X
মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ আশ্বিন ১৪২৮

সেকশনস

নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের টিকা দিতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের চিঠি

আপডেট : ১৫ জুলাই ২০২১, ১৯:২০

নির্বাচিত সকল জনপ্রতিনিধিকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে করোনা ভাইরাসের টিকা প্রদান করতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালকে চিঠি দিয়েছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।
বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) মন্ত্রণালয়ের উপসচিব একেএম মিজানুর রহমান স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবকে এই চিঠি দেন।
চিঠিতে বলা হয়েছে, স্থানীয় সরকার বিভাগের আওতায় নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বে দেশব্যাপী পাঁচ স্তরের স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহ তৃণমুল পর্যায়ে জনগণকে সেবা প্রদান করে যাচ্ছে। প্রতিষ্ঠানগুলো হচ্ছে- সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, জেলা পরিষদ, উপজেলা পরিষদ ও ইউনিয়ন পরিষদ। করোনা মহামারি মোকাবিলায় নিয়োজিত সম্মুখ সারির যোদ্ধা হিসেবে স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের ৬৭ হাজারের অধিক নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি প্রতিরোধমূলক কার্যক্রমের অংশ নিচ্ছেন। তারা পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার জন্য জীবাণুনাশক স্প্রে, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সুরক্ষা সামগ্রী ক্রয় ও বিতরণ, করোনা সনাক্তকরণের জন্য নমুনা সংগ্রহ ও পরীক্ষা, হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করাসহ সকল পর্যায়ে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছে। এছাড়াও জনগণকে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন গ্রহণের জন্য উদ্ভূতকরণসহ এ কাজের সার্বিক সহায়তা প্রদান করে আসছেন।
কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে যে, স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের নির্বাচিত অনেক জনপ্রতিনিধি এখনও করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন গ্রহণ করেননি। সে পরিপ্রেক্ষিতে করোনা মহামারি মোকাবিলায় নিয়োজিত সম্মুখ সারির যোদ্ধা হিসেবে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিগণকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন প্রদান করা প্রয়োজন।
এ অবস্থায় করোনা মহামারি মোকাবেলায় নিয়োজিত সম্মুখ সারির যোদ্ধা হিসেবে নির্বাচিত জন প্রতিনিধিগণকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ভ্যাকসিন প্রদানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।

 

/এসএস/এফএএন/

সম্পর্কিত

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:২৭

নরম মাটিতে জিওটেক্সটাইল মোড়ানো খাড়া বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী এবং টেকসই। ভূমিকম্প অথবা ওয়েভ (সাইনসয়ডাল) এর সময় বাঁধের বিভিন্ন স্তরের গতিশীল গুনাবলী কী রকম পরিবর্তন হয়, সেটা বিবেচনায় নিয়ে  ডিজাইন করলে বাঁধটি ভূমিকম্প প্রতিরোধী ও টেকসই হবে।

মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর পুরকৌশল বিভাগ আয়োজিত সেমিনারে বক্তারা এ কথা বলেন।

সেমিনারে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক এবং ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ (আইইবি)-এর সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রকৌশলী মো. আবদুস সবুর বলেন, ‘মোড়ানো বাঁধ বিভিন্ন জিওটক্সেটাইল দিয়ে পেঁচানো থাকে এবং বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের বালু (সিমেন্ট বালু অথবা লোকাল বালু) দিয়ে পূর্ণ করা হয়। এই বাঁধ খাড়া হবার কারণে প্রচলিত বাঁধের তুলনায় দুই পাশের কৃষিজমি অধিগ্রহণ করার প্রয়োজন হবে না। এ ধরনের বাঁধ তৈরি করার সময় দুই ধরনের ওভেন অথবা নন-ওভেন জিওটক্সেটাইল ব্যবহার করা হয়। মোড়ানো বাঁধ নরম মাটির গুনাবলির পারস্পারিক অবস্থান, ভৌগোলিক অবস্থা এবং ইজিএল-এর ওপরে নির্ভর করে বিভিন্ন লেয়ারের হয়ে থাকে।’

