X
বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১, ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮

সেকশনস

ঘু‌রে দাঁড়ানোর চেষ্টায় ব্রিটে‌নের বাংলা‌দেশিরা

আপডেট : ২২ জুন ২০২১, ০৫:৫০
image

যুক্তরাজ্যে বাংলা‌দেশি, ব্রিটিশ-বাংলা‌দেশি মি‌লি‌য়ে আট লক্ষা‌ধিক মানুষের ক‌মিউ‌নিটি‌তে অনুষ্ঠান, সভা সমা‌বেশ আবার শুরু হ‌য়ে‌ছে। ক‌রোনা মহামারির গৃহবাস পে‌রি‌য়ে মানুষ আবারও বাই‌রে বের হতে শুরু ক‌রে‌ছেন। সামা‌জিক, অর্থনৈ‌তিক সকল ক্ষেত্রে ব্রিটে‌নে শুরু হ‌য়ে‌ছে বাংলা‌দেশি‌দের ঘু‌রে দাঁড়াবার সংগ্রাম।

ব্রিটেনে এখ‌নও ক‌রোনার লকডাউন চল‌ছে। লকডাউনের শর্ত শি‌থি‌লের তারিখ বার বার পি‌ছি‌য়ে দি‌চ্ছে দেশটির সরকার। বিশেষজ্ঞরা বল‌ছেন, ক‌রোনার আর্লি থার্ড ও‌য়েভ আস‌তে পা‌রে। দ্রুত গতিতে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের পরিমাণ। প্রতি ১১ দিনেই দ্বিগুণ হয়ে যাচ্ছে ব্রিটেনে আক্রান্তের পরিমাণ। আর এই ঊর্ধ্বমূখী প্রবণতার মধ্যে ভয়াবহ হ‌য়ে উ‌ঠে‌ছে ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়া ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট।

লকডাউন শিথিলের তারিখ পেছানো হলেও সাম‌নের মাস থে‌কে ব্রিটেন সরকার আয় বা বেত‌নের বিকল্প ফা‌র্লো স্কী‌মের বরাদ্দ কমানোর ঘোষণা দি‌য়ে‌ছে। ফলে আশঙ্কায় ভুগছেন দেশটিতে বসবাসরত বাংলাদেশি কমিউনিটির মানুষ।

ব্রিটে‌নের নিউহাম কাউন্সি‌লের সদস্য মু‌জিবুর রহমান জসিম বাংলা ট্রিবিউন‌কে ব‌লেন, রেস্টু‌রেন্ট, ট্যাক্সি-এ দু‌টি খাতেই এখ‌নও বাংলা‌দেশিদের কর্মসংস্থান সব‌চে‌য়ে বে‌শি। ক‌রোনার গৃহব‌ন্দি‌ত্বের পর এ দু‌টি খা‌তে আগের অবস্থান ফি‌রে পাওয়াই হ‌বে মূল চেষ্টা।

মহামারির সময়ে ব্রিটিশ সরকারের চালু করা ফা‌র্লো প্রকল্পের বরাদ্দ জুলাই থে‌কে ৭০ শতাং‌শে নে‌মে আস‌বে। মানু‌ষের তাই কা‌জে ফেরা বা নতুন কা‌জের খোঁজ করার বিকল্প নেই।

লন্ড‌নে দীর্ঘদিন ধ‌রে আইনজী‌বী হি‌সে‌বে কাজ কর‌ছেন স‌লি‌সিটর, কলা‌মিস্ট বিপ্লব কুমার পোদ্দার। ‌তি‌নি বাংলা ট্রিবিউন‌কে জানান, ক‌রোনায় ঠিক কত লাখ মানুষ ব্রিটে‌নে চাকুরি হারা‌বেন, সেটা বোঝা যা‌বে সরকারের প্রণোদনায় বেত‌নের চলমান ফা‌র্লো স্কীম বন্ধ হবার প‌রে।

