X
সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

বাড়ছে নদীভাঙন

ভিটেহারা মানুষগুলো আর ফিরে যেতে পারে না

আপডেট : ১৪ জুলাই ২০২১, ১৮:২৩

মিতুল রানী (৪৫), থাকেন রাজধানীর মহাখালীর সাততলা বস্তির একটি ঝুপড়ি ঘরে। মেঘনার ভাঙনে ঘর হারিয়ে আশির দশকে বাবা-মায়ের সঙ্গে ভোলার মনপুরা থেকে আসেন ঢাকার এ বস্তিতে। এখানে বড় হয়েছেন। বিয়ে ও সন্তানের জন্মও এখানে। আর কখনও মনপুরা ফেরা হয়নি তার।

সাততলা বস্তির নিজের ঘরের সামনে দাঁড়িয়ে বাপ-দাদার ভিটে হারানোর দুঃসহ স্মৃতির কথা মনে করে মিতুল রানী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ছোটবেলায় এই এলাকায় আসি। আমাদের সঙ্গে আরও কয়েকটি পরিবার ছিল। ঘরবাড়ি সব নদীতে ভেঙেছে। আমার বাবা এবং শ্বশুর একই এলাকার ছিলেন। তারা একসঙ্গেই এখানে আসেন।’

মিতুল রানী বলেন, ‘সংসার চালানোই দায়। লেখাপড়ার উপায় ছিল না। বড় ছেলে গাড়ি চালানোর শেখার পর সংসার চালাচ্ছে।’

মনপুরায় এখন মিতুল রানীর কেউ নেই। তাই কারও সঙ্গে দেখা করতেও যাওয়া হয় না। মিতুল রানী বলেন, ‘মনপুরায় যাবো কই। যা ছিল সব তো নদীর মাঝখানে। এখন দিন আনি দিন খাই। জায়গা জমিও আর জুটবে না। বস্তিতেই বাকি জীবন কাটবে।’

মিতুল রানী

মিতুল রানীদের সঙ্গে মনপুরা থেকে আসা অপর হিন্দু পরিবারগুলোর অবস্থাও একই। তারাও নিজের গ্রাম বা এলাকায় ফেরার স্বপ্ন দেখছেন না আর।

মহাখালীর সাততলা ও বনানীর কড়াইল বস্তিসহ বেশ কয়েকটি বস্তি ঘুরে দেখা গেছে অসংখ্য নদীভাঙা মানুষ এখানে বাস করছেন কয়েক দশক ধরে। এমনও আছেন, যাদের দুই-তিন প্রজন্মও বাস করছে বস্তিতে।

দেশের সর্বদক্ষিণের জেলা বরগুনার নাহিদা আক্তার (২১)। বিয়ে হয়েছে কয়েক বছর হলো। বরগুনার তালতলীর ছোট বগী গ্রামে তাদের বাড়ি ছিল। নদীভাঙন ও দারিদ্র্যতা ঘিরে ধরলে তিনি ঢাকায় চলে আসেন। তার স্বামী জুয়েল একজন দিনমজুর। সাততলা বস্তিতেই থাকেন স্বামী-স্ত্রী। বাড়িঘর নেই। তাই গ্রামে ফেরারও আর সুযোগ নেই তাদের।

নদীভাঙনের শিকার হয়ে ঢাকা আসতে বাধ্য হয়েছিলেন ভোলার দক্ষিণ আইচা থানার মাঝেরচরের রাজমিস্ত্রি লাল মিয়া। একই থানার নুর ইসলাম হাওলাদার, ইব্রাহীম, সালমা আক্তার ও নিপা আক্তারসহ অনেকেই আসেন তার সঙ্গে। প্রত্যেকেই এখন সাততলা বস্তিতে আছেন পরিবার নিয়ে।    