সেমিনারে বক্তারা বলেন, ভূমিকম্প বা বিভিন্ন ওয়েভের সময় নরম মাটির ওপরে নির্মিত বাঁধের গতিশীল গুনাবলী বিশ্লেষণ করা এবং এমন ধরনের বাঁধ নির্মাণ করা, যেটা ভূমিকম্প প্রতিরোধী হবে। পাশাপাশি গতানুগতিক বাঁধের তুলনায় কম খরচে এই বাঁধ নির্মাণ করা যাবে এবং এটি নির্মাণে কম জায়গার প্রয়োজন হবে।’

বক্তারা আরও বলেন, মোড়ানো বাঁধ সরকারের ব্যাপক জমি অধিগ্রহণের ব্যয় কমিয়ে দেবে। বাঁধটি খাড়া হবার কারণে দুই পাশের জায়গা প্রয়োজন হবে না।

অনুষ্ঠানে আইইবি পুরকৌশল বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার মুনাজ আহমেদ নূরের সভাপতিত্বে এবং বিভাগের সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার অমিত কুমার চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন— বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এবং আইইবি’র সাবেক প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. আবদুস সবুর। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আইইবি’র প্রেসিডেন্ট ইঞ্জিনিয়ার মো. নূরুল হুদা, আইইবি’র ভাইস প্রেসিডেন্ট (এইচআরডি) ইঞ্জিনিয়ার মো. নূরুজ্জামান এবং এলজিইডির প্রধান প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার মো. আব্দুর রশীদ খান। স্বাগত বক্তব্য দেন— আইইবি’র সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মো. শাহাদাৎ হোসেন (শীবলু)। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এলজিইডির সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী ড. ইঞ্জিনিয়ার রিপন হোড়। মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচনা করেন— বুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী আহমেদ আনসারী।

/এসএস/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

বিশ্বমঞ্চে দেশকে গর্বিত করেছেন শেখ হাসিনা: বিমান প্রতিমন্ত্রী

বিশ্বমঞ্চে দেশকে গর্বিত করেছেন শেখ হাসিনা: বিমান প্রতিমন্ত্রী

সিএসপির আবেদন নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

সিএসপির আবেদন নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

কথিত পীর মুত্তালিব চিশতি গ্রেফতার

কথিত পীর মুত্তালিব চিশতি গ্রেফতার

ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু

ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:১৬

অবিলম্বে ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা চূড়ান্ত করা না গেলে ট্রান্সফাটঘটিত হৃদরোগের ঝুঁকি আশংকাজনক হারে বাড়তেই থাকবে।

বিশ্ব হার্ট দিবসকে সামনে রেখে মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) “বাংলাদেশে ট্রান্সফ্যাটঘটিত হৃদরোগ ঝুঁকি ও করণীয়” শীর্ষক ওয়েবিনারে অংশ নিয়ে বক্তারা এসব কথা বলেন।

“হৃদয় দিয়ে হৃদযন্ত্রের যত্ন নিন” প্রতিপাদ্য নিয়ে আগামীকাল বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সারা বিশ্বে পালিত হবে বিশ্ব হার্ট দিবস।

গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটরের (জিএইচএআই) সহায়তায় বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা (প্রগতির জন্য জ্ঞান) এবং ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ যৌথভাবে ওয়েবিনারটি আয়োজন করে।

প্রজ্ঞা’র পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।

ওয়েবিনারে জানানো হয়, ট্রান্সফ্যাট একটি ক্ষতিকর খাদ্য উপাদান যা হৃদরোগ ও হৃদরোগজনিত অকাল মৃত্যু ঝুঁকি বাড়ায়। ডালডা বা বনস্পতি ঘি এবং তা দিয়ে তৈরি বিভিন্ন খাবার, ফাস্টফুড ও বেকারি পণ্যে ট্রান্সফ্যাট থাকে।