উল্লেখ্য, ব্রিটেনে ক‌রোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে সব‌চে‌য়ে বে‌শি মৃত্যুহার ও ক্ষ‌তিগ্রস্থ হয়েছে বাংলা‌দেশি ক‌মিউ‌নিটি‌। ক‌রোনার দুই দফা সংক্রমণে ক্ষ‌তিগ্রস্থ এথনিক ক‌মিউ‌নিটি‌র তা‌লিকায় শী‌র্ষে ছিল বাংলা‌দেশি ও পা‌কিস্তানিরা। 

ভ‌বিষ্যতে বাংলা‌দেশি কমিউনিটিতে কীভা‌বে সংক্রমণ ও মৃত্যুহার কমা‌নো যায় সেই বিষয়ে কিছু পরামর্শ ও প্রস্তাবনাও দি‌য়ে‌ছে ব্রিটিশ সরকার। ক‌মিশন অন রেস এন্ড এথ‌নিক ডিসপা‌র্টিজের রিপোর্টে বলা হ‌য়েছে, বাংলা‌দেশি ক‌মিউ‌নিটি‌তে মৃত্যুহার ও ক্ষয়ক্ষ‌তি বে‌শি হবার নেপ‌থ্যে ছিল সংক্রমণ ঝুঁকি। এথনিক মাই‌নো‌রি‌টি ক‌মিউ‌নিটি‌র একা‌ধিক অসু্বিধাজনক প‌রি‌স্থি‌তি সংক্রমণ ও মৃত্যু হার বাড়ি‌য়ে‌ছে।

মূলত, স্বাস্থ্যগত কার‌ণে বাংলাদেশিরা তুলনামূলকভা‌বে দুর্বল। বাংলা‌দেশিরা মূলত খুচরা বিক্রয় খাত, প‌রিবহন বি‌শেষত ট্যাক্সি ও হস‌পিটালি‌টি খা‌তে কাজ ক‌রেন। অসুস্থতাকালীন স‌বেতন ছুটি কম পাওয়ার কার‌ণে ঝুঁকি নি‌য়ে কাজ করাও এ ক‌মিউ‌নিটি‌তে ক‌রোনা সংক্রমণ ভয়াবহ হবার বড় কারণ।

এছাড়া বাংলা‌দেশিরা মূলত যৌথ প‌রিবা‌রে বসবাস ক‌রেন। একই ছা‌দের নি‌চে প‌রিবা‌রের তরুণ ও বৃদ্ধরা বসবাস করায় প‌রিবা‌রের তরুণদের স্কুল, ক‌লেজ এবং কর্মস্থল থে‌কে ক‌রোনা সংক্রম‌ণের ঝুঁকি বা‌ড়ে যা প‌রিবা‌রের বয়স্ক‌দের ক‌রোনা আক্রা‌ন্তের বড় কারণ। এসব কার‌ণ স‌ন্মি‌লিতভা‌বে ক‌রোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বাংলা‌দেশি ক‌মিউনিটির জন্য‌ ভয়াল প‌রি‌স্থি‌তির সৃ‌ষ্টি ক‌রে।

সরব ক‌মিউনিটি

সাংবা‌দিক রো‌জিনা ইসলা‌মের কারামু‌ক্তির দাবিতে গত ১৮ই মে পূর্ব লন্ড‌নের আলতাব আলী পা‌র্কে মানববন্ধন ও কর্মবির‌তি পালন ক‌রে ইউ‌কে-বাংলা প্রেসক্লাব। দিনভর বৃ‌ষ্টি উ‌পেক্ষা ক‌রে এ কর্মসূচী‌তে ক‌মিউনিটির বিপুলসংখ্যক মানুষ জমা‌য়েত হন। ক‌রোনা মহামা‌রির পর এটিই ছিল ক‌মিউ‌নিটি‌র প্রথম বড় কোন জমা‌য়েত।

