধবার (২৮ জুলাই) রাতে খুলনার গাজী মেডিক্যালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের পতাকাবাহী ‘এম ভি ফাজাহ-১’ নামের জাহাজটির স্থানীয় শিপিং এজেন্ট সুন সিন বিজনেস লিমিটেডের নির্বাহী কর্মকর্তা মো. সোহাগ হোসেন বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘নরসিংদীর ঘোড়াশাল তাপ বিদুৎকেন্দ্রের জন্য ৩২০০ টন মেশিনারি পণ্য নিয়ে গত ২৬ জুলাই মোংলা বন্দরে আসে জাহাজটি। এ সময় জাহাজে থাকা আটজনের শরীরে জ্বর দেখা দিলে তাদেরকে বন্দরের চিকিৎসক মো. কবিরুল ইসলামের কাছে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। এরপর তার পরামর্শে বুধবার রাতে তাদেরকে খুলনায় পাঠানো হয়। সেখানে তাদের করোনা শনাক্ত হয়।’

তারা হলেন- ভারতের নুতান গাটিয়াল আনিউল্লাহ, আমিলি আনিকেট দাসারাম, রয় প্রবীর শাওপান, ঘুনটু চালাপাথিরাও, মান্ডাল সঞ্চিত; ফিলিপাইনের চেকর ওকাপ নাইল, বিউন ফ্লোর টালাম এবং ইথিওপিয়ার ইজাইনি টিলাউন মাহিরিটু।

এদিকে আট নাবিক আক্রান্তের খবরে বন্দরে অবস্থানরত ফাজাহ-১ জাহাজের সব কাজ বন্ধ রয়েছে বলে জানান হারবার মাস্টার কমান্ডার শেখ ফখর উদ্দিন। জাহাজটিতে ১৬ জন নাবিক রয়েছেন বলেও জানান তিনি।

/এফআর/

সম্পর্কিত

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:৪১

সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচ নারীসহ ছয় জনের মৃত্যু হয়েছে। সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ (সামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে জেলায় ২৯ জুলাই পর্যন্ত করোনা উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৫৩৩ জন। পাশাপাশি করোনায় মারা গেছেন ৮৪ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত ব্যক্তিরা হলেন আশাশুনি উপজেলার চাপড়া গ্রামের আব্দুর রশিদের স্ত্রী রিনা বেগম (৩০), কালিগঞ্জ উপজেলার শ্রীকলা গ্রামের মৃত আরমানের স্ত্রী রাবেয়া খাতুন (৭৫), একই উপজেলার নলতা গ্রামের আনছার গাজীর স্ত্রী মর্জিনা খাতুন (৫০), সাতক্ষীরা শহরের রসুলপুর এলাকার নজিবুল্লাহর স্ত্রী রত্না অধিকারী (২৮), সদর উপজেলার কাথন্ডা গ্রামের কবির হোসেনের স্ত্রী মাসকুরা (৪৫) ও শ্যামনগরের ধুমঘাট গ্রামের মোহাম্মাদ গাজীর ছেলে মোস্তাফিজুর রহমান (৫০)।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার নানা উপসর্গ নিয়ে গত ১১ জুলাই থেকে ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি হন এসব ব্যক্তি। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। 

এদিকে সাতক্ষীরায় গতকালের চেয়ে করোনা সংক্রমণের হার বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯৯টি নমুনা পরীক্ষায় ৬০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৩০ দশমিক ১৫ শতাংশ। আগের দিন শনাক্তের হার ছিল ২৮ দশমিক ৮৯ শতাংশ।

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল কর্মকর্তা ও জেলা করোনা বিষয়ক তথ্য কর্মকর্তা ডা. জয়ন্ত কুমার সরকার বলেন, এ পর্যন্ত সাতক্ষীরায় করোনা রোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজার ৫৪৫ জন। জেলায় সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ২৭৫ জন। বর্তমানে করোনা রোগী রয়েছেন এক হাজার ১৮৬ জন। হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীর সংখ্যা ৩২ জন। এদের মধ্যে সামেক হাসপাতালে ২৯ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে তিন জন ভর্তি আছেন। হোম আইসোলেশনে আছেন এক হাজার ১৫৪ জন। উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ৪৩  জন। এর মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি ৪০ জন এবং বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি তিন জন। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৩৫ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৮ জন। করোনায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৮৪ জন। উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৫৩৩ জন।