ওয়েবিনারে যুক্ত হয়ে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশের ইপিডেমিওলজি অ্যান্ড রিসার্চ বিভাগের অধ্যাপক ডা. সোহেল রেজা চৌধুরী বলেন, “খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট নির্মূল হলে তা অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আশা করছি, দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রবিধানমালাটি চূড়ান্ত করবে সরকার।

গ্লোবাল হেলথ অ্যাডভোকেসি ইনকিউবেটরের (জিএইচএআই) বাংলাদেশ কান্ট্রি লিড রূহুল কুদ্দুস বলেন, খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট নির্মূল করতে না পারলে দেশে ট্রান্সফ্যাটঘটিত হৃদরোগ ঝুঁকি বাড়বে, চিকিৎসা খাতে ব্যয় বাড়বে এবং আমরা অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হব।

প্রজ্ঞার নির্বাহী পরিচালক এবিএম জুবায়ের বলেন, “তরুণরা ট্রান্সফ্যাটযুক্ত খাবার বেশি খায়। খাদ্যদ্রব্য থেকে ট্রান্সফ্যাট নির্মূল করা না গেলে তরুণ প্রজন্ম মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে পড়বে।

গবেষণার উদ্ধৃতি দিয়ে প্রজ্ঞা জানিয়েছে, বাংলাদেশে প্রতি ৫ জন তরুণের মধ্যে ১ জন হৃদরোগ ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। বিশ্ব জুড়ে হৃদরোগ ও হৃদরোগজনিত অকাল মৃত্যু ঝুঁকি হ্রাস করতে ২০২৩ সালের মধ্যে বিশ্বের খাদ্য সরবরাহ শৃঙ্খল থেকে ট্রান্সফ্যাট নির্মূলের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ “খাদ্যদ্রব্যে ট্রান্সফ্যাটি এসিড নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা, ২০২১” খসড়া প্রণয়ন করেছে। প্রয়োজনীয় ভেটিং শেষে এটি চূড়ান্ত হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে।

/এসআই/এমএস/

সম্পর্কিত

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

সচেতনতায় জলাতঙ্কের নিশ্চিত মৃত্যু প্রতিরোধ সম্ভব 

সচেতনতায় জলাতঙ্কের নিশ্চিত মৃত্যু প্রতিরোধ সম্ভব 

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৬৫ লাখ মানুষ

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৬৫ লাখ মানুষ

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৯:২০

রাজধানীর মগবাজারের ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড। মধুবাগ আমবাগান এলাকা। ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয়ের সামনে খালি জায়গায় বসে আছেন টিকা নিতে আসা মানুষ। তাদের মধ্যে যেমন অশীতিপর বৃদ্ধ রয়েছেন, তেমনি আছেন যুবক-তরুণ-মাঝ বয়সীরাও।

নির্ধারিত লাইন মানুষ দাঁড়িয়ে আছেন, কেউ লাইনের ভেতরেই বসে পড়েছেন। এর বাইরে ছড়িয়ে ছিটিয়ে বসে রয়েছেন অসংখ্য মানুষ। কারও হাতে টিকাকার্ড, কারও হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র। জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে এলেই টিকা নেওয়া হবে, এমন খবরে কেউ কেউ জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে এলেও টিকা নিতে পারছেন না। বলে দেওয়া হয়েছে, কেবল মোবাইল ফোনে খুদেবার্তা এলেই টিকা দেওয়া হবে। এমন বার্তার পর তারা মোবাইল ফোনে কারও সঙ্গে কথা বলছেন, পরামর্শের আশায়।

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উপলক্ষে আজ মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দেশে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী গণটিকাদান কর্মসূচির ঘোষণা দেয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এদিনে নিয়মিত টিকাদান কর্মসূচির ৫ লাখসহ মোট ৮০ লাখ টিকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