এছাড়া অতি সম্প্রতি যুক্তরাজ্য বিএন‌পির প্রধান উপ‌দেষ্টা ও সা‌বেক সভাপ‌তি শা‌য়েস্তা চৌধুরী কুদ্দুস দলের নেতাকর্মী‌দের নি‌য়ে পুনর্মিলনী সভার আ‌য়োজন করেন। অন্য‌দি‌কে সি‌লেট-৩ আস‌নের উপ‌নির্বাচ‌নে যুক্তরাজ্য প্রবাসী হা‌বিবুর রহমান হা‌বিব ম‌নোনয়ন পাওয়ায় যুক্তরাজ্য‌ আওয়ামী লী‌গের নেতাকর্মীরা আনন্দ সভার মাধ্যমে দীর্ঘদিন পর জমা‌য়েত ক‌রেন।

/জেজে/

সম্পর্কিত

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ১২:০০

নিজের মতো রাস্তা পার হচ্ছিল হাতির পাল। তাতেও সমস্যা একদল মানুষের। বিনা কারণেই চলছিল ইঁট-পাটকেল ছোঁড়া, ভয় দেখানোর চেষ্টা। আর তাতে যা পরিণতি হওয়ার, তাই হলো। সোজা এগিয়ে গিয়ে এক যুবককে পিষে দিলো ভীত হাতি।

এ ঘটনা ভারতের আসামের নুমালিঘুরের। জঙ্গলের মাঝ বরাবর চলে যাওয়া রাস্তা পার হচ্ছিল হাতির পাল। রয়েছে বহু হস্তী শাবকও। নিজেদের মতোই রাস্তা পার হচ্ছিল তারা। কিন্তু তাতেও সমস্যা জনতার একাংশের। জনা পঞ্চাশেক স্থানীয় মিলে তাদের ভয় দেখাতে শুরু করলেন। ঢিল ছোঁড়া হচ্ছিল হাতির পাল লক্ষ্য করে। কেউ কেউ অতি উত্তেজনায় সামনে পর্যন্ত চলে যাচ্ছিল। আরও জোরে গাড়ির হর্ন বাজানোর জন্যও উৎসাহিত করতে দেখা যায় কাউকে।

এতো কিছুর পরও কোনও প্রতিক্রিয়া দেখায়নি হাতির পাল। দ্রুত রাস্তা পার হয়ে যায় তারা। কিন্তু এক পর্যায়ে পালের শেষে থাকা একটি হাতি ধৈর্য হারিয়ে ফেলে। তেড়ে যায় জড়ো হওয়া জনতার দিকে।

এ সময় পালাতে গিয়ে উল্টে পড়ে এক যুবক। সোজা গিয়ে তাকে পিষে দেয় হাতিটি। তারপর ফিরে যায় জঙ্গলের দিকে।

ভারতের বিভিন্ন স্থানে চা-বাগান, চাষের জন্য জঙ্গল কাটার ঘটনা ঘটে। ফলে কখনও কখনও ভুল করে বা খাদ্যের সন্ধানে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে হাতির দল। এক্ষেত্রে তেমনটাও ঘটেনি। জঙ্গলের মাঝের রাস্তাটুকু পার হতে গিয়েই মানুষের হামলার মুখোমুখি হতে হয় হাতির পালকে।

সাধারণত দলে ছোট হাতি থাকলে আরও সাবধান থাকে বড়রা। শাবকদের যাতে ক্ষতি না হয়, সেজন্য আরও ক্ষিপ্র থাকে বড় হাতি। ফলে এক্ষেত্রেও যেটা হচ্ছিল সেটা ছিল সত্যিই অমানবিক ও বিপদজনক।

অনেকেই এই ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন। বন দফতরই বা কেন স্থানীয়দের সচেতনতা বৃদ্ধির জন্য কিছু করে না, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে। সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

 

