X
শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

রাঙামাটিতে পাহাড় ধসের আশঙ্কা, নিরাপদ স্থানে যেতে মাইকিং

আপডেট : ২০ জুন ২০২১, ০১:০৯

টানা বৃষ্টিতে রাঙামাটিতে পাহাড় ধসের আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ অবস্থায় পাহাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন।

শনিবার (১৯ জুন) রাতে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে রাঙামাটি শহরের শিমুলতলী, যুব উন্নয়ন এলাকা, রূপনগর, সনাতনপাড়া এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযানের সময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. মামুনসহ জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও স্বেচ্ছাসেবকরা।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার (১৮ জুন) সন্ধ্যা থেকে থেমে থেমে বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় পাহাড় ধসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এজন্য পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসরতদের নিরাপদ স্থানে সরে আসার জন্য আহ্বান জানায় জেলা প্রশাসন। একই সঙ্গে পাহাড়ে বসবাসরতদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়।

রাঙামাটি আবহাওয়া পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রের সিনিয়র পর্যবেক্ষক কেচিনু মারমা বলেন, শুক্রবার রাত ৯টা থেকে শনিবার রাত ৯টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ৪১.১২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এজন্য পাহাড় ধসের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। এ অবস্থায় পাহাড়ের বাসিন্দাদের নিরাপদ স্থানে সরে যেতে বলা হয়ছে।

পাহাড়ের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় বসবাসকারীদের নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিতে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসন

রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, যারা ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে সরে এসেছেন তাদের জন্য থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। তবে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা থেকে যারা এখনও সরে আসেনি তাদের নিরাপদ স্থানে যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে। প্রশাসনের লোকজন পাহাড়ের বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে তাদের বোঝাচ্ছেন। তবে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার আইন অনুযায়ী পাহাড়ে বসবাসরতদের সরিয়ে আনার জন্য আমরা বাধ্য করতে পারি।

তিনি আরও বলেন, যদি বোঝানোর পরও তারা যদি সরে না আসে তাহলে আমরা আইন প্রয়োগ করবো। পৌর এলাকায় ২৩টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা রয়েছে। সেখানে তাদের রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসনের তথ্যমতে, পৌর এলাকার ৩৩টি ঝুঁকিপূর্ণ স্থানসহ পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিতে বসবাস করছে প্রায় ১৫ হাজার পরিবার। ২০১৭ ও ২০১৮ সালে টানা বর্ষণে রাঙামাটিতে পাহাড় ধসে ১৩১ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এরপরও সচেতন হয়নি পাহাড়ের বাসিন্দারা।

/এএম/

সম্পর্কিত

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:৪৬

অগ্নিকাণ্ডের পর ১৫ দিন কেটে গেলেও এখনও চালু হয়নি টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ)। ফলে আইসিইউ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন এ জেলার ১২ উপজেলার করোনা আক্রান্ত মুমূর্ষু রোগীরা।

জানা গেছে, গত ১৫ জুলাই টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আইসিইউ ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আগুনের সূত্রপাত হয় হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা থেকে। ওইদিন ইউনিটের ১০টি শয্যায় থাকা রোগীদের তাড়াহুড়ো করে হাসপাতালের বাইরে নিরাপদ স্থানে রাখা হয়। অক্সিজেন সাপোর্ট না পেয়ে অনেকে রোগীর অবস্থা অবনতি হয়। এমতাবস্থায় একাধিক রোগীকে অন্যত্র রেফার্ড করেন চিকিৎসকরা। এর মধ্যে ওইদিন বাইরে অনেকেরই মৃত্যু হয়।

এ ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সোহানা নাসরিনকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটি প্রতিবেদনে জানায়, আইসিইউতে হাই ফ্লো ন্যাজাল ক্যানোলা মেশিনের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার এবং নির্দেশনা অনুযায়ী মেশিন ব্যবহার না করার কারণে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছিল। প্রতিবেদনটিতে আটটি সুপারিশও করা হয়েছে।

এদিকে এই অগ্নিকাণ্ডের পর ১৫ দিন গেলেও আইসিইউ সেবা চালু করতে পারেনি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ফলে এ জেলার মুমূর্ষু রোগীরা এখন আইসিইউ সেবা থেকে বঞ্চিত। বর্তমানে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ৫৬ জন করোনা রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

রোগীর স্বজনদের অভিযোগ, আইসিইউ সেবা বন্ধ থাকায় মুমূর্ষু রোগীদের অন্যত্র রেফার্ড করা হচ্ছে। হাসপাতালে আইসিইউ সেবা না পেয়ে অনেকেরই মৃত্যু হচ্ছে।

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক (আরএমও) শফিকুল ইসলাম সজিব বলেন, ‘আইসিইউ এখনও চালু হয়নি। আইসিইউ প্রস্তুতের কাজ অনেকটাই শেষের দিকে। আগামী শনিবার নাগাদ চালু হতে পারে।’

বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) জেলায় করোনায় ও উপসর্গ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে ৫৩০টি নমুনা পরীক্ষায় ১২৫ জনের দেহে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩ হাজার ৪৬৯ জনে। আর মৃত্যু হয়েছে ২০৯ জনের।

/এফআর/

সম্পর্কিত

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

আইসিইউ খালি নেই রংপুর বিভাগের করোনা হাসপাতালে

আইসিইউ খালি নেই রংপুর বিভাগের করোনা হাসপাতালে

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:১২

নোয়াখালীর হাতিয়ার ঠেঙ্গারচর এলাকায় মেঘনা নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনায় ট্রলারডুবির ঘটনায় এক জেলের লাশ ও ১১ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে।

মারা যাওয়া শ্যামল চন্দ্র জলদাস (২৩) উপজেলার চরকিং ইউনিয়নের দাসেরহাট এলাকার দক্ষিণ শুল্লুকিয়া গ্রামের মতিলাল চন্দ্র জলদাসের ছেলে। উদ্ধার ১১ জেলে ওই ইউনিয়নের বাসিন্দা। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোস্টগার্ড হাতিয়ার স্টেশন কমান্ডার লে. এ এস এম লুৎফর রহমান।

তিনি বলেন, ২৭ জুলাই মাছ ধরার ট্রলার নিয়ে রওনা হন ১২ জেলে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে সাগরে না গিয়ে ঠেঙ্গারচরে আশ্রয় নেন। বৃহস্পতিবার ট্রলার নিয়ে এলাকায় রওনা হন তারা। মেঘনা নদী ও বঙ্গোপসাগরের মোহনায় আবহাওয়ার কবলে পড়ে তাদের ট্রলার ডুবে যায়। খবর পেয়ে রাত সাড়ে ৮টায় ১১ জেলেকে জীবিত ও একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়। রাত সাড়ে ১০টায় মৃত জেলের লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

/এএম/

সম্পর্কিত

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০০:১৬

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত চাঁনমারি বস্তিটি শতভাগ উচ্ছেদ করেছে জেলা পুলিশ। বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের পাশের এ বস্তিতে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হয়। এতে সেখানে থাকা পাঁচ শতাধিক ঘর গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, প্রায় পাঁচ শতাধিক ঘর ছিলো এই চাঁনমারি বস্তিতে। প্রশাসনের নাকের ডগায় এ বস্তিতে কয়েক যুগ ধরেই মাদক ব্যবসা চলছিলো। নিয়মিতই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানও হতো এখানে। তবে শত প্রচেষ্টার পরও এখানে বন্ধ করা যায়নি মাদক ব্যবসা।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জায়েদুল আলম বলেন, ‘এটি অনেক পুরান বস্তি। এর পাশে অবস্থিত পুলিশ সুপার, জেলা প্রশাসক ও জেলা দায়রা জজসহ গুরুত্বপূর্ণ কার্যালয় রয়েছে। এই বস্তিতে মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বেশ কয়েকবার সংঘর্ষ হয়েছে। তাছাড়া যতবারই এই বস্তি উচ্ছেদ হয়েছে ততবারই কোনও না কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে।’

তিনি বলেন, ‘আমি যোগদানের পর থেকেই নারায়ণগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল, এই এখান থেকে মাদক নির্মূল করা এবং এই বস্তি অপসারণ করা। নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ গত তিন দিন এই উচ্ছেদ কার্যক্রম পরিচালনা করেছে এবং বৃহস্পতিবার বস্তিটি শতভাগ উচ্ছেদ করা হয়েছে।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

৩ ঘণ্টা পর শিমুলিয়া-বাংলাবাজার ফেরি চলাচল শুরু

রাস্তা পার হতে গিয়ে প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী

রাস্তা পার হতে গিয়ে প্রাণ হারালেন স্বামী-স্ত্রী

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

আপডেট : ৩০ জুলাই ২০২১, ০০:০৭

ভোলার চরফ্যাশনে বড় ভাই অবিবাহিত থাকায় পরিবারের বাধার মুখে প্রেমিকাকে বিয়ে করতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন ছোট ভাই মো. রিয়াজ (১৮)।

বুধবার (২৮ জুলাই) রাতে উপজেলার রসুলপুর ইউনিয়নের উত্তর আইচা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

পুলিশ ও স্বজনরা জানিয়েছেন, কয়েক মাস ধরে অপরিচিত এক মেয়ের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন রিয়াজ। কিছুদিন আগে ওই মেয়ের সঙ্গে তার প্রেমের সম্পর্ক হয়। বুধবার ওই মেয়েকে বিয়ে করার জন্য পরিবারকে জানান। কিন্তু বড় ভাই অবিবাহিত থাকায় পরিবার বাধা দেয়। ওই দিন রাতেই বিষপান করেন রিয়াজ। তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। 