/এএম/

সম্পর্কিত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:৩৫

লকডাউন অমান্য করে একসঙ্গে ৭০ জন যাত্রী পরিবহনের অভিযোগে জব্দ করা হয়েছে একটি জিপ (চাঁদের গাড়ি)। যাত্রীদেরকে সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন ট্রাফিক ইন্সপেক্টর সুপ্রিয় দেব।

সুপ্রিয় দেব বলেন, খাগড়াছড়িতে স্থানীয়রা লকডাউন মানতে চান না। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) খাগড়াছড়িতে হাটবার থাকে। লোকজন স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাজার করে বাড়িতে ফিরবে এমনটা হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি।

তিনি জানান, বাজার শেষে সদরের নয়মাইল কৃষি গবেষণা সীমানাপাড়া যাওয়ার একটি চাঁদের গাড়িতে ৭০ জন যাত্রী পরিবহন করা হয়। বলা যায় একজনের ওপর আরেক যাত্রী তুলে যাত্রী পরিবহন করা হচ্ছিলো। গাড়িটি আদালত মোড়ে আসলে পুলিশ চেকপোস্টে থামানো হয়। পরে যাত্রীরা ক্ষমা চেয়ে ছাড় পায়। তবে গাড়িটি জব্দ করে খাগড়াছড়ি সদর থানায় নেওয়া হয় বলে জানান তিনি।

খাগড়াছড়ি সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ আবদুর রশিদ সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করে না। এরই সুযোগ নিয়ে অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের ঘটনায় জিপ গাড়িটি জব্দ করা হয়েছে। 

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

ঘরের আড়ায় ঝুলছিল অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ 

ঘরের আড়ায় ঝুলছিল অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূর লাশ 

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

কুমিল্লায় কাভার্ডভ্যান উল্টে দুই শ্রমিকসহ নিহত ৩ 

কুমিল্লায় কাভার্ডভ্যান উল্টে দুই শ্রমিকসহ নিহত ৩ 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

লকডাউনে ছেলের বিয়ের আয়োজন, জরিমানা গুনলেন নারী মেম্বার 

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৫:১৫

জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বরিশালের উজিরপুরে এক বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে। এ সময় বীর মুক্তিযোদ্ধার তিন ছেলেসহ চার জনকে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকালে উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের আটিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত বীর মুক্তিযোদ্ধা দেলোয়ার হোসেন তালুকদার (৮০) আটিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। আহতরা হলেন তার ছেলে বিপ্লব তালুকদার, সোহাগ তালুকদার ও জুয়েল তালুকদার এবং বিপ্লবের স্ত্রী রোজিনা বেগম। আহতদের বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

মুক্তিযোদ্ধার মেয়ে সোনিয়া আক্তার বলেন, ‘প্রতিপক্ষ নুরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা আমার বাবাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে। হাসপাতালে আনার পর বাবার মৃত্যু হয়।’

শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন, দেলোয়ার হোসেনের শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয়েছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বিপ্লব তালুকদার বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে একই গ্রামের নুরুল ইসলাম ও তার সহযোগীদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে আদালতে মামলা চলমান। সকালে নুরুল ইসলাম ৩০-৩৫ জন লোক নিয়ে বিরোধপূর্ণ জমিতে চাষাবাদ শুরু করে। খবর পেয়ে বাবা সেখানে উপস্থিত হন। এ সময় নুুরুল ইসলামের সঙ্গে বাবার বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে নুরুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা পিটিয়ে ও কুপিয়ে বাবাকে জখম করে। খবর পেয়ে সেখানে গেলে আমাদেরও এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত করা হয়।’

উজিরপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আরশেদ বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যায় জড়িতদের আটক করতে পুলিশের অভিযান চলছে। এরই মধ্যে ঘটনায় জড়িতরা এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার

টানা বৃষ্টিতে ভেঙে পড়েছে বিদ্যুতের খুঁটি-গাছ

টানা বৃষ্টিতে ভেঙে পড়েছে বিদ্যুতের খুঁটি-গাছ

কিশোরীকে বিভিন্নস্থানে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ 

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪:৫৭

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় এক কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় মাহমুদ আলী (৩০) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। গ্রেফতার মাহমুদ আলী বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের সঞ্জব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও মামলা বিবরণীতে জানা যায়, নবীগঞ্জ উপজেলার নির্যাতনের শিকার ওই কিশোরীকে ২০ জুলাই সন্ধ্যায় পাশের বানিয়াচং উপজেলার কদুপুর গ্রামের মাহমুদ আলী ও তার সহযোগীরা সিএনজিতে করে নিয়ে যায়। পরে রাতভর বিভিন্নস্থানে নিয়ে তাকে সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ করে তারা। ২১ ও ২২ জুলাই সিলেটের একটি আবাসিক হোটেলে রেখেও তাকে ধর্ষণ করা হয়। পরবর্তীতে অভিযুক্ত মাহমুদ ওই কিশোরীকে নিয়ে তার নিজ বাড়িতে উপস্থিত হলে পবিারের লোকজন কিশোরীকে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। বাড়ি ফিরে কিশোরী ধর্ষণের বিষয়টি তার পরিবারকে জানায়। পরে ২৫ জুলাই ওই কিশোরীকে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা।

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) এ ঘটনায় ওই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে নবীগঞ্জ থানায় মামলা (নম্বর-৯) দায়ের করেন। ভোররাতে নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ডালিম আহমেদ ও পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে উপজেলার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের রসুলগঞ্জ বাজার থেকে মূলহোতা মাহমুদ আলীকে গ্রেফতার করে। 

নবীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ডালিম আহমেদ গ্রেফতারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

 

/টিটি/

সম্পর্কিত

নারী শ্রমিককে ধর্ষণ, বিচার চাইতে গিয়ে মা লাঞ্ছিত

নারী শ্রমিককে ধর্ষণ, বিচার চাইতে গিয়ে মা লাঞ্ছিত

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার

সংঘবদ্ধ ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যার কথা স্বীকার

বাড়ির উঠানে স্ত্রীর লাশ পুঁতে রাখলো স্বামী

বাড়ির উঠানে স্ত্রীর লাশ পুঁতে রাখলো স্বামী

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

ধর্ষণের অভিযোগে ছাত্রলীগের সাবেক নেতার বিরুদ্ধে কলেজছাত্রীর মামলা

সর্বশেষ

ফাঁকা শহরে বৃষ্টির আগমন (ফটোস্টোরি)

ফাঁকা শহরে বৃষ্টির আগমন (ফটোস্টোরি)

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

‘দুই ম্যাচের একটি জিতিয়েছি, তবে আলোচনায় আসার মতো ইনিংস খেলিনি’

‘দুই ম্যাচের একটি জিতিয়েছি, তবে আলোচনায় আসার মতো ইনিংস খেলিনি’

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

চার দিন পর শিশুকে উদ্ধার, অপহরণকারী গ্রেফতার

চার দিন পর শিশুকে উদ্ধার, অপহরণকারী গ্রেফতার

গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুজন গ্রেফতার

গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুজন গ্রেফতার

প্রতিদিন দুই ঘণ্টা করে টানা ১০ বছর সম্প্রচার!

প্রতিদিন দুই ঘণ্টা করে টানা ১০ বছর সম্প্রচার!

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

কত প্রকার মাদক আছে দেশে?

মাদক ভয়ংকর-৪কত প্রকার মাদক আছে দেশে?

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

আমিরাত থেকে আসা জাহাজের ৮ নাবিক করোনায় আক্রান্ত

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

সাতক্ষীরায় করোনা উপসর্গে ৫ নারীর মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

চাঁদপুর হাসপাতালে ৮ ঘণ্টায় ৭ মৃত্যু

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

তলিয়ে গেছে মোংলা শহর, পানিবন্দি ৭ হাজার মানুষ

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

কুষ্টিয়ায় আরও ১১ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

ময়মনসিংহ মেডিক্যালে ২৪ ঘণ্টায় ১৬ মৃত্যু

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

রাজশাহী মেডিক্যালে আরও ১৭ মৃত্যু 

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

শের-ই বাংলা মেডিক্যালে আরও ১২ মৃত্যু

© 2021 Bangla Tribune