X
রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ৪ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

হেলি র‌্যাপলিং শেষ করেছেন সেনাবাহিনীর নারী সদস্যরা

আপডেট : ০১ জুলাই ২০২১, ১৮:৫৫

প্রথমবারের মতো সফল হেলি র‌্যাপলিং প্রশিক্ষণ শেষ করেছেন সেনাবাহিনীর নারী সদস্যরা। সম্প্রতি রাজেন্দ্রপুরের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস সাপোর্ট অপারশেন ট্রেনিং (বিপসট) এ এই প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতর (আইএসপিআর) জানায়, সম্প্রতি রাজেন্দ্রপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব পিস সাপোর্ট অপারশেন ট্রেনিং (বিপসট) এ সেনাবাহিনীর নারী সদস্যরা র‌্যাপলিংয়ের মাধ্যমে সম্পূর্ণ কম্ব্যাট লোডসহ হেলিকপ্টার থেকে অবতরণ প্রশিক্ষণ সফলতার সঙ্গে শেষ করেছেন। মালিতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে মোতায়েনের পূর্ব-প্রস্তুতি হিসেবে ব্যানব্যাট-৮ এর ফিমেল অ্যাঙ্গেজমেন্ট টিম লিডার ক্যাপ্টেন ইয়াসফিনের নেতৃত্বে চারজন নারী সৈনিকসহ সেনাবাহিনীর পাঁজন নারী সদস্য এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন।

মালিতে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে মোতায়েনের আগে ছয় সপ্তাহের ফিল্ড ট্রেনিং অনুশীলনে ফিমেল অ্যাঙ্গেজমেন্ট টিমের এই নারী সদস্যরা অংশগ্রহণ করেন। এই কঠোর অনুশীলন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর এবং নারী শান্তিরক্ষীদের জন্য এক নতুন দিগন্তের সূচনা করলো যা আগামী দিনগুলোতে জাতিসংঘের মহিলা শান্তিরক্ষীদের জন্য উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হিসেবে উপস্থাপিত হবে।

আইএসপিআর জানিয়েছে, বাংলাদেশ সেনাবাহিনী জাতিসংঘের শান্তিরক্ষা মিশনে অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে নারী সেনাসদস্যদের শান্তিরক্ষী হিসেবে পাঠানোর মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন এবং জেন্ডার মেইন স্ট্রিমিং এ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ২০১৮ সালের জানুয়ারি থেকে পদাতিক ব্যাটালিয়নে ‘ফিমেল অ্যাঙ্গেজমেন্ট টিম’ অন্তর্ভুক্ত করতে শুরু করেছে। যা বর্তমানে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনকে আরও কার্যকর এবং ফলপ্রসূ করতে বিশেষ ভূমিকা রাখছে।

/জেইউ/ইউএস/

সম্পর্কিত

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন সেনাপ্রধান

পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন সেনাপ্রধান

ঢামেকের সামনে থেকে বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার

ঢামেকের সামনে থেকে বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবি

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৪

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণ করাসহ ৫ দফা দাবি জানিয়েছে স্বাধীনতা স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষক পরিষদ। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এসব দাবি জানান পরিষদের মহাসচিব মো. তাজুল ইসলাম ফরাজী। দাবি আদায় না হলে আগামী ৪ অক্টোবর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধন করার ঘোষণা দেওয়া হয়।
তারা বলেন, স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা এমপিওভুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদিত প্রায় ৩১১ কোটি টাকা বরাদ্দ বাস্তবায়নসহ ডাটা এন্ট্রিকৃত ৭৪৫৩টি মাদ্রাসার জন্য প্রয়োজনীয় বরাদ্দ দিয়ে চলতি অর্থ বছরে এমপিওভুক্ত করতে হবে।