টিকাদান কেন্দ্রে লাইন থেকে কিছুটা দূরে হাতে জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে দাঁড়িয়েছিলেন সামাদ ভুঁইয়া। কথা হয় ৫২ বছর বয়সী সামাদ ভুঁইয়ার সঙ্গে। টিকা দেওয়ার লাইনে কেন দাঁড়াননি জানতে চাইলে কিছুটা হতাশা নিয়ে বলেন, ‘টিভির খবরে শুনছি জাতীয় পরিচয়পত্র নিয়ে আইলেই টিকা দেওয়া যাইবো। কিন্তু ওখানে গেছি পরে কইছে, আবেদনের কাগজ নিয়া আসতে।’

সঙ্গে থাকা মেয়ে বলেন, ‘সকাল সাড়ে নয়টায় এসেছি। কিন্তু এখন টিকা নেওয়া যাবে না বলে জানাইছে। বলছে, অ্যাপ্লিকেশন ( নিবন্ধন) করতে। ভোটার আইডি কার্ড (জাতীয় পরিচয়পত্র) নিয়া যারা যারা আসছিল, তাদের সবাইকে ফেরত দিছে। কত কত মানুষ ফেরত গেলো টিকা নিতে না পাইরা।’

সামাদ ভুঁইয়ার সঙ্গে কথা শেষ করে ভেতরের দিকে এগিয়ে যেতেই দেখা যায় টিকা প্রত্যাশীদের দীর্ঘ লাইন। লাইনের ভেতরেই পত্রিকা বিছিয়ে বসেছিলেন মগবাজার থেকে আসা নূর মোহাম্মদ।

বসে আছেন কেন জিজ্ঞাসা করতেই বললেন, ‘আর কতক্ষণ দাঁড়ায়ে থাকবো? পায়ের ব্যথায় এমনিতেই দাঁড়ায়ে থাকতে পারি না। আর আজ সকাল থেকে এসে এখানে দাঁড়ায়ে থাকতে হচ্ছে।’

নূর মোহাম্মদ জানালেন, টিকা নেবার জন্য এখানে এসেছেন সকাল সাতটায়।

সামনে পেছনে দীর্ঘলাইন। সবাই দাঁড়িয়ে আছেন টিকা দেওয়া হবে এই আশায়। কিন্তু লাইনে দাঁড়ানো মানুষকে বলা হয়েছে, দুপুর আড়াইটার পর টিকা দেওয়া শুরু হবে। তাই লাইনের ভেতরেই পত্রিকা বিছিয়ে বসে রয়েছেন জানিয়ে তিনি বলেন, ‘লাইন থেকে গেলেই এখানে অন্য মানুষ ঢুকে পড়বে।’’

‘আমাদের জন্য দোয়া করবেন, সকাল বেলায় একটু পানি খেয়ে চলে এসেছিলাম। বৃদ্ধদের জন্য আলাদা লাইনের কথা শুনেছিলাম। ভেবেছিলাম ১০টার ভেতরে বাসায় চলে যাবো, কিন্তু এখানে বৃদ্ধদের জন্য পৃথক লাইন তো দূরের কতা, কোনও ব্যবস্থাপনাই নেই’—বলছিলেন সৌম্য চেহারার নূর মোহাম্মদ।

‘অনেকক্ষণ হয় আসছি। কিন্তু দুপুর আড়াইটার আগে টিকা দেবে না বলে জানানো হলো, তাই বসে আছি। কিন্তু এখানে এত মানুষ, কখন টিকা দেওয়া যাবে সেটা জানি না’—বলেন ৫২ বছরের জামাল উদ্দিন।

‘জানানো হলো, সকাল নয়টা থেকে টিকা দেওয়া হবে, এত এত মানুষ এলো। এখন বলা হচ্ছে আড়াইটায় দেওয়া হবে। এটা বাসিন্দাদের জানানো হয়েছে কিনা সেটা আপনি সাংবাদিক হিসেবে অফিসে (ওয়ার্ড কাউন্সিলর অফিস) জিজ্ঞেস করেন প্লিজ। এই হয়রানির কোনও মানে হয় না’—ক্ষোভ বৃদ্ধের কণ্ঠে।