মানিকগঞ্জের হরিরামপুর থানার রামকৃষ্ণপুর গ্রামের জসিম উদ্দিন কয়েক বছর ধরে সাততলা বস্তিতে থাকেন। বছর পাঁচেক আগে পদ্মার ভাঙনে জমি ও ভিটে হারায় তার পরিবার। এরপরই ঢাকায় আসেন বাধ্য হয়ে। পেশায় রিকশাচালক জসিমের জানা নেই, আদৌ আর নিজের জন্মস্থানে ফিরতে পারবেন কিনা। বস্তির ছোট্টঘরে স্ত্রী রুমী আক্তার আর সন্তানকে নিয়ে তার স্বপ্নহীন জীবন কেটে যাচ্ছে কোনোরকম।

ঢাকার ছোটবড় বস্তিতে এমন হাজার হাজার নদীভাঙা পরিবারের দুঃখগাথা পাওয়া যাবে। তারা দেখেছেন, নদীভাঙন কী করে মুহূর্তেই নিঃস্ব করে দিতে পারে শত শত পরিবারকে।

তিন বছরে দেশের প্রধান প্রধান নদীসহ ছোটবড় প্রায় সব নদীর কোথাও না কোথাও ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। গতবছরও নদীগুলোর ১৬৫৮ পয়েন্টে প্রায় ৭ শ’ কিলোমিটার বিলীন হয়েছে। এই তিনবছরে বেড়েছে নদীভাঙা উদ্বাস্তুও।

ঢাকায় প্রতিদিন ১২ হাজার

দেখা যায়, জলবায়ু পরিবর্তন ও নদী ভাঙনের কারণে ভিটেমাটি হারা পরিবারগুলোর বেশিরভাগই ঢাকামুখী হয়। এতে রাজধানীতে চাপ বাড়ছে ক্রমাগত।

এ প্রসঙ্গে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘জলবায়ু পরিবর্তন ও নদীভাঙনের কারণে ‍ঢাকায় প্রতিদিন ১২ হাজার মানুষ প্রবেশ করছে। এতে বস্তি ও ফুটপাতে চাপ বাড়ছে। দরিদ্ররা এসে সবার আগে বস্তি খোঁজে। তারপর ফুটপাতে কোথাও টুকটাক ব্যবসা শুরু করার চেষ্টা করে। এদের নিয়ে সরকারের বড় পরিকল্পনা আছে। তাদের আবাসনসহ উন্নত জীবন দেওয়ার জন্য বিভিন্ন প্রকল্প নেওয়া হয়েছে।’

মেয়র আতিকুল ইসলাম আরও বলেন, ‘নদীভাঙনের শিকার ও জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে ঢাকায় যারা আসছেন তাদের জীবনমান উন্নয়নে সরকার পরিকল্পনা করছে। ফুটপাত ও বস্তির চাপ কমাতে আবাসন ও কাজের বিষয়টি ভাবা হচ্ছে।’

তাদের ভাগ্য উন্নয়নে আশার কথা শুনিয়েছেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুকও। তিনি বলেন, ‘সরকার গৃহহীনদের ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছে। নদীভাঙন রোধে ভাঙনপ্রবণ এলাকায় হাজার কোটি টাকার প্রকল্প চলছে। আমরা মানুষের ভিটেমাটি রক্ষা করতেও কাজ করছি।’

 

 
 
/এফএ/

প্রতি কেন্দ্রে ৫০০ জনকে টিকা দেবে ডিএনসিসি

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৪১

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে  মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) ও বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন-ডিএনসিসি’র তত্ত্বাবধানে নিজস্ব এলাকায় করোনা ভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে।

এই কর্মসূচির আওতায় ডিএনসিসির ৫৪টি ওয়ার্ডের নির্ধারিত ৫৪টি কেন্দ্রে প্রতিদিন দুপুর আড়াইটা থেকে টিকা কার্যক্রম শুরু হবে। প্রতিটি ওয়ার্ডে প্রতিদিন ৫০০ জন করে দুই দিনে প্রতি ওয়ার্ডে মোট এক হাজার জনকে টিকা প্রদান করা হবে।

সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ডিএনসিসি থেকে পাঠানো  সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ডিএনসিসির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, যারা ইতোমধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকার যেকোনও হাসপাতালে টিকার জন্য নিবন্ধন করেছেন, কিন্তু এখনও এসএমএস  পাননি, শুধুমাত্র তারাই এই কার্যক্রমের আওতায় টিকা গ্রহণ করতে পারবেন। শুধুমাত্র ষাটোর্ধ্ব বয়সের কেউ যদি নিবন্ধন না করে থাকেন, কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি যদি সঙ্গে করে নিয়ে আসেন, তাদেরকেও টিকা দেওয়া হবে। টিকা গ্রহণকারীরা যে কেন্দ্র থেকে প্রথম ডোজের টিকা গ্রহণ করবেন, এক মাস পর এক‌ই কেন্দ্র থেকে দ্বিতীয় ডোজের টিকাও গ্রহণ করতে পারবেন।

উল্লেখ্য, এর আগে ডিএনসিসির নির্ধারিত ৫৪টি টিকা কেন্দ্রে একযোগে পরিচালিত গণটিকার আওতায় এক  লাখ ১৩ হাজার ৪০০ জনকে করোনার প্রথম  ও দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রদান করা হয়।

/এসএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

লোভনীয় অফারে প্রভাবিত না হওয়ার পরামর্শ

লোভনীয় অফারে প্রভাবিত না হওয়ার পরামর্শ

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

সারাদেশে রাইড শেয়ার চালকদের কর্মবিরতি কাল

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৩৮

রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলোর অতিরিক্ত কমিশন আদায় ও পুলিশি হয়রানির প্রতিবাদে ৬ দফা দাবি আদায়ে আগামীকাল মঙ্গলবার সারাদেশে কর্মবিরতি পালনের ডাক দিয়েছে অ্যাপভিত্তিক ড্রাইভারস ইউনিয়ন অব বাংলাদেশ (ডিআরডিইউ)। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ বাংলা ট্রিবিউনকে এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, গত ১৪ সেপ্টেম্বর আমরা কর্মসূচি ঘোষণা করি। আমাদের দাবিগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে রাইড শেয়ারিং কোম্পানিগুলো অতিরিক্ত কমিশন নিচ্ছে। যার ফলে আমাদের তেমন একটা লাভ থাকে না। এছাড়া রাস্তাঘাটে পুলিশ হয়রানি করে।

তিনি আরও বলেন, এই কর্মসূচি শুধু বাংলাদেশে নয়, ইউরোপেও পালন হবে। লন্ডনের অ্যাপভিত্তিক ড্রাইভারস ক্যারিয়ার ইউনিয়ন এই কর্মসূচি ঘোষণা করলে আমরা তাদের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করি। আগামীকাল সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে কর্মসূচিটি পালিত হবে। কর্মসূচির মধ্যে সারাদেশে নিজ নিজ বিভাগীয় প্রেসক্লাবের সামনে সকাল ৯টা থেকে প্ল্যাকার্ড হাতে মানববন্ধন করা হবে।

ছয় দফা দাবি হচ্ছে-

১. অ্যাপস-নির্ভর চালকদের শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি দিন, কর্ম ও সময়ের মূল্য দিতে হবে।

২. সব ধরনের রাইডে কমিশন ১০ শতাংশ নির্ধারণ করুন, মিথ্যা অজুহাতে কর্মহীন করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

৩. ঢাকা চট্টগ্রাম ও সিলেটে রাইড শেয়ারিংয়ের যানবাহন দাঁড়ানোর জায়গা করে দিতে হবে।

৪. সব ধরনের পুলিশি হয়রানি বন্ধ করতে হবে।

৫. এনলিস্টকৃত রাইড শেয়ারকারী যানবাহনগুলোকে গণপরিবহনের আওতায় অ্যাডভান্সড ইনকাম ট্যাক্স (এআইটি) মুক্ত রাখতে হবে।

৬. গতবছর গ্রহণ করা সব এআইটি এনলিস্টকৃত যানবাহন মালিকদের ফিরিয়ে দিতে হবে।

/এসএস/এমআর/

সম্পর্কিত

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়া চালককে ছেড়ে দিলো পুলিশ

মোটরসাইকেলে আগুন দেওয়া চালককে ছেড়ে দিলো পুলিশ

‘একটা মানুষ কতটা অসহায় হ‌লে এমন কাজ কর‌তে পা‌রে’