তাদের অন্যান্য দাবিগুলো হচ্ছে- চলতি অর্থ বছরে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদিত ৩১১ কোটি টাকা বাস্তবায়নসহ ডাটাবেজভুক্ত ৭ হাজার ৪৫৩টি স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা এমপিওভুক্তির জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দেওয়া; আর্থিক কারণে ঝরে পরা রোধ করতে অতিদরিদ্র পরিবারের শিক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ ভিত্তিসহ প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষার্থীদের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের দুপুরের খাবার এবং পোশাকের জন্য অর্থ বরাদ্দ প্রদান; প্রাইমারি স্কুলের ন্যায় স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য অর্থ বরাদ্দ প্রদান করা এবং মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক পাঠদান অনুমতিপ্রাপ্ত সকল স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসায় কোড নাম্বার প্রদান সহ স্থায়ী রেজিস্ট্রেশন প্রদান করা।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সভাপতি এস এম জয়নুল আবেদীন জেহানী, সাধারণ সম্পাদক ও বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারী কল্যাণ ট্রাস্ট এর সচিব অধ্যক্ষ শাহজাহান আলম সাজু, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ সাইদুর রহমান পান্না, অধ্যক্ষ পরিষদের সভাপতি অধ্যক্ষ মমতাজ উদ্দিন মর্তুজা প্রমুখ।

/জেডএ/এমআর/

সম্পর্কিত

মাদ্রাসায় শিক্ষক সংকট, শূন্য পদের তথ্য চেয়েছে সরকার

মাদ্রাসায় শিক্ষক সংকট, শূন্য পদের তথ্য চেয়েছে সরকার

৫ কোটি টাকার বিশেষ অনুদান পাচ্ছে মাদ্রাসা ও কারিগরির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

৫ কোটি টাকার বিশেষ অনুদান পাচ্ছে মাদ্রাসা ও কারিগরির শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

মাদ্রাসায় বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন না করলে এমপিও নয়

মাদ্রাসায় বঙ্গবন্ধু কর্নার স্থাপন না করলে এমপিও নয়

ভর্তি চলছে কওমি মাদ্রাসায়, অনুমতি পেলে ক্লাস

ভর্তি চলছে কওমি মাদ্রাসায়, অনুমতি পেলে ক্লাস

কোনও মামলা নেই আমার ছাত্রদের জন্য এসেছি, আদালতে ডা. জাফরুল্লাহ

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৮

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় সংগঠনটির ২০ নেতাকর্মীর জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েসের আদালতে জামিন শুনানির সময় উপস্থিত ছিলেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও সাবেক ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর।

এদিন আদালতে এজলাসে বিচারক আসার আগে রাষ্ট্রপক্ষকে উদ্দেশ করে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলতে থাকেন, আপনারা যেভাবেই হোক এই ছাত্রগুলোর জামিন করিয়ে দিয়েন। এরা কোনও দোষ করেনি। তারা শুধু নরেন্দ্র মোদির বিপক্ষে স্লোগান দিয়েছে। সামান্য স্লোগান দেওয়ার কারণে যদি এতোদিন তাদের জেল খাটতে হয়। তাহলে এটা কী করে হয়? আপনারা একটু সমর্থন দিয়েন এই ছাত্রদের। তাদের পরীক্ষা দেওয়ার জন্য হলেও জামিন করিয়ে দিন। তাদের দয়া করে জামিন দিয়ে দেন।

এরপর রাষ্ট্রপক্ষের পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল পাল্টা ডা. জাফরুল্লাহকে জিজ্ঞেস করেন আপনার কোনও মামলা কিংবা কোনও মামলায় হাজিরা আছে কিনা। তার উত্তরে তিনি বলেন, ‘না, আমার কোনও মামলা নেই। আমি এসেছি আমার ছাত্রদের জন্য। তাদের দয়া করে জামিন দেওয়ার জন্য চেষ্টা করবেন। জামিন না দিলে তারা পরীক্ষা দিতে পারবে না।’

আসামিপক্ষের আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদারসহ আরও অনেকে জামিনের আবেদন করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল তার বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ২০ আসামির জামিন মঞ্জুর করেন।

এরপর আদালতের বিচারক এজলাসে আসলে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা জামিনের জন্য শুনানি করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে তার বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ২০ আসামিকে জামিনের আদেশ দেন।

ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী

জামিনপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- মো. ইউনুস, নাজমুল হাসান, নাহিদুল তারেক, মো. নাইম, আসাদুজ্জামান, আজহারুল ইসলাম, সোহেল মৃধা, মোস্তাক আহমেদ, আজিম হোসেন, মো. রুহুল ইসলাম সোহেল, আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জিশান, মো. সোহেল আহমদ, শেখ খায়রুল কবির, সবুজ হোসেন, হোলাম তানভীর, মো. হেমায়েত, ইসমাইল হোসেন, মো. রেজাউল করিম, মুনতাজুল ইসলাম ও কাজী বাহাউদ্দীন মনির।

উল্লেখ্য, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর ঘিরে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের নেতৃত্বে চলতি বছর ২৫ মার্চ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর বিজয়নগর পানির ট্যাংকি এলাকা থেকে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের একটি মিছিল শুরু হয়। এতে পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশের বাধা পেয়ে আন্দোলনকারীরা নুরের নেতৃত্বে মিছিল নিয়ে মতিঝিলের শাপলা চত্বরের দিকে যান। সেখানে পুলিশের সঙ্গে ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ বাঁধে। বিক্ষোভ মিছিল থেকে সৃষ্ট ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ৭ পুলিশ সদস্য আহত হন। শাপলা চত্বরে সেই মিছিল থেকে ৩২ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। ওই ঘটনায় একাধিক থানায় কয়েকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মোদিবিরোধী বিক্ষোভ : ছাত্র ও যুব অধিকারের ২০ নেতাকর্মীর জামিন

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

মোদিবিরোধী বিক্ষোভ : ছাত্র ও যুব অধিকারের ২০ নেতাকর্মীর জামিন

মোদিবিরোধী বিক্ষোভ : ছাত্র ও যুব অধিকারের ২০ নেতাকর্মীর জামিন

র‌্যাংগসের চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা

র‌্যাংগসের চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা

নির্বাচনে কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা জানতে চায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৫৩

আগামী নির্বাচনে কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা সেটি জানতে চায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ডিক্যাব আয়োজিত ডিক্যাব টকে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো বলেন, ‘যে কোনও দেশের নির্বাচনের আগে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা সেটি জানতে চায় এবং আমি নিশ্চিত বাংলাদেশেও এটি হবে।’

তিনি বলেন, ‘আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে রয়েছে জাতিসংঘ, কিছু দেশের রাষ্ট্রদূত এবং এর আগের নির্বাচনে যা হয়েছে তার থেকে ভিন্ন কিছু হবে এটি আমি আশা করি না।’

বাংলাদেশের কিছু ক্ষেত্রে মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে জাতিসংঘ উদ্বিগ্ন। এরমধ্যে রয়েছে নারীদের প্রতি সহিংসতা, বৈষম্য বৃদ্ধি এবং এটি একটি বৈশ্বিক সমস্যা। আমরা আরও উদ্বিগ্ন সুশীল সমাজের কাজের সংকুচিত ক্ষেত্র এবং এটিও একটি বৈশ্বিক সমস্যা বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, আমরা আশা করি সরকার ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন পুনর্বিবেচনা করবে এবং আমরা এটি নিয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা করছি বলে তিনি জানান।

/এসএসজেড/এনএইচ/

সম্পর্কিত

মোদিবিরোধী বিক্ষোভ : ছাত্র ও যুব অধিকারের ২০ নেতাকর্মীর জামিন

মোদিবিরোধী বিক্ষোভ : ছাত্র ও যুব অধিকারের ২০ নেতাকর্মীর জামিন

‘১২-১৭ বছর বয়সীদের টিকার সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি’

‘১২-১৭ বছর বয়সীদের টিকার সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি’

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

নট ফর সেল ক্লাব: মধু পূর্ণিমায় উন্মুক্ত হচ্ছে ‘বুদ্ধ’

নট ফর সেল ক্লাব: মধু পূর্ণিমায় উন্মুক্ত হচ্ছে ‘বুদ্ধ’

মোদিবিরোধী বিক্ষোভ : ছাত্র ও যুব অধিকারের ২০ নেতাকর্মীর জামিন

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:৩৯

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধিতা করে বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের ২০ নেতা কর্মীর জামিন দিয়েছেন আদালত।

রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েসের আদালতে আসামিপক্ষের আইনজীবী মাসুদ আহমেদ তালুকদারসহ আরও অনেকে জামিনের আবেদন করেন। অপরদিকে রাষ্ট্রপক্ষ থেকে আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল তার বিরোধিতা করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত ২০ আসামির জামিন মঞ্জুর করেন।

এদিন জামিন শুনানিতে গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর উপস্থিত ছিলেন।

জামিনপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, মো. ইউনুস, নাজমুল হাসান, নাহিদুল তারেক, মো. নাইম, আসাদুজ্জামান, আজহারুল ইসলাম,সোহেল মৃধা, মোস্তাক আহমেদ, আজিম হোসেন, মো. রুহুল ইসলাম সোহেল, আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জিশান, মো. সোহেল আহমদ, শেখ খায়রুল কবির, সবুজ হোসেন, হোলাম তানভীর, মো. হেমায়েত, ইসমাইল হোসেন, মো. রেজাউল করিম, মুনতাজুল ইসলাম ও কাজী বাহাউদ্দীন মনির।

উল্লেখ্য, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফর ঘিরে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের নেতৃত্বে চলতি বছর ২৫ মার্চ বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রাজধানীর বিজয়নগর পানির ট্যাংকি এলাকা থেকে ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের একটি মিছিল শুরু হয়। এতে পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

পুলিশের বাধা পেয়ে আন্দোলনকারীরা নুরের নেতৃত্বে মিছিল নিয়ে মতিঝিলের শাপলা চত্বরের দিকে যান। সেখানে পুলিশের সঙ্গে ছাত্র অধিকার পরিষদের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষ বাঁধে। বিক্ষোভ মিছিল থেকে সৃষ্ট ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় ৭ পুলিশ সদস্য আহত হন। শাপলা চত্বরে সেই মিছিল থেকে ৩২ জন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়। ওই ঘটনায় একাধিক থানায় কয়েকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

/এমএইচজে/ইউএস/

সম্পর্কিত

কোনও মামলা নেই আমার ছাত্রদের জন্য এসেছি, আদালতে ডা. জাফরুল্লাহ

কোনও মামলা নেই আমার ছাত্রদের জন্য এসেছি, আদালতে ডা. জাফরুল্লাহ

র‌্যাংগসের চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা

র‌্যাংগসের চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে প্রতারণার মামলা

‘১২-১৭ বছর বয়সীদের টিকার সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি’

আপডেট : ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৬:২২

১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত এখনও চূড়ান্ত হয়নি বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। আজ রবিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) আয়োজিত ভার্চুয়াল বুলেটিনে এ কথা বলেন অধিদফতরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম।

বুলেটিনে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সীদের টিকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়েছে কিনা প্রশ্নে তিনি বলেন, টিকা বিষয়ক জাতীয় পরামর্শক কমিটিসহ অন্যান্য সবার পরামর্শ নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং অধিদফতর সে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে।

দেশে আবারও গণটিকা কার্যক্রম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এ বিষয়ে এখনও কোনও নির্দেশনা পাইনি। যদি এরকম পরিকল্পনা হয়- সেটি নিশ্চয়ই জানানো হবে।

দেশের সংক্রমণ পরিস্থিতি সম্পর্কে জানাতে গিয়ে তিনি বলেন, গত সাত দিনে শনাক্ত হয়েছেন ১২ হাজার ৭৫৮ জন, তার আগের সপ্তাহের চাইতে ৩ হাজার ৭৫৮ জন কম। মৃত্যু সংখ্যাও কমেছে।

পুরো সপ্তাহের প্রথম দুদিন শনাক্তের হার সাত শতাংশের কিছুটা বেশি ছিল, এরপরের দিনগুলোতে থেকে ছয় শতাংশ বা এর চেয়ে কিছুটা বেশি। সামগ্রিকভাবে গত ৩০ দিনের সংক্রমণের যে চিত্র সেটা এই মুহূর্তে নিম্মমুখী প্রবণতাতেই আছে। এই শনাক্তের হার যদি ধারাবাহিকভাবে অব্যাহত রাখা যায় তাহলে আমাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়ার যে প্রচেষ্টা চলছে, সেটা বেগবান হবে।

জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত দেশে করোনা পরিস্থিতির চিত্র তুলে ধরে তিনি বলেন, সবচেয়ে বেশি রোগী দেখা গিয়েছে গত জুলাই মাসে। সে মাসে শনাক্ত হয়েছিলেন ৩ লাখ ৩৬ হাজার ২২৬ জন, আর সেপ্টেম্বর মাসে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৪০ হাজার ৬৮২ জন।

এ সময়ে (জানুয়ারি-সেপ্টেম্বর) সংক্রমণের ভিত্তিতে শীর্ষ ১০ জেলার মধ্যে ঢাকা জেলা সবার শীর্ষে রয়েছে জানিয়ে অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম বলেন, এ জেলায় এখন পর্যন্ত ৫ লাখ ১৩ হাজার ৯৪২ জন রোগী শনাক্ত হয়েছেন। আর শীর্ষ ১০ জেলার তালিকায় দশম স্থানে রয়েছে নোয়াখালী জেলা, এ জেলায় শনাক্ত হয়েছে ২২ হাজার ৬২৯ জন।

তিনি জানান, করোনাতে আক্রান্ত হয়ে যাদের মৃত্যু হচ্ছে তাদের মধ্যে ৫১ থেকে ৬০ বছর এবং ৬১ থেকে ৭০ বছর বয়সীদের সংখ্যাই বেশি।

বর্তমান পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে এবং টিকা নিলে অনেক অনাকাঙ্খিত মৃত্যু প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন ডা. নাজমুল ইসলাম।

/জেএ/ইউএস/

সম্পর্কিত

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

চিকিৎসকসহ সাড়ে ৯ হাজার স্বাস্থ্যকর্মী করোনায় আক্রান্ত

৫ লাখেরও বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে আজ 

৫ লাখেরও বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে আজ 

আজও করোনায় নারীমৃত্যু বেশি

আজও করোনায় নারীমৃত্যু বেশি

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরলেন সেনাপ্রধান

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

মেক্সিকোর স্বাধীনতার ২০০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনীর প্যারেড

পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন সেনাপ্রধান

পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করলেন সেনাপ্রধান

ঢামেকের সামনে থেকে বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার

ঢামেকের সামনে থেকে বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার

কঙ্গোলিজ সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিলো বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা

কঙ্গোলিজ সেনাবাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিলো বাংলাদেশি শান্তিরক্ষীরা

আজও নারীর মৃত্যু বেশি

আজও নারীর মৃত্যু বেশি

পোশাকশ্রমিকদের প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে

পোশাকশ্রমিকদের প্রজনন স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে হবে

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের টিকার বিষয়ে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সিদ্ধান্তের প্রত্যাশা হাইকোর্টের

অন্তঃসত্ত্বা নারীদের টিকার বিষয়ে ৭২ ঘণ্টার মধ্যে সিদ্ধান্তের প্রত্যাশা হাইকোর্টের

দূরপাল্লার যাত্রায় নারীর ভোগান্তি বেশি

দূরপাল্লার যাত্রায় নারীর ভোগান্তি বেশি

সেনাবাহিনী-সন্ত্রাসী গুলিবিনিময়, আটক ৪

সেনাবাহিনী-সন্ত্রাসী গুলিবিনিময়, আটক ৪

সর্বশেষ

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

‘ভাসানচর নিয়ে সমঝোতা চুক্তির আলোচনা চূড়ান্ত পর্যায়ে’

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবি

স্বতন্ত্র ইবতেদায়ী মাদ্রাসা জাতীয়করণের দাবি

কোনও মামলা নেই আমার ছাত্রদের জন্য এসেছি, আদালতে ডা. জাফরুল্লাহ

কোনও মামলা নেই আমার ছাত্রদের জন্য এসেছি, আদালতে ডা. জাফরুল্লাহ

নির্বাচনে কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা জানতে চায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়

নির্বাচনে কোনও সহায়তা করতে পারে কিনা জানতে চায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়

মেয়েদের সমর্থনে স্কুলে যাচ্ছে না অনেক আফগান ছেলে

মেয়েদের সমর্থনে স্কুলে যাচ্ছে না অনেক আফগান ছেলে

© 2021 Bangla Tribune