X
রবিবার, ২৫ জুলাই ২০২১, ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, ফরিদপুরে এক বাড়ি নিয়ে একটি গ্রাম (ভিডিও)

আপডেট : ২০ জুন ২০২১, ১২:৩৯

গ্রামের নাম বিষ্ণুপুর। সবাই ডাকে বেষ্টপুর নামে। আগে থেকেই গ্রামটি ছোট। লোক সংখ্যা কমতে কমতে এখন একেবারেই ছোট গ্রামে পরিণত হয়েছে। এখন একটি বাড়ি নিয়ে একটি গ্রাম। ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নে এক বাড়ি নিয়ে এই গ্রামের অবস্থান।

উপজেলার দক্ষিণ দিকের সর্বশেষ প্রান্তর ওই বাড়িতে বসবাস করছে ৯টি পরিবার। বাবা-মা, ছেলে-মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ মোট ৩৭ জনের বসবাস। তাদের মধ্যে ভোটার রয়েছেন ১৫ জন। এক বাড়ি, এক গ্রামের দক্ষিণ দিকে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলার মহেশপুর ইউনিয়নের জয়নগর এবং উত্তরে বোয়ালমারীর টোংরাইল গ্রামের অবস্থান।

সরেজমিনে দেখা যায়, বোয়ালমারী উপজেলা সদর থেকে প্রায় ১০-১২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত রূপাপাত ইউনিয়ন। ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের অন্তর্গত টোংরাইল, সুতালীয়া, বনমালীপুর, কদমী গ্রামের মধ্যবর্তী গ্রাম হলো বিষ্ণুপুর।

প্রায় ৬০ শতাংশ জায়গায় বিষ্ণুপুর গ্রামটি শুরু থেকেই কয়েকটি হিন্দু পরিবারসহ ৭-৮ বাড়ি নিয়ে গঠিত ছিল। গ্রামের চারদিকে ফসলি জমি, ও কাদামাটিতে পরিবেষ্টিত। খালি পায়ে কাদামাটি ও পানি পেরিয়ে কোনও রকমে ঢুকতে হয় রাস্তাবিহীন ও উন্নয়নবঞ্চিত এই গ্রামে। বছরের ছয় মাস পানি, ছয় মাস ফসলি জমির ভেতর দিয়েই চলাচল করতে হয় গ্রামে বসবাসকারীদের।

 

বিষ্ণুপুর গ্রামের বাসিন্দা সলেমান মোল্লা (৬০) জানান, নানা বঞ্চনা, দুর্ভোগ ও দুর্গতি এবং রাস্তাঘাট না থাকায় অনেকেই গ্রাম ছেড়ে চলে গেছেন। আমরা একটা পরিবার গ্রামটিকে টিকিয়ে রেখেছি। এলাকার চেয়ারম্যান, মেম্বাররা আসেন শুধু ভোটের সময়। ভোট চলে গেলে তাদের দেখা যায় না। এমপিদের কোনও দিন আমাদের গ্রামে আসতে দেখিনি। তবে সাবেক এমপি আব্দুর রহমান সাহেব বিদ্যুৎ লাইনের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। এজন্য টিকে আছি। বিদ্যুতের জন্য টেলিভিশন ও মোবাইল চালানো যায়।

গ্রামের আরেক বাসিন্দা হেমায়েত মোল্লা বলেন, আমাদের মূল সমস্যা যাতায়াতের। দেড় কিলোমিটার দূরে প্রাইমারি স্কুল, দুই কিলোমিটার দূরে হাইস্কুলে গিয়ে ছেলেমেয়েরা পড়াশোনা করে। গ্রামে নেই মসজিদ। আধা কিলোমিটার দূরে গিয়ে প্রতি বছর দুই ঈদের নামাজ এবং প্রতি শুক্রবার জুমার নামাজ পড়তে হয়। গ্রামটি ছোট হওয়ায় উন্নয়নবঞ্চিত এবং অবহেলিত।