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শশীভূষণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রেমিকাকে বিয়ে করতে পরিবারের সম্মতি না পেয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে ওই যুবক। ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

বিয়ের চার দিনের মাথায় কিশোরীর ‘আত্মহত্যা’

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

৭১ বছরের বৃদ্ধের সঙ্গে বিয়ে দেওয়ায় তরুণীর আত্মহত্যা

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

কুপিয়ে ছাত্রলীগ নেতার কবজি কেটে নিলেন অপর নেতা  

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ২৩:৪৪

জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে। নগরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) ভোরে তিনি মারা যান।

তার নাম তানজিদা মোরশেদ (২৬)। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের ২০১২–১৩ শিক্ষাবর্ষের ছাত্রী ছিলেন। নগরের হালিশহর এলাকায় পরিবার নিয়ে থাকতেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রবিউল ইসলাম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘তানজিদা মোরশেদ আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্রী ছিলেন। তার বাবা বেঁচে নেই। দুই বোনের মধ্যে সে ছোট। বড় বোনের বিয়ে হয়ে যাওয়ায় মাকে নিয়ে সে নগরের হালিশহর এলাকায় থাকতেন। জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে আজ ভোরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। সকাল সাড়ে ১০টায় জানাজা শেষে হালিশহর বি ব্লকের বিহারি কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।’

তার মা পারভীন নাহার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ঈদের এক দিন আগে তানজিদার জ্বর হয়েছিল। বাসার পাশের ফার্মেসি থেকে ওষুধ কিনে খাওয়ার পরও জ্বর কমেনি। উল্টো শ্বাসকষ্ট বেড়ে যায়। পরে অবস্থা আরও খারাপ হতে থাকে। শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে বুধবার (২৮ জুলাই) দুপুর ২টায় আমরা তাকে প্রথমে মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখানে সিট খালি না পেয়ে ডায়াবেটিক হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করি।’

তিনি আরও বলেন, ‘সেখানে রাত ১২টা পর্যন্ত অক্সিজেনের সুবিধা দিয়ে রাখার পর, সার্জিস্কোপ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাকে আইসিইউতে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ ভোর সাড়ে ৫টার দিকে মারা যায়।’

/এফআর/

সম্পর্কিত

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

সর্বশেষ

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

করোনা শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৭২ লাখ ছাড়িয়েছে

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

কিউবায় আটক বিক্ষোভকারীদের মুক্তি দাবি ইউরোপীয় ইউনিয়নের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

তিউনিসিয়াকে গণতান্ত্রিক পথে ফেরার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

অগ্নিকাণ্ডের ১৫ দিনেও চালু হয়নি আইসিইউ

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

সংঘর্ষে নিহত নন, তালেবানের হাতে ‘খুন’ হয়েছেন দানিশ সিদ্দিকি

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

হেলেনা জাহাঙ্গীর আটক

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

রামেবির প্রতিষ্ঠাকালীন উপাচার্য মাসুম হাবিব আর নেই

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো ৫০০ ঘরের বস্তিটি

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

অবিবাহিত বড় ভাই, আত্মহত্যা ছোট ভাইয়ের

ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের বদলা নিলো শ্রীলঙ্কা

ভারতকে হারিয়ে ওয়ানডে সিরিজের বদলা নিলো শ্রীলঙ্কা

লেনোভো বাজারে নিয়ে এলো দুটি নতুন ট্যাব

লেনোভো বাজারে নিয়ে এলো দুটি নতুন ট্যাব

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

মেঘনায় ট্রলারডুবিতে একজনের মৃত্যু, জীবিত উদ্ধার ১১

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

জ্বর-শ্বাসকষ্টে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীর মৃত্যু

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

হাসপাতালে শয্যা না পেয়ে ফিরে যাচ্ছে রোগী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

পানি প্রকল্পের জন্য নিজের টাকায় জমি কিনে দিচ্ছেন আইনমন্ত্রী

বিনা দোষে মিনুর কারাভোগ, কুলসুম ও তার সহযোগী রিমান্ডে 

বিনা দোষে মিনুর কারাভোগ, কুলসুম ও তার সহযোগী রিমান্ডে 

লকডাউনে মায়ের চেহলাম আয়োজন করায় ছেলেকে জরিমানা

লকডাউনে মায়ের চেহলাম আয়োজন করায় ছেলেকে জরিমানা

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

কুমিল্লায় লকডাউনের ছয় দিনে ১২ লাখ টাকা জরিমানা আদায় 

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

মোটরসাইকেল চালককে টেনে-হিঁচড়ে ৫ কিলোমিটার নিয়ে গেলো ট্রাকটি

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

যার সাজা খেটেছিলেন মিনু, সেই কুলসুম গ্রেফতার

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

ডুবে গেছে বান্দরবানের নিম্নাঞ্চল, পাহাড়ধসের আশঙ্কা

© 2021 Bangla Tribune