‘একটা মানুষ কতটা অসহায় হ‌লে এমন কাজ কর‌তে পা‌রে’

মঙ্গলবার সারাদেশে রাইড শেয়ার চালকদের কর্মবিরতি

মঙ্গলবার সারাদেশে রাইড শেয়ার চালকদের কর্মবিরতি

সিইউবির চিত্র প্রদর্শনীতে শেখ হাসিনার বর্ণাঢ্য জীবন

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:৩৪

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উদযাপনে কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের (সিইউবি) উদ্যোগে চলছে তিন দিনের বিশেষ চিত্র প্রদর্শনী।

রাজধানীর বনানীর কামাল আতাতুর্ক অ্যাভিনিউয়ের শেরাটন ঢাকা হোটেলে সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) প্রদর্শনীর দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অফ ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান ড. চৌধুরী নাফিজ সরাফাত।

অন্যান্যদের মধ্যে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী নূর আলী, কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের বোর্ড অফ ট্রাস্টিজের নির্বাহী চেয়ারম্যান শাহানুল হাসান খান এবং কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশের সিনিয়র উপদেষ্টা প্রফেসর ড. এইচ এম জহিরুল হক উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আয়োজকরা জানান, ‘বাংলাদেশ: উন্নয়নের ১ যুগ’ শিরোনামের এ প্রদর্শনীতে রয়েছে সরকারপ্রধান হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এক যুগের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, বৈশ্বিক অঙ্গনে নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ঘটনার আলোকচিত্র। শেখ হাসিনার জীবনের বিভিন্ন মুহূর্তের দুর্লভ ছবিও রয়েছে প্রদর্শনীতে। দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানের শুরুতে কেক কাটেন অতিথিরা। পরে তারা প্রদর্শনীর বিভিন্ন আলোকচিত্র ঘুরে দেখেন।

অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতা এনে দিয়েছিলেন, যে কাজ তিনি সমাপ্ত করতে পারেননি, সেই কাজগুলোকে যিনি এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন সেই মানুষটা আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

‘২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার জন্য যে পরিক্রমা এবং পথনকশা তৈরি করা প্রয়োজন সেটি তিনি করেছেন। আমরা এখন আর হতদরিদ্র দেশ নই, উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হতে যাচ্ছি।’

অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ পলক বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর ৭৫তম জন্মদিনকে স্মরণীয় করতে বঙ্গবন্ধুর কন্যার রাজনৈতিক সংগ্রাম ও বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার সব কিছু চমৎকারভাবে এই চিত্র প্রদর্শনীতে তুলে ধরা হয়েছে।

‘যখন আমরা প্রদর্শনীটি ঘুরে দেখছিলাম আমি অবাক হয়ে খেয়াল করছিলাম বিগত ছবিগুলো সংগ্রহ করা, তারপর সেটিকে উপস্থাপন করা এবং ধারাবাহিকভাবে শেখ হাসিনার শৈশব, কৈশোর, তার ব্যক্তি জীবন, পারিবারিক জীবন, রাজনৈতিক সংগ্রাম এবং আধুনিক বা ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের বিষয়গুলো যেভাবে সাজানো হয়েছে তা অসাধারণ।’

প্রদর্শনীটি মঙ্গলবার পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এর আগে রবিবার বেলা ১১টায় শেরাটন ঢাকা হোটেলে ফিতা ও কেক কেটে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

/এসও/এমএস/

সম্পর্কিত

ক্যাম্পাস দেখে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ ইউজিসির

ক্যাম্পাস দেখে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরামর্শ ইউজিসির

শিক্ষার্থী কমছে, টিউশন ফি ছাড় দিয়ে অস্তিত্ব সংকটে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষার্থী কমছে, টিউশন ফি ছাড় দিয়ে অস্তিত্ব সংকটে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়

শিক্ষার মানোন্নয়নে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সরকারের সহযোগী: শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষার মানোন্নয়নে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সরকারের সহযোগী: শিক্ষামন্ত্রী

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওপর কর প্রত্যাহারের দাবিতে মতবিনিময় সভা

বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওপর কর প্রত্যাহারের দাবিতে মতবিনিময় সভা