গ্রামের পার্শ্ববর্তী টোংরাইল গ্রামের বাসিন্দা মহানন্দ বিশ্বাস, রিপন বিশ্বাস ও রমেন বিশ্বাস জানান, বিষ্ণুপুর গ্রামের যাতায়াত ব্যবস্থা খুবই খারাপ। যাতায়াতের জন্য রাস্তাঘাট নেই। ছোট একটি আইল দিয়ে চলাচল করেন তারা। বিশেষ করে বর্ষা মৌসুমে গ্রামের লোকজন নৌকা ছাড়া বাড়ি থেকে বের হতে পারেন না। শুকনো মৌসুমেও তাদের কাদা মাড়িয়ে চলতে হয়। ফলে গ্রামের বাসিন্দাদের অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) রবিন বিশ্বাস বলেন, রাস্তা তৈরির জন্য বরাদ্দ দেওয়ার পরও রাস্তা করা সম্ভব হয়নি। কারণ অন্যদের জমির ওপর দিয়ে রাস্তা করতে গেলে জমির মালিকরা বাধা দেন। আমাদের সাধ্যমতো উন্নয়ন করার চেষ্টা করেছি। বিভিন্ন ভাতার কার্ডসহ সরকারি সুযোগ-সুবিধা দিয়েছি গ্রামের বাসিন্দাদের।

রূপাপাত ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আজিজার রহমান মোল্লার সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য গত কয়েকদিন ধরে একাধিকবার ফোন দিলেও রিসিভ করেননি।

বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ঝোটন চন্দ্র বলেন, ওই গ্রামের কথা আমি জানি না। খোঁজখবর নেবো। আমি গ্রামটি দেখতে যাবো।

তথ্য অনুযায়ী, সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার ‘শ্রীমুখ’ গ্রামটি এশিয়ার সবচেয়ে ছোট গ্রাম। সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চি ইউপিতে অবস্থিত শ্রীমুখ গ্রামটি। সরকারি গেজেটভুক্ত এই গ্রামটিতে স্বাধীনতার আগে থেকেই বসবাস করে আসছে একটি মাত্র পরিবার। সে হিসেবে দ্বিতীয় ছোট গ্রাম বিষ্ণুপুর।

 

/এএম/

সম্পর্কিত

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২২:৩২

কুমিল্লায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৭০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এটি একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড। এ নিয়ে জেলায় করোনা শনাক্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৩ হাজার ৮৩০ জন।

একই সময়ে জেলায় ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ৬৬২ জন। রবিবার (২৫ জুলাই) মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে আট জন নারী এবং সাত জন পুরুষ। জেলা সিভিল সার্জন ডা. মীর মোবারক হোসেন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা যায়, গত ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ৭০১ জন নমুনা পরীক্ষা করিয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭০১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ সময় সুস্থ হয়েছেন ২২৭ জন। পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ৪১ দশমিক দুই শতাংশ।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে সিটি করপোরেশনের ২২৮, আদর্শ সদরের সাত, সদর দক্ষিণের সাত, বুড়িচংয়ের ৫২, ব্রাহ্মণপাড়ার ৩৩, চান্দিনার ২৮, চৌদ্দগ্রামের ৪৭, দেবিদ্বারের ১২, দাউদকান্দির পাঁচ, লাকসামের ৪৬, লালমাইয়ের ২৩, নাঙ্গলকোটের ৩৩, বরুড়ার ৬১, মনোহরগঞ্জের ৩৭, মুরাদনগরের ৪৪, মেঘনার নয়, তিতাসের চার এবং হোমনার ২৫ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা যাওয়া ১৫ জনের মধ্যে সিটি করপোরেশন এলাকার পাঁচ, নাঙ্গলকোটের দুই, মনোহরগঞ্জের দুই, বরুড়া, মুরাদনগর, লালমাই, বুড়িচং, তিতাস ও চান্দিনার একজন করে।

সিভিল সার্জন বলেন, এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ২৩ হাজার ৮৩০ জন। সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে।

/এএম/

সম্পর্কিত

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

চাঁদপুরে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট

চাঁদপুরে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট

বিয়ের ৬ দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির সামনে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ

বিয়ের ৬ দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির সামনে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২২:২৩

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের তারাবো বাশপট্টি এলাকায় অভিযান চালিয়ে ডেমরা নৌ পুলিশের ওপর হামলার ঘটনার প্রধান আসামি আকবর বাদশাহকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১। রবিবার বিকালে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। র‌্যাব-১১-এর উপপরিচালক লে. কমান্ডার মাহমুদুল হাসান এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানান।