/এমপি/

সম্পর্কিত

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০৭:৪৫

বিজেপি-কে রুখতে হলে ভারতের বিরোধী দলগুলোকে একজোট হতে হবে বলে বার্তা দিয়েছিলেন একুশের মঞ্চেই। দিল্লিতে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে বৈঠক সেরেও একই বার্তা দিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার মতে, ২০২৪ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি-কে হারাতে হলে সব বিরোধী দলগুলোকে একজোট হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। সোনিয়ার সঙ্গে জোট নিয়ে ‘সদর্থক’ আলোচনা হয়েছে বলে জানালেও বিরোধী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন মমতা।

বুধবার কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী এবং তার পুত্র দলের আরেক নেতা রাহুল গান্ধীর সঙ্গে সাক্ষাৎ সেরে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন মমতা। বিজেপি বিরোধী জোটে তিনিই নেতৃত্ব দেবেন কিনা, তার কাছে জানতে চান সাংবাদিকরা। জবাবে মমতা বলেন, ‘বিজেপি-কে হারাতে হলে সবাইকে একজোট হয়ে লড়তে হবে। একা আমি কিছু করতে পারবো না। আমি লিডার নই, ক্যাডার। আমি স্ট্রিট ফাইটার।’

বুধবার ১০ নম্বর জনপথে সোনিয়ার সঙ্গে রাহুলও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বলে জানান মমতা। তিনি বলেন, ‘আমাকে চায়ের আমন্ত্রণ পাঠিয়েছিলেন সোনিয়া গান্ধী। রাহুল গান্ধীও ছিলেন। বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি এবং বিরোধী শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ করা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। কথা হয়েছে পেগাসাস এবং কোভিড নিয়েও। ভবিষ্যতে ইতিবাচক ফল বেরিয়ে আসবে বলে আমি আশাবাদী।’

এদিকে ইসরায়েলি স্পাইওয়্যার পেগাসাস ব্যবহার করে বিরোধীদের ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে বুধবারও উত্তাল ছিল ভারতীয় পার্লামেন্টের বাদল অধিবেশন। সেখানে তৃণমূলের এমপি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেও সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে শামিল হতে দেখা গিয়েছে। বিজেপি-র অভিযোগ, ইচ্ছাকৃতভাবে পার্লামেন্ট অধিবেশন বানচাল করে দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু মমতার প্রশ্ন, ‘সরকার পেগাসাস নিয়ে জবাব দিচ্ছে না কেন? মানুষ তো জানতে চাইছে। পার্লামেন্টে আলোচনা হবে না! তো কোথায় হবে? চায়ের দোকানে? এটা কি চায়ের দোকানে আলোচনার বিষয়? পার্লামেন্টে জবাব দিতে হবে সরকারকে।’ সূত্র: আনন্দবাজার।

/এমপি/

সম্পর্কিত

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

করোনায় মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০৬:৩৬

দুনিয়াজুড়ে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা ৪২ লাখ ছাড়িয়েছে। বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার ভোরে আন্তর্জাতিক জরিপ সংস্থা ওয়ার্ল্ডোমিটারস এ তথ্য জানিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারিতে এ পর্যন্ত বিশ্বের ২১৯টি দেশ ও অঞ্চল আক্রান্ত হয়েছে। এ পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে মোট শনাক্তের সংখ্যা ১৯ কোটি ৬৬ লাখ ২০ হাজার ৪০২। এর মধ্যে ৪২ লাখ দুই হাজার ৫৩৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছে ১৭ কোটি ৮০ লাখ ৭১ হাজার ৭৫২ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহান থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। এক পর্যায়ে উৎপত্তিস্থল চীনে ভাইরাসটির প্রাদুর্ভাব কমলেও বিশ্বের অন্যান্য দেশে এর প্রকোপ বাড়তে শুরু করে। চীনের বাইরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ ১৩ গুণ বৃদ্ধি পাওয়ার প্রেক্ষাপটে গত ১১ মার্চ দুনিয়াজুড়ে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। তবে আশার কথা হচ্ছে, এখন আক্রান্তের পর সুস্থ হওয়ার হার দ্রুত বাড়ছে। এরইমধ্যে করোনার একাধিক টিকাও আবিষ্কৃত হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটারস-এর তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন কোটি ৫৪ লাখ ৬৯ হাজার ২৪৬। মৃত্যু হয়েছে ছয় লাখ ২৮ হাজার ৫৮ জনের।