সকাল নয়টায় গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু হওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয় সরকার থেকে। কিন্তু উত্তর সিটি করপোরেশন টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে দুপুর আড়াইটার পর। এতে অনেকেই টিকা না নিয়ে ফেরত গেছেন। যারা বসে আছেন শেষ পর্যন্ত দেখবেন বলে তারা উত্তর সিটি করপোরেশনের এ সিদ্ধান্তে ক্ষোভ জানাচ্ছেন। তারা বলছেন, এ বিষয়ে ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের কিছু জানানো হয়নি।

দুপুর আড়াইটা থেকে কেন টিকা দেওয়া হবে জানতে চাইলে ওয়ার্ড সচিব রেজাউল ইসলাম বলেন, ‘সরকার নির্দেশ দিয়েছে, আমরা পরে সংশোধন করেছি সময়’। কে নির্দেশ দিয়েছে জানতে চাইলে তিনি প্রথমে বলেন, ‘স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে নির্দেশ দিয়েছে।’

স্বাস্থ্য বিভাগ দুপুর আড়াইটা থেকে নয়, সকাল নয়টা থেকে টিকা কর্মসূচি শুরু করার নির্দেশ দিয়েছে জানালে তিনি বলেন, ‘ঘটনা হচ্ছে- নয়টা থেকেই। কিন্তু নয়টা থেকে বিভিন্ন জায়গায় প্রোগ্রাম আছে। কাউন্সিলররা সবাই চলে গেছে ওখানে, এটা তো রাষ্ট্রীয় প্রোগ্রাম।’

 ‘যার কারণে মেয়র দুপুর আড়াইটা থেকে শুরু করার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন’—বলেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘আজ ৫০০ মানুষকে টিকা দেওয়া হবে, আগামীকাল দেওয়া হবে ৫০০ মানুষকে। টিকা দেওয়ার নির্দিষ্ট টাইম নাই।’

দুপুর আড়াইটা থেকে উত্তর সিটি করপোরেশন কেন টিকাদান কর্মসূচি শুরু করবে—জানতে চাইলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের ভ্যাকসিন ডেপ্লয়মেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানিয়েছেন, উত্তর সিটি করপোরেশন সকাল থেকে টিকা দিচ্ছে না। এটা তারা জানিয়েছে। মাইকিং করে বলা হয়েছে। এখন কেউ কেউ সঠিক তথ্যের ভিত্তিতে না এসে যদি আগে আসে তাহলে কিছুটা বিড়ম্বনা হতেই পারে। উত্তর সিটি করপোরেশন এলাকায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে অনুষ্ঠান থাকায়, দুপুর আড়াইটা থেকে টিকাদান কর্মসূচি শুরু করবে বলে আমাদের জানিয়েছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতর জানিয়েছিল, বয়স্ক এবং অসুস্থদের জন্য আলাদা লাইন করা হবে। টিকা কেন্দ্রগুলোতেও স্বাস্থ্য অধিদফতরের সে নির্দেশনারও কোনও প্রতিফলন দেখা যায়নি।

/জেএ/এমআর/এমওএফ/

সম্পর্কিত

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

শেখ হাসিনার জন্মদিনে বাংলা একাডেমিতে সেমিনার ও গ্রন্থ প্রদর্শনী

শেখ হাসিনার জন্মদিনে বাংলা একাডেমিতে সেমিনার ও গ্রন্থ প্রদর্শনী

বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে: মেয়র আতিক

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে: মেয়র আতিক

বিশ্বমঞ্চে দেশকে গর্বিত করেছেন শেখ হাসিনা: বিমান প্রতিমন্ত্রী

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:৪৭

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বমঞ্চে বাংলাদেশকে গর্বিত করেছেন। এটি জাতির জন্য গর্বের। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর শেখ হাসিনার ৭৫তম জন্মদিন উদযাপন উপলক্ষে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী এ কথা বলেন।