গ্রেফতার আকবর বাদশাহ রূপগঞ্জের তারাপট্টি এলাকার আবদুল বারেকের ছেলে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে র‌্যাব জানায়, চলতি বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারি ডেমরা নৌ পুলিশ শীতলক্ষ্যা নদীতে টহল দেওয়ার সময় আকবরসহ কতিপয় অজ্ঞাত দুষ্কৃতকারী সংঘবদ্ধ হয়ে নৌ পুলিশের টহল দলের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। পরে ডেমরা নৌ পুলিশ ফাঁড়ি কর্তৃক আহত পুলিশ সদস্যদের উদ্ধার করে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজারবাগ পুলিশ হাসপাতালে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় ডেমরা নৌ পুলিশ সরকারি কাজে বাধা দিয়ে খুন করার উদ্দেশ্যে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার অপরাধে রূপগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করে। গ্রেফতার আকবর বাদশাহ ওই মামলার এজাহারভুক্ত প্রধান ও এক নম্বর আসামি।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

উগ্রবাদী বইসহ জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

উগ্রবাদী বইসহ জেএমবি সদস্য গ্রেফতার

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২১:৫৬

সাতক্ষীরায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গে আরও নয় জনের মৃত্যু হয়েছে। সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ (সামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে আট জন করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন। অন্যজন করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। এ নিয়ে জেলায় ২৪ জুলাই পর্যন্ত করোনা ও উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৫১০ জন। এর মধ্যে করোনায় মারা গেছেন ৮৩ জন। হিসাবে করোনার চেয়ে উপসর্গ নিয়ে জেলায় মৃত্যু ছয় গুণ বেশি।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্র জানায়, জ্বর, সর্দি, কাশি ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার নানা উপসর্গ নিয়ে  সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি হন এসব ব্যক্তি। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাদের মৃত্যু হয়। 

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় সামেক হাসপাতালের পিসিআর ল্যাব ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ২৯২ নমুনা পরীক্ষায় ৬১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৮৯ শতাংশ। 

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের মেডিক্যাল কর্মকর্তা ও জেলা করোনা বিষয়ক তথ্য কর্মকর্তা ডা. জয়ন্ত কুমার সরকার বলেন, এ পর্যন্ত সাতক্ষীরায় করোনা রোগীর সংখ্যা পাঁচ হাজার ২২৯ জন। জেলায় সুস্থ হয়েছেন চার হাজার ৩২ জন। 

বর্তমানে করোনা রোগী রয়েছেন এক হাজার ১২৩ জন। হাসপাতালে ভর্তি করোনা রোগীর সংখ্যা ২৬ জন। এদের মধ্যে সামেক হাসপাতালে ১৯ জন ও বেসরকারি হাসপাতালে সাত জন ভর্তি আছেন। হোম আইসোলেশনে আছেন এক হাজার ৯৭ জন। উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি আছেন ২৩০ জন। এর মধ্যে সরকারি হাসপাতালে ভর্তি ১৮১ জন এবং বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ৪৯ জন। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ২৩৯ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৬ জন। করোনায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৮৩ জন। উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন ৫১০ জন।

/এএম/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

চট্টগ্রামে করোনায় মৃত অধিকাংশের বয়স ষাটোর্ধ্ব

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

ফুটবল খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

ফুটবল খেলা নিয়ে দ্বন্দ্বে যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

মসজিদের নামকরণ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১২

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২১:৩৯

মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলায় ‘সুজানগর জামে মসজিদ’ নামকরণ নিয়ে বিরোধের জেরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নারীসহ ১২ জন আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় রবিবার (২৫ জুলাই) থানায় মামলা করেছে দুই পক্ষ। এর আগে শনিবার (২৪ জুলাই) আসরের নামাজের পর উপজেলার সুজানগর ইউনিয়নের সুজানগর গ্রামে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। 

আহতরা হলেন আজাদ হোসেন, আবিদ আহমদ, সাজ্জাদ হোসেন, এমাদ হোসেন, মওরুন বেগম, শিপা বেগম, বকুল বক্স, সুকরাম বিন আলা বক্স, জাবের আহমদ, মহসিন আলী, আজিজুর রহমান ও আলিম উদ্দিন। তাদের সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সুজানগর গ্রামের মসজিদের নামকরণ নিয়ে এলাকার সাজ্জাদ হোসেন ও আনছারুল হক পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলছিল। একপক্ষ চাইছে গ্রামের মসজিদের নাম হবে ‘সুজানগর জামে মসজিদ’ অন্য পক্ষ চাইছে ‘বক্সবাড়ি জামে মসজিদ’ নাম হবে। নামকরণের বিষয়টি নিয়ে গত বছরের আগস্ট মাসে একটি সালিশ বৈঠক হয়। 