আক্রান্তের হিসাবে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন কোটি ১৫ লাখ ২৬ হাজার ৬২২। এর মধ্যে চার লাখ ২২ হাজার ৬৯৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। ব্রাজিলে শনাক্তের সংখ্যা এক কোটি ৯৭ লাখ ৯৭ হাজার ৫১৬। এর মধ্যে পাঁচ লাখ ৫৩ হাজার ২৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বাংলাদেশে শনাক্তের সংখ্যা ১২ লাখ ১০ হাজার ৯৮২। এর মধ্যে ২০ হাজার ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। উৎপত্তিস্থল চীনে আক্রান্তের সংখ্যা ৯২ হাজার ৭৬২। এর মধ্যে চার হাজার ৬৩৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। যদিও দেশটির বিরুদ্ধে প্রকৃত পরিস্থিতি গোপন করার অভিযোগ রয়েছে। উহানের একজন স্বেচ্ছাসেবী বলেন, ‘বুদ্ধি-বিবেচনাসম্পন্ন যেকোনও মানুষ এই সংখ্যা (সরকারি পরিসংখ্যান) নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করবেন।’

মহামারির শুরু থেকেই যুক্তরাষ্ট্র দাবি করে আসছিল, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পেছনে চীনের ভূমিকা রয়েছে। ট্রাম্প প্রশাসনের সেই দাবিকে আরও জোরালো করে চীনের উহানের ল্যাবের এক ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ানের বক্তব্য। লি মেং ইয়ান বলেন, চীনের ল্যাবেই তৈরি করা হয়েছে করোনাভাইরাস। এটি মানুষের তৈরি বলে তার কাছে শতভাগ প্রমাণ রয়েছে।

হংকংয়ে জন্ম নেওয়া ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তার দাবি, চীন হত্যা করতে চেয়েছিল বলে ভয়ে মার্কিন মুলুকে পালিয়ে যান তিনি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

করোনা কবলিত মালয়েশিয়ায় বিধিনিষেধ শিথিলে ক্ষোভ

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

টিকা নিলেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা, মাস্ক পরার পরামর্শ সিডিসি’র

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

তিনবার করোনায় আক্রান্ত ভারতীয় চিকিৎসক, ২ বার টিকা নেওয়ার পর

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০৫:২৪

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে তালেবান। বুধবার চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই-র সঙ্গে বৈঠকে এ বিষয়ে দেশটিকে আশ্বস্ত করেন চীন সফররত তালেবান প্রতিনিধি দলের সদস্যরা। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক সংবাদমাধ্যম রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়, তালেবানের পক্ষ থেকে আফগানিস্তানের মাটি কোনওভাবেই চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে না দেওয়ার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। জবাবে আফগানিস্তানের প্রতি সহযোগিতা অব্যাহত রাখা এবং দেশটির অভ্যন্তরীণ বিষয়ে কোনও ধরনের হস্তক্ষেপ না করার ঘোষণা দিয়েছে বেইজিং। একইসঙ্গে আফগানিস্তানে শান্তি ও স্থিতিশীলতা ফেরাতে সহায়তার অঙ্গীকারও পুনর্ব্যক্ত করেছে তারা।

আফগান যুদ্ধের অবসান এবং দেশটির পুনর্গঠনে তালেবান তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলেও আশাবাদ জানিয়েছে চীন। চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে দেশটির উইঘুর মুসলিম অধ্যুষিত জিনজিয়াং অঞ্চলের ইস্ট তুর্কমেনিস্তান ইসলামিক মুভমেন্টকে দমনে তালেবানের সহায়তা কামনা করা হয়েছে। বলা হয়েছে, বেইজিংয়ের প্রত্যাশা চীনের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য প্রত্যক্ষ হুমকি এই দলটিকে আশ্রয় দেওয়ার বদলে তালেবান তাদের দমন করবে।