মাহবুব আলী বলেন, ‘‘টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের ক্ষেত্রে জাতিসংঘ কর্তৃক ‘এসডিজি প্রগ্রেস অ্যাওয়ার্ডে’ ভূষিত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। আগেও আমাদের প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছেন। দেশের এই অর্জনে আমরা  প্রধানমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে দেশ আজ  উন্নয়নের মহাসড়কে দুর্বার গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে।’

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে দেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে  উল্লেখ করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে অবকাঠামোগত উন্নয়নসহ তথ্য প্রযুক্তির প্রসার ঘটেছে। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির কারণে দেশের গ্রামীণ আর্থ-সামাজিক অবস্থার হয়েছে উন্নয়ন। দেশের মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি পেয়েছে। দেশের অর্থনীতির ভিত শক্ত হয়ে আমরা পরিণত হয়েছি মধ্যম আয়ের দেশে।’

অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন— বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মো. মফিদুর রহমান, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের সিইও জাবেদ আহমেদ, বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. হান্নান মিয়া,  বাংলাদেশ সার্ভিসেস লিমিটেডের এমডি মো. আব্দুল কাইয়ুম, হোটেল ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মো. আমিনুর রহমান  প্রমুখ।

/সিএ/এপিএইচ/

সম্পর্কিত

সিএসপির আবেদন নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

সিএসপির আবেদন নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

কথিত পীর মুত্তালিব চিশতি গ্রেফতার

কথিত পীর মুত্তালিব চিশতি গ্রেফতার

ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু

ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু

আরব আমিরাত ল্যাবের অনুমোদন দিলে ফ্লাইট চলবে: বেবিচক চেয়ারম্যান

আরব আমিরাত ল্যাবের অনুমোদন দিলে ফ্লাইট চলবে: বেবিচক চেয়ারম্যান

ইভানার মৃত্যু: অভিযুক্তদের বিচার দাবিতে সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে মানববন্ধন

আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮:২২

রাজধানীর স্কলাস্টিকা স্কুলের ক্যারিয়ার গাইডেন্স কাউন্সেলর ইভানা লায়লা চৌধুরীর মৃত্যুর ঘটনায় তার স্বামীসহ অভিযুক্তদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন ইভানার সহপাঠী, সহকর্মী ও আইনজীবীরা। মঙ্গলবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা এ দাবি জানান।

এ সময় বক্তারা ইভানার স্বামী ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ মাহমুদ হাসান রুম্মানসহ অভিযুক্তদের গ্রেফতার ও জিজ্ঞাসাবাদ করে মৃত্যর মূল রহস্য উদঘাটনের দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, ইভানার মৃত্যুর ঘটনার পেছনে কারা জড়িত সেটি সামনে আসুক। সেটাই আমরা চাই। এভাবে যেন আর কোনও ইভানাকে মৃত্যুবরণ করতে না হয়। এ জন্য তার মৃত্যুর পেছনে জড়িতদের বিচারের মুখোমুখি করতে হবে। ইভানাকে কেন এভাবে জীবন দিতে হলো, কেন তিনি আত্মহত্যা করলেন, আমরা এ প্রশ্নের জবাব চাই।’ 