পদোন্নতিপ্রাপ্ত ১৫৭ পুলিশ কর্মকর্তাকে বদলি

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১৮

বাংলাদেশ পুলিশের পুলিশ ইন্সপেক্টর পদে সদ্য পদোন্নতিপ্রাপ্ত ১৫৭ কর্মকর্তাকে তাদের নিজ নিজ ইউনিট থেকে পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটে বদলি করা হয়েছে। 

রবিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স-এর অ্যাডিশনাল আইজি (এঅ্যান্ডও) ড. মো. মইনুর রহমান চৌধুরী স্বাক্ষরিত তিনটি ভিন্ন প্রজ্ঞাপনে এ বদলি/পদায়ন করা হয়।

উল্লেখ্য, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২১ তারিখ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের তিনটি আলাদা প্রজ্ঞাপনে সাব-ইন্সপেক্টর (নিরস্ত্র) থেকে পুলিশ পরিদর্শক (নিরস্ত্র), সাব-ইন্সপেক্টর (সশস্ত্র) থেকে পুলিশ পরিদর্শক (সশস্ত্র) ও পুলিশ সার্জেন্ট/টিএসআই থেকে পুলিশ পরিদর্শক (শহর ও যানবাহন) হিসেবে পদোন্নতি প্রদান করা হয়।

 

/এআরআর/এমআর/

সম্পর্কিত

পরীমণির গাড়িসহ জব্দ করা ১৬ আলামত ফেরত দিতে প্রতিবেদন

পরীমণির গাড়িসহ জব্দ করা ১৬ আলামত ফেরত দিতে প্রতিবেদন

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

‌এনআরবি ব্যাংকের পরিচালক বদিউজ্জামান ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

‘মামলা দেয়, তাই গাড়ি আর চালাবো না, পুড়িয়ে দিয়েছি’

অতঃপর ২য় বিয়ে, সন্তানের দায় নিতে নারাজ এআইজি ফারুকী

অতঃপর ২য় বিয়ে, সন্তানের দায় নিতে নারাজ এআইজি ফারুকী

তুরস্কের রাষ্ট্রদূতের আইসিডিডিআরবি পরিদর্শন

'করোনার টিকা তৈরিতে কাজ করছে তুরস্ক'

আপডেট : ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:০৩

বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মুস্তাফা ওসমান তুরান আইসিডিডিআরবি'র জীবন রক্ষাকারী গবেষণাকে অনুপ্রেরণামূলক বলে আখ্যায়িত করেছেন। কোভিড-১৯ সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, “তুরস্ক বর্তমানে টার্কোভ্যাক নামে কোভিড-১৯ এর একটি টিকা তৈরিতে কাজ করছে। এই কাজ সম্পন্ন হলে আমরা এটিকে অন্যান্য দেশের জন্য সহজপ্রাপ্য করতে চাই এবং কিভাবে এবিষয়ে বাংলাদেশের সাথে সহযোগিতামূলক সম্পর্ক স্থাপন করা যায় তার উপায় অনুসন্ধান করছি।"

তিনি সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) ঢাকার মহাখালীতে অবস্থিত আইসিডিডিআর,বি পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন। এসময় রাষ্ট্রদূত আইসিডিডিআর,বি এবং এর সাম্প্রতিক কোভিড-১৯ সংক্রান্ত গবেষণা কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

আইসিডিডিআর,বি জানায়, রাষ্ট্রদূত এবং তুরস্ক দূতাবাসের সেকেন্ড সেক্রেটারি গিজেম আইডিন আরডেমকে আইসিডিডিআর,বি-র নির্বাহী পরিচালক ড. তাহমিদ আহমেদ স্বাগত জানান। ড. আহমেদ তাঁদের উদ্দেশ্যে আইসিডিডিআর,বি সম্পর্কিত একটি সামগ্রিক চিত্র উপস্থাপন করেন এবং কিভাবে এই প্রতিষ্ঠান বৈশ্বিক জনস্বাস্থ্য গবেষণা ও উদ্ভাবনের ক্ষেত্রে অবদান রেখেছে এবং দক্ষিণ বিশ্বে একটি সেন্টার অব এক্সিলেন্সে পরিণত হয়েছে সে সম্পর্কে আলোকপাত করেন। সাধারণ ও বাস্তবায়নমুখী গবেষণাকে কাজে লাগিয়ে এবং এর জ্ঞানকে জনস্বাস্থ্য কার্যক্রমে পরিণত করে আইসিডিডিআর,বি কিভাবে বিশ্বের নিম্ন ও মাঝারি আয়ের দেশগুলো যেসব জটিল সমস্যার সম্মুখীন তা সমাধান করে থাকে তা তিনি ব্যাখ্যা করেন।