এদিকে তালেবান যদি জোর করে ক্ষমতা দখল করতে চায় তাহলে তারা কখনোই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাবে না বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। বুধবার দিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে সঙ্গে নিয়ে এক যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেন তিনি। 

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এটা ঠিক যে গত সপ্তাহে আমরা বেশ কয়েকটি জেলা সদরে তালেবানের অগ্রযাত্রা দেখেছি। প্রাদেশিক কয়েকটি রাজধানীও তারা কব্জা করতে চাইছে। যেসব এলাকা তারা দখল করেছে সেখানে নির্যাতন চালানোরও খবর আসছে। এগুলো সত্যিই বিচলিত করার মতো। পাশাপাশি আমি এটাও বলবো, তালেবান কিন্তু বহুদিন ধরেই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চাইছে। চাইছে তাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হোক এবং তাদের নেতারা যাতে দুনিয়াজুড়ে অবাধে ঘুরে বেড়াতে পারে। কিন্তু আফগানিস্তানে জোরপূর্বক ক্ষমতা দখল করতে গেলে বা নিজ দেশের মানুষের ওপর নির্যাতন করে সে লক্ষ্য পূরণ হবে না।’

বুধবার দিল্লিতে যখন তালেবান ইস্যুতে কথা বলছিলেন যুক্তরাষ্ট্র ও ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা, সেই একই দিন বেইজিংয়ে দলটির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী। ওই বৈঠকে উভয় পক্ষই পরস্পরকে নানা বিষয়ে আশ্বস্ত করে। সূত্র: রয়টার্স, বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

বলপূর্বক কাবুল দখল করলে তালেবান স্বীকৃতি পাবে না: যুক্তরাষ্ট্র

আপডেট : ২৯ জুলাই ২০২১, ০১:২১

আফগানিস্তানে তালেবান যদি জোর করে ক্ষমতা দখল করতে চায় তাহলে তারা কখনোই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পাবে না। ২৮ জুলাই বুধবার দিল্লিতে এমন মন্তব্য করেছেন ভারত সফররত মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করকে সঙ্গে নিয়ে এক যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে এ নিয়ে কথা বলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। দুই মন্ত্রী জানান, তালেবান ও আফগান সরকারের মধ্যে শান্তি আলোচনার মধ্যে সমাধান খোঁজাই সংকট উত্তরণের একমাত্র পথ বলে দুই দেশ বিশ্বাস করে।

যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও জাপানকে নিয়ে গঠিত যে 'কোয়াড' জোটকে নিয়ে চীন বেশ কিছুদিন ধরে আপত্তি জানিয়ে আসছে সেই প্ল্যাটফর্মেও সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে বলেও উভয় দেশ অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে।

এ বছরের গোড়ার দিকে বাইডেন প্রশাসন ওয়াশিংটনে দায়িত্ব নেওয়ার পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেনের এটিই প্রথম ভারত সফর। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় দিল্লি পৌঁছানোর পর বুধবার সকালে প্রথমেই তিনি ভারতের সুশীল সমাজের কয়েকজন প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠকে মিলিত হন। তারপর একে দেখা করেন দেশের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভাল, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস. জয়শঙ্কর ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে। সবগুলো বৈঠকেই আলোচনার একটা বড় অংশজুড়ে ছিল আঞ্চলিক নিরাপত্তা তথা আফগানিস্তানের বর্তমান পরিস্থিতি।