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার অনিক আর হক, আইনজীবী সমিতির সহ-সম্পাদক ব্যারিস্টার সাফায়েত সুলতানা রুমি, সাবেক সহ-সম্পাদক ব্যারিস্টার ইমতিয়াজ ফারুক, ব্যারিস্টার মুনতাসির আহমেদ, অ্যাডভোকেট জেসমিন সুলতানা, ব্যারিস্টার আসিফ বিন আনোয়ার, ব্যারিস্টার সিফাত মাহমুদ, ব্যারিস্টার আহমেদ নকিব করিম, অ্যাডভোকেট মাসুরা হোসাইন, ব্যারিস্টার জাকিউল হক, উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর আরিফ নূর, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির শিক্ষক পারিসা শাকুর, স্কলাসটিকা স্কুলের তৌহিদ সোহরাব, কসমো স্কুলের তামান্না ফেরদৌসসহ ইভানার অসংখ্য সহপাঠী, সহকর্মী ও আইনজীবীরা এ সময় মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত ১৫ সেপ্টেম্বর রাজধানীর পরিবাগ থেকে স্কলাস্টিকা স্কুলের ক্যারিয়ার গাইডেন্স কাউন্সেলর ইভানা লায়লা চৌধুরীর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। দুটি ভবনের মাঝখানে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। ইভানা লায়লা চৌধুরী (৩২) স্কলাস্টিকা স্কুলের উত্তরা ও মিরপুর শাখার ইউনিভার্সিটি প্লেসমেন্ট সার্ভিসের প্রধান ছিলেন।

ইভানা লায়লা চৌধুরীর (৩২) মৃত্যুর ঘটনায় স্বামী ব্যারিস্টার আব্দুল্লাহ মাহমুদ হাসানসহ দুই জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে গত ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যায় মামলাটি দায়ের করেন ইভানার ইভানার বাবা আমান উল্লাহ চৌধুরী।

 

/বিআই/আইএ/

সম্পর্কিত

চুক্তি নবায়নে প্রবাসী কর্মীদের বাধ্য করে সৌদি স্পন্সররা

চুক্তি নবায়নে প্রবাসী কর্মীদের বাধ্য করে সৌদি স্পন্সররা

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৬৫ লাখ মানুষ

দ্বিতীয় ডোজের আওতায় ১ কোটি ৬৫ লাখ মানুষ

পাঁচটি ল্যাবের বিষয়ে সম্মতি জানায়নি আরব আমিরাত, যাচ্ছে আরও দুটি ফ্লাইট

পাঁচটি ল্যাবের বিষয়ে সম্মতি জানায়নি আরব আমিরাত, যাচ্ছে আরও দুটি ফ্লাইট

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

চানখার পুলে ঢাবি শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার

সর্বশেষসর্বাধিক

লাইভ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

গণটিকা কেন আড়াইটার পর?

বিশ্বমঞ্চে দেশকে গর্বিত করেছেন শেখ হাসিনা: বিমান প্রতিমন্ত্রী

বিশ্বমঞ্চে দেশকে গর্বিত করেছেন শেখ হাসিনা: বিমান প্রতিমন্ত্রী

সিএসপির আবেদন নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

সিএসপির আবেদন নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

বেড়েছে শনাক্ত ও মৃত্যু

কথিত পীর মুত্তালিব চিশতি গ্রেফতার

কথিত পীর মুত্তালিব চিশতি গ্রেফতার

ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু

ডেঙ্গুতে আরও ২ জনের মৃত্যু

আরব আমিরাত ল্যাবের অনুমোদন দিলে ফ্লাইট চলবে: বেবিচক চেয়ারম্যান

আরব আমিরাত ল্যাবের অনুমোদন দিলে ফ্লাইট চলবে: বেবিচক চেয়ারম্যান

সর্বশেষ

নো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

রেন্টাল-কুইক রেন্টালনো পেমেন্ট নো ইলেকট্রিসিটির কথা ভাবা হচ্ছে: জ্বালানি উপদেষ্টা

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

‘জিওটেক্সটাইল মোড়ানো বাঁধ ভূমিকম্প প্রতিরোধী’

জিপিএইচ-সিজেকেএস প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ উদ্বোধন

জিপিএইচ-সিজেকেএস প্রিমিয়ার ফুটবল লিগ উদ্বোধন

৩৬০০ কেজি সরকারি চাল বিক্রির সময় গ্রেফতার ২

৩৬০০ কেজি সরকারি চাল বিক্রির সময় গ্রেফতার ২

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

হৃদরোগ মোকাবিলায় ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণ বিধিমালা চূড়ান্ত করা জরুরি

© 2021 Bangla Tribune