সালিশ বৈঠকে মসজিদের জমির দলিল দেখে ‘সুজানগর জামে মসজিদ’ নাম রাখার সিদ্ধান্ত দেন এবং উভয় পক্ষকে বিরোধে না জড়াতে বলেন সালিশদাররা। এরপরও শনিবার আসরের নামাজের পর দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে নারীসহ উভয় পক্ষের ১২ জন আহত হন।

এ ঘটনায় সাজ্জাদ হোসেন পক্ষের মোক্তাদির আলী বাদী হয়ে অন্য পক্ষের ফয়সাল বক্সকে প্রধান আসামি করে ২৩ জনের নামে মামলা করেন। অন্যদিকে আনছারুল হক পক্ষের আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে সাজ্জাদকে প্রধান আসামি করে ১৫ জনের নামে মামলা করেন।

বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার বলেন, মসজিদের নামকরণ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন বিরোধ চলছিল। এ নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কয়েকজন আহত হন। এ ঘটনায় থানায় দুটি মামলা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

/এএম/

সম্পর্কিত

ফুটবল মাঠে গরু চরানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০

ফুটবল মাঠে গরু চরানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত ২০

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

নুডলস কিনতে গিয়ে নিখোঁজের ৫ দিন পর মিললো শিশুর লাশ

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

খেলায় লাল কার্ড দেখানো নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

চাঁদপুরে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট

আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২১, ২১:২১

করোনা ডেডিকেটেড চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট দেখা দিয়েছে। করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কয়েকগুণ বাড়ায় এ অবস্থা দেখা দিয়েছে। ঈদের আগের দিন থেকেই এ সমস্যা হচ্ছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এদিকে, শনিবার প্রায় আট ঘণ্টার ব্যবধানে এ হাসপাতালে আইসোলেশনে থাকা পাঁচ রোগী মারা গেছেন।

জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিব উল করিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অক্সিজেন সংকট তেমন বেশি না, মাঝে মাঝে সমস্যা হয়। রোগী বেড়ে যাওয়ার কারণে এ সমস্যা হচ্ছে। শনিবার এ হাসপাতালে ১৪৮ জন আইসোলেশনে ছিলেন। ঈদের আগের দিন থেকে অনেকটা জোয়ারের মতো রোগী বাড়ছে।’

অক্সিজেন সরবরাহ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘গত ১৫ জুলাই থেকে আবুল খায়ের গ্রুপ অক্সিজেন দিচ্ছে। এছাড়া কুমিল্লা থেকে প্রতিদিনই অক্সিজেন সিলিন্ডার রিফিল করে আনা হচ্ছে। এরপরও সমস্যা হয়ে যাচ্ছে। অক্সিজেন সংকট কিছু সময়ের জন্য হলেও তা খুব বেশি না। হাসপাতালে বর্তমানে ২৪০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার ব্যবহার করা হচ্ছে। যার মধ্যে ১৮০টি বড় এবং ৬০টি ছোট সিলিন্ডার।’

তিনি আরও জানান, স্পেকট্রার মাধ্যমে নির্মিত সদর হাসপাতালের অক্সিজেন প্লান্ট পুরোপুরি প্রস্তুত। তবে লিকুইড অক্সিজেন আসতে দেরি হওয়ার কারণে তা চালু করা যাচ্ছে না। সারাদেশের ৩০টি লিকুইড অক্সিজেন প্লান্ট এখনও চালু করা যায়নি। অক্সিজেন পেলে এগুলো চালু হবে।

সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, ‘রোগী যে হারে বাড়ছে, তাতে এখন অক্সিজেন সংকট দেখা দিয়েছে। উপজেলা হাসপাতালে করোনা বেড থাকার পরেও সেসব এলাকার রোগীরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালমুখী হচ্ছেন। সদর হাসপাতালে মাঝে মাঝে অক্সিজেন কমে যায়। অনেক সময় সিলিন্ডার খালি হয়ে যায়। রাতে কিছুটা সংকট মাঝে মাঝে দেখা দেয়। আবার রিফিল করলে ঠিক হয়ে যায়। একটা সিলিন্ডার তিন থেকে চার ঘণ্টার মধ্যেই শেষ হয়ে যায়। নবনির্মিত লিকুইড অক্সিজেন প্লান্ট চালু হয়ে গেলে এ সমস্যা কেটে যাবে। আগামী রবিবারের মধ্যেই এটি চালু হয়ে যাবে বলে নির্মাতারা জানিয়েছেন।’

তিনি জানান, চাঁদপুরে করোনা পরিস্থিতি দিন দিনই অবনতি হচ্ছে। গড়ে এখন ৩শ’র উপরে নমুনা নেওয়া হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় পাঁচ জন হাসপাতালে মারা গেছেন। এ যাবৎ জেলায় সাত হাজার ৯শ’ ৫৭ জন আক্রান্ত। গত কয়েকদিনে আক্রান্তের হার ৪৫ থেকে ৫৫ শতাংশ। জেলার ভেতরে মারা যাওয়ার সংখ্যা এ পর্যন্ত ১৫৪ জন। তাছাড়া চাঁদপুরে বাড়ি কিন্তু ঢাকা বা অন্য কোথায়ও মারা গেছেন আরও ১৯৩ জন। সেই হিসাবে জেলার ৩৪৭ জন অধিবাসী করোনায় মারা গেছেন।

/এমএএ/

সম্পর্কিত

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

বিয়ের ৬ দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির সামনে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ

বিয়ের ৬ দিনের মাথায় শ্বশুরবাড়ির সামনে জামাইয়ের গলাকাটা লাশ

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

স্ত্রীর প্রতি সন্দেহে শিশুসন্তানকে হত্যা

‘চাঁদপুরে রিকশাও চলবে না, প্রয়োজনে কারাগারে’

‘চাঁদপুরে রিকশাও চলবে না, প্রয়োজনে কারাগারে’

সর্বশেষ

১ কোটি ১৮ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

১ কোটি ১৮ লাখের বেশি ভ্যাকসিন দেওয়া শেষ

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে দুই রাজনৈতিক কর্মী নিহত

পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মিরে দুই রাজনৈতিক কর্মী নিহত

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

কুমিল্লায় একদিনে রেকর্ড ৭০১ শনাক্ত, মৃত্যু ১৫

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

কোভিড মোকাবিলায় সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

কোভিড মোকাবিলায় সামাজিক আন্দোলন গড়তে হবে: জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাহস করে মারতে হয়: শামীম

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সাহস করে মারতে হয়: শামীম

সম্প্রচারের আগে কাদা মেখে বিতর্কে জার্মান সাংবাদিক

সম্প্রচারের আগে কাদা মেখে বিতর্কে জার্মান সাংবাদিক

দুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

কপ-২৬ মন্ত্রিপর্যায়ের বৈঠকে পরিবেশমন্ত্রীদুর্বল দেশগুলোকে আর্থিক সহায়তা দেওয়া আবশ্যক

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

সাতক্ষীরায় করোনার চেয়ে উপসর্গে মৃত্যু ছয় গুণ

‌‘ইত্যাদি’ এবার মেট্রোরেলের ডিপোতে!

‌‘ইত্যাদি’ এবার মেট্রোরেলের ডিপোতে!

সরকারের ভুলেই করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: মির্জা ফখরুল

সরকারের ভুলেই করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ: মির্জা ফখরুল

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও  ব্রুনাইয়ের সুলতানের জন্য আম পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট ও  ব্রুনাইয়ের সুলতানের জন্য আম পাঠালেন প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

নৌ পুলিশের ওপর হামলা: প্রধান আসামি গ্রেফতার

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কিশোরীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

১৫ লাখেও ‘শাকিব খান’ ‘ডিপজল’কে বিক্রি করেননি জিসান

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়ক ফাঁকা

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

ঘাটে ঢাকামুখী যাত্রীর চাপ

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

টেস্ট করাতে হাসপাতালে রোগীর চাপ 

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

খুলনা বিভাগে বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককেই বিয়ে করলেন সহকারী শিক্ষিকা

অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককেই বিয়ে করলেন সহকারী শিক্ষিকা

© 2021 Bangla Tribune