পরে বিকালে দুই দেশের যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে আফগানিস্তান ইস্যুতে কথা বলেন ব্লিঙ্কেন। তিনি বলেন, ‘এটা ঠিক যে গত সপ্তাহে আমরা বেশ কয়েকটি জেলা সদরে তালেবানের অগ্রযাত্রা দেখেছি। প্রাদেশিক কয়েকটি রাজধানীও তারা কব্জা করতে চাইছে। যেসব এলাকা তারা দখল করেছে সেখানে নির্যাতন চালানোরও খবর আসছে। এগুলো সত্যিই বিচলিত করার মতো। পাশাপাশি আমি এটাও বলবো, তালেবান কিন্তু বহুদিন ধরেই আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি চাইছে। চাইছে তাদের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হোক এবং তাদের নেতারা যাতে দুনিয়াজুড়ে অবাধে ঘুরে বেড়াতে পারে। কিন্তু আফগানিস্তানে জোরপূর্বক ক্ষমতা দখল করতে গেলে বা নিজ দেশের মানুষের ওপর নির্যাতন করে সে লক্ষ্য পূরণ হবে না।’

আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার শুরু হলেও দেশটিতে শক্তিশালী একটি দূতাবাস ও নানা উন্নয়নমূলক ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের জোরালো প্রভাব ও উপস্থিতি থাকবে বলেও দাবি করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তবে তার ভারতীয় কাউন্টারপার্টের কথা থেকে স্পষ্ট, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারে ভারত হতাশ। কিন্তু এখন তারা সেই বাস্তবতা মেনে নিয়েই শান্তিপূর্ণ আলোচনার ওপর জোর দিতে চাইছে।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস. জয়শঙ্কর বলেন, ‌‘গত ২০ বছর ধরে যেখানে একটা শক্তিশালী মার্কিন সামরিক উপস্থিতি ছিল। সেটি তুলে নেওয়া হলে অবশ্যই তার প্রভাব পড়বে, সেটা অবধরিত। কিন্তু এখন এটার ভালো-মন্দ বিচার করার সময় নয়। একটা নীতি গৃহীত হয়েছে এবং আমাদের সেটা মেনে নিয়েই চলতে হবে। সেই অনুযায়ী কূটনীতিও পরিচালিত হবে। আর এখানে আমরাসহ আফগানিস্তানের প্রায় সব প্রতিবেশী বিশ্বাস করে, হিংসার অবসান ঘটিয়ে রাজনৈতিক পথেই দেশটিতে শান্তি ফেরাতে হবে। হ্যাঁ, কোনও দেশ তার ব্যতিক্রমও আছে। কিন্তু সেই বাস্তবতাও তো নতুন কিছু নয়। বরং ২০ বছরের পুরনো।’

ভারত যেমন এখানে সরাসরি পাকিস্তানের নাম নেয়নি, তেমনি কোয়াড নিয়ে প্রশ্নের জবাবেও মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একবারও চীন শব্দটি উচ্চারণ করেননি। কিন্তু এটা পরিষ্কার করে দিয়েছেন, এই জোট নিয়ে চীনের যতই আপত্তি থাকুক তাতে পারস্পরিক সহযোগিতা বন্ধ হবে না।

অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, ‘কোয়াড আসলে খুবই সহজ একটা জিনিস। কিন্তু এটা আসলে যত সহজ, ঠিক ততটাই গুরুত্বপূর্ণ। চারটি সমমনা দেশ ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান ও অস্ট্রেলিয়া একজোট হয়েছে যাতে একটি মুক্ত ও অবাধ ইন্দো-প্যাসিফিক গড়ে তোলা যায়। যাতে এই অঞ্চলের মানুষের নিরাপত্তা ও সমৃদ্ধি নিশ্চিত করা যায়। তবে এটা কিন্তু কোনও সামরিক জোট নয়, বরং এটি আঞ্চলিক চ্যালেঞ্জগুলোর মোকাবিলায় ও আন্তর্জাতিক মূল্যবোধের প্রসারে একটি সহযোগিতার প্ল্যাটফর্ম।’