রাষ্ট্রদূত আইসিডিডিআর,বি-র মিউকোজাল ইমিউনোলজি অ্যান্ড ভ্যাক্সিনোলজি ল্যাবরেটরি ঘুরে দেখেন। আইসিডিডিআর,বি-র সিনিয়র সায়েন্টিস্ট ড. ফেরদৌসী কাদরী ল্যাবের অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধা প্রদর্শন করেন, যা কোভিড-১৯ সংক্রান্ত গবেষণাসহ টিকা গবেষণায় কার্যকর ভূমিকা পালন করে।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, রাষ্ট্রদূত তুরান কেবল আইসিডিডিআর,বি-র গবেষণা কর্মকাণ্ডের বিশাল পরিধি দেখেই মুগ্ধ হননি, বরং তিনি বাংলাদেশ ও বহির্বিশ্বের বিপন্ন মানুষের সেবায় কত সহজে গবেষণাকে কাজে লাগিয়ে স্বল্প খরচের সমাধানে আইসিডিডিআর,বি ভূমিকা রাখে তা দেখেও অভিভূত হন। তিনি আরও গবেষণা, অর্থায়ন ও সহযোগিতামূলক কাজের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন। তাঁর মন্তব্যে তিনি ড. তাহমিদ আহমেদ এবং আইসিডিডিআর,বি-র বিজ্ঞানী ও গবেষকদেরকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, 'আজ আমরা এই সুপ্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠানের কাজ সম্পর্কে সরাসরি তথ্য জানতে পারলাম। প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ ও সারা বিশ্বে লাখ লাখ মানুষের জীবন রক্ষা করে চলেছে। আপনারা যা করেন তা সত্যিই অনুপ্রেরণামূলক।

ড. আহমেদ রাষ্ট্রদূতকে জনস্বাস্থ্য গবেষণায় নিয়োজিত তুরস্কের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের সাথে সহযোগিতা গড়ে তুলতে আইসিডিডিআর,বি-কে সহায়তা করার অনুরোধ জানান। আইসিডিডিআর,বি-র সিনিয়র লিডারশিপ টিমের সদস্যরাও এসময়ে উপস্থিত ছিলেন।

/এসও/এমএস/

সম্পর্কিত

গণটিকার সরঞ্জাম পৌঁছে গেছে সারাদেশে

গণটিকার সরঞ্জাম পৌঁছে গেছে সারাদেশে

রবিবার টিকা দেওয়া হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ  

রবিবার টিকা দেওয়া হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ  

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আবারও দেশে গণটিকা কর্মসূচি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে আবারও দেশে গণটিকা কর্মসূচি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৫৭ লাখ মানুষ 

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

সর্বশেষ

স্পিকারের সঙ্গে মালদ্বীপের হাইকমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

স্পিকারের সঙ্গে মালদ্বীপের হাইকমিশনারের সৌজন্য সাক্ষাৎ

ফিক্সিং-কাণ্ড: শাস্তি কমলো আরামবাগের ফুটবলারদের

ফিক্সিং-কাণ্ড: শাস্তি কমলো আরামবাগের ফুটবলারদের

আরডি’র নতুন ব্র্যান্ড ‘অরা’

আরডি’র নতুন ব্র্যান্ড ‘অরা’

ভুল নিয়ে গুগলের জন্ম 

ভুল নিয়ে গুগলের জন্ম 

রসুন দিয়ে এ কাজও হয়!

রসুন দিয়ে এ কাজও হয়!

© 2021 Bangla Tribune