বুধাবর সকালেই দিল্লিতে তিব্বতি ধর্মগুরু দালাই লামার একজন প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করে চীনকেও একটি কড়া বার্তা দিয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এদিন ভারতের সুশীল সমাজের সঙ্গে ব্লিঙ্কেনের বৈঠকে আমন্ত্রিত ছিলেন দিল্লিতে দালাই লামার সাংস্কৃতিক কেন্দ্র টিবেট হাউসের প্রধান গেশে দোরজি। বৈঠক শেষে টুইটারে দেওয়া এ সংক্রান্ত পোস্টে তার ছবিও যুক্ত করেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। সূত্র: বিবিসি।

/এমপি/

সম্পর্কিত

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

শুধু শুধু বিরক্ত করায় যুবককে পিষে দিলো হাতি (ভিডিও)

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

আমি লিডার নই, ক্যাডার: দিল্লিতে মমতা

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

আফগানিস্তানের মাটি চীনের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না: তালেবান

সর্বশেষ

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

গতবারের চেয়ে এবার কৃষিঋণ ২০০০ কোটি টাকা বেশি বিতরণ করতে চায় ব্যাংক

‘দুই ম্যাচের একটি জিতিয়েছি, তবে আলোচনায় আসার মতো ইনিংস খেলিনি’

‘দুই ম্যাচের একটি জিতিয়েছি, তবে আলোচনায় আসার মতো ইনিংস খেলিনি’

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

আবারও শিল্প-কারখানা খুলে দেওয়ার দাবি গার্মেন্টস মালিকদের

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

লকডাউনেও এক চাঁদের গাড়িতে ৭০ যাত্রী! 

চার দিন পর শিশুকে উদ্ধার, অপহরণকারী গ্রেফতার

চার দিন পর শিশুকে উদ্ধার, অপহরণকারী গ্রেফতার

গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুজন গ্রেফতার

গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, দুজন গ্রেফতার

প্রতিদিন দুই ঘণ্টা করে টানা ১০ বছর সম্প্রচার!

প্রতিদিন দুই ঘণ্টা করে টানা ১০ বছর সম্প্রচার!

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা, তিন ছেলেকে কুপিয়ে জখম

কত প্রকার মাদক আছে দেশে?

মাদক ভয়ংকর-৪কত প্রকার মাদক আছে দেশে?

কিশোরীকে বিভিন্নস্থানে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ 

কিশোরীকে বিভিন্নস্থানে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ 

'বাঘের জীবন রক্ষায় সুন্দরবন রক্ষা জরুরি'

আজ আন্তর্জাতিক বাঘ দিবস'বাঘের জীবন রক্ষায় সুন্দরবন রক্ষা জরুরি'

চুক্তিতে কিলিং মিশনে কাজ করতো তারা

চুক্তিতে কিলিং মিশনে কাজ করতো তারা

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশ হাইকমিশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় পরিবেশমন্ত্রীর

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

ছাতার সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর লড়াই! (ভিডিও)

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

বিধিনিষেধ শিথিলে ভ্যাকসিন প্রতিরোধী স্ট্রেইন-এর আশঙ্কা: গবেষণা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ব্যক্তিগত ও  পারিবা‌রিক জীবন নি‌য়ে আদাল‌তে কাঁদলেন এম‌পি আপসানা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

ভারী বৃষ্টিপাতের পর লন্ডনে আকস্মিক বন্যা

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

যুক্তরাজ্যে করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

দেশে দেশে লকডাউন বিরোধী বিক্ষোভ

ব্রিটে‌নে জা‌লিয়া‌তির দা‌য়ে বাংলা‌দেশি সমকামীর কার‌াদণ্ড

ব্রিটে‌নে জা‌লিয়া‌তির দা‌য়ে বাংলা‌দেশি সমকামীর কার‌াদণ্ড

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

ব্রিটেনে কয়েক লাখ শ্রমিক আইসোলেশনে, খাদ্যে ঘাটতির আশঙ্কা

© 2021 Bangla